নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

আমার নাম- রাজীব নূর খান। ভাবছি ব্যবসা করবো। ভালো লাগে পড়তে- লিখতে আর বুদ্ধিমান লোকদের সাথে আড্ডা দিতে। কোনো কুসংস্কারে আমার বিশ্বাস নেই। নিজের দেশটাকে অত্যাধিক ভালোবাসি। সৎ ও পরিশ্রমী মানুষদের শ্রদ্ধা করি।

রাজীব নুর

আমি একজন ভাল মানুষ বলেই নিজেকে দাবী করি। কারো দ্বিমত থাকলে সেটা তার সমস্যা।

রাজীব নুর › বিস্তারিত পোস্টঃ

গান বাজনা ও ধর্ম নিয়ে ব্লগাররা যা ভাবছেন

১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ সকাল ১০:৩৩



গানের সাথে ধর্ম জটিল আকার ধারণ করছে দেখা যায় | গান ,ধর্ম আর বাস্তবতা মুখোমুখি দাঁড়িয়েছে। বাস্তবতাই গ্রহণযোগ্য সমাধান বলে ধরে নেয়া যায়। বাউল যখন সুর করে বলেন দয়াল পাড় কর আমারে তা শ্রোতার মনে সৃস্টি কর্তার প্রতি যতটুকু গভীর দাগ কাটতে পারে মানুষের অন্তরে, মানুষকে ভাবের গভীরে দীর্ঘ ক্ষনের জন্য যতটুকু নিমজ্জিত করতে পারে, ততটুকু সারাদিন সুরে বেসুরে ওয়াজ নসিহত করে পারা যায় কিনা তা গবেষনার বিষয়।

ইসলামে মানব সৃস্টির কারন হলো- মানুষ সৃস্টিকর্তার এবাদত করবে, তার গুনগান করবে, তার কথা মানবে, শুনবে। গানবাজনা করলে মানুষ সৃস্টিকতা ভয় ভুলে দুনিয়ার মজায় মজে যাবে ফলে মানুষ সৃস্টিকতার কথা ভুল যাবে.... সেই কারনে ইসলামী জ্ঞানীরাও মানুষকে শুধুই সৃস্টিকতার জন্য জীবন নিবিদেত করতেই বলেছেন। সংগীত মানুষের জীবনের অংশ, সংস্কৃতির অংশ।

ইসলামে গান বাজনা নিষেধ না। কিছু কিছু গান, বাদ্য জায়েজ। কিছু কিছু জায়েজ, কিছু কিছু বাদ, এই রকম নিয়ম প্রকৃতিতে নেই; এগুলো সংস্কৃহীনদের ব্যাখ্যা। হুজুররা গান বাজনা বিরোধিতা করবে সেটাই সাভাবিক কারন তারা কিতাবে যা আছে তাই অনুসরন করছে মাত্র। তাই ইসলাম জানলে ও মানলে গানবাজনা করা যাবেনা শুধুই এবাদত করতে হবে।

মানুষের সুশীল দক্ষতা, মানুষের মনের প্রশান্তি হচ্ছে মানবিক গুণ। মানুষের সুশীল দক্ষতা, মানুষের মনের প্রশান্তি হচ্ছে মানবিক গুণ। প্রকৃতপক্ষে শিক্ষিত মানুষদের কর্মই হচ্ছে ধর্ম। কবিতা পড়েন কয়েক হাজার মানুষ, গান শোনেন বিলিয়ন মানুষ; আপনারা গান গাওয়ার চেষ্টা করেন। গান ও কবিতায় শান্তি ও প্রতিবাদ করার শক্তিশালী বাণী রয়েছে।

মানুষকে খাবার খেতে হয় শারীরিক প্রয়োজনে, সংস্কৃতিচর্চা হয় মানসিক প্রশান্তির জন্য। আমাদের দেশ, আফগানিস্তান, পাকিস্তান, ইয়েমেন, ইরান, ইন্দোনেশিয়ায় ইসলাম হলো অশিক্ষিত ও হিংসুক মানুষদের হাতে; ইহারা যা ভেবেচিন্তে বের করে, উহা ভুল ছাড়া আর কিছুই নয়। যেসব মুসলিম দেশে সংগীত নেই, এরা জল্লাদ ধরণের, এরা অন্য ধর্মীদের হত্যা করেছে, বের করে দিয়েছে, এরা বাংলাদেশে নিজ জাতিকেও হত্যা করেছে।

ইসলাম সম্পর্কে আগে জানুন! বুজেন, তারপর ইসলামের বিষয়বস্তু নিয়ে আলোচনা করবেন। ইসলাম ধর্ম নারীকে কখনো হেয় করার পক্ষে নয়! তাই গান-বাজনা নিষিদ্ধ। ইসলাম ধর্মে কখনো অশ্লীল কথা-বার্তা সমর্থন করে না। তাই গান-বাজনা নিষিদ্ব। ইসলাম ধর্মে কখনো শিরক করা সমর্থন করে না। তাই গান-বাজনা নিষিদ্ধ। ইসলামকে জানার জন্য কোন রাজনৈতিক দল নয়! কোন ওয়েবসাইট, কোন সংগঠন নয় বা কারো মুখে ন একমাত্র কোরআন শরীফ তালাশ করুন।

