নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

হে মানব! আর নয়তো দেরী; জেগে তুলে বিবেকের তরী করো হিংসার বলিদান। জন্মান্ধ হয়ে থেকো নাকো তুমি;মানুষ বলে হও বলিয়ান ।

তুমি জীবন খুঁজো সুখের নীড়ে, আমি জীবন খুঁজি দুঃখের ভীরে।,,, রহমান লতিফ,,,,

› বিস্তারিত পোস্টঃ

দ্যা নোটবুক -৬

১২ ই মে, ২০১৯ সকাল ৯:১৯

জুলুমের যাতনা
----------------
অর্থনীতিতে বহুল জনপ্রিয় একটি কথা হলো - Demand is unlimited মানুষের চাহিদা হলো অসীম। যদিও পৃথিবী ব্যাপ্তি মানুষের গড় আয়ু ৬০-১০০ বছরের মধ্যে সীমাবদ্ধ। যদি সমীক্ষা করা হয়,আপনি কতটুকু সম্পদশালী হতে চান? মুষ্টিমেয় লোক বলবে দু'মুঠো ভাত খেয়েদেয়ে ছেলে মেয়েদের মানুষ করলেই যথেষ্ট। আর বেশিরভাগের মনে বাসনা থাকবে গাড়ি, বাড়ি, খামার বাড়ি, তবে এই পাওয়ার অব হর্স হওয়ার মনোবাসনা হয়তো কেউ মুখ ফুটে স্বীকার করবে না। তবে এটা সত্য যে, এই অসীম চাহিদা মেটাতে গিয়ে অনেকেই হয়ে যায় বেপরোয়া।

জীবনের চিরাচরিত নিয়মে যেখানে সবাইকে কঠিন সংগ্রামের মাধ্যমেই প্রতিষ্ঠিত হতে হয়, সেখানে কিছুটা ব্যতিক্রম আছে বৈকি যেমন ধরুন-যদি কেউ কোন ছাত্র সংগঠনের নেতা হয় তবে অতি সহজেই দু একটা বাড়ি, গাড়ি, কোন কোম্পানির অনারারি এম,ডি কিংবা ব্যাংক মালিক হয়ে যেতে পারেন। দুঃখজনক হলেও ধ্রুবসত্য হলো, যেখানে একজন ছাত্রনেতার মেধাবী সহপাঠীরা কোন গার্মেন্টস, ঔষধ কোম্পানি, এম এল এম কোম্পানি, ব্যাংক ও বীমায় সকাল বিকাল চাকরির সিরিয়াল নিচ্ছে । সেখানে এইসব ছাত্রনেতাদের টাক পয়সা, প্রভাব প্রতিপত্তির এ আচমকা উত্থান 'জুলুম নাকি জিতে যাওয়া' সেটা হয়তো সময়ই নির্ধারন করে দেয়।

মিঃ বাবু, একসময়ের তুখোড় রাজনৈতিক নেতা। আশি ও নব্বই দশকের মাঝামাঝি সময়ে তার নির্যাতনের শিকার হয়ে অনেকে বাড়ি ছাড়া, ও অনেক অফিসার চাকরিচ্যুত হয়েছেন। পুরো বিমানবন্দর এলাকা যার দাপটে চলতো, সোনা চোরাকারবার থেকে শুরু করে মাদক সবিই তার নিয়ন্ত্রণে ছিলো। কথিত আছে কোন এক সার্কেল এ,এস,পির বাসায় রাতের আঁধারে গুলি করে তার বিরুদ্ধে যাওয়ার মাশুল বুঝিয়ে দিয়েছিলো। শহরের মধ্যে দুটি বাড়ি, একটি বস্তি জবর দখল এগুলো ছিলো তার অন্যতম অর্জন।

অনেক অপরাধী নিরাপদ আবাসস্থল হিসাবে বেছে নেয় যুক্তরাজ্য ও দুবাই। সে হিসাবে মিঃ বাবু লন্ডনী কন্যা বিয়ে করে পাড়ি জমায় যুক্তরাজ্য ও সেখানে গড়ে তুলে স্হায়ী আবাস। দীর্ঘদিন সেখানে বসবাসের দরুন তিনি দুটি বাসা ক্রয় করেন।
এক বন্ধুর মাধ্যমে জানতে পারলাম মিঃ বাবু তার একটি বাসা সুলভ মূল্যে বিক্রি করবেন তাই বন্ধুর সাথে একজন ক্রেতা হিসাবে বাবুর বর্তমান ঠিকানায় যাই। তার ঘরে প্রবেশ করার সাথে সাথে ডাস্টবিনের চেয়ে আরো বিদঘুটে গন্ধ নাকের কাছে এসে লাগলো। মনে হলো যেন এখনি বমি চলে আসবে। ঘরটি একটি স্টুডিও রুম। এদেশে এসে প্রথম স্টুডিও রুমের ব্যাপারে অবগত হলাম। যা বাংলাদেশে আমি দেখিনি। স্টুডিও রুমে একটি ছোট রুমের ভেতরে একসাথে শোবার বেড, টয়লেট,কিচেন ও ওয়ারড্রব। যেহেতু এক রুমে সবকিছু তাই পরিস্কার না রাখলে যা হয়। রুমের ভেতর এক ঘিঞ্জি পরিবেশ,চারপাশে ময়লার স্তুপ, সিগারেটের এক্সটেতে পুরাতন সিগারেটের ছাই যেন বিস্টা হয়ে গেছে। কোন রকম নাক চেপে বসে মিঃ বাবুর সাথে আলাপ হলো। চেহারায় রুক্ষতা, চোখের কোনে চামড়ার বয়েসী ভাঁজ আর গজগজ দাড়িতে পঞ্চাশ বছরের মিঃ বাবুকে দেড়'শো বছরের ভৌতিক বৃদ্ধের মতো লাগছিলো। যাক আলাপচারিতায় তিনি জানালেন, এদেশে দুটি ঘর ছিলো। যার মধ্যে স্ত্রীর নামে চার বেডরুমের একটি ঘর। অপরটি সাত বেডরুমের যা তার ও স্ত্রী দুজনের যৌথ নামে। সাত বেডরুমের সেই ঘর ভাড়া দিয়ে মাসে প্রায় সাড়ে তিন হাজার পাউন্ড আয় আসে।

