নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

চলে যাব- তবু যতক্ষণ দেহে আছে প্রাণ, প্রাণপণে পৃথিবীর সরাব জঞ্জাল।

হাবিব স্যার

বিশ্বজোড়া পাঠশালা মোর, সবার আমি ছাত্র।

হাবিব স্যার › বিস্তারিত পোস্টঃ

হস্তিবাহিনীর কাহিনী!

০৫ ই নভেম্বর, ২০১৮ সকাল ১০:৪৪



সূরা ফিল অবলম্বনে....।

বিসমিলা রব নাম শুরুতে প্রথম
দয়ালু দয়াময় সেঁ শোভিত উত্তম।
----------------------------------

আপনি কি দেখেননি আপনার রব-
গজবাহিনীকে সাজা দিলেন কিরূপ,
তাদের ষড়যন্ত্র কি ব্যর্থ করেননি?
ঝাঁকে ঝাঁকে ছোট পাখি তিনি পাঠালেন।
(ছোট ছোট পাখি ছিলো নাম আবাবিল)
নিক্ষেপ করেছে যারা পাথরের ঢিল,
অতঃপর তৃণসম তারা গেল হয়ে
ভক্ষিত চর্বিত তৃণ তিনি বানালেন।

(এভাবেই চিরকাল নস্যাত করেন
যে করে চক্রান্ত ফন্দি ও ফিকির
প্রতিপালকের দ্বীনকে যে চায় নেভাতে।
এতো নয় তুচ্ছ কিংবা ধূলিকণাসম
বাতিলের ফুঁৎকারেতে উড়ে যাবে নাতো
দ্বীনের বিস্তৃতি জানি সপ্ত আকাশেতে।)
.............................................।

আয়াতসমূহ:
বাংলা ভাষান্তরে এ সূরার পাঁচটি আয়াত নিম্নরূপ:
১. আপনি কি দেখেননি আপনার পালনকর্তা হস্তীবাহিনীর সাথে কিরূপ ব্যবহার করেছেন?
২. তিনি কি তাদের চক্রান্ত নস্যাৎ করে দেননি?
৩. তিনি তাদের উপর প্রেরণ করেছেন ঝাঁকে ঝাঁকে পাখী,
৪. যারা তাদের উপর পাথরের কংকর নিক্ষেপ করছিল।
৫. অতঃপর তিনি তাদেরকে ভক্ষিত তৃণসদৃশ করে দেন।


ঐতিহাসিক পটভূমি পড়তে এখানে ক্লিক করুন.....।


মন্তব্য ৩৮ টি রেটিং +৫/-০

মন্তব্য (৩৮) মন্তব্য লিখুন

১| ০৫ ই নভেম্বর, ২০১৮ সকাল ১১:৩১

নজসু বলেছেন: এগিয়ে চলুক লক্ষ্য।
শুভকামনা স্যার।

০৫ ই নভেম্বর, ২০১৮ সকাল ১১:৩৭

হাবিব স্যার বলেছেন:




আসসালামু আলাইকুম প্রিয় সুজন ভাই।
প্রথম মন্তব্যে অনেক অনেক ভালোবাসা নিবেন।
আশা করি ভালো আছেন।
ইনশাআল্লাহ আগামীকাল আমার পরিচয় শিরোনামে একটা সনেট দিবো।
সাথেই থাকবেন দোয়া করবেন।

২| ০৫ ই নভেম্বর, ২০১৮ সকাল ১১:৪০

আরোহী আশা বলেছেন: অনেক শুভকামনা। আশা করি ভালো আছেন। অনেক সুন্দর সনেট ভালো লেগেছে।

০৫ ই নভেম্বর, ২০১৮ সকাল ১১:৪১

হাবিব স্যার বলেছেন:
অসংখ্য ধন্যবাদ জানবেন।

৩| ০৫ ই নভেম্বর, ২০১৮ সকাল ১১:৪৫

নজসু বলেছেন: ওয়ালাইকুম আস সালাম।
জ্বী, ভালো আছি।
অপেক্ষায় রইলাম।

০৫ ই নভেম্বর, ২০১৮ সকাল ১১:৪৭

হাবিব স্যার বলেছেন: আপনার পুনরায় আগমনে মুগ্ধতা জানবেন। অনেক অনেক আরোগ্য কামনা সর্বক্ষণ।

