নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

শিক্ষাই দরিদ্রদের জন্য সম্পদ।

সোনাগাজী

একমাত্র সোস্যালিষ্ট অর্থনীতি বাংগালী জাতিকে নিজ পায়ে দাঁড়াতে সাহায্য করবে।

সোনাগাজী › বিস্তারিত পোস্টঃ

মাদ্রাসার শিক্ষার পরিবেশ শিশুদের লজিক্যাল ভাবনার প্রসেসকে থামিয়ে দেয়

২৩ শে জানুয়ারি, ২০২৩ রাত ১১:০৭



জাপান, সুইডেন, কানাডার মানুষজন ভালো আছেন, নাকি পাকিস্তান, বাংলাদেশ, আফগানিস্তান, ইয়েমেনের মানুষজন ভালো আছেন? আপনার উত্তর কি হবে আমি জানি না; তবে, একজন হুজুরকে ইহার কারণ জিজ্ঞাসা করলে, উনি যেসব উত্তর দেবেন, সেটা সঠিক না'হওয়ার সম্ভাবনা শতকরা ৯৯ ভাগ।

জাপান, সুইডেন, কানাডা বা ইসরেয়েলের মানুষদের সুখের ব্যাপারে হুজুরদের একটা উত্তর হলো, আল্লাহ ওদেরকে এই পৃথিবীতে ভালো থাকতে দিচ্ছেন, কারণ তাদের পরকাল নেই, তারা পরকালে কিছু পাবে না। একজন হুজুর কি একজন জাপানীর পরকাল জানার কথা? উনার এই ধরণের কথায় ও ভাবনায় কোন লজিক নেই।

শিশুদের মাদ্রাষায় ভর্তির পর, তারা যেই পরিবেশে, যেসব শিক্ষকদের কাছে পড়ালেখা করে, সেখানে আজকের বিশ্ব সম্পর্কে কোন সঠিক ধারণা গড়ে উঠে না; তাদেরকে এমন সব বিষয় পড়ায়, সেখানে ভাবারও কিছু থাকে না; তাদেরকে এমন পরিবেশের মাঝে রাখে, যেখানে আধুনিক জগত ও আধুনিক সভ্যতাকে পাপাচার হিসেবেই দেখানো হয়।

ওদের পাঠ্যসুচীতে যা থাকুক, তারা আধুনিক মানুষের জীবনকে বেঠিক জীবন হিসেবেই নেয়। মানুষের জীবন সম্পর্কেও তাদের অনেক ভুল লজিক শেখানো হয়: মানুষ যখন অপরাধ করে, বেশীরভাগই মানুষের আচরণকে দোষারোপ না করে, সবকিছু কল্পিত শয়তানের উপর চাপিয়ে দেয়া হয়। শিশুরা যাতে এই শয়তানের হাত থেকে রক্ষা পায়, তাদেরকে ২/১ লাইন আরবী কবিতাও শেখানো হয়; ফলে, ওদের মাঝে কেহ অপরাধ করলে, নিজকে দায়ী না করে, কল্পিত শয়তানের উপর দায়িত্ব চাপিয়ে দেয়।

মাদ্রাসার শিশুদের ধারনা দেয়া হয় যে, মুসলমানেরা অতীতে ভালো ছিলো, কারণ তাদের ইমানের জোর ছিলো; আসলে, সামন্তবাদের সময়, আরবেরা ও তুর্কীরা এশিয়া, আফ্রিকা ও ইউরোপের একাংশ দখল করে নিজেরা ভালো থেকেছে; কারণ তারা সামন্তবাদী সময়ে অন্যদের চেয়ে শক্তিশালী যোদ্ধা ছিলো। কিন্তু তারা সময়ের সাথে নিজেদের শিক্ষিত করেনি, এক সময় সামন্তনাদের পতন হয়েছে; এখন তারা সমস্যায়।

