নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

জীবনকে যারা উপভোগ করতে চান, আমি তাঁদের একজন। সহজ-সরল চিন্তা-ভাবনা করার চেষ্টা করি। আর, খুব ভালো আইডিয়া দিতে পারি।

সত্যপথিক শাইয়্যান

অন্যদের সেভাবেই দেখি, নিজেকে যেভাবে দেখতে চাই। যে বিষয়গুলো নিয়ে লেখার চেষ্টা করি- মোটিভেশনাল গল্প-কাহিনী-প্রবন্ধ, ছড়া এবং কবিতা

সত্যপথিক শাইয়্যান › বিস্তারিত পোস্টঃ

বেঁচে থাকার আনন্দে বলুন- \'চিহ্হ্হ্!\'

১৩ ই মার্চ, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:৩৩



কথায় আছে- ''ঠেলার নাম বাবাজী।'' কথাটা মজা করে বলা হলেও যারা জীবনে এমন ঠেলা বা ধাক্কা খেয়েছেন তারা যদি একটু পিছু ফিরে দেখেন তাহলে বুঝতে পারবেন যে, সেই ধাক্কা না খেলে জীবনের অনেক কিছুই অপূর্ণ থেকে যেত। সেই ধাক্কাই জীবনের চলার পথে মানুষকে এগিয়ে দেয়।

ঈগলের দিকে লক্ষ্য করে দেখেছেন কি? কিভাবেই না ঈগল মা তার ছানাদের একে একে বাসা থেকে ধাক্কা দিয়ে শুন্যে ভাসিয়ে দেয়, মৃত্যুর ঝুঁকি থাকা সত্যেও!

তার মনে তখন সন্দেহের দোলা- ''পারবে তো তার ছানাগুলো বাতাসে ভাসতে?'' সব সন্দেহ ঝেড়ে ফেলে নিজের মায়ের কাছ থেকে ছোটবেলায় শেখা শিক্ষাগুলো কাজে লাগায় সে। নিজ মাথা দিয়ে ঠেলে বাতাসে ভাসিয়ে দেয় ছানাদের। মা হিসেবে এটাই হয়তো তার সর্বোচ্চ উপহার।

অন্যদিকে, বাচ্চাগুলোর মনে অবস্থা চিন্তার করে দেখুন। যে জন্মদাত্রী মা মুখে তুলে এতোদিন খাইয়েছে, সেই মা-ই তাদেরকে উঁচু বাসা থেকে এভাবে ঠেলে ফেলে দিচ্ছে! নিচে কঠিন জমি। সেখানে পড়লে নির্ঘাত প্রাণ যাবে। মনটা ভেঙ্গে চুরমার হয়ে যায় তাদের।
মায়ের কাছ থেকে একে একে ধাক্কা খেয়ে পড়ে যাওয়া বাচ্চাগুলো প্রথমে বুঝতে পারে না কি করবে। নিরেট পাথরের মতো পড়ে যেতে থাকে মাটির দিকে যেখানে মৃত্যু অপেক্ষা করছে।

বাঁচার আপ্রাণ চেষ্টায় শূণ্যে কখনো চরকির মতো পাক খেতে থাকে তাদের দেহ, আবার কখনো ডান বা বামে কাত হয়ে ডান ঝাপ্টিয়ে চেষ্টা করতে থাকে বাঁচার। তাদের দূর্বল ডানাগুলো প্রবল বাতাসের ধাক্কায় কুলিয়ে উঠতে পারে না।

মাটি আর মাত্র কয়েক গজ দূর। এ সময় তাদের বেঁচে থাকার প্রবল চেষ্টা নিজেদের মাঝে থাকা সহজাত প্রবৃত্তি থেকে বের করে আনে কিভাবে বাতাসে ভেসে থাকতে হয় সেই শিক্ষা।

ঈগল ছানা বাতাসে ডানা মেলে পরিপূর্ণ ভাবে। বেঁচে থাকার আনন্দে পাহাড়ী প্রান্ত জুড়ে তার উল্লাসের ধ্বনি ছড়িয়ে পড়ে- 'চিহ্হ্হ্!'
মুক্ত আকাশে ডানা মেলে নতুন এক শিকারী।

মন্তব্য ১২ টি রেটিং +০/-০

মন্তব্য (১২) মন্তব্য লিখুন

১| ১৩ ই মার্চ, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:০৬

রাজীব নুর বলেছেন: মানুষ তো আর ঈগল না।

১৯ শে মার্চ, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:০৫

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন: ঈগলও তো মানুষ না!!! :)

শুভেচ্ছা।

২| ১৩ ই মার্চ, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৫৫

মাহমুদুর রহমান বলেছেন: চমৎকার লাগলো।

১৯ শে মার্চ, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:০৬

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ। শুভেচ্ছা।

৩| ১৫ ই মার্চ, ২০১৯ রাত ২:২১

আকতার আর হোসাইন বলেছেন: অনুপ্রেরণাদদায়ক লেখা। অসাধারণ।

১৯ শে মার্চ, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:৫৮

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন: ভালো লেগেছে জেনে সুখী হলাম। ধন্যবাদ।

৪| ১৯ শে মার্চ, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:৩৫

শায়মা বলেছেন: ওহ চিহহহ কথাটা তাহলে ঈগলদের ভাষা থেকে এসেছ!!!!!!!! :)

১৯ শে মার্চ, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:৫৭

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন: তাই-ই জানি!!! অনেক দিন পর একটা কমেন্ট পেয়ে আনন্দ লাগছে।

শুভেচ্ছা নিরন্তর।

৫| ১৯ শে মার্চ, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:০৭

শায়মা বলেছেন: একটা কমেন্ট !!!

ওকে তাহলে কি আরও কয়েকটা করে দেবো???

যাইহোক চিহহহ এর রহস্য জানলাম তবে ছিহ হ এর রহস্য কি ?

১৯ শে মার্চ, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:১৩

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন: কমেন্ট পেতে তো ভালোই লাগে!!! বিশেষ করে অনেক দিন পর সামুতে ঢু দিতে এসে!

'ছিহ'-এর রহস্য নিয়ে একটু ভাবতে হবে! :)

এটা পড়েছো?- Click This Link

৬| ১৯ শে মার্চ, ২০১৯ রাত ৮:০১

শায়মা বলেছেন: ছি ছি এত্তা জাঞ্জাল একটা গানা শুনেছিলাম!

১৯ শে মার্চ, ২০১৯ রাত ৮:১৭

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন:

জাঞ্জাল নিয়ে গানা! ওয়াও!!!
এ নিয়ে কথা, আরো শুনতে চাও!

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.