ছোট্র দরিদ্র এই দেশে আসুন আমরা সবাই মিলেমিশে থাকি।
ধর্মপালনকারীরা ধর্ম পালন করুক, গায়করা গান করুন, কবিরা কবিতা লিখুক। পৃথিবী এই ভাবেই চলতে থাকুক। সবার মধ্যে স্বচ্ছ আনন্দ বিরাজ করুক। আর যাদের ধর্মীয় অনুভূতি ঠুনকো কথায় কথায় আঘাত প্রাপ্ত হন- তাদের জঙ্গলে যাওয়া উচিত।

মন্তব্য ৬২ টি রেটিং +২/-০

মন্তব্য (৬২) মন্তব্য লিখুন

১| ১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ সকাল ১০:৪০

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: আপনার একটা মন্তব্য খুবই বাজে করেছেন

নীল আকাশের পোস্টে। আপনাকে ঠিক চিনতেই পারি না ।

১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ দুপুর ১:৪৫

রাজীব নুর বলেছেন: আরে উনি আমাকে রাগিয়েছে দিয়েছেন।
রাগের মাথায় অই মন্তব্য করেছি।

২| ১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ সকাল ১০:৪৬

স্বপ্নবাজ সৌরভ বলেছেন:

গান বাজনা করে এই জন্য কাউকে হত্যা করা হয়েছে বলে আমার জানা নেই। সোনু নিগম গান করেন তার জন্য তাকে কেউ কিছু বলেনি। তিনি আজান নিয়ে একটা উক্তি করেছিলেন, সেই জন্য তাকে প্রবল রোষের মুখে পড়তে হয়েছে।

এই সহজ বিষয়টাকে আরো জটিল করে ব্লগে উপস্থাপনের কোন কারণ দেখছিনা। শরীয়ত বয়াতিকে কবিগান গাওয়ার জন্য কেউ কিছু বলেনি। অন্য আরো কারণ ছিল।
এইসব বিষয়ে আমার তেমন কোন আগ্রহ নেই , ভালো লাগে না। তাই এই বিষয় গুলো যখন ব্লগে দেখি , তখন নির্বাসনে যেতে ইচ্ছা হয়। সেই আগের মত।

প্রিয় ব্লগ ভালো থাকুক। ধর্মপালনকারীরা ধর্ম পালন করুক , গায়করা গান করুন , কবিতার কবিতা লিখুন। পৃথিবী এই ভাবেই চলতে থাকবে। ভালো থাকবেন। আপাতত বিদায়।

১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ দুপুর ১:৪৭

রাজীব নুর বলেছেন: ধর্মপালনকারীরা ধর্ম পালন করুক , গায়করা গান করুন , কবিরা কবিতা লিখুক। পৃথিবী এই ভাবেই চলতে থাকুক।

এই কথার উপর আর কোনো কথাই নেই।

৩| ১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ সকাল ১০:৫১

নূর মোহাম্মদ নূরু বলেছেন:
আপনাকে আমি খুব সহজ সরল ও বোকা টাইপের মানুষ মনে করতাম।
আসলে আপনি তা নন। আপনি চাঁদগাজীর ডুপ্লিকেট। তার এজেন্ডা
বাস্তবায়নের জন্য আদা জল খেয়ে নেমেছেন। এ জন্য মুসলমানদের
পরম আরাধ্য বেহেশত ছেড়ে দোজখে যেতেও রাজী আপনি। আপনি
আজ এই পোস্টে তার মন্তব্যগুলি আপনার বলে চালিয়ে দিব্যি চালিয়ে
দিয়ে কোন সংকেত দিতে চাইলেন। আপনার জন্য আফসোস হয়।
আশা করি পরম করুনাময় আল্লাহ আপনাকে সহি বুঝ দানকরবেন।

আশা করি তিক্ত কথায় রাগ করবেন না। একজন মুসলমান হিসেবে
এটা আমার কর্তব্য বলে মনে করছি।

১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ দুপুর ১:৪৯

রাজীব নুর বলেছেন: যারা ভালো মন্তব্য করেন তাদের মন্তব্য চারিদিকে ছড়িয়ে দেওয়া আমার কর্তব্য।
দোয়া করেন আল্লাহ যেন আমাকে হেদায়েত দান করেন।

৪| ১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ সকাল ১১:১৭

হাবিব স্যার বলেছেন: যে কোন এক মতে থাকুন। বাড়ে বাড়ে মত পাল্টানো আমি পছন্দ করি না।

১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ দুপুর ১:৫০

রাজীব নুর বলেছেন: সব কিছু পরিবর্তনশীল।
যুগের ধারাই হলো পরিবর্তন। কাজেই সারা জীবইন এক থাকা যায় না।

৫| ১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ সকাল ১১:১৯

হাবিব স্যার বলেছেন: আপনি পোস্টে যা লিখেছেন এসব ব্লগারদের সাবার ভাবনা নয়। চাঁদগাজীর মন্তব্য কপি করে দিয়েছেন। নিজের কথা বলুন। ব্লগাররা কি ভাবছে তা বলে শিরোনাম দিন, "আমি কি ভাবছি"।