তিন বছর আগে তার মেয়ের বয়স যখন আটারো হয় তখন নাকি সে বৃটেনের সব আইন কানুন শিখে যায়। মেয়েটির নাকি পাকিস্তানি এক ছেলের সাথে মেলামেশা ও ফষ্টি নস্টি আর আদরের দুলালী মেয়েটাই যত সমস্যার মূল। মাকে যুক্তি দিয়েছে যে ইউ,কে'র আইন অনুযায়ী স্বামীর সম্পত্তির অর্ধেক পাওনাদার হলে স্ত্রী, তাই যে ঘর স্ত্রীর নামে ছিলো তা বিক্রি করে দিয়ে সব টাকা পয়সা মা মেয়ে ভাগ করে নিয়ে নেয়। আর মিঃ বাবুকে মা মেয়ে দু'জনে আলাদা আলাদা কেইস করে ঘর থেকে বাহির করে দেয়। শুধু লন্ডনে নয় বাংলাদেশেও কেইস করে দিয়েছে। এমনকি দেশের যা সম্পত্তি আছে তাও বাবুর হাতছাড়া হয়ে গেছে। লন্ডনে থাকা খাওয়ার জায়গা না থাকাতে হোমলেস (Homeless) হয়ে মিঃ বাবু কাউন্সিলের বারান্দায় কয়েকদিন থাকার পর এই স্টুডিও রুম( Studio Room) পেয়েছেন। কিছুদিন আগে মেয়ে পাকিস্তানি সেই ছেলেকে বিয়ে করে অন্যত্র চলে গেছে। সাত বেডরুমের ঘর ভাড়া যা আসে তা স্ত্রী ও মেয়ে ভাগ করে নেয়। যৌথ মালিকানার এই ঘরটি আবার মিঃ বাবুর দস্তখত জাল করে রি-মর্গেজ থেকে স্ত্রী ব্যাংক থেকে আরো লোন নিয়েছে। আর পরিচিত কিছু মানুষ দিয়ে ইচ্ছাকৃতভাবে ঘরে আরো তিনটি চার্জ ( Charge)বসিয়েছে,(চার্জ হলো- কেউ টাকা ধার দিয়েছে এখন পরিশোধ করতে অপারগ বিধায় সম্পত্তির ভাগিদার হতে পারবে। যদি কেউ সম্পত্তি ক্রয় করে বা ব্যাংক পজিশন নিয়ে নেয়,তবে চার্জের টাকা পরিশোধ করতে বাধ্য) এখন ব্যাংক মিঃ বাবুকে এক অংশের মালিক হিসাবে ব্যাংক চিঠি দিয়েছে যদি তিনি ঘরটি রাখতে চান তবে কিস্তির টাকা পরিশোধ করতে হবে নইলে ঘরটি ব্যাংক নিলামে নিয়ে নিবে।
যা হোক হিসাব করে দেখলাম যদিও ঘরের দাম চারশো হাজার পাউন্ড হয় তবে ব্যাংকের লোনের টাকা, চার্জ সব বাদ দিয়ে মিঃ বাবুর ভাগে পনের থেকে বিশ হাজার জোটবে। এসব ঝামেলায় কেউ জড়াবে না তাই নিজেও জড়াইনি। আসার সময় মিঃ বাবুর দেওয়ালে টাঙানো বহু দিনের পুরানে সাদাকালো একটি ছবি চোখে পড়লো। তিনি বুক খোলা অবস্থায় সিডিআই হোন্ডার উপরে বসা, চোখে কালো চশমা আর ব্যাকগ্রাউন্ডের ক্ষেত দেখে আমাদের দেশের বেগুন ক্ষেতের কথা মনে হলো, বেগুন ক্ষেতের যে গাছটিতে পোকার সংক্রমণে মরে যাবার আগে বিদঘুটে হলদে কলিজা পোড়া ভাব আসতো, আজকের মিঃ বাবু যেন সেই পোকায় আক্রান্ত বেগুন গাছের প্রতিচ্ছবি।
নোট -
(১) আজ হোক কাল হোক নিজের জুলুমের যাতনা নিজেকে বহন করতেই হবে।
(২) আজ যদি আপনি মানুষের সাথে জুলুম করেন, কাল আপনার রক্ত থেকে আরো বড় জুলুমবাজ সৃষ্টি হয়ে আপনাকে ধ্বংস করবে না এমন কোন নিশ্চয়তা আছে কি!
(৩) পাপের প্রায়শ্চিত্ত কখন, কিভাবে যে দিতে হবে তা পাপীজন কল্পনাও করতে পারবে না।

