নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

হে মানব! আর নয়তো দেরী; জেগে তুলে বিবেকের তরী করো হিংসার বলিদান। জন্মান্ধ হয়ে থেকো নাকো তুমি;মানুষ বলে হও বলিয়ান ।

তুমি জীবন খুঁজো সুখের নীড়ে, আমি জীবন খুঁজি দুঃখের ভীরে।,,, রহমান লতিফ,,,,

› বিস্তারিত পোস্টঃ

সঞ্চিত অভিজ্ঞতার নোট -০৩

২৪ শে এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ৭:৩৫



একজন বিদেশীনীর বঙ্গ দর্শন
****************************
সেদিন পরিচয় হলো মিস ব্রাউনিয়ার সাথে। পেশায় সদ্য পাশ করা একজন আইনজীবী। পরিচয় পর্বের শুরুতে আমার নাম শুনে বললেন, তার বেষ্ট ফ্রেন্ডের নাম আর আমার নাম নাকি একি। কথাটা শুনে বেশ কৌতুহলী হলাম। ইংলিশ মেয়ে আর বেস্ট ফ্রেন্ড বাঙালী কারণটা কি! অনেক কথাবার্তা বলার পর জানলাম মিঃ রহমান তার ক্লাসমেট ছিল যে পাশ করে দেশে চলে গিয়ে পারিবারিক ব্যবসা দেখাশোনা করছে। সে মূলত আইন পেশায় ক্যারিয়ার গড়ার জন্য বিলেতে পড়তে আসেনি, এদেশে পড়তে এসেছিলো শুধু পারিবারিক স্টাটাস ধরে রাখার নিমিত্তে । আমার কৌতূহল আরো বেড়ে গেলো, বিস্তারিত জানতে পেরে যা ভাবছিলাম তার কোন মিল নয় বরং উল্টো জিনিস বুঝতে পারলাম। নাহ কোন প্রেম নয়। খাঁটি বন্ধু, সাপ্তাহিক ছুটির দিনে সবাইকে নিয়ে ক্লাবে ডিংকস ও পার্টির জন্য মিঃ রহমান অতি সহজেই সবার বন্ধু হয়ে গিয়েছিল । কিছুদিন আগে বন্ধু মিঃ রহমানের বিয়েতে মিস ব্রাউনিয়া সহ পনের জনের একটি গ্রুপ চট্টগ্রাম গিয়েছিলো। বাংলাদেশে একজন বিদেশীনীর ভ্রমণ কাহিনি জানতে পেরে নিজ দেশ সম্পর্কে তার ভাবনাটা জানতে ইচ্ছে হলো, আমি বললাম আচ্ছা তোমার অভিজ্ঞতা থেকে বাংলাদেশের পাঁচটি মন্দ ও পাঁচটি ভালো দিক বলো প্লিজ, সে কোন কিছু চিন্তা না করে প্রথমেই মন্দ দিক বলতে শুরু করলো,
১) তাদের গ্রুপের সবাইকে বাংলাদেশের লোকজন নাকি অন্য গ্রহের মানুষ মনে করে হ্যাঁ করে তাকিয়ে থাকতো।
২) বাংলাদেশে মদ ও বারের কোন সুবিধা নেই। যদিও তাদের বন্ধু মদের ব্যবস্থা করে ঘরের মধ্যে পার্টি দিয়েছিলো।
৩) তার বন্ধুর বাড়ির গেটে দারোয়ান,গাড়িতে ড্রাইভার, চলাফেরার জন্য পারসোনাল সিকিউরিটি,এত এত কাজের লোকের জন্য টাকার অপচয় যা তার কাছে বড় একটা অপরাধ বলে মনে হয়েছে।
৪) বাংলাদেশে একটি বিয়েতে হরেক রকমের পার্টি করা হয় যেমন হলুদ পার্টি , মেহেদী পার্টি, বৌভাত, সহ অনেক কিছু যা নিতান্তই অপচয়। এত বেশি অপচয় তার জীবনে আর কখনো দেখে নি।
৫) একদিকে তার বন্ধুর এত টাকা,অভিজাত বাড়ি, দামী গাড়ি অন্যদিকে তাদের আশেপাশে অনাহারী লোকজন খাবারের জন্য হাত পেতে আছে। যা তার কাছে বেশ অমানবিক ও নিষ্ঠুরতা বলে মনে হয়েছে।
সে আরো বলতে থাকলে আমি থামিয়ে বললাম পাঁচটি কারণ জানতে চেয়েছি, এবার ভালো দিকটা বলো, সে এবার চিন্তায় পড়ে গিয়ে নিচু স্বরে বললো,
১) সাধারণ মানুষ তাদের দেখে হ্যাঁ করে তাকিয়ে থাকলেও তারা কোন ক্ষতি করতে চাইতো না।
২)দেশের মানুষগুলোর মধ্যে কিছু সংখ্যাক অনেক ধনী আর কারো কারো সম্পদ বলতে কোন কিছু নেই।
৩) বাংলাদেশের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য তার দেখা সকল কোন দেশের চেয়েও সুন্দর স্পেশালি সী-বিচ।
এইটুকু বলে থেমে গেলে আর কোন পয়েন্ট বলতে পারলো না।