১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ দুপুর ১:৫১

রাজীব নুর বলেছেন: সকল মানুষের ভাবনাই আমার ভাবনা।

৬| ১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ সকাল ১১:২০

নীল আকাশ বলেছেন: ইসলামে গান বাজনা নিষেধ না। কিছু কিছু গান, বাদ্য জায়েজ। কিছু কিছু জায়েজ, কিছু কিছু বাদ, এই রকম নিয়ম প্রকৃতিতে নেই; এগুলো সংস্কৃহীনদের ব্যাখ্যা। হুজুররা গান বাজনা বিরোধিতা করবে সেটাই সাভাবিক কারন তারা কিতাবে যা আছে তাই অনুসরন করছে মাত্র। তাই ইসলাম জানলে ও মানলে গানবাজনা করা যাবেনা শুধুই এবাদত করতে হবে।
এই লেখার সহী সনদ বা সূত্র কই? কিসের ভিত্তিতে এটা লিখেছেন ?
ইসলাম নিয়ে ফতোয়া দেয়াও শুরু করে দিয়েছেন আজকাল?
অজ্ঞতা পাপ নয় বরং সুযোগ থাকার পরেও যারা শিখতে পারে না তারা নির্বোধ। এদের শেষ বিচারের দিন কঠিন শাস্তি দেয়া হবে। এদের কোন কথাই শুনা হবে না তখন। প্রতিটা কান্ড জ্ঞানহীণ কথার জন্য তখন শুধু আপনি নিজেই আফসোস করবেন আর কেউ নয়।
আল্লাহ আপনাকে যেন হেদায়েতের রাস্তা থেকে ফিরিয়ে না দেন, সে কামনায়।

১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ দুপুর ১:৫৩

রাজীব নুর বলেছেন: দুনিয়াতে সবাই পূর্ন করতে পারে না। কেউ কেউ পাপ জমায়। কেউ কেউ মনে পৃথিবীর আসল মজাই পাপে।
আপনারা বেহেশতে যান, আমি না হয় হাসি মুখে দোযকে যা্ব।

৭| ১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ সকাল ১১:২৩

হাবিব স্যার বলেছেন: আপনি পোস্টে যা লিখেছেন এসব ব্লগারদের সবার ভাবনা নয়। চাঁদগাজীর মন্তব্য কপি করে দিয়েছেন। নিজের কথা বলুন। ব্লগাররা কি ভাবছে তা না বলে শিরোনাম দিন, "আমি কি ভাবছি"।

(৫ নং মন্তব্য মুছে দিন)

১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ দুপুর ১:৫৬

রাজীব নুর বলেছেন: এত রাগ ক্যান? রাগটা কমান।রেগে গেলেন তো হেরে গেলেন।
চাঁদগাজী জ্ঞানী লোক। বুদ্ধিমান মানুষ। আধুনিক মানূষ। যদি ব্লগের সবাই চাঁদগাজীর মতো আধুনিক হতো। তাহলে খুব ভালো হতো।
চাদ্গাজীর মতোন যদি দেশের মানূষ ভাবতো, চিন্তা করতো, আধুনিক হতো- তাহলে দেশ বদলে যেত।

৮| ১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ দুপুর ১২:০৫

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন:
হুট করে আপনি কেন আরেকজনের লেখা এখানে দিয়ে দিলেন পোস্ট হিসেবে ?

আপনার ক্ষণে ক্ষণে মত পালটানো আকাশের রং পাল্টানোর মতই হয়ে গেছে।

১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ দুপুর ১:৫৭

রাজীব নুর বলেছেন: এই পোষ্টের শিরোনামেই বলেছি ব্লগাররা যা ভাবছেন। আর এখানে একজন ব্লগারের কথা না। অনেক ব্লগারের কথা একসাথে করেছি।

৯| ১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ দুপুর ১২:৪৯

কামরুননাহার কলি বলেছেন: ইসলাম আর পৃথিবী, পৃথিবী বলতে রাজনীতি, সংস্কৃতি, গান, বাজনা, এসব কিছুর সাথে ইসলাম কখনো মানায় না। কারণ এগুলো হলো দুনিয়ার মোহ। মানুষ এগুলো নিজেইরা সৃষ্ট্রি করে নিয়েছেন। যদি আপনি বহু যুগে ফিরে যান তাহলে দেখবেন। এসব গুলোই সেই যুগের বিধর্মীরা ইসলামকে নিপাত করার জন্যই করেছে। ওরা আল্লাহ বানীগুলোকে নকল করেছে, ওরা আল্লাহর পথ থেকে মানুষদের ফিরানোর জন্য এইসব মোহ, ফাদ পেতে রাখতো। আর সেই যুগে থেকেই আজও পর্যন্ত সেই ধরনের মানুষেরা রয়েছে।

কোন যুগে মুললিমরা এসবের সাথে জড়িত ছিলো না। আজ আছে বিষেশ করে বাংলাদেশ এখন পশ্চিমা বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে চলছে। কিন্তু বাংলাদেশের মুসলিমরা জানে যে পশ্চিমা বিশ্ব এদের কতটা ক্ষতি করতেছে। তারা জেনেও এসব করে যাচ্ছে। পশ্চিমা বিশ্বের কালচার, পোশাক, সংস্কৃতি, খাবার এখব বাংলাদেশ বিধর্মীদের সাথে সমান তালে তাল মিলাচ্ছে। বাংলাদেশেও বহু যুগে একটা বাঙ্গালী নীতি ছিলো কিন্তু দেখেন সেই নীতি এখন কোথায় হারিয়ে গেলো! কোথায়? সেই কালচার, সেই পোশাক, সেই সংস্কৃতি, সেই খাবার কোথায় এগুলো।

পশ্চিমা বিশ্বা ইসলামকে ধ্বংস করার জন্য হাজার হাজার বছর ধরে চেষ্টা চালিয়ে আসছে। কিন্তু কখনোই পারেনি, আর পারবেও না। আমরা মুসলিম আমাদের দায় অনেক। আমাদের দায় আমাদের আল্লাহ, রাসুল এবং কোরআন এই তিনটি জিনিসের উপর ভিত্তি করে আমরা বেচে আছি থাকবো আর থাকতে চাই। অমুসলিমদের আধুনিকতা থেকে এই তিনটি জিনিসের আধুনিকতা সাথে কখনো মূল্য আমাদের কাছে অনেক বেশি। তাদের আধুনিকতা এই তিনটি আধুনিকতা কাছে হার মানবে।

