নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

শিক্ষাই দরিদ্রদের জন্য সম্পদ।

সোনাগাজী

একমাত্র সোস্যালিষ্ট অর্থনীতি বাংগালী জাতিকে নিজ পায়ে দাঁড়াতে সাহায্য করবে।

সোনাগাজী › বিস্তারিত পোস্টঃ

ঢাকা ইউনিভার্সিটির মোল্লা গ্রেজুয়েটরা জাতির জন্য বোঝা

১১ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ রাত ৮:৩৪



গতকাল ব্লগে ছিলো "তিশা দিবস"; বেশ কয়েকটি পোষ্ট এসেছিলো, অনেক ধরণের মন্তব্য হয়েছে; ২টি সরায়েও নিয়েছে। সরায়ে নেয়া ২টির মাঝে ১টির লেখক ছিলেন ঢাকা ইউনিভার্সিটির ফাইন্যান্সের গ্রেজুয়েট; তিনি পোষ্টের শিরোনামের সাথে যোগ করেছিলেন, Critical Anlysis & Findings। লেখক ঢাকা ইউনিভার্সিটির ফাইন্যান্সের গ্রেজুয়েট, ১ জন মেয়ের বিয়ে নিয়ে কি Critical Anlysis & Findings করলেন, পড়ে দেখলাম।

উনার মুল বক্তব্যের মাঝে একটি একটি হলো, তিশার বিয়েটাই একটা "বাতিল হয়ে যাওয়া বিয়ে"; উনার যুক্তি হচ্ছে, আমাদের নবীর (স: ) কোন একজন সাহাবী বলেছিলেন যে, "মেয়েরা যদি অভিভাবক থেকে বিয়ের অনুমতি না'পেয়ে, নিজের ইচ্ছায় বিয়ে করে, তাহা বাতিল বিয়ে"; কিন্তু ছেলেদের বেলায় ইহা প্রয়োজ্য নয়।

১৮ বছর ও তার চেয়ে বেশী বয়সের মেয়ে নিজ ইচ্ছায় বিয়ে করতে পারে বাংলাদেশে; এবং তিশার বিয়ে কোর্ট অবধি গড়ায়েছিলো, রায় তিশার পক্ষে আছে। তিশার নাম আমি গতকাল শুনেছি প্রথমবার, তার ভালোবাসা, সুখ-দু:খের কোন ইতিহাস আমার জানা নেই। আমি একটি ভিডিওতে দেখেছি একদল খুব তরুণ বয়সী ছেলে তিশা ও তার স্বামীকে হেনস্তা করছে বইমেলায়, পুলিশ তিশা ও তার স্বামীকে রক্ষা করার জন্য কোনদিকে নিয়ে যাচ্ছে; এসব তরুণরা তাদের পেছনে পেছনে খারাপ শ্লোগান দিয়ে তাদের অনুসরণ করছে।

ঢাকা ইউনিভার্সিটির ফাইন্যান্সের গ্রেজুয়েটের পোষ্টে আমি মন্তব্য করে অনেকক্ষণ আলোচনা করেছি ও জোর দিয়েছি যে, তিশার অধিকার রক্ষা করেছে আমাদের দেশের আইন ও সংবিধান, আপনি কেন ঢাকা ইউনিভার্সিটির ফাইন্যান্সের গ্রেজুয়েট হয়ে "ফতোয়া" দিচ্ছেন? তখন উনি আমাকে "নাস্তিক" ডাকলেন।

ব্লগে তিশাকে নিয়ে অন্য পোষ্টগুলোতেও তিশার পক্ষে বিপক্ষে মন্তব্য ছিলো; কিন্তু ঢাকা ইউনিভার্সিটির ফাইন্যান্সের গ্রেজুয়েট যদি ১৪০০ বছর আগের কোন একজন সাহাবীর বলা নিয়মকে বাংলাদেশে চালু রাখতে চা্য়, জাতি কি করে সঠিক পথে এগুবে?


