নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

আমি সাধারণ মানুষ ৷দশের সাথে চলতে চাই ৷

শাহিন-৯৯

সত্যের পরাজয় বলতে কিছু নেই, পরাজিত বলতে যা দেখি তা হল কুচক্রিদের সাময়কি সাফল্য, সত্যের জয় চিরন্তন

শাহিন-৯৯ › বিস্তারিত পোস্টঃ

রাজনৈতিকভাবে কি বিএনপিকে নিচিহ্ন করে ফেলা সম্ভব?

১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ভোর ৪:২১



ব্লগে এক দল বুদ্ধিজীবি চায় বিএনপিকে ব্যান করা হোক, আর এই দলটির সদস্যরা মোটামুটি আকিদাগত দিক দিয়ে কমনিউজম ধারার বিশ্বাসী। এই দলের লোকজন এক সময় পশ্চিম বাংলা থেকে অবৈধ অস্ত্র এনে গ্রাম, শহরে সন্ত্রাস করে রাজনৈতিক ফায়দা নিতো, এখন আর সেই রমরমা অস্ত্রের ঝনঝনানি নেই তাই শত্রু হলেও ক্ষমতার লোভে আওয়ামলীগের পা চেটে কোনভাবে দিন পার করছে। এদের কোনকালে এই দেশে জনসমর্থন ছিল না যা দিয়ে রাষ্ট্র ক্ষমতায় যাওয়া যায়, রাষ্ট্র ক্ষমতায় যাওয়ার একমাত্র পথ ছিল অবৈধ পন্থায়। খালেদ মোশারফকের সামরিক অভ্যূথানের সময় তারা একটি সুবর্ণ সুযোগ পায়, সেনাবাহিনীতে জিয়াউর রহমানের জনপ্রিয়তা কাজে লাগিয়ে তারা জিয়াকে সামনে রেখে কর্নেল তাহেরের হাত ধরে রাষ্ট্র ক্ষমতায় যেতে চেয়েছিল, কিন্তু বুদ্ধিমান জিয়াউর রহমানের কারণে তাদের সেই স্বপ্ন চিরদিনের জন্য ভঙ্গ হয়। ক্ষমতার কাছ থেকে ফিরে আসা এই বামরা এখনো কষ্টে জ্বলছে। তাদের এখন একটায় টার্গেট জিয়াকে ভিলেন হিসাবে তুলে ধরা আর তার তৈরী করা দল নিচিহ্ন করা।
আসলে কি বিএনপিকে নিচিহ্ন করা সম্ভব?
রাজনৈতিকভাবে বিএনপিকে কোনভাবে নিচিহ্ন করা সম্ভব নয়, কারণ একটি দল টিকে থাকার জন্য যতগুলো শর্ত দরকার তা বিএনপির আছে, তবে হ্যাঁ রাজনৈতিক খেলায় হয়তো কোনঠাঁসা করে রাখা সম্ভব তবে বেশিদিন সম্ভব নয়।

১) বিএনপির প্রতিষ্টাতা জিয়াউর রহমান বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদের বিশ্বাসী ছিলেন তিনি এই বার্তা জনগনের কাছে পেীঁছাতে পেরে ছিলেন, এ দেশের মানুষ তাঁর এই বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদের ধারণাকে স্বাগত জানিয়ে ছিল, এবং এদেশের উল্লেখযোগ্য মানুষ এই বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদে বিশ্বাসী, তাই এই দল নিচিহ্ন হওয়ার কোন সুযোগ নেই।

২) উপমহাদেশের আঞ্চলিক রাজনীতি বিএনপিকে টিকিয়ে রাখবে, আওয়ামলীগ ভারতপন্ত্রী রাজনৈতিক দল হিসাবে এ দেশে পরিচিত আর এদেশের উল্লেখযোগ্য লোক ভারত বিরূধী, তাঁরা ভারতের দাদগিরি পছন্দ করে না।

একটু ভিন্ন কথা বলি, আওয়ামলীগ আর বামদের অভিযোগ বিএনপি পাকিপন্থী, পাকিস্থানের সাথে তাদের অন্তরঙ্গ বন্ধত্ব। এটি এই দুগ্রুপের কমন অভিযোগ। আমি এখানে একটি ভিডিও দিচ্ছি, অনুগ্রহ করে শেষ পর্যন্ত দেখবেন তারপর আপনাদের মতামত জানাবেন।
কে প্রথম পাকিস্থানীদের সাথে অন্তরঙ্গ হয়েছিল, আর কারা জিন্দাবাদ স্লোগান দিত।
ভিডিওটি বিএনপি সমর্থক কর্তৃক সরাবরাহকৃত তাই সেখানে হালকা অতিরঞ্জিত আছে তবে মূল বিষয় স্পষ্ট।

