নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

আমার নাম- রাজীব নূর খান। ভাবছি ব্যবসা করবো। ভালো লাগে পড়তে- লিখতে আর বুদ্ধিমান লোকদের সাথে আড্ডা দিতে। কোনো কুসংস্কারে আমার বিশ্বাস নেই। নিজের দেশটাকে অত্যাধিক ভালোবাসি। সৎ ও পরিশ্রমী মানুষদের শ্রদ্ধা করি।

রাজীব নুর

আমি একজন ভাল মানুষ বলেই নিজেকে দাবী করি। কারো দ্বিমত থাকলে সেটা তার সমস্যা।

রাজীব নুর › বিস্তারিত পোস্টঃ

আজকের ডায়েরী - ২৮

৩০ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৮:৫৩



গতকাল রাতে একটা থ্রিলার মুভি দেখেছি।
চমৎকার মুভি। সাতজন সাইকো বাসা বাড়িতে চুরী ডাকাতী করে। মেয়েদের খুন করে। খুন করার আগে ধর্ষন করে। কিন্তু কিছুতেই ধরা পড়ে না তারা। পুলিশের মাথা নষ্ট তাদের খুঁজতে খুজতে। পুলিশ কোনো তথ্য সংগ্রহ করতে পারে না। তারা সাত জন মিলে নিখুঁত ভাবে চুরী ডাকাতি, ধর্ষন আর খুন করেই যাচ্ছে। এই সাত জনের মধ্যে দুইজন আবার প্রতিবন্ধী। দুই প্রতিবন্ধী দূর্দান্ত বুদ্ধিমান। এই দুই প্রতিবন্ধী মিলে কফি খেতে খেতে একজন স্কুল শিক্ষককে ইলেকট্রিক করাত দিয়ে টুকরো টুকরো করে। একসময় তারা নিজেদের নিরাপত্তার কথা ভেবে সুন্দরবনে আশ্রয় নেয়। সেখানে আরো অনেক রোমাঞ্চকর ঘটনা ঘটে। পুরো মুভি আগ্রহ নিয়ে দেখলাম। একটুও বিরক্ত লাগে নি। এদিকে মুভি দশ মিনিট চলার সাথে সাথেই সুরভি গভীর ঘুমে। একাই দেখলাম। মাঝে মাঝে বেশ ভয় ভয় লাগছিল।

রাত দুইটায় মুভি শেষ হলো।
চোখে ঘুম নেই। কি করবো বুঝতে পারছি না। ঘুম না এলে তো বিছানায় যাওয়ার মানে হয় না। খুব চা খেতে ইচ্ছা করছে। সুরভি ঘুমে। অবশ্য ঘুম থেকে ডেকে যদি বলি, একটূ চা করে দাও। দিবে চা করে। কিন্তু এটা অমানবিক দেখাবে। আমার ভাগ্য ভালো ফ্লাক্সে দেখি এক কাপ চা রয়ে গেছে। আমার বেলকনি থেকে দেখা যায় যায়, আশে পাশের সমস্ত ঘর বাড়ির লোকজন ঘুমে। আমি ভাবছি রোহিঙ্গাদের নিয়ে। ঠিক এমন সময় ছাদে কিছু একটা শব্দ পেলাম। মনে হচ্ছে ছাদে কেউ হাঁটছে। অথবা কোনো মেয়ে নূপুর পায়ে নাচছে। অবশ্যই আমার মনের ভুল, এরকম হবার কোনো সম্ভবনাই নেই। সিনেমাতে এমন হয়, বাস্তবে নাক। আবার বাস্তব জীবনে অনেক কিছু হয়, সেসব সিনেমায় দেখায় না। না, মনের ভুল না। ছাদে আসলেই কেউ আছে। আমি কি একবার গিয়ে দেখে আসবো? এতটা সাহস কি আমার আছে?