তাই আমি মনে করি ইসলাম নিয়ে এতো কথা, এতো বাড়াবাড়ি, এতো মন্তব্য, এতো, হাসি, ঠাট্টা-বিদ্রুপ এগুলো করা ঠিক না। পৃথিবিতে তো আরো অনেক ধর্ম আছে সেগুলো নিয়ে তো এতো কথা শুনতে দেখি না কাউকে। সেগুলো তো মিথ্যে ধর্ম, সেগুলো তো কোন ধর্মের মধ্যে পরে না। যেটা সত্য ধর্ম সেটা নিয়ে এতো বাড়াবাড়ি কেনো? নাকি সত্যিটা কারো কাছে সহ্য হয়না। ইসলাম ধর্ম নিয়ে এতো কেনো রাজনীতি, এতো কেনো তর্ক, এতো কেনো মন্তব্য???

১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ দুপুর ২:০৪

রাজীব নুর বলেছেন: বহু আগের যুগে যাবো না। বর্তমানটাই আসল। বর্তমানের সাথে তাল মিলিয়ে চলতে না পারলে পিছিয়ে পড়তে হবে।
পশ্চিমা বিশ্ব আমাদের উপকার করেছে। তাদের মহান মহান আবিস্কারের কারনে আজ আমাদের জীবনযাত্রা সহজ হয়েছে।
সঠিক ধার্মিক হতে গেলে তো মোবাইল, ইন্টারনেট থেকে দূরে থাকা লাগে। যা এযুগে অসম্ভব।
ইহুদী নাসারাদের গালি দিব অথচ তাদের মোবাইল, কম্পিউটার ব্যবহার করবো।
আইনস্টাইন সূত্র E=mc^2 কেউ আজ পর্যন্ত ভুল প্রমানিত করতে পারে নি। পারবেও
না। হাদীসে কি এরকম কোনো সূত্র আছে?

আমিও বলি, ধর্ম থাক না ধর্মের মতো। ধর্ম থাক না ধর্মের জায়গায়।

১০| ১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ দুপুর ১২:৫৩

এভো বলেছেন: ২০১৮ সালের এপ্রিল মসে জনাব এম আর তালুকদার সাহেব লিখেছিলেন --- ইসলামে গান বাজনা কি হারাম ? কেন ! ইসলামে গান বাজনা কি হারাম ? কেন !

ঐ ব্লগে গানের পক্ষে বিপক্ষে তথ্য ভিত্তিক আলোচনা করা হয়েছে পাঠকদের মন্তব্যে । দয়া করে তথ্য ভিত্তিক পক্ষে বিপক্ষের পাঠকের মতামত গুলো ঐ লিংকে গিয়ে পড়ুন এবং ঐ আলোচনা হতে অনেক তথ্য উপাদান পাবেন । ধন্যবাদ

১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ দুপুর ২:০৬

রাজীব নুর বলেছেন: ধন্যবাদ আপনাকে।

আমি গান বাজনা করবো। শুনবো।
আবার আমি নামাজ রোজাও পালন করবো।
দুনিয়াতে আসছি। সব আনন্দ যতটা পারি উপভোগ করে নিতে চাই।

১১| ১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ দুপুর ১:৩৩

ST COVER SONG বলেছেন: uncle i am only 12 years old. ami nije song kori. hote pare apni amar post a amar song shunechen. but i am not agree with your post. sorry. islam ke valobeshe ami ekhon islamic song gai.

১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ দুপুর ২:০৭

রাজীব নুর বলেছেন: বাবু তুমি লেখাপড়ায় মন দাও। সবার আগে লেখা পড়া। গান বাজনা বা ইসলামিক গানের জন্য অনেক সময় পাবে।

১২| ১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ দুপুর ১:৪৫

ঢাবিয়ান বলেছেন: মন্তব্যগুলো পড়ে রীতিমত ভীত সন্ত্রস্ত বোধ করছি। মানুষের মাঝে ধর্মীয় গোড়ামি এত বেড়ে গেছে অবিশ্বাষ্য!! আজ যারা বিশাল ইসলাম বিশেষজ্ঞ সেজে বসে আছেন , তাদের নিয়ে কিছুটা আলোচনা করতে চাই। ব্লগার নীল আকাশ যে সব গল্প লেখেন সেখানে তার নায়ক নায়িকাদের তিনি যে রুপে উপস্থাপন করেন সেটা কতখানি শরিয়াহ সম্মত? ছবি তোলাও শুনেছি হারাম। ব্লগাররা তাহলে ছবি তুলে ব্লগে দেন কেন? সবচেয়ে বড় কথা যে এরা ইহুদি নাসারাদের আবিষ্কার করা মোবাইল , কম্পিউটার ইউজ করে কেন? ইসলাম যার যার নিজের সুবিধামত ব্যাখা করার ব্যপার নয়। এই যারা আজ নিজেদের বিড়াট ইসলাম বিশেষজ্ঞ হিসেবে জাহির করে অন্যদের জ্ঞান বিতরন করছে তাদের জীবনধারা বিশ্লেষন করলে দেখা যাবে হাজারটা অনিয়ম তারা প্রতিদিন করছে।শুধু তারাই নয় ,আমরা সবাই করছি। কারন সময় , বাস্তবতা ,আজকের প্রক্ষাপট এবং ১৪০০ বছর আগেকার প্রেক্ষাপট এক নয়। মানুষ তাই ততটাই ধর্ম পালন করে যতটা বাস্তব সম্মত ।

