নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

সত্যের সন্ধানে ও শান্তির অন্বেষায় ...

সব বিষয়ে জানতে ও শিখতে আগ্রহী একজন উদার মনের মানুষ।

জোবাইর

বিনয়ী মূর্খ অহংকারী বিদ্বান অপেক্ষা মহত্তর। Copyright © Zobair

জোবাইর › বিস্তারিত পোস্টঃ

বাংলাদেশ: ফিরে দেখা ২৭ আগস্ট

২৭ শে আগস্ট, ২০১৮ দুপুর ২:১৪


সহজলভ্য রেফারেন্সের অভাবে বাংলাদেশের ইতিহাসের অনেক ঘটনা বিভিন্ন ব্যক্তি বিভিন্নভাবে বিশ্লেষণ করেন। এতে ইচ্ছায় বা অনিচ্ছায় বাংলাদেশের ইতিহাস বিকৃত হচ্ছে, সৃষ্টি হচ্ছে অসংখ্য বিতর্কের। তাই ইতিহাসের উল্লেখযোগ্য ঘটনার তথ্য সহজলভ্য করার উদ্দেশ্যে 'ফিরে দেখা বাংলাদেশ' সিরিজ। প্রায় সব তথ্য যাচাই-বাচাই করে দেশের প্রধান সংবাদপত্রসমূহ থেকে নেয়া হয়েছে।
বাংলাদেশের ইতিহাসে ২৭ আগস্ট ঘটে যাওয়া উল্লেখযোগ্য রাজনৈতিক ও সামাজিক ঘটনাবলি:

১৯৭৩
====
বাংলাদেশ-ভারত পরমাণু সহযোগিতা চুক্তি।

১৯৭৫
====
ভারত, জার্মান ডেমোক্রেটিক রিপাবলিক ও ওমানের বাংলাদেশের নতুন সরকারকে স্বীকৃতি দান।

১৯৭৭
====
১৯টি শিল্প ইউনিট অনুমোদন।

১৯৮০
====
হোয়াইট হাউসে জিমি কার্টারের সঙ্গে প্রেসিডেন্ট জিয়ার আলোচনা।

১৯৮৪
====

১৯৯১
====
উপনির্বাচনে প্রার্থী হওয়ায় ভূমিপ্রতিমন্ত্রী জমিরউদ্দীন সরকারের পদত্যাগ।

১৯৯২
====
ঢাকায় বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যকার পানিবন্টন সংক্রান্ত মন্ত্রীপর্যায়ের বৈঠকে যৌথ বিশেষজ্ঞ কমিঠি গঠনের সিদ্ধান্ত।

১৯৯৩
====
গণফোরামের মহাসন্মেলন।

১৯৯৮
====
১। বন্যার কারণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জোট নিরপেক্ষ আন্দোলনের শীর্ষ সন্মেলনে যোগদানের জন্য দক্ষিণ আফ্রিকা সফর বাতিল।
- - - - - - -
২। মাগুরা জেলা প্রশাসকের দাবি মাগুরা জেলা এখন নিরক্ষরমুক্ত।

১৯৯৯
====
১। বাংলাদেশ ব্যাংকের হস্তক্ষেপ, ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক তালাবদ্ধ। দখলদার আখতারুজ্জামান বাবুসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে মামলা।
- - - - - - -
২। সিলেট ছাত্রলীগ-ছাত্রদল সংঘর্ষে নিহত ১, আহত ১৫।
- - - - - - -
৩। দ্বিতীয় বঙ্গবন্ধু কাপ আন্তর্জাতিক ফুটবল টুর্নামেন্টের উদ্বোধন।

২০০১
====
১। ২৯৩ আসনে আ. লীগের প্রার্থী ঘোষণা। শেখ হাসিনা ৫টি এবং অপর ৮জন একাধিক আসনে প্রার্থী।
- - - - - - -
২। ১৭৫ আসনে প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করেছে ১১ দল।
- - - - - - -
৩। জাতীয় পার্টির (মি-ম) চেয়ারম্যান মিজান চৌধুরী ও সাবেক এমপি ফজলে রাব্বির আ. লীগে যোগদান।
- - - - - - -
৪। জা.বি.-তে ধর্ষণ প্রতিরোধের দাবিতে ছাত্রলীগ-ছাত্রদল সংঘর্ষ।
- - - - - - -
৫। আ. লীগের সাবেক এমপি ধীরেন্দ্রনাথ সাহার বিএনপিতে যোগদান।

২০০২
====
১। 'বর্তমান মজুদ গ্যাস রপ্তানি সম্ভব নয়।'— প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে গ্যাস মজুদ ও ব্যবহার সংক্রান্ত কমিটির রিপোর্ট পেশ।
- - - - - - -
২। ধর্মঘট চলাকালে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদের মিছিলে শিবিরের হামলায় ১৪ ছাত্রীসহ আহত অনেক।
- - - - - - -
৩। সিলেটে ছাত্রদলের দুই দলে বন্দুকযুদ্ধ।
- - - - - - -
৪। ডেঙ্গু মোকাবেলায় কয়েকটি হাসপাতালে সেনা মোতায়েন।

২০০৩
====
১। খুলনায় আ. লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট মঞ্জুরুল ইসলাম হত্যার প্রতিবাদে নজিরবিহীন সর্বাত্মক হরতালে খুলনা অচল।
- - - - - - -
২। পৃথক পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১২, আহত ৭৩।
- - - - - - -
৩। অতিরিক্ত ও যুগ্নসচিব পদে ১৪৬ জনের পদোন্নতি।

২০০৫
====
১। হাইকোর্ট বিভাগে নিয়োগপ্রাপ্ত পাঁচ বিচারপতির শপথগ্রহণ।
- - - - - - -
২। সিটি গ্রুপকে নিয়মবহির্ভূত ১৭২৭ কোটি টাকা ঋণ প্রদান।
- - - - - - -
৩। চাঁদাবাজির অভিযোগে এসআইস হ ৫ জনের যাবজ্জীবন। বারান্দায় রায় শুনে পালিয়ে গেল দুই আসামী।

২০০৬
====
১। এশিয়া এনার্জি অফিস ঘেরাওকালে পুলিশ-বিডিআরের গুলিতে ৬ জন নিহত হওয়ার ঘটনায় ফুলবাড়িতে সকাল-সন্ধ্যা হরতাল বিডিআরের ব্যাপক লাঠিচার্জের মধ্য দিয়ে সর্বাত্মকভাবে পালিত হয়েছে।
- - - - - - - -
২। বিএনপির নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি বিচার বিভাগের পৃথকীকরণ বাস্তবায়িত হলো না। সরকারের আবেদনে ব্যাপারটি ১০ নভেম্বর পর্যন্ত মুলতবি।

২০০৭
====
১। ঘুষ নেয়ার দায়ে নাজমুল হুদার ৭ ও স্ত্রী সিগমার ৩ বছর জেল


ঘুষ গ্রহণের অভিযোগে সাবেক বিএনপি সরকারের যোগাযোগ মন্ত্রী ব্যারিস্টার নাজমুল হুদাকে ৭ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করা হয়েছে। একইসঙ্গে এই ঘুষ গ্রহণে সহযোগিতার অপরাধে অপর আসামী তার স্ত্রী এডভোকেট সিগমা হুদাকে ৩ বছরের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করা হয়। এছাড়া নাজমুল হুদাকে আড়াই কোটি টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরো ১ বছরের কারাদণ্ড এবং ঘুষের ২ কোটি ৪০ লাখ টাকা সরকারের পক্ষে বাজেয়াপ্ত করার নির্দেশ প্রদান করা হয়। গতকাল সোমবার বিশেষ জজ আদালত-২ এর বিচারক অমর কুমার রায়ের আদালত এ রায় প্রদান করেন।
- - - - - - - -
২। আয়কর ফাঁকি ও সম্পদের তথ্য গোপনের জন্য শাহজাহান সিরাজের স্ত্রী রাবেয়া হায়দারকে ৪টি পৃথক মামলায় ৩২ বছর জেল।
- - - - - - - -
৩। দশ বছর পরে পার্বত্য শান্তি চুক্তির বৈধতা নিয়ে হাইকোর্টের রুল।