মনে মনে ভাবলাম, মিঃ রহমান তাহলে পনের জনের গ্রুপকে টিকেট দিয়ে নিয়েছে যেভাবে সবাইকে ক্লাবের মদ আর টিকেটের টাকা দিতো তাহলে কিভাবে কনফার্ম হওয়া যায়! মেয়েটা যদি আবার মাইন্ড করে বসে। বুদ্ধি করে বললাম। তাহলে বাংলাদেশে অনেক মজা হয়েছে সেই সাথে আমাদের দেশের মানুষ ও ফুড সম্বন্ধে আইডিয়া পেয়ে গেলে। সে বললো বাংলাদেশের ফুড খুব চমৎকার। তাহলে কি আবার ছুটির সময় বন্ধুকে দেখতে যাবে ? অবশ্য আমাদের দেশে যেতে প্লেনের ভাড়া অনেক! সে অবাক হয়ে বললো, তাই নাকি কত পাউন্ড নেয়? আমি বোকার মতে হেসে হেসে বললাম,তোমার তো সেটা জানা লাগবে না। এটা আমাদের ট্রেডিশন কাউকে দাওয়াত দিলে ভাড়াসহ নিতে হয়। এদেশে দেখো না রেস্টুরেন্ট খাবার পর সবাই বিল ভাগ করে দেয় আর আমাদের দেশের হেড অফ ফ্যমেলি সব ম্যানেজ করে। সে হাসলো এটি কি বিদ্রুপের হাসি নাকি তৃপ্তির হাসি জানা হলো না।
একজন বিদেশীনী যা দু'সপ্তাহের ছুটিতে বুঝতে পারলো তা অভাগা জাতি দু'শ বছরের গোলামী থেকেও বুঝলো না।

নোটঃ
১) বাংলাদেশে মুসলিম বিয়েতে যে অপচয় হয় তা নিঃসন্দেহে লোক দেখানো আয়োজন ছাড়া কিছু নয়।
২) কিছু সংখ্যাক লোক বাংলাদেশে যে সুযোগ সুবিধা ভোগ করে তা বহু দেশের রাজা বাদশাকেও হার মানাবে।
৩) যথাযত পদক্ষেপ নিলে বাংলাদেশে পর্যটন খাতে চতুর্থ শিল্প বিপ্লব হতে পারতো।

সঞ্চিত অভিজ্ঞতার নোট -০১
সঞ্চিত অভিজ্ঞতার নোট -০২

মন্তব্য ৪৪ টি রেটিং +১৩/-০

মন্তব্য (৪৪) মন্তব্য লিখুন

১| ২৪ শে এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ৮:৫৫

জুন বলেছেন: ল
আপনার নোটের তিনটি পয়েন্টের সাথেই সহমত। আমি গতবছর এক বিয়েতে অতিথি ছিলাম। তার সাজসজ্জা আর হরেক রকম খাবারের পদ দেখে আমি অবাক হয়েছিলাম। ছ মাস পর আবার দেশে এসে শুনলাম তাদের ছাড়াছাড়ি হয়ে গেছে। অবশ্য ছ মাসের নীচেও অনেক দেখছি ইদানীং।

