নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

আমার লেখা কারো ভালো লাগলে ০১৮১৫৩৩৮৩৭৫ নাম্বারে বিকাশ কিংবা লোড নতুবা ডাক বিভাগের সেবা নগদে মজুরি পাঠালে আমি গর্ববোধ করবো ৷ আমার জীবনের বেশীরভাগ সময় আমি লিখে কাটাতে চাই, আমার ফেসবুকের ঠিকানা, www.facebook.com/abdur.sharif

আবদুর রব শরীফ

আমার লেখা কারো ভালো লাগলে ০১৮১৫৩৩৮৩৭৫ নাম্বারে বিকাশ কিংবা লোড নতুবা ডাক বিভাগের সেবা নগদে মজুরি পাঠালে আমি গর্ববোধ করবো ৷ আমার জীবনের বেশীরভাগ সময় আমি লিখে কাটাতে চাই, আমার ফেসবুকের ঠিকানা, www.facebook.com/abdur.sharif অথবা Abdur Rob Sharif

আবদুর রব শরীফ › বিস্তারিত পোস্টঃ

ভেগান

১০ ই মে, ২০১৯ সকাল ৯:২৯

চবি কেন্দ্রীয় মসজিদে মিলাদ মাহফিল হলে আমার এক বন্ধু কমপক্ষে সুকৌশলে দশটা জিলাপীর প্যাকেট নিয়ে আসতো,
.
কঠিন জিনিয়াস!
.
আমি একটা নিয়ে আরেকটা নেওয়ার সময় ধরা খেয়ে যেতাম!
.
একদিন তো লজ্জায় জিলাপীর প্যাকেট না নিয়ে চলে আসছি!
.
এক বড় ভাই ছিলো, হুজুর মোনাজাত ধরলে সে দৌড়ে এসে মসজিদে পাক্কা শ্রোতা হিসেবে হাজির,
.
তখন কালে ভদ্রে আমরা মিষ্টি খেতাম! প্রথমে দেখে দেখে! তারপর ছুঁয়ে ছুঁয়ে! অতপর চেটে চেটে! শেষে কামড়িয়ে কামড়িয়ে!
.
কেউ মিষ্টি খাওয়ালে তাকে এরপরে দেখতেও মিষ্টি মিষ্টি লাগতো,
.
'মিষ্টি খাওয়ান' ডায়লগটা ওখান থেকে আসছে!
.
তখন সৈয়দ মুজতবা আলীর রসগোল্লা পাঠ্য ছিলো, পড়ে যতটুকু না হেসেছি তার চেয়ে বেশী লালায়িত হয়েছিলাম!
.
সুন্দরীর বাড়িতে মিষ্টি নিয়ে গেলে মেয়ের বাবা মা সেই বিয়েতে আর অমত করতে পারতো না,
.
শ্বশুর বাড়িতে দুই কেজি মিষ্টি নিয়ে দুই মাস জামাই আদরে ভরপুর ছিলো জীবন!
.
তখন কিন্তু ডায়াবেটিস নামটা অপরিচিত ছিলো! কারো ডায়াবেটিস হয়েছে তা ও শুনিনি,
.
হঠাৎ করে দেখলাম মিষ্টি সহজলভ্য হয়ে গেলো! ঘরে ঘরে মিষ্টি! তিত করলার বাটি শেষ মাগার কেউ মিষ্টির দিকে ফিরেও তাকাচ্ছে না!
.
মানুষ বুঝে গেলো! হারামজাদা মিষ্টি কোন না কোন রোগের জন্য দায়ী! লও ঠেলা!
.
হঠাৎ দেখলাম মাছি পিঁপড়াও মিষ্টি খাচ্ছে না! কে যে কি হলো কে জানে,
.
তথ্য যত সমৃদ্ধ হচ্ছে মানুষ তত আগে যা ফ্রি দিলেও খেতো না তা কিনে কিনে খাচ্ছে!
.
সচেতন হয়ে যাচ্ছে দিনকে দিন্! বুঝতে শিখছে আসল নকল!
.
দুই টাকার শাক্ অনলাইনের বদৌলতে বিশ টাকা হয়ে গেছে! কঠিন অবস্থা!
.