মাদ্রাসায় সায়েন্স ও অংক পড়ালেও, তারা এগুলো পড়ছে চাকুরী ইত্যাদিতে স্হান পাবার জন্য; কিন্তু তারা এগুলো বিশ্বাস করে না।


মন্তব্য ৫৫ টি রেটিং +২/-০

মন্তব্য (৫৫) মন্তব্য লিখুন

১| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ রাত ১২:০৫

কামাল১৮ বলেছেন: বাংলাদেশকে দেখতে হবে অন্যান্য মুসলিম দেশের সাথে।তাদের থেকে এগিয়ে আছে নাকি পিছিয়ে আছে।

২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ রাত ১২:০৯

সোনাগাজী বলেছেন:



বর্তমান সভ্যতায় যারা ভালো আছে, আমাদেরকে তাদের পথ নিয়ে ভাবতে হবে।

২| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ রাত ১:৩৯

অধীতি বলেছেন: বিশ্বাস বিষয়টা বড়ই অদ্ভুত। আপনি যতই যুক্তিবিদ হন না কেনো, আপনার চিস্তাকে একঘেয়ে করে ফেলবে।

২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ রাত ২:০৩

সোনাগাজী বলেছেন:



এই ধরণের ভুল বিশ্বাস আমাদেরকে আধুনিক পৃথিবী থেকে দুরে অন্য গ্রহে নিয়ে গেছে।

৩| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ রাত ১:৫৫

রানার ব্লগ বলেছেন: ধর্মীয় শিক্ষা ছাড়া মাদ্রাসায় অন্য কিছুই শেখানো হয় না।

২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ রাত ২:০৩

সোনাগাজী বলেছেন:



ধর্মেও লজিক থাকার দরকার।

৪| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ রাত ২:০৫

রানার ব্লগ বলেছেন: পৃথিবীর সকল ধর্ম অন্ধ বিশ্বাস কে প্রাধান্য দেয় লজিক কে না। কোথাও এমনো বলা আছে যুক্তি শয়তানের অস্র!

২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ ভোর ৪:০৪

সোনাগাজী বলেছেন:



বিশ্ব চলছে লজিক মেনে, লজিকবিহীন কিছু নেই; যারা লজিকবিহীন চিন্তাভাবনা করছে, তারা প্রকৃতির নিয়মকে ভংগ করছে।

৫| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ ভোর ৫:০৫

অনল চৌধুরী বলেছেন: এক তরফা কথা বলা বন্ধ করেন।
দেশের সব বাংলা-ইংরেজী মাধ্যমের বিদ্যালয় এবং সরকারী-বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়গুলি আরো বেশী জংলী-জানোয়ার তৈরী করে।
নিজে ৪টা বিদ্যালয় আর ৫টা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ে ২/১টা ব্যাক্তি ছাড়া এসবে ভালো কাউকে দেখিনি ।
দেশের নেতৃত্ব এবং সবকিছু পরিচালনা করছে এরাই, মাদ্রাসার লোকজন না।
আর মাদ্রাসাতে তো জ্ঞান-চর্চা বলে কিছু্ হয়না।

২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ ভোর ৫:২৭

সোনাগাজী বলেছেন:


আপনি নিজেই বলছেন, "আর মাদ্রাসাতে তো জ্ঞান-চর্চা বলে কিছু্ হয়না। "

-আমি সেই কথাই বলছি। যেই বাচ্চাগুলো ওখানে পড়ছে, ওরা তো ইচ্চা করে ওখানে যাচ্ছে না, সিষ্টেম তাদেরকে ওখানে ঠেলে দিচ্ছে; তাদের ৬০/৭০ ভাগ কোন ধরণের ভালো সুযোগ পাবে না।