২৪ শে এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ৯:০৫

বলেছেন: আপু,
আপনাকে আজ প্রথম মন্তব্যে পেয়ে ভালো লাগলো। আফটার অল একজন সম্মানিত নারীর কাছ থেকে জানলাম বিয়েতে বাড়াবাড়ি হচ্ছে। ইদানীং হেলিকপ্টার ভাড়া করে বিয়ে হচ্ছে। আমার পরিচিত এক ফ্যামেলি শুধু এনগেজমেন্ট পার্টিতে ছয়শত গেস্টকে ইনভাইট করেছে। এবার বুঝেন কি অপচয় অথচ আমাদের দে-শর অনেক এখনো দু বেলা দুমুঠো ভাত খেতে পারতেছে না।

অনেক উচ্চ পদস্থ সরকারি চাকুরীজীবি ও ব্যবসায়ীদের ছেলেমেয়েরা দেশ থেকে টাকা বিদেশে এনে রাষ্ট্রের যা অপচয় করছে তা হয়তো আপনি আমি জানি না।

ভালো থাকুন সবসময়।।।
পাঠে ও মন্তব্য করার জন্য কৃতজ্ঞতা।।

২| ২৪ শে এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ৯:০০

বিদ্রোহী ভৃগু বলেছেন: দু সপ্তাহে যা বুঝলো বিদেশিনী আমরা কেন বুঝছি না দুশ' বছরে? ভাবনার কথা বটে।

আমাদের বুঝতে দেয়া হয়না।
সামন্ততান্ত্রিক মানসিকতার ঐ শ্রেণীর কিছু লোক তাদের অবস্থানকে ধরে রাখতেই ব্যবধান টিকিয়ে রাখে।
আমাদের শাসকেরা যেমন রাজা প্রজা অনুভবে বাস করে!
আর অবচেতনা তাদের সো কল্ড রাজত্ব টিকিয়ে রাখতে জাতিকে পঙ্গু করে রাখে!
রাতের আঁধারে ভোট হোক বা মৌলিক অধিকার বঞ্চিত হয়ে লাখো বনি আদমের যা খুশী তাই হোক
তাদের কিছূ যায় আসে না!

আর যে শিক্ষিত বা সুশীল সমাজের দায় ছিল সমাজের কিছূ করার ভালমানুষির বিকাশে কিছু করার-
তাদের মাঝেও বহুধা বিভক্তি, ক্ষমতার স্তাবকতা, স্বার্থ আর আংশিক স্বার্তপরতার জ্ঞানে তাও মাঠে মারা!

আর একেবারে নীচে আমজনতা আমরা যারা বুঝি- তাদের কিছূ করার সক্ষমতা নেই বা দমন করে রাখা হয়েছে।
পথে পথে গুম, খুন আর জেলের মতো আতংকে বাকীরা ইয়া নাফসি বলে দমবন্ধ করে বেঁচে আছে।

সুবোধ পালিয়ে গেছে!
সুবোধের বিপ্লবী ডাকের অপেক্ষায় জাতি!

২৪ শে এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ৯:১০

বলেছেন: আমার ভাইয়ের
তীক্ষ্ণ যুক্তিতে নদী ভাঙনের সমাধান , রাজউক ভবনের ব্যবহার,
আশাকরা যায় কোন এক সম বিদ্রোহী রণহুংকার সমাজ সচেতনতা সৃষ্টি হবে।
সুবার্তা নিয়ে আসবে সুবোধেরাা --

আপনার সুক্ষ মন্তব্য অনেকেই ভাবাবে।

পড়ার জন্য ধন্যবাদ।

৩| ২৪ শে এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ৯:০৩

রাজীব নুর বলেছেন: আপনার ৩ টা নোট খুব গুরুত্বপূর্ন।

২৪ শে এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ৯:১৩

বলেছেন: আপনার কাছ থেকেই শিক্ষা পেয়েছি।।

শিক্ষকের এমন মৃল্যায়ন ছাত্রের জন্য অবশ্যই অনুপ্রেরণার।

ভালোবাসা রইলো।

ধন্যবাদ প্রিয় ভাই।।।

৪| ২৪ শে এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ৯:৩৭

পবিত্র হোসাইন বলেছেন: আপনার সঞ্চিত অভিজ্ঞতার নোট -০৩ পড়ে ভালো লেগেছে।
-ভালোবাসা এবং শুভ কামনা রইল

