নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

শিক্ষাই দরিদ্রদের জন্য সম্পদ।

সোনাগাজী

একমাত্র সোস্যালিষ্ট অর্থনীতি বাংগালী জাতিকে নিজ পায়ে দাঁড়াতে সাহায্য করবে।

সোনাগাজী › বিস্তারিত পোস্টঃ

পশ্চিমে অবস্হানরত নারী ব্লগাররা লিখুন তো, মুসলিম দেশের নারীরা কেমন আছেন!

২৮ শে জুন, ২০২২ সকাল ১০:২৪



ইসলামে নারীদের অধিকার, মর্যদা, ইত্যাদি নিয়ে সামুতে সব সময় পোষ্ট আসতে থাকে; তারপর আলোচনা ও তর্ক চলতে থাকে, কখনো এই তর্কের শেষ হয় না। যাঁরা লিখেন যে, ইসলামই নারীদর সবচেয়ে বেশী মর্যদা দিয়েছে, অধিকার দিয়েছে, তাঁরা সবাই পুরুষ, এবং এরাঁ যথাসম্ভব, ইউরোপ, আমেরিকা, কানাডায় বাস করেননি। এঁরা মনে করেন যে, আফগানিস্তান, ইয়েমেন, পাকিস্তান, নাইজেরিয়া, ইন্দোনেশিয়া, মিশর, পাকিস্তানের নারীরা বিশাল মর্যদা পেয়ে, অনেক অধিকার নিয়ে খুবই সন্মানী কীবন যাপন করছেন। আমার কিন্তু মনে হয়, মুসলিম দেশের নারীদের বড় অংশ ভয়ংকর খারাপ অবস্হায় আছেন।

আমি বাংলাদেশের গ্রামে বড় হয়েছি, ৫ গ্রামের নারীদের জানি; দু:খের সাথে বলতে হয়, আমার ক্লাশমেট থেকে শুরু করে, গ্রামের কোন নারীকে তেমন সুখ-শান্তিতে দেখিনি। আমার কর্ম জীবনের বড় একটা অংশ কেটেছে আমেরিকা ও ইউরোপে কাজ করে; আমি শতশত নারীর সাথে কাজ করেছি, এসব দেশের নারীদের কাছে থেকে দেখেছি; আমার মতে, এসব দেশের নারীদের বড় অংশ মান-মর্যদার সাথে সুখ-শান্তিতে আছেন।

আমি এসব নিয়ে লিখতে চাহি না; কিন্তু ব্লগারদের ভুল ভাবনা ও ধারণা আমাকে বিস্মিত করে তোলে। আমি নিজর অভিজ্ঞতা নিয়ে মাঝে মাঝে পশ্চিমের রাজনীতি, সমাজনীতি, অর্থনীতি নিয়ে লেখার চেষ্টা করি। নারীদের ব্যাপারটা নারীরা লিখলে ভালো হয়।এখন বিশ্বর প্রায় সব দেশেই বাংগালী নারীরা বসবাস করছেন, পড়ালেখা করছেন, কাজ করছেন; তাঁরা স্হানীয় ভাষা, সংস্কৃতি বুঝেন, স্হানীয় নারীদর সাথে চলেন; তাঁরাই বলুক, ৪৬টি মুসলিম দেশে নারীদের কি অবস্হা এবং ইউরোপ, আমরিকা ও কানাডায় কি অবস্হা।

প্রবাসে বসবারত পুরুষ ব্লগারেরা নিয়মিতভাবে স্হানীয় নারীদের সাথে কাজ করছেন, চলছেন, ঘনিষ্টভাবে জানার সুযোগ পাচ্ছেন; আপনারাও বলতে পারেন, আপনারা প্রবাসে কি দেখছন, এবং স্বদেশে কি দেখেছেন, কি দেখছেন!