১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ দুপুর ২:১৩

রাজীব নুর বলেছেন: চমৎকার বলেছেন।
আপনার মন্তব্য থেকেই বুঝা যায় আপনি একজন আধুনিক মানূষ। এবং কোনো রকম গোড়ামি আপনার নেই। কোনো কুসংস্কারে আপনার বিশ্বাস নেই। গ্রেট।

ভালো থাকুন।

১৩| ১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ দুপুর ২:০৬

পদ্ম পুকুর বলেছেন: স্বপ্নবাজ সৌরভকে ধন্যবাদ আমার কথাগুলো বলার জন্য।

১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ দুপুর ২:০৮

রাজীব নুর বলেছেন: আসলে কেন জানি আপনি আমাকে পছন্দ করেন না।
তবে আমি আপনাকে পছন্দ করি আপনার পোষ্টও আমার ভালো লাগে।

১৪| ১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ দুপুর ২:৩৭

পদ্ম পুকুর বলেছেন: ভুল বলেছেন। গেল হপ্তায় ব্লগার কাল্পনিক-ভালবাসার সাথে দেখা হওয়ায় আপনিসহ এই ব্লগে আমার পরিচিত মানুষ এখন দুজনে উন্নীত হয়েছে। ব্লগকে আমি আমার নিজের ভাবি, সব ব্লগারকে আপন ভাবি। যেহেতু বাস্তবে শুধু আপনাদের দুজনকেই চিনি, আপন ভাবার নিক্তিতে আপনারা দুজন সবচে এগিয়ে আছেন। তারমানে এই না যে আপনার চিন্তার সাথে আমি দ্বিমত করতে পারবো না।

সময় নিয়ে একদিন আইসেন, ফখরুদ্দিনের বিরানি খাওয়াবো। :`>

১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ বিকাল ৪:৩৪

রাজীব নুর বলেছেন: শুকরিয়া।
অবশ্যই দেখা হবে।
দাওয়াত পেয়ে খুব আনন্দ পেলাম। আসবো একদিন সময় নিয়ে।

১৫| ১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ বিকাল ৩:০৫

ঢাবিয়ান বলেছেন: আলাদা পোস্ট দিতে আগ্রহী নই । তাই আপনার পোস্টেই কিছু লিংকের লেখা কপি পেস্ট করছি

( ১) জিজ্ঞাসা–৮৭৫: মোবাইলে ছবি তোলা কি হারাম? আল্লাহর রাসূল বলেছেন– ছবি অংকনকারী বিনা হিসাবে জাহান্নাম যাবে, এটা কি সহিহ হাদিস?–

জবাব: আব্দুল্লাহ ইবন আব্বাস রাযি. থেকে বর্ণিত, রাসুলুল্লাহ ﷺ বলেছেন,

كُلُّ مُصَوِّرٍ فِي النَّارِ يُجْعَلُ لَهُ بِكُلِّ صُورَةٍ صَوَّرَهَا نَفْسٌ فَيُعَذِِّبُهُ فِي جَهَنَّمَ

প্রত্যেক ছবিনির্মাতা জাহান্নামে যাবে, তার নির্মিত প্রতিটি ছবি পরিবর্তে একটি করে প্রাণ সৃষ্টি করা হবে, যা তাকে জাহান্নামে শাস্তি দিতে থাকবে। (বুখারী ২২২৫, ৫৯৬৩, মুসলিম ৫৬৬২)

والله اعلم بالصواب
উত্তর দিয়েছেন
মাওলানা উমায়ের কোব্বাদী

( ২) গল্প উপন্যাসের বই পড়া বা লেখার শরয়ী বিধান

জিজ্ঞাসা–৪৩৫: আসসালামু আলাইকুম। হযরত, বর্তমান গল্প, উপন্যাসের বই পড়ার হুকুম কি? যদি তাতে অশ্লীলতা না থাকে এবং এধরণের গল্প লিখার শরয়ী বিধান কি?–বিনতে আব্দুল্লাহ।

জবাব: وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته

প্রচলিত গল্প, উপন্যাসের বই পড়া জায়েয হবে কিনা তা নির্ভর করছে এগুলোর বিষয়বস্তুর উপর। এগুলোতে যদি এমন কিছু থাকে যা বাস্তব ও ইসলামের নীতিমালার সাথে সাংঘর্ষিক তবে তা পড়া বা লেখা জায়েয হবে না। তাছাড়া বিশেষ করে সাইন্স ফিকশান-জাতীয় গল্পের বইগুলোতে অনেক সময় কুফরি বিষয় নিয়েও লেখা থাকে যা ইসলামের সাথে সাঘর্ষিক। এমনকি অনেক ক্ষেত্রে তা ঈমান-আকিদা নষ্টের ‘কারণ’ হয় এবং নাস্তিকতার প্রতি ধাবিত করে। পবিত্র কোরআনে আল্লাহ তাআলা বলেন,

وَمِنَ النَّاسِ مَن يَشْتَرِي لَهْوَ الْحَدِيثِ لِيُضِلَّ عَن سَبِيلِ اللَّهِ بِغَيْرِ عِلْمٍ وَيَتَّخِذَهَا هُزُوًا أُولَئِكَ لَهُمْ عَذَابٌ مُّهِينٌ
মানুষের মধ্যে এমন ব্যক্তিও আছে যে অর্থহীন ও বেহুদা গল্প কাহিনী খরিদ করে, যাতে করে সে (মানুষদের নিতান্ত) অজ্ঞতার ভিত্তিতে আল্লাহ তাআলার পথ থেকে দূরে সরিয়ে রাখতে পারে, সে একে হাসি, বিদ্রুপ, তামাশা হিসেবেই গ্রহণ করে; তাদের জন্য অপমানকর শাস্তির ব্যবস্থা রয়েছে। (সূরা লোকমান ০৬)