২৪ শে এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ৯:৪২

বলেছেন: প্রিয় পবিত্র হোসাইন ভাই,

আপনি সেই প্রথম থেকে সবগুলো নোট পড়ার জন্য কৃতজ্ঞতা।
আপনাদের অনুপ্রেরণায় এই লেখাটা চালিয়ে গেলাম কতটুকু যুক্তিযুক্ত উপস্থাপন করতে পারছি তা জানি না।

সাথে থাকার জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ।

শুভ সকাল।

৫| ২৪ শে এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ৯:৫৫

নীল আকাশ বলেছেন: শুভ সকাল প্রিয় লতিফ ভাই,
যেভাবে ইসলামিক পদ্ধতিতে বিয়ে পড়ানো কথা সেটা কোনটাই এখন মেনে চলা হয় না আর তাই এতে আল্লাহর কোন রহমতও থাকে না। কিছুদিন আগে এক আত্মীয়ের বিয়ের অনুষ্ঠানে গিয়েছিলাম। যেভাবে সবাই, মাহরাম আর গায়রে মাহরাম একসাথে হইচই করছে সেখানে আর যেই থাক নিশ্চয় ফেরেস্তারা থাকবেন না। আর যেখানে ফেরেস্তারা থাকে না সেখানে কে থাকে বলুন তো? আর সেজন্যই এখনকার বিয়ে তে জুন আপু যা বলেছে সেটাই ঘটে।

আর একটা কথা বলে শেষ করতে চাই - অপচয়কারীরা শয়তানের ভাই বা সহচর। আর এটা কোন মুসলিম শুনে নি বলেন তো?? সৎ পথে রোজগার করলে এভাবে খরচ করতে যে কোন কারো কষ্ট হবে এবং করবেও না। এই সব হারাম টাকা। ফি নারে জাহান্নাম।

কিছু কিছু ব্যাপারে বিধর্মিরা আমাদের চেয়ে অবশ্যি ভালো, সেটা স্বীকার করতে কুন্ঠা হবে কেন বাহে???

ধন্যবাদ এবং শুভ কামনা রইল।

২৪ শে এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ১০:০৯

বলেছেন: শুভ সকাল ভাই আমার,
এত বিজি সিডিউলের মধ্যেও গোছানো মন্তব্য করার জন্য ধন্যবাদ।

আমাদের মুখে ইসলাম আর সহীহ তরিকা বললেও কোন বিয়েতে তা মানা হয় বলে মন হয় না।
ইদানীং ডিভোর্সের হার বেড়ে যাওয়ার কারণ এই সকল অসহ্যকর বেহায়াপনা দায়ী।

বিধর্মীরা কিছু কিছু ব্যপারে ভালো - এদেশে যে হারে চ্যারিটি শপ, দাতা সংস্থা আছে তার কানাকড়ি তো মুসলিম দেশগুলোতে নেই।

ভালো থাকুন সবসময়।

৬| ২৪ শে এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ১০:১০

মুক্তা নীল বলেছেন:
আসসালামু আলাইকুম।
বয়স্ক মানুষের অভিজ্ঞতা শিক্ষণীয় ( হাহাহা)
ফিরবো পরে মন্তব্য নিয়ে...

২৪ শে এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ১০:১৪

বলেছেন: আলাইকুম সালাম --

হা হা হা --
এইজ ইজ নাথিং জাস্ট দ্যা নাম্বার!!

৭| ২৪ শে এপ্রিল, ২০১৯ দুপুর ১:৫৪

তাজেরুল ইসলাম স্বাধীন বলেছেন: উপায় নেই বোধহয়, ঐভাবেই হচ্ছে চলতে।

২৪ শে এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৩:৫৪

বলেছেন: একদিন যদি আঁধার কেটে ভোরের আলো আসে।।।

পাঠে ও মন্তব্য করার জন্য ধন্যবাদ।।


ভালো থাকুন।

৮| ২৪ শে এপ্রিল, ২০১৯ দুপুর ২:৩১

চাঁদগাজী বলেছেন:


শেষ লাইনে লিখেছেন, " পর্যটন খাতে চতুর্থ শিল্প বিপ্লব হয়ে যাবে"; ৫ম লিখতে কি কষ্ট হলো?