মন্তব্য ২০ টি রেটিং +০/-০

মন্তব্য (২০) মন্তব্য লিখুন

১| ১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ভোর ৫:০৭

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন:





আওয়ামী লীগ + বিএনপি+ জামাত তিনটি ভগ্ন দল মিলে একটি পূর্ণাঙ্গ দল। ১৯৯০ যারা ভুলে গেছেন তারা এটি মানতে চাইবেন না। কিন্তু আমার কাছে ১৯৯০ বেশী দিন আগের কথা না, এই তো সেদিন বেলা বেলা দিন হয়ে গেলো। বাংলাদেশে স্বৈরাচার এরশাদ জীবিত নেই, তারপরও যদি জাতীয় পার্টি কোনোদিন একক ভাবে ক্ষমতায় আসে ঠিক তার পরের দিন “আওয়ামী লীগ + বিএনপি+ জামাত” একটি নতুন দল হিসেবে ঘোষণা দিবে।

বিএনপি থাকবে।


১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:২৩

শাহিন-৯৯ বলেছেন:



জাতীয় পার্টি নির্বাচন করে এ দেশে কখনো আবার ক্ষমতায় আমি বিশ্বাস করি না।

২| ১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ভোর ৫:১৩

ডার্ক ম্যান বলেছেন: বিএনপির রাজনীতি বলতে কিছু কি আছে এখন? ??
বিএনপি জাতীয় পার্টির জন্ম স্বাভাবিক ভাবে হয় নি । তাই এদের শেষ ও স্বাভাবিক ভাবে হবে না

১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:২৪

শাহিন-৯৯ বলেছেন:




সময় অনেক কিছুর সিধান্ত নিতে বাধ্য করে, দেখা যাক ভবিষ্যৎ কি হয়।

৩| ১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ভোর ৫:১৪

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন:





এখন আর সেই রমরমা অস্ত্রের ঝনঝনানি নেই তাই শত্রু হলেও ক্ষমতার লোভে আওয়ামলীগের পা চেটে কোনভাবে দিন পার করছে। - এতো কিছু লিখতে যথেষ্ট কষ্ট করেছেন তারপরও নিজেকে ছোট করছেন কেনো। আজেবাজে শব্দ পরিহার করুন। - এগুলো কবে শিখবেন?


১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:২৬

শাহিন-৯৯ বলেছেন:





মাথায় রাখলাম আপনার উপদেশ, দুঃখিত এরকম শব্দ ব্যবহার করার জন্য।

৪| ১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সকাল ৮:১৮

জগতারন বলেছেন: যারা জিয়াকে মুক্তিযুদ্ধের হিরো বানাতে চায় তারা একটা মিথ্যাকে জোর করে প্রতিষ্ঠা করতে চায়।
জিয়া ছিল ১১ জন সেক্টর কমাণ্ডারের একজন মাত্র।
ঘটনাচক্রে সে বঙ্গবন্ধুর স্বাধীনতার ঘোষনাকে রেডিওতে পাঠ করে মাত্র।
জিয়ার চেয়েও শতগুন বীরত্ব দিয়ে অনেক মুক্তিযোদ্ধা লড়াই করেছে, বরং
জিয়া পাকিস্তানিদের বিরুদ্ধে সরাসরি কোন লড়াই করেছে তেমন কোন দলীল নেই।
বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে সে পাকিস্তানপন্থি রাজনীতি কায়েম করেছে।
মুক্তিযুদ্ধের শ্লোগান জয়বাংলা মুছে পাকিস্তান জিন্দাবাদ স্টাইলে বাংলাদেশ জিন্দাবাদ বানিয়েছে।
বাংলাদেশ বেতার মুছে রেডিও পাকিস্তানের মত রেডিও বাংলাদেশ করেছে।
একাত্তরের ভয়ংকর রাজাকার গোলাম আজমকে নাগরিকত্ব দিয়ে নিষিদ্ধ জামাতকে পুনপ্রতিষ্ঠা করেছে। ছাত্রসংঘ থেকে ছাত্রশিবির বানিয়ে তাদের অস্ত্রের হিংস্রতায় প্রশ্রয় দিয়েছে।
মেধাবী ছাত্র অভি নীরুদের হিজবুল বাহারে বিহার করিয়ে হাতে অস্ত্র ধরিয়ে ছাত্ররাজনীতির পঁচন ধরিয়েছে। এরকম অসংখ্য পাপের কলংক তার ঝুলিতে রয়েছে।