আর একজন ঈমানদারের জন্য সময় অত্যন্ত মূল্যবান জিনিস। গল্প, উপন্যাসে মূল্যবান সময় প্রচুর নষ্ট হয়। আবু হুরাইরা রাযি. বলেন, রাসূল্লাহ ﷺ বলেছেন, من حُسنِ إسلام المرءِ تركُهُ ما لا يعنيهএকজন ব্যক্তির ইসলামের পরিপূর্ণতার একটি লক্ষণ হল যে, তার জন্য জরুরী নয় এমন কাজ সে ত্যাগ করে। (জামে তিরমিযী ২২৩৯)

সুতরাং প্রচলিত গল্প উপন্যাসের কল্প-কাহিনি না পড়ে কোরআন-হাদিসের সত্য-গল্প পড়ুন। সালফে সালেহিন ও আল্লাহওয়ালাদেরকে জানুন। ইনশা আল্লাহ, জীবন পাল্টে যাবে।

والله اعلم بالصواب
উত্তর দিয়েছেন
মাওলানা উমায়ের কোব্বাদী


১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ বিকাল ৪:৩৫

রাজীব নুর বলেছেন: মানুষ তো এসব দেখে না। চোখ বন্ধ করে রাখে।

১৬| ১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ বিকাল ৩:৪০

নজসু বলেছেন:




প্রিয় রাজীব ভাই আপনি কি আল্লাহতে বিশ্বাস করেন?

১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ বিকাল ৪:৩৬

রাজীব নুর বলেছেন: এটা কি প্রশ্ন করলেন??
আমি অবশ্যই আমি মহান প্রভুকে বিশ্বাস করি।
সকালে ঘুম থেকে উঠে সবার আগে আমি আল্লাহকে স্মরন করি। রাতে ঘুমাতে যাবার আগে আল্লাহকে স্মরন করি।

১৭| ১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ বিকাল ৩:৪১

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: এই জাতীয় বিতর্ক আমার ভালো লাগে না ।
সবাই যার যার ধ্যান ধারণা আর চিন্তা চেতনা নিয়ে থাকুক । আমার কি।

১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ বিকাল ৪:৩৭

রাজীব নুর বলেছেন: এই মনোভাব মন্দ নয়।

১৮| ১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ বিকাল ৩:৪৬

মোহাম্মাদ আব্দুলহাক বলেছেন: আমি পাপের সাগরে সাঁতরাচ্ছি। আমি নিজেও গান গেয়েছি, গান শুনেছি। এখন অবশ্য শুনি না, তা আমার ব্যক্তিগত বিষয়। দিনমান গান শুনলে অনেক ক্ষতি হয় তা প্রমাণসিদ্ধ। দুনিয়ার সকল পিরফকির অলি আউলিয়া হতে পারবে না। সকল ধর্মাত্মা হলে দোজখের দরকার ছিল না।

সকলের মঙ্গল হোক।

১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ বিকাল ৪:৩৭

রাজীব নুর বলেছেন: ধন্যবাদ। ভালো থাকুন।

১৯| ১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ বিকাল ৪:৪৪

সাসুম বলেছেন: এই দেশে চারদিকে পাওয়া যাবে ধর্মান্ধ ফেসবুক ঈমাম আর পটেনশিয়াল রেপিস্ট।

কেউ কোরান পড়ে দেখবে না , কেউ বুঝবে না, কেউ জানতে চাইবেনা। তারা শুধু শুনবে ঠিকা মোল্লাদের ওয়াজ আর রেডিওমুন্নার আমীন টাইপ্স পোস্ট।

দুনিয়ার সকল ধর্মান্ধ পচে মরুক, সকল ধর্মপ্রাণ শান্তিতে থাকুক, সকল স্বাধীন মানব বেচে থাকুক স্বকীয়তায়।

২০| ১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ বিকাল ৪:৫৭

রাজীব নুর বলেছেন: ধন্যবাদ। ঠিক বলেছেন।

২১| ১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ বিকাল ৫:৪৫

জাহিদুল ইসলাম ২৭ বলেছেন: কিছু দিন ব্লগ ফলো করিনি,এরই মাঝে ক্যাচাল লেগে গেল?ভালোই।অনেকেই ক্যাচালের আগুনে আলু পুড়িয়ে খেতে পারবে।

১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ৮:২৮

রাজীব নুর বলেছেন: ব্লগে কোনো ক্যাচাল নেই।
এটা আলাপ আলোচনা।

২২| ১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ বিকাল ৫:৫৪

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: রাজীব নুর ভাই, আপনি খুব ভালো লেখেন। ব্লগের প্রতিভাবান ব্লগারদের একজন আপনি। আপনার লেখা শুরু থেকে যে-স্বল্প কয়েকজন ব্লগার পড়তেন, আমি তাদের মধ্যে একজন। আপনাকে ভালোবাসি। আপনাকে ভালোবেসে আমি সিনেমার পোস্টার বানিয়েছি - ব্লগার নাম্বার-ওয়ান হিসাবে। আপনাকে 'নায়করাজ রাজীব' উপাধি দিয়েছি আমি।