২৪ শে এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৩:৫৫

বলেছেন: ৫ম লিখলাম না কারণ যুগের সাথে তাল মিলিয়ে চলতে হয়।।

পড়ার জন্য ধন্যবাদ নিবেন।


ভালো থাকুন।

৯| ২৪ শে এপ্রিল, ২০১৯ দুপুর ২:৫৯

মুক্তা নীল বলেছেন: একজন বিদেশীনীর বঙ্গ দর্শন --- খুবই ভালো লেগেছে।
আমি আপনার নোট এর সাথে মতো সহমত প্রকাশ করছি।
নোট এর কথাগুলো মূল্যবান।
যুগের ধারা, পারিবারিক ট্রেডিশন, লোক দেখানো ....
ভালো থাকুন,শুভকামনা রইলো।

২৪ শে এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৪:৩৬

বলেছেন: কৃতজ্ঞতা আবারো মন্তব্য করতে আসার জন্য।

ভালো থাকুন।।

১০| ২৪ শে এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৩:০৫

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: প্রিয় লতিফ ভাই,

সুন্দর ভ্রমণ অভিজ্ঞতা লিখলেন, একজন বিদেশিনীর চোখে। ++
সহমত বাঙালি বিয়ে মানে বিলাসিতা বৈভব প্রদর্শনের প্রতিযোগিতা,অর্থের ছড়াছড়ি কুকুর-বিড়ালের ডাকাডাকি।

অফুরান শুভেচ্ছা ও ভালোবাসা জানবেন।

২৪ শে এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৪:৩৮

বলেছেন: সময় করে পড়ার জন্য ধন্যবাদ।
আমাদের মুক্তানীল আপুর ব্লগ বাড়ি ভ্রমণের দাওয়াত রইলো।
উনি এই রকম বিয়ের পরিণতি ভালে করে তুলে ধরেছেন।



ধন্যবাদ প্রিয় দাদা।।

ভালোবাসা রইলো।

১১| ২৪ শে এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৪:৪৭

করুণাধারা বলেছেন: অভিজ্ঞতার বর্ণনা আর শেষের নোট, দুটোই খুবই ভালো লাগলো!! বিদেশিনী সাথে আপনার কথোপকথন ও ভালো লেগেছে, বিশেষ করে প্লেন ভাড়ার ব্যাপারটা যেভাবে জেনে নিয়েছেন.......

আমার লন্ডন প্রবাসী এক আত্মীয়ার থেকে শুনলাম, তার এক লন্ডনবাসী বান্ধবীর বাবা বাংলাদেশ থেকে বান্ধবীদের তিন বোনের প্রতিজনের জন্য ১৫ মিলিয়ন পাউন্ড করে পাঠিয়েছেন! বান্ধবীর বাবার পরিচয় দিচ্ছিনা! কিন্তু বিদেশিনীরা এমন বাংলাদেশ সম্পর্কে কি ভাবে বড় জানতে ইচ্ছে করে.........

আপনি আপনার সিরিজটা চালিয়ে যান, খুবই ভালো লাগছে পড়তে।

২৪ শে এপ্রিল, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:১২

বলেছেন: আপু,
আপনি এসেছেন, পড়েছেন, মন্তব্য করেছেন এর চেয়ে বড় সুখের কি হতে পারে।

আপনার শুনা কথায় অনেক রহস্য কিন্তু বাস্তবতা তার চেয়ে আর সুগভীর রহস্যময়।
অনেক কিছু জানি ও শুনি কিন্তু প্রকাশ করার ভাষা নেই বলে লিখতে পারি না।

আপনার এমনভাবে উৎসাহিত করার জন্য একটু আধটু লেখার চেষ্টা করবো - চিন্তা করছি অন্তত ১০০ টি নোট লিখেবো -- হা হা

ধন্যবাদ নিরন্তর।

১২| ২৪ শে এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৫:১৮

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: ভালো লেগেছে :)

২৪ শে এপ্রিল, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:১৩

বলেছেন: ধন্যবাদ পাখি ভাই।।


ভালো লাগায় সার্থকতা খুঁজে পেলাম।।

ভালো থাকুন।।

১৩| ২৪ শে এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৫:২৭

রাজীব নুর বলেছেন: লেখক বলেছেন: আপনার কাছ থেকেই শিক্ষা পেয়েছি।।
শিক্ষকের এমন মৃল্যায়ন ছাত্রের জন্য অবশ্যই অনুপ্রেরণার।
ভালোবাসা রইলো।
ধন্যবাদ প্রিয় ভাই।।।

কেন যে আমাকে লজ্জা দেন!!!!