আরো পড়ুন -
গড ইজ স্মাইলিংং টু'ডে,নোট -০১
ইউ আর এ পাকি বয়, নোট -০২
একজন বিদেশীনীর বঙ্গ দর্শন,নোট-৩
বন্ধুর কৃতজ্ঞতাও থ্রি ডাব্লিউ,নোট-৪
পুত্রসন্তান ও লালবাতি, নোট-৫

মন্তব্য ৫৫ টি রেটিং +১০/-০

মন্তব্য (৫৫) মন্তব্য লিখুন

১| ১২ ই মে, ২০১৯ সকাল ৯:২৮

পবিত্র হোসাইন বলেছেন: যায় দিন ভাল, আসে দিন খারাপ !

১২ ই মে, ২০১৯ সকাল ৯:৩১

বলেছেন: নিজ কৃতকর্মের পরিণতি হয়তো ভুলে যাই,
ভুলে যাই বারেবারে,,
তাইতো ভুল করে চলি ভুলপথে....


শুভ সকাল।
পড়ার জন্য ধন্যবাদ।
ভালো থাকুন।

২| ১২ ই মে, ২০১৯ সকাল ৯:৩২

চাঁদগাজী বলেছেন:


কোন এক বাংগালী বিদেশে বিপদে পড়েছে, সেটাকে নিয়ে ব্লগিং করছেন? ভালো

১২ ই মে, ২০১৯ সকাল ৯:৩৯

বলেছেন: জীবন থেকে নেই শিক্ষা --

সে তো জুলুমবাজ ছিলো তার বিপদের জন্য সে নিজেই দায়ী।
ভালো করে পড়ে মন্তব্য আশাকরি -- ভুল হলে শুধরে নিবো।।
কৃতকর্মের ফল ভোগ করতে হয় সেটা নিশ্চয়ই জানেন??

ধন্যবাদ।।

১২ ই মে, ২০১৯ সকাল ৯:৪২

বলেছেন: গল্প, কবিতা, উপন্যাস জীবন থেকেই নেয়া হয় যা নিছক কল্পনা নয়। এটা কি বুঝেন নাকি শুধু যুদ্ধ বুঝেন!!!

৩| ১২ ই মে, ২০১৯ সকাল ৯:৪৩

চাঁদগাজী বলেছেন:


আপনি বলেছেন, "লেখক বলেছেন: জীবন থেকে নেই শিক্ষা --; সে তো জুলুমবাজ ছিলো তার বিপদের জন্য সে নিজেই দায়ী।
ভালো করে পড়ে মন্তব্য আশাকরি -- ভুল হলে শুধরে নিবো।। কৃতকর্মের ফল ভোগ করতে হয় সেটা নিশ্চয়ই জানেন?? "

-প্রবাসে নিজ দেশের লোক বিপদে পড়লে, তাকে সাহায্য করতে হয়, তাকে নিয়ে ব্লগিং করতে হয় না; কৃতকর্মের ফল নির্ধারণ কি আপনি করেন? পুরোটাই লিলিপুটিয়ান আচরণ।

১২ ই মে, ২০১৯ বিকাল ৪:৩৩

বলেছেন: প্রবাসে নিজ দেশের লোককে আপনার মতো কিছু লেবাসধারীরা অসহ্য নির্যাতন করছে আবার অনেকেই সাহায্যে এগিয়ে আসছে।
আপনি কিভাবে জানলেন তাকে সাহায্য কি নাই আর পুরো ঘটনা কয়েকবার পড়লে আপনার চিন্তা,চেতনা, বুদ্ধি বাড়বে।

সবচেয়ে বড় হলো, একজন নেগেটিভ মাইন্ডসেট কখনো পজিটিভ চিন্তা করতে পারে না। যেমন আপনি ও আপনার বন্ধু শেফুদা।

একজন মানুষ যেরকম চরিত্রে সে সেটাই চিন্তা করে। একজন দর্জি যেভাবে কাপড়, মুছি যেভাবে জুতা, একজন লিলিপুটিয়ান সবকিছুর মধ্যেই নিজেকে লিলিপুট পরিচয় করে।


নোট - আমি আপনার একজন পাঠক। হয়তো রাজনীতির পোস্ট মন্তব্য করি না কিন্তু আপনার "আশেপাশে রমনীগণকে" নিয়ে লেখা বা
বাঙালির দূর্ভাগ্য বদির বউকে এমপি হিসাবে মেনে নেয়া এগুলো ভালো ছিলো।
কিন্তু
১) আপনি একজন সহ ব্লগারের শিক্ষা বিষয়ক পোস্টে বলেচেন উনি শিক্ষানিয়ে যা লিখবে তাই ভুল -
২) ব্লগের সেরা ও জনপ্রিয় উপন্যাস না পড়ে চিকার মতো বলেছেন "মুটামুটি "
২) আরেকজন মাদ্রাসা নিয়ে আত্মজীবনী লিখাতে আপনি বলেছেন, যে প্রতিষ্ঠানে এক নাম্বার হয়েছেন ওঠাতে আর ছাত্র ছিলো নাকি উনি একাই ছিলেন ফলে এক নাম্বার হয়ে গেছেন।
অন্যকে সম্মান দিতে না জানুন কিন্তু নিজেকে সম্মান দিতে শিখুন, সেল্ফ রেসপেক্ট শিখুন।

৪| ১২ ই মে, ২০১৯ সকাল ৯:৪৯

চাঁদগাজী বলেছেন:


পাকিস্তানী ছেলের সাথে বাংগালী মেয়েরা ঘুরলে, বাংগালীরা সেটাকে মেনে নেয় না; আমরা সেটাকে চাপিয়ে যাই, আপনি সেটাকে নিয়ে ব্লগিং করছেন?