আপনাকে ভালোবাসি বলেই এর আগে আপনার উপর রাগ করে কিছুদিন আপনার পোস্টে আসি নি, সেটা আপনি টেরও পান নি। আপনি মানুষকে রাগ কমাতে বলছেন, ভালো উপদেশ, তো নিজে রেগে যাচ্ছেন কেন? আগে নিজের 'আদর্শ' স্থির করুন। কার আদর্শ, কোন আদর্শ আপনি মেনে চলবেন, আপনার এই বয়সে এই দোদুল্যমানতা সাজে না। আপনার পোস্ট/কমেন্ট পড়ে কখনো মনে হয় আপনি খুব ধার্মিক এবং আস্তিক, আবার মনে হয় এর উলটো; কখনো মনে হয় আপনি ইসলামের পক্ষে কথা বলছেন, কখনো মনে হয় ইসলাম আপনার শত্রু। যে-কোনো পক্ষে অবস্থান নেয়ার মৌলিক অধিকার আপনার আছে। কিন্তু কোনটা আপনার জন্য ভালো ও মানবিক, তা কি আপনি এখনো বুঝতে পারছেন না?

তাই অনুরোধ, আপনার ভালো'র জন্যই বলছি- নিজের আদর্শ স্থির করুন। ব্যক্তিগতভাবে, গোয়ার্তুমি, একগুঁয়েমি, হুটহাট মানুষকে অপমান করে বসা আমি অপছন্দ করি, এসব করা অমানবিক, অনৈতিক এবং নিষ্ঠুরতা। আমি এ ধরনের মানুষকে সাপোর্টও করি না, প্রোমোটও করি না।

প্রসঙ্গক্রমে বলি, আপনার অন্য এক পোস্টে আমার কমেন্টের উত্তরে আপনি যা বলেছেন তা খুব রূঢ় লেগেছিল আমার কাছে। প্রতিটা মানুষের খুব স্পর্শকাতর একটা জায়গা থাকতে পারে, যাতে খুব সহজেই আঘাত লাগে। আমি মর্মাহত হয়েছিলাম, আপনার পোস্টে আর আসবো না মনস্থির করেছিলাম। কিন্তু, আমার মনে হয়েছে, আপনি আবার ট্র্যাক হারিয়ে ফেলছেন, লাইন-বিচ্যুত হচ্ছেন, তাই আমার পক্ষ থেকে এটাই শেষ চেষ্টা। বুঝলে ভালো, না বুঝলে আমার আর কোনো আফসোস থাকবে না।

শুভ কামনা।

১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ৮:৩০

রাজীব নুর বলেছেন: আপনি যেভাবে বড় ভাইয়ের মতো সুন্দর করে বুঝিয়ে বললেন- এমনটা কেউ করে না।
আমি বুঝতে পেরেছি। সাবধান হয়ে গেলাম। বেলাইনে চলে গেলে একটু ইশারা দিবেন বড় ভাই হিসেবে। অনুরোধ।

২৩| ১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:১৫

দপ্তরবিহীন মন্ত্রী বলেছেন: রাজীব নুর ভাইকে নিয়ে আমি নিজেই একটা পোস্ট লিখেছিলাম উনার ডাবল স্ট্যান্ডার্ড নিয়ে। উনি এটাকে ইনজয় করেন সম্ভবত। কিন্তু এটা একসময় উনার জীবনে সমস্যার কারণ হয়ে দাঁড়াবে।

১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ৮:৩৩

রাজীব নুর বলেছেন: কয়দিনের আর দুনিয়া?
জীবনের অর্ধেক সময় পার করে ফেলেছি। আর কয়দিন বাচবো? এদিকে শরীরে নানান অসুখ বিসুখ দেখা দিতেছে।

২৪| ১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ৮:৪০

আসোয়াদ লোদি বলেছেন: কোরআনের কোথাও গান শব্দটির উল্লেখ নেই। অথচ গান নিয়ে হৈচৈ এর কমতি নেই।

১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ৯:০২

রাজীব নুর বলেছেন: ঠিক বলেছেন।

২৫| ১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ৮:৪০

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: ধর্মপালনকারীরা ধর্ম পালন করুক , গায়করা গান করুন , কবিরা কবিতা লিখুক। পৃথিবী এই ভাবেই চলতে থাকু........আমি আপনার এই মন্তব্যকে দারুণ ভাবে সাপোর্ট করছি। আর ধর্ম বললে আমি বলবো "সবার উপর মানুষ সত্য উপর উপর নাই।"

১৬ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ৯:০২

রাজীব নুর বলেছেন: ধন্যবাদ। ইয়েস। সবার আগে মানূষ।

২৬| ১৭ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ১২:৩০

ভ্রমরের ডানা বলেছেন: ফোকলা দাতের হাসি ভাল, তবে ডাল খেতে গেলেই বিপত্তি।

১৭ ই জানুয়ারি, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:২১

রাজীব নুর বলেছেন: হজম হলে আর বিপত্তি নাই।

২৭| ১৭ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ১:৫০

চাঁদগাজী বলেছেন:


হাবিব স্যার বলেছেন, " আপনি পোস্টে যা লিখেছেন এসব ব্লগারদের সবার ভাবনা নয়। চাঁদগাজীর মন্তব্য কপি করে দিয়েছেন। নিজের কথা বলুন। ব্লগাররা কি ভাবছে তা না বলে শিরোনাম দিন, "আমি কি ভাবছি"। "

-হাবিব স্যার কি ভাবছেন, সেটা লেখেন। আমার মনে হয়, উনি রবীন্দ্র সংগীত বন্ধের কথা ভাবছেন।