২৪ শে এপ্রিল, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:১৫

বলেছেন: সত্যটা স্বীকার করে নিতে দোষ কি।।

যাহা সত্য তাহাই বললাম।
আপনার দৈনন্দিন ডায়েরি না পড়লে আমি লেখতে পারতাম না।

বিনয়ী হওয়াটা আপনার মতো মানুষকে আরো মহান বানায়।।


ভালোবাসা অবিরাম।।।

১৪| ২৪ শে এপ্রিল, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:১৬

তারেক ফাহিম বলেছেন: সিরিজ সবগুলোই ভালো লাগছে।

নোট পুর্বের ন্যায় যথার্থ দিয়েছেন।

২৪ শে এপ্রিল, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:১৬

বলেছেন: আহ হা।
শান্তি প্রিয় শান্ত ছেলের স্বচ্ছ মিষ্টি মন্তব্যে ভালোলাগা যত।।


নোটগুলি আপনার ভালোলাগায় সার্থকতা।।।

ভালো থাকুন।।

১৫| ২৪ শে এপ্রিল, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:০৬

মাহমুদুর রহমান বলেছেন: পড়লাম আর সহমত জানিয়ে গেলাম।

২৪ শে এপ্রিল, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:১৭

বলেছেন: এত এত বিজি সিডিউলের মধ্যে পড়ার জন্য ধন্যবাদ প্রিয় ভাই।।।



ধন্যবাদ নিরন্তর।।

১৬| ২৪ শে এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৯:১৪

আহমেদ জী এস বলেছেন: ল,



নিঃসন্দেহে একজন বিদেশিনীর সঠিক অবজার্ভেশান এবং অনুভব। আমরা আমাদের চারপাশের সব কিছুই শুধু খালি চোখে দেখি, অবজার্ভ করিনে। নাড়া পড়েনা মনের কোথাও!
আপনার অভিজ্ঞতার সঞ্চয় সমৃদ্ধ।
আপনার নোট ৩টির সাথে সহমত। প্রথমটি - ষ্ট্যাটাস সিম্বল। দ্বিতীয়টি - আঙুল ফুলে কলাগাছ হলে যা হয় তারই নমূনা।
আর তৃতীয়টি সম্পর্কে আশাব্যঞ্জক কিছু বলার নেই।

২৫ শে এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৩:৩১

বলেছেন: আপনার মন্তব্যের স্টাইল নিয়ে নতুন করে কিছুই বলার নেই। যত বড় লেখা হোক সুন্দর করে সারমর্ম তুলে ধরেন।



পড়ার জন্য ধন্যবাদ।

ভালো থাকুন।

১৭| ২৪ শে এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৯:২০

এম.জে. রহমান বলেছেন: চমৎকার , গঠনমূলক আলোচনা , এই রকম লেখা আরো চাই।

২৫ শে এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৩:৩২

বলেছেন: রহমান ভাই

এই প্রথম আপনাকে আমার কোন লেখায় পেলাম।
উৎসাহ দেওয়ার জন্য কৃতজ্ঞতা।

এই সিরিজের আরো কিছু লেখার লিংক দিলাম সময় করে পড়ার জন্য অনুরোধ রইলো।


ভালো থাকুন।

১৮| ২৪ শে এপ্রিল, ২০১৯ রাত ১১:৫৫

কাওসার চৌধুরী বলেছেন:



প্রিয় ভাই,
চমৎকার একটি লেখা। আছে শিক্ষনীয় অনেক কিছু। নীচের তিনটি নোটের দ্বিতীয়টি আমার সবচেয়ে মনে ধরেছে। এটাই এখন বাস্তবতা। এখন একটি স্পেশাল ফ্যামেলির কোন দারওয়য়ান, আয়ারা ও রাজার হালে আছে। আর এই পরিবারের সাথে আত্মীয়তার ছিটেফোঁটা হলে রাজার আসন নিশ্চিত। বাংলাদেশ সম্বন্ধে ব্রিটিশ মহিলার মূল্যায়ন একদম সঠিক। দ্বিমত হওয়ার সুযোগ নেই।