বিদেশে আমাদেরও যাওয়া-আসা আছে, আমাদের চোখেও অনেক কিছু পড়ে, নিজের জাতির মানুষ বিদেশে বিপদের পড়লে, উহাকে কৃতকর্ম হিসেবে নিয়ে ব্লগে তোলার কথা মনে আসে না। আপনি লেখক মানুষ তো, আপনার বিশ্ব একটু অন্য রকম

১২ ই মে, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:২৪

বলেছেন: অনেক কিছু চাপিয়ে যান কিন্তু এগুলোর মূল কারণ কি তাতো কখনো চিন্তা করেন নি......
কিভাবে উপস্থাপনা করেছি তাতো দেখতে পান নি --- শিরোনামটি দেখেছেন কি!!!
।।

""আবার তোরা মানুষ হ''

৫| ১২ ই মে, ২০১৯ সকাল ১০:১১

পবিত্র হোসাইন বলেছেন: চাঁদগাজী বলেছেন: পাকিস্তানী ছেলের সাথে বাংগালী মেয়েরা ঘুরলে, বাংগালীরা সেটাকে মেনে নেয় না; আমরা সেটাকে চাপিয়ে যাই, আপনি সেটাকে নিয়ে ব্লগিং করছেন?


-পাকিস্তানি মেয়ের সাথে বাংগালী ছেলে ঘুরলে সেটা মেনে নেন তো? আপনার কতজন পাকিস্তানি বন্ধু আছে? নাকি সেটাও চেপে যাবেন?
-গল্পে মিস্টার বাবু নামক চরিত্রের জীবনী তুলে ধরা হয়েছে। সেখান থেকে কিছু পজেটিভ শিক্ষা নেয়ার চেষ্টা করেন। আপনার ভাবনা শক্তি নেগেটিভ এর মধ্যে সীমাবদ্ধ এ থেকে নিজেকে মুক্ত করুন।

১২ ই মে, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:২৬

বলেছেন: এক্সিলেন্ট একটি জবাব --
উনি মোটাবুদ্ধির লোক এগুলো বুঝবে না

'ভাবনা শক্তি নাশকতার গন্ডি থেকে বের হয়ে আসুক।।।

ধন্যবাদ নিরন্তর।।
ভালো থাকুন।।

৬| ১২ ই মে, ২০১৯ সকাল ১০:২৭

আহমেদ জী এস বলেছেন: ল,




প্রথম মন্তব্যে "পবিত্র হোসাইন" এর কথাটিই তুলে ধরছি আবার-- "যায় দিন ভাল, আসে দিন খারাপ !"
এটাই দেখা যায় সত্য হয়ে আসে --- আজ হোক কাল হোক নিজের জুলুমের যন্ত্রনা সইতেই হয় মানুষকে!

শিক্ষনীয় পোস্ট।

১২ ই মে, ২০১৯ রাত ৯:১৮

বলেছেন: শ্রদ্ধাভাজন ব্লগার,

জুলুমবাজদের পরিণতি হয়তো সামান্যই জানি।
ওরা হয়তো সাময়িক সুখ পায় আর বয়ে চলে বিনাশী বিষ।
আপনার মূল্যবান মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ।

ভালো থাকুন।

৭| ১২ ই মে, ২০১৯ সকাল ১০:৫৫

হাসান কালবৈশাখী বলেছেন:
এককালের অস্ত্রধারি ছাত্রনেতারা অনেকেই বিদেশে। কিন্তু খুব একটাভাল নেই।

১২ ই মে, ২০১৯ রাত ৯:২১

বলেছেন: দিনশেষে এই একটি কথাই সত্য,,,

দেশের মাস্তানী বিদেশে চলে না। অনেক ছাত্রনেতা বিদেশে কামলা দিতে দিতে শেষ।

সময় করে পড়ার জন্য ধন্যবাদ প্রিয় ব্লগার।

৮| ১২ ই মে, ২০১৯ দুপুর ১২:০১

নাঈম জাহাঙ্গীর নয়ন বলেছেন: বাস্তবতা মনে হয় এমনই, কিন্তু! কিছুকিছু মানুষকে দেখে ধারণাটা এমনিতেই বদলে যায় মাঝেমধ্যে!

