নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

আমার কোন দ্বিতীয় সত্তা নেই। আমি যা আমি তাই । বাস্তবে যা ব্লগেও তাই ।মুখোশকে আমি মনে প্রানে ঘৃণা করি ।

ইসিয়াক

‘প্রচুর পয়সা কখনো চাইনি, বিত্তের পিছে ছুটতে যাইনি। তাই আমি অবহেলিত।

ইসিয়াক › বিস্তারিত পোস্টঃ

জোছনার গল্প

৩০ শে অক্টোবর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:১০


এই পৃথিবীটা খুব সুন্দর ।চারিদিকের মানুষগুলো খারাপ না কিন্তু এই পৃথিবীরই কিছু কিছু মানুষের জন্য হঠাৎ করে এই সুন্দর পৃখিবীটা কুৎসিত রূপ ধারণ করে।তখন আর পৃথিবীটাকে আর সুন্দর মনে হয়না । অসহ্য লাগে , দম বন্ধ হয়ে আসে। নিঃশ্বাস নিতে ইচ্ছা করে না ।কষ্ট হয় ।মরে যেতে ইচ্ছা করে । জোছনার আজ মরে যেতে ইচ্ছা করছিলো।কতবার ভেবেছে হারপিক খাবে আবার ভেবেছে চারতলার এই বাসা থেকে ঝাঁপ দেবে। কিন্তু একমাত্র ছোট্ট ভাইটার মুখ বার বার ভেসে ওঠায় সেটা সে কার্যকর করতে পারেনি ।

জোছনা আজ সারাদিন একমনে জানালা দিয়ে বাইরে তাকিয়ে আছে । দেখলে মনে হবে সে বাইরের প্রাকৃতিক দৃশ্য উপভোগ করছে হয়তো । আসলেই কি সে বাইরের দৃশ্য উপভোগ করছে ? না ,সে প্রাকৃতিক দৃশ্য উপভোগ করছে না ।সেই অবস্থা বা মনমানসিকতা তার বর্তমানে নেই । সে বসে আছে উদাস ব্যথিত ভাঙা মন নিয়ে ।তার মুখে এক রাশ কষ্টের ছাপ ।চোখ ছলছল।

বুকে রয়েছে অচেনা চিনচিনে এক ধরনের সুক্ষ ব্যাথা । অতি প্রিয় কিছু হঠাৎ করে হারিয়ে ফেলার জ্বালা ।কিন্তু সে কথা সে কা্উকে না পারছে বলতে ,না পারছে সহ্য করতে। কাল থেকে কত বার মনে হয়েছে মৃত্যুই তার একমাত্র পরিণতি মৃত্যুই তার একমাত্র আশ্রয় স্থল কিন্তু না সে হেরে য়াওয়া মেয়ে নয় সে হেরে যাবে না সে পৃথিবীকে দেখিয়ে দেবে সে পারে সে পারবে।ছোট্ট বাবা মা হারা মেয়েকে কেউ হারাতে পারবেনা ।কিন্তু আবার যখনই অতীত স্মৃতি ফিরে আসে মনে তখন তার বুক বেয়ে একরাশ দুঃখ উথলে উঠছে ।কান্না গুলো গলার কাছে দলা হয়ে পাকিয়ে যাচ্ছে ।…….

জাহিদ সদ্য ইঞ্জিননিয়ারিং পাশ করেছে। জোছনা এই জাহিদ নামের ছেলেটাকে অসম্ভব ভালোবাসতো এখনও সে ভালোবাসে।এই ভালোবাসাবাসি প্রায় আট বছর ধরে । কত প্রমে কত খোঁজ খবর ।কতনা উপহার উপঢৌকন। জাহিদের মতো এতটা কেয়ারিং ছেলে খুব একটা দেখা যায় না ।বন্ধুদরে মধ্যে জোছনাকে নিয়ে একটা সুক্ষ হিংসা কাজ করতো বরাবর । জোছনাও এটা উপভোগ করতো ।

কিন্তু পাশ করার পর জাহিদ যেন রাতারাতি বদলে গেল ।আস্তে আস্তে শোনা যেতে লাগরো সে আরো একটি মেয়ের প্রেমে পড়েছে মেয়েটি তার বাবার একমাত্র মেয়ে এবং বিত্তশালী । জোছনা প্রথম প্রখম বিশ্বাসই করেনি এটা কখনও হয় !সব বানানো বন্ধুদের হিংসা !!

জাহিদও ক্রমশ অস্বীকার করে এসেছে না সে এসব কিছু করছেনা্ এমনকি বিয়ের আগের রাতেও সে আর জাহিদ অনেক রাত জেগে কতনা আলাপ …..জোছনা চোখের জল মুছলো । না সে আর কাঁদবে না সে হেরে যাবেনা । সে মেয়ে হতে পারে কিন্তু অসহায় নয় তার আত্মমর্যাদা আত্মসন্মানবোধ আছে । সে ঠুনকো একটা প্রেমের জন্য এত সহজে নিজের জীবন বিলিয়ে দিচ্ছিলো।এটা ভাবতেই নিজের উপরই তার নিজের রাগ হচ্ছে এখন।