৬| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ ভোর ৬:১১

অনামিকাসুলতানা বলেছেন: মাদ্রাসা না থাকাই ভাল এরকম চিন্তার সাহস বাংলাদেশের বেশিরভাগ মানুষে্র নেই আবার অনেকে যুক্তি দেখায় এরা না থাক লে আমাদের জানাজা পড়াবে কে? নামাজ পড়া বে কে?কোরবানি করাবে কে?
আবার আমাদের এখানে কিছুদিন ধরে মসজিদ কমিঊনিটিতে আলাপ হচ্ছিল, যারা নাকি মাদ্রাসায় পড়ে তারা কখন ও না খেয়ে থাকে না। তারা মা বাবা কে ফেলে দেয় না। তাদের মধ্যে বিবাহ বি চ্ছে দ নেই। কোন দিন শুনেছেন কোন হুজুরের বঊ পালায়েছে?
তারা দূুর্নীতি করে না ইত্যাদি।
যত খারাপ কাজ ক রে সব বাংলা আর ইংরেজি মিডিয়ামে পড়া মানুষেরা।

২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ ভোর ৬:২৪

সোনাগাজী বলেছেন:



ওরা আসলে কিছুই করে না; আফগানিস্তান সেটার বড় উদাহরণ; ওরা মেয়েদের পড়তে দেয় না, চাকুরী করতে দেয় না, মানুষের মতো বাঁছতে দেয় না; মেয়েরা হলো বাচ্ছা জন্ম নেয়ার ফ্যাক্টরী ও পুরুষের মনোবজ্জনের খেলনা।

২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ ভোর ৬:২৮

সোনাগাজী বলেছেন:




আমাদের সরকারের লকেরা চুরি করছে, ব্যবসায়ীরা ফাঁকি দিচ্ছে, সরকার আমাদের জন্য কিছু করছে না; প্রশাসন দুষ্ট হলে, জাতি তাদের অনুসরণ করে।

৭| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ ভোর ৬:৫৬

হাসান জামাল গোলাপ বলেছেন: সরকার আপাতত মূল ধারার স্কুল কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ের সুষ্ঠূ শিক্ষা ও তাঁর পরিবেশ নিশ্চিত করুক অন্তত। এতিম ও দরিদ্র জনগোষ্ঠীর স্কুল মাদ্রাসা তখন সব কারকুলামের অধীনে আসবে।

২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ সকাল ৭:২১

সোনাগাজী বলেছেন:


যারা সরকার ও প্রশাসনে আছে, ভালো ব্যবসা করছে, তারা গত ৫২ বছর এটাই করছে; তারা নিজেদের পরিবারগুলোকে একটু ঘুছাছে উঠুক, তারপর চাষী, দিনমুজুর, রিকসাড্রাইভার ও এতিমদের জন্য ব্যবস্হা করবে।

৮| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ সকাল ৮:৫৫

নূর আলম হিরণ বলেছেন: বর্তমানে মাদ্রসা শিক্ষা বন্ধের দুই একটি উপায়ের কথা বলুন যাতে মাদ্রাসা শিক্ষা বন্ধ হয় এবং সরকারের গদিও ঠিক থাকে!

২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ সকাল ৯:৪৪

সোনাগাজী বলেছেন:



যেসব মাদ্রাসা বড় বড় গন্ডগোল করে, যেমন হাজারীর ২টি বড় মাদ্রাসার বেলায়, সরকার শিক্ষকদের বেতন দেয়ার শুরু করতে পারে; হোষ্টেলের ভার দিতে পারে কম্প্যুউটারের শিক্ষকদের; তারপর, ক্রমেই হেফাজত ও জামাতীদের ফান্ড থেকে আসা টাকা পয়সা নেয়া বন্ধ করে, ক্রমেই উচ্চ-শিক্ষিত আরবীজানা শিক্ষক নিয়োগ দেয়া।