দাপট দাম্ভিকতা আর ক্ষমতা চিরকাল একরকম থাকেনা, আরও স্পষ্ট করে বললে দশ থেকে পনেরো, এরমধ্যেই শেষ হতে শুরু হয়।

ভালো লাগলো আপনার পোস্ট পড়ে, পরের সম্পদে পোদ্দারি টিকে না বেশিদিন।

১২ ই মে, ২০১৯ রাত ৯:২৪

বলেছেন: নয়ন ভাই,

অনেক দিন পর এলেন। আশাকরি ভালো আছেন।
ক্ষমতা চিরকাল থাকবে না কিন্তু অপকর্ম বেঁচে থাকবে।।।
আত্মশুদ্ধি হোক সকলের,, বোধের ঢেউ ঘটুক।।

ভালো থাকুন সবসময়।।

৯| ১২ ই মে, ২০১৯ দুপুর ১২:১৬

নজসু বলেছেন:



ওরে বাবা........

১২ ই মে, ২০১৯ রাত ৯:২৫

বলেছেন: আধাঁর রাতের নয় দিনের আলোর গল্প।।
ভালোবাসা রইলো।

১০| ১২ ই মে, ২০১৯ দুপুর ১২:২১

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: প্রিয় লতিফ ভাই,

পোস্টটি পড়ে মিস্টার বাবুর করুণ পরিণতি জেনে বেশ মজা পেলাম। বাস্তবে সব জুলুমবাজদের অবশ্য এমন পরিনতি হয় না। আমরা প্রতিনিয়ত আমাদের চারপাশে এমনও হাজার মিস্টার বাবুদের অত্যাচারের শিকার হলেও মুখ বুজে মেনে নিতে বাধ্য হই ।তারপরও দেখি তাদের বিলাস বৈভবের প্রাচুর্যতা।
তবে আজকে আপনার পোস্টের মন্তব্য গুলোতো বেশ মজা পেয়েছি। জীবনের রঙ্গমঞ্চে এমন মন্তব্য পোস্টে বাড়তে পাওয়া হা হা হা ...

দেখি এখন আপনি কি উত্তর দেন।

সকলের মঙ্গল হোক।
শুভকামনা ও ভালোবাসা প্রিয় কবি ভাইকে।

১২ ই মে, ২০১৯ রাত ৯:৩২

বলেছেন: মিঃ বাবুদের অত্যাচার নিপিড়ন চলছে আর চলবে এটাই তৃতীয় বিশ্বের নিয়ম।

এর মধ্যে দু একজন হয়তো ভুল বুঝতে পারে, ফিরে আসে সঠিক পথে।
আপনার নির্বাচনে ডিউটি কেমন চলছে।
গনতন্ত্র, ভোট, মানুষের চাওয়া - পাওয়া এগুলো নিয়ে লেখেন আমরা জানি আপনার অভিজ্ঞতা।

১১| ১২ ই মে, ২০১৯ দুপুর ১২:৫৯

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: দুনিয়াতেই অনেক বিচার হয়ে যায় জুলুমের । মানুষই আসলে বুঝে না। আমি একটা ব্যথা ফেলাম তখনই ভাবি হয়তো কাউকে ব্যথা দিয়েছি। আল্লাহ সবাইকে ক্ষমা করুন

সুন্দর শিক্ষনীয় গল্প

১২ ই মে, ২০১৯ রাত ৯:৩৪

বলেছেন: আল্লাহ আমাদের সবাইকে ক্ষমা করুন, করুণাা করুন, সহায় হোন।
সবাই যদি বুঝতো জুলুমের কি যন্ত্রণা তবে ধরিত্রীতে সুখের ফোয়ারা নেমে আসতো।

পড়েছেন জেনে ভালো লাগলো।

ভালো থাকুন, শুভেচ্ছা নিবেন।

১২| ১২ ই মে, ২০১৯ দুপুর ১:৫১

ওমেরা বলেছেন: অন্যায় করলে শুধু আখেরাতে নয় দুনিয়াতে অশান্তি ভোগ করতেই হয় । আর দুনিয়াতে আল্লাহ এই শাস্তি দেন যাতে এটা দেখে আশে পাশের মানুষ শিক্ষা নিতে পারে ।

শিক্ষনীয় ঘটনাটা শেয়ার করার জন্য অনেক ধন্যবাদ।

১২ ই মে, ২০১৯ রাত ৯:৩৭

বলেছেন: অসাধারণ মন্তব্য দেখে লেখার সার্থকতা খুঁজে পেলাম।

কেউ একজন যদি শিখে তবেই সৌভাগ্য।।

কতশত মৃত্যুর ছাপ ফেলে যায় শিখবার নিত্যতার
তবুও পাঠ চুকিয়ে দেখা হবে না শিরোনাম স্বীয় কবিতার।।


সময় করে পড়ার জন্য ধন্যবাদ।। ভালো থাকুন।।

১৩| ১২ ই মে, ২০১৯ দুপুর ২:০৯

নীল আকাশ বলেছেন: পাপ ছাড়ে না বাপ কে!!
অবাক হবার কি আছে, এটাই তো স্বাভাবিক, তাই না!!
জীবনের সমস্ত পাপের হিসাব একসময় না একসময় ফিরত দিতেই হবে.....
বাস্তবতা খুবই কঠিন, আমরা সহসাই ভুলে যাই।
মাহে রামাদানের শুভেচ্ছা রইল!!

