নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

তোমার আর আমার দূরত্ব রাস্তার এপার ওপার।তুমি দাড়িয়ে আছো আমার আশায়আমি অপেক্ষায় আছি যাবো কখন!waiting for a loyal heart!

মেঘ প্রিয় বালক

একটা কৃষ্ণচূড়া গাছ। শুষ্ক অঞ্চলে গ্রীষ্মকালে কৃষ্ণচূড়ার পাতা ঝরে গেলেও, নাতিষীতোষ্ণ অঞ্চলে এটি চিরসবুজ।

মেঘ প্রিয় বালক › বিস্তারিত পোস্টঃ

ভালোবাস তাকে,যার কারনে পৃথিবি দেখেছো!

০৭ ই জানুয়ারি, ২০১৯ রাত ৩:৩৩


দৃশ্যপট:-(১১)
আমাদের মা আমাদেরকে কতটুকু ভালবাসেন,বলতে গেলে আমরা ভাষা হারিয়ে ফেলি।
কোনটা রেখে কোনটা বলবো,দ্বিধাদ্বন্দ্বে পড়ে যাই।
আসলে মায়ের অন্তরে আল্লাহ এমন কি জিনিস স্হাপন করেছেন,আমার জানা নেই।
একজন মা, প্রসবকালে কতটুকু যন্ত্রণা সহ্য করে জানতে চান?১০০০ বিষধর সাপ আপনাকে প্রতিটা সেকেন্ডে
এক সাথে ছোবল দিলে কতটুকু ব্যাথা অনুভব করবেন আপনি?একবার ভাবুন,তারচেয়েও হাজারগুন ব্যাথা অনুভব করে একজন মা যখন তার কোন ছেলে বা মেয়েকে প্রসব করে।
এরপর তো সারারাত আপনাকে নিয়ে ভাবা নিজে না ঘুমিয়ে,এই আমার সন্তানের ঘুমের সমস্যা হচ্ছে না তো?
প্রশ্রাব করলো কিনা,টয়লেট করলো কিনা?কাথা টা পরিবর্তন করতে হবে কিনা?
ধীরে ধীরে আপনি বসতে শিখলেন নিজ মায়ের কাছ থেকে,তারপর বলতে শিখলেন, তারপর হাটতে শিখলেন।
এভাবে আপনার বেড়ে উঠা,এক পর্যায়ে আপনি একজন টগবগে যুবকে অংকিত হলেন,আপনার বিয়ে হলো,এখন ২ দিনের কোন এক মেয়ের জন্য আপনি আপনার মায়ের সাথে খারাপ আচরন, রাগ করা,অবশেষে এক পর্যায়ে মাকে বৃদ্ধাশ্রমে রেখে আসা!
এতকিছু করার পরেও মা কোনদিন এ কথা আপনাকে বলেনি,বাবা তুমি কি কখনো আমাকে নিয়ে ভেবেছো?
আমি তোমার আরামের ঘুমের জন্য কত রাত নিজে না ঘুমিয়ে রাত কাটিয়েছি?
তোমার বুঝ হওয়ার আগ পর্যন্ত তোমাকে ২৪ ঘন্টা আমার চোখের আড়াল হতে দেইনি।
তুমি চোখের আড়াল হওয়ার আগেই তোমাকে খুজে নিয়েছি,কারন কোনটা তোমার জন্য ভালো, মন্দ ,ক্ষতি করবে,সে বুঝ হয়নি তোমার! যদি তুমি আগুনে হাত দেও,তোমার হাত পুড়ার আগে আমার কলিজা পুড়বে!
তুমি আঘাত পেলে,আমার হৃদয়ে আঘাত লাগে।
তোমাকে বড় করার জন্য নিজেকে তিলে তিলে শেষ করেছি,আর তুমি আমাকে বৃদ্ধাশ্রমে রেখে গেলে?
তোমার কাছে আমি কি এখন এত ভারী বোঝা যা তুমি বহন করতে পারছোনা?
এসব কথা বলার অধিকার থাকা সত্বেও নিজের সন্তানের মন খারাপ হবে বলে আর বলেনা।
মা দুইদিক নিয়ে ভাবে,এক সন্তানের জন্য,দুই নিজের জন্য,আর এ ভাবনাতে তুমি নামক সন্তানকে নিয়ে ভাবনার জয় হয়।