২০০৮
====
১। ঢাকায় চারদলের মানববন্ধনে পুলিশের বাধা


ঢাকায় চারদলের মানববন্ধনে পুলিশের বাধা, ধাওয়া পাল্টা-ধাওয়া, ২ সেপ্টেম্বর প্রতিবাদ সমাবেশের কর্মসূচী।
- - - - - - - -
২। পাঁচ মামলায় তারেক রহমানের জামিন, একই বেঞ্চে আরো ১২ রাজনীতিকের জামিন ও একাধিক মামলার কার্যক্রম স্থগিত
পৃথক ৫টি দুর্নীতির মামলায় সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার বড় ছেলে ও বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব তারেক রহমান হাইকোর্ট থেকে অন্তর্বর্তীকালীন জামিন পেয়েছেন। এছাড়া হাইকোর্টের একই বেঞ্চ ১৮টি দুর্নীতির মামলায় ১২ রাজনীতিবিদের জামিন মঞ্জুর করে। একইসঙ্গে আদালত তাদের মামলার কার্যক্রম স্থগিত করে দেয়। গতকাল বুধবার বিচারপতি শরীফউদ্দিন চাকলাদার ও বিচারপতি মোঃ ইমদাদুল হক আজাদের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এই আদেশ প্রদান করেন। এছাড়া আদালত এইসব দুর্নীতির মামলায় সাবেক মন্ত্রী, সংসদ সদস্য ও রাজনীতিবিদকে কেন স্থায়ী জামিন এবং তাদের মামলার কার্যক্রম অবৈধ ও বাতিল ঘোষণা করা হবে না তা জানতে চেয়ে সরকার ও দুদকের প্রতি রুল জারি করেছে। আগামী ৬ সপ্তাহের মধ্যে সংশ্লিষ্টদের কারণ দর্শানোর নির্দেশ দিয়েছে আদালত।
গতকাল বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব তারেক রহমান ৫টি, সাবেক সংসদ সদস্য সালাহউদ্দিন আহমেদ ৫টি এবং সিলেটের মেয়র বদরুদ্দিন আহমেদ কামরান ২টি মামলায় জামিন পেয়েছেন।

২০১০
====
১। খালেদা জিয়ার ভাগনে ডিউক চার দিনের রিমান্ডে


২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলায় বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার ভাগনে সাইফুল ইসলাম ডিউককে চার দিনের রিমান্ডে নিয়েছে সিআইডি।
ডিউককে সিআইডি দপ্তরে ডেকে নিয়ে বুধবার বেলা তিনটা থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত জিজ্ঞাসাবাদের পর গ্রেপ্তার করা হয়। সিআইডি গতকাল বৃহস্পতিবার ডিউককে ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিমের আদালতে হাজির করে সাত দিনের রিমান্ডের আবেদন করে। আদালত তাঁর জামিন আবেদন নাকচ এবং চার দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।
রিমান্ড আবেদনে মামলার অধিকতর তদন্ত কর্মকর্তা আবদুল কাহার আকন্দ উল্লেখ করেন, সাইফুল ইসলাম ডিউক এ মামলার অন্যতম আসামি মাওলানা তাজউদ্দিনকে বিদেশে পালিয়ে যেতে সহায়তা করেছেন। এ ছাড়া মামলার অভিযোগপত্রভুক্ত পলাতক আসামিদের সঙ্গে ডিউকের যোগাযোগ রয়েছে। তাই ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট হামলায় ব্যবহূত গ্রেনেড সরবরাহকারী ও মদদদাতা সম্পর্কে আরও তথ্য এবং অপরাপর সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের নাম-ঠিকানা উদ্ধারের জন্য ডিউককে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ জরুরি। ডিউকের রিমান্ড বাতিল এবং জামিন চেয়ে আদালতে আবেদন করেন তাঁর আইনজীবী মাসুদ আহমেদ তালুকদার ও সানাউল্লাহ মিয়া। তাঁরা বলেন, রাজনৈতিকভাবে হেয় করার জন্য এ মামলায় ডিউককে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে।
খালেদা জিয়া প্রধানমন্ত্রী থাকাকালে (২০০১-০৬) তাঁর একান্ত সচিব ছিলেন ডিউক। তাঁকে এর আগে গত মঙ্গলবার সিআইডি কার্যালয়ে ডেকে নিয়ে এক দফা জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। পরদিন বুধবার আবার সিআইডি কার্যালয়ে ডাকা হয়। তিনি বেলা তিনটায় সিআইডি কার্যালয়ে যান। এরপর তাঁকে আর ছাড়া হয়নি।
- - - - - - - -
২। গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার জন্য সপ্তম সংশোধনী হয়েছিল: মওদুদ
বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেছেন, ‘গণতন্ত্র সুপ্রতিষ্ঠার জন্যই সপ্তম সংশোধনী আনা হয়েছিল।’ আজ শুক্রবার গুলশানে নিজ বাড়িতে সপ্তম সংশোধনী বাতিলের প্রতিক্রিয়া জানাতে তিনি সাংবাদিকদের এ কথা বলেন। মওদুদ আহমদ আরও বলেছেন, পঞ্চম সংশোধনী অবৈধ ঘোষণা হওয়ার পর যে সপ্তম সংশোধনী বাতিল হবে, এটা স্বাভাবিক ও যৌক্তিক। এখন সরকারের জন্য এ রায় বাস্তবায়ন করাটাই বড় ধরনের একটা চ্যালেঞ্জ হবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি। প্রসঙ্গত, হাইকোর্ট গতকাল বৃহস্পতিবার সপ্তম সংশোধনী বাতিল করে এরশাদের সামরিক শাসনকে অবৈধ ও সংবিধান পরিপন্থী বলে রায় দিয়েছেন।
- - - - - - - -
৩। 'অন্যায় হলে সমালোচনা করুন, মিথ্যা অপপ্রচার গ্রহণযোগ্য নয়।'
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সমালোচকদের উদ্দেশে বলেছেন, সরকারের অন্যায় হলে বা সরকার সঠিক কাজ না করলে সমালোচনা করুন। কিন্তু মিথ্যা অপপ্রচার গ্রহণযোগ্য নয়। এমনভাবে সমালোচনা করতে হবে যাতে গণতন্ত্র ও গণতান্ত্রিক অধিকার সুরক্ষিত থাকে। আজ শুক্রবার রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবে সাংবাদিকদের দেওয়া ইফতার পার্টিতে যোগ দিয়ে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘অপরাধী দল বা দলের বাইরে যে-ই হোক না কেন, আমরা ব্যবস্থা নিচ্ছি। বিগত সময় অনেক সাংবাদিককে হত্যা করা হয়েছে। এসব হত্যাকাণ্ডের তদন্ত বা বিচার হয়নি।’ তাঁর সরকার এগুলো খতিয়ে দেখবেন বলে আশ্বাস দেন।

২০১১
====
১। ঢাকায় মরদেহ নিয়ে বিক্ষোভ, দাফন গ্রামে


ঢাকা ও বগুড়ার শেরপুরে চার দফায় জানাজা শেষে আজ শনিবার রাতে নিজ গ্রামে আইনজীবী এম ইউ আহমেদকে দাফন করা হয়েছে।
এর আগে সকালে বারডেমের হিমঘর থেকে এম ইউ আহমেদের মরদেহ ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে নিয়ে ময়নাতদন্ত করায় পুলিশ।
এদিকে পরিবারকে না জানিয়ে লাশের ময়নাতদন্ত করার প্রতিবাদে বিএনপি-সমর্থক আইনজীবীরা বিক্ষোভ করেন। এম ইউ আহমেদের স্ত্রী সেলিনা আহমেদ প্রথম আলোকে বলেন, ময়নাতদন্ত না করে লাশ দাফনের জন্য তিনি আবেদন করেন। তিনি পুলিশের অনুমতি নিয়ে স্বামীর লাশ শুক্রবার বারডেমের হিমঘরে রাখেন। গতকাল সকাল ১০টায় তিনি বারডেমে গিয়ে শোনেন, লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। তাঁর অভিযোগ, ‘লাশ চুরি করে পুলিশ ময়নাতদন্ত করেছে।’ শেরেবাংলা নগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দ জিয়াউজ্জামান প্রথম আলোকে বলেন, এম ইউ আহমেদের পরিবার ময়নাতদন্ত না করার জন্য আবেদন করলেও উদ্ভূত পরিস্থিতিতে তদন্তের স্বার্থে ময়নাতদন্ত করা হয়।
প্রথম জানাজা শেষে কফিনসহ শোক মিছিল নিয়ে শতাধিক আইনজীবী হেয়ার রোডে প্রধান বিচারপতির বাসভবনের মূল ফটকে যান। সেখানে এম ইউ আহমেদের লাশ নিয়ে প্রায় ১৫ মিনিট অবস্থান করেন তাঁরা। এ সময় খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেন, ‘আমরা প্রধান বিচারপতির বাসার সামনে অবস্থান কর্মসূচি করছি। সুপ্রিম কোর্টের কতিপয় বিচারপতি শপথের বাইরে গিয়ে রাগ-বিরাগের বশবর্তী হয়ে কাজ করছেন। আমরা জামিন চেয়েছিলাম, কিন্তু আদালত জামিন দেননি। জামিন দেওয়া হলে এম ইউ আহমেদের পুলিশের নির্যাতনে মৃত্যু হতো না।’
প্রসঙ্গত, হাইকোর্টে হট্টগোলের ঘটনায় পুলিশের করা মামলায় গত ১১ আগস্ট গ্রেপ্তার হন বিএনপি-সমর্থক আইনজীবী এম ইউ আহমেদ। এরপর তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। তিনি চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত শুক্রবার রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে মারা যান। তাঁর স্ত্রী ও বিএনপির অভিযোগ, গ্রেপ্তারের পর পুলিশের নির্যাতনের কারণে এম ইউ আহমেদ গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন। এ কারণেই তিনি মারা গেছেন।
- - - - - - - -
২। সীমান্তে বিএসএফ আর গুলি চালাবে না: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
বাংলাদেশ ও ভারতের আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্য গতিশীল করার লক্ষ্যে ভারতের পেট্রাপোলে আন্তর্জাতিকমানের সমন্বিত চেক পোস্টের (তল্লাশি চৌকি) ভিত্তিপ্রস্তর কাজ উদ্বোধন করা হয়। আজ শনিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে এটি উদ্বোধন করেন ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পি চিদাম্বরম। এ সময় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাহারা খাতুন সেখানে উপস্থিত ছিলেন। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাহারা খাতুন বলেছেন, পেট্রাপোলে আন্তর্জাতিক মানের চেক পোস্ট হলে দুই দেশের ব্যবসা-বাণিজ্য আরও গতিশীল হবে। দুই দেশের পারস্পরিক সম্পর্কেরও উন্নতি হবে। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সীমান্ত এলাকায় ভারতের সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিএসএফ) আর কোনো গুলি চালাবে না।
আজ শনিবার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের পক্ষে বক্তব্য দেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাহারা খাতুন। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