সে বড় হবে ।অনেক বড় মাপের মানুষ হবে ।মানুষের জন্য তার এই একজীবনে অনেক কিছু করার আছে । জোছনা চোখের জল মুছে ফেলল ।সে দৃপ্ত শপথ নিলো। সে তার এ জীবনটা পিছিয়ে পড়া অনগ্রসর মানুষের জন্য কিছু একটা করবে ।ছোট ভাইকে মানুষের মত মানুষ করবে ।এই সমাজের মানুষগুলোর মতো অমানুষ বানাবে না ।পৃথিবীতে স্বার্থই সব নয়।....।

আসলে এই পৃথিবীতে ত্যাগের মতো সুখ আর কিছুতে নেই ।

মন্তব্য ১২ টি রেটিং +২/-০

মন্তব্য (১২) মন্তব্য লিখুন

১| ৩০ শে অক্টোবর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৪২

মাহমুদুর রহমান বলেছেন: গল্পটা সুন্দর হয় নি।

৩০ শে অক্টোবর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৪৮

ইসিয়াক বলেছেন:
ধন্যবাদ

২| ৩০ শে অক্টোবর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৫৬

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন:




ইসিয়াক ভাই,
গল্প হয়েছে মোটামোটি। ৩৪% পেয়ে কানের পাশ দিয়ে গুলি গিয়ে পাশ করেছেন। আমার সেই কথা কি মনে আছে “গাইতে গাইতে গায়েন - - - - - আর আপনার কবিতা এখন প্রথম শ্রেণীর অর্থাৎ ৬৫-৭০%। ভাবনা কিসের আছি তো।

৩০ শে অক্টোবর, ২০১৯ রাত ৮:০২

ইসিয়াক বলেছেন: অনেক অনেক ধন্যবাদ মাহমুদ ভাই ।
পরবর্তীতে আরো ভালো করর চেষ্টা করবো ।
শুভকামনা রইলো ।
ধন্যবাদ

৩| ৩০ শে অক্টোবর, ২০১৯ রাত ৯:০৫

মা.হাসান বলেছেন: আপনি কবিতা না লিখে গদ্য দিয়েছেন দেখে ঝাপিয়ে পড়লাম। মাঝে মাঝে গদ্য দিয়েন, অনুরোধ থাকলো।

আমার ভালো লেগেছে। পুতু পুতু মিনমিনে হয়ে হারপিক খেয়ে সমস্যার সমাধান হয় না, নিজের যোগ্যতা থাকলে করে দেখানোই ভালো।

যশোরে কি শীত এসেছে? রস? আমার মামা দীর্ঘদিন ষষ্ঠিতলায় ছিলেন।

৩০ শে অক্টোবর, ২০১৯ রাত ৯:১৮

ইসিয়াক বলেছেন: প্রিয় মা.হাসান ভাই ,
ভালো লেগেছে জেনে ভালো লাগলো । তবে সেরকম ভালো হয়নি আমি জানি ।আরো ভালো করতে হবে । আসল কথা হচ্ছে গল্প কবিতা বা প্রবন্ধ যাই হোক না কেন লিখতে গেলে প্রচুর মনোসংযোগ ,প্রচুর পড়াশোনা আর একাগ্রতা থাকা লাগে । কিন্তু এখনকার এই অতি ব্যস্ত সময়ে সেটা আমার পক্ষে দেওয়া সম্ভব হয়ে ওঠে না । স্বল্প সময়ে খুব দ্রুত লিখে হয় । আর যে কোন লেখার মাঝে বার বার অন্যকাজে ব্যস্ত হলে লেখাটা আসল থিমে দাড়ায় না কোথায় যেন সুর কেটে যায়।
৥যশোরে এখনও সেভাবে শীত পড়েনি ।
৥ আমার নানা বাড়িও ষষ্ঠিতলায় ।সর্দার বাড়ি[৫ পি টি আই রোড] ।আমার নানার নাম খালেক সর্দার ।
৥ চেষ্টা করবো গদ্য লিখতে ।
ধন্যবাদ। দোয়া রইলো।

৪| ৩০ শে অক্টোবর, ২০১৯ রাত ১০:২৪

রাজীব নুর বলেছেন: চমৎকার গল্প।
এর আগে কি আপনার কোনো গল্প পড়েছি??
আপনার কবিতার চেয়ে গল্প ভালো হয়।

৩০ শে অক্টোবর, ২০১৯ রাত ১০:২৯

ইসিয়াক বলেছেন: আচ্ছা ভুলো মন তো আপনার ।আদনানের গল্পের কথা কি ভুলে গেছেন ........

৫| ৩১ শে অক্টোবর, ২০১৯ রাত ১:৪৯

কিরমানী লিটন বলেছেন: ভালো লাগলো - আপনার জন্য শুভকামনা রইলো.....

৩১ শে অক্টোবর, ২০১৯ ভোর ৫:২৫

ইসিয়াক বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ ভাইয়া।
সুপ্রভাত

৬| ৩১ শে অক্টোবর, ২০১৯ দুপুর ২:০৮

স্বপ্নবাজ সৌরভ বলেছেন: অনেক ভালো লাগলো। মাঝে মাঝে গল্প দিয়েন। অপেক্ষায় থাকবো।

৩১ শে অক্টোবর, ২০১৯ দুপুর ২:১৪

ইসিয়াক বলেছেন: ঠিক আছে ভাইয়া ।
অনেক ধন্যবাদ

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.