নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

তোমার আর আমার দূরত্ব রাস্তার এপার ওপার।তুমি দাড়িয়ে আছো আমার আশায়আমি অপেক্ষায় আছি যাবো কখন!waiting for a loyal heart!

মেঘ প্রিয় বালক

একটা কৃষ্ণচূড়া গাছ। শুষ্ক অঞ্চলে গ্রীষ্মকালে কৃষ্ণচূড়ার পাতা ঝরে গেলেও, নাতিষীতোষ্ণ অঞ্চলে এটি চিরসবুজ।

মেঘ প্রিয় বালক › বিস্তারিত পোস্টঃ

নয়ন তোলে দাও বিদায়,বিদায়ী বার্তায়।

২৭ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ৮:৪৭


বিদায় বেলায় সন্ধ্যালগ্নে ভারাক্রান্ত মনে,
কোন বার্তায় জানাব বিদায় ভাবছি সপ্তাহজুড়ে।
ব্লগে আমার পথচলা হুট করেই বলতে পারেন,আমার এক বন্ধু আমার কিছু লিখা পড়ে আমাকে ব্লগে নিবন্ধন করার পরামর্শ দেয়,আমিও তার কথা অনুযায়ী ব্লগে প্রবেশ করি। গুনি লেখকদের কথা-বার্তা পড়ি, পোস্টে মন্তব্যও প্রদান করি। আস্তে আস্তে আমিও ব্লগে আমার কিছু লিখা প্রকাশ করি। মনে মনে একটু ভয় থাকতো,জানিনা আমার লিখা সবার কাছে কেমন লাগবে? সবাই কিভাবে আমার লিখা গ্রহন করবে? ইত্যাদি ভাবনা।
নতুন লেখক হিসেবে তখন কিছুই জানতাম না। তবে লিখা আমি যেমনি লিখতাম,মন্তব্যগুলো পড়ে লিখার আগ্রহ দিন দিন বাড়তে থাকলো। আমার এখনও মনে আছে আমি ব্লগে নিক নেওয়ার কিছুদিন পরেই ব্লগে সমস্যা শুরু হয়। লেখায় পাঠক কম,মন্তব্য ৩/৪ টি। তারপরেও লিখেই চলছিলাম চিরকুট,দৃশ্যপট,কবিতা,বাস্তব ঘটে যাওয়া নিজের কিছু বেদনাময় ঘটনা।

এই ব্লগে পথচালার পথে অনেক ভালো ভালো লেখক ও ভালো মনের মানুষদের সাথে পরিচিত হই।
ব্লগে আমার লিখায় তাদের সুন্দর সুন্দর মন্তব্য ও সমর্থন পেয়ে একটা নেশায় পড়ে গেলাম। এই ব্লগে লিখতে গিয়ে,মন্তব্য করতে গিয়ে, পোস্ট করতে গিয়ে নিজ কর্মস্হলে নানারকম কথা শুনতে হয়েছে হসপিটাল ব্যবস্হা পরিচালকের কাছ থেকে। একদিন তো হসপিটাল ব্যবস্হা পরিচালক বলেই ফেলেছেন অফিসে ব্লগিং করতে আসো? নাকি মন দিয়ে কাজ করতে আসো? টেবিলের উপর ফাইল পড়ে আছে,সেদিকে আপনার মন নেই,মন দিয়ে ব্লগে ডুবে আছেন! ব্লগ চালাবেন তো গিয়ে বাসায় বসে চালান

অফিসে কাজ করতে এসে এই ব্লগের জন্য নানাকথা শুনতে হয়েছে। ব্লগে লেখা দেওয়ার জন্য রোজ রাতে লেট ঘুমিয়েছি,ভালো লিখা পড়ার জন্য অফিসের গাড়ি মিস করেছি সকালে। ঘুম থেকে লেট উঠেছি, পায়ে হেঁটে অফিসে গিয়েছি। বন্ধুবান্ধব থেকে বকাঝকাও শুনেছি এই ব্লগের কারনে। এত কিছুর মাঝেও আমার লিখা থেমে থাকেনি। থেমে গিয়েছে তখন,যখন দেখলাম আমার বিশ্বাসে শব্দ দিয়ে আঘাত করা হচ্ছে,আমাকে নানারকম বাজে উপাধি দেওয়া হচ্ছে, এমনকি যুক্তি তর্ক না করে আমাকে গালি-গালাজ করা হয়েছে। কারা করেছে আমি তাদের নাম বলবোনা। কারন এদেরকে নিয়ে আমিও প্রতিবাদী পোস্ট দিয়েছিলাম,বিভিন্ন মাল্টি নিক থেকে বাজে গালিগালাজ শুনতে হয়েছে। প্রতিটি কদমে কদমে আমি অপমান হয়েছি,আমাকে ধর্মান্ধ বলা হয়েছে,ধর্মান্ধ বলতে কি বুঝায় আমি জানিনা। আমি জানি ধর্ম একটি স্পর্শকাতর বিষয়,ধর্মকে আঘাত করা মানে কারো বিশ্বাসে আঘাত করা।
এদিকে আর কথা বাড়াবোনা।