২০১২
====
১। ‘পরিস্থিতির কারণে অসত্য সাক্ষ্য দিতে বাধ্য হই’


পরিস্থিতির কারণে ২০০৬ সালে আদালতে অসত্য সাক্ষ্য দিয়েছিলেন ১০ ট্রাক অস্ত্র আটক ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী ও ১০ ট্রাক অস্ত্র মামলার সাক্ষী সার্জেন্ট হেলাল উদ্দিন। আজ সোমবার চট্টগ্রামের বিশেষ ট্রাইব্যুনাল-১-এর বিচারক এস এম মজিবুর রহমানের আদালতে আসামিপক্ষের জেরার জবাবে তিনি এ কথা বলেন।
আইনজীবী মাহমুদুর রহমানের প্রশ্নের জবাবে হেলাল উদ্দিন বলেন, ‘২০০৬ সালের ২২ ও ২৩ মে ডাণ্ডাবেড়ি পরিয়ে আমাকে অসত্য সাক্ষী দিতে বাধ্য করা হয়। পরিস্থিতির কারণে সে সময় অসত্য সাক্ষ্য দিয়েছি।’ এরপর আইনজীবীর প্রশ্নের জবাবে সার্জেন্ট হেলাল বলেন, ‘কার নির্দেশে অসত্য সাক্ষ্য দিয়েছিলাম, তা মনে নেই। মূল সাক্ষ্যের প্রায় ছয় বছর পর এখন পুনঃতলবে এবার সত্য সাক্ষ্য দিচ্ছি।’ এর আগে আইনজীবী মাহমুদুর রহমান জানতে চান, ‘২০০৬ সালে আদালতে শপথ নিয়ে সাক্ষ্য দিয়েছিলেন কি না?’ এর জবাবে হেলাল উদ্দিন বলেন, ‘শপথ পড়তে বলেছিল, পড়েছিলাম।’
উল্লেখ্য, ২০০৪ সালে ১ এপ্রিল রাতে চট্টগ্রামের সিইউএফএল জেটিঘাটে অস্ত্র আটকের সময় সার্জেন্ট হেলাল উদ্দিন সংলগ্ন কয়লার ডিপো পুলিশ ফাঁড়িতে কর্মরত ছিলেন। ওই রাতে জেটিঘাটে অস্ত্র খালাসের ঘটনা প্রত্যক্ষ করেছিলেন সার্জেন্ট হেলাল উদ্দিন ও অপর সার্জেন্ট আলাউদ্দিন।
১০ ট্রাক অস্ত্র চালান থেকে দুটি একে-৪৭ বিক্রি করে দেওয়ার অভিযোগে সার্জেন্ট হেলাল ও সার্জেন্ট আলাউদ্দিনকে ২০০৫ সালে গ্রেপ্তার করে র্যাব। এ ঘটনায় নোয়াখালীর সুধারাম থানায় তাঁদের বিরুদ্ধে একটি মামলাও হয়েছিল। পরে ২০০৭ সালের ১৩ নভেম্বর ওই মামলায় জামিন পান সার্জেন্ট হেলাল। সুধারাম থানার মামলায় গ্রেপ্তার থাকা অবস্থায় আদালতে প্রথমবার সাক্ষ্য দেন সার্জেন্ট হেলাল। এর আগে দুপুর ১২টার দিকে কড়া নিরাপত্তার মধ্যে সাবেক শিল্পমন্ত্রী মতিউর রহমান নিজামী, সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুত্ফুজ্জামান বাবরসহ ১১ আসামিকে আদালতে হাজির করা হয়।
- - - - - - - -
২। পদ্মা সেতুর অর্থায়নে মালয়েশিয়ার চূড়ান্ত প্রস্তাব
পদ্মা সেতু প্রকল্পে অর্থায়ন সংক্রান্ত চূড়ান্ত প্রস্তাব দিয়েছে মালয়েশিয়া। আজ সোমবার বিকেলে সেতু ভবনে যোগাযোগমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের হাতে এই প্রস্তাবের অনুলিপি তুলে দেন মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত সামি ভেলু। এর আগে পদ্মা সেতুসংক্রান্ত মালয়েশিয়ার আট সদস্যের একটি প্রতিনিধিদল যোগাযোগমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে বৈঠক করে। বৈঠক শেষে ওবায়দুল কাদের ব্রিফিংয়ে বলেন, ‘এটি চূড়ান্ত প্রস্তাবের খসড়া অনুলিপি। এটি কাটছাঁট হতে পারে। এই প্রস্তাবে পদ্মা সেতুর আর্থিক, নির্মাণসংক্রান্ত ও নকশা-সম্পর্কীয় বিষয়াদি আছে। মালয়েশিয়ার প্রস্তাবটি অধ্যাপক জামিলুর রেজা চৌধুরীর নেতৃত্বে গঠিত কারিগরি কমিটি পরীক্ষা-নিরীক্ষা করবে। এরপর চূড়ান্ত চুক্তির বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী সিদ্ধান্ত দেবেন।’
- - - - - - - -
৩। লিমনের ওপর হামলার সত্যতা পেয়েছে পুলিশ


র‌্যারেব গুলিতে পা হারানো ঝালকাঠির লিমন, তার মা ও ভাইয়ের ওপর ঈদের দিন র‌্যারেব সোর্স হিসেবে পরিচিত ইব্রাহিম হাওলাদারের হামলার অভিযোগ সঠিক বলে প্রমাণ পেয়েছে পুলিশ। ওই ঘটনায় লিমনের মায়ের করা সাধারণ ডায়েরির (জিডি) তদন্ত শেষে রাজাপুর থানার উপপরিদর্শক বাদল ফকির আজ সোমবার প্রতিবেদন জমা দিয়েছেন। ইব্রাহিমের বিরুদ্ধে দণ্ডবিধির ৩২৩ ও ৫০৬(২) ধারায় প্রাথমিকভাবে অপরাধ প্রমাণিত হয়েছে। প্রতিবেদনে আসামি ইব্রাহিমের প্রতি সমন অথবা গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির আবেদন করা হয়।

