নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

আমার নাম- রাজীব নূর খান। ভাবছি ব্যবসা করবো। ভালো লাগে পড়তে- লিখতে আর বুদ্ধিমান লোকদের সাথে আড্ডা দিতে। কোনো কুসংস্কারে আমার বিশ্বাস নেই। নিজের দেশটাকে অত্যাধিক ভালোবাসি। সৎ ও পরিশ্রমী মানুষদের শ্রদ্ধা করি।

রাজীব নুর

আমি একজন ভাল মানুষ বলেই নিজেকে দাবী করি। কারো দ্বিমত থাকলে সেটা তার সমস্যা।

রাজীব নুর › বিস্তারিত পোস্টঃ

রাস্তায় পাওয়া ডায়েরী থেকে- ১০৪

০৫ ই আগস্ট, ২০১৯ সকাল ৯:২৩



১। যে যত ঝুকেছে ধর্মের দিকে তার চিন্তাশক্তি , যুক্তি তত বেশীলোপ পেয়েছে।সমস্ত সমস্যার সমাধান খুজেছে পবিত্র গ্রন্থে ।ফলে মানসিক বিকাশের পরিবর্তে জন্ম নিয়েছে অন্ধত্বের।তাদের কাছে বিশ্বাসই মুখ্য এবং বিচার বুদ্ধি যুক্তি তর্ক গৌন।

২। পৃথিবীর সবকিছু ঠিকঠাক রেখে আল্লাহ বেহেশতে বসে আছেন- এর চাইতে স্বস্তিদায়ক আর কি হতে পারে ! সে নাস্তিক হিসেবে থেকে গেছে কারণ 'সে কে' এর উত্তর জানার জন্য ধর্মের যে কোন প্রয়োজন নেই তা আবিষ্কার করতে পেরেছে।

৩। আরজ আলী মাতব্বরের কথা হয়ত আপনারা সবাই শুনেছেন।নাস্তিকদের খুব প্রিয় ব্যক্তি হচ্ছেন উনি। উনি উনার বইয়ে কয়েকটি প্রশ্ন করেছেন। উনি প্রশ্ন করেছেন যে পৃথিবীর সৃষ্টিকর্তা যদি একজনই হন, তাহলে পৃথিবীতে এত ধর্ম কেন? চারিদিকে এত ধর্মের ছড়াছড়ি কেন ?

৪। ধর্ম নিয়ে খোলা আলোচনা কিংবা বিশ্লেষণ বাংলাদেশের সমাজ-ক্ষমতা অনুমোদন করে না। কিন্তু আবার সমাজ, মানুষ, মানুষের সাথে মানুষের সম্পর্ক, রাজনৈতিক প্রতিষ্ঠান, রাষ্ট্র, বন্ধন-নিপীড়ন-শৃঙ্খল এবং সেগুলো থেকে মুক্তি পাবার লড়াইয়ের বিষয় আলোচনা করতে গেলে ধর্মের প্রসঙ্গ এসেই যায়। এসব বিষয় নিয়ে আলোচনা করতে গেলে, একটা পথ পেতে গেলে ধর্মের প্রসঙ্গ নীরবে পাশ কাটিয়ে যাওয়া চলে না। এর কারণ কী? কারণ ধর্ম একটা বিশ্বাস হিসেবে যেরূপই ধারণ করুক না কেন এই ধর্মের মধ্যে আসলে বসবাস করে সমাজ। বসবাস করে সমাজের নানা বিধি, নিয়মনীতি, নৈতিকতা, অনুশাসন। সমাজের, রাষ্ট্রের বিধিই উপস্থিত হয় ঐশ্বরিক বিধান হিসেবে, ধর্মরূপে। এই ধর্মের মধ্যেই আবার থাকে, যেভাবে মার্কস বলেছিলেন, ‘‘হৃদয়হীনের হৃদয়, নিপীড়িতের দীর্ঘশ্বাস”।

৫। আমি আল্লাহর ইচ্ছার বিরুদ্ধে কিছুই করতে পারি না, কেউই পারে না। বহু চেস্টা করেও কোনো নবী-আম্বিয়া, দরবেশকে আমি দোজখবাসী করতে পারিনি। কেননা তাঁরা দোজখবাসী হোন, তা আল্লাহর ইচ্ছা নয়। পক্ষান্তরে হজরত ইব্রাহীম নমরুদকে, মুসা ফেরাউনকে, শেষ নবী(দ.) আবু জেহেলকে হেদায়েত করে বেহেস্তের তালিকায় নাম লেখতে পারেননি আপ্রাণ চেস্টা সত্বেও। কেননা তা আল্লাহর ইচ্ছা নয়।