১২ ই মে, ২০১৯ রাত ৯:৪৩

বলেছেন: প্রিয় ভাই,
বরাবরের মতো সুন্দর মন্তব্য করলেন।
পাপের কুফল আমরা সহসাই ভুলে যায়,
অকাল পরিণতি দেখেও নেই না শিক্ষা
রোজ রোজ চলছে দাপটের নিবিষ্ট পরীক্ষণ
এজিদদের ধ্বংস দিবেন প্রভু এখন নয়তো তখন।


মাহে রমজানে আল্লাহর নেয়ামত বর্ষিত হোক। ভালো থাকুন।।

১৪| ১২ ই মে, ২০১৯ বিকাল ৩:২২

হাবিব স্যার বলেছেন: অনেক দিন পর ব্লগে এলাম.......আশাকরি ভালো আছেন। সময় করে অন্য পোস্টগুলো পড়বো।

১২ ই মে, ২০১৯ রাত ৯:৪৪

বলেছেন: এত সময় কি হবে হে প্রিয় অনুরাগী,,
যদি পাও সময় এসো তবে এই মেলাতে।।


ভালোবাসা অবিরাম।

১৫| ১২ ই মে, ২০১৯ বিকাল ৩:২৬

মুক্তা নীল বলেছেন: ল'ভাই
অসাধারন শিক্ষনীয় পোস্ট কিছু মানুষের জীবনের জুলুম বা পাপের প্রেক্ষাপটের প্লট ভিন্ন হলেও---
পাপের প্রায়শ্চিত্ত কখন কিভাবে যে দিতে হবে তা পাপী জন কল্পনাও করতে পারবে না।
ব্লগার চাঁদগাজী বলেছেন, কোন এক বাঙালি বিপদে পড়েছে সেটাকে নিয়ে ব্লগিং করছেন?---আশপাশের কিছু লোকের নিজের কাছের মানুষের কাছ থেকে প্রতারণা এবং কৃত কর্মের পরিণতি লেখাটা কি খুব অন্যায়?আমার ভাবতে অবাক লাগছে উনার মুখে এ ধরনের কথা কি মানায়? ব্লগার চাঁদগাজী নিজেও তো মাঝেমধ্যে নিজের অভিজ্ঞতার কথা লিখে থাকেন। এর মধ্যে অবশ্যই ব্লগার নুরু সাহেবের অভিশাপ কাজ করেছে ১৪ ই এপ্রিল সকাল ৯ টা ২৬ মিনিটে এ পোস্ট দিয়েছিলেন। সেখানে ব্লগার চাঁদগাজী এক অভিজ্ঞতার কথা সুন্দর করে বিশ্লেষণসহ শেয়ার করেছেন। যেটা পড়ে অনেকেরই ভালো লেগেছে এবং আমারও। তাছাড়া ব্লগার চাঁদগাজীর আমার আশপাশের মমতাময়ীরা, আমার শৈশবে দেখা সুন্দরী নারীদের একজন (তাজুর মা), যে মেয়েটির সাথে জিন ছিল (ছেমনা আফরোজ) এমন আরও অনেক পোস্ট আছে,আরও আছে ব্লগার নুরু সাহেবের অভিশাপ এই জাতীয়।
প্রতিটি পোস্টে উনি বিভিন্ন অভিজ্ঞতা করুন কাহিনী, কারো বিপদগামী জীবন এসব তুলে ধরেছেন। সবগুলো পোস্টই ছিল অসাধারণ। এবং সেখানে কেউ নেগেটিভ কোনো মন্তব্য করেনি। কারণ ওগুলো ছিল নিজের একান্ত অভিজ্ঞতা।
ঠিক তেমনি আপনি একজন তুখোড় দাপটে চলা এক কালের রাজনৈতিক ব্যক্তির দুরাবস্থা ও পরিণতি শেয়ার করেছেন ।যা পড়ে আমরা অনেকেই দুঃখ ও আফসোস প্রকাশ করলাম, তাহলে সেটা কেন অন্যায়???আপনার প্রতিটি পোস্টে সবাই পজেটিভ কথা বলছে এবং সুন্দর ও গঠনমুলক আলোচনা করছেন।

যা-ই হোক সবশেষে বলবো উনার কথা কাউন্ট না করে চুপ থাকাটাই উত্তম।

১২ ই মে, ২০১৯ রাত ৯:৪৮

বলেছেন: আপনি যে একজম সেরা পাঠক এই মন্তব্য তারই মাইলফলক।
অবাক লাগে কিছু লোক পোস্ট না পড়ে কিংবা পোস্ট নিজের মনপুত না হলে আবোল তাবোল বলা শুরু করে।
ড্রাউন সিনড্রোম বা ডায়বেটিস রোগে ভুগলে এমনটা হতে পারে এতে আমার কিছু যায় আসে না।

আপনার মন্তব্যটি ""বেস্ট মন্তব্য ইন দ্যা ইয়ার ""


ভালো থাকুন। রমজানের রহমত বর্ষিত হোক।।।

১৬| ১২ ই মে, ২০১৯ বিকাল ৫:২৪

মেঘ প্রিয় বালক বলেছেন: অনেক কিছু জানলাম,এবং শিখলাম

১২ ই মে, ২০১৯ রাত ৯:৫৬

বলেছেন: আপনার সহজ সরল স্বীকারোক্তি অনেক অনেক পাওয়ার, ভালো লাগার, ভালোবাসার।
প্রতিদিন কোন না কোন কিছু থেকে শিখি যদি মনে শিখার চেষ্টা থাকে।
একটি সুন্দর আচরণ বদলে দিতে পারে আমাদের চেনা পৃথিবীর রঙ।

ভালো থাকুন সবসময়।।

১৭| ১২ ই মে, ২০১৯ বিকাল ৫:২৪

বিদ্রোহী ভৃগু বলেছেন: নোট ৩ টিই চিরন্তন সত্য!