এখন সামুর সুদিন,এই ভার্চুয়াল লাইফে কিছু সুন্দর মনের মানুষের সাথে পরিচয় হওয়াতে নিজেকে আসলেই অনেক বেশি সৌভাগ্যবান মনে হয়।এই মানুষজনদের বিপদে আপদে অনেক বেশি কাছে পেয়েছি।এবং ভালোবাসাও পেয়েছি যত টূকু আশা ছিলো তার চেয়েও বেশি।কারও কারও সাথে কথা বলতে গিয়ে হাসতে হাসতে মরে গিয়েছিলাম কিংবা কারও সাথে তুমুল ঝগড়া দেন কথা বলা বন্ধ,আবার কারও কারও সাথে মান অভিমান হয়ে পরে আবার সব ঠিক !! আসলেই পৃথিবীর সব মানুষের মন বরই বিচিত্র!!!





এই ব্লগীয় লাইফে আসার পর কম উপাধি পাইনি।উপাধিগুলা না হয় নাই বা বললাম। আগে খারাপ লাগলেও এখন অবশ্য পুরোটাই ডোন্ট কেয়ার টাইপ হয়ে গেছি।যেই উলটা পালটা করে সোজা ব্লক মেরে সেইখানেই স্টপ করে দেই।কিন্তু কয়েকজনকে হাজার বার ব্লক করার কথা মনে আসলেও আজ পর্যন্ত ব্লক মারতে পারিনি।আর হয়ত কোনদিন পারবোও না।এর কারনটা অজানা।
কখনই ভাবিনি ব্লগটাকে বিদায় দিতে হবে। হাজারও ব্যস্ততা পরীক্ষা কিংবা শত কাজের পরও ব্লগে একবার হলেও ঢূ মেরে যেতাম। দিনে একবার ব্লগে না আসলে দিনটাই অসহ্য মনে হত। না কারও উপর রাগ বা অভিমান না নিজেই খুশী মনে চলে যাচ্ছি।
আমার এ চলে যাওয়াকে সাধুবাদ জানাবেন সবাই,কোন খারাপ বা বাজে মন্তব্য দিয়ে আমাকে আঘাত করবেন না।
ধন্যবাদ সবাইকে ।
আমার চিরকুট পাঠকদের অনেক মিস করবো।
:যে লিখতে জানে সে দশ বছর পরেও লিখতে পারবে:
ভালবাসা জানিবেন সবসময়।

মন্তব্য ২৫ টি রেটিং +১/-০

মন্তব্য (২৫) মন্তব্য লিখুন

১| ২৭ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ৯:২৩

আপেক্ষিক মানুষ বলেছেন: মানুষ হিসেবে যেহেতু সৃষ্টি হয়েছি, আলোচনা, সমালোচনা আমাদের শুনতে হবে সহ্য করতে হিবে। সমালোচনার ভিতর আমরা শিখব, গালিগালজে মানুষ চিনব। তাই বলে থেমে যাব কেন হে?

মান অভিমান থাকবেই, এটা নতুন কিছু নয়। একসাথে থাকতে গেলে দুটো কথা কাটাকাটি লাগবেই। মতের মিল হবে নআ সবার সাথে, এটাই স্বাভাবিক। তাই বলে বিদায় কেন বলবেন? ইসলামের একটি আদর্শ অবশ্যই জানেন যে আপনার উত্তম চরিত্র দ্বারা সকলকে আকৃষ্ট করবেন। কেউ গালি দিলে তাকে আবার গালি দিতে আহবান জানাবেন। একসময় জয় আপনারই হবে।