মন্তব্য ৫০ টি রেটিং +১/-০

মন্তব্য (৫০) মন্তব্য লিখুন

১| ২৮ শে জুন, ২০২২ সকাল ১০:৪৫

অগ্নিবেশ বলেছেন: পশ্চিমে অবস্হানরত মুসলিম নারী ব্লগাররা কিছু লিখবেন বলে মনে হয় না, সত্য লিখলে তো আর ইমান থাকে না।

২৮ শে জুন, ২০২২ সকাল ১০:৪৮

সোনাগাজী বলেছেন:



জার্মানীতে ১ জন আছেন পিএইচডি, আমরিকায় কয়েকজন ইন্জিনিয়ার আছেন, কানাডায় বেশ কয়েকজন আছেন, যাঁরা বেশ শিক্ষিত।

২| ২৮ শে জুন, ২০২২ সকাল ১০:৫৩

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: বাংলাদেশের বেশীর ভাগ নারীই মুখ বুঝে অনেক অপমান কষ্ট সহ্য করেন। আমার ধারণা আশি ভাগ নারীর কোন স্বাধীনতা নাই। মতামতের মূল্য নাই। অনেক নারী সন্তানের জন্য থেকে যান দুঃখ কষ্ট সহ্য করেও সংসারে

২৮ শে জুন, ২০২২ সকাল ১০:৫৯

সোনাগাজী বলেছেন:




ভয়ংকর অবস্হা! বাংলাদশ ও আফগানিস্তানের নারীরা (আমার দেখা অনুসারে ) পুরুষ থেকে অনেক বিষয়ে সামনে আছেন: পড়ালেখায়, পরিবার দেখায়, দায়িত্বে; আমার দেখা মতো, এই ২ জাতিতে পুরুষেরা অনেক পেছনে পড়ে আছে, কিন্তু বক্তৃতায় পুরুষেরা উচ্চকন্ঠ, নারীদের কোন অধিকারই দিতে চাহে না।

৩| ২৮ শে জুন, ২০২২ সকাল ১১:০৪

নতুন বলেছেন: আমার কর্ম জীবনের বড় একটা অংশ কেটেছে আমেরিকা ও ইউরোপে কাজ করে; আমি শতশত নারীর সাথে কাজ করেছি, এসব দেশের নারীদের কাছে থেকে দেখেছি; আমার মতে, এসব দেশের নারীদের বড় অংশ মান-মর্যদার সাথে সুখ-শান্তিতে আছেন।

বাইরের দেশের নারীর স্বাধীনতার বিপক্ষে যারা বলে তারা বাইরের দেশের নারীর উসৃংখল জীবনের দিকটাকেই আলোকপাত করে।

কিন্তু বাইরের দেশে নারীরা এটা তাদের নিজেদের মতেই করে, কেউ তাদের বাধ্য করেনা। তারা কাজের ক্ষেত্রে খারাপ আচরনের স্বীকার হলে তার বিচার চাইতে পারে, নিজের ইচ্ছা মতন চলতে পারে,

আমাদের দেশে নারীরা আয় করেনা তাই স্বামী বা বাবার মতেই চলতে হয়। বেশির ভাগ নারীই সন্তানের জন্য সংসার করে যায়।

আমাদের দেশের মানুষের ভেতরে ভন্ডামী খুবই বেশি, তারা কাজে ধর্ম পালন করেনা, কিন্তু স্ত্রী পর্দা করুক, স্বামীর বাধ্য থাকুক, এই সব ধর্মীয় মাসলা নারীদের উপরে চাপিয়ে দিতে চায়।

২৮ শে জুন, ২০২২ বিকাল ৫:৫০

সোনাগাজী বলেছেন:




আপনি প্রবাসে থাকার ফলে, অনেক জাতির নারীদের দেখছেন, বুঝতে সহজ হচ্ছে; আমাদর যেসব ব্লগার অন্যন্য জাতির নারীদের কাছের থেকে দেখার সুযোগ পাননি, অন্য জাতির সংস্কৃতি বুঝেন না, তাঁরা নারীদর নিয়ে ভুল পোষ্ট লেখেন সব সময়।

৪| ২৮ শে জুন, ২০২২ সকাল ১১:১৫

জ্যাক স্মিথ বলেছেন: মুসলিম দেশের নারীরা ঘরের কাজে অভ্যস্ত এরা ঘরের কাজ পছন্দ করে। শিক্ষা-দীক্ষা, কাজ-কর্ম, খেলধুলা যে কোন সূচকে মুসলিম দেশের নারীরা অনেক পিছিয়ে আছে। তবে, বাংলাদেশের নারীর অন্যান্য মুসলিম দেশ যেমন; সৌদি, পাকিস্তান, আফাগনিস্তান, ইয়েমন, সিরিয়া, লিবিয়া, নাইজেরিয়া ইত্যাদি দেশের নারীদের চেয়ে কয়েকগুণ বেশি ভাল আছে।

