নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

আমার নাম- রাজীব নূর খান। ভাবছি ব্যবসা করবো। ভালো লাগে পড়তে- লিখতে আর বুদ্ধিমান লোকদের সাথে আড্ডা দিতে। কোনো কুসংস্কারে আমার বিশ্বাস নেই। নিজের দেশটাকে অত্যাধিক ভালোবাসি। সৎ ও পরিশ্রমী মানুষদের শ্রদ্ধা করি।

রাজীব নুর

আমি একজন ভাল মানুষ বলেই নিজেকে দাবী করি। কারো দ্বিমত থাকলে সেটা তার সমস্যা।

রাজীব নুর › বিস্তারিত পোস্টঃ

এই পোষ্ট প্রতি বছর একবার করে পোষ্ট করা যেতে পারে

১৫ ই এপ্রিল, ২০১৯ রাত ১০:৪৫


আমার ছাদে আম গাছ। ঝড়ে পড়ে টরে এক'টা আছে এখন।

সামনে রোজার মাস আসছে।
বাজারে জিনিসপত্রের দাম হু হু করে বাড়বে। বাড়বেই। প্রতি বছর একই ঘটনা। যদিও বানিজ্যমন্ত্রী কঠিন হুশিয়ারী দিবেন। প্রতি বছরই দেন। ফলাফল শূন্য। মন্ত্রী বলবেন, রোজাকে সামনে রেখে ইতোমধ্যে পর্যাপ্ত পরিমাণ ভোগ্যপণ্য আমদানি হয়েছে। তাই রোজায় নিত্যপণ্যসহ সব ধরনের জিনিসপত্রের দাম স্বাভাবিক থাকবে। কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করে পণ্যের দাম বৃদ্ধি করলে ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করার হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করবেন বানিজ্যমন্ত্রী। মন্ত্রীদের কথায় আমার হাসি পায়। প্রতি বছর একই কথা বারবার শুনতে শুনতে এখন ঘৃণা লাগে।

একই ঘটনা প্রতি বছর ঘটছে।
সকল জিনিসের দাম বাড়ার পরও দশ রোজার পরে মন্ত্রী বলবেন, রমজানে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্য ও সরবরাহ পরিস্থিতি যৌক্তিক ও স্বাভাবিক রয়েছে। অন্য মন্ত্রীরা গলা ফাটিয়ে বলবেন, সরকারের কঠোর নজরদারির কারণে রোজায় বাজার আর অস্থিতিশীল হচ্ছে না। খবরের কাগজের শিরোনাম হবে, ''আসন্ন রোজায় যেকোনো মূল্যে বাজার নিয়ন্ত্রণের ঘোষণা দিয়েছে সরকার''। কোনো কোনো পত্রিকা লিখবে, ''সরকারি মনিটরিং অনেক বেশি হচ্ছে, ক্রেতারা খুশি।''
বছরের পর বছর একই ঘটনা। একই কাহিনি।

ঈদে ট্রেনের টিকিট পাওয়া যাবে না।
ভোর রাত থেকে ট্রেনের টিকিটের জন্য লোকজন লম্বা লাইন ধরে দাঁড়াবে। শেষমেষ লোকজন টেনের ছাদে করে যাবে। লঞ্চের টিকিটও পাওয়া যাবে না। লোকজন ঠাসাঠাসি করে যাবে। সড়ক পথেও থাকবে বিশাল জ্যাম। বাসের টিকিটের দাম যাবে বেড়ে। প্রতি বছর একই চিত্র। যুগ যুগ ধরে একই অবস্থা। জাকাতের কাপড় নিতে গিয়েও লোকজন পায়ের চাপায় মরবে। বিশ রোজার পর থেকে ছিনতাইকারীর সংখ্যা খুব বেড়ে যাবে। পুলিশ চেকপোষ্ট বসাবে। দুঃখের বিষয় যেখানে ছিনতাই হয়, পুলিশ সেখানে চেকপোষ্ট বসাবে না। যেখানে ছিনতাই হয় না পুলিশ সেখানে চেকপোষ্ট বসাবে এবং সাধারন মানূষকে হয়রানি করবে। রাস্তা ঘাটে আজ থেকে বিশ বা ত্রিশ বছর আগেও মসজিদ নির্মান করার জন্য টাকা নিত। আজও তারা মসজিদ নির্মানের জন্য টাকা নেয়। আল্লাহর ঘর নির্মান হয় দানের টাকায়?