৪| ০৫ ই নভেম্বর, ২০১৮ সকাল ১১:৫২

আব্দুল্লাহ্ আল মামুন বলেছেন: ভালো লাগলো । সুন্দর অনুবাদ করেছেন

০৫ ই নভেম্বর, ২০১৮ সকাল ১১:৫৬

হাবিব স্যার বলেছেন: মামুন ভাই! ভালোবাসা নিবেন.......আশা করি ভালো আছেন।

৫| ০৫ ই নভেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১২:৪৪

এ আর ১৫ বলেছেন: আমি একটু কনফিউজ । কাইন্ডলি হানিফ ঢাকার নীচের ব্লগটা পড়ুন এই ইসুতে এবং আপনার মতামত দিন । আপনার তথ্যের বাহিরে অনেক কিছু ঐ লিংকে পাবেন, ধন্যবাদ

"ইয়ার অফ এলিফ্যান্ট" এবং "আব্রাহা ইনস্ক্রিপশন"

০৫ ই নভেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১২:৫৮

হাবিব স্যার বলেছেন: দেখেছি.....
অনেক ধন্যবাদ আপনাকে...
পরে পঢ়ে নিব..........

৬| ০৫ ই নভেম্বর, ২০১৮ দুপুর ২:৫৬

নীল আকাশ বলেছেন: ব্লগে কিছু ব্লগারদের এসব ধর্মীয় পোষ্টে এড়িয়ে চলবেন। এরা শুধু শুধুই আপনাকে বিভ্রান্ত করার চেস্টা করবে।
দারুন প্রচেস্টা! ইস! আপনার মতো যদি এইসব লেখা লিখতে পারতাম! আল্লাহ আপনার উপর রহমত বর্ষন করুন, আমীন!

০৫ ই নভেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৫:৫০

হাবিব স্যার বলেছেন:




জি ভাই ঠিক বলেছেন আপনি।


আপনি অনেক ভালো লিখেন।
আপনার বর্ণনা দেখলে ঈর্ষা হয়।
আল্লাহ আপনার ভালো করুন।

৭| ০৫ ই নভেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৩:৫৫

ভিন্নচিন্তা ভিন্নমত ভিন্নপথ বলেছেন: @ হাবিব স্যার- জনাব, সূরা ফিলের বিষয় হচ্ছে কাবাঘর আক্রমণ করতে গিয়ে ইয়েমেনী শাসক আবরাহা ও তার সৈন্যদের আল্লাহ্ প্রেরিত আবাবিল পাখি দিয়ে ধ্বংস। তখনো নবী মুহাম্মদের জন্ম হয়নি,ইসলাম ধর্মের আবির্ভাব ঘটেনি। মক্কার কাবা ঘর ছিল আরবের মূর্তিপূজকদের তিনশত ষাটটি মূর্তি দিয়ে ভর্তি, যেখানে তারা মূর্তিপূজা করতো। প্রশ্ন জাগে যে মুর্তিতে পূর্ন এই কাবাঘরের জন্য আল্লাহ্-র এত দরদ কেন ছিল ? আবরাহা এই কাবাঘর ভাঙ্গলেই বরং মূর্তিপূজার অবসান হতো । আল্লাহ্ কিন্ত করলেন উল্টোটা। কেন ?

০৫ ই নভেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৫:৪৯

হাবিব স্যার বলেছেন:





ইসলাম ধর্মের আবির্ভাবের অনেক আগেই সম্ভবত ৫৭০ খ্রিঃ হস্তিবাহিনীর ঘটনা ঘটে। তখন কাবা ঘরে ৩৬০ টি মূর্তি ছিল। আল্লাহ যদি আবাবিল না পাঠাতেন তাহলে হয়তো কাবাঘর মূর্তি সহ ভেঙেই ফেলা হতো। আল্লাহ এটা করতে কেন বাঁধা দিলেন?