ভয় লাগছে আমার। বেশ ভয় লাগছে।
ঘরে ঢুকলাম। সুরভি বিছানায় গভীর ঘুমে। অথচ মনে হচ্ছে এ মেয়ে সুরভি নয়। অন্য কোনো মেয়ে। সুরভি তো মিরপুর গিয়েছে তার বাবার বাড়ি। তাহলে এই মেয়ে কোথা থেকে এলো? আমি কি সুরভিকে একটা ফোন দিবো? নাকি মেয়েটির পাশে চুপ করে শুয়ে থাকবো। এবং সকালে রহস্য সমাধান করা যাবে। এই রহস্য সমাধান না হলে আমার কিছুতেই ঘুম আসবে না। নিকোটিনের অভাব বোধ করছি। ঘরে তো সিগারেট খাওয়া নিষেধ। সিগারেট খেতে হলে বেলকনিতে যেতে হবে। কিন্তু বেলকনিতে যাওয়ার সাহস সঞ্চয় করতে পারছি না। বেলকনিতে গেলেই হয়তো ছাদে কোনো অশরীরির ছাদে হেঁটে যাওয়ার ভয়ঙ্কর শব্দ শুনবো। যে শব্দ শুনলেই বুকের মধ্যে দুনিয়ার সমস্ত ভয় এসে জড়ো হবে। এই যে এখন এত ভয় পাচ্ছি, অথচ দিনের বেলা এই ভয়টা থাকবে না, জানি।

আমি কখন ঘুমিয়ে পড়েছি জানি না।
ঘুম ভাঙ্গলো সকাল সাড়ে দশটায়। ঘর অন্ধকার। দরজা, জানালা সব বন্ধ। জানালায় মোটা পর্দা। ঘুম ভাঙতেই গতকাল রাতের সব ঘটনা মনে পড়তে লাগলো। পাশে সুরভি নেই। তার মানে সুরভি মিরপুর গিয়েছে। গতকাল রাতে আমি একাই মুভি দেখেছি। আমার পাশে কেউ ছিল না। ছাদের শব্দটা হয়তো মনের ভুল। অথবা পুরো ঘটনাটাই আমি স্বপ্নে দেখেছি। মাঝে মাঝে স্বপ্ন আর বাস্তব মিশে একাকার হয়ে যায়। এখন ফ্রেশ হয়ে হোটেলে নাস্তা খেতে যাবো। ওয়াশ রুম থেকে ফিরে এসে দেখি, সুরভি খাটে বসে আছে। আমি অবাক হয়ে সুরভির দিকে তাকিয়ে আছি। সুরভি বলল, এইভাবে ভূতের মতোন তাকিয়ে আছো কেন? যাও, নাস্তা খাও। দুপুরে কি খাবে? আমি বললাম, তেহারী। সুরভি বলল, আমি জানতাম!

দুপুরে তেহারি রান্না করলো মা।
মার হাতের তেহারি টা খুব বেশি মজা হয়। সবাই মিলে একসাথে খেলাম। খুব খেলাম আমি। খাওয়া শেষ হতেই মনে মনে ভাবলাম, কোক- স্প্রাইট কি কিছু নেই? ঠিক তখন ভাবী ফ্রিজ থেকে বড় এক বোতল কোক বের করলো। কোক দেখে আমার স্প্রাইট খেতে ইচ্ছা করলো। আমি বললাম, ভাবী স্প্রাইট নেই? ভাবী ফ্রিজ থেকে এক বোতল স্প্রাইট বের করলো। স্বচ্ছ কাঁচের গ্লাসে এক গ্লাস স্প্রাইট খেলাম। শরৎচন্দ্রের দত্তা বইটি পড়তে পড়তে ঘুমিয়ে গেলাম। খুব সুন্দর একটা স্বপ্ন দেখলাম। স্বপ্ন দেখে মনটা খুশিতে ভরে গেল। ঘুম ভাঙ্গল ঠিক সন্ধ্যার আগে আগে। দেখি আকশে মেঘ জমতে শুরু করেছে। হোক একটা বৃষ্টি। সারাদিন বড্ড গরম গিয়েছে। যদি রাতে খুব বৃষ্টি হয় তাহলে আজ খিচুরী, ইলিশ মাছ ভাজা আর ডিম ভাজা খাবো। হে হে....