২০১৩
====
১। বিশ্বে প্রথম জিংকসমৃদ্ধ ধানের জাত অবমুক্ত করল বাংলাদেশ
বিশ্বে এবারই প্রথম জিংকসমৃদ্ধ একটি ধানের জাত অবমুক্ত করেছে বাংলাদেশ। বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউটের (ব্রি) বিজ্ঞানীদের উদ্ভাবিত বিরি-৬২ নামের এই জাতসহ মোট আটটি নতুন ধানের জাত অবমুক্ত করেছে জাতীয় বীজ বোর্ড। জাতীয় বীজ বোর্ডের অবমুক্ত করা জাতগুলোর মধ্যে রয়েছে ব্রির বিজ্ঞানীদের উদ্ভাবিত বিরি-৫৯, ৬০, ৬১ ও ৬২ নামের চারটি এবং বাংলাদেশ আণবিক কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটের (বিনা) উদ্ভাবিত বিনা-১১, ১২, ১৩ ও ১৪ নামের চারটি ধানের জাত। দেশি-৮ ও তোষা-৬ নামের পাটের দুটি জাতও গতকাল অবমুক্ত করে বীজ বোর্ড। ধান ও পাটের এসব জাতই উচ্চফলনশীল বা উফশী জাত।
দেশি ধানের সঙ্গে পরাগায়নের মাধ্যমে জিংকসমৃদ্ধ বিরি-৬২ নামের জাতটি উদ্ভাবনে সহায়তা করেছে আন্তর্জাতিক ধান গবেষণা ইনস্টিটিউট (ইরি), যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক গবেষণা সংস্থা হারভেস্ট প্লাস ও আন্তর্জাতিক উদরাময় গবেষণা কেন্দ্র, বাংলাদেশ (আইসিডিডিআরবি)। অন্যান্য ধানের জাতের মধ্যে সাধারণত প্রতি কেজিতে সর্বোচ্চ ১০ মিলিগ্রাম জিংক ফরটিফায়েড ও ৬ শতাংশ প্রোটিন থাকে। বিরি-৬২ ধানের প্রতি কেজিতে ১৯ মিলিগ্রাম জিংক ও ৯ শতাংশ প্রোটিন রয়েছে। এই জাতের চাল খেলে মানুষের শরীরে আয়রন ও প্রোটিনের চাহিদা অনেকাংশে মিটবে বলে আশা করছেন ব্রির বিজ্ঞানীরা। এই ধানের চাল খেলে শরীরে রোগপ্রতিরোধের ক্ষমতাও বাড়বে।
- - - - - - - -
২। আদিবাসীদের ওপর হামলা ভূমি দখলের উদ্দেশ্যে
পাহাড়ের উর্বর জমি দখল করার উদ্দেশ্যেই পরিকল্পিতভাবে বারবার হামলার ঘটনা ঘটেছে বলে মনে করছে আদিবাসীরা। খাগড়াছড়ির মাটিরাঙ্গা উপজেলার সীমান্তবর্তী তাইন্দং এলাকায় ৩ আগস্ট আদিবাসীদের ওপর হামলার ঘটনা ছিল ওই পরিকল্পনারই অংশ। ওই এলাকা সরেজমিন পরিদর্শন করে স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলার পর নাগরিক সমাজের একটি প্রতিনিধিদল পার্বত্য চট্টগ্রামে ভূমি আইন প্রণয়ন ও তা বাস্তবায়নের জোর দাবি জানিয়েছে।
অপহরণের গুজব ছড়িয়ে ৩ আগস্ট তাইন্দং এলাকার ১৩টি আদিবাসী পাড়ায় পাহাড়িদের ওপর হামলা চালানো হয়। এ কারণে ৯০২টি আদিবাসী পরিবার সাময়িক বাস্তুহারা হয়, যাদের মধ্যে ৪৫৬ পরিবার ভারতের সীমান্ত এলাকায় আশ্রয় নিয়েছিল। পার্বত্য চট্টগ্রামবিষয়ক প্রতিমন্ত্রীর হস্তক্ষেপে তারা আবার নিজ ভিটেবাড়িতে ফিরে এসেছে। স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সদস্য ফনী ভূষণ চাকমা ক্ষোভের সঙ্গে বলেন, ‘তাইন্দংয়ে আমরা ছিলাম সংখ্যাগরিষ্ঠ। এখন আমাদের সদস্যসংখ্যা প্রায় পাঁচ হাজার। কিন্তু বাঙালিরা ধীরে ধীরে বসতি স্থাপন করায় ওরা আমাদের তিন-চার গুণ বেশি হয়ে গেছে। ওরা গুজব ছড়িয়ে আমাদের এখান থেকে উচ্ছেদের চেষ্টা করছে।’ স্থানীয় বাসিন্দা প্রদীপ চাকমা বলেন, ‘আমাদের জমিগুলো তিন ফসলি। সার ছাড়াই কম পরিচর্যায় ভালো ফসল হয়। আমাদের জমিগুলোর দিকেই তাদের লোলুপ দৃষ্টি পড়েছে।’ তাইন্দং মৌজার হেডম্যান প্রভাত চন্দ্র রোয়াজা বলেন, তাইন্দং এলাকার অধিকাংশ কৃষিকাজের উপযোগী জমি পাহাড়িদের ছিল। এখন তা বাঙালিদের দখলে। তালুকদারপাড়ার বাসিন্দা শ্যামল কান্তি চাকমা বলেন, ‘কাগজপত্রে অনেক জমির মালিকানা পাহাড়িদের। সেই জমি পাহাড়িরা ভোগ করতে পারছে না। বেদখল হয়ে আছে।’ সর্বেশ্বরপাড়ার কার্বারি তনয় শশী চাকমা বলেন, ‘বাঙালিরা বেছে বেছে সচ্ছল আদিবাসীদের ঘরবাড়ি পুড়িয়ে দিয়েছে। সচ্ছল পাহাড়িদের আর্থিকভাবে দুর্বল করেই বেকায়দায় ফেলে কৃষিজমি দখল করাই তাদের উদ্দেশ্য।’ সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে, পাহাড়ি জমিতে ধানের বিপুল ফলন হয়েছে।

২০১৪
====
১। চ্যানেল আইয়ের অনুষ্ঠান উপস্থাপক ফারুকী খুন


চ্যানেল আইয়ের অনুষ্ঠান উপস্থাপক মাওলানা নুরুল ইসলাম ফারুকীকে গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে, আজ বুধবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে অজ্ঞাত পাঁচ যুবক রাজধানীর ১৭৪ পূর্ব রাজাবাজারে ফারুকীর বাসায় যান। এক পর্যায়ে পরিবারের সদস্যদের অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ফারুকীকে গলা কেটে হত্যা করে তারা। শেরেবাংলা নগর থানার এসআই মনিরুজ্জামান জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে লাশ উদ্ধার করা হয়। ফারুকীকে হত্যার প্রতিবাদে চট্টগ্রামে বিক্ষোভ ও গাড়ি ভাংচুর করেছে সুন্নীপন্থী মাদ্রাসার শিক্ষার্থীরা। চ্যানেল আইয়ের ‘শান্তির পথে’ ও ‘কাফেলা’ নামের দুটি ধর্মীয় অনুষ্ঠান উপস্থাপন করতেন ফারুকী।
- - - - - -
২। রংপুর ও বরিশালে গরিব বেশি
দেশের রংপুর ও বরিশালে দারিদ্র্র্যের প্রকোপ বেশী এবং তুলনামূলক কম দরিদ্র রয়েছে চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগে। দেশের দারিদ্র্য পরিস্থিতি বিশ্লেষণ করে তৈরী করা ‘পভার্টি ম্যাপ’ বা দারিদ্র মানচিত্রে এ তথ্য উঠে এসেছে।
বিশ্বব্যাংক, বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো (বিবিএস) এবং জাতিসংঘের বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচির (ডব্লিউএফপি) যৌথ উদ্যোগে বুধবার এ প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়েছে। সর্বশেষ আদমশুমারী ২০১১ এবং খানার আয় ব্যয় নির্ধারণ জরিপ ২০১০ এর তথ্য উপাত্ত বিশ্লেষণ করে এ প্রতিবেদটি তৈরী করা হয়েছে।
২০১০ সালের জরিপের তথ্যানুযায়ী, দেশের ৩২ শতাংশ মানুষ দারিদ্র্য সীমার নিচে বাস করছে। সে সময়ে বিভাগ ভিত্তিক দারিদ্র্যের চিত্র থাকলেও এবার জেলা ও উপজেলা ভিত্তিক দারিদ্র্যের চিত্র উঠে এসেছে। দারিদ্র মানচিত্র প্রতিবেদনে দেখা যায়, জেলা ভিত্তিতে সবচেয়ে বেশি গরিব মানুষ রয়েছে কুড়িগ্রাম জেলায়। এ জেলায় দারিদ্র্যের হার ৬৩.৭ শতাংশ। সবচেয়ে কম গরিব রয়েছে কুষ্টিয়া জেলায়, মাত্র ৩.৬ শতাংশ।
দারিদ্র্য মানচিত্রের প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, বরিশাল বাদে বাংলাদেশের উত্তর ও দক্ষিণাঞ্চলের জেলাগুলোতে দারিদ্র্য মানুষের হার তুলনামূলক বেশি এবং এ অঞ্চলে প্রাথমিক স্কুল শেষ করা শিশুদের সংখ্যাও তুলনামূলক কম। একই সাথে যে অঞ্চলে প্রাকৃতিক দুর্যোগপ্রবণ সে অঞ্চলের দারিদ্র্যের হারও বেশি উল্লেখ করা হয়েছে।
- - - - - -
৩। পদের চেয়ে চিকিত্সক বেশি হওয়ায় ওএসডি: স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়
৩৩তম বিএসএস পরীক্ষায় উত্তীর্ণ চিকিত্সকদের মধ্য থেকে শূন্য পদের চেয়ে বেশি চিকিত্সক নিয়োগ দেওয়ায় অনেককে ওএসডি হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। আজ বুধবার স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তি দিয়ে এ তথ্য জানানো হয়।
স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় বলছে, সুনির্দিষ্ট নীতিমালা মেনে ৬ হাজার ২৯ জন চিকিত্সকের পদায়ন হয়েছে। শূন্য পদের চেয়ে চিকিত্সকের সংখ্যা বেশি হয়েছে। বেতন-ভাতা উত্তোলনের সুবিধার জন্য অতিরিক্ত চিকিত্সকদের ওএসডি হিসেবে বিভিন্ন উপজেলায় সংযুক্তিতে পদায়ন করা হয়েছে। দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে চিকিত্সক-সংকট দূর করার জন্য এই আদেশ জারি করা হয় বলে মন্ত্রণালয়ের দাবি।
- - - - - -
৪। ওরিয়েন্টাল ব্যাংকের ৬ কর্মকর্তার ৭ বছরের দণ্ড
অর্থ আত্মসাত্ মামলায় ওরিয়েন্টাল ব্যাংকের (বর্তমানে আইসিবি ইসলামিক ব্যাংক) সাবেক ছয় কর্মকর্তাকে সাত বছর করে সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- ওরিয়েন্টাল ব্যাংকের সাবেক সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট শাহ মোহাম্মদ হারুন, সিনিয়র অ্যাসিসট্যান্ট ভা?ইস প্রেসিডেন্ট আবুল কাশেম মোহাম্মদ উল্লাহ, সহকারী ভাইস প্রেসিডেন্ট ফজলুর রহমান, মাহমুদ হোসেন, নির্বাহী ভাইস প্রেসিডেন্ট কামরুল হোসেন ও উপ-ব্যবস্থাপক ইমামুল হক। দুর্নীতি প্রতিরোধ আইন ১৯৪৭ সালের ৫(২) ধারায় আসামিদেরকে দোষী সাব্যস্ত করে এই দণ্ড দেয়া হয়। এছাড়া মামলার অপর আসামি ঋণ গ্রহীতা বকর হোসেনকে দণ্ডবিধির ৪০৯/১০৯ ধারার অভিযোগে দশ বছরের দণ্ড দিয়েছে আদালত। একইসঙ্গে সাত আসামির প্রত্যেককে ১৪ লাখ ২৮ হাজার ৫৭২ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।
- - - - - - -
৫। ফতোয়া চলছেই