কেউ এড়াতে পারেনা। পারবেও না।

একটা চরম সত্য পরিণতি সুন্দর ভাবে তুলে ধরায় ধন্যবাদ্
পাপের পরিণতি কত নির্মম তা মানুষ জানুক!
আজকের নব্য অপরাধীরা হুঁশীয়ার হোক!

১২ ই মে, ২০১৯ রাত ৯:৫৯

বলেছেন: সুপ্রিয় কবি,
কতটা পেরেছি তা জানি না।
তবে আপনাদের অনুপ্রেরণা নেটগুলো লেখার সাহস দেখায়।
আগের অস্ত্রবাজরা হয়তো সিস্টেম বা চেইন মেনে ক্ষমতার ভারসাম্য বজায় রাখতো।
কিন্তু এখন তো কোন সিস্টেম নেই সবটাই লুটেপুটে খাওয়ার সিস্টেম চলছে।

আল্লাহ সকলের মঙ্গল করুন।।।। ভালে থাকুন।। শুভেচ্ছা নিরন্তর।।


১৮| ১২ ই মে, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:২৯

নজসু বলেছেন:




আস সালামু আলাইকুম।
কেমন আছেন প্রিয় লতিফ ভাই?
আশা করি ভালো আছেন।

বিবেককে জাগ্রত করার মতো একটি পোষ্ট।

পোষ্ট পাঠে শুধু মহান আল্লাহতায়ালার একটি কথাই বলবো-
যখন সময় আসবে তখন অবশ্যই তোমার প্রতিপালক তাদের
সবাইকে তার কর্মফল পুরোপুরিভাবে দেবেন।
তারা যা করে, নিশ্চয়ই তিনি সে বিষয়ে সবিশেষ অবহিত।

[প্রিয় হাবিব স্যারের পোষ্ট এবং আপনার পোষ্টসহ আরও কিছু পোষ্ট
কয়েকটা ট্যাবে খুলে রেখে চোখ বুলিয়ে যাচ্ছিলাম। প্রিয় ভাই হাবিব স্যারের
পোষ্টে করা ওরে বাবা কমেন্টটি এখন দেখছি আপনার পোষ্টে পোষ্ট হয়েছে। ]

১২ ই মে, ২০১৯ রাত ১০:০১

বলেছেন: আলাইকুম সালাম প্রিয় ভাই,
আলহামদুলিল্লাহ ভালো আছি।
তোমার কি খবর! ব্যস্ততা কি কিছুটা কমেছে।
ভালোবাসা রইলো।

১৯| ১২ ই মে, ২০১৯ রাত ১০:২২

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: তবে মানুষের বেঁচে থাকার জন্য যথেষ্ট পরিমাণ টাকার দরকার ও আছে। যাদের হাতে টাকা নেই তাদের চোখেমুখে কেবলই অন্ধকার। জবটা চলে টাকার বলে।

১২ ই মে, ২০১৯ রাত ১০:৪০

বলেছেন: মানুষের বেঁচে থাকার জন্য যথেষ্ট পরিমাণ টাকার দরকার ও আছে ---
সেই পরিমান পরিমাপের কোন মাপকাঠি কি আছে??

অসীম থেকপ শুরু হয় শূন্যতা আর হাহাকার।

পাঠে ও মন্তব্য করার জন্য ধন্যবাদ।

ভালোবাসা রইলো।

২০| ১২ ই মে, ২০১৯ রাত ১০:২৯

রাজীব নুর বলেছেন: এডাম স্মিথ বলেছেন- মানূষের চাহিদার শেষ নেই।

১২ ই মে, ২০১৯ রাত ১০:৪৭

বলেছেন: ইসলামের মহান শিক্ষা অনুযায়ী মানুষকে চাহিদা সীমিত রেখে অল্প তুষ্ট থাকার নিদের্শ দিয়েছেন। মানুষের স্বভাবজাত চাওয়ার মাত্রা বাড়িয়ে অহেতুক জীবনকে অতিষ্ঠ করে তুলতে মানা করেছে ইসলাম।

ভালো থাকুন।।

২১| ১২ ই মে, ২০১৯ রাত ১১:৩৪

মাহমুদুর রহমান বলেছেন: মহান আল্লাহ্‌ বলেন,
আমি জালিমকে সুযোগ দিই সে যেন তার পাপকে পাকাপোক্ত করতে পারে।অতঃপর আমি তাঁদের ধরি।

আমার তেমন কোন চাহিদা নেই।আমার চাহিদা পৃথিবীতে যে কয়টা দিন বেঁচে আছি মহান আল্লাহর বানী আল কোরআন আঁকড়ে ধরে রাখতে চাই মৃত্যুর আগ পর্যন্ত ।কারন আল কোরআনই মানুষের পূর্ণাঙ জীবন বিধান।

১৩ ই মে, ২০১৯ রাত ১২:২২

বলেছেন: নিঃসন্দেহে আপনি হেদায়েত প্রাপ্ত হয়েছেন।
আল্লাহ আপনার নেক আশাগুলো পুরণ করুক।

ভালো থাকুন।

২২| ১৩ ই মে, ২০১৯ ভোর ৬:৫৮

ডার্ক ম্যান বলেছেন: অনেক জালিম তো বহাল তবিয়তে থাকে ।

১৩ ই মে, ২০১৯ সকাল ৭:০৫

বলেছেন: ইয়েস স্যার,,,
অনেক বহাল তবিয়তে রাজত্ব চালিয়ে যায় হয়তো আজ না হয় কাল
নয়তো বেয়াল্লিশ বছর পর কে জানে তাকে হিসাব পুষিয়ে দিতে হবে।


আপনার পোস্টগুলো কি ড্রাফট করে দিয়েছেন!!

