নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

আমার পুরো নাম শাইয়্যান মোহাম্মদ ফাছিহ-উল ইসলাম। অন্যদের সেভাবেই দেখি, নিজেকে যেভাবে দেখতে চাই। যারা জীবনকে উপভোগ করতে চান, আমি তাঁদের একজন। সহজ-সরল চিন্তা-ভাবনা করার চেষ্টা করি। আর, খুব ভালো আইডিয়া দিতে পারি।

সত্যপথিক শাইয়্যান

আমি লেখালিখি করি, মনের মাধুরী মিশিয়ে

সত্যপথিক শাইয়্যান › বিস্তারিত পোস্টঃ

ফ্রান্সের ভিতর থেকেই প্রতিবাদ আসবে....আসবেই

২৭ শে অক্টোবর, ২০২০ রাত ১২:৩৬

নেপোলিয়ন, নস্ট্রাডামুস, জুলভার্ন, জিদান, ভল্টেয়ারের দেশ ফ্রান্স এ কি করছে!!!
.
ফ্রান্সের ইতিহাস রাজনৈতিক হানাহানিতে ভরা। তাদের রাজারা জনগণের উপরে খুব অত্যাচার করতো...অসভ্য একটি দেশ ছিলো এক সময়ে। সেই দেশ উগ্রতা ছড়িয়ে দিয়েছে সারা পৃথিবীময়.....এখন আবার ছড়িয়ে দিচ্ছে। সালাহউদ্দীন আইউবী'র সময়ে ইংল্যান্ডের রাজা সিংহ-হৃদয় রিচার্ড যখন শান্তি চুক্তি করছিলেন, তখন ফ্রান্সের তখনকার রাজা বাধ সেজেছিলেন।
.
তবে, থ্রি মাস্কেটিয়ার্সের ডিয়ারতানা, এথোস, পোর্থোস আর আরামিসের মতো মানুষের জন্ম এই ফ্রান্সেই। এছাড়াও, বড় বড় সাহিত্যিকদের জন্মও এই ফ্রান্সেই। রুশোর মতো চিন্তাবীদরা সেই দেশের ভূমি আবাদ করেছেন।
.
আমি জানি, এই ফ্রান্স থেকেই এইসব মহান মানুষদের বর্তমান প্রেসিডেন্টের পাগলামীর প্রতিবাদ আসবে। তার প্রতিক্ষাতেই আছি।

মন্তব্য ১৮ টি রেটিং +২/-০

মন্তব্য (১৮) মন্তব্য লিখুন

১| ২৭ শে অক্টোবর, ২০২০ রাত ১২:৪৫

মরুর ধুলি বলেছেন: ফ্রান্সের বর্তমান প্রেসিডেন্ট একটা উদাহরণবিহীন বেয়াদব।

২৭ শে অক্টোবর, ২০২০ সকাল ৯:০৬

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন:

লোকটা এতো আবেগ-তাড়িত! বোকামী করছেন উনি।

মন্তব্যের জন্যে ধন্যবাদ।

২| ২৭ শে অক্টোবর, ২০২০ রাত ২:৫৬

রাজীব নুর বলেছেন: সিলেটের সুনামগঞ্জ, আর হবিগঞ্জের বহু পোলাপান অবৈধ্য পথে ফ্রান্স পাড়ি দিয়েছে।

২৭ শে অক্টোবর, ২০২০ সকাল ৯:০৮

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন:

তারা ফ্রেঞ্চ নন। তাদের প্রতিবাদ দিয়ে কাজ হবে না।

প্রতিবাদ আসবে, ফরাসীরাই করবেন। একটু ধৈর্য ধরুন।

ধন্যবাদ নিরন্তর।

৩| ২৭ শে অক্টোবর, ২০২০ ভোর ৫:২৭

চাঁদগাজী বলেছেন:



আপনার ইতিহাস জ্ঞান তো অসীম! ইহাকে একটু কমানো যায় না?