১। এ ব্যাপারে কোরআনে কোন কথা বলা নেই। শুধু এইটুকু বলা আছে যে হস্তি বাহিনীর সাথে কি ঘটেছিলো। রাসুল (স) কে সাহাবারাও সম্ভবত কোন প্রশ্ন করেননি। এ ব্যাপারে হাদিসে যা বলা আছে তার চাইতে বেশি জানতে চাওয়া ঠিক হবে বলে মনে হয়না। আমাদের জানা যদি জরুরী হতো তাহলে আল্লাহ নিশ্চয় আমাদের জানিয়ে দিতেন। কোরানের আয়াত সমূহ দুই প্রকার তার মধ্যে কিছু অ¯পষ্ট এবং বেশির ভাগই ¯পষ্ট । সুতরাং অ¯পষ্ট বিষয়ে তা,তালাশ না করার জন্য আল্লাহ নির্দেশ দিয়েছেন। এ স¤পর্কে সূরা বাকারার প্রথম ও ২য় রুকুতে বলা আছে। আপনার মনে যদি প্রশ্ন জাগে যে সব কিছু তো আল্লাহ সৃষ্টি করেছেন কিন্তু আল্লাহকে কে সৃষ্টি করেছেন (নাউজুবিল্লাহ!) এমন অ¯পষ্ট বিষয়ে আল্লাহ যা বলে দিয়েছেন তার বাইরে চিন্তা করা উচিত নয়। চিন্তা করলেই ঈমান থাকবে না। আর যদি আপনি মুসলিম হিসেবে নিজেকে দাবী না করেন তাহলে ভিন্ন কথা।

২। রাসুল (সা) নবুয়াত পান ৪০ বছর বয়সে। রাসুলের নবুয়াত পাবার পর থেকেও কাবা ঘরে মূর্তি ছিল। এমনকি কাবা ঘরে মূর্তি থাকা অবস্থায় তা মুসলমানদের কিবলাও ছিলো। তথাপি রাসুল (সা) মূর্তি অপসারন করেননি। কারন আল্লাহর নির্দেশ ছিলো না। আল্লাহর নির্দেশ ছিলো তোমরা শিরক করো না। আল্লাহর সাথে কাউকে শরিক না করার জন্য রাসুল (সা) ও তখন নির্দেশ দিয়েছেন। তিনি (সা) শুধু বলেছেন মূর্তি পূজা না করার জন্য। মূর্তি অপসারন করা হয় ৬৩০ খ্রিঃ সনে মক্কা বিজয়ের পর। যদি এর আগেই সব মূর্তি অপসারনের ঘোষণা দেয়া হতো তাহলে মহা রক্তপাত ছাড়া তা সম্ভব হতো না। এখানে মনে রাখা দরকার রাসুল (সা) জীবনে অনেক গুলো যুদ্ধ করেছেন কিন্তু কোন যুদ্ধই মুসলিমদের পক্ষ থেকে হয়নি। বিনা বাধায় বিনা রক্তপাতে এতো বড় বিজয় সম্ভব হলে শুধু রক্ত পাতের কি দরকার? আগে থেকেই মূর্তি অপ্সারন করা হলে যে সারা বিশ্ব মুসলমানদের অপূর্ব ক্ষমা দেখতে পেত না। আল্লাহ হয়তো সেই জন্যই মূর্তিগুলো এতো দিন জিয়িয়ে রেখেছিলেন। মূর্তির প্রতি দরদে নয় মুসলমানদের ভালোবাসা প্রকাশই উদ্দেশ্য ছিল।
আমি হয়তো আপনাকে বুঝাতে পারিনি। এ ব্যাপারে জানার জন্য আরো স্টাডি দরকার। ভালো থাকবেন। কিছু ভুল বললে শুধরিয়ে দিবেন আশা করি।

৮| ০৫ ই নভেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৪:৫৮

ফারিহা হোসেন প্রভা বলেছেন: আমার সালাম নিবেন। কেমন আছেন স্যার? আশা করি ভালোই আছেন।

০৫ ই নভেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৫:৪৯

হাবিব স্যার বলেছেন:
ওয়ালাইকুমুসসালাম। আল্লাহর রহমতে ভালো আছি। আশাকরি আপনি ও ভালো আছেন!

৯| ০৫ ই নভেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:৫৪

আরোগ্য বলেছেন: হাবিব স্যারতো ভালোই সনেট লিখেন।
আপনার পরিচয় শিরোনাম সনেটের অপেক্ষায় আছি।

০৫ ই নভেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:০৫

হাবিব স্যার বলেছেন:




সালাম গ্রহন করুন শুরুতেই। দোয়ার দরখাস্ত রইলো। আল্লাহ সুস্থ রাখলে ইনশাআল্লাহ কালকেই দিবো।
তবে আপনার জন্য অপেক্ষা করতে করতে বেলা গেলো! এতক্ষণে আসার সময় হলো বুঝি?
আশাকরি আল্লাহ আপনাকে আরোগ্য রেখেছেন।