গ্রাম্য সালিশে ফতোয়ার নির্মম শিকার হয়ে দুঃস্বপ্নের জীবন পার করছেন নওগাঁর রানীনগরের গৃহবধূ হাওয়া বিবি। শরীরে ১০১টি দোররার আঘাত কিছুটা শুকিয়ে গেলেও আতঙ্ক আর মনের রক্তক্ষরণ আজও থামেনি। গত ২৬ জুলাই ভাগ্নের সঙ্গে মোবাইল ফোনে কথোপকথনের জের ধরে 'অনৈতিক সম্পর্কের' মিথ্যা অভিযোগ তুলে গ্রামের মাতবররা এই গৃহবধূর বাড়িতে গিয়ে সালিশের নামে জোর করে তওবা পড়িয়ে হাত বেঁধে ১০১টি দোররা মারে এবং ১০ বার হাত-নাকে খত দেওয়ায়। দোররার আঘাতে আহত হলেও হাওয়া বিবিকে চিকিৎসা নিতে বাড়ি থেকে বের হতে দেওয়া হয়নি।
আইনত নিষিদ্ধ হলেও এভাবেই গ্রামগঞ্জে আইনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে ফতোয়া চলছে। দেশের আনাচে-কানাচে আজও ঘটে চলেছে ফতোয়ার নামে দোররা মারা, পাথর মারার মতো মধ্যযুগীয় পাশবিক কায়দায় নারী নির্যাতন। সালিশের রায়ে দোররার আঘাতে নির্মমভাবে জীবন দিতে হচ্ছে অনেককে। কেউ বা মিথ্যা গ্গ্নানির যন্ত্রণা বুকে নিয়ে দুর্বিষহ জীবন কাটাচ্ছেন। মানবতা লঙ্ঘন করে ধর্মের অপব্যাখ্যা দিয়ে একশ্রেণীর স্বার্থান্বেষী এই মধ্যযুগীয় পাশবিক বিচার চালিয়ে যাচ্ছে বলে মনে করছেন নারীনেত্রী, সমাজকর্মী ও মানবাধিকারের কর্মীরা।
স্থানীয় মাতবরদের হাতে সালিশের নামে ফতোয়াবাজির শিকার হয়ে নির্যাতিত হচ্ছেন নারীরা। অথচ হাইকোর্টের রায়ে ফতোয়াকে 'অবৈধ' ও ফতোয়াদানকারীকে 'অপরাধী' বলে উল্লেখ করা হয়েছে। কেউ ফতোয়া দিলে তা ফৌজদারি কার্যবিধির ১৯০ ধারা অনুযায়ী শাস্তিযোগ্য অপরাধ হবে।
- - - - - - -
৬। র‌্যাব-পুলিশ ছাড়া আসুন দেখা যাবে কার কত ক্ষমতা
এই সরকারের কোন জনভিত্তি নেই। পুলিশ-র্যাব-বিজিবি দিয়ে জোর করে ক্ষমতায় বসে আছে। তিনি জনগণকে সঙ্গে নিয়ে ঐক্যবদ্ধ প্রতিরোধ আন্দোলনের মাধ্যমে নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন দিতে বাধ্য করা হবে বলে জানান।
বুধবার রাজধানীতে বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের এক সমাবেশে তিনি বলেন, বিচার ব্যবস্থার কফিনে শেষ পেরেক ঢুকিয়ে দিতেই আওয়ামী লীগ সরকার বিচারপতিদের অভিশংসন ক্ষমতা নিজ হাতে নেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছে। কিন্তু এর অশুভ পরিনতি তাদেরকে ভোগ করতে হবে। ফখরুল বলেন, জিয়াউর রহমান, খালেদা জিয়াকে খুনি এবং তারেক রহমানকে কুলাঙ্গার বললে এদেশের মানুষ বসে বসে তামাশা দেখবে না। মানুষ রুখে দাঁড়াবে। ইট মারলে পাটকেল খেতে হবে।
- - - - - - -
৭। নারায়ণগঞ্জে ৭ খুন: হত্যাকাণ্ডে র‌্যাবেরই ২২ সদস্য জড়িত
নারায়ণগঞ্জের সাত খুনের ঘটনায় র‌্যাব-১১-এর সাবেক অধিনায়ক লে. কর্নেল তারেক সাঈদ, মেজর আরিফ হোসেন, লে. কমান্ডার এমএম রানাসহ ২২ জন র‌্যাব সদস্য হত্যা প্রক্রিয়ার সঙ্গে জড়িত। এ ছাড়া হত্যাকাণ্ডের আগে-পরে গোপন নম্বর থেকে তারেক সাঈদ বিভিন্ন নির্দেশনা দিয়ে নারায়ণগঞ্জ র‌্যাবের দুই কর্মকর্তা আরিফ ও রানাকে একাধিক ক্ষুদেবার্তা পাঠান। ওই বার্তায় হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে তাদের যোগসাজশের বিষয়টি স্পষ্ট হয়। এমনকি হত্যাকাণ্ডের অন্যতম পরিকল্পনাকারী সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামী লীগ নেতা নূর হোসেনের সঙ্গেও ওই গোপন নম্বর থেকে তারেক সাঈদের কথা হয়েছে। র‌্যাবের লিখিত প্রতিবেদনে এসব ক্ষুদেবার্তা ও ফোনালাপের রেকর্ড তুলে ধরা হয়েছে।