মন্তব্য ৫৮ টি রেটিং +১/-০

মন্তব্য (৫৮) মন্তব্য লিখুন

১| ১১ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ রাত ৮:৫০

মোহাম্মদ গোফরান বলেছেন: আমাদের অধিকাংশ অভিভাবক দের মধ্যে ঝামেলা আছে। ছেলে মেয়ে দুইজন দুইজনকে পছন্দ করলে বিয়ের আয়োজন করবেন। কিন্তু না! দুইজনের মধ্যে ক্লাস এবং স্ট্যাটাস ম্যাচ না করলে অহংকারী বাপ-মা বেঁকে বসবেন। চট্টগ্রামে এমনও ঘটনা আছে যে, অভিভাবকদের কসাই গিরী শোনলে আপনি স্তব্ধ হয়ে যাবেন। জাস্ট ১ টা বলছি, বোনের সাথে পরিবারের অমতে বিয়ে হওয়ায় বোনকে জোর করে ঘরে আটকে রেখে যে ছেলেকে বিয়ে করেছে তাকে নির্মম নির্যাতন করেছে বাপ ভাই।


কি সব বানোয়াট হাদীস এনে মমিন গন বলছেন, অভিভাবক রাজী না থাকলে নাকি বিয়ে হবে না। অথচ আল্লাহ বিয়েটা সহজ করে দিয়েছেন।


১১ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ রাত ৮:৫৬

সোনাগাজী বলেছেন:


কোরান হাদিসকে চালু করার দাবী করছে কিছু মানুষজন; আমাদের আইন ও সংবিধানকে মেনে চলতে হবে সব নাগরিককে, বিশেষ করে শিক্ষিতদের। সংবিধান ও আইনের উপর দিয়ে ধর্মীয় কোন আইনকে চালু করা যাবে না।

১১ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ রাত ৮:৫৯

সোনাগাজী বলেছেন:



মেয়েদের অভিভাবকেরা সমস্যায় আছেন; গড়ে, বাংলাদেশের বেশীরভাগ ছেলেদের ব্যক্তিত্ব কম, বেশীরভাগ মেয়ে স্বামীর ভালোবাসা পায় না।

২| ১১ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ রাত ৮:৫৮

মোহাম্মদ গোফরান বলেছেন: আসলে অধিকাংশ হাদীস হুজুরগণ নিজেদের স্বার্থে মন গড়া বানিয়েছে। এগুলোর জন্য ইসলাম কে ব্লেম করে লাভ নাই।

১১ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ রাত ৯:০১

সোনাগাজী বলেছেন:



হুজুরেরা যা বলেন, সেটাই তো ইসলাম; মানুষকে কি স্কুলের ছেলেদের কথায় ইসলাম পালন করবেন? এটা সঠিক যে, মাদ্রাসার পড়ালেখার মান নেই।

৩| ১১ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ রাত ৯:৩১

আলামিন১০৪ বলেছেন: মেয়ে কি একজন অভিভাবকেও Convince করতে পারবে না? বাবা না হলে, মা, তা না হলে বড় ভাই/মামা/চাচা। কোন অভিভাবক না থাকলে একটা মেয়ে খুব সহজেই Trap এ পড়তে পারে। বিষয়টি এভাবে দেখুন।
আর এর বাইরে অন্য মতও আছে, অভিভাবক না থাকলে বিয়ে হবে না এমনটা না। আর আল্লাহ ভালো জানেন।

১১ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ রাত ৯:৪১

সোনাগাজী বলেছেন:



তিশার বেলায় ( তিশা ১৮, স্বামী ৫৮ ), কোন অভিভাবক রাজী হওয়ার কথা নয়; হয়তো, সাময়ের সাথে দেখা যাবে যে, তিশা নিজেরই ক্ষতি করেছে ( সম্ভাবনা বেশী )। কিন্তু নবীর (স: ) সাহাবীর কথা অনুসারে, ওর বিয়েকে বাতিল বলার ক্ষমতা কোন নাগরিকের নেই; বিশেষ করে ঢাকা ইউনিভার্সিটির কোন গ্রেজুয়েটের।

৪| ১১ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ রাত ৯:৩৯

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন:


আমার মনে হয়, ফতোয়া দেওয়া সবার জন্যে উচিৎ নয়।

আর, আপনি নাস্তিক্য নন।

১১ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ রাত ৯:৪৩

সোনাগাজী বলেছেন:



আমি নাস্তিক নই, আমাকে নাস্তিক বলে উনি নিজের অজ্ঞানতার পরিচয় দিয়ে ছিলেন।

৫| ১১ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ রাত ৯:৫০

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন:



সে একটা কলেজের অভিভাবকের সর্দার ছিল।
এই ক্ষমতার অপব্যবহার করে একটি অপ্রাপ্তবয়স্ক মেয়েকে বিয়ে করেছিল।

১১ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ রাত ৯:৫৪

সোনাগাজী বলেছেন:



মনে হয়, তিশা ভুল করেছে; লোকটা যে সৎ নন, সেটা বুঝা যাচ্ছিলো।

৬| ১১ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ রাত ১০:০১

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন:



মেয়েটার বয়স কম ।
কল্পনার জগতে ভাসছে ।
এই কারণেই তার কাছে সবকিছু ভালো লাগছে।

১১ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ রাত ১০:০৩

সোনাগাজী বলেছেন:



সম্ভবত: সেটাই ঘটেছে। কিন্তু দেশের আইন ও সংবিধানকে কেহ যেন ফতোয়া দিয়ে অকেজো করতে না'পারে।

৭| ১১ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ রাত ১০:০৬

কামাল১৮ বলেছেন: উনাকে যারা পড়িয়েছেন তারা উনার থেকে এক কাঠি সরেস।এমন গ্রাজুয়েট আছে হাজার হাজার।মাদ্রাসা থেকে পাশ করে ভারসিটিতে ভর্তি হতে দেয়াটা ছিল একটা ভুল সিদ্ধান্ত।তাদের ভিত্তি ধর্ম কেন্দ্রিক।

১১ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ রাত ১০:১৭

সোনাগাজী বলেছেন:



মাদ্রাসার নিজস্ব মাষ্টার্স ডিগ্রের ব্যবস্হা করার দরকার; তাদেরকে ইউনিভার্সিটিতে েনে লাভ নেই, তাদের সংস্কৃতিই আলাদা।

৮| ১১ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ রাত ১০:১৩

কামাল১৮ বলেছেন: আপনি বলছেন আপনি একজন আস্তিক।তার মানে আপনি একজন অন্ধ বিশ্বাসী।প্রমান ছাড়াই আপনি বিশ্বাস করেন।

১১ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ রাত ১০:১৮

সোনাগাজী বলেছেন:



আমি নাস্তিক নই। আমি কোথায়ও বলিনি যে, সৃষ্টিকর্তা নেই।

৯| ১১ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ রাত ১০:৫২

অহরহ বলেছেন: বাঙালি মুসলিম পুরুষদের এই এক সমস্যা!! কার বেডরুমে কী হচ্ছে সেটাও ইসলামের আলো জ্বালিয়ে দেখতে চায়। বস্তুত আমাদের দেশের বেকার, বঞ্চিত, অসৎ, অপদার্থ এই প্রান্তিক যুব সমাজের কাছে এরচেয়ে বেশি আশা করা যায় না। যেমন বৃক্ষ, তেমন ফল। ধন্যবাদ দাদা।

@ গাজি দাদা : মাঝে কিছুদিনের জন্য দেশে বেড়াতে গিয়েছিলাম। ২ মাস পর গেল সপ্তায়ে ফিরেছি।

১১ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ রাত ১১:০৭

সোনাগাজী বলেছেন:



দেশে কেমন ছিলেন, কোথায় ছিলেন?

এখনো নাগরিকেরা দেশের আইন ও সংবিধানকে বাদ দিয়ে ধর্মীয় আইনকে চালু রাখতে চায়।

১০| ১১ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ রাত ১১:০৮

আরইউ বলেছেন:




সোনাগাজী,
আপনি লিখেছেন “মন্তব্য করে অনেকক্ষণ আলোচনা করেছি” — অথচ আদতে আলনার আলোচনার বড় অংশ ছিলো ব্যক্তি আক্রমন। একজন ভুল লিখলে, আপনার মনের মত না লিখলে আপনি তার লেখার গঠনমূলক সমালোচনা করতে পারেন। কিন্তু আপনি তাকে লিলিপুটিয়ান ডেকেছেন, তার মগজ নিয়ে কথা বলেছেন, এছাড়া আরো জঘন্য ভাষায় তাকে আক্রমন করেছেন, তার প্রশ্নের জবাব না দিয়ে তাকে একের পর এক মন্তব্যে বুলিং করেছেন।
দয়াকরে ব্লগের মত একটা জায়গায় সভ্য সমাজের মানুষের মত আচরণ করুন। আপনার ভাগ্য ভালো ঐ লেখক কোন কারণে পোস্ট সরিয়ে নিয়েছেন নাহলে জাদিদের চোখে পরত আপনার নোংরা ব্যক্তি আক্রমনের নমুনা।

১১ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ রাত ১১:২২

সোনাগাজী বলেছেন:



ধন্যবাদ, আমি আরো ভালো আচরণ করবো।
উনি আমাকে কি বলেছে, সেটা উল্লেখ করতে তো ভুলে গেছেন।

১১| ১১ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ রাত ১১:২৬

আরইউ বলেছেন:




উনি আপনাকে কী বলেছেন তা আপনার পোস্টে আপনি উল্লেখ করেছেন।

বি.দ্র. বানটা বেশি, বেশী নয়। আপনার একটা সাধারণ বানান ভুল আমি এই নিয়ে ৩ বার ধরিয়ে দিলাম।

১১ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ রাত ১১:৩৫

সোনাগাজী বলেছেন:


বানানে সাহায্যের জন্য ধন্যবাদ।

আমি যখন স্কুল, কলেজে ছিলাম, তখন উহা "বেশী"ই ছিলো; এখন গুরুত্ব কিছুটা হারায়ে "বেশি"তে পরিণত হয়েছে, মনে হয়।

১২| ১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ রাত ১২:৩৭

অহরহ বলেছেন: লেখক বলেছেন : দেশে কেমন ছিলেন, কোথায় ছিলেন?

ভালো ছিলাম, মুলত, ঢাকাতেই ছিলাম। তারপরও এদিক সেদিক, নানার বাড়ী, কুয়াকাটা, পঞ্চগড়, তেতুলিয়া......... এই তো। তাছাড়া পুরো ডিসেম্বর মাস তো হরতাল/অবরোধ..........

১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ রাত ১:২১

সোনাগাজী বলেছেন:



ভালোয় ভালোয় ফিরে এসেছেন, ভালো হলো; ঢাকায় ডেংগু ছিলো। দেশে গেলে ভালো লাগে।

১৩| ১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ ভোর ৬:৪৭

কামাল১৮ বলেছেন: নাই যখন বলেন নাই তার মানে আছে ভাবেন।এই ভাবনাটা কি প্রমান সাপেক্ষে।নাকি অন্ধ বিশ্বাস।

১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ সকাল ৮:৩৬

সোনাগাজী বলেছেন:



সৃষ্টিকর্তাা যে নেই, সেটা নিয়ে কোন গবেষণা হয়নি; পরিচিত বিজ্ঞানীরা ঘোষণা করেনি যে, সৃষ্টিকরতা নেই। বিজ্ঞানীরা ঠিক এখনো "মেটার বা বস্তু" কি করে সৃষ্টি হলো, সেটা নিয়ে উপসংহার টানতে পারেননি, সেজন্য সৃষ্টিকর্তা নেই বলেও ঘোষণা দেননি।

১৪| ১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ ভোর ৬:৫২

কামাল১৮ বলেছেন: আলোচনা না করতে চাইলে সমস্যা নাই।আর যদি নিজের উপর আস্থা থাকে তবে চালিয়ে যেতে পারেন।অন্য একটি আলোচনায় সময় চেয়ে আর আসলেন না।

১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ সকাল ৮:৩৯

সোনাগাজী বলেছেন:




সময় চেয়েছিলাম, অনালাইনে খুঁজতে, নাম জানা বিজ্ঞানীদের কেহ সৃষ্টিকর্তা নেই বলে ঘোষণা দিয়েছেন কিনা, উহা জানতে। পরে পোষ্টে যেতে ভুলে গেছি।

১৫| ১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ সকাল ৯:৩০

অনামিকাসুলতানা বলেছেন: আজ কাল ইসলাম এর নামে যা তা গিলাবে তাকে প্রশ্ন করতে গেলেই নাস্তিক ট্যাগ লেগে যাচ্ছে।