ফরাসী বিপ্লব বাংলাদেশে হয়েছিলো, মনে হচ্ছে! রেনেসাঁর শরু সিলেটে!

২৭ শে অক্টোবর, ২০২০ সকাল ৯:০৯

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন:


বাস্তিলের কথা মনে আছে, জনাব?????????

ধন্যবাদ।

৪| ২৭ শে অক্টোবর, ২০২০ সকাল ৭:১৫

অনল চৌধুরী বলেছেন: সাম্য স্বাধীনতা মৈত্রী-এসব বড় বড় বুলি ঝেড়ে মানুষকে ধোকা দিয়ে এরা বৃটিশদের মতোই সারা পৃথিবী দখল করতে চেয়েছিলো এরা। কিন্ত তাদের সাথে যুদ্ধে হেরে সেই পরিকল্পনা সফল হয়নি। এদের মিথ্যাচার ও সন্ত্রাসী মানসিকতা প্রমাণ পাওয়া যায় দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পরও আফ্রিকার তিউনিসিয়া, আলজেরিয়া ও মরক্কোসহ বিভিন্ন দেশ দখলে রাখার জঘন্য অপচেষ্টা থেকে , যারা নিজেরাই নাৎসী জার্মানীর দখলে ছিলো ।

২৭ শে অক্টোবর, ২০২০ সকাল ৯:১৯

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন:

পলাশী'র যুদ্ধে কি সত্যি সত্যি কি কোন ফরাসী সিরাজ ঊদ্দোউলার পাশে ছিলেন? ফরাসীরা কি তাঁকে সাহায্য করেছিলেন?

প্রতিটি দেশেই খারাপ-ভালো মানুষ থাকেন। তাই, একটি গ্রুপের বাজে কাজের জন্যে পুরো জাতিকে দোষ দিতে রাজি নই আমি।

ধন্যবাদ নিরন্তর।

৫| ২৭ শে অক্টোবর, ২০২০ সকাল ৭:৫৭

হাসান কালবৈশাখী বলেছেন:
ইসলাম আবির্রভাবের পর ১৪৩০ বছরেও পৃথিবীর কোন দেশে 'সম্পুর্ন শরিয়া আইন' চালু করতে পারলো না কথিত মুমিন জেহাদিরা।
এরা ১৪৩০ বছরে অনেক দখল অনেক লুন্ঠন চালাতে পারলেও এজাবৎ একটি আদর্শ ইসলামি দেশ তৈরি করতে পারে নি,
যাকে ফলো করে মুসলিমরা চলতে পারতো। কিন্তু পারে নি।
এরা নবিজির দেশ নিজ দেশকেও পারে নি।

এরা এখন পেরান্সে জেহাদ করতে চায়।

২৭ শে অক্টোবর, ২০২০ সকাল ১০:১১

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন:

সম্পূর্ণ শরিয়া আইন কি জিনিস বলতে পারেন? আমি ঠিক জানি না।

আপনি যখন জানেন, এটা নিয়ে একটা পোস্ট দেন। আমি জানটে পারবো তাহলে।

ধন্যবাদ।

৬| ২৭ শে অক্টোবর, ২০২০ সকাল ৮:১৫

নুরুলইসলা০৬০৪ বলেছেন: জিহাদই তাদের ধংসের পথ খুলে দিবে।তারা আইএস,তালেবান থেকে শিক্ষা নেয় নি।
তারা বিশ্বাস করে ইসলাম তাদের সোনার পাথর বাটি উপহার দিবে।

২৭ শে অক্টোবর, ২০২০ সকাল ১০:১৫

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন:


এখনকার সময়ে জিহাদ হতে হলে কোন মুসলিম দেশের সেনাবাহিনীকে এগিয়ে আসতে হবে।

আপনি জিহাদে গেলে খালি খালি সমস্যা তৈরী করবেন। কারণ, অস্ত্র চালনা কিভাবে করতে হয়, সেটার ট্রেনিং আপনার নেই।