২৩| ১৩ ই মে, ২০১৯ সকাল ৭:১৬

ডার্ক ম্যান বলেছেন: হ্যাঁ ড্রাফট করে দিয়েছি। আমার কাছে মনে হয়েছে এ লেখাগুলি কেউ না পড়লেও চলবে ।
আমার পরিচিত কিছু লোক ছিল, যারা খুব স্বাভাবিক ভাবে মারা গিয়েছেন অথচ ছিলেন জুলুমবাজ।

১৩ ই মে, ২০১৯ সকাল ৭:৩৩

বলেছেন: পোস্টগুলো কেউ না পরলেও চলবে -- মনে হয় অভিমান করেছেন কোন অজানা কারণে।।। লেখাগুলো সবাই পড়ার অধিকার রাখে বলা যায় না যদি কারো কোন উপকারে চলে আসে।। আপনার এজটি রাজনৈতিক অবজারভারভেশন পোস্ট ভালো ছিলো।



যারা খুব স্বাভাবিক ভাবে মারা গিয়েছেন অথচ ছিলেন জুলুমবাজ--- হয়তো আপনি তার বাহিরের জগৎ দেখেছেন তার ভেতরের চাপা বেদনা হয়তো দেখা হয়নি। মানুষের কতটুকু বা অন্য লোক অবজারভ করতে পারে।

ভালো থাকুন। আবারো ফিরে এসে মন্তব্য করার জন্য কৃতজ্ঞতা।।
আপনি লিখুন, পোস্ট দেন,, আমরা পড়ি, জানি।। শুভেচ্ছা নিরন্তর।।

২৪| ১৩ ই মে, ২০১৯ দুপুর ১২:০৮

নীলপরি বলেছেন: আপনি যে মানুষের জীবনকে মন দিয়ে পর্যবেক্ষণ করেন তা আপনার এই সিরিজ পড়লে বোঝা যায় ।

ভালো লাগলো পোষ্ট ।

১৩ ই মে, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৪০

বলেছেন: কবির মতো মতোই সমৃদ্ধ মন্তব্যে ভালোলাগা।

পড়ার জন্য ধন্যবাদ।

ভালো থাকুন।

২৫| ১৩ ই মে, ২০১৯ বিকাল ৪:৫২

ডার্ক ম্যান বলেছেন: কারো উপর অভিমান নয়। আমার গল্প উপন্যাস লেখার ক্ষমতা নাই। আমার রাজনৈতিক পর্যবেক্ষণ ক্ষমতা বরাবরই ভাল। এই ব্লগে রাজনৈতিক পোস্টে মতামত দেওয়ার মতো সক্ষমতা থাকলেও এড়িয়ে চলা শ্রেয় মনে করে তারা। গাজী ভাই তবে ব্যতিক্রম ।

১৩ ই মে, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৪২

বলেছেন: আবারো আসার জন্য ধন্যবাদ

আপনার রাজনৈতিক পোস্টগুলো আসলেই ভালো।।।

সমসাময়িক বিষয় নিয়ে আপনার কাছ থেকে লেখা আশাকরি।

ভালো থাকুন।

২৬| ১৩ ই মে, ২০১৯ রাত ৯:৩৩

সুমন কর বলেছেন: শুনেছি, পাপ করলে এ জনমেই শাস্তি পাবে, সেটা যেভাবেই হোক !! পরকাল তো রইলো !!
+।

১৩ ই মে, ২০১৯ রাত ১০:২৯

বলেছেন:
দাদা,
পাপের কুফল অনেক পড়েছি আনেক শুনেছি, দেখেছি তবুও হয়না আত্মশুদ্ধি এটাই বড় পরাজয়।

সম করে পড়ার জন্য ধন্যবাদ।

ভালো থাকুন।

২৭| ২১ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ভোর ৬:৫৮

ইসিয়াক বলেছেন: এই পোষ্ট থেকে অনেক কিছু শেখার আছে । বোঝার ওআছে ।
আসলে পাপ ছাড়েনা বাপকে
প্রিয় লতিফ ভাই আপনার লেখাগুলো পড়ছি আর প্রতিনিয়ত অনেক কিছু শিখছি।আপনি মানুষের যাপিত জীবনকে অনেক গভীরভাবে বিশ্লেষন করেন। তবে কথা হলো আমি কিছুই মনে রাখতে পারিনা। হা হা হা
শুভসকাল

২১ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ দুপুর ২:২৫

বলেছেন: আপনি আমার একজন খাঁটি কবিমন, প্রেমিক বন্ধু।।


ভালো থাকুন

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.