২৮ শে জুন, ২০২২ বিকাল ৫:৫৩

সোনাগাজী বলেছেন:



সব জাতির নারীরাই সংসারের কাজ করছন; কিন্তু সব জাতির নারীরা পরিবার ও সমাজ থেকে সমানভাবে সন্মান পাচ্ছেন না। বাংলাদশের গ্রামের মেয়েরা সুখ শান্তির মুখ দেখে না জীবনে।

৫| ২৮ শে জুন, ২০২২ সকাল ১১:২৬

অগ্নিবেশ বলেছেন: ইসলামে নারীর উপার্জনের পথ বন্ধ করে নারীকে পুরুষের উপর নির্ভরশীল করা হয়েছে।
তারপর আল্লাহর দোহাই দিয়ে এই সব পর-নির্ভরশীল নারীকে বলা হচ্ছে, অক্ষম, বুদ্ধিকম, শক্তিকম ইত্যাদি, ইত্যাদি।

আর্থিক স্বাধীনতাই পারে নারীকে মুক্ত করতে, ইসলাম আসার পুর্বে আর্থিকভাবে স্বাবলম্বী বিবি খাদিজার দাপটেই মুহম্মদ তার জীবৎকালে সতীন আনতে পারে নি। সবচেয়ে মজার বিষয়, এই বিবি খাদিজা না থাকলে হয়ত মহম্মদের নবী হওয়াই হত না।
"আমরা জানি যে যখন কোরান অবতীর্ণ হচ্ছিল তখন নবীও নিজের ব্যাপারে সংশয়ে ছিলেন। কিন্তু খাদিজাই তাকে আশ্বস্ত করেন যে তিনি আসলেই একজন নবী" - বলছিলেন হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক এবং ইসলাম বিষয়ে বিশেষজ্ঞ লাইলা আহমেদ ।

খাদিজা ছিলেন ধনী এবং ক্ষমতাশালী, একজন সম্মানিত ব্যক্তিত্ব। সে যুগের অনেক নামী ও সম্ভ্রান্ত পুরুষ তাকে বিয়ে করতে চেয়েছিলেন কিন্ত তিনি তিনি সাড়া দেননি। প্রথম দুই স্বামীর থেকে বিচ্ছেদের পরে খাদিজা নিজেই মহম্মদকে বেছে নেন এবং বিয়ের প্রস্তাব দেন , তখন খাদিজার বয়স তখন ৪০ আর তার মহম্মদ ছিলেন মাত্র ২৫ বছর বয়সের সাধারণ পরিবার থেকে আসা এক যুবক। এরপর খাদিজার মৃত্যুর পরে, মুসলমান নারীদের কপাল পুড়ল, নবী একে একে বিবাহ করা শুরু করলেন, বিবিদের বস্তাবন্দী শুরু হলো।

২৮ শে জুন, ২০২২ বিকাল ৫:৫৬

সোনাগাজী বলেছেন:



ইসলামের উৎপত্তি হয়েছে আরবের দুর্গম অন্চলে, সেই এলাকাটিতে নিয়ম কানুন ছিলো বেদুইন গোত্রদের নিয়ম কানুন; উহা নিশ্চয় আজকের জন্য উপযুক্ত নয়।

৬| ২৮ শে জুন, ২০২২ সকাল ১১:৩১

শূন্য সারমর্ম বলেছেন:

মুসলিম দেশের নারীরা জানে না 'নারী অধিকার মানে কি। পশ্চিমে অধিকার বুঝেছে ও বাই প্রোডাক্ট হিসেবে অনেক কিছুই হচ্ছে, যা আমাদের ফোকাসের কেন্দ্র। বাঙালীরদের একমাত্র বিপ্লবী হিসেবে গ্রহনযোগ্যতা পেয়েছে রোকেয়া।

২৮ শে জুন, ২০২২ বিকাল ৫:৫৮

সোনাগাজী বলেছেন:



বেগম রোকেয়া একটি আধুনিক পরিবারে জন্মে ছিলন; আমাদের বর্তমান সমাজে বেগম রোকাদেরকেও বিপদে পড়তে হতো।

৭| ২৮ শে জুন, ২০২২ দুপুর ২:৩৫

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন:




আপনি পুরোপুরি ভুলে ভরা, আপনার ভাষায় একটি গার্বেজ পোস্ট করেছেন।

২৮ শে জুন, ২০২২ সন্ধ্যা ৬:০০

সোনাগাজী বলেছেন:



আপনি অনেক জাতিকে দখার সুযোগ পেয়েছেন, মুসলিম এলাকার নারী কখনো নিজ ভয়হীনভাবে জীবন যাপন করতে পারন?