চলে যাবেন না, লিখতে থাকুন, অনুরোধ।

২৭ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ৯:৫৮

মেঘ প্রিয় বালক বলেছেন: ধন্যবাদ প্রিয়। ভালবাসা জানিবেন।

২| ২৭ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ১০:৪৫

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: প্রিয় মেঘ প্রিয় ভাই,

এভাবে ব্লগ ছেড়ে চলে যাওয়াতে আপনার সঙ্গে সহমত হতে পারলাম না। মান অভিমান থাকতেই পারে কিন্তু ছেড়ে চলে যাওয়াটা কখনই দূরদৃষ্টির পরিচয় নয়। ব্যবহারিক জীবনে আপনি যদি কোথাও মতবিরোধের সম্মুখীন হন, এমনকি নিজের সংসারেও; তাহলে কি সংসার ছেড়ে চলে যাবেন? বরং সহিষ্ণু হন। অন্যের প্রতিও ক্ষমাশীল হন। নিজেকে আরো ধৈর্যশীল করুন। সমালোচনা হজম করাটা বড় মনের পরিচয়। কিন্তু পাল্টা কুৎসিত ভাষায় প্রতিউত্তর দেওয়াটা কখনোই কাম্য নয়।

ফেসবুকের কল্যাণে আপনার বিদেশে সংবর্ধনার খবরটি পড়েছিলাম। সেখানে যে ব্যক্তিত্বের পরিচয় আমরা পেয়েছি তার সঙ্গে কিন্তু এই ভাবে চলে যাওয়াটা কখনই খাপ খায় না। ব্লগ একটি উন্মুক্ত প্ল্যাটফর্ম। আপনার কথাতে পরিষ্কার বিভিন্ন ভালো লোকের সান্নিধ্য পেয়েছেন।সুতরাং 2/4 জনের কথাতে আঘাত পেয়ে ব্লগ ছেড়ে যাওয়া আপনার সেই বন্ধু স্থানীয় ব্লগারদের প্রতি অবিচার নয় কি?

আসুন গত কয়েকদিনে মিলে আমরা যারা প্রচুর ঝগড়া করেছি, আজ সকলে মিলে কোলাকুলি করে এক অনাবিল আনন্দ উপভোগ করি এবং পাশাপাশি এক ব্লগীয় মানববন্ধন গড়ে তুলি।
শুভ ব্লগিং। ভালোবাসা জানবেন।




২৮ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ২:১৩

মেঘ প্রিয় বালক বলেছেন: ধন্যবাদ প্রিয় পদাতিক চৌধুরী,শেষ পোস্টে ভালবাসা ছাড়া অন্য কিছু বলতে চাইনা। আপনার পোস্ট বা আমার পোস্ট যদি কারো ভালো না লাগে সেজন্য কি বিভিন্ন নিক দিয়ে আপনাকে হয়রানী করা ভালো কাজ? আমি আর নিতে পারছিনা। শেষ হচ্ছে হবে,আস্তে আস্তে এই ব্লগে আসাটাও বন্ধ করে দিবো। তবে আমাার লিখা থেমে থাকবেনা। একটি কলম সবসময় আমার সাথেই থাকে। ভালবাসা নিরন্তর।

৩| ২৭ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ১০:৫৪

মুক্তা নীল বলেছেন:
মেঘ প্রিয় বালক ,
চলে যাওয়াটা কোনো সমাধান নয় ,পদাতিক দাদা
যা বলেছেন উনার সাথে আমি পুরোপুরি সহমত।
থাকুন যাবেন কেন ?

২৮ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ২:১৭

মেঘ প্রিয় বালক বলেছেন: প্রিয় মুক্তা নীল,আমার প্রিয় পাঠক,এই ব্লগে আপনিই একজন যিনি সবসময় আমাকে উৎসাহ দিয়েছেন,আপনার করা প্রতিটি মন্তব্য আমার জন্য প্রেরণা। তবে আমি চলে যাওয়াটাকেই বর্তমানে সমুচীন ভাবছি। আর ভালো লাগছেনা এখানে। ভালবাসা নিরন্তর আপনার প্রতি হে প্রিয় পাঠক।

৪| ২৭ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ১১:১১

জুনায়েদ বি রাহমান বলেছেন: চলে যায়েন ভাই? থাকুন।
ব্লগে ক্যাচাল থাকবোই। এইসব সিরিয়াসলি না নেওয়াই ভালো।

বেশি খারাপ লাগলে দুচারদিন বাইরে থেকে ঘুরে আসুন।

শুভকামনা সবসময়।

২৮ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ২:২০

মেঘ প্রিয় বালক বলেছেন: ধন্যবাদ প্রিয়,ভালবাসা জানিবেন,আমি এখানে লিখছিনা এটা ভাবতেই খারাপ লাগছে,তবে আমি শব্দের আঘাত নিতে পারবোনা দুষ্ট লোকের।