১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:৩১

শাহিন-৯৯ বলেছেন:




আপনার কথা শুনে হচ্ছে আমাদের স্বাধীনতা ঘঠনাচক্রে হয়েছে!! বিদ্রোহ করতে বুকে সাহস লাগে। ভিডিওটি পূর্ণ দেখেছেন? মনে হয় দেখেননি, জিন্দাবাদ স্লোগান কারা দিচ্ছে ভাল করে দেখুন।

৫| ১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সকাল ৮:৪৩

চাঁদগাজী বলেছেন:


বার্মায় এখনো মিলিটারীর সাপোর্টার আছে, মিলিটারী ওখানে ৫৭ বছর আছে; আইয়ুব খান পাকিস্তানের ক্ষমতা দখল করার পর, পুর্ব পাকিস্তানের ৩ ভাগের ১ ভাগ মানুষ তাকে সাপোর্ট করে; যু্দ্ধের সময়, ইয়াহিয়া খানের পক্ষে ১কোটী ৫০ লাখ বাংগালী, ৫৫ হাজার রাজাকার ও ৫ হাজার আলবদর ছিলো; জিয়া যখন মুক্তিযোদ্ধাদের ফাঁসী দিচ্ছিল, ৪ কোটী বাংগালী জিয়ার পক্ষে ছিল; এদের মাঝে আপনিও ছিলেন।

১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:৩৫

শাহিন-৯৯ বলেছেন:



মুক্তিযোদ্ধাদের প্রথম হত্যা শুরু করেছিল কে? একটু বলবেন?
গণবাহিনীর মুক্তিযোদ্ধাদের কারা হত্যা করেছিল?
রক্ষীবাহিনীর মুক্তযোদ্ধাদের কারা ধরে নিয়ে নির্মম হত্যা করতো?

৬| ১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সকাল ৯:১৯

রাজীব নুর বলেছেন: বিএনপি ক্ষমতায় থাকা কালীন এমন কোনো ভালো কাজ করে নি। এমনকি কিয়াউর রহমান রাষ্ট্রপতি থাকা অবস্থায় রাজাকারদের ক্ষমতায় বসিয়েছেন এবং বঙ্গবন্ধু হত্যাকারীদের বিচার করেন নি। এটা অনেক বড় অপরাধ।

তাই আমাদের দেশে বিএনপির দরকার নাই। অবশ্য অলরেডি তাদের কোমর ভেঙ্গে গেছে।

১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:৩৮

শাহিন-৯৯ বলেছেন:




পঞ্চম শ্রেণী পর্যন্ত ফ্রি পড়াশোনা সম্ভবত ৯১ সালে খালেদা সরকার চালু করেছিল। শিক্ষা সংক্রান্ত মন্ত্রণালয়গুলো একটু খোঁজ নিবেন, কাদের আমলে এগুলো যাত্রা শুরু করেছিল।

৭| ১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সকাল ১০:৩৪

বিচার মানি তালগাছ আমার বলেছেন: ১৯৭৫-এর পর যেহেতু আওয়ামী লীগ নিশ্চিহ্ন হয়নি, তাই বিএনপি-ও হবে না...

১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:৩৯

শাহিন-৯৯ বলেছেন:




" বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদ " এই স্লোগান যতদিন আছে বিএনপি আশাকরি ততদিন থাকবে।

৮| ১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৪:৫২

পাঠকের প্রতিক্রিয়া ! বলেছেন: আমরা জাতী হিসেবে বাঙালী, নাগরিক হিসেবে বাংলাদেশী। সাংবিধানিক কথা। এনিয়ে রাজনীতি করার কিছু নেই।