৮| ২৮ শে জুন, ২০২২ বিকাল ৩:৪৭

রাজীব নুর বলেছেন: সবচেয়ে কষ্টে আছে আফগানের নারীরা। তারপর সৌদির নারীরা।

২৮ শে জুন, ২০২২ সন্ধ্যা ৬:০৩

সোনাগাজী বলেছেন:



আমাদের দেশে দেখেন, এখন পড়ালেখায় ও আচরণে ছেলেরা পেছনে পড়ে গেছে; আফগানীস্তানে মেয়েরা ছেলেদের চেয়ে অনেক বুদ্ধিমান ও কর্মঠ; সেসব মেয়েদের কি অবস্হা করেছে কাবুলীওয়ালারা!

৯| ২৮ শে জুন, ২০২২ বিকাল ৪:২৬

নূর মোহাম্মদ নূরু বলেছেন:
পবিত্র কোরআনে আল্লাহতায়ালা আরো বলেন, ‘ধর্মের ব্যাপারে জোরজবরদস্তি নেই। ভ্রান্ত মত ও পথকে সঠিক মত ও পথ থেকে ছাঁটাই করে আলাদা করে দেওয়া হয়েছে।(সূরা বাকারা :২৫৬) সুতরাং ‘তোমাদের ধর্ম তোমাদের জন্য, আমাদের ধর্ম আমাদের জন্য। ’ (-সূরা কাফিরুন : ৫)
ইসলাম ধর্মের উপর বিশ্বাসের ব্যাপারে তর্ক নয়;আত্মসমর্পণই মূলকথা।
এ ব্যপারে পবিত্র কোরআনে আল্লাহতায়ালা বলেন, ‘ধর্মের ব্যাপারে জোরজবরদস্তি নেই। ভ্রান্ত মত ও পথকে সঠিক মত ও পথ থেকে ছাঁটাই করে আলাদা করে দেওয়া হয়েছে। (সূরা বাকারা :২৫৬)৷

সুতরাং কে আল্লাহর আদেশ মানবে আর কে মানবে না,
কে পৃথিবীতে সুখ পেয়ে খুশী আর কে পরকালের সুখের
জন্য লালায়িত আ একান্তই তাদের ব্যক্তিগত ব্যপার।
কারণ কেউ দুধ বেচ্যে মদ খায় সুখ পায় আবার কেউ
মদ বেচে দুধ খেয়ে তৃপ্ত।

২৮ শে জুন, ২০২২ সন্ধ্যা ৬:০৫

সোনাগাজী বলেছেন:




একমাত্র সভ্যতা, শিক্ষা, সংস্কৃতি ও অর্থনীতি মানুষকে ভালো জীবন যাপন করতে সাহায্য করছে, ধর্মে যা ছিলো ও আছে, তা অপ্রতুল।

১০| ২৮ শে জুন, ২০২২ সন্ধ্যা ৬:১৫

নূর মোহাম্মদ নূরু বলেছেন:
লেখক বলেছেন:
একমাত্র সভ্যতা, শিক্ষা, সংস্কৃতি ও অর্থনীতি মানুষকে ভালো জীবন যাপন করতে সাহায্য করছে, ধর্মে যা ছিলো ও আছে, তা অপ্রতুল।।

গাজীসাব এটা পনার ভুল ধারণা,
পবিত্র মহা গ্রন্থ আল কোরআন একটি
সম্পূন' জীবন বিধান। আমাদের জ্ঞানের
সীমাবদ্ধতা বা অজ্ঞতার কারণে আমরা তা
বুঝতে পারিনা বলেই এই মনীভাব আমাদের।
কোরআন পড়ুন, কোরআন বুঝুন দেখবেন
সব সমস্যার সমাধান আছে সেখানে।

২৮ শে জুন, ২০২২ সন্ধ্যা ৬:৩২

সোনাগাজী বলেছেন:


কোরানে যা লেখা আছে, তা ১৪০০ বছর আগের সমাজের আলোকে লেখা হয়েছে।

১১| ২৮ শে জুন, ২০২২ সন্ধ্যা ৬:১৯

কামাল৮০ বলেছেন: মুসলিম দেশের নারীদের বেশির ভাগ তার অধিকার সম্পর্কে সচেতন না।বেশির ভাগ নারী অতিকায় পেতেও উচ্ছুক না।অধিকারের সাথে দায়িত্বের এতটা বিষয় চলে আসে।

ইসলাম ধর্মেও এবিষয়ে কিছু দিক নির্দেশনা দেওয়া আছে যেটা নারী স্বাধীনতার বিপক্ষে।

২৮ শে জুন, ২০২২ সন্ধ্যা ৬:৩৬

সোনাগাজী বলেছেন:


আজকের আরবের দিকে তাকালে ইসলামের উৎপত্তির সময়ের আরব সম্পর্কে কছু ধারণা পাওয়া যাবে; তখনকার বেদুইন সমাজে যেই সংস্কৃতি ছিলো উহা পুরুষের কন্ট্রোলে ছিলো মাত্র।

১২| ২৮ শে জুন, ২০২২ সন্ধ্যা ৬:২৪

নূর আলম হিরণ বলেছেন: বাংলাদেশের নারীদের অবস্থা আগের চেয়েও খারাপের দিকে যাচ্ছে।

২৮ শে জুন, ২০২২ সন্ধ্যা ৬:৩৭

সোনাগাজী বলেছেন:


সমাজে মৌলবাদীদের প্রভাব বাড়ছে।

১৩| ২৮ শে জুন, ২০২২ সন্ধ্যা ৬:৩৯

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন:




আপনি বাই পয়েন্ট প্রশ্নের উত্তর দেবেন। আরেকটি বিষয় মন্তব্য তিন চার লাইন হলে মন্তব্য উত্তরও তিন চার লাইন হওয়া স্বাভাবিক কার্টেসি। আপনার পোস্টে কেউ তিন চার লাইনের মন্তব্য করেছেন আপনি এক লাইনে উত্তর দিয়েছেন বিষয়টি স্বাভাবিক নয় এটি অস্বাভাবিক আচরণ। আশা করি বোঝাতে পেরেছি।

১। আপনি কখনো যুদ্ধাক্রান্ত কোনো দেশে গিয়েছেন?
২। আফগান কতো বছর যাবত অস্থিতি অবস্থা আর ইয়োরোপ কি একই অবস্থায় আছে?
৩। মুসলিম দেশের কোনো নারী, বিশেষ করে আরব দেশের কোনো স্বাভাবিক নারী কখনো বলেছে সে কষ্টে আছে?


২৮ শে জুন, ২০২২ সন্ধ্যা ৬:৪৭

সোনাগাজী বলেছেন:



১) গিয়েছি
২) আফগানে এত বছর যুদ্ধ চলছে, কারণ ওখানে খারাপ মানুষ বেশী। ইউরোপে এর থেকে বড় যু্দ্ধ হয়েছে, তারা সেটাকে আবার নির্মাণ করেছে।
৩) আমাদের দেশের কিশোর চাকরাণি, ঝি ও গীিবের বউ কার কাছে বলবে যে, সে ভালো নেই!

২৮ শে জুন, ২০২২ সন্ধ্যা ৬:৪৯

সোনাগাজী বলেছেন:




আমাদের যেসব নারীদের সৌদী যেতে হচ্ছে, তারা কি শেখ হাসিনাকে বলতে পারছে, আমাকে দেশে একটা চাকুরী দেন!

১৪| ২৮ শে জুন, ২০২২ সন্ধ্যা ৬:৫২

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন:



আফগানে এতো বছর যুদ্ধ চলছে কারণ সভ্য দেশগুলো যুদ্ধের জন্য ইনভেস্ট করছে।

কথা সত্য না মিথ্যা - হা / না বলবেন।


২৮ শে জুন, ২০২২ সন্ধ্যা ৭:১৮

সোনাগাজী বলেছেন:



না।

আফগানদের যুদ্ধের শুরুটা ছিলো রাজাকে ক্ষমতাচ্যুত করা নিয়ে।

১৫| ২৮ শে জুন, ২০২২ সন্ধ্যা ৭:৩৭

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন:



না!
আপনি সম্ভবত জানেন না, “না” কথার কোনো মাতাপিতা নেই। যদি জানতেন, তাহলে না বলার আগে চিন্তা করতেন, না বলার জন্য যথেষ্ট যুক্তি প্রমাণ দিতেন। প্রমাণহীন ভিত্তিহীন “না” এর মাতাপিতা নেই।

আফগানে এতো গুলো ব্লাক হক্ কার? সন্ত্রাস দমনে রাশিয়া আমেরিকা আফগানে এতো বছর কি করেছে, আফগান কি রাশিয়া আমেরিকার বাবার দেশ? আফগানরা চীনের বাবা হয়?