৫| ২৭ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ১১:২২

মাহমুদুর রহমান সুজন বলেছেন: আপনি চলে যাবেন শুনে খারাপ লাগছে। কিন্তু কেনো? প্রশ্নটি শুধুই অবান্তর কেননা আপনি যেরকম বুঝছেন আমি তার উল্টো হতে পারি। দর্শণ সব কিন্তু একি। একজন লেখন সত্তা তৈরী হয় সবার তরে। কেউ কেউ আবার নিজেকে গুটিয়ে নেয় মান অভিমানে এমন কিছু পর্যায় হলে বিবেচনা করবেন যেহেতু মন আপনার ভাবনা আপনারি। তবে ভার্চ্যুয়াল এই লাইফে হরেক রকম নিকের সাথে পরিচয় হওয়াই সাভাবিক। তাদের মধ্যে সবাই যে এক না তা বুঝেও আপনি রাঘ কিংবা অভিমান করে চলে যেতে পারেন না। যারা আপনার ভক্ত তার কোন অপরাধ করেনি হয়তো আপনার সাথে কেউ যদি কোন দূর্ব্যবহারর করেও থাকে তাদের এড়িয়ে চললেই হয়। তাদের সাথে নিজের সুন্দর ব্যবহার ওযোগ্যতা ও নিজের শক্তির আবেশে তাদেরকে পরিবর্তন করে নেওয়াই হয়তো ভাল হতো হত।

২৮ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ২:২৮

মেঘ প্রিয় বালক বলেছেন: যারা আমার পাঠক,তাদের কাছে আমিই অপরাধী আমি জানি,আমি আমার যোগ্যতা ও শক্তির আবেশে তাদেরকে পরিবর্তন করতে পারবোনা এটা আমার জানা আছে। আমি আপনার সাথে তখনি তর্ক করবো যখন আপনি তর্কে বিশ্বাসী হবেন,তর্ক ও যুক্তিকে গ্রহন করবেন। এখন আমি যদি সাবজেক্টের বাহিরে গিয়ে তর্ক করি,গালি দেই,আঘাত করি,তাহলে কিভাবে মেনে নিবো তাকে বা তাকে কিভাবে পরিবর্তন করবো?? বলা সহজ করে দেখানো কঠিন। আমি ব্লগ ছাড়ছি,লিখালাখি ছাড়ছিনা।

৬| ২৭ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ১১:২৭

বলেছেন: চলে যাওয়া কোন সমাধান নয়...
যুদ্ধের ময়দান থেকে তো পরাজিত সৈনিক হিসেবে চলে যাওয়া আর থেকে যাওয়া তো দায়িত্ব সেটা হয়তো নিজস্ব কিংবা সমগোত্রীয় সকলের মঙ্গলের জন্য।।।।


থাকার আকুলতা রইলো ভ্রাতা।।।।

২৮ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ২:৩০

মেঘ প্রিয় বালক বলেছেন: শান্তিপ্রিয় শাসক হতে চাই,অন্যায়ের বিরুদ্ধে বলতে চাই। ভালবাসা নিরন্তর শ্রদ্ধাভাজন ভ্রাতা।

৭| ২৮ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ১২:৪৯

শায়মা বলেছেন: ব্লগ থেকে কেউ আসলে যেতে পারে না ...... চেষ্টা করে লাভ নেই ভাইয়া!

২৮ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ২:৩৮

মেঘ প্রিয় বালক বলেছেন: কখনোই না,আমি এমনটা কখনোই করবোনা। আমি ১০০% শিউর আমি ব্লগ ছেড়ে চলে যেতে পারবো। তবে এটা এখন কয়েকদিনের ব্যাপার। কথাটা মিলিয়ে নিবেন প্রিয় রাধুনী।

৮| ২৮ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ২:১৯

জুনায়েদ বি রাহমান বলেছেন: শায়মা বলেছেন: ব্লগ থেকে কেউ আসলে যেতে পারে না ...... চেষ্টা করে লাভ নেই ভাইয়া!
- কথা সত্য। বলে কয়ে আসলে কেউ ব্লগ পুরাপুরি ছাড়তে পারে না। আবার আসে, নতুন পরিচয়ে...

