নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

জীবনকে যারা উপভোগ করতে চান, আমি তাঁদের একজন। সহজ-সরল চিন্তা-ভাবনা করার চেষ্টা করি। আর, খুব ভালো আইডিয়া দিতে পারি।

সত্যপথিক শাইয়্যান

অন্যদের সেভাবেই দেখি, নিজেকে যেভাবে দেখতে চাই। যে বিষয়গুলো নিয়ে লেখার চেষ্টা করি- মোটিভেশনাল গল্প-কাহিনী-প্রবন্ধ, ছড়া এবং কবিতা

সত্যপথিক শাইয়্যান › বিস্তারিত পোস্টঃ

ছোটগল্পঃ তি নাফ তো? (ওটা কি?)

২৭ শে মার্চ, ২০১৯ রাত ৮:৪৫

শীতের সকাল। মেঘলা আকাশের ফাঁক দিয়ে উকি-ঝুকি মারা সূর্যের আলো কুয়াশা জড়ানো মাটি স্পর্শ করছে মাঝে মাঝে। চারদিকে এক নিবিড় আবেশ। তারই মাঝে ছেলে তার বুড়ো বাবাকে নিয়ে বাড়ির সামনের বাগানে বসে আছে। হাতে আজকের খবরের কাগজ। বাবা'র দিকে খুব একটা খেয়াল নেই। অফিসের ছুটি উপভোগ করছে সে।

এরই মাঝে ছোট্ট একটি চড়ুই সামনের বাগানের একটি গাছে এসে বসলো। বাবার চোখ সেদিকে যেতেই বলে উঠলেন- ''ওটা কি?''

ছেলের সন্ধানী চোখ এদিক-সেদিক তাকিয়ে খুজতে লাগলো কিসে বাবা'র চোখ পড়েছে। সে দেখতে পেলো বাবা একদৃষ্টে একটি চড়ুই-এর দিকে তাকিয়ে আছেন। তার ছোট্ট উত্তর- ''ওটা একটা চড়ুই, বাবা।''

বাবা তবু চড়ুটি'র দিকে তাকিয়ে রইলেন। আবারো আনমনে জিজ্ঞাসা করলেন- ''ওটা কি?''

ছেলে এবারে একটু 'বিরক্ত হয়ে বললো- ''বললাম তো, বাবা। এটা একটা চড়ুই।''

বাবা বললেন- ''ও, আচ্ছা!''

চড়ুইটি উড়ে গেলো। বুড়ো বাবা এদিক-সেদিক তাকায়ে কি যেন খুজতে লাগলেন। এবারেও তার চোখে পড়লো আর একটি পাখি। এটাও একটি চড়ুই।

বাবা অবাক হয়ে বললেন- ''তি নাফ তো, ওটা কি?''

চড়ুইটি'র দিকে চোখ পড়তেই চরম বিরক্ত হলো ছেলে। চিৎকার করে উঠলো- ''চড়ুই, এটা একটা চড়ুই......চ---ড়ু----ই।''

তারপরও তিনি আবার জিজ্ঞাসা করে বসলেন- ''ওটা কি?''

''এমন করছো কেন, বাবা! তোমাকে হাজার বার বলেছি এটা একটি চড়ুই। তুমি কি এটা বুঝতে পারছো না!'' প্রচন্ড রেগে বললো ছেলেটি।

বাবা উঠে পড়লেন। হাঁটা দিলেন বাড়ির দিকে।

''কই যাও?''

বাবা বললেন- ''একটু বসো। আমি আসছি।''

কিছুক্ষণ পরেই তিনি ফিরলেন। হাতে একটি ডায়েরী ধরা। তা থেকে একটি বিশেষ দিনের নোট খুজে বের করে জলদ গম্ভীর স্বরে ছেলেকে বললেন, ‘’পড়ো, জোরে।‘’

বাবা লিখেছেন, ‘’আজ আমার বড় ছেলে তিন বছরে পা দিয়েছে। তাকে নিয়ে পার্কে গিয়েছিলাম, বেড়াতে। সবুজ-শ্যামল সেই পরিবেশে চারদিকে শীতের পাখির মেলা বসেছে। সেগুলোর দিকে না তাকিয়ে তার নজর পড়লো ছোট্ট একটি চড়ুই পাখির দিকে। আমার ছেলে আমাকে ২১ বার জিজ্ঞেস করলো- ‘’ওটা কি?’’ আমি প্রতিবার আমার ছোট্ট অবুঝ ছেলেকে আদরের সাথে জড়িয়ে ধরে উত্তর দিলাম, ‘’ওটা একটি চড়ুই, বাবা।‘’

বাবা হাসলেন। বুড়ো বয়সের ধূসর হয়ে আসা স্মৃতি’র ভান্ডারে এ যেন এক মণী-মানিক্য!

চোখ ছলচল করে উঠলো মাল্টি-ন্যাশনাল কোম্পানীর চাকুরে বড় ছেলের। এক হাতে জড়িয়ে ধরলো বাবাকে। গালে চুমু দিয়ে তাঁর মাথা নিজ মাথায় ঠেকিয়ে বসে থাকলো। কান্নার দমকে বুজে আসা গলা দিয়ে কোন স্বর বেরোলো না।

চড়ুটি উড়ে কোথায় যেন চলে গেলো। কিন্তু, পেছনে রেখে গেলো স্বর্গীয় এক পরিবেশ।

মন্তব্য ১১ টি রেটিং +৩/-০

মন্তব্য (১১) মন্তব্য লিখুন

১| ২৭ শে মার্চ, ২০১৯ রাত ৮:৫৪

পবন সরকার বলেছেন: বড় হলে সবাই ছোটকালের কথা ভুলে যায়।

০১ লা এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৫:৫৫

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন: মন্তব্যের জন্যে অনেক ধন্যবাদ।

২| ২৭ শে মার্চ, ২০১৯ রাত ৯:০৩

ভুয়া মফিজ বলেছেন: অত্যন্ত আবেগময় একটা গল্প....যা অনেকের জীবনের বাস্তবতা।

০১ লা এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৫:৫৬

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন: মন্তব্যের জন্যে অনেক ধন্যবাদ।

৩| ২৭ শে মার্চ, ২০১৯ রাত ৯:১৪

রাজীব নুর বলেছেন: সময় পেলে এই মুভিটা দেখবেন।

০১ লা এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৫:৫৬

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন: লিংকের জন্যে অনেক ধন্যবাদ।

৪| ২৭ শে মার্চ, ২০১৯ রাত ৯:৫৪

জুনায়েদ বি রাহমান বলেছেন: কিছু বলবার নেই। ++

০১ লা এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৫:৫৭

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন: প্লাস ও মন্তব্যের জন্যে অনেক ধন্যবাদ।

৫| ২৮ শে মার্চ, ২০১৯ রাত ১২:০৪

মাহমুদুর রহমান বলেছেন: যদিও এই গল্পটা অন্যভাবে শুনেছি তবে আপনার উপস্থাপনা ভালো লেগেছে।

০১ লা এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৫:৫৭

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন: প্রশংসার জন্যে অনেক ধন্যবাদ।

৬| ০৪ ঠা এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৯:৫২

অন্তরা রহমান বলেছেন: প্রচলিত গল্প তবে আপনার উপস্থাপনা অনবদ্য। ভালো লাগলো পড়ে।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.