ধন্যবাদ।

৭| ২৭ শে অক্টোবর, ২০২০ সকাল ৯:৩৮

রাশিয়া বলেছেন: জ্বি না, ভাই! এত আশা করবেন না। ইসলাম বিরোধী কর্মকান্ডের প্রতিবাদ কেউই করবেনা। এমনকি ফরাসী মুসলিমরাও না। প্রতিবাদ বাইরে থেকেই হবে, তাতেই হয়তোবা ফরাসী সরকারের টনক নড়বে। তবে কালবৈশাখী বা নুরা পাগ্লাদের যে ঈদের আনন্দ দেখা যাচ্ছে, তা দেখে মনে হচ্ছে, ইমানুয়েল ম্যাক্রো তাদের জাতীয় হিরোতে পরিণত হয়েছে।

২৭ শে অক্টোবর, ২০২০ সকাল ১০:১৮

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন:

ইসরাইলী আগ্রাসনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ কিন্তু ফ্রান্সের ভিতরেই হয়েছিলো।

যত দূর মনে পড়ে, ফিলিস্তিনের পতাকাও ফ্রান্সের একটা স্টেডিয়ামে লাগানো হয়েছিলো।

তাই, আমি আশা করছি, প্রতিবাদ সেখানে হবেই। একটু সময় ও সুযোগ দরকার।

ধন্যবাদ।

৮| ২৭ শে অক্টোবর, ২০২০ দুপুর ১২:৫৬

মরুর ধুলি বলেছেন: লেখক বললেন, “ লোকটা এতো আবেগ-তাড়িত! বোকামী করছেন উনি।”

বিষয়টা সেরকম নয়। ইসলাম বিদ্বেষ, ইসলামের গণ্যমান্য ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে কুৎসা রচনা-রটনা এদের ঐতিহ্যগত স্বভাব। ইসলামকে এরা মোটেও মানতে পারেনা, চ্যালেঞ্জ মনে করে। লেংটার জাত এরা, লেংটামী এদের কাছে পছন্দের। ইসলামে লেংটামীর কোন স্থান নাই। দুঃখজনক হলেও সত্য এই সব লেংটামীর দলে অনেক নামধারী মুসলমানও রয়েছে। আল্লাহ এদের ধ্বংস করুন।

৯| ২৭ শে অক্টোবর, ২০২০ বিকাল ৪:৩৮

একাল-সেকাল বলেছেন:
বস্ত্রহীন রা বস্ত্রে অস্বস্তি বোধ করে।

১০| ২৮ শে অক্টোবর, ২০২০ রাত ১২:২০

নেওয়াজ আলি বলেছেন: আমার কয়েকজন লোক ফ্রাসে আছে তারা ভয়ে চুপ

১১| ২৮ শে অক্টোবর, ২০২০ রাত ১০:৫৫

আকন বিডি বলেছেন: তাদের এতো দার্শনিক, সাহিত্যিক আলজেরিয়া, আফ্রিকার দু:খ নিবারনে কোন কাজে এসেছিল? লিবিয়ার কাছ থেকে টাকা খেয়েছিল সারকোজি। তার পরও লিবিয়ার বারোটা বাজাইতে ছাড়ে নাই। ২য় বিশ্ব যুদ্ধের সময় জার্মানির এলিট সম্প্রদায় ছিল জ্ঞানে, গুনে অনন্য। কিন্তু রেসিস্ট হিসাবে ছিল সেরা। নিজেদেরকে এমন ভাবে আলাদা ভাবতো যে তারাই বিশ্ব শাসনের উপযুক্ত। মানুষ হত্যায় তাদের হাত ছিল পাকা। মানুষের চামড়া দিয়ে দেয়ালে অলংকার করতো। যে দেশে যত এই তথা কথিত দার্শনিক, সাহিত্যিক থাকবে সেই দেশের রাজনীতিবিদরা বিশ্বের বারোটা বাজাইতে এক পা আগানো থাকবে।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.