নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

একজন জেনারেল ব্লগারের নিজের সম্পর্কে বলার কিছু থাকে না ।

আবদুর রব শরীফ

আমি এখন ব্লগের জন্য সেইফ না । দূরত্ব বজায় রাখুন ।

আবদুর রব শরীফ › বিস্তারিত পোস্টঃ

ফিরে দেখা ব্লু হোয়াইল....।

০৯ ই অক্টোবর, ২০২২ বিকাল ৫:০৯

ব্লু হোয়াইল গেমসের কিছু ধাপ কমপ্লিট করলাম!
.
এডমিন প্রথম টাস্ক দিয়েছিলো কেকা ফেরদৈসীর হাতে তৈরী নুডুলসের আচার খেয়ে তার ছবি তাকে দিতে হবে!
.
এনি হাও তাকে সেই ছবি তুলে পাঠালাম!
.
বলে রাখা ভালো ব্লু হোয়াইল গেমসটি রাশিয়ার সায়কো বিভাগের স্কুল ড্রফ আউট হওয়া একটি ছাত্রের মরণ গেম যেখানে একজন খেলোয়ারকে একটি থেকে শুরু করে পাঞ্চাশটি টাস্ক দেওয়া হয়! শেষ টাস্কটি থাকে আই এম ব্লু হোয়াইল লিখে আত্মহত্যা করা! যদিও প্রাপ্ত খবরে এখন পর্যন্ত ১৩০ জনের উপর আত্মহত্যা করেছে!
.
এরপর এডমিন দ্বিতীয় টাস্কটি দিয়েছিলো, পুরো একদিন এটিএন বাংলার চেয়ারম্যান মাহফুজুর রহমানের গান শুনতে হবে!
.
প্রমাণসহ দ্বিতীয় টাস্ক কমপ্লিট করে তাকে পাঠালাম!
.
তৃতীয় টাস্ক দিয়েছিলো, কাজী মারুফের সব ফিল্ম দেখতে হবে! এক সপ্তাহ টাইম!
.
তখন কামলার কেডিএস এক্সেসোরিজ লিমিটেড বন্ধ থাকায় চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে শোভাকলোণীর ক্ষুদ্র কুটির বসে রাজা সূর্য খাঁ, মানিক রতন দুই ভাই, দেহরক্ষী, সর্বনাশা ইয়াবাসহ যা খুঁজে পেলাম দেখে নিলাম!
.
এবার এডমিন সন্তুষ্ট হতে পারলো না... আরো কিছু ছবি দেখতে পারিনি তাই চতুর্থ টাস্ক দিলো হিরো আলমের নতুন ছবি হাবা আবদুল্লাহ আর মার ছক্কা তিনবার দেখে প্রমাণসহ পাঠাতে তা ও কমপ্লিট করলাম!
.
মাঝখান দিয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে দিলাম, আই এম এ ব্লু হোয়াইল!
.
পঞ্চম টাস্ক ছিলো ফেসবুকের বিখ্যাত মডেল আরিফ থেকে মডেলিং টিপস নিয়ে তাকে অনুসরণ করে একগুচ্ছে ছবি এডমিনকে পাঠানো! তা ও কমপ্লিট করলাম!
.
দেখতে দেখতে পাঁচটি টাস্ক কমপ্লিট করে ফেললাম! আরো ৪৫টি টাস্ক বাকী আছে....!
.
এরি মধ্যে ষষ্ঠ টাস্ক পেয়ে গেছি,
.
হাতি আপু নামে পরিচিত অদ্রিতা টুনটুনি আপুর সাথে কেন্ডেল লাইট ডিনারের আয়োজন করে তার ছবি এডমিনকে পাঠাতে হবে!
.
বহুত কষ্টে আপুর নাম্বার নিয়ে ফোন করে টাস্ক বাস্তবায়ন করে পিক সেন্ড দিলাম!
.
এভাবে একটি একটি করে ঊনপঞ্চাশটি টাস্ক বাস্তবায়ন করে ফেললাম! এডমিন কখন সুইসাইড করতে বলবে তার প্রতীক্ষায় রইলাম! পঞ্চাশতম টাস্কের অপেক্ষা.....!
.
আসলে আত্মহত্যা করার কোন উদ্দেশ্য নিয়ে গেমটি খেলা শুরু করিনি! কারণ গেমের একটি শর্ত আছে যে পঞ্চাশতম টাস্ক আত্মহত্যা করতে পারবে সে উইনার!
.
আমার উইনার হতে আসিনি! হারতে ভালবাসি! ব্যর্থতা থেকে শিক্ষা নিয়ে জীবন উপভোগ করতে চেষ্টা করি! তার চেয়ে বড় কথা আমরা জীবন ভালবাসি! বেঁচে থাকতে ভালবাসি! ভালবাসতে ভালবাসি!
.
একমাত্র কাপুরুষরা ব্লু হোয়াইল গেমের মতো জিতার জন্য সবকিছু করতে রাজী থাকে! সাধু কিংবা অসাধু, সভ্য কিংবা বর্বর, নৈতিক কিংবা অনৈতিক যে কোন উপায়ে তাদের জয় লাভ করতেই হবে এমন!
.
আমরা ছোট বেলায় শিখেছি পরাজয়ে ডরে না বীর! খেলা হবে! খেলবো সেটা ই মূখ্য কথা!
.
বিনোদনের পাওয়ার জন্য একে একে এডমিনের দেওয়া সব টাস্ক বাস্তবায়ন করে ফাইনাল টাস্কের জন্য অপেক্ষা করছি!
.
কিন্তু রাশিয়ার এডমিন শেষ টাস্ক দেওয়ার জন্য আর আসে না!
.
শেষমেষ খবর নিয়ে জানতে পারলাম, নুডুলসের আচার কিংবা মাহফুজুর রহমানের গান অথবা কাজী মারুফের ছবি এসব টাস্ক বাস্তবায়নের প্রমাণ পেয়ে ব্লু হোয়াইলের এডমিন নিজেই আত্মহত্যা করেছে!

মন্তব্য ২ টি রেটিং +০/-০

মন্তব্য (২) মন্তব্য লিখুন

১| ১০ ই অক্টোবর, ২০২২ সকাল ৭:০৪

কবিতা ক্থ্য বলেছেন: শরীফ ভাই -
বরাবরের মতো- চরম হইসে।

২| ১০ ই অক্টোবর, ২০২২ দুপুর ১:৪২

ফুয়াদের বাপ বলেছেন: মজারু হইছে...

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.