ছোট ছোট মাদ্রাসাগুলো কিনে নেয়া ও নতুন করে মাদ্রাসা করতে না'দেয়া।

৯| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ সকাল ৯:৪৫

তানভির জুমার বলেছেন: স্বাধীনতার আগে এবং পরে ৫২ বছর ধরে লুটপাট আর হত্যাজঘ্য কিন্তু স্কুল পড়ুয়া আর প্রগতিশীলরাই চালাচ্ছে। প্রকৃতপক্ষে যারা ইসলামী শিক্ষায় আছে তারা নিজের সব ধরনের কষ্ট মেনে নিয়েও সৎ হয়। তথাকথিত নাস্তিক-বাম-উদারবাদী-প্রগতিশীলরা বিশ্বাস করে যা কিছু প্রাপ্তি আর আরাম আয়েশ তা দুনিয়াতেই সো, লুটপাট আর ধান্দা সবই করে তারা জাস্ট জীবনকে সর্বোচ্চভাবে উপভোগ করার জন্য।

২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ সকাল ১১:১৩

সোনাগাজী বলেছেন:



ইসলামী শিক্ষা, খৃষ্টান শিক্ষা, হিন্দু শিক্ষা বলতে যা আছে, এগুলো শিশুদের জন্য নয়; জেনারেল শিক্ষার পরে এসব বিষয় পড়ানো দরকার।

১০| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ সকাল ১০:১০

নতুন বলেছেন: মাদ্রসার বড় একটা অংশ দরিদ্র এবং এতিম বাচ্চারা।

এদের জন্য সমাজের মানুষ দান করে তাই মাদ্রসার আয় আছে,

সরকার এতিম/দরিদ্র বাচ্চাদের স্কুলে পাঠানোর ব্যবস্থা নিলে মাদ্রসাতে পাঠানো কমে যাবে। আবার কিছু বাবা মা আছে যারা বাচ্চাদের মাদ্রাসায় পড়িয়ে নিজের জন্য বেহেস্তের চাবি নিস্চিত করে। তাদের জন্য মাদ্রসা টিকে থাকবে।

আমাদের সাধারন শিক্ষা ব্যবস্থা চরম দূনিতি চলছে। সরকারের টাকার লুটপাট হচ্ছে আগে এটাও ঠিক করা দরকার।

প্রথমিক স্তরের শিক্ষকের মান খুবই খারাপ। সেটাও ঠিক করা দরকার।

২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ সকাল ১০:৫৩

সোনাগাজী বলেছেন:



গরীবদের ভার সরকার না'নিয়ে, তাদেরকে অপ্রয়োজনীয় নাগরিক বানাচ্ছে।

১১| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ সকাল ১০:২৯

েকৌতুহলী বয় বলেছেন: যাচাই বাছাই ছাড়া অযুক্তিক ভাবে একটা গোষ্ঠিকে আপনি এভাবে বলতে পারেন না । আশা করি সরেজমিনে নিজের চোখে দেখে জেনে লিখবেন।আপনি স্পষ্টত বিদ্বেশ বসত েএমন লিখেছেন এটা আপনার লেখা ও মন্তব্য গুলোতে স্পষ্ট।

২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ সকাল ১০:৫৫

সোনাগাজী বলেছেন:



আপনি কোথায় পড়েছেন, মাদ্রাসায়?

১২| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ সকাল ১০:৩৯

চারাগাছ বলেছেন:

মেডিকেল সাইন্স হচ্ছে বিজ্ঞান। বাংলাদেশের মেডিকেল ছাত্ররা সবাই কি ধর্ম বিশ্বাস করে না ? নাকি বেশিরভাগই ধর্মে বিশ্বাসী।
যারা ডাক্তার হয়ে চিকিৎসা দিচ্ছে তাদের কত পার্সেন্ট ধর্ম বিশ্বাস করে না বলে আপনার ধারণা।

ধর্মে বিশ্বাস করে বলে তারা কি সঠিক সেবা বা চিকিৎসা দিতে পারছে না ?