১০| ০৫ ই নভেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:০৯

রাজীব নুর বলেছেন: খুব সুন্দর।

০৫ ই নভেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:১১

হাবিব স্যার বলেছেন: চমৎকার মন্তব্য। শুভ সন্ধ্যা

১১| ০৫ ই নভেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:১৩

আরোগ্য বলেছেন: সালাম নিলাম স্যার। দোয়াও রইলো।
আলহামদুলিল্লাহ, আমি আরোগ্য আছি। আপনিও থাকুন।
অপেক্ষায় রাখার জন্য আমি ভীষণ দুঃখিত। আসলে পোস্ট আগেই পড়েছি। একবারে ফ্রি হয়ে লগইন করে ব্লগ বিচরণ করি।

০৫ ই নভেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:২৪

হাবিব স্যার বলেছেন:




আসলে কিছু কিছু মানুষ ব্লগে এসে কমেন্টস না করলে পোস্ট দেয়াটায় কেমন যেন ব্যর্থ ব্যর্থ লাগে। তার মধ্যে আপনিও একজন। আমি চাইনা আমার প্রসংশা, সমালোচনা করলেও ভালো লাগে। অনেক কিছু শেখা হয়। আপনাকে দুঃখিত করার জন্য দুঃখিত।

১২| ০৫ ই নভেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:৩৫

আরোগ্য বলেছেন: কি যে বলেন স্যার। আমাকে লজ্জিত করলেন। আমিও আপনার মন্তব্যের অপেক্ষায় থাকি।
এটাই তো ব্লগীয় ভালোবাসা।

০৫ ই নভেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:৫৫

হাবিব স্যার বলেছেন:



আপনার পুনরায় আগমনে আপ্লুত আমি।
আপনি সেই তিন তারিখের পর আর পোস্ট দেননি!
আপনার নতুন লেখার অপেক্ষায় আছি।।

১৩| ০৫ ই নভেম্বর, ২০১৮ রাত ৯:৪৯

কানিজ রিনা বলেছেন: আল্লাহ্ বলেন আমি যা জানি তোমরা তা
জানোনা। আপনার পোষ্ট অসাধারন হয়েছে।
এখানে আবার ইসলাম বিদ্বেশী সিন্ডিকেট
আছে য়াদের ইসলামের ভাল উক্তি দেখলে
চুলকানি হয়। তবুও তাদেরকে বলতে চাই
আপনাদের ইসলাম বিষয় ভাল না লাগলে
চুপ থাকুন, কেন আপনাদের কি লাভ, কি
কারনে আপনারা এত বিদ্বেশী। কি লাভ হয়
নাকি এসব করে আপনারা টাকা কামাই
করেন। খৃষ্টান ইহুদী মিশন থেকে তানা হলে
এত নির্লজ্জ ভাবে বিদ্বেশ ছড়ান কেন।
আমরা মুসলিমরা না হয় আমাদের বিশ্বাস
নিয়েই থাকি তাতে আপনাদের এত মাথা
ব্যাথা কিসের।
ব্লগটাকে তো রাজনীতিকরা পছন্দই করেনা
এক কথায় তারা বলেন ব্লগেরা সব নাস্তিক।
এই বদনামটা এক মাত্র আপনাদের কারনে।
অসংখ্য ধন্যবাদ সুন্দর পোষ্টের জন্য।

০৬ ই নভেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১:৪৭

হাবিব স্যার বলেছেন:




ইসলাম বিদ্বেষীঃ

ইসলাম বিদ্বেষীরা ডরেনা আল্লাকে
ঈমানের কথা শুনে বুকে ধরে জ্বালা
ইসলামের অপমানে মুখে মারে তালা
চুলকানি অযথাই ওরাই খ্রিস্টান।
ইহুদি মিশন থেকে টাকা পায় যত
নবীজির বিরুদ্ধে লেগে যায় তত
চোখ কান আছে তবু বোবা কালা অন্ধ
একদিন বুঝবেই হারাবেই মান।

কানিজ রিনা বোনটি শোন দিয়া মন
এত সুন্দর মন্তব্যে ভালোলাগা জেনো
দোয়াতে রখো মোরে প্রতিদিন যেন।
মুনাফিক মুশরিক যত পৃথিবীতে
হে আল্লাহ দয়াময় দাও হেদায়াত
নাহি জুটিলে ঈমান করে দাও হীন।

