নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

www.facebook.com/abdur.sharif

আবদুর রব শরীফ

বাধা বিঘ্ন না পেরিয়ে বড় হয়েছে কে কবে?

আবদুর রব শরীফ › বিস্তারিত পোস্টঃ

মরার আগে লেখাটি পড়া মাত্র মাটি কাটতে নেমে পড়ুন

২১ শে জুন, ২০১৯ দুপুর ১:৫৮

হার্ট অ্যাটাক! হার্ট অ্যাটাক! হার্ট অ্যাটাক!
.
কত আপন কিংবা পর মানুষ প্রতিনিয়ত এমন হৃদ রোগে আক্রান্ত হয়ে চলে যাচ্ছেন!
.
হৃদযন্ত্রের উপ্রে কেনো চাপ পড়ে কিংবা চাপ থেকে বাঁচার উপায় কি এমন প্রশ্নের উত্তরে দেবী শেঠি বলেছিলেন, 'জীবনের প্রতি দৃষ্টিভঙ্গির পরিবর্তন করতে হবে,জীবনে সব কিছু নিখুঁত হবে এমন ভাবার কোনো কারণ নেই!'
.
কোন শ্লা সেদিন মোটিভেশন দিচ্ছিলো 'সিক্স ডিজিটের সেলারি না হলে বাঁচবো না' ভুলে গেছি!
.
হারামজাদা স্টুডেন্টের মা সেদিন বুক চেপে ধরে বলছিলো 'আমার সন্তান হয়ে তুই ১০০ তে ৯৯ ফেলি, অথচ পাশে বাসার ভাবীর মেয়ে ১০০ তে ১০০ পেয়েছি, এ লজ্জা নিয়ে এখন আমি কই যাবো!'
.
আসলেই এমন মা গুলো নিয়ে জাতি কই যাবে,
.
আমাদের সবকিছু নিখুঁত হতে হবে! হালার ভাইয়ের বসার সোফার তিন নম্বর পা'য়া তে একটু ময়লা জমলে গিন্নীর হার্ট এটাকের মতো অবস্থা!
.
অদ্ভুত এক নিট এন্ড ক্লিনের জগতে চলে আসছি আমরা,
.
ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার, বিসিএস ক্যাডার, ব্যাংকার, কর্পোরেট অফিসার থেকে শুরু করে সুন্দরী বউয়ের জামাই থেকে শুরু করে লাখ টাকা খরচ করে বাচ্চাকে পড়াশুনা করাতে হবে!
.
দিনশেষ ত্রিশ চল্লিশ হাজার টাকার বাসা নতুবা ফ্লাট, সিক্স ডিজিটের সেলারিতেও নুন আনতে পান্তা পুরিয়ে যাওয়ার উপক্রম!
.
এই জীবন লইয়া আমরা যাবো কই,
.
দিন শেষে লাখ টাকা খরচ করে দেবি শেঠির দেখা পেলে সে বলে, 'জীবনে সব কিছু নিখুঁত হবে এমন ভাবার কোনো কারণ নেই!'
.
একবার মাদার তেরেসা দেবি শেঠির কাছে রুগী হয়ে গিয়েছিলেন, এরপর থেকে দেবি শেঠি মাদার তেরেসাকে অনুপ্রেরণা হিসেবে নিয়ে গরীবের ডাক্তার হয়ে গেলেন!
.
তিনি নিজেও স্বীকার করেছেন আজকের শেঠি কিন্তু মাদার তেরেসার অনুপ্রেরণার ফসল,
.
অকপটে বলেন জগতের সকল তেল ই শরীরের জন্য খারাপ, হুম, সেটা অফিস কিংবা সমাজ যেখানে হোক না কেনো!
.
হৃদরোগ বর্তমানে ৩১ শতাংশ মানুষের মৃত্যুর কারণ শুধু তা না তরুণ বয়সে যাদের মৃত্যু হয় তাদের ৮০ শতাংশ হৃদ রোগে মারা যায়,
.
আসেন ভাই আসেন, আরো বেশী বেশী জাঙ্ক ফুড্ খাই! আহারে ম্যাকডোনাল্ডস্, কেএফসি ব্লা ব্লা ব্লা!
.
হাজার টাকার খাসি কিংবা গরুর মাংস, নরম কেদারা, এখানে থেকে ওখানে রিক্সা! কি মজার জীবন! হেব্বী আরামে আছি! বসলে তো উঠতে চাইনা!
.
আরাম বের হয়ে যাবে মাত্র কয়েকটা বছর, ছাত্র লীগের মতো এটলিস্ট সপ্তাহে কয়েকদিন কৃষকের জমিতে বিনামূল্যে ধান কাটতে নামেন, অন্তত এই উছিলায় বেঁচে যাবেন!
.
আহারে,অফিসে নিজের দেওয়া প্রিন্ট পেপারটাও সহকারী দিয়ে আনান, বেশী দিন এই আরাম টিকবে না,
.
বাঁচতে হলে দৃষ্টিভঙ্গী পাল্টান, পাবলিক বাসে ঝুলে থাকেন, ঘাম কষ্ট হলেও অন্তত শরীর ভালো থাকবে! শত টাকা বাঁচবে!
.
ভাবতেছেন, আরামে হায়াত বাড়বে, সুখে আছেন, শান্তিতে আছেন, জ্বি না, যত আরাম, তত বেরাম!
.
হাতে কোদাল নেন্, কাঁধে ভাড়, অহংকার কমবে, শরীর মন সবি ফিরে আসবে!
.
পাবজি, এংরি বার্ড খেলা ছেড়ে মার্বেল ডাঙ্গুলি বোম্বাস্টিংয়ে আসো, এতো আধুনিকতা ভালো না!
.
পেট কমাতে চাইলে ঘরের ফ্লোর পানি দিয়ে দিনে একবার পরিষ্কার করো, পুরস্কারের অভাব হবে না!

মন্তব্য ৫ টি রেটিং +১/-০

মন্তব্য (৫) মন্তব্য লিখুন

১| ২১ শে জুন, ২০১৯ বিকাল ৪:৩৩

রাজীব নুর বলেছেন: আমি তো অনেক পরিশ্রম করি। তাহলে মনে হয় আমার হার্ট এটাক হবে না।

২| ২১ শে জুন, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:০৮

মাহমুদুর রহমান বলেছেন: কবে হবে ভোর?

৩| ২১ শে জুন, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:২৫

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আমার শরীরে কাউয়ায় ঠোকরানোর মাংস নাই, আবার চর্বি !!! :P :P

৪| ২১ শে জুন, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৫৮

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: ভালো লিখেছেন।

৫| ২২ শে জুন, ২০১৯ রাত ২:২৭

মেঘ প্রিয় বালক বলেছেন: পেট কমাতে চাইলে ঘরের ফ্লোর পানি দিয়ে দিনে একবার পরিষ্কার করো, পুরস্কারের অভাব হবে না! কঠিন একটি বাক্য বলেছেন।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.