২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ সকাল ১০:৫৫

সোনাগাজী বলেছেন:



যারা মেডিক্যালে পড়ছে, তাদের সম পর্যায়ের শিশুরা মাদ্রাসায় পড়ছে; যারা মাদ্রাসায় পড়ছে, তাদের জীবনটা অনিশ্চয়তার মাঝে আছে।

১৩| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ সকাল ১০:৪৩

মরুভূমির জলদস্যু বলেছেন:
- কোনো একটা বিষয় সম্পর্কে একেবারেই কিছু না জেনেই আপনি খুব চমৎকার বিশ্লেষণ লিখতে পারেন।
- রবীন্দ্রনাথের শেষের কবিতা সম্পর্কে কিছু লিখবেন সময় করে?

২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ সকাল ১০:৫৬

সোনাগাজী বলেছেন:



আমি স্কুল, মাদ্রাসা, মক্তব দেখেছি।

১৪| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ সকাল ১০:৪৭

শেরজা তপন বলেছেন: শুধু ক্ষমতার লোভে ধুরন্ধর ইসলামী শাসকেরা- মুসলিমদের জ্ঞান-বিজ্ঞান চর্চা থেকে থেকে সরিয়ে শুধু অন্ধ ধর্মীয় পুঁথিগত বিদ্যা হাসিলের দিকে ঢেলে দিয়েছে পুরো মুসলমান জাতিকে। তারা তৈরি করেছে অন্ধ বিশ্বাসের মুর্খ গোঁয়ার দাস শুধু!

২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ সকাল ১০:৫৯

সোনাগাজী বলেছেন:




অটোম্যানরা নিজেদের লোকদের মুর্খ করে রাখায়, তদের দেশ চালনায় ও উচ্চপদে ছিলো ইউরোপীয়ানরা। অটোম্যনাদের পারিবারিসক সব শিক্ষক ছিলো ইউরোপীয়।

১৫| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ সকাল ১১:১৪

চারাগাছ বলেছেন:

ধর্মে বিশ্বাসী ডাক্তারেরা কি সঠিক সেবা বা চিকিৎসা দিতে পারছে না ?

ঢাকাতে বাচ্চাদের মাদ্রাসাতে পড়ানোর প্রবণতা অনেক বেড়েছে। কারণ এখন বেশ কিছু মাদ্রাসার শিক্ষা ব্যবস্থা কিছুটা অন্য রকম।
আমার জানামতে বিদেশেও বাঙ্গালীদের মধ্যে এমন প্রবণনতা দেখা যাচ্ছে। হয়তো শুধু বাঙালিদের মধ্যে নয় মুসলিম জাতির মধ্যেই এমন প্রবণতা লক্ষ্য করা যাচ্ছে। আপনি বিজ্ঞ মানুষ আপনি জানবেন।
আমরা ছোটবেলায় যারা আলিফ , বে , তে পড়েছি তারাও এখন তাদের ছেলেদের আলিফ , বে , তে এর মধ্যে রাখতে চাচ্ছে না।

এখন যেটা প্রবণতা আগামী ১০ বছর পরে সেটাতে অভ্যুত্থান ঘটে হয়তো বা।

২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ বিকাল ৪:২৪

সোনাগাজী বলেছেন:


আলিফ , বে , তে, আসলে আরবী পড়তে শিখানোর অংশ; শিশুদের ১টি বিদেশি ভাষা শেখানোর প্রয়োজনীয়তা আছে। কিন্তু মাদ্রাসার পরিবেশ বাচ্ছাদের যা'শেখায়,সেটা হলো আধুনিক সভ্যতার বিপক্ষে ও লজিকবিহীন ভাবনাচিন্তার বিষয় শেখায়, যা বাস্তব জীবনের সাথেমিল নেই।