২০১৫
====
১। পাপিয়ার তিন দিন রিমান্ড মঞ্জুর


নাশকতার পৃথক তিন মামলায় বিএনপির জাতীয় নিবার্হী কমিটির সদস্য অ্যাডভোকেট সৈয়দা আসিফা আশরাফী পাপিয়ার তিন দিন রিমান্ড মঞ্জুর করা হয়েছে।
বৃহস্পতিবার ঢাকা মহানগর হাকিম শাহরিয়ার মাহমুদ আদনান জামিন আবেদন নাকচ করে প্রত্যেক মামলায় এক দিন করে ৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।
পল্টন থানার ২টি এবং মতিঝিল থানার একটি করে মোট তিন মামলায় ১০ দিন করে ৩০ দিনের রিমান্ড আবেদনের শুনানি হয়। এ সময় তার রিমান্ড বাতিল করে জামিন চাওয়া হয়।
এর আগে হাইকোর্টের জামিনের মেয়াদ শেষে গত ১৬ জুন রাজধানীর পল্টন, মিরপুর ও লালবাগ থানার মোট ৯টি মামলায় সাবেক এ সংসদ সদস্য ঢাকা সিএমএম আদালতে আত্মসমর্পণ করলে তার জামিনের আবেদন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানো হয়। এরপর থেকেই সে কারাগারে আছেন। চলতি বছরের শুরুতে হরতাল-অবরোধ চলাকালে নাশকতার অভিযোগে মামলাগুলো দায়ের করে পুলিশ।
- - - - - -
২। গ্যাস ও বিদ্যুতের দাম বাড়ল
আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানির দাম কমার পরও গ্রাহক পর্যায়ে গ্যাস ও বিদ্যুতে দাম বাড়ানো হয়েছে। বিদ্যুতের দাম গ্রাহক পর্যায়ে গড়ে ২ দশমিক ৯৭ শতাংশ এবং গ্যাসের দাম গড়ে ২৬ দশমিক ২৯ শতাংশ বাড়ানো হয়েছে। সার ও বিদ্যুৎ উৎপাদন ছাড়া সব ক্ষেত্রে গ্যাসের দাম বেড়েছে।
আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে রাজধানীর কাওরান বাজারে এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি) কার্যালয়ে এ ঘোষণা দেন কমিশনের চেয়ারম্যান এআর খান। এ মূল্যবৃদ্ধি আগামী ১ সেপ্টেম্বর থেকে কার্যকর হবে। বর্ধিত মূল্য অনুসারে দুই চুলার গ্যাসের মূল্য হবে ৬৫০ টাকা এবং এক চুলায় হবে ৬০০ টাকা। যা আগে ছিল যথাক্রমে ৪৫০ ও ৪০০ টাকা। গৃহস্থালিতে মিটারভিত্তিক গ্যাসের বিল প্রতি ঘনমিটার ৫ টাকা ১৬ পয়সা থেকে বাড়িয়ে ৭ টাকা করা হয়েছে। এদিকে সিএনজির প্রতি ইউনিটে (ঘনমিটার) দাম বেড়েছে ৫ টাকা। সে হিসাবে, প্রতি ইউনিটের দাম হবে ৩৫ টাকা।
অপরদিকে বিদ্যুতের মূল্য লাইফ লাইন ক্রেডিটের (নিম্ন আয়ের মানুষদের জন্য) ক্ষেত্রে বাড়েনি (শহরে বিল ইউনিট প্রতি ৩ টাকা ৩৩ পয়সা এবং গ্রামে ৩ টাকা ৩৬ পয়সা)। গ্রাহক পর্যায়ে ১-৭৫ ইউনিটের জন্য নতুন মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ৩ টাকা ৮০ পয়সা; ৭৩-২০০ ইউনিটে বেড়ে ৫ টাকা ১৪ পয়সা, আগে ছিল ৫ টাকা ১ পয়সা; ২০১-৩০০ ইউনিটে ৫ টাকা ৩৬ পয়সা, আগে ছিল ৫ টাকা ১৯ পয়সা; ৩০১-৪০০ ইউনিটের মূল্য আগে ছিল ৫ টাকা ৪২ পয়সা, এখন হবে ৫ টাকা ৬৩ পয়সা; ৪০১-৬০০ ইউনিটের জন্য ৮ টাকা ৫১ পয়সা থেকে বেড়ে ৮ টাকা ৭০ পয়সা; ৬০০ ইউনিটের উপরে ৯ টাকা ৯৩ পয়সা থেকে বাড়িয়ে ৯ টাকা ৯৮ পয়সা করা হয়েছে।
- - - - - -
৪। কাজী জাফর আহমেদ মারা গেছেন


জাতীয় পার্টির একাংশের চেয়ারম্যান ও প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী কাজী জাফর আহমেদ মারা গেছেন। (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। তার বয়স হয়েছিল ৭৬।
আজ বৃহস্পতিবার সকাল ৭টায় তিনি হঠাৎ অসুস্থ হন। পরে রাজধানীর গুলশানের ইউনাইটেড হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। কাজী জাফর কিডনির রোগ, ডায়বেটিস ও হৃদরোগসহ বিভিন্ন শারীরিক সমস্যায় ভুগছিলেন। কাজী জাফর ২০ দলীয় জোটের শীর্ষ নেতা ছিলেন। এরশাদ সরকারের সময়ে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী হয়েছিলেন তিনি।
১৯৬৯ এর গণ অভ্যুত্থানে মাওলানা ভাসানীর নেতৃত্বাধীন ন্যাশনাল আওয়ামি পার্টির (ন্যাপ) সদস্য হিসেবে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন তিনি। তিনি টঙ্গী অঞ্চলের একজন প্রভাবশালী শ্রমিক নেতা ছিলেন। মুক্তিযুদ্ধে সক্রিয় অংশগ্রহণ করেন কাজী জাফর। জিয়াউর রহমানের সময় ইউনাইটেড পিপল্‌স পার্টি নামক রাজনৈতিক দল গঠন করেন এবং জাতীয়তাবাদী ফ্রন্টে যোগ দেন। তিনি কুমিল্লা -১২ (চৌদ্দগ্রাম) নির্বাচনী এলাকা থেকে বেশ কয়েকবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।
- - - - - -
৫। বার কাউন্সিলের নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ সমর্থিত সমন্বয় পরিষদ
বার কাউন্সিল নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত সম্মিলিত আইনজীবী সমন্বয় পরিষদ জয় পেয়েছে। তারা সাতটি সাধারণ আসনের মধ্যে চারটিতে এবং আঞ্চলিক সাতটি আসনের মধ্যে ছয়টিতে বিজয়ী হয়েছেন। ফলে আগামী তিন বছর বার কাউন্সিলের নেতৃত্ব দেবে সম্মিলিত আইনজীবী সমন্বয় পরিষদ। বৃহস্পতিবার নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা দেয়া হয়। এছাড়া বিএনপি সমর্থিত জাতীয়তাবাদী ঐক্য প্যানেলে তিনজন প্রার্থী সাধারণ আসনে ও একজন প্রার্থী আঞ্চলিক আসনে বিজয়ী হয়েছেন।
সাধারণ আসনে সমন্বয় পরিষদের বিজয়ী প্রার্থীরা হলেন- ব্যারিস্টার এম আমিরুল ইসলাম ( ১৪ হাজার ১৮১ ভোট), ব্যারিস্টার আবদুল বাসেত মজুমদার (১৫ হাজার ২৩৫ ভোট), আবদুল মতিন খসরু (১৪ হাজার ৩৯৭ ভোট) ও জেড আই খান পান্না (১৩ হাজার ১৯০ ভোট)।
ঐক্য প্যানেল থেকে খন্দকার মাহবুব হোসেন (১৪ হাজার ৩৫৪ ভোট) , এ জে মোহম্মদ আলী (১৩ হাজার ২০১ ভোট) ও এম মাহবুব উদ্দিন খোকন ( ১৫ হাজার ৩৮ ভোট ) বিজয়ী হয়েছেন।
- - - - - -
৬। শিল্পখাতে বিদ্যুৎ সংযোগ উন্মুক্ত
অর্থনীতির গতি বাড়াতে শিল্পখাতে নতুন বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়ার ওপর থেকে কড়াকড়ি তুলে নিয়েছে সরকার। শিল্পে বিদ্যুৎ সংযোগের যেসব আবেদন রয়েছে তা আগামী ডিসেম্বরের মধ্যে দেওয়া হবে। আজ বৃহস্পতিবার বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। এতে জানানো হয়, বিদ্যুৎ উৎপাদনের 'সক্ষমতা বাড়ায়' সরকার শিল্পসহ সব খাতে বিদ্যুৎ সংযোগ 'উন্মুক্ত ও সহজতর' করার এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে। উৎপাদনে বিপুল পরিমাণ ঘাটতির কারণে ২০১০ সালের নভেম্বরে শিল্পখাতে নতুন বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়া সীমিত করার নির্দেশনা দেওয়া হয়।