মন্তব্য ২২ টি রেটিং +৪/-০

মন্তব্য (২২) মন্তব্য লিখুন

১| ০৫ ই আগস্ট, ২০১৯ সকাল ৯:৪৭

ইসিয়াক বলেছেন: ভালো লেগেছে।

০৫ ই আগস্ট, ২০১৯ সকাল ৯:৪৯

রাজীব নুর বলেছেন: ধন্যবাদ ভালো থাকুন। সুস্থ থাকুন। নামাজ পড়ুন। দেশ বাসীর জন্য দোয়া করুন। দেশের প্রতি দায়িত্ব পালন করুন।

২| ০৫ ই আগস্ট, ২০১৯ সকাল ৯:৪৮

ভাবুকলাল বলেছেন: সমাজে পাপের বিস্তারের সাথে সমানুপাতিক ভাবে বাড়ছে ধর্মান্ধতা,কারন প্রথাগত ধর্মে আছে পাপ মোচনের নানা পন্থা, তাই পাপীরা ধর্ম কর্ম করছে নিজেকে পাপ মুক্ত ভাবছে আবার পাপে লিপ্ত হচ্ছে। এ যেন এক ভিসিয়াস সার্কেল বা দুষ্টচক্র

০৫ ই আগস্ট, ২০১৯ সকাল ১০:০২

রাজীব নুর বলেছেন: মন্তব্যের জন্য অনেক ধন্যবাদ।

৩| ০৫ ই আগস্ট, ২০১৯ সকাল ৯:৫১

ইসিয়াক বলেছেন: +++

০৫ ই আগস্ট, ২০১৯ সকাল ১০:০২

রাজীব নুর বলেছেন: শুকরিয়া।

৪| ০৫ ই আগস্ট, ২০১৯ সকাল ১১:১০

জি এইস মেহেদী বলেছেন: মুসলিম এর ঘরে জন্ম নিলেই মুসলিম হওয়া যায় না,,, মুসলিম এইটা অর্জন করার বিষয়। যেমন উদা: ডাক্তার এর ছেলে ডাক্তার হতে পারে না,,, তাকে অর্জন করতে হয় ডাক্তার হওয়ার জন্য

এজন্য খুব সাবধান থাকতে হবে।

০৫ ই আগস্ট, ২০১৯ বিকাল ৫:১০

রাজীব নুর বলেছেন: জ্বী সাবধান থাকবো।

৫| ০৫ ই আগস্ট, ২০১৯ সকাল ১১:২৮

নূর আলম হিরণ বলেছেন: ধর্মকে অনেকে গুরুত্ব দিতে চায়না, আবার গুরুত্ব না দিয়েও থাকতে পারেনা।

০৫ ই আগস্ট, ২০১৯ বিকাল ৫:১১

রাজীব নুর বলেছেন: আত্মবিশ্বাস আর আত্মমর্যাদাটুকু ধরে রাখতে পারলে জীবনে আর কিছু লাগে না।

৬| ০৫ ই আগস্ট, ২০১৯ দুপুর ২:২৮

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন:
শুকরিয়া।
সবই আল্লাহ পাকের ইচ্ছে।

০৫ ই আগস্ট, ২০১৯ বিকাল ৫:১২

রাজীব নুর বলেছেন: রাসূল (সাঃ) বলেছেন, 'যে ব্যক্তি আল্লাহর উদ্দেশ্যে কাউকে ভালোবাসল, তাঁর জন্যই কাউকে ঘৃণা করল, তাঁরই সন্তুষ্টি অর্জনের জন্য কাউকে দান করল এবং তা থেকে বিরত থাকল তবে নিঃসন্দেহে সে নিজ ঈমানকে পূর্ণতা দান করল।' তাই বন্ধুত্ব যদি করতে হয় তাহলে
ইসলামের নির্দেশনা অনুসারে বন্ধু নির্বাচন করা উচিত। তাহলেই আমাদের জীবন হবে বিপদমুক্ত, নির্মল, ও আনন্দময়।

৭| ০৫ ই আগস্ট, ২০১৯ দুপুর ২:৪৯

জাহিদ হাসান বলেছেন: আল্লাহ বেহেশতে বসে নেই। সাত আকাশের উপরে আরসে কুরসিতে আছেন।
আর আরজ আলী মাতুবর চিন্তাশীল মানুষ ছিলেন। তিনি প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা না পেলেও সত্যিকারের জ্ঞান অর্জান করেছিলেন।

জাহিদ হাসান শিশির

০৫ ই আগস্ট, ২০১৯ বিকাল ৫:১৩

রাজীব নুর বলেছেন: যে লোক রোদ উঠলে ছাতা ধার দেয় আর বৃষ্টি শূরু হলেই ছাতা নিয়ে নেয় সে কখনো বন্ধু প্রকৃত বন্ধু হতে পারে না।

৮| ০৫ ই আগস্ট, ২০১৯ দুপুর ২:৫০

ঢাবিয়ান বলেছেন: সব কিছুর মাঝেই ব্যলেন্স প্রয়োজন। অতি ধার্মিকতা যেমন মানুষকে আহাম্মক বানাতে সক্ষম আবার নাস্তিকতাও মানুষকে অমানুষ বানাতে সক্ষম ।

০৫ ই আগস্ট, ২০১৯ বিকাল ৫:১৪

রাজীব নুর বলেছেন: খুব দুই বন্ধু সুন্দর বনে বেড়াতে গেল। হঠাৎ একটা বাঘ তাদের সামনে এসে হাজির!