১৬| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ সকাল ১১:৫২

েকৌতুহলী বয় বলেছেন: না আমি মাদ্রাসায় পড়িনি । কিন্তু মাদ্রসা গুলো দেখেছি তাদের বই পড়েছি। তাদের সাথে চলেছি। আপনার করা অভিযোগ গুলো হয়ত আংশিক সত্য তবে দু একটা মাদ্রাসা দিয়ে সবাইকে বিবেচনা করবেন না ।

২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ বিকাল ৪:২৭

সোনাগাজী বলেছেন:



সরকার ও প্রশাসনে যারা আছে, দেশে যেসব পরিবারের অর্থনৈতিক অবস্হা ভালো, যাদের কয়েক জেনরেশন উচ্চ-শিক্ষিত, তাদের ছেলেমেয়েরা মাদ্রাসায় পড়ে না।

১৭| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ সকাল ১১:৫৫

শিশির খান ১৪ বলেছেন: এখন তো দেখি সবাই ছেলে মেয়ে কে মাদ্রাসায় পাঠাতে চায় এর কারণ কি তে হইলে আবার ইদানিং তো দেখি বুয়েট মেডিকেল বা ভার্সিটির এডমিশন টেস্ট এ প্রথম স্থান মাদ্রাসার ছেলে মেয়ে রা দখল করছে তাই বা কি ভাবে সম্ভব ?আসলে আমি মাদ্রাসার শিক্ষা ব্যবস্থা খুব একটা বুঝি না কেউ যদি সার্বিক ভাবে ধারণা দিতো তে হইলে বুঝা যাইতো কওমি আর নরমাল সিস্টেম এর মাঝে পার্থক্য কি ?আসলে মাদ্রাসার শিক্ষা বেবস্থা সম্পর্কে কেউ যদি বিস্তারিত ব্লগ লিখতো তে হইলে কিছুটা ধারণা পাওয়া যাইতো।

২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ বিকাল ৪:২৯

সোনাগাজী বলেছেন:



সবাই যদি পাঠায়, তা'হলে স্কল কলেজ বন্ধ হয়ে যাবে, মাদ্রাসা আরো বাড়বে।

১৮| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ দুপুর ১২:৪২

রাজীব নুর বলেছেন: আসলে দরিদ্রদের ছেলেমেয়েরা স্কুলে পড়ার মতো টাকা নেই। মাদ্রাসায় টাকা না থাকলে সমস্যা নাই।

২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ বিকাল ৪:৩১

সোনাগাজী বলেছেন:


মাদ্রাসা থেকে যারা বের হয়েছে, তারা সমাজে কি অবস্হায় আছে? তারা আধুনিক সভ্যতায় বিশ্বাসী নন।

১৯| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ দুপুর ১২:৫১

শূন্য সারমর্ম বলেছেন:


ইহকাল/পরকাল ভাবনায় মিক্সড হয়ে নতুন ভার্সনের মাদ্রাসা সম্ভবত চালু হয়েছে দেশে,খরচ বেশি।

২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ বিকাল ৪:৩৫

সোনাগাজী বলেছেন:



মাদ্রাসা গ্রেজুয়েটরা আধুনিক সভ্যতাবিখুখ, জাতি বিশ্বের তুলনায় পেছনে পড়ে থাকবে সব সময়।

২০| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ দুপুর ১:৪৫

চারাগাছ বলেছেন:
রাজীব নুর বলেছেন: আসলে দরিদ্রদের ছেলেমেয়েরা স্কুলে পড়ার মতো টাকা নেই। মাদ্রাসায় টাকা না থাকলে সমস্যা নাই।

আপনার সম্ভবত ধারণা নেই।
এখনকার শিক্ষিত সম্ভ্রান্ত পরিবারের অভিভাবকরা তাদের বাচ্চাদের মাদ্রাসায় দিচ্ছেন। এই প্রবণতা লক্ষ করার মত।
সেখানে কি রকম খরচ আপনার জানার কথা। না জানলে , জেনে একটা ব্লগ লিখবেন। অনেকেই জানতে পারবে।

২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ বিকাল ৪:৩৮

সোনাগাজী বলেছেন:


শিক্ষিত সম্ভ্রান্ত পরিবারের অভিভাবকরা কি মাদ্রাসার গ্রেজুয়েট?