১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ সকাল ১০:২১

সোনাগাজী বলেছেন:



মানুষের শিক্ষাদীক্ষা ও জ্ঞানের লেভেল এমন পর্যায়ে পৌচেছে, ধর্ম এখন এক ধরণের আদিম সংস্কৃতি, যার কোন সঠিক রোডম্যাপ নেই।

১৬| ১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ সকাল ১০:৩০

এম ডি মুসা বলেছেন: সে বিয়ে করছে সেটা নিয়ে আমার কোন হিসেব নাই , মানুষ প্রকৃত ভাবে একজন থেকে আরেক জন আলদা মস্তকের ।
আমি অবিবাহিত তবে আমি বলছি সে ১৮ এবং ৬৫ এগুলো বই মেলায় আসার জনগণকে জানানো এই দিকে ধাবিত করা েএটা মানে কি? ফেসবুক সহ নানা স্থানে তাদের কথা ছড়িয়ে দেওয়ার মানে কি ? দুজন রাজী ছিল বিয়ে করছে, এখন কথা হচ্ছে
সংসার করবে, ফেসবুকে েএসে ঢোল পিটায় এছাড়া , বই মেলার মত স্থানে নিজেদের লাইফ স্টাইল জানানো এরে অর্থ কি?েএদের বিয়ে করা নাকি অন্য কোন মতলব আছে? আমি আপনাকে কোথায় জানি এই সব পোস্ট দেখার জন্য ট্যাগ করছি, কারো মন্তব্য ঘরে, নবী রাসুল কি বউ কি এই ভাবে পর্দা ছাড়া আসছে? তাদের সাথে কেন তুলনা কি ভাবে মিলে? এছাড়া আরেকটি কথা
নবী রাসুল কি প্রেম করে বিয়ে করছে ? বাদ দিলাম সেটা আদি যুগ বর্তমানে কি ? ওনাদের যে কর্ম কান্ড কোথায় আছে নবী (স) অল্প বয়সে খাদিজাকে বিয়ে করছে। সে এতিম ছিল। কথা হচ্ছে সেটা নবীর তারপরও অনেক গুলো বিয়ে করছেন, মোস্তাক কি আরো বিয়ে করবেন সেটা তিশা মেনে নিবেন? আসলেই সবকিছুর ভিতরে ধর্ম টেনে আনা লোক গুলো , সবচেয়ে নিজের খারাপ স্বার্থ কায়েম করতে নিজের সুবিদা কে গুরত্ব দেয়।

মোল্লাদের কিছু গ্রুপ আছে সেটাতে বলে অধিক বিয়ে করার জন্য আলেম সমাজ হাফেজ সাবেই কে উৎসাহিত করে
তাহলে কি কোরআনে কোথায় লেখা নাই যে অধিক বিয়ে করো। আল বলছে এতিম মেয়েদের বিয়ে করো অধিক যদি তাও সমান ভাবে রাখতে না পারো না করো তাহলে। সীমা লঙ্ঘন হবে সীমা লঙ্ঘন কে আল্লাহ পছন্দ করে না।
বর্তমান আলেম সমাজ কি তাহলে আল্লাহ কথা মনে? যে কেহ দুটি বা তিনটি বিয়ে করছে কখনো সম্ভবনা সুস্থ মানুষ সমান ভাবে সবাইকে ভালো জানা।
কি হচ্ছে তাহলে বর্তমানে?

১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ সকাল ১১:৩৪

সোনাগাজী বলেছেন:



আমাদের জাতির সমস্যার মাঝে আছে; এরা আমাদের জাতীয় সংস্কৃতি, কিংবা ধর্মীয় সংস্কৃতিকেও অনুসরণ করছে না।

১৭| ১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ সকাল ১০:৩৪

এম ডি মুসা বলেছেন: কোরআনে কোথাও নেই অধিক বিয়ে করা শুধু এতিম দের বিয়ে করে ভরণ পোষণ দেওয়ার কথা আছে
যদি সেটা সমান ভাবে বণ্টন না করতে পারে তাহলে সেটা না বলা আছে, আমি ডুবাইতে ছিলাম দুই মাসের অধিক।
তখন ছিল এই সময়টা ২০১৮ সালে তারা জানে না শবে বরাত কি । কোথায় মসজিদে তাদের এই শবে বরাত পালন করা হয়না
আর বাংলা দেশে কি হচ্ছে?