২৮ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ২:৪০

মেঘ প্রিয় বালক বলেছেন: আমি চেস্টা করবোনা,আমি সফল হয়ে দেখাতে পারবো। এবদিন দুইদিনে তো ব্লগের প্রতি নেশা হয়নি,দীর্ঘদিনের নেশা,সময় লাগবে,আস্তে আস্তে ধীরে ধীরে ছাড়তে হবে। ভালবাসা নিরন্তর।

৯| ২৮ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ২:৪৩

জুনায়েদ বি রাহমান বলেছেন:
আমাদের জাতীয় কবি নজরুলের বিদ্রোহী কবিতা সমূহকে নিয়েও একটাসময় ব্যঙ্গ বিদ্রূপ করা হয়েছে।
সমালোচনার নামে সমালোচকরা এককালে শরতচন্দ্র, রবিন্দ্রনাথ, জীবনানন্দ দাসের মতো বিখ্যাত বিখ্যাত কবি-সাহিত্যিকদের শব্দের আঘাতে ক্ষতবিক্ষত করার গল্প আমরা জানি।
পথের পাঁচালী'র মতো ক্লাসিক উপন্যাসের রচয়িতা বিভূতিভূষণের লেখাও একশ্রেণীর মানুষের পছন্দ করতো না। কেউ কেউ বলতেন, এসব ফাও প্যাঁচাল। অথচ এখন?
সফল হতে হলে সমালোচনা সহ্য করে, এগিয়ে যেতে হবে ভাই।

১০| ২৮ শে জুলাই, ২০১৯ সকাল ৮:৫৯

রাজীব নুর বলেছেন: ব্লগও একটা নেশা।

১১| ২৮ শে জুলাই, ২০১৯ সকাল ১০:৪৫

কালো যাদুকর বলেছেন: ব্লগ ছাড়ার কি দরকার। যাদের সমলোচনা ভাল লাগবে না, তাদের এভয়েড করুন। কোথা্য় যাবেন বলেন, আপনি যাদের পছন্দ করবেন না, ওরা আপনার চারপাশে অন্যনামে আছে, থাকবে।

১২| ২৮ শে জুলাই, ২০১৯ সকাল ১১:৩৯

নীল আকাশ বলেছেন: মেঘ প্রিয় বালক,
আমি কে সেটা আর নতুন করে বলতে চাচ্ছি না। আপনার অভিমান এবং তার কারন আমি খুব ভাল করেই বুঝতে পারছি। এভাবে পিছু হটে যাওয়া আমার কাছে মোটেও ভাল লাগছে না। আমি আপনাকে এখানে কোনভাবেই হারাতে চাচ্ছি না। যুদ্ধে নামার আগেই হেরে যাওয়ার কোনই মানে হয় না।

আপনি ভুল করছেন। যা করছেন ব্লগে অনেক বদ ব্লগার ঠিক এটাই আপনার কাছে চাচ্ছিল। এদের খুশি করে চলে যাবেন না। সিদ্ধান্ত এখনই বদলান। আপনি একা নন। অস্থিরতা কাটিয়ে ফেলে আবার লিখতে শুরু করুন।

আপনার লেখা আমি প্রায় নিয়মিতই পড়ি। আমার সাথে ব্লগের অনেকেই পড়ে। সবার প্রকাশ ভঙ্গি এরকম নয় দেখে আপনার মনে হয়েছে আপনার জন্য কেউ কিছু বলে না।

যেটা আপনি করছেন সেটা হলো, এইসব বদ ব্লগারদের দেখিয়ে দিলেন কিভাবে ব্লগে সুস্থ চিন্তাভাবনার ব্লগারদের তাড়িয়ে দেয়া যায়। ব্যাকডোর দেখিয়ে দিচ্ছেন আপনি! ব্লগে এই রকম দৃস্টান্ত স্থাপন করে যাবে না, কোন ভাবেই না। আমি কি বলছি, কেন বলছি, কি পরিপ্রেক্ষিতে বলছি সেটা আশা করি বুঝতে পারছেন। সবাই আপনার আমার মতো ভাল পরিবেশ থেকে আসে নি। সামু ব্লগ কারও বাবা মায়ের কাছ থেকে পাওয়া পৈতৃক সম্পত্তি নয়। এটা আপনার আমার সবার!

আমি আপনাকে অনুরোধ করব আগামি প্রায় একমাস ব্লগ থেকে দূরে থাকুন। সামুতে লগইন পর্যন্ত করবেন না। মাথা থেকে ব্লগের সব চিন্তা ঝেড়ে ফেলুন। একমাস পরে দেখবেন সব অস্থিরতা এমনিতেই থেমে গেছে।

ইনসাল্লাহ, একমাস পরে এখানেই আপনার সাথে আমার আবার কথা হবে।

ধন্যবাদ এবং শুভ কামনা রইল!