১৭ ই জানুয়ারি, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:২২

রাজীব নুর বলেছেন: হাবীব স্যাররা আজও আধুনিক মানূষ হতে পারেন নি।
অথচ তারা ইন্টারনেট ব্যবহার করছে।

২৮| ১৭ ই জানুয়ারি, ২০২০ ভোর ৬:৫১

সুপারডুপার বলেছেন:




এই পোস্টে কিছু ব্লগার রাজীব নুর সাহেবের ডাবল স্ট্যান্ডার্ড নিয়ে চিন্তিত। তারা হেদায়াত / তাদের দলে রাজীব নুর সাহেবকে ভিড়ানোর জন্য শেষ বিচারের দিনে কঠিন শাস্তি , জাহান্নামের ইত্যাদি কাল্পনিক ভয়ও দেখিয়ে চলছেন বা মোল্লাদের প্রথা অনুসরণ করছেন। বাস্তবে এইসব ব্লগাররা ইসলামের কিছু মানে, কিছু মানে না অর্থাৎ এই সব ব্লগাররা বাস্তব জীবনে নিজেরাই ডাবল স্ট্যান্ডার্ড অনুসরণ করেন

রাজীব নুর সাহেব সৃষ্টিকর্তাকে বিস্বাস করেন কিন্তু ইসলামের মধ্যে অনেক সমস্যা দেখতে পেয়েছেন, যা বাস্তব। এই সব ব্লগাররা মনে করে ইসলাম মেনে না চললেই, সে সৃষ্টিকর্তার প্রতি অবিশ্বাসী। এই আজব কো - রিলেশন পাইলো কোথায় থেকে!

অনেকেই সব ধর্ম বিরোধী কিন্তু সৃষ্টিকর্তার প্রতি বিশ্বাসী। অনেকেই শুধুমাত্র সামাজিক সম্প্রীতি বৃদ্ধির জন্য গান বাজনা, খেলাধুলা, পহেলা বৈশাখ, নতুন বর্ষ বরণ , ঈদ, বড়দিন, পূজা ইত্যাদি সব ধরণের উৎসবে অংশ গ্রহন করেন, কিন্তু তারা ধর্ম বিরোধী। এটা যার যার স্বাধীন চিন্তা, কোনো সমস্যাতো দেখি না।

আজাইরা কাল্পনিক ভয়কে অতিক্রম করলেই আমরা কেবল ভালোভাবে শিখতে পারি, জানতে পারি ও সুন্দর ভাবে বেঁচে থাকতে পারি। রাজীব নুর সাহেব আপনি কাল্পনিক ভয়কে অতিক্রম করে স্বাধীন চিন্তা শুরু করেন। তাহলেই আপনার আর এইসব ব্লগারদের প্যান প্যানানি শুনতে হবে না।

১৭ ই জানুয়ারি, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:২৪

রাজীব নুর বলেছেন: কাল্পনিক ভয় দূর হবার নয়।

২৯| ১৭ ই জানুয়ারি, ২০২০ সকাল ৭:৫৬

সাদা মনের মানুষ বলেছেন: সুপারডুপার @ এই জন্যই আমি বলি, ধর্মের বিরুদ্ধে সত্য বলা কঠিন। দেখেন ভারতে গরুর মাংস খেয়ে হিন্দু ধর্মের বিরোধীতা করা হচ্ছে বলে মানুষকে পিটিয়ে মারছে। আবার বাংলাদেশে মুসলিম ধর্মের বিরোধী বলে ব্লগার রাজীবকে নাস্তিক উপাধী দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে, কিংবা হলিআর্টিজান বেকারীতে হত্যাকান্ড ঘটানো হয়েছে। অথচ সনাতন ধর্ম এবং ইসলাম ধর্ম দুটিই শান্তির ধর্ম!!

তাই আমি সব সময় বলে থাকি ধর্মের বিরুদ্ধে সত্য বলা কঠিন।

১৭ ই জানুয়ারি, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:২৫

রাজীব নুর বলেছেন: ধর্মটাকে একপাশে সরিয়ে রাখতে পারলে গ্যাঞ্জাম হবে না।

৩০| ১৭ ই জানুয়ারি, ২০২০ সকাল ১১:৪৪

অনিকেত বৈরাগী তূর্য্য বলেছেন: গান-বাজনা মানুষকে সৃষ্টিকর্তার কথা ভুলিয়ে দেয়" কথাটা যৌক্তিক। আবার কাউকে কাউকে তো মনেও করিয়ে দেয়। এ যুগে গান-বাজনা ছাড়া চলা সম্ভব?

১৭ ই জানুয়ারি, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:২৫

রাজীব নুর বলেছেন: সেটাই।

৩১| ১৭ ই জানুয়ারি, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:৫৪

Sujon Mahmud বলেছেন: ইদানিং দেখছি ধর্ম এবং গানবাজনা নিয়ে ব্লগে বেশি আলোচনা হচ্ছে।যার যার দিনের কাজ সে সে করুন।

১৭ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ৮:৩৫

রাজীব নুর বলেছেন: জ্বী।

৩২| ১৭ ই জানুয়ারি, ২০২০ রাত ১১:৩৪

সুপারডুপার বলেছেন: @সাদা মনের মানুষ, আমার মন্তব্যটি বুঝতে পারার জন্য আপনাকে অনেক ধন্যবাদ।

১৮ ই জানুয়ারি, ২০২০ সকাল ৯:১১

রাজীব নুর বলেছেন: আমিও তাকে ধন্যবাদ জানাই।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.