১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ সকাল ১১:৩৬

সোনাগাজী বলেছেন:



এখন আমাদের সমাজ ১ স্ত্রীর পক্ষে।

১৮| ১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ সকাল ১০:৪৬

রানার ব্লগ বলেছেন: মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: মেয়েটার বয়স কম ।
কল্পনার জগতে ভাসছে ।
এই কারণেই তার কাছে সবকিছু ভালো লাগছে।



মেয়ে টা এসে আপনাকে বলে গেছে ? অন্যের ব্যক্তিগত বিষয়ে কথা বলা টা আমাদের বদ অব্যাস । একজন স্কুলের গভার্নিং বডির মেম্বার যদি অনৈতিক ভাবে কিছু করে থাকে তা হলে তাকে আইনের আওতায় আনুন আর না করলে মুখ বন্ধ রাখুন । সে আপনার পাঁকা ধানে মই বা লাঙ্গল দেয় নাই আশাকরি ।

১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ সকাল ১১:৩৭

সোনাগাজী বলেছেন:



মেয়েটার আচরণ ও ভাবনা নিয়ে উনি অনুমান করেছেন; উনি কোন ধরণের একশানে যাচ্ছেন না/

১৯| ১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ সকাল ১০:৪৯

এম ডি মুসা বলেছেন: তিশা/ মোস্তাক আলোচনা হচ্ছে , কত গরিব দুঃখী মানুষ অসহায় খেয়ে আছে না খেয়ে আছে। নানা মানুষ নানা সমস্যায় ভুগে তাদের কথা গুলো নিয়ে সমাজে ব্লগে বই মেলায় আলোচনা হয়না। হায়রে আজাইরা বাঙালি। এইসব তিশা ও মোস্তাক আলোচনা আমি গতকাল থেকে দেখি তাদের আলোচনা সমানে করার ও মানে বুঝিনা। দুজন বিয়ে করছে করুক আমার এতে আপত্তি নেই। তারা সংসার করুক । তাহলে ব্লগে কি ? বা বই মেলায় কি?েএটা মানুষকে জানানো তাদের দরকার কি? তাদের মতলব বিয়ে করা না এটা সমাজে তাদের ভাইরাল হওয়া আসলেই এটা হলো তাদের নিয়ত।

১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ সকাল ১১:৩৯

সোনাগাজী বলেছেন:



মনে হচ্ছে, লোকটা তাদের বিয়েকে প্রচার করে কোনভাবে আত্মসুখ খুঁজছিলো

২০| ১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ সকাল ১১:২০

সাখাওয়াত হোসেন বাবন বলেছেন: বিবাহিত স্ত্রীর সাথে সহবাস করা দোষের কিছু নয়। কিন্তু সেই সহবাস যদি প্রকাশ্য করা হয় তবে সেটা দৃষ্টিকটু ও নিলজ্জতা । লোকজন নিলজ্জদের ভুয়া বলছে । এর সাথে হাদিস বা ধর্মের কোন সর্ম্পক নাই ।

১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ সকাল ১১:৩৯

সোনাগাজী বলেছেন:




সঠিক।

২১| ১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ দুপুর ১২:৫৩

ধুলো মেঘ বলেছেন: ইসলাম এমন কোন ধর্ম নয় যে ফাইন্যান্সের গ্রাজুয়েট ইসলামের ভালো মন্দ হালাল হারাম বুঝবে না। সেটা বুঝতে হলে তাকে মুফতি হতে হবে!

বাবা-মা একটা মেয়েকে ১৮ বছর যাবত খাওয়ালো, পড়ালো। তার ছোট বড় সব শখ পূরণ করল। তার বিভিন্ন বয়েসের যন্ত্রণা সহ্য করল। কেন? একটু বেশি বয়েসে তারা তাদের মেয়েকে সুখে শান্তিতে সংসার করতে দেখবে, নাতী নাতনি নিয়ে আদিখ্যেতা করবে - এইটুকুই তো! সেই মেয়ে যদি জীবনের সবচেয়ে বড় সিদ্ধান্ত এই বাবা-মা'কে ছাড়াই নিয়ে নেয়, সেখানে বাবা-মায়ের কোন সে থাকবেনা? এ কেমন সমাজ?