আপনি আপনার শিষ্যর সাথে ব্লগিং করুন। আপনার শিষ্য মনে করে আপনি সর্বশ্রেষ্ট ব্লগার। আসলে আপনি আপনার ভাষায় লিলিপুটিয়ান হয়ে আছেন। বিশ্ব ধ্বংস হচ্ছে আপনার উন্নত জাতির জন্য। উন্নত জাতি টিকে আছে বিশ্বের অনুন্নত দেশের মানুষের রক্ত খেয়ে। - এই জ্ঞান আপনার এতো বছরে হয়নি আর হবেও না। i am really sorry to say but this is true.

শুভ ব্লগিং।

২৮ শে জুন, ২০২২ রাত ৯:১৩

সোনাগাজী বলেছেন:



আধুনিক সভ্যতা ও বিশ্ব রাজনীতি কঠিন বিষয়। প্রতিদন বিশ্বে যা ঘটছে, ইহার পেছনে কমপ্লেক্স কারণ আছে; যেসব জাতি এগুলো বুঝে নিজেদেরকে সেটার সাথে মিলিয়ে চলছে, তারা ভালো করছে।

২৮ শে জুন, ২০২২ রাত ৯:৪৮

সোনাগাজী বলেছেন:


আপনি বলেছেন, " ... বিশ্ব ধ্বংস হচ্ছে আপনার উন্নত জাতির জন্য। উন্নত জাতি টিকে আছে বিশ্বের অনুন্নত দেশের মানুষের রক্ত খেয়ে। - এই জ্ঞান আপনার এতো বছরে হয়নি আর হবেও না। i am really sorry to say but this is true.

-আফ্রিকাকে কে সাহায্য করছে?"

১৬| ২৮ শে জুন, ২০২২ সন্ধ্যা ৭:৫০

শূন্য সারমর্ম বলেছেন:


সৌদি কর্মজীবি নারীরা চুল ছোট করে রাখে,এতে পুরুষ ঘেষাও কমে আসে।

২৮ শে জুন, ২০২২ রাত ৯:১৪

সোনাগাজী বলেছেন:



আরবেরা এখ দ্রুত বদলাচ্ছে, ওরা আমাদের চেয়ে ভালো করছে।

১৭| ২৮ শে জুন, ২০২২ রাত ৮:০৬

মোহাম্মাদ আব্দুলহাক বলেছেন: যারা ইসলাম ধর্ম চর্চা করে ওরা ভালো আছে। ইদানীং ইসলাম ধর্ম খুব কম চর্চা হয়।

নামে আর বেশে মুসলমান হওয়া যায় না।

২৮ শে জুন, ২০২২ রাত ৯:১৫

সোনাগাজী বলেছেন:


আপনি তো নিশ্চয় ইসলামের চর্চা করছেন! লন্ডনের ইংরেজদের চেয়ে ভালো আছেন?

১৮| ২৮ শে জুন, ২০২২ রাত ১০:০০

মোহাম্মাদ আব্দুলহাক বলেছেন: আমি চর্চায় সেচেষ্ট। আপনার প্রশ্নের উত্তর সহজ নয়। তবে সোজা উত্তর হলো, আমি এমন এক স্তরে আছি যে স্তরে কম মানুষ আছে।
অনেক ইংরেজ রাস্তায় ঘুমায়। আমি ঘরে থাকি। অনেক ইংরেজ পেট ভরে খাবার পায় না। আমি দুই বেলা পেটভরে ভাত খাই। আমার কোনো ঋণ নেই।

আপনার খবর কী?