দেশের মানুষ শান্তিতে নেই।
বিশেষ করে ঢাকা শহরের মানুষ বড় কষ্টে আছে। তারা সকালে বাসা থেকে বের হবার পর সারাদিন তাদের কাটে কষ্টে। বাসের কষ্ট, জ্যামের কষ্ট, ফুটপাত দিয়ে হাঁটা যায় না, বাস, গাড়ি আর বাইকের বিকট হর্নের শব্দ। রাস্তায় বের হলেই মানুষ গুলো যেন কেমন পশু হয়ে যায়। তাদের চাল চলন, কথা বার্তা কেমন হিংস্র হয়ে যায়। সিটি করপোরেশনের অফিসে ট্রেড লাইসেন্স করাতে গেলেও ঘুষ দিতে হয়। পাসপোর্ট করাতে গেলেও পুলিশ ভেরিফিকেশনের জন্য টাকা দিতে হয়। এমনকি সুযোগ পেলেই অফিসের সহকর্মীও অদৃশ্য ভাবে বুকে ছুরি চালায়। সব মিলিয়ে দেশের মানুষ ভালো নেই। আইয়ূব বাচ্চু ঠিকই বলেছেন তার গানে আসলে কেউ সুখী নয়।


মন্তব্য ৩৪ টি রেটিং +৫/-০

মন্তব্য (৩৪) মন্তব্য লিখুন

১| ১৫ ই এপ্রিল, ২০১৯ রাত ১০:৫০

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন:
নুরু ভাইয়ের পোস্টগুলোও এমন।
বছরে একবার করে পোস্ট করা যায়।

১৫ ই এপ্রিল, ২০১৯ রাত ১০:৫৩

রাজীব নুর বলেছেন: নুরু ভাইয়ের পোষ্ট বছরে দুইবার করা যায়।
একবার জন্ম বার্ষিকীতে একবার মৃত্যু বার্ষিকীতে।

২| ১৬ ই এপ্রিল, ২০১৯ রাত ১২:০০

অজ্ঞ বালক বলেছেন: লাস্টের প্যারাটাই আসল। সেইটায় প্লাস। আর বাকি সব কথা - অর্থহীন। লাভ নাইক্কা।

১৬ ই এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ৯:২৮

রাজীব নুর বলেছেন: ধন্যবাদ মন্তব্য করার জন্য।

৩| ১৬ ই এপ্রিল, ২০১৯ রাত ১:০৯

শরীফ বিন ঈসমাইল বলেছেন: বর্তমান জীবনে আমাদের নিত্যদিনের ভোগান্তি সমুহ :/

১৬ ই এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ৯:৩১

রাজীব নুর বলেছেন: বছরের পর বছর। যুগের পর যুগ।

৪| ১৬ ই এপ্রিল, ২০১৯ রাত ২:০৩

বলেছেন: সুন্দর।

১৬ ই এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ৯:৩৪

রাজীব নুর বলেছেন: ধন্যবাদ।

৫| ১৬ ই এপ্রিল, ২০১৯ রাত ২:১৮

আকতার আর হোসাইন বলেছেন: আসলেই কেউ সুখী না।

১৬ ই এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ৯:৩৪

রাজীব নুর বলেছেন: ইয়েস।

৬| ১৬ ই এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৩:২০

তাজেরুল ইসলাম স্বাধীন বলেছেন: দারুণ দেখাচ্ছে!

১৬ ই এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ৯:৩৪

রাজীব নুর বলেছেন: কি?

৭| ১৬ ই এপ্রিল, ২০১৯ ভোর ৬:৪১

চাঁদগাজী বলেছেন:


ঢাকার মানুষ সারাদিন কষ্টে থাকতে থাকতে, রাগতে রাগতে, হতাশ হতে হতে অমানুষের পরিণত হয়েছেন; শেখ হাসিনা ঢাকায় বাস করেন।

১৬ ই এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ৯:৩৫

রাজীব নুর বলেছেন: শেখ হাসিনার সাধারন মানূষের কষ্ট গুলো পহাতে হয় না।

৮| ১৬ ই এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ৯:২৭

ডঃ এম এ আলী বলেছেন: একেবারে সত্যি কথা বলেছেন ।
ছোট গাছে ঝড় কম আঘাত হানেে
যাহোক একটিতো আছে এখনো
এটা পাকলে জানাবেন
দেখবেন আবার ঝড়ে
যেন না পড়ে ।

১৬ ই এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ৯:৩৫

রাজীব নুর বলেছেন: আম গুলো পাকার অপেক্ষায় আছি।

৯| ১৬ ই এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ১০:০৪

শামছুল ইসলাম বলেছেন: সঠিক চিত্র তুলে ধরেছেন। লোভ, লোভ সর্বত্র লোভের কালো থাবা। সুখের অস্তিত্ব বিলীন লোভের কবলে পড়ে।

১৬ ই এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ১০:০৮

রাজীব নুর বলেছেন: সঠিক কথাই বলেছেন।

১০| ১৬ ই এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ১০:২৩

বিচার মানি তালগাছ আমার বলেছেন: গত ২০ বছর ধরে চলছে এ রকম...

