নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

লেখালেখি একটা নেশার মত। বিভিন্ন ঘাট পেরিয়ে কর্পোরেট জগতে থিতু হওয়ার পরও তাই লিখে যাই যা মনে আসে তাই। পদ্মার ওপাড়ের মানুষ হওয়ায় জন্মগতভাবেই স্মৃতিকাতর। এ আমার দুর্বলতা নয়, অহংকার

পদ্ম পুকুর

একজন শভেনিস্ট ও স্মৃতিকাতর মানুষ

পদ্ম পুকুর › বিস্তারিত পোস্টঃ

গোপন করা নয়, সংকটকালে তথ্য প্রকাশেই মঙ্গল; প্রমাণিত হবে এই করোনা সংকটেই

১০ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ৮:৫১



উপরের ছবিটি মহামতি আইভি লেডবেটার লি'র; যিনি আইভি লি নামেই বেশি পরিচিত। আইভি লি'কে আধুনিক জনসংযোগের জনক হিসেবে গণ্য করা হয়। বিশ শতকের একেবারে শুরুর দিকে এই ভদ্রলোক সাংবাদিক হিসেবে কর্মজীবন শুরু করলেও দ্রুতই তিনি তাঁর নিজস্ব ট্রাকে চলে আসেন এবং একটা জনসংযোগ প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলেন। শুরুতেই রুজভেল্ট এর বিপক্ষ প্রার্থীর পক্ষে নির্বাচনী জনসংযোগের কাজ পান; ওই আজকের ইন্ডিয়ার ভোটগুরু প্রশান্ত কিশোরের মত। নির্বাচনে তাঁর প্রার্থী পরাজিত হলেও লি মোমেন্টাম পেয়ে যান ভালোমতোই।

এর পরপরই তাঁর প্রতিষ্ঠান জন ডি রকফেলার এর নেতৃত্বাধীন কয়লাখনির মালিকদের সাথে কাজ করেন, ওই সময়ে বিভিন্ন ঘটনা-দূর্ঘটনার কারণে খনিশ্রমিকরা কঠিনভাবে ধর্মঘট পালন করছিলেন। এই খনিমালিকদের সাথে কাজ করার মধ্য দিয়েই আইভি লি’র বিখ্যাত হওয়ার পথ মসৃণ হয়ে ওঠে।

এটা ভূমিকা। আইভি লি'র গুণগান নিয়ে এই পোস্ট না। আমি কথা বলবো উপরের ছবির পাশে লেখা আইভি লি'র একটা মন্তব্য এবং সমকালীন প্রেক্ষাপটে তার প্রাসঙ্গিকতা নিয়ে। বলা হয়, কয়লা খনিমালিকদের সাথে কাজ করার কিছুকাল আগে বেশ কিছু রেল দূর্ঘটনার প্রেক্ষিতে নেতিবাচক ভাবমূর্তির মুখে পড়া আটলান্টিক সিটি রেল কোম্পানির সাথে ড্যামেজ কন্ট্রোলিংয়ের কাজে যুক্ত হন লি। সে সময়ের যুক্তরাষ্ট্রে প্রতিষ্ঠানগুলো সাধারণত প্রেসের মুখোমুখি হওয়া এবং কাউকে কোনো তথ্য প্রদান থেকে বিরত থাকতো। বর্তমানে আমরা যেমনটা করি আর কি! এরকম প্রেক্ষাপটে তিনি কোম্পানিকে প্রেসের কাছে বাস্তব অবস্থা জানিয়ে দেয়ার পরামর্শ দেন এবং পৃথিবীর প্রথম প্রেস রিলিজটি পাঠান। এই প্রেস রিলিজের মাধ্যমেই বিশ্বের জনসংযোগ নতুন মাত্রা নিয়ে নতুন যুগে প্রবেশ করে।

আইভি লি'র মন্ত্রই ছিলো ‘অন্য কারও কাছ থেকে ভুল বার্তা পাওয়ার আগেই আপনি সত্যটা জানিয়ে দিন’ এবং এই মন্ত্র নিয়েই তিনি ভবিষ্যতের জনসংযোগের ধারা ঠিক করে দিয়েছিলেন। তিনি আরও বলতেন ‘আগে বা পরে মানুষ সত্যটা জানবেই, তাই আগেই তাদেরকে সত্যটা জানিয়ে দিন’ যেটা উপরের ছবিতেই লেখা আছে।