১৪| ০৬ ই নভেম্বর, ২০১৮ ভোর ৬:২২

নীলপরি বলেছেন: বাহ । সুন্দর লিখেছেন ।

০৬ ই নভেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১:৪৯

হাবিব স্যার বলেছেন:




নীলপরি জলপরি
ভালো আছেন আশাকরি
কমেন্টসে তাড়াতাড়ি
না করি বাড়াবাড়ি
সালাম নেন আমারি।

১৫| ০৬ ই নভেম্বর, ২০১৮ সকাল ৮:১৪

ফরিদ আহমদ চৌধুরী বলেছেন: চমৎকার পোষ্ট। আল্লাহ আপনার মঙ্গল করুন।

০৬ ই নভেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১:৫০

হাবিব স্যার বলেছেন: প্রিয় সনেট কবি! আসসালামুআলাইকুম। আশা করি আল্লাহ আপনাকে ভালো রেখেছেন। আপনার সুন্দর মন্তব্যের জন্য ভালোবাসা আর শ্রদ্ধা জানবেন। দোয়ার দরখাস্ত সবসময়।

১৬| ০৬ ই নভেম্বর, ২০১৮ সকাল ৮:৪৭

সৈয়দ তাজুল ইসলাম বলেছেন: অসাধারণ হয়েছে হাবিব ভাই।

মুগ্ধকর কবিতায় ভালবাসার প্লাস++

০৬ ই নভেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১:৪৯

হাবিব স্যার বলেছেন:
সৈয়দ তাজুল ইসলাম ভাই! আপনার প্লাস ভালোবাসা আর মুগ্ধতায় আমি আপ্লুত। আমাকে আপনার দোয়ার কোন একটা শব্দে রাখার অনুরোধ জানাচ্ছি।

১৭| ০৬ ই নভেম্বর, ২০১৮ সকাল ৯:০৫

ইমরান আশফাক বলেছেন: @ভিন্নচিন্তা ভিন্নমত ভিন্নপথ, আবরাহা ইয়েমেনে একটা ঘর তৈরী করে সকলকে কাবার পরিবর্তে উক্ত ঘরটি তওয়াফ করার আদেশ দিয়েছিলেন। কিন্তু আরবরা এই আদেশ শুধু প্রত্যাখ্যানই করে নাই বরং কিছু আরব যেয়ে উক্ত ঘরটি অপবিত্র বা অসন্মানও করে বসে। তাই আবরাহা আরবদের গর্ব কাবা শরীফ মাটির সাথে মিশিয়ে দেওয়ার জন্য বিশাল হস্তীবাহিনী নিয়ে মক্কার উপকন্ঠে পৌছানোর পর আল্লাহ্ তাদের সাথে কি আচরন করেছিল সেটাই এই সুরাতে বলা হয়েছে। সামান্য ছোট পাখীর ঝাকের মাধ্যমে বিশাল হস্তীবাহিনী কিরুপে ধ্বংস করা হলো সেটাই এই সুরার প্রতিপাদ্য বিষয়।

০৬ ই নভেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১:৪৭

হাবিব স্যার বলেছেন: ইমরান আশফাক ভাই! আপনার সংযোজিত তথ্যে আমার জ্ঞানের পরিধি বৃদ্ধি করলো। সুন্দর মন্তব্যের জন্য শুভেচ্ছা রইলো।

১৮| ০৬ ই নভেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১২:০২

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: বাহা ! সুন্দর ।

শুভকামনা রইল।

০৬ ই নভেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১:৪৮

হাবিব স্যার বলেছেন:




পদাতিক চৌধুরী
আসতে করিলেন দেরী
অভিমান হয়েছে ভারী
তবু শুভেচ্ছা নেন আমারি।

১৯| ০৬ ই নভেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১:৪৮

পদ্ম পুকুর বলেছেন: সুন্দর উদ্যোগের জন্য ধন্যবাদ।
সুরার শানে নুজুলটাও পাদটিকায় দিলে ভালো হতো।
ভালো থাকবেন।

০৬ ই নভেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১:৫২

হাবিব স্যার বলেছেন: প্রিয় পদ্মপুকুর! প্রথমেই প্রিয়তে রাখলাম। আপনার আগমনে আমি মুগ্ধ। শ্রদ্ধা রইলো অবিরত। প্রথে শানে নূজুল ছিল। পোস্ট অনেক বড় হয় বলে সেটা লিংক করে দিয়েছি।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.