২০১৬
====
১। নারায়ণগঞ্জে জঙ্গি আস্তানায় অভিযানে তামিমসহ নিহত ৩


নারায়ণগঞ্জের পাইকপাড়ায় কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের অভিযানে রাজধানীর গুলশানে হলি আর্টিজান ও কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়ায় হামলার ‘মাস্টারমাইন্ড’ কানাডা প্রবাসী তামিম চৌধুরী ও তার দুই সহযোগী নিহত হয়েছেন। আজ শনিবার সকালে নারায়ণগঞ্জের পাইকপাড়া কবরস্থানের পাশের একটি তিনতলা ভবনে ‘অপারেশন হিট স্ট্রং-২৭’ নামে এ অভিযান চালানো হয়। অভিযান শেষে ওই আস্তানা থেকে একটি একে-২২ রাইফেল, পিস্তল ও তিনটি তাজা গ্রেনেড উদ্ধার করা হয়। দুপুর ১২টার দিকে কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম অভিযানের সমাপ্তি ঘোষণা করে বলেন, ‘নিউ জেএমবির প্রধান তামিম চৌধুরীসহ তিনজন নিহত হয়েছে। এই সময় জঙ্গিদের আত্মসর্মপণের আহ্বান জানালেও তারা তা না শুনে আল্লাহু আকবার ধ্বনি দিয়ে পুলিশের ওপর হামলায়। এ সময় পুলিশ পাল্টা গুলি ছোড়ে।’ এদিকে অপারেশনের জড়িত অন্য একটি সূত্র জানায় কল্যাণপুরের ঘটনায় গ্রেফতারকৃত রিগানকে নিহতদের ছবি দেখালে তিনি অপর দুইজনের পরিচয় নিশ্চিত করেন। এরা হলেন মানিক (৩৫) ও ইকবাল(২৫) ।
শনিবার ভোরে কাউন্টার টেরোরিজম ও সোয়াতের বিশাল বাহিনী মনিরুল ইসলামের নেতৃত্বে এলাকায় প্রবেশ করে বাড়িটি ঘেরাও করে ফেলে। এই সময় বাড়ির সামনে ও আশে পাশের রাস্তা বন্ধ করে দেয়া হয়। এ সময় ওই এলাকার মোবাইল নেটওয়ার্ক বন্ধ করে দেয়া হয়। পরে পুলিশ জঙ্গিদের আত্মসর্মপণের আহ্বান জানায়। জঙ্গিরা পুলিশের আহ্বানে সাড়া না দিয়ে গ্রেনেড ছুড়ে মারে। এক পর্যায়ে ঘর থেকে ধোয়া বের হতে দেখে সকাল ৯টার দিকে কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের অপারেশন হিট স্ট্রং-২৭ এর সদস্যরা পাল্টা গুলি ছুড়ে। পরে জঙ্গিদের সঙ্গে দুই ঘণ্টা গুলি বিনিময় শেষে সাড়ে ১০টার দিকে তামিমসহ তিনজন নিহত হন। অভিযানে নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশও যোগ দেয়।
- - - - - - -
২। অস্ত্র-হাতবোমাসহ জঙ্গি সংগঠনের চার সদস্য গ্রেফতার
ফরিদপুরে আগ্নেয়াস্ত্র, হাতবোমা ও বোমা তৈরির সরঞ্জাম এবং জিহাদি বইপুস্তকসহ আনসারউল্লাহ বাংলা টিমের চার সদস্যকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
শুক্রবার গভীর রাত থেকে শনিবার সকাল পর্যন্ত ফরিদপুরের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় তাদের কাছ থেকে তিনটি পিস্তল, ১০ রাউন্ড গুলি, ২২টি হাতবোমা, বিভিন্ন ইলেকট্রনিক সার্কিট, বিভিন্ন বই পুস্তক, একটি ল্যাপটপ ও আধুনিক প্রযুক্তি সম্পন্ন চশমা উদ্ধার করা হয়।
- - - - - - -
৩। মারা গেছেন অলিম্পিকে স্বর্ণজয়ী মার্গারিটার বাবা
মারা গেছেন অলিম্পিকে স্বর্ণজয়ী বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত রাশিয়ান জিমন্যাস্ট মার্গারিটা মামুনের বাবা। বাংলাদেশ সময় শুক্রবার বিকাল ৫টায় রাশিয়ার মস্কোতে মার্গারিটার বাবা আব্দুল্লাহ আল মামুনের মৃত্যু হয়। আবদুল্লাহ আল মামুনের বাড়ি রাজশাহীতে। তিনি মস্কো প্রবাসী একজন মেরিন ইঞ্জিনিয়ার ছিলেন। মার্গারিটার মা আনা রাশিয়ান নাগরিক ও সাবেক জিমন্যাস্ট। মার্গারিটা জুনিয়র লেভেলে কিছুদিন বাংলাদেশের হয়ে খেলেছেন। কিন্তু সিনিয়র লেভেলে তিনি অংশ নেন রাশিয়ার হয়ে। রিও অলিম্পিকে রাশিয়ার অ্যাথলেট হিসেবে অংশ নিয়ে রিদমিক জিমন্যাস্টিকস-উইমেন'স ইনডিভিজুয়াল অল-অ্যারাউন্ড ইভেন্টে সোনা জয় করে ছিলেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত রাশিয়ান নাগরিক মার্গারিটা মামুন। বর্তমানে এই ইভেন্টের বিশ্ব র‍্যাঙ্কিংয়ে এক নম্বরে আছেন মার্গারিটা।
- - - - - - -
৪। রামপাল বিদ্যুৎকেন্দ্রে সুন্দরবনের ক্ষতি হবে না: প্রধানমন্ত্রী
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, রামপালে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র নিয়ে ভিত্তিহীন, কাল্পনিক মনোভাব ছড়িয়ে দেয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে। বিএনপি চেয়ারপরসন সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে প্রকাশ্যে এটা করছেন। রামপাল বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনের বিরোধীরা বলছেন, এই বিদ্যুৎ হলে সুন্দরবন ধ্বংস হয়ে যাবে। আমি তথ্য প্রমাণের মাধ্যমে দেখাবো কয়লাবিদ্যুৎকেন্দ্রের জন্য সুন্দরবনের কোনো ক্ষতি হবে না। আজ শনিবার বিকাল ৪টায় গণভবনে সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন।
- - - - - - -
৫। বঙ্গবন্ধুকে ছোট করার জন্যই জিয়াকে স্বাধীনতা পুরস্কার দেয়া হয়: নাসিম
স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে ছোট করার জন্যই তাঁর সাথে জিয়াউর রহমানকে মরণোত্তর স্বাধীনতার পদক দিয়েছিল বিএনপি-জামায়াত জোট সরকার। আজ শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক গোষ্ঠী আয়োজিত আলোচনা সভা ও স্বরচিত কবিতা পাঠ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।
মোহাম্মদ নাসিম বলেন, স্বাধীনতার পরে বঙ্গবন্ধু নিজে তাঁর সরকারের সময়ে স্বাধীনতা যুদ্ধে অবদানের জন্য জিয়াকে বীরউত্তম উপাধী দিয়েছিলেন। তাহলে বলেন বঙ্গবন্ধু কি ভাবে তার অবদানকে অস্বীকার করলেন। কিন্তু আপনারা (বিএনপি) কি করলেন? বঙ্গবন্ধুর সাথে জিয়াকে এক কাতারে নিয়ে এলেন। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু যে জিয়াকে পুরস্কার দিলেন সেই জিয়া পরবর্তীতে তাঁর সাথে বেঈমানী করলেন। বঙ্গবন্ধুর খুনিদের জিয়া তার সরকারের সময়ে আশ্রয়-প্রশ্রয় দিলেন। বিভিন্ন দূতাবাসে চাকরির সুযোগ করে দিয়েছিলেন।
- - - - - - -
৬। 'হতদরিদ্রদের ১০ টাকা কেজি দরে চাল'
খাদ্যমন্ত্রী এড. কামরুল ইসলাম বলেছেন, 'খাদ্য মন্ত্রণায়ের অধীনে বিশেষ রেশন কার্ডে হতদরিদ্র পরিবারকে প্রতি মাসে ১০ টাকা কেজি দরে ৩০ কেজি চাল দেওয়া হবে।' প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে আগামী মাস (সেপ্টেম্বর) থেকে বছরে ৫ মাস এ চাল বিতরণ করা হবে বলে জানিয়ে খাদ্যমন্ত্রী বলেন, 'ইতোমধ্যে কেরানীগঞ্জসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে ডিলার নিয়োগ দেয়া হয়েছে।' শনিবার সকালে কেরানীগঞ্জের লাকিরচর আশ্রয়ণ প্রকল্প পরিদর্শন ও নদীভাঙ্গন কবলিতদের মাঝে নগদ অর্থ সহায়তা প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা জানান।