পাশ্চাত্যে আইভি লি'র এই মন্ত্র মেনে চলার চেষ্টা করলেও আমাদের কাছে ওই মন্ত্র মূল্যহীন। আমরা তা মানার প্রয়োজন বোধ করি না। আমাদের বরং বিপুল আস্থা ১৯২৩ সালে প্রণীত দ্য অফিশিয়াল সিক্রেটস অ্যাক্ট এর উপরে!!! সরকারি চাকুরিতে ঢুকলেই বোধহয় সবার মাথার ভেতরে গেঁথে দেওয়া হয়- ‘শোনো, এই যে কালা কালা আদমী দেখছো, এগুলো তোমাদের প্রজাসম। এদের কাছে সত্য কথা প্রকাশের কোনো দরকার নেই।’ আজকাল অবশ্য বেসরকারি কর্পোরেটগুলোরও একই অবস্থা!

বৃটিশরা এই দেশ থেকে লেজ গুটিয়েছে সোয়া শ’ বছর আগে, কিন্তু দুঃখজনকভাবে আমরা ওই লেজ দোলানোর আবেশে এখনও মজে আছি, লুজার ইংরেজের সব কালাকানুন মেনে চলছি অক্ষরে অক্ষরে। যার একেবারে সাম্প্রতিক উদাহরণ হলেন মিজ মীরজাদি সেব্রিনা ফ্লোরা এবং তাঁর পেছনে থাকা সরকার বাহাদুর।

কোনো সময় প্রেসের সামনে আসেননি, কাজ করেন সম্পূর্ণ একটা টেকনিক্যাল সাইডে, এমন একজন কিভাবে দিনের পর দিন এতগুলো ক্যামেরা/টিভি ক্যামেরার সামনে সাংবাদিকদের চোখা চোখা প্রশ্নগুলো স্মার্টভাবে সামলে যাচ্ছেন তা বিস্ময়ের। ভদ্রমহিলার উপস্থাপনায় আমি সত্যিকারার্থেই মুগ্ধ। প্রথমদিকে প্রায় সব আকাঙ্খিত তথ্য এড়িয়ে গেলেও ইদানিং ফ্লোরা ম্যাডাম আক্রান্ত রোগীদের এলাকার নাম বলতে সম্মত হয়েছেন। আমরাও সে তথ্য পেয়ে বর্তে যাচ্ছি।

আমার এলাকায় সংক্রমণের হার ঢাকার মধ্যে বেশি, কলোনি লকডাউন করা হয়েছে- ফ্লোরা ম্যাডাম মারফত এই খবর পাওয়ার পরই রাতারাতি রাস্তা থেকে এতদিন যাদের পিটিয়ে পুলিশ সরাতে পারেনি সেই পাংখা পোলাপানের গুষ্ঠি উধাও, বিভিন্ন গলির মুখে গলিওয়ালারা নিজ খরচে বাংলা বাঁশ লাগিয়ে নোটিশ ঝুলিয়ে দিয়েছে ‘প্রবেশ নিষেধ’। তবুও কিছু মানুষ আছে রাস্তায়, তবে সেটা নিতান্তই প্রয়োজনে।

সত্য প্রকাশেই মঙ্গল, একজন আমেরিকান আইভি লি সেটা পাশ্চাত্যকে বুঝিয়েছিলেন শতবর্ষ আগে। ওরা বুঝেছিলোও। সে কারণেই আমাদের থেকে ওরা এগিয়ে আছে। হয়তো হলেও হতে পারে যে এই করেনা সংকটে বিধ্বস্ত হয়েই আমরা সেটা বুঝবো এবং নতুন করে এগুতে শুরু করবো। যেহেতু লি'র আমেরিকা এখন আবার তথ্য গোপন শুরু করেছে। বৃত্ত পূর্ণ হচ্ছে।

মন্তব্য ২৪ টি রেটিং +৫/-০

মন্তব্য (২৪) মন্তব্য লিখুন

১| ১০ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ৯:২৫

কাছের-মানুষ বলেছেন: আমাদের দেশের মানুষও সচেতন হচ্ছে তবে আসতে আসতে। এরকম একটি মহামারী যে দেখতে হবে সেটা কেউ চিন্তাও করেনি।

বর্তমানে তথ্য প্রকাশ করছে এতে মানুষের মাঝে আরো সচেতনতা বাড়বে। বর্তমান যুগে যেই তথ্যগুলো জনসাধারনের জানার দরকার সেটাকে প্রকাশ করতেই হবে, লুকোচুরি করলেই বিপদ।