২১| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ বিকাল ৪:৫৭

চারাগাছ বলেছেন:
বলেছেন:
শিক্ষিত সম্ভ্রান্ত পরিবারের অভিভাবকরা কি মাদ্রাসার গ্রেজুয়েট?



না তাহারা মাদ্রাসায় গ্রাজুয়েট না। তাহারা জেনারেল লাইনেই পড়েছে। সাইন্স , আর্টস , ঢাবি জাবি সবই আছে।

আগে মাদ্রাসায় নিম্ন বিত্ত , স্বল্প শিক্ষিত পরিবারের ছেলেরা। এখন কিন্তু তেমনটা হচ্ছে না। অমানুষের ধ্যান ধারণা বদলাচ্ছে। অনেকেই অবিভাবক আগ্রহ দেখাচ্ছে।

২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ বিকাল ৫:৪৩

সোনাগাজী বলেছেন:



আমিতো দেখছি, যাদের কয়েক জেনারেশন শিক্ষিত এবং ধনী, তাদের ছেলেমেয়েরা বৃটিশ সিষ্টেমে পড়ে আমেরিকা ও বৃটেন যাচ্ছে, এরাই ব্যবসা বাণিজ্য দখল করছে। ঢাকার ভালো ও দামী স্কুলগুলোতে কাদের ছেেলমেয়েরা পড়ছে?

২২| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ বিকাল ৫:০৩

চারাগাছ বলেছেন:
লেখক বলেছেন:
আলিফ , বে , তে, আসলে আরবী পড়তে শিখানোর অংশ; শিশুদের ১টি বিদেশি ভাষা শেখানোর প্রয়োজনীয়তা আছে। কিন্তু মাদ্রাসার পরিবেশ বাচ্ছাদের যা'শেখায়,সেটা হলো আধুনিক সভ্যতার বিপক্ষে ও লজিকবিহীন ভাবনাচিন্তার বিষয় শেখায়, যা বাস্তব জীবনের সাথেমিল নেই।


লজিক বিহীন ভাবনা চিন্তা বলতে আপনাদের ভাষায় বুঝি সেটা হচ্ছে - ধর্মীয় বিশ্বাসের উপর ভিত্তি করে চিন্তা করা ! তাই নয়কি ?

এমন চিন্তা কিন্তু জেনারেল লাইনে পরেও মাথায় থাকবে যদি সে ধর্ম বিশ্বাস করে। একজন ধার্মিক ডাক্তার নিশ্চয় নবীর বোরাকের কথা অস্বীকার করবে না ? কি বলেন ?

এখনকার অনেক মাদ্রাসায় অনেক কিছু শেখানো হচ্ছে বলেই অভিভবকরা আগ্রহী হচ্ছে। মাদ্রাসার বাচ্চারা ইংরেজিতে টুইকেল টুইংকেল পারে কিন্তু।

২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ বিকাল ৫:৪৬

সোনাগাজী বলেছেন:



ধর্ম শিক্ষা শিষহুর জন্য নয়, ধর্ম শিখবে জেনারেল শিক্ষার পর; ধর্ম শিখার জন্য পরো শিক্ষা জীবন ব্যয় করার দরকার নেই; ইহা অনার্স হিসেবে পড়ানোর দরকার।

২৩| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ বিকাল ৫:৫২

চারাগাছ বলেছেন: লেখক বলেছেন:
আমিতো দেখছি, যাদের কয়েক জেনারেশন শিক্ষিত এবং ধনী, তাদের ছেলেমেয়েরা বৃটিশ সিষ্টেমে পড়ে আমেরিকা ও বৃটেন যাচ্ছে, এরাই ব্যবসা বাণিজ্য দখল করছে। ঢাকার ভালো ও দামী স্কুলগুলোতে কাদের ছেেলমেয়েরা পড়ছে?