১ম বন্ধু বাঘের চোখে একটা ঢিল মেরে দিল একটা দৌড় এবং ২য় বন্ধুকে বলল, দোস্ত, দৌড়ে পালা ....

২য় বন্ধুঃ আমি পালাবো কেন ? আমি কি বাঘের চোখে ঢিল মেরেছি নাকি? তুই বাঘের চোখে ঢিল মেরেছিস্ , তুই- ই দৌড়ে পালা !!

৯| ০৫ ই আগস্ট, ২০১৯ বিকাল ৫:৫৪

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: সুবহানাল্লাহ ! আল্লাহ সুবহানাতায়ালা কত সুন্দর করে কলা সৃষ্টি করেছেন। খেতেও কত চমৎকার। আলহামদুলিল্লাহ।

০৫ ই আগস্ট, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:২৯

রাজীব নুর বলেছেন: খুব দুই বন্ধু সুন্দর বনে বেড়াতে গেল। হঠাৎ একটা বাঘ তাদের সামনে এসে হাজির!

১ম বন্ধু বাঘের চোখে একটা ঢিল মেরে দিল একটা দৌড় এবং ২য় বন্ধুকে বলল, দোস্ত, দৌড়ে পালা ....

২য় বন্ধুঃ আমি পালাবো কেন ? আমি কি বাঘের চোখে ঢিল মেরেছি নাকি? তুই বাঘের চোখে ঢিল মেরেছিস্ , তুই- ই দৌড়ে পালা !!

১০| ০৫ ই আগস্ট, ২০১৯ রাত ১০:৩৫

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন:





মানুষ পিতামাতার পরিচয়ে ধর্ম লাভ করে। এর থেকে দুরে সরে যাওয়া অর্থ ধর্মান্তরিত বা নাস্তিকতা যা প্রতিটি ধর্মে মহাপাপ বলে ঘোষণা করা হয়েছে। ধর্ম কোনো পেশা নয় যে ডাক্তারের পুত্র ডাক্তর হতে পারেনা এই ধরনের উপমা দেয়া যায়।

বাংলাদেশের মানুষ জন্মগতভাবে যেমন বাংলাদেশী তেমনি জন্মগতভাবে মুসলিম। এবং একটু বেশীই মুসলিম।

০৬ ই আগস্ট, ২০১৯ সকাল ৯:১৬

রাজীব নুর বলেছেন: জন্মগত বাজে অভ্যাস গুলো বদলে ফেলা দরকার।

১১| ০৬ ই আগস্ট, ২০১৯ ভোর ৪:৩০

সুপারডুপার বলেছেন: প্রতিটি ধর্মে মোটামুটি ২ টি রূপ দেখা যায়
১) রীতিনীতি : যেমন : নেগেটিভ বলে ভয় দেখানো হয়। পজেটিভ বলে ভালো থাকতে বলা হয়। সংক্ষেপে : জাহান্নামের ভয় , জান্নাতের লোভ।
২) আধ্যাত্বিকতা : যেমন : যেখানে নেগেটিভ কি ? পজেটিভ কি? সাধনার মাধ্যমে বুঝতে বলা হয়।

১ নং সমাজব্যবস্থা ঠিক রাখতে। ২ নং সৃষ্টি ও সৃষ্টিকর্তার মর্ম বুঝার জন্য।

১ যারা কঠোর ভাবে মানে , তাদের জন্য ধর্মীয় উগ্রবাদ রুখতে , ২ এর খুবই প্রয়োজন।
২ যারা কঠোর ভাবে মানে, তাদের জন্য সমাজে পাগলামি ঠেকাতে , ১ এর খুবই প্রয়োজন।

যারা প্রকৃত নাস্তিক, তাদের ২ দিয়ে, মানে প্র্যাকটিকেল দিয়েই শুরু করা উচিত।

আর শুধু ইসলাম বিরোধীদের , নাস্তিক খোলস ত্যাগ করে , যে ধর্মের সে মনের ভিতরে সুনাম গায় / সমর্থন করে , সেই ধর্ম গ্রহণ করা উচিত।

১২| ০৬ ই আগস্ট, ২০১৯ সকাল ৯:১৮

রাজীব নুর বলেছেন: ধর্ম আসলে কোনঠাসা হয়ে গেছে আজকের দুনিয়াতে।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.