২০১৭
====
১। অভিনেত্রী আনোয়ারাকে প্রধানমন্ত্রীর ৩০ লাখ টাকা অনুদান


চলচ্চিত্র অভিনেত্রী আনোয়ারা বেগমকে ৩০ লাখ টাকা অনুদান দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা । রবিবার বিকেলে গণভবনে অভিনেত্রী আনোয়ারার কাছে এই চেক হস্তান্তর করেন শেখ হাসিনা । এই সময় আনোয়ারার সঙ্গে ছিলেন তার মেয়ে রুমানা ইসলাম মুক্তি। কিছুদিন আগে অভিনেত্রী আনোয়ারাকে নিয়ে পত্রিকায় প্রকাশিত একটি সংবাদ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নজরে আসে । সংবাদটিতে বলা হয় , তিনি সাহায্য চান না,স্বামীর চিকিৎসার জন্য পাওনা টাকা ফেরত চান । আর এই পাওনা টাকার জন্যই দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন তিনি। এই সংক্রান্ত সংবাদটি দেখার পর শেখ হাসিনা তাঁর ব্যক্তিগত সহকারীকে নির্দেশ দেন অভিনেত্রী আনোয়ারার সঙ্গে যোগাযোগ করার জন্য । এরপর আজ রবিবার বিশিষ্ট এই শিল্পীর হাতে অনুদানের চেক তুলে দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
- - - - - - -
২। শেখ হাসিনাকে হত্যাচেষ্টা : ১০ জঙ্গির ডেথ রেফারেন্স হাইকোর্টে
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যাচেষ্টার মামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত ১০ জঙ্গির ডেথ রেফারেন্সের (মৃত্যুদণ্ড নিশ্চিতকরন) নথি হাইকোর্টে এসে পৌঁছেছে। ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-২ থেকে এই নথি সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার কার্যালয়ে এসে পৌঁছায়। পরে সেখান থেকে নথি হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় প্রেরণ করা হয়। ডেথ রেফারেন্সের নথিতে হত্যাচেষ্টা মামলার রায়, কেস ডকেটসহ গুরুত্বপূর্ণ নথিপত্র সংযুক্ত রয়েছে।
গত ২০ আগস্ট ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-২ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যাচেষ্টা মামলায় নিষিদ্ধ ঘোষিত সংগঠন হরকাতুল জিহাদের (হুজি) ১০ জঙ্গিকে গুলি করে মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের আদেশ দেয়। এ ছাড়া একজনকে যাবজ্জীবন ও তিনজনকে ১৪ বছর করে দণ্ড দেয় আদালত। একই ঘটনায় বিস্ফোরক দ্রব্য আইনের মামলায় আদালত নয় জঙ্গিকে ২০ বছর করেও দণ্ড দিয়েছে।
- - - - - - -
৩। সকল শিল্প প্রতিষ্ঠানকে কেন্দ্রীয় কল্যাণ তহবিলের আওতায় নিয়ে আসবে সরকার : প্রধানমন্ত্রী
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, কর্মক্ষেত্রে নিহত এবং আহত শ্রমিক পরিবারের সদস্যদের সহযোগিতার জন্য সকল প্রস্তুতকারক এবং রপ্তানিকারক শিল্প প্রতিষ্ঠানকে শ্রম এবং কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের কেন্দ্রীয় কল্যাণ তহবিলের আওতায় আনা হবে। শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমরা ইতোমধ্যেই সকল গার্মেন্টস শিল্প প্রতিষ্ঠানকে শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের কেন্দ্রীয় তহবিলের আওতায় আনার জন্য বাণিজ্য মন্ত্রণালয়কে নির্দেশ দিয়েছি।’ প্রধানমন্ত্রী আজ তাঁর কার্যালয়ে কর্মক্ষেত্রে নিহত ও পঙ্গু শ্রমিকদের পরিবারের সদসদ্যদের মাঝে তৈরি পোশাক শিল্পের তহবিল থেকে ক্ষতিপূরণের চেক প্রদান কালে একথা বলেন।
- - - - - - -
৪। শিল্পী আব্দুল জব্বারের অবস্থা সংকটাপন্ন
শিল্পী আব্দুল জব্বারের অবস্থা সংকটাপন্ন। মুক্তিযুদ্ধের গান গেয়ে তিনি বাংলাদেশের আপামর মানুষের কণ্ঠস্বরে পরিণত হয়েছেন। আব্দুল জব্বারকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটে রাখা হয়েছে। শয্যাপাশে রয়েছেন তার স্ত্রী। আব্দুল জব্বারের স্ত্রী গীতিকার হালিমা জব্বার টেলিফোনে ইত্তেফাককে জানান, অবস্থা বদলায়নি। গতকাল শনিবার দুপুরের পর থেকে তার শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটেছে বলে জানিয়েছেন চিকিত্সকরা। হাসপাতালের আইসিইউ বিভাগের প্রধান অধ্যাপক দেবব্রত বণিক জানান, তার শরীরের বিভিন্ন অঙ্গ খুব দ্রুত অকার্যকর হয়ে পড়ছে। শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটছে।
- - - - - - -
৫। 'পানির মধ্যে বহু গুলি খাওয়া লাশ ভাসতে দেখেছি'
হামলা-সহিংসতার মধ্যে মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্য থেকে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গারা দেশটির সেনাবাহিনীর তাণ্ডবের বর্ণনা দিয়েছেন। তারা জানিয়েছেন, সেখানকার সীমান্তবর্তী গ্রামগুলোয় রাতের আঁধারে কালো আর মিলিটারির পোশাক পরা ব্যক্তিরা নির্বিচারে গুলি চালিয়েছে। পুরুষদের ধরে নিয়ে হত্যা করা হচ্ছে। রেহাই পাচ্ছে না নারীরাও। তাদের ওপর বর্বর নির্যাতন করা হচ্ছে। গত বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে রাখাইন রাজ্যে হামলা-সহিংসতা শুরুর পর শত শত রোহিঙ্গা নারী-পুরুষ পালিয়ে বাংলাদেশের দিকে আসতে থাকে। পালিয়ে আসা রোহিঙ্গা অনেকেই সীমান্ত এলাকায় বসে আছে। কেউ কেউ বাংলাদেশের আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর চোখ ফাঁকি দিয়ে ভেতরে ঢুকতে পেরেছে।

২০১৮
====

সূচীপত্র:→ বাংলাদেশ: ফিরে দেখা

________________
তথ্য ও ছবিসূত্র:
দৈনিক ইত্তেফাক, দৈনিক প্রথম আলো, দৈনিক সমকাল, দৈনিক যুগান্তর এবং অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ সংবাদ মাধ্যম।
বাংলাদেশের তারিখ : বিচারপতি মুহাম্মদ হাবিবুর রহমান।
বাংলাদেশের ইতিহাস সংক্রান্ত বিভিন্ন বই-পুস্তক ও পত্রপত্রিকা।
ইন্টারনেট, উইকিপিডিয়া, বাংলাপিডিয়া।

মন্তব্য ৭ টি রেটিং +১/-০

মন্তব্য (৭) মন্তব্য লিখুন

১| ২৭ শে আগস্ট, ২০১৮ দুপুর ২:৩৯

রাকু হাসান বলেছেন: বেশ কয়েকদিন পর পড়লাম ভাইয়া । কেমন আছেন ? প্রথম দিকে মনে করছিলাম ,তেমন খারাপ সংবাদ পাচ্ছি না আজকের । কিন্তু শেষ দিকে এসে পুষিয়ে দিয়েছে ।

২৭ শে আগস্ট, ২০১৮ বিকাল ৩:৪৯

জোবাইর বলেছেন: ওয়েলকাম ব্যাক! আশা করি ঈদের ছুটি ভালো কেটেছে এবং সব কিছু ভালো, আমিও ভালি আছি। ধন্যবাদ।
বাংলাদেশের ইতিহাসে এমন কোনো দিন নেই যে খারাপ সংবাদ নেই :( ।! সুতরাং প্রতিদিনের ইতিহাস পড়ার আগেই সেরকম একটা মানসিক প্রস্তুতি থাকা ভালো :)

২| ২৭ শে আগস্ট, ২০১৮ বিকাল ৪:৩১

রাজীব নুর বলেছেন: ভালো কিছু নাই। সব খারাপ খবর।
ভালো ভালো অতীতের ঘটনা নিয়ে পোষ্ট দেন।

৩| ৩০ শে আগস্ট, ২০১৮ রাত ৩:৩৩

রাকু হাসান বলেছেন: তিন দিন নেই আপনি । মানে পোস্ট নেই । কোন কারণে ব্যস্ত কি ! ভাল আছেন তো ?ব্যস্ততা বা অসুস্থতা যাই আাবার ফিরে আসুন । খুব ভাল একটি কাজ করে যাচ্ছেন ।

৪| ৩১ শে আগস্ট, ২০১৮ রাত ১০:০৯

পাঠকের প্রতিক্রিয়া ! বলেছেন: জোবাইর ভাই!
মন্তব্য না করলেও আপনার পোস্টের নিয়মিত পাঠক আমি। কয়েকদিন কোন পোস্ট পাচ্ছি না।
সব ঠিক আছে তো??

৫| ০৩ রা সেপ্টেম্বর, ২০১৮ রাত ৩:০৪

রাকু হাসান বলেছেন:

জানি না হঠাৎ কেন এমন ,যদি কোন বিপদে থাকেন,দোয়া করছি ভাল কিছু হবার জন্য । ফিরে আসুন

৬| ০৬ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৪:৫১

জোবাইর বলেছেন:

সিরিজ আপাততঃ বন্ধ!
==============
২৭ দিন নিয়মিত প্রকাশিত এই সিরিজের গড়ে ইউনিক ভিজিটর পরিসংখ্যান:

প্রতি পোস্টে গড়ে মোট ইউনিক ভিজিটর ৪০ জন :-* !
- - - - - -
সিরিয়াস ও নিয়মিত ইউনিক ভিজিটর ৪ জন, যারা পোস্টগুলো নিয়মিত ও সম্পূর্ণ পড়ে।
- - - - - -
৫ - ৮ মিনিটের ভিজিটর ১২ জন, যারা এক নজরে হয়তো ছবি ও হেড লাইনগুলো দেখে।
- - - - - -
১ - ৫ মিনিটের ভিজিটর ১৩ জন, যারা এক নজরে হয়তো ছবিগুলো দেখে!
- - - - - -
০ - ১ মিনিটের ভিজিটর ১৫ জন, উদ্দেশ্যবিহীন এলোমেলো ভাবনার ভিজিটর!

পাঠক স্বল্পতার কারণে সিরিজটি আপাততঃ বন্ধ করে দেওয়া হলো :( । পরবর্তীতে অন্য বিষয় নিয়ে যথারীতি পোস্ট দেওয়া হবে। সেইসাথে এই সিরিজের নিয়মিত ও অনিয়মিত সকল ভিজিটরদের প্রতি রইলো শুভেচ্ছা ও শুভকামনা।
_________
বি: দ্র: এই সিরিজের একটি সংক্ষিপ্ত ভার্সন সাধারণ জ্ঞান ব্লগে নিয়মিত প্রকাশ হয়। উৎসাহী পাঠকের জন্য লিংকটি এখানে দেওয়া হলো:
ইতিহাসে এই দিনে

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.