ভিডিওটা দেখিনি, তবে ১৯৭২এর ২৬শে মার্চে বঙ্গবন্ধুর ভাষনের সময় শ্লোগানে ও ব্যানারে জিন্দাবাদ ব্যবহার করা হয়েছিল
"মুজিববাদ মুজিববাদ" জিন্দাবাদ জিন্দাবাদ"। সমস্যা হয় তখন যখন জয় বাংলাকে কাট করে জিন্দাবাদ চালু করা হয়। মাত্রাতিরিক্ত যে কোন চেতনাই ক্ষতিকর।

কংগ্রেস, মুসলিম লীগ একসময় দাপিয়ে বেড়িয়েছে, এখন করুন অবস্থা। ক্ষমতা আর জনপ্রিয়তা সময়ের সাথে পরিবর্তন হয়। আমরা বরাবরই গা বাঁচিয়ে চলা জাতি, আমাদের ক্ষেত্রে এটা বেশী প্রযোজ্য।
বিএনপি থাকবে কিনা তার চেয়েও বড় কথা দেশে শক্তিশালী বিরোধীদলের দরকার।

[চাপাই এর সংসদ সদস্য হারুন সাহেবের বক্তব্য বেশ লাগে]

১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৫:২০

শাহিন-৯৯ বলেছেন:




জয় বাংলা, জিন্দাবাদ নিয়ে আমি সমস্যা দেখি না, সমস্যা দেখি তখন এই শব্দগুলো বিভেদ সৃষ্টিতে ব্যবহার হচ্ছে এবং এটাই চেতনা হিসাবে ধরা হচ্ছে।

৯| ১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৫:০০

পাঠকের প্রতিক্রিয়া ! বলেছেন: মন্তব্যটা পুরো আসে নি

বিএনপি থাকবে কিনা তার চেয়েও বড় কথা দেশে একটা শক্তিশালী বিরোধীদলের দরকার। দেশের বেশীরভাগ মানুষ লীগমুখি, এদিকে লীগ বরাবরই বলে আসছে তারাই একমাত্র স্বাধীনতার পক্ষের শক্তি। তর্কের খাতিরে লীগের কথাকেই যদি সত্য ধরে নেই, তবে স্বাধীনতার পক্ষের আরেকটা দলচাই।

১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৫:২৪

শাহিন-৯৯ বলেছেন:




বিএনপিতে মুক্তিযোদ্ধার সদস্য কম নেই, লীগের দাবি ভুল।
শক্তিশালী বিরোধী দল খুবই দরকার, তানাহলে গণতন্ত্রহীন হবে দেশ আর বালিশ পর্দা ডাকাতি জাতিকে শেষ করে দিবে।

১০| ১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৫:২২

দার্শনিক ইমরান বলেছেন: রাজনীতিকে রাজনীতির পথে ছেড়ে দিলেই ভালো। বিএনপি আর আঃ লীগ একই মুদ্রার এপিঠ-ওপিঠ। হাজারো অপকর্মের হোতা এ দু'দল। রাজনৈতিক দিক থেকে এদের নৈতিকতাও এক। অপরদিকে জামাত - আর জাতীয় পার্টিও এক গ্রুপের। এদের আঃ লীগ- বিএনপির উপদল মনে করতে পারেন। অন্যের উপর কাঁঠাল রেখে খায় এরা।

২০০১-২০০৬ এ বিএনপির অত্যাচারে আওয়ামী লীগও এরকম প্রায় নিশ্চিহ্ন হয়ে যাচ্ছিলো। এখন যেমনটা বিএনপির বেলায় হচ্ছে। তখন মনে হয়েছিলো আঃ লীগ '৭৫ এর মতো আবারো ব্যাকগ্রাউন্ডে চলে যাবে। কিন্তু যায়নি। যেহেতু আঃ লীগ এতো কিছুর পরেও টিকে ছিলো, তাহলে ধরে নিতে হবে মুদ্রার অপর পিঠ বিএনপিও টিকে থাকবে। না হলে খেলাটা হবে কার সাথে?

১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৫:৩১

শাহিন-৯৯ বলেছেন:




বেশ ভাল বলেছেন, সমস্যা হচ্ছে ভোটহীন গণতন্ত্র দেখছে দেশ, যা দেশের জন্য কল্যাণকর নয়, তারেক গং ১০% কমিশন নাকি খেত আর এখন বালিশ পর্দা তো ইতিহাস করে ফেলছে। চোরকে ঠেকাতে ডাকাত পোষা জাতির জন্য শুভ নয়।

জামাতের সাংগঠনিক ভিত্তি মজবুত, জাপা রংপুর দল।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.