মন্তব্য ৩০ টি রেটিং +১/-০

মন্তব্য (৩০) মন্তব্য লিখুন

১| ৩০ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৯:১১

চাঁদগাজী বলেছেন:


আপনার রাতগুলো আরব্য উপন্যাসের রাতের মতো

৩০ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ১০:৩৮

রাজীব নুর বলেছেন: ঘুমের ওষুধ খেয়ে ঘুমালে মনে হয় এরকম সমস্যা হবে না।

২| ৩০ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ১০:৪৪

চাঁদগাজী বলেছেন:


লেখক বলেছেন, " ঘুমের ওষুধ খেয়ে ঘুমালে মনে হয় এরকম সমস্যা হবে না।"

-ঘুমের ঔষধ খেয়ে ঘুমালে, অকালে ঘুমের মাঝেও ওপারে ইমিগ্রশন করতে পারেন।

৩১ শে আগস্ট, ২০১৯ দুপুর ১:৩৩

রাজীব নুর বলেছেন: হায় হায়----

৩| ৩০ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ১১:৫১

সোনালী ডানার চিল বলেছেন: ঘুমনাঘুমানোর গল্পে ভালোবাসাও থেকে যায়!
ভয়-নিকোটিন আর প্রেম আপনাকে সূরভিত করুক, সৌরভময়!!

৩১ শে আগস্ট, ২০১৯ দুপুর ১:৩৪

রাজীব নুর বলেছেন: ধন্যবাদ। ভালো থাকুন।

৪| ৩১ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৩:১২

জুনায়েদ বি রাহমান বলেছেন: হয়তো মুভির কাহিনী মস্তিস্কে রয়ে গিয়েছিলো। শুয়ে শুয়ে এটা নিয়ে ভাবছিলেন।
ঘুম আর জাগ্রত মধ্যবর্তী একটাসময় এমন স্বপ্ন দেখা যায়।

আমি লক্ষ করেছি, ঘুমের সময় কেউ পাশে ফোনে কথা বললে বা গল্প করলে; ঐ গল্পে বা কথা মশলা মাখিয়ে ব্রেইন ককটেল জাতীয় একটা স্বপ্ন তৈরে করে ফেলে।
কয়েকমাস আগের ঘটনা। রাতে স্বপ্নে দেখলাম, প্রতিবেশি জসিমের বাড়িতে মানুষ গিজগিজ করছে। কারণ, জসিম বাইক এক্সিডেন্ট করে মারা গেছে।
সকালে উঠে শুনি, সত্যি জসিম মারা গেছে। তবে বাইক নয়, সিএনজি-বাস সংঘর্ষে। স্বপ্নটা নিয়ে চিন্তায় পড়ে গেলাম। এবং নেট ঘাটাঘাটি করে বুঝলাম, ঘুমের ফাঁকে জসিমের মৃত্যুর খবরটা কানে চলে গেছিলো; ব্রেইন সেটাতে মশলা মাখিয়েছে!!

রাতে থ্রিলার মুভি না দেখাই ভালো।

৩১ শে আগস্ট, ২০১৯ দুপুর ১:৩৫

রাজীব নুর বলেছেন: জসিম ভাই এর জন্য মায়া লাগছে।

৫| ৩১ শে আগস্ট, ২০১৯ সকাল ৭:৩৬

ইসিয়াক বলেছেন: আমার দারুণ লেগেছে। আচ্ছা আপনি কি গভীর রাতের ঢাকা শহরকে ঘুরে ঘরে দেখেছেন ? অবশ্যই পায়ে হেঁটে । আমার না গভীর রাতের ঢাকা কে অসম্ভব ভালো লাগে । আহ্‌ কত দিন ঢাকায় যাই না। এবার নিশ্চয় ঢাকায় যাবো যাবোই.....।
শুভসকাল

৩১ শে আগস্ট, ২০১৯ দুপুর ১:৩৬

রাজীব নুর বলেছেন: বহু বার ঢাকা শহরে সারারাত ঘুরে বেড়িয়েছি।

৬| ৩১ শে আগস্ট, ২০১৯ সকাল ৮:০৯

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: আজ কাল দেখি অনেকেই কোক পেপসি খেতে চায় না । কেউ কেউ আবার এগুলির বিরুদ্ধে অপপ্রচার ও চালায়।