ধরুন কোন কারণে কিং মুস্তাকের আর তিশাকে পছন্দ হচ্ছেনা। একদিনের নোটিশে লাথি মেরে বাড়ি থেকে বের করে দিল। তখন মেয়েটা কই যাবে? এই বাবা মায়ের কাছেই তো ফিরতে হবে, নাকি!

ইসলামের বিধান অনুযায়ী বাবা-মায়ের সাথে সন্তানের সম্পর্ক বিয়ে শাদীতেই শেষ হয়ে যায়না। সারা জীবন থাকে। যে মেয়ের দায়িত্ব পিতামাতার উপর সারা জীবন থাকে, সেই মেয়ের জীবনের সবচেয়ে বড় সিদ্ধান্তে বাবা মা'র কোন ভূমিকাই থাকবেনা?

১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ সন্ধ্যা ৬:০১

সোনাগাজী বলেছেন:




তিশাকে আমি খোন্দকারের কাছে বিয়ে দিইনি; সে নিজে বিয়ে করেছে, দেশের কোর্ট তার বিয়েকে বৈধ বলেছে; কিছু ঘটলে, সেটার তিশার জীবন। তার বিয়ে বৈধ নাকি অবৈধ?

২২| ১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ দুপুর ১:৪২

জ্যাক স্মিথ বলেছেন: বুয়েট ইতিমধ্যে আল-মাদানী ইউনিভার্সিটির খেতাব পেয়েছে; যেখান থেকে মানুষ হাদিসের উপর উচ্চতর জ্ঞান অর্জন করে।
ঢাবিকেও মরতবা অব কুরআন ইউনিভার্সিটির খেতাব দেওয়া হোক, তাহলে ঢাবি থেকেও মানুষ কুরাআনের উপর অগাধ জ্ঞানের ডিগ্রী অর্জন করিতে পারিবে।

১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ সন্ধ্যা ৬:০৩

সোনাগাজী বলেছেন:


আমাদের বড় বড় শিক্ষা প্রতিষ্টানে যারা সেখানে রাজনীতি ও ধর্ম আনছে, তারা জাতির বিপক্ষে কাজ করছে।

২৩| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ ভোর ৫:০১

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন:




এই মেয়ে অথবা অভিনেত্রী শাওন কিংবা হুমায়ূন আহমেদ কন্যা শীলা আহমেদ

এরা লোভের উর্ধ্বে উঠতে পারেনি।
আফসোস!

১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ দুপুর ১২:৩৮

সোনাগাজী বলেছেন:




দেশের বিশৃংখল সমাজে মেয়েদের মানসিক চাপের কথা ভেবে দেখেন।

২৪| ১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ দুপুর ২:২৭

রাজীব নুর বলেছেন: তিশা আর মুশতাক বিয়ে করেছে, সেটা সমস্যা নয়। তাদের বয়সের প্রার্থক্য অনেক সেটাও সমস্যা নয়। সমস্যা হলো তারা ফেসবুক, ইউটিউবে ফাজলামো শুরু করেছে, ছ্যাবলামি শুরু করেছে।

১৩ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ সন্ধ্যা ৭:২৬

সোনাগাজী বলেছেন:


ওটা ভয়ংকর অসততা।

আমার পোষ্ট হলো, ঢাকা ইউনিভার্সিটির গ্রেজুয়েট কিভাবে বলছে যে, "নবী (স: ) এর সাহাবীর বাণী অনুসারে তিশার বিয়ে বাতিল।"

২৫| ১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ সকাল ১০:১৫

ধুলো মেঘ বলেছেন: ঢাকা ইউনিভার্সিটির গ্রেজুয়েট যদি বলছে যে, "নবী (স: ) এর সাহাবীর বাণী অনুসারে তিশার বিয়ে বাতিল।" তাহলে সে অবশ্যই ভুল বলেছে।

