নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

আসল নাম নাহিদ হোসেন, একাউন্ট খুলতে গিয়ে কিভাবে যে নাম টা এরকম বিদঘুটে একটা বানান ধারন করলো তা মনে নাই। তবে এখন আর নতুন করে একাউন্ট খুলতে ইচ্ছে করছে না।

নাহিদ০৯

ভালোবাসি বাংলা

নাহিদ০৯ › বিস্তারিত পোস্টঃ

ভোটের সময় অংক কি মিথ্যে হয়ে যায়?

১০ ই মার্চ, ২০১৯ দুপুর ২:৪৮

ছোটকাল থেকেই বিশ্বাস করে এসেছি পৃথিবীতে যা কিছু ঘটে তা অংক মেনেই চলে। সব কিছু মিথ্যা হলেও অংক কখনো মিথ্যা হয়না। যারা অন্ততঃ বিজ্ঞানমনস্ক হিসেবে বড় হয়েছি, জাফর ইকবাল কে পড়ে পড়ে বড় হয়েছি তারা এই অংক সত্য কে বিশ্বাস করেই বড় হয়েছি।



কিন্তু ভোট আসলে কেন জানি অংক টংক আর কাজ করে না। অংকের ভেতরে ভুত ঢুকে পড়ে। সমীকরণ মেলে না। এমনকি বড় বড় গণিতবিদরাও সাধারন অংকে ভুল করে বসে।

আজ দুপুরের খবর প্রথম আলোতে দেখলাম একটা কেন্দ্রে মাত্র ৪ টা ভোট পড়েছে। এরাই হয়তো সেই কেন্দ্রের ফলাফল হিসেবে ১০-১৫ হাজার ভোট এর কথা ফলাও করে প্রচার করবে সন্ধ্যা বেলায়। সিটি নির্বাচনেও দেখলাম দুপুর পর্যন্ত ৪-৫ টা ভোট, বিকেলেই সেটা দম বিশ হাজারে ঠেকেছে।

কিন্তু নূন্যতম অংকেও কি এরকম কিছু মেলে? একটা ভোট দিতে যে সময় লাগবে সে পরিমান সময় ও দরকার এরকম সংখ্যায় ভোট আসতে। অথচ অনলাইন মিডিয়া থেকে শুরু করে মেইনস্ট্রিম মিডিয়া পর্যন্ত এই সংখ্যার গড়মিল বিনা দ্বিধায় প্রচার করে।

আমার এলাকায় ২০১৪ সালের ভোটের একটা সংখ্যা গত পরিসংখ্যান তুলে ধরেছিলাম। আমার বাড়ির পাশের কেন্দ্র হওয়ায় আমার দেখা ছিলো সারাদিন ই। ভোটের সংখ্যা, কেন্দ্র এর বুথ এর সাথে সময় এর গুন করে দেখিয়ে দিয়েছিলাম যে এত পরিমান ভোট কাস্ট হতে যে পরিমান সময় এবং লাইন এ ভীড় দরকার তা কখনোই বাস্তব না। এর পরে সেই পোস্ট এর দরুন ৩ জন কল করে সরিয়ে নেওয়ার জন্য বলেছিলো।

এরকম গানিতিক কোন পরিসংখ্যান কি কোন মিডিয়াই কি প্রকাশ করতে পারে না? দুপুরের ভোট কম, বিকেলেই সারাদিনের সমান ভোট পড়া কি করে সম্ভব সেটা কি অংক করে দেখা খুবই কঠিন কিছু?

মন্তব্য ৫ টি রেটিং +০/-০

মন্তব্য (৫) মন্তব্য লিখুন

১| ১০ ই মার্চ, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:৩৯

মাহমুদুর রহমান বলেছেন: এক মিডিয়া কর্মী বলেছিলেন,
কোন এক আসনে ভোটারের থেকে ভোটের সংখ্যা বেশী পড়েছে।
এর কিছুক্ষনের মাথায় তাকে আটক করা হয় ভুয়া তথ্য প্রচারের কারনে।

১০ ই মার্চ, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৪৬

নাহিদ০৯ বলেছেন: সব মিথ্যা কথা। :P অপপ্রচার এবং প্রপাগান্ডা। এরকম কোন ঘটনা ঘটে থাকলে নির্বাচন কমিশন অবশ্যই জানতো এবং ভোট স্থগিত করতো। ব্লা ব্লা ব্লা। :-P

দ্যা ডিকটেটর মুভি তে জেনারেল আলাদিন কে প্রশ্ন করা হলো যে আপনার দেশে মানবাধিকার ক্ষুন্ন হয়েছে। আলাদিন বলে, ‘আমি মানবাধিকার সংস্থা এর চেয়ারম্যান। এরকম কোন অভিযোগ আমার কাছে আসেনি।’

২| ১০ ই মার্চ, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৫০

মাহমুদুর রহমান বলেছেন: লেখক বলেছেন: সব মিথ্যা কথা। :P অপপ্রচার এবং প্রপাগান্ডা। এরকম কোন ঘটনা ঘটে থাকলে নির্বাচন কমিশন অবশ্যই জানতো এবং ভোট স্থগিত করতো। ব্লা ব্লা ব্লা। :-P

দ্যা ডিকটেটর মুভি তে জেনারেল আলাদিন কে প্রশ্ন করা হলো যে আপনার দেশে মানবাধিকার ক্ষুন্ন হয়েছে। আলাদিন বলে, ‘আমি মানবাধিকার সংস্থা এর চেয়ারম্যান। এরকম কোন অভিযোগ আমার কাছে আসেনি।’


হা হা হা।

১০ ই মার্চ, ২০১৯ রাত ৮:০৩

নাহিদ০৯ বলেছেন: আপনি কি ডিকটেটর মুভি টা দেখেছেন? ওখানে ভোট এর সিস্টেম চালু করতো দ্যা আলাদিন। তিনি ভোটারদের কে ভোট দেওয়ার অপশন দিতেন এরকম

১। আলাদিন
২। আলাদিন

সেসব ভোট দিয়ে নিজেকে নির্বাচিত রাষ্ট্রনায়ক হিসেবে প্রচার করতেন।

আমাদের এখানেও ভোট হচ্ছে অনেকটা এরকম ই। নাটোর এ দেখলাম এমপি সমর্থক আওয়ামিলীগ এবং কমিটি সমর্থিত আওয়ামিলীগ এর মধ্যে লড়াই। কে জিতবে তার থেকেও বড় কথা হলো কাকে ভোট দিবে জনগন সেটাই এখন বড় সংকট। এখানে অপশন ২ টা:

১। আওয়ামিলীগ
২। আওয়মিলীগ


৩| ১০ ই মার্চ, ২০১৯ রাত ৯:২৮

রাজীব নুর বলেছেন: চুপ করে থাকতে হবে। নইলে কারাগারে যেতে হবে।

৪| ১১ ই মার্চ, ২০১৯ বিকাল ৩:২১

আকতার আর হোসাইন বলেছেন: একদম বিয়োগান্তক। আমাদের চুপ থাকতে হবে। নইলে জেলের ভাত খাইতে হবে

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.