এখন বলবো মাকে নিয়ে একটি সত্য ঘটনা।
আমি যখন ক্লাস ফাইভ এ পড়ি,তখন আমার বাবা আমাদের জন্য কিছু কবুতর নিয়ে আসে দুপুরে খাবারের জন্য।
আম্মুু সকাল ১০ টা থেকে ২ টা পর্যন্ত কবুতর কাটাকাটি করে পরিস্কার করে রান্না শেষ করলো।
আমরা ২ ভাই ১ বোন,বোন আমার থেকে ৩ বছরের বড়,আর ঘরে সবার ছোট আমি।
নানা বিষয় নিয়া শুধু বোনের সাথেই ঝগড়া হত,ঝগড়া করতাম আমিই বেশি।
কারণ আমি ভাবতাম,আমি ছোট বলে আমাকে সবাই ঠোকায়,আমাকে এটা কম দিলো কেন?বোনকে বেশি দিছে!
আমাকে ঈদের সালামি কেন কম দিলো?বোনকে বেশি টাকা দিছে?
এগুলা নিয়া আমি হিংসা করতাম,আর আম্মু আব্বু আমার রাগ আর কান্না দেখে হাসত।
আর বাবা বলত,তোর বোন ত একদিন চলে যাবে,তখন এসবি ত তোর!
দিনশেষে আমি কিন্তুু আম্মুর পাশেই ঘুমাতাম।
তো আম্মু কবুতরের তরকারী নিয়ে যেন দুই ভাই বোন কোন ঝগড়া না করি সে জন্য আগেই প্ল্যান করে রাখছে।
গোসল শেষে যখন সবাই খাবার খেতে বসলাম তখন আম্মু আমার কানে কানে ফিসফিস করে বলতেছে শোন,
তোরে কিন্তুু কবুতরের মাথা+ঠেং+কলিজা+আর রানের পিছটা দিছি,তোর বোনকে কিন্তুু বলিছ না।তুই চুপ করে খেয়ে উঠ।।।
কিছুক্ষণ পর আম্মু আমার বোনের কানে কানে ফিসফিস করে কি যেন বললো?
এদিকে আমি ত খুব খুশি।যে আজকে জিতে গেছি বোনের সাথে।
খাওয়া দাওয়া শেষে যে যার মত।
সন্ধ্যায় পড়তে বসে আমার খেয়াল হল,আম্মু কি যেন বলছে বোনের কানে?
বিষয়টা জানা দরকার!
আমি বোনকে ডাক দিলাম,বোইনা???
বোন বললো?কি? অন্যসময় ত নাম ছাড়া আমারে ডাকছ না!
আজকে হঠাৎ বোইনা???কি বলবি,বল?
আমি বললাম,আরে তুই তো আমার বোইন,,এমন করে বলোছ কেন??
শোন,আম্মু তোকে আজ দুপুরে খাবারের সময় কানে কানে কি কইছে রে,,,,???
বলনা আমায়??
আরে না,,,,আম্মু না করছে তোকে বলতে?বললে নাকি সমস্যা হবে!!
আমি বললাম,শোন আমি কাউকেই বলবোনা,তুই ক,,,,,,কি কইছে মায় তোরে?
বোইনা না ভালা ক?তুই তোরটা ক মায় কানে কানে কি কইছে তোরে,,?তুই তোরটা বললে আমিও আমারটা বলবো,মায় আমারে কানে কানে কি কইছে?
অনেক কষ্ট আর নানা বাহানা করে যা জানতে পারলাম সেটা হলো,আম্মু নাকি ওরে (বোনকে) কানে কানে বলছে যে ওরে নাকি কবুতরের গিলা+কলিজা+ঠেং+গলা+আর বুকের পিছটা দিছে আর বলছে আমারে না কইতে???
শুনে আবারও মন খারাপ হলো আমার,কি আর করার,ভাবছিলাম আজ দুপুরে আমি বিজয়ী হয়েছি, কিন্তুু এসব শোনার পর বিজয়ের আনন্দ মন শোকে পরিণত হয়েছে।।।
আর আমারটা শুনে বোইনা ত হাসতে হাসতে শেষ।।
পরেরদিন দুপুরে সবাই যখন খেতে বসলাম,আম্মুু আমারে রুুই মাছের মাথা টা আমার প্লেটে দিছে,আমি আম্মুরে বললাম,হইছে,,,আমারে মাছের মাথা দিতে হবেনা,তোমার মাইয়ারে দেও,বড় মাছের মাথাটা দেও।
আম্মুর বুঝার আর বাকী রইলো না,,,,,কিসের জন্য কথাটা বলেছি।
বাবা মা দুজনেই হাসতে হাসতে শেষ,আম্মু শেষমেষ কপালে চুমু দিয়ে বললো,,,বাবা সবার থেকে তোকেই সবচেয়ে বেশি ভালোবাসি।
তারপরেও তোর মন ভরে না! তোর এত হিংসা কেন?তোর বোনের প্রতি??
তোর বোন ত একদিন চলে যাবে আরেকজনের বাড়ীতে,ততদিন পর্যন্ত একটু হিংসাটা কমা!
চলে গেলে পরে ত তুই ও কান্না করবি বোনের জন্য।।।।
এতো হিংসা করতে নেই বাবা।
আজ ২২ বছর বয়সে যখন কবুতরের ভুনা তরকারী দেখি,ঘটনাটা মনে পড়ে,আর নিজে নিজে একা একাই হাসি।
আমার মা,আমাদেরকে কিভাবে ভালবাসতেন।
আম্মুকে এ ঘটনা বললেই হাসে।
সৌদি আরব আসার পরেও আমি কিন্তুু আমার মার সাথে ঘন্টার পর ঘন্টা কথা বলি।
সব ছেলেরা কিন্তুু আমার মত মায়ের সাথে ঘন্টার পর ঘন্টা কথা বলতে পারেনা।
সর্বোচ্চ ১ থেকে ২ মিনিট কথা বলে।
নিজের এক্সপেরিয়েন্স থেকে বলছি নিজের মায়ের সাথে ঘন্টার পর ঘন্টা কথা বলার চেষ্টা করুুন,মনের সব কথা খুলে বলুন।
দেখবেন মনটা ভালো থাকবে.একাকীত্ব কখনোই অনুভব হবেনা।
আমি এখনো কোন মেয়ের প্রেমিক হতে পারিনি,কারন আমার মত ঘন্টার পর ঘন্টা মার সাথে কথা সবাই বলতে পারেনা,,,,,
আমার মত মা পাগল ছেলেরা এমনি হয়।
আগামী বছরে আল্লাহ তাওফিক দিলে আম্মুকে নিয়ে এক সাথে হজ্জ আদায় করবো ইনশাআল্লাহ।