সঠিক কথা হবে, "নবী (সঃ) এর নিজের বাণী অনুসারে তিশার বিয়ে বাতিল, বাতিল, বাতিল"। এই হাদীস এক দুই বার আসেনি। বার বার রেওয়ায়েতে এসেছে।

১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ সন্ধ্যা ৬:৩৭

সোনাগাজী বলেছেন:



নবী(স: ) এর কথা অনুসারে আপনার বিয়েও বাতিল ছাড়া আন্য কিছু হবে না।

২৬| ১৫ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ রাত ১০:০৯

ধুলো মেঘ বলেছেন: হে মহান যুক্তিবাদী, আমাকে যুক্তি দিয়ে বোঝান দেখি, কোন যুক্তিতে আমার বিয়েও বাতিল?

১৬ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ রাত ১২:২৪

সোনাগাজী বলেছেন:




ধর্মে কোন যুক্তি নেই, ইহাতে বিশ্বাস করুন।

২৭| ২০ শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ দুপুর ১:৫৬

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন:




আমার ২টি প্রিয় সুরা-
১। সুরা আবু লাহাব
২। সুরা নাস পড়ুন।
আপনি কি এই সুরা দুটি পাঠ করেছেন? করে না থাকলে আজই পাঠ করুন। বড়ই আচানক সুরা।
সব কিছু সামান্য হলেও ক্লিন হয়ে যাবে।

২০ শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ সন্ধ্যা ৬:১৫

সোনাগাজী বলেছেন:



সুরাগুলো কে লিখেছেন বলে মনে হয়?

২৮| ২২ শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ সকাল ৯:৩৫

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন:

সম্ভবতঃ ১৯৮৮ সালের জুন মাসে সংবিধানের অস্টম সংশোধনী প্রস্তাবের উপর বক্তব্য দিয়ে সংসদ নেতা ও প্রধানমন্ত্রী ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ বলেছিলেন- আজকের দিনে তারা রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম করে জাতির যে স্বপ্ন পূরেণ করে গেলে সে জন্য অনাগত দিনগুলোতে বাংলাদেশের মুসলমানরা তাদের জন্য দোয়া করবেন।

এই সংশোধনী বাংলাদেশে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে সরাসরি আঘাত করেছিল কিন্তু বাস্তবতা হলো- রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাতিল করার শাহস কেয়ামত পর্যন্ত কারো হবে না।

আবার রাষ্ট্র ধর্ম যেহেতু ইসলাম তাহলে দেশের নাম তো হওয়া দরকার - ইসলামিক রিপাবলিক অব বাংলাদেশ । যেমনটা পাকিস্তানের নামে আছ।
শুনেছি- ১৯৭৬ সালে নাকি একবার দেশের নাম বদলানোর চেষ্টা করা হয়েছিল।

সংবিধানের রাষ্ট্রধর্ম অংশের আলোকে বাংলাদেশের সাংবিধানিক নাম- ইসলামিক রিপাবলিক অব বাংলাদেশ (Islamic Republic of Bangladesh) রাখা এখন সময়ের দাবি।

২২ শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ বিকাল ৫:৫৫

সোনাগাজী বলেছেন:



আমাদের সংবিধানটা মানুষের পক্ষে করা হয়নি, ইহাকে বদলানোর দরকার।

২৯| ২২ শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ সকাল ১০:০২

ধুলো মেঘ বলেছেন: মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন, একটা রাষ্ট্রের কিভাবে ধর্ম থাকতে পারে? রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম করে এই দেশের কোন জিনিসটা ইসলামাইজড হয়েছে বলতে পারেন? এইদেশের অর্থনীতিতে স্বস্তির জায়গা ছিল ইসলামী ব্যাংকগুলো - সেগুলোকে ইচ্ছে করে একটা ডাকাতের হাতে তুলে দিয়ে অর্থনীতির সর্বনাশ করা হয়েছে। আর কিছু নয় - এই দেশের সরকারী অফিসগুলোতে যদি ইসলামী নীতি নৈতিকতার বালাই থাকতো - তাহলে এই দেশের এরকম ফকিরের দশা হতোনা।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.