১৬ ই এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ১০:৩৮

রাজীব নুর বলেছেন: ২০ বছর না আরও বেশি সময় ধরে চলছে।

১১| ১৬ ই এপ্রিল, ২০১৯ দুপুর ১২:২৩

হাবিব স্যার বলেছেন: আপনিও কি অসুখী?

১৬ ই এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৫:০৭

রাজীব নুর বলেছেন: আমার জীবনে এখনও অনেক কিছু না পাওয়া আছে।

১২| ১৬ ই এপ্রিল, ২০১৯ দুপুর ১:২৪

এম.জে. রহমান বলেছেন: ভাই গণতান্ত্রিক পথে আসেন আমাদের মতো আপনিও সুখে থাকবেন ।

১৬ ই এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৫:০৭

রাজীব নুর বলেছেন: ইনশাল্লাহ।

১৩| ১৬ ই এপ্রিল, ২০১৯ দুপুর ১:৪৫

আনু মোল্লাহ বলেছেন: মানুষের জীবনের কত মূল্যবান সময় যে জ্যামের ভেতরে অপচয় হয় তার কোন ইয়ত্তা নাই।
খাওয়ার কষ্ট, থাকার কষ্ট, জ্যামের কষ্ট এত কষ্টে কষ্টে মানুষজন হয়ে যাচ্ছে খিটখিটে, নষ্ট হচ্ছে পারিবারিক সামাজিক শান্তি।

১৬ ই এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৫:০৮

রাজীব নুর বলেছেন: ঠিক বলেছেন।

১৪| ১৬ ই এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৪:৫৪

পবিত্র হোসাইন বলেছেন: রাজীব ভাই,
আসলে যাদের টাকা আছে তাদের কষ্ট নাই।
আমাদের মতো সাধারণ মানুষের কষ্ট বেশি।

১৬ ই এপ্রিল, ২০১৯ বিকাল ৫:০৯

রাজীব নুর বলেছেন: দামী কথা বলেছেন।

১৫| ১৬ ই এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৯:০৪

মাহমুদুর রহমান বলেছেন: রোজা আসার পূর্বেই সব কিছুর দাম বাড়িয়ে ফেলে অতঃপর রোজার সময় আর দাম বাড়ানোর প্রয়োজন মনে করে না।

১৬ ই এপ্রিল, ২০১৯ রাত ৯:২৯

রাজীব নুর বলেছেন: !

১৬| ১৬ ই এপ্রিল, ২০১৯ রাত ১১:২৯

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন:
এতো রাত পর্যন্ত জেগে থেকেও আপনার নতুন কোন পোস্ট পড়তে পেলাম না। আফসোস!

১৭ ই এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ৯:১২

রাজীব নুর বলেছেন: গতকাল শরীরটা ভালো ছিল না। খুব প্রেসার বেড়ে গিয়েছিল।
লেখা বেশ কয়েকটা মাথার মধ্যে সাজানো আছে।

১৭| ১৮ ই এপ্রিল, ২০১৯ দুপুর ১২:০২

খায়রুল আহসান বলেছেন: খুব সুন্দর করে নাগরিক জীবনের কিছু কষ্টের কথা বলে গেলেন। +
বাজারে তরিতরকারী, মাছ মাংস সব কিছুরই মূল্য এই বছর তিনেকের তুলনায়ও অত্যধিক, প্রায় দ্বিগুন। এ বাড়তি মূল্যটুকু উৎপাদনকারীর ফুঁটো পকেটে যাচ্ছে না, যাচ্ছে মধ্যস্বত্বভোগী ফড়িয়া, পুলিশ-আনসার আর মাস্তানদের পকেটে। নাগরিকদের ত্রাহি চীৎকার শাসকদের কান পর্যন্ত পৌঁছে না। এর থেকে কোন পরিত্রাণ নেই, কোন সরকারের আমলেই। তবে এখনকার মত ঊর্দ্ধ্বমূল্যের বাজার আগে কখনোই ছিল না।

১৯ শে এপ্রিল, ২০১৯ সকাল ১১:৩৫

রাজীব নুর বলেছেন: লাগামহীন অবস্থা সব কিছুর মধ্যে বিরাজ করছে।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.