আমি এতদিন শুধু আইভি রহমানকে জানতাম, আপনার কল্যাণে আইভি লি-কে জানলাম, ধন্যবাদ।

১০ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ৯:৩৮

পদ্ম পুকুর বলেছেন: আমি এতদিন শুধু আইভি রহমানকে জানতাম, আপনার কল্যাণে আইভি লি-কে জানলাম, ধন্যবাদ।

নাম কাছাকাছি হলেও জেন্ডার আলাদা। এই ভদ্রলোক একজন লেজেন্ড। তথ্য প্রকাশকে তিনি খুবই গুরুত্ব দিয়েছেন। দুঃখজনক হলো বর্তমানে আমাদের দেশে সকল প্রতিষ্ঠানের জনসংযোগ বিভাগই তথ্য গোপনের পরামর্শ দেয়, যদিও তারা আইভি লি এবং তার ফিলোসফি জানে।

২| ১০ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ১০:২৪

রাজীব নুর বলেছেন: গোপন করা ঠিক হবে না।

এ পর্যন্ত ব্যবহৃত করোনার ওষুধ - ফ্যাভিপিরাভির, রেমডেসিভির, ইন্টারফেরন আলফা টুবি, রিবাভিরিন, ক্লোরোনকুইনিন, লোপিনাভির এবং আরবিডল।
পথে আছে আভিগান।

১৫ ই এপ্রিল, ২০২০ সকাল ১১:০০

পদ্ম পুকুর বলেছেন: এই ওষুধগুেলো কি কার্যকর হয়েছে?

৩| ১০ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ১০:৩৪

ব্লগার_প্রান্ত বলেছেন: রাষ্ট্র জনগণেরই প্রতিচ্ছবি। সকলের কল্যাণ হোক।

১৫ ই এপ্রিল, ২০২০ সকাল ১১:২২

পদ্ম পুকুর বলেছেন: ধন্যবাদ আপনাকে। রাষ্ট্র সবসময় জনগণেরই প্রতিচ্ছবি। সাধারণত জনগণ যে চরিত্র ধারণ করে, সে ধরনের নেতৃত্বই সে পায়।

৪| ১০ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ১০:৪১

মিরোরডডল বলেছেন: ট্রুথ ইজ অলয়েজ বিউটিফুল ।
সত্য প্রকাশের মধ্যে পজিটিভ ছাড়া কোন নেগেটিভ নেই ।

দেশের বর্তমান পরিস্থিতিতে , যদি সত্যিটা প্রকাশ করা হয় , কতজন ভাইরাস ইনফেক্টেড, কোন লোকেশনে কে বা কারা , এতে যে কত উপকার হবে সবার জন্য । মানুষ তখন অনেক বেশী সচেতন আর ওয়েল প্রিপেয়ার্ড হতে পারবে ।

১৫ ই এপ্রিল, ২০২০ সকাল ১১:২৪

পদ্ম পুকুর বলেছেন: আমিও সেটাই বলতে চেয়েছি যে দেশের বর্তমান পরিস্থিতিতে , যদি সত্যিটা প্রকাশ করা হয় , কতজন ভাইরাস ইনফেক্টেড, কোন লোকেশনে কে বা কারা, এতে যে কত উপকার হবে সবার জন্য । মানুষ তখন অনেক বেশী সচেতন আর ওয়েল প্রিপেয়ার্ড হতে পারবে । কিন্তু কি এক কারণে যেনো কর্তৃপক্ষ সবসময় তথ্য গোপন করতেই স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করে।

৫| ১০ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ১১:১০

সাইন বোর্ড বলেছেন: সব দেশই কমবেশি তথ্য গোপন করছে, আমারও মনে হয় তথ্য গোপন করা আসলে কোন দেশের জন্যেই ভাল কিছু বয়ে আনেনা ।

১৫ ই এপ্রিল, ২০২০ সকাল ১১:২৪

পদ্ম পুকুর বলেছেন: অথচ এখন তথ্য অধিকার আইনও প্রণয়ন করা হয়েছে এ দেশে।

৬| ১০ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ১১:২৮

ওমেরা বলেছেন: ধারনাকরা হচ্ছে চীন করোনার ব্যাপারে সঠিক চিত্র তুলে ধরত তাহলে সারা বিশ্বের অবস্থা এতটা খারাপ হত না।