২৫ শে এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৩:৩৩

বলেছেন: অনেক দিন পর এলেন প্রিয় ভাই,

বাকী লেখাগুলো পড়ার অনুরোধ রইলো।

ভালো থাকুন।

১৯| ২৫ শে এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৫:২৩

দেশ প্রেমিক বাঙালী বলেছেন: সারকথা অর্থাৎ আপনার নোট আমাকে সবচেয়ে ভালোগেছে এবং ইহাই বাস্তব সত্য।

২৫ শে এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৫:৩৬

বলেছেন: প্রিয় দেশপ্রেমিক,

আপানার সুচিন্তিত মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ।


ভালো থাকুন।

২০| ২৫ শে এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৫:৩৯

নীলপরি বলেছেন: খুব সুন্দর যৌক্তিকভাবে লিখেছেন ।

শুভকামনা

২৫ শে এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৫:৪৬

বলেছেন: ধন্যবাদ প্রিয় কবি।।

ভালো থাকুন।।

২১| ২৫ শে এপ্রিল, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:৪৯

আরোগ্য বলেছেন: ১. আমার নানু বলে তাদের সময় বিয়ের অনুষ্ঠানে আত্মীয় ও প্রতিবেশীদের তিনবেলা ফ্রীতে খাওয়ানো হত। বিয়ের আগের দিন মহিলারা নিজেদের মধ্যে নাচগান করে আমোদ ফুর্তি করতো। আর এখন তো বাইলা ফুটানি বেশি হয়। ডিজে পার্টি না করে একটা খাবারের আইটেম বেশি করলেই হয়। তার উপর আবার লাইনে দাড়িয়ে সালামি লিখাতে হয়। এর চেয়ে বরং রেষ্টুরেন্টে আরাম করে বসে খাওয়া ভালো। কিন্তু সম্মান রক্ষার্থে দাওয়াতেে যেতে হয়।

২. নিজের চোখে বাসায় অন্যদের দেখে এটাই ভাবি। কারও নিত্য প্রয়োজন কারও বিলাসিতা।

৩. বাংলাদেশ প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের দেশ। ট্রাভেল ভ্লগ দেখতে ভালো লাগে। কিন্তু ঐতিহাসিক স্থানগুলির কোন পরিচর্যা নেই।

২৫ শে এপ্রিল, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:২২

বলেছেন: সুন্দর মন্তব্যের জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ

অশেষ কৃতজ্ঞতা প্রিয়

২২| ২৭ শে এপ্রিল, ২০১৯ রাত ১১:৩১

সুমন কর বলেছেন: অন্যের সম্পর্কে প্রশংসা করতে কাউকে বলতে বললে, ৪/৫টার বেশি পারে না। কিন্তু দোষ বা ত্রুটি বলতে বলবেন, দেখা যাবে সে থামতে চাইবে না। নোটগুলোতে সহমত। হিন্দু মেয়ে বিয়েতেও অনেক খরচ বা অপচয় হয়।

২৮ শে এপ্রিল, ২০১৯ রাত ১২:৫১

বলেছেন: আসলেই তাই মানুষের স্বভাব জাত বৈশিষ্ট্য হলো অন্যের দোষ ধরা যেন মহাভারত মুখস্থ...


হিন্দু বিয়ে সম্পর্কে তেমন একটা জানা নেই তবে আমাদের গ্রামে দেখতাম একটি হিন্দু বিয়ে বেশ কয়েকদিন স্হায়ী হয়। আশাকরি হিন্দু বিয়ে রীতি ও কালচার সম্পর্কে আপনি নিজের অভিজ্ঞতা লিখে আমাদের জানাবেন।

সময় করে এসে আমার সামান্য লেখাটিতে মন্তব্য করাটাকে আশীর্বাদ হিসাবে নিলাম।

ভালো থাকুন।।

ধন্যবাদ নিরন্তর।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.