আপনার মন্তব্য সঠিক।
আমি কিন্তু বলছি ২০ ভাগ বা ৫০ ভাগ আধুনিক মাদ্রাসা শিক্ষা বেছে নিচ্ছে।
আমি বলছি আগের চেয়ে অনেক বেশি। বড়োজোর ১০ ভাগ ধরতে পারেন।

২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ সন্ধ্যা ৬:০০

সোনাগাজী বলেছেন:



মাদ্রাসা ব্যবস্হা আধুনিক নয়, যারা মাদ্রাসাকে আধুনিক রূপ দিচ্ছে, তারা কোন উদ্দেশ্য নিয়েই তা করছে।

২৪| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ বিকাল ৫:৫৮

চারাগাছ বলেছেন:
লেখক বলেছেন:
ধর্ম শিক্ষা শিষহুর জন্য নয়, ধর্ম শিখবে জেনারেল শিক্ষার পর; ধর্ম শিখার জন্য পরো শিক্ষা জীবন ব্যয় করার দরকার নেই; ইহা অনার্স হিসেবে পড়ানোর দরকার।


কোন কিছুর ভিত্তি কিন্তু চারাগাছ থেকেই শুরু করতে হয় আর বাচ্চারা শিশু বয়সে যত তাড়াতাড়ি রপ্ত করতে পারবে মাঝ বয়সে সেটা পারবে না।

অনেক বাচ্চার অভিভাবক বাচ্চাকে শুধু হাফিজিয়া শেষ করে জেনারেলে পড়াচ্ছেন , কেউ কেউ আরো পরে।
আপনার সাথে কথা বলে ভালো লাগলো। আমার ধারণাই সঠিক সেটা বলছি না। আপনার ধারণা গুলোকে যথেষ্ট সমীহ করছি।

অনেক ধন্যবাদ।

২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ সন্ধ্যা ৬:০১

সোনাগাজী বলেছেন:



ধন্যবাদ।

২৫| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ রাত ৯:৩২

রাজীব নুর বলেছেন: মোল্লারা নারী শিক্ষার বিরোধী ছিল। বেগম রোকেয়ার কারনে নারী শিক্ষা প্রচার প্রসার ঘটায় মোল্লারা সুর পাল্টিয়েছে। এখন বলে বেড়ায় নারীরা পর্দা করে যেকোন শিক্ষা গ্রহন করতে পারে।

২৫ শে জানুয়ারি, ২০২৩ রাত ১২:২৬

সোনাগাজী বলেছেন:




আমাদের মোল্লারা সুযোগ পাচ্ছে না, সুযোগ পেলে মেয়েদের পড়তে দেবে না।

২৬| ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২৩ রাত ১১:৪৫

নয়ন বিন বাহার বলেছেন: পড়তে বললেই তেড়ে আসে।

২৫ শে জানুয়ারি, ২০২৩ রাত ১২:২৫

সোনাগাজী বলেছেন:


কাহাদের কথা বলছেন?

২৭| ২৫ শে জানুয়ারি, ২০২৩ সকাল ১১:০৭

নয়ন বিন বাহার বলেছেন: মাদ্রাসা ব্যাকগ্রাউন্ডদের কথা বলছি। পড়ে না। কোনো কিছুই না। এমনকি নিজের ধর্মগ্রন্থ আল কোরআন ও নিজ ভাষায় বুঝে পড়বে না।

২৫ শে জানুয়ারি, ২০২৩ সকাল ১১:২৩

সোনাগাজী বলেছেন:


কোরান ও মুসলমানদের ধর্মীয় জীবন নিয়ে এরা সবাই আলাদা আলাদা ব্যাখ্যা দেয়।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.