৩১ শে আগস্ট, ২০১৯ দুপুর ১:৩৬

রাজীব নুর বলেছেন: ্মাঝে মাঝে খেলে সমস্যা নেই।

৭| ৩১ শে আগস্ট, ২০১৯ দুপুর ১:৪২

ইসিয়াক বলেছেন: তো আরেকবার হয়ে যাক। আমার কিন্তু খুব খুব ভালো লাগে। একসময় ঘটনা প্রবাহে ঢাকা ছাড়ার জন্য অস্থির হয়ে উঠেছিলাম । আর এখন ঢাকাকে প্রতি নিয়ত মিস করি । মানুষের জীবনটা বড়ই বিচিত্র ।

৩১ শে আগস্ট, ২০১৯ দুপুর ১:৫৭

রাজীব নুর বলেছেন: এখন কিভাবে যাবো??
এখন তো আমি একা না। সুরভি আছে।

৮| ৩১ শে আগস্ট, ২০১৯ দুপুর ২:০০

ইসিয়াক বলেছেন: তাই তো হি হি হি

৩১ শে আগস্ট, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৫৯

রাজীব নুর বলেছেন: হি হি হি করে হাসা ভালো না। হো হো হো অথবা হে হে করে হাসবেন।

৯| ৩১ শে আগস্ট, ২০১৯ দুপুর ২:০১

ইসিয়াক বলেছেন: এবার তাহলে উঠি ৩টায় টিউশনি ।রেডি হতে হবে।

৩১ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৮:০০

রাজীব নুর বলেছেন: কোন সাবজেক্ট পড়ান?

১০| ৩১ শে আগস্ট, ২০১৯ বিকাল ৩:০৩

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: ছবিটি সোজা করে দিলে আরো ভালো হতে পারতো।

৩১ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৮:০১

রাজীব নুর বলেছেন: ছবিটি কেন যেন এমন হলো বুঝলাম না। আমি তো সোজাই দিতে চেয়েছিলাম।

১১| ৩১ শে আগস্ট, ২০১৯ বিকাল ৪:৪৫

বিজন রয় বলেছেন: শুভবিকেল!
মুভিটির নামটি জানাবেন?

৩১ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৮:০২

রাজীব নুর বলেছেন: নাম মনে নাই। কোনো মুভির নামই আমার মনে থাকে না।

১২| ৩১ শে আগস্ট, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:০৫

নীল আকাশ বলেছেন: ছবি উল্টো হয়ে গেছে। ইচ্ছে করেই দিয়েছেন নাকি ভুল?
হরর মুভি দেখতে চাইলে টার্কিশ ডাব্বা দেখতে পারেন। জগাখিচুরি হরর দেখে সময় নষ্ট!

৩১ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৮:০৩

রাজীব নুর বলেছেন: না ছবিটা ইচ্ছা করে উলটো দেই নি। একা একাই এমন হয়েছে।

১৩| ৩১ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৮:১০

ইসিয়াক বলেছেন: গণিত ..........হো...হো.......হো।

৩১ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৯:৩১

রাজীব নুর বলেছেন: ইয়েস। ভেরি গুড।

১৪| ৩১ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৮:২৫

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: এটা গল্প না সত্যি?
সত্যি হলে অতো রাত জেগে মুভি না দেখতে ভাইকে পরামর্শ দেবো।
তেহারির রেসিপিটা কি?

৩১ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৯:৩২

রাজীব নুর বলেছেন: সত্যি মিথ্যা মিলিয়ে দাদা।
ঘুম আসে না বলেই তো মুভি দেখি।
তেহারি মা রান্না করে। খেতে ভীষন মজা হয়। রেসিপি জানি না।

১৫| ৩১ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ১০:০৫

নাসির ইয়ামান বলেছেন: আবোলতাবোল!

০১ লা সেপ্টেম্বর, ২০১৯ দুপুর ১২:৩০

রাজীব নুর বলেছেন: নো নেভার।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.