মন্তব্য ১০ টি রেটিং +৩/-০

মন্তব্য (১০) মন্তব্য লিখুন

১| ০৭ ই জানুয়ারি, ২০১৯ ভোর ৬:২৪

ইফতেখার ভূইয়া বলেছেন: আপনার লিখা পড়ে ভালো লাগলো। আসলে আমাদের বাঙালী মা'রা এমনই হয়। শুনে ভালো লাগলো যে আপনি আপনার মা'কে নিয়ে হজ্জে যেতে চাচ্ছেন। খুবই ভালো ইচ্ছে, আশা করছি আল্লাহ রাব্বুল আলামিন আপানদের সেই তওফিক দেবেন আর আপনাদের হজ্জও কবুল করে নেবেন। আমার মা-বাবা হ্জ্ব করেছেন ২০১০ -এ, ইচ্ছে থাকা সত্ত্বেও আমার এখনো হয়ে ওঠেনি। তবে ইচ্ছে আছে, আমার ছেলেটা একটু বড় হলে ওকে নিয়ে আমার স্ত্রী আার আমিও হজ্জটা করে আসবো। বাকিটা উপরওয়ালার হাতে থাকছে। ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন। আর মা'কে আমার সালাম জানাবেন। ধন্যবাদ।

০৭ ই জানুয়ারি, ২০১৯ সকাল ১১:৫৪

মেঘ প্রিয় বালক বলেছেন: আমিন,আল্লাহ আপনার ও মন কামনা পূরন করুুক।আমি সৌদি আরবেই থাকি। যদি আল্লাহ কোনদিন আপনাকে হজ্জে আনায়,তাহলে ফোন দিয়েন,যেভাবেই হোক,আপনাকে সর্বাত্মক সহযোগিতার করবো ইনশাআল্লাহ।আমার নাম্বার:-+৯৬৬৫০০৬৭৩৮৪১

২| ০৭ ই জানুয়ারি, ২০১৯ সকাল ৮:০০

রাজীব নুর বলেছেন: খুব ভালো একটা চিন্তা করেছেন। মাকে নিয়ে হজে যাবেন। আল্লাহ আপনার মনের এই নেক ইচ্ছা পূরন করুক।

০৭ ই জানুয়ারি, ২০১৯ সকাল ১১:৫৫

মেঘ প্রিয় বালক বলেছেন: আমিন।

৩| ০৭ ই জানুয়ারি, ২০১৯ সকাল ১০:৪৮

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: বাঙালী মায়েরা এমনই :)

১৯ শে মে, ২০১৯ বিকাল ৩:৩২

মেঘ প্রিয় বালক বলেছেন: বাঙালী মায়েরা একটু বেশি আবেগী আর মমতাময়ী হয়।

৪| ০৭ ই জানুয়ারি, ২০১৯ সকাল ১০:৫২

আরোহী আশা বলেছেন: সুন্দর গল্প........

পৃথিবী হবে

০৭ ই জানুয়ারি, ২০১৯ সকাল ১১:৫৬

মেঘ প্রিয় বালক বলেছেন: ধন্যবাদ

৫| ০৮ ই জানুয়ারি, ২০১৯ সকাল ১১:৫৯

সৈয়দ তাজুল ইসলাম বলেছেন:
অনেক সুন্দর গল্প তো।


ব্লগে স্বাগতম


লেখায় প্লাস+++

০৮ ই জানুয়ারি, ২০১৯ দুপুর ২:১৯

মেঘ প্রিয় বালক বলেছেন: ধন্যবাদ

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.