১৩| ২৮ শে জুলাই, ২০১৯ দুপুর ১২:৪৭

এমজেডএফ বলেছেন:
ওহে চিরকুটের লেখক,
চলে যাবেন কেন? চলে গেলেন তো হেরে গেলেন! যে বিষয় নিয়ে আপনার সাথে কিছু লোকের বেশি ক্যাচাল হয় সে বিষয়গুলো বাদ দিয়ে অন্য কিছু নিয়ে লেখেন। যাদের সাথে বেশি ক্যাচাল হয় বা যারা অশালীন আচরণ করে তাদেরকে এড়িয়ে যান। তারপরেও যদি কেউ গায়ে পরে ঝগড়া করে তাদের কমেন্ট ব্যান করে দেন।
এটা সর্বজনস্বীকৃত যে পৃথিবীতে ভালো মানুষের চেয়ে খারাপ লোকের সংখ্যা বেশি। সামু ব্লগও এই পৃথিবীরই একটি অংশ।
শুভেচ্ছান্ত ---
চিরকুটের পাঠক

১৪| ২৮ শে জুলাই, ২০১৯ বিকাল ৩:১৬

কাওসার চৌধুরী বলেছেন:



"মেঘ প্রিয় বালক"
খুব সুন্দর একটি নিক। আপনার ব্লগে সম্ভবত এটাই আমার প্রথম কমেন্ট। শুভেচ্ছা রইলো। ব্লগে আলোচনা- সমালোচনা হবে। তবে অনেক সময় তা সীমানা অতিক্রম করে। কখনো কখনো লেখার বিষয়বস্তু বাদ দিয়ে ব্যক্তি আক্রমণ করা হয়। এটা মোটেও কাম্য নয়। আপনার সাথে এমনটি হলে এগুলোকে পাশ কাটিয়ে চলুন; নিজের লেখায় কোন দুর্বলতা থাকলে তা খোঁজে বের করুন। আপনার পোস্টে যে সমালোচনাগুলো হয়েছে এগুলো আবার পড়ে দেখুন; আত্মসমালোচনা করুন। দেখবেন মনের কষ্ট কমে যাবে। সমালোচকদের তীক্ষ্ণ বাঁকা কথাগুলোকে পজেটিভভাবে নিয়ে ব্লগে থাকুন। লেখার বিষয় ও মানে আরো মনোযোগী হোন। এতে আপনার লেখক সত্তা বিকশিত হবে।

ব্লগ ছেড়ে চলে যাওয়া মানে নিজের কাছেই হেরে যাওয়া। নিজের লেকক সত্তাকে লুকিয়ে ফেলা। নিজের যুক্তি আর ভাবনাগুলোকে দুর্বল করা। সমালোচনার জবাব সুন্দর করে যুক্তি দিয়ে দিলে সমালোচনাকারী খুশি হবেন। আপনার সম্বন্ধে ইতিবাচক মানসিকতা আসবে। অনেক সময় নতুনদের বাজিয়ে দেখতে সমালোচনা করা হয়। কয়দিন পরে তা ঠিক হয়ে যাবে।

আপনার পছন্দের বিষয় নিয়ে লিখুন; এতে সবচেয়ে উপকৃত হবেন আপনি। (ধন্যবাদ)

১৫| ২৮ শে জুলাই, ২০১৯ বিকাল ৩:৩৩

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: মন খারাপের কারণ আছে। তারপরও সৃষ্টি কিন্তু থেমে নেই। যারা সুদীর্ঘ সময় ব্লগিং করছেন। তারা বিভিন্ন সময় বিভিন্ন জনের কাজ থেকে আঘাত পেয়ে চলে যায় নি। তাই যারা সিনিয়র ব্লগার তাদের সম্মানও অনেক বেশি। কারণ তার হীরেকের মতই মূল্যবান। কাঠিন্যের স্কেলে তাদের মান ১০। তাই বলি মন খারাপ করবেন না। সারভাইভাল দা ফিটেস্ট। সো আরও ভাল কিছু লিখুন। হ্যাপী ব্লাগিং। লিখতেই থাকুন । :)

১৬| ২৮ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ১০:১১

আমিই মুসাফির বলেছেন: :যে লিখতে জানে সে দশ বছর পরেও লিখতে পারবে:

১৭| ২৬ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৪:৪২

শেহজাদী১৯ বলেছেন: আমি চলে গেছেন?

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.