১৫ ই এপ্রিল, ২০২০ সকাল ১১:২৬

পদ্ম পুকুর বলেছেন: নিউইয়ক স্ট্যান্ডার্ড বা নিউইয়র্ক টাইমসের রেফারেন্সে একটা লেখা প্রথম আলোয় ছেঁপেছিলো যে করোনায় চীনে ৪৮ হাজারের মত মানুষ মারা গিয়েছে, যেটা চীন লুকিয়েছে।

৭| ১১ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ১:২৩

নেওয়াজ আলি বলেছেন: আমাদের দেশে সব তথ্য গোপন করে

১৫ ই এপ্রিল, ২০২০ সকাল ১১:২৬

পদ্ম পুকুর বলেছেন: সব তথ্য গোপন করে না, তবে প্রয়োজনীয় অনেক তথ্যই গোপন করে।

৮| ১১ ই এপ্রিল, ২০২০ দুপুর ১২:৫২

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: বাংলাদেশের তথ্য অধিকার আইন ২০১৮ প্রবলভাবে প্রয়োগ করা হউক।

১৫ ই এপ্রিল, ২০২০ সকাল ১১:৩০

পদ্ম পুকুর বলেছেন: এই এক জিনিস তথ্য অধিকার আইন!!! ভাই, এটা কিভাবে প্রয়োগ করতে হয়, স্বাভাবিক সময়ে কিভাবে এই আইনের মাধ্যমে তথ্য পাওয়া যায় সেটাই পাব্লিকে জানেনা আর এখন তো অস্বাভাবিক সময়!
প্রবলভাবে প্রয়োগ তো করা্ই উচিৎ, কিন্তু বেড়ালের গলায় ঘন্টাটা বাঁধবে কে?

৯| ১১ ই এপ্রিল, ২০২০ দুপুর ১২:৫৬

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: রাস্তায় করোনা উপসর্গ নিয়ে পরে থাকা লাশের সংখ্যা বাড়ার পরও যদি বাঙালি সরকারের মুখের দিকে চেয়ে থাকেন তাহলে কেমনে চলবে।

১৫ ই এপ্রিল, ২০২০ সকাল ১১:৩৩

পদ্ম পুকুর বলেছেন: আমাদের একটা সাধারণ বৈশিষ্ট্য হলো নিজে কম কাজ করে অন্যের দিকে চেয়ে থাকা। 'পিপুফিশ' এর গল্পতো আমাদের চরিত্রেরই প্রতিফলন।

১০| ১২ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ৯:০৮

সাহাদাত উদরাজী বলেছেন: সত্য প্রকাশে সব সময়েই ভাল হয়, এতে লজ্জা নেই। এক মিথ্যা হাজারো বিপদ নিয়ে আসে!

১৫ ই এপ্রিল, ২০২০ সকাল ১১:৩৪

পদ্ম পুকুর বলেছেন: আমাদের কাছে ফুটানি মেরে সব দুর্বলতাকে অস্বীকার করাটাই বীরত্ব। 'বীরবাঙালি' আজ একটা প্রপঞ্চ ছাড়া কিছুই নয়।

১১| ১৫ ই এপ্রিল, ২০২০ সকাল ১১:২৯

বিজন রয় বলেছেন: বাঙালি অগাত না পেলে জাতে ওঠে না।

পোস্টে ++++।

১৫ ই এপ্রিল, ২০২০ সকাল ১১:৩১

পদ্ম পুকুর বলেছেন: বহুদ্দিন বাদে বদ্দা, ভালো এবং সুস্থ আছেন তো?

১২| ১৫ ই এপ্রিল, ২০২০ সকাল ১১:৩৬

বিজন রয় বলেছেন: হা হা হা .... ভাল আছি এখনো।

আপনিও ভাল থাকেন।

১৩| ২৩ শে মে, ২০২০ ভোর ৫:১৩

কাওসার চৌধুরী বলেছেন:



স্পষ্টবাদিতা থাকা চাই। আর সরকারি তরফে সত্য তথ্য দেওয়া কিংবা অপ্রিয় সত্যকে জনসম্মুখে নিয়ে আসা খুব দরকার। এতে ক্ষতি হলেও লজ্জার কিছু নেই। অবাধ তথ্য প্রবাহ জাতিকে সত্যবাদী হতে শেখায়, যুক্তিবাদী হতে প্রেরণা যোগায়। চমৎকার লেখাটির জন্য ধন্যবাদ।

ভালো থাকুন।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.