তথ্য উপাত্ত জ্ঞান ডেটা জরিপ ইত্যাদি অবচেতন মনে আপনাকে প্রভাবিত করছে!
.
আপনি বুঝতেও পারবেন না কিভাবে, ধরুন ডায়েট নিয়ে স্টাডি করলে কিছুদিন পর দেখবেন অটো ডায়েট করা শুরু করেছেন,
.
সম্পূর্ণ, ল্যাকাটা, ওভোল্যাকাটা তিন ধরণ নিরামিষভোজী আছে পৃথিবীতে যাদের কেউ কেউ মাছ মাংস দুধ ডিম কোনটি খান না, অনেকে দুধ খেলেও প্রাণিজ প্রোটিন খাননা, কিছু কিছু দুধ ডিম বাদে আর কোন প্রাণীজ প্রোটিন খান না!
.
কিন্ত হঠাৎ করে পৃথিবীতে ভেগান সম্প্রদায়ের উদ্ভব বলো! ভেগান সেলেব্রেটিদের কারণে উদ্ভিজ্জ খাবারের দাম টাপাটপ বৃদ্ধি হতে লাগলো বিশ্বে,
.
ভেগান ডায়েট নিয়ে একটু খবর নিলে দেখবেন প্রচুর মাতামাতি হচ্ছে!
.
ভেগানরা প্রাণীজাত এবং দুগ্ধজাত কোন খাবার ই খান না! তারা শুধু উদ্ভিজ্জ খাবার খেয়ে বেঁচে থাকেন,
.
পামেলা অ্যান্ডার্সন, আরিয়ানা গ্র্যান্ডে, জেমস ক্যামেরন, বিরাট কোহলী, অনুষ্কা, মাইলি সাইরি, আমির খান, এলেন পেজ, রাসেল ব্রান্ড, আলিসিয়া সিলভারস্টোন, অমিতাভ বচ্চন, জ্যাকলিনসহ হাজারো সেলেব্রেটি এবং বিশেষ করে জর্মান এবং বৃটেনে ভেগান বিপ্লব হলো!
.
ঝামেলা বাঁধলো যখন জনপ্রিয় ভেগান ইয়ুটিয়ুবার রাবানা মাংস খেতে গিয়ে ধরা খেলেন,
.
তারপর থেকে একে একে ভেগানদের মুখোশ উন্মোচিত হতে থাকলো, তারা শিকার করতে শুরু করলো কিছু কিছু শারীরিক সমস্যার কারণে তাদের প্রাণিজ আমিষ নিতে হচ্ছে!
.
দুক্কের বিষয় হলো, পুরুষদের স্পার্ম কমে যাওয়া! চুপি চুপি প্রাণিজ আমিষ খাওয়া সেলেব্রেটিরা প্রকাশ্যে এসে শিকার করলো, শরীরে প্রাণিজ আমিষের দরকার আছে,
.
তবে তা হতে হবে পরিমিত! মিষ্টির মতো! যখন ছোট বেলায় সবাই পরিমিত মিষ্টি খেতো তখন এতো সমস্যা হতো না, হাতের নাগালে সহজলভ্য পেয়ে গাপুসগুপুস খাওয়াটা মূল ঝামেলা!
.
আমার এলাকার মানুষ প্রাণিমিষভোজী, সকাল বিকাল রাতে গরুর মাংস ছাড়া চলে না! আর নানা রোগে ভুগছে!
.
আসলে এতো কিচ্ছা কাহিনী বলার মূল উদ্দেশ্য হলো সব খাবার উপকারিতা আছে তা পরিমানের বেশী হয়ে গেলে যতো ঝামেলা!
.
চেক্ এন্ড ব্যালেন্স করে খেতে হবে!
.
প্রাণিজ প্রোটিন চাহিদা যেহুতু শরীরে কম তাই আপনাকে ঐভাবে ডায়েট করতে হবে!
.
এক্কেবারে ভেগান নাহলে এক্কেবারে প্রাগান, চরমপন্থা কখনো মঙ্গল বয়ে আনে না!

মন্তব্য ১ টি রেটিং +০/-০

মন্তব্য (১) মন্তব্য লিখুন

১| ১০ ই মে, ২০১৯ সকাল ১১:২৫

রাজীব নুর বলেছেন: পড়লাম।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.