২৮ শে জুন, ২০২২ রাত ১০:১৩

সোনাগাজী বলেছেন:



আমি ভালো আছি। ইউরোপ আমেরিকা যারা রাস্তায় ঘুমায়, তারা স্বাভাবিক মানুষ নন।

১৯| ২৮ শে জুন, ২০২২ রাত ১০:৩০

মোহাম্মাদ আব্দুলহাক বলেছেন: আপনার প্রশ্ন ছিল ইংরেজ।

যাক, আল্লাহর দয়ায় আমি সুখে শান্তিতে আছি। সবার সুখ শান্তি কামনা করি।

২৮ শে জুন, ২০২২ রাত ১০:৪০

সোনাগাজী বলেছেন:



শুনে খুশী হলাম, ভালো থাকুন।

২০| ২৯ শে জুন, ২০২২ রাত ১২:০০

তানভির জুমার বলেছেন: সামুর বর্তমান বেশীরভাগ ব্লাগারের ইসলাম, মুসলিম ইত্যাদি সম্পর্কে ধারনা নাস্তিক লেভেলের। যৌক্তিক আলোচনা না করে হুদাই ইসলাম নিয়ে পটর পটর করে। নারী উপার্জন করতে পারলেই সে স্বাধীন, সমাজে তার সম্মান অনেক বেশী ইহা একটি বে-য়াকুবী ধারনা। পশ্চিমে অনেক নারীই কাজ করে না তারা স্বামীর ইনকামের উপরই নির্ভর করে তাই বলে তাকে পরাধীন-সম্মানহীন ভাবা হয় না।

২৯ শে জুন, ২০২২ রাত ১২:১৩

সোনাগাজী বলেছেন:



যেসব পরিবার স্বামীর একা আয়ে ভালো চলতে পারে, সেসব পরিবারের নারীরা পরিবার দেখলেই ভালো। ইসলাম যে, সবকিছুর সমাধান ইহা লজিক্যাল নয়; যখন ইসলাম এসেছিলো, তখন মানুষের দীক্ষা শিক্ষা ছিলো না; আজকের মানুষ সর্বকালের মাঝে সবচেয়ে বেশী জ্ঞানী।

২১| ২৯ শে জুন, ২০২২ রাত ১২:১০

মোহাম্মদ গোফরান বলেছেন: আসলে ইসলামে নারী কে মর্যাদা দিয়েছে সেটা সত্য। ইসলামে আল্লাহ এবং মোহাম্মদ সঃ এর পর মায়ের স্থান। ইসলামে বলা আছে দুনিয়ায় মুমিন দের জন্য পরীক্ষা। যে পাশ করবে সে জান্নাত পাবে।
আর পর্দা সম্পর্কে আমার অভিমত হলো - ইসলামে দেহের পর্দার চেয়ে চোখের ও মনের পর্দার কথা বেশি গুরুত্ব দেয়া হয়ে। একটা মেয়ে হজাব পরছে মনে নোংরামি। এটা পর্দা নয় । তার চেয়ে মিনি স্কাট পরা যে মেয়েটির মনে নোংরামি নেই সে হিজাব পরাটা নোংরাটার চেয়ে বেশী পবিত্র।

২৯ শে জুন, ২০২২ রাত ১২:১৭

সোনাগাজী বলেছেন:



পোশাক হচ্ছে বিবিধ জাতির প্রয়োজন ও তাদের সংস্কৃতির অংশ।

মুসলমানেরা অণ্যদের থেকে ( গ্রীক, রোমান, ইহুদী, মিশর ) অনেক ভালো কিছু শিখে, কিন্তু উহাকে দখল করে ইসলামের নামে। আমাদের নবীর সময়েই গ্রিক, রোমে নারীরা সেই সময়ের জন্য সন্মানী জীবন যাপন করতো। মনে হয়, বেদুইন ট্রেডিশনে নারীর ভুমিকা গণ্য করা হতো না।

২২| ২৯ শে জুন, ২০২২ রাত ১২:১১

রাজীব নুর বলেছেন: সহজ সরল সত্য কথা হলো ইসলাম ধর্ম নারীদের কোনঠাসা করে রেখেছে।

২৯ শে জুন, ২০২২ রাত ১২:১৮

সোনাগাজী বলেছেন:


ইসলামী মনোভাবের মানুষেরা মানসিকভাবে নারীকে ঠিক নিজের সমান হিসেবে নেয় না

২৩| ২৯ শে জুন, ২০২২ দুপুর ১:৪৪

রায়হান চৌঃ বলেছেন: লোকে বলে "মুরগি খাঁচা থেকে বের হয়ে গেলে শিয়ালের ই লাভ" এখনে মুরগি / শিয়ালের ভুমিকায় কে আছেন তা নিয়ে ঘাঁটাঘাঁটি করে লাভ নেই।
আমি গত september, 2012 থেকে Schlumberger Middle East SA. সাথে কাজ করছি, Multinational company হিসেবে Schlumberger কে Giant company বলা যায়।
এক ঝাঁক সৌদী মেয়ে কাজ করে এখানে, বলতে পারেন ছেলেদের চাইতো কম করে হলেও ৩/৪ গুন বেশি মেয়ে আছে, কাজের ক্ষেত্র বলতে- এইছ আর, ফিনান্স, মার্কেটিং, বিজনেস, ইন্জারিং, মেকানিকেল, আইটি- কোন ক্ষেত্র ই বাঁকি নেই, তবে হাঁ পর্দার সহিত, সন্মানের সহিত।

আমি বাংলাদেশে ও বেশ কিছু ভালো প্রতিষ্ঠানে কাজ করেছি, দেখেছি অনেক কিছুই। এখান কার কাজের ক্ষত্র আর আমাদের দেশের কাজের ক্ষত্র এক নয়, আমাদের নৈতিক চারিত্রিক ঘঠন হয়েছে ভারতীয় ঘরনায়। আর এখানকার চারিত্রিক ঘঠন ইসলামিক ঘরনায়। এরা সন্মানের সাথে নিজের জায়গায় কাজ করছে, নামাজ পড়ার সময় নিজের এরিয়ায় নামাজ ও পড়ছে, কোরআন ও পড়ছে। সুতরাং বুঝতেই পারছেন কত টুকু সন্মান ও নিরাপত্তার মধ্যে আছে এরা।

আর... বিপরিতে আমাদের ভারতীয় উপমাহাদের বিশেষ করে বাংলাদেশের মেয়ে গুলোর কাজের ক্ষত্রে বৈশম্য, সিমাবদ্বতা তো আছেই.... নাই শুধু সন্মান আর নিরাপত্তা টুকু। এমন কি চাকুরি বাঁচাতে, ঠিক মতো সাপোর্ট পেতে গিয়ে বস এর কোলে উঠে বসতে হয়।

আশা করি প্রমান চাইতে আসবেন না..... দিতে পারব না এমন কোন বিষয় নয়...... তবে দিব না, কারন ঐ মেয়ে গুলোর সন্মান নিয়ে খেলা করার কোন অধিকার আমার নেই।

২৯ শে জুন, ২০২২ বিকাল ৫:২২

সোনাগাজী বলেছেন:


এটি নিশ্চয়ই ভালো উদাহরণ।

সৌদীর নারীদের শতকরা কতভাগ চাকুরী করছেন? Schlumberger Middle East SA. কোন দেশী কোম্পানী?
আমাদের মেয়েরা কি বসের কোলে বসতে চায়? বাংগালী বসেরা বেশীর ভাগই মুসলমান, ইসলামী কায়দায় আদর করতে চায়।

২৪| ৩০ শে জুন, ২০২২ সকাল ১০:৪৬

রায়হান চৌঃ বলেছেন: চাকুরী, শিক্ষা এবং সন্মানে পুরুষের চাইতে মেয়েরা খুব বেশি এগিয়ে আছে,
শুধু Schlumberger লিখলেই Google আপনাকে সব বলে দিবে কারন ও সব জানে।

ও হাঁ.... আমাদের মেয়েদের চাইতে পুরুষ মানুষ গুলোই বেশি ছক আঁকে কাকে কখন, কি ভাবে কোলে বসানো যায়। আর এতে বড় বেশি সহযোগি হিসেবে আছে নারী অধিকার সংশ্লিষ্টরা, কারণ ওদের দু মুখো নীতির একটা হলো নারী অধিকার অন্যটা হলো নেকড়ের খাবার যোগানো। ঐ যে কথায় বলেনা "নেকড়ের মুখে মুচকি হাঁসি" এ উক্তিটা ওদের জন্য ই রইল।

আর তাই তো লোকে বলে "মুরগি খাঁচা থেকে বের হয়ে গেলে শিয়ালের ই লাভ"

৩০ শে জুন, ২০২২ সকাল ১১:১৬

সোনাগাজী বলেছেন:



মানুষের জীবনের বড় কাজ অন্যের কোলে বসে থাকা? বাস্তব জগতটাকে বুঝুন।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.