নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

বাংলা ভাষা অনেক সুন্দর একটি ভাষা। বাংলা আমার ভাষা। বাংলা আমার দেশ।

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন

আমি কেউ না। কবে যে কেউ হতে পারবো।

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন › বিস্তারিত পোস্টঃ

Dr M (তুন ডাঃ মাহাথির) এর একটি সকাল

১৩ ই জুন, ২০২০ সকাল ৮:৪০



প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে পদত্যাগ করার পরে মালয়েশিয়ার Dr. M বলে পরিচিত সাবেক প্রধানমন্ত্রী তুন ডাঃ মাহাথির মোহামাদ এর এখন অনেকটা সময় থাকে অবসর।

নিজ হাতে প্রতিষ্ঠিত দল বারসাতু থেকে বহিস্কৃত হবার পর এখন তিনি দলহীন এক ব্যক্তি। শরীরটাকে ফিট রাখার জন্য তিনি যথেষ্ট সচেতন।

এই ছবিটা 2019 সালের আগস্ট মাসের মাঝামাঝি সময়কার । তিনি তখন প্রধানমন্ত্রী ছিলেন।

গত সোমবার (৮ জুন ২০২০) তিনি প্রশাসনিক রাজধানী পুত্রজায়ার লেকের পাড়ে সাইকেল চালাচ্ছেন । তাঁকে অনুসরণ করছেন আরো অনেকেই।

এখানে উল্লেখ করা যেতে পারে যে ১৯৬৯ সালে তিনি তাঁর সাবেক আরেকদল ইউনাইটেড মালয় অর্গানাইজেশন থেকেও বহিষ্কৃত হয়েছিলেন।

মন্তব্য ২০ টি রেটিং +২/-০

মন্তব্য (২০) মন্তব্য লিখুন

১| ১৩ ই জুন, ২০২০ সকাল ১০:২০

বিজন রয় বলেছেন: উনি তো অনেক গুণের নেতা, তাহলে বারবার বহিস্কৃত হন কেন?

১৩ ই জুন, ২০২০ সকাল ১১:৪০

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: উনি যাদেরকে নিয়ে দল গঠন করেছিলেন তারা অতিরিক্ত লোভী।
তারাট টাকা ইনকাম করতে চায়, জনগণের সেবা নয়।

২| ১৩ ই জুন, ২০২০ সকাল ১০:৩৪

সাইন বোর্ড বলেছেন: অনুপ্রাণিত হওয়ার মত, বিশ্বের একজন সেরা মডেলই উনি ।

১৩ ই জুন, ২০২০ সকাল ১১:৪১

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: উনার বয়স আরেকটু কম থাকলে উনার সাবেক যে সহকর্মী, সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী যিনি এখন প্রধানমন্ত্রী তাকেও কুপোকাত করে দিতে পারতেন । কেননা জনগণের মাঝে ঊনার বিশাল গ্রহণযোগ্যতা রয়েছে।

৩| ১৩ ই জুন, ২০২০ দুপুর ১২:৫৯

উদাসী স্বপ্ন বলেছেন: ৯৪ বছর বয়সে সাইক্লিং করে!!! এরকম গোল থাকা উচিত সবার

১৩ ই জুন, ২০২০ দুপুর ২:৪৬

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: পৃথিবীতে আমার মনে হয় উনি এক জনই আছেন। এরকম আর হয়নি, হবেও না।

৪| ১৩ ই জুন, ২০২০ দুপুর ১:১০

পদ্মপুকুর বলেছেন: ৯৪ বছরে আমাদের দেশের মানুষ সাধারণত নিজের পা-ই চালাতে পারে না, সাইকেল চালাবে কি করে!!!

১৩ ই জুন, ২০২০ দুপুর ২:৪৭

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: তিনি একটা অনন্য উদাহরণ । সব ক্ষেত্রেই।

৫| ১৩ ই জুন, ২০২০ দুপুর ১:৩৫

রাজীব নুর বলেছেন: মাহাথির ভালো মানুষ।

১৩ ই জুন, ২০২০ দুপুর ২:৪৮

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: তিনি এক জন দেশ প্রেমিক, ভালো মানুষ, ভালো নেতা। মানুষের কল্যাণে কাজ করেছেন । এখনো কাজ করতে চান।

৬| ১৩ ই জুন, ২০২০ বিকাল ৩:০৪

ভুয়া মফিজ বলেছেন: মালয়েশিয়ানরা একই সঙ্গে ভাগ্যবান, আবার দুর্ভাগা। ভাগ্যবান এই জন্য যে, তারা একজন মাহাথির মোহাম্মাদকে পেয়েছে। আর দুর্ভাগা এই অর্থে যে, বারে বারে তাকে পেয়েও হারাতে হচ্ছে।

১৩ ই জুন, ২০২০ বিকাল ৫:৩২

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: আপনি সঠিক বলেছেন।
কিন্তু এক্ষেত্রে অবশ্য সাধারণ জনগণের কিছু করার ছিল না । তাঁর সহযোগীরা তাঁর সাথে চক্রান্ত করে তাঁকে ক্ষমতা থেকে সরিয়ে দিয়েছে । তাঁর মন্ত্রিসভার বেশিরভাগ লোকই এখন নতুন মন্ত্রিসভার সদস্য। তাঁর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এখন প্রধানমন্ত্রী। মালয়েশিয়ার সংবিধানে বাংলাদেশের সংবিধানের মতো 70 অনুচ্ছেদ থাকলে তিনি এখনো প্রধানমন্ত্রী থাকতেন।

৭| ১৩ ই জুন, ২০২০ বিকাল ৩:১৬

নেওয়াজ আলি বলেছেন: সে একজন গ্রেট লিডার

১৩ ই জুন, ২০২০ বিকাল ৫:২৯

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: আমার জানামতে, তার মতো নেতা পৃথিবীতে বিরল । বলা যেতে পারে তিনি সর্বকালের সেরা নেতাদের এক জন।

৮| ১৩ ই জুন, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:০৭

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন:




মাহাথির মোহাম্মাদকে সামনা সামনি দেখার সুযোগ হয়েছে আমার। আমার জীবনে আর কোনো বড় মাপের মানুষ না দেখলেও চলবে। কারণ মাহাথির মোহাম্মাদের চেয়ে বড় মনের - বড় মাপের মানুষ আর এই পৃথিবীতে জন্মাবেন না। তিনি সর্বকালের সর্বসেরা মানুষ।

আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ।

১৩ ই জুন, ২০২০ রাত ৯:৪৭

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: তুন মাহাথির প্রতি শুক্রবার জাতীয় মসজিদে জুমার নামাজ পড়তে আসেন ।
এই সময় বাংলাদেশের অনেকেই তাঁর সাথে হ্যান্ডশেক করেছেন। ছবি তুলেছেন। আমার কাজ থাকায় আমি কখনও ওই মসজিদে জুম্মার নামাজ পড়তে যেতে পারিনি। আফসোস!

৯| ১৮ ই জুন, ২০২০ সকাল ৯:৩৩

খায়রুল আহসান বলেছেন: ওনার ভিশন ক্লীয়ার, এক্সপ্রেশনও ক্লীয়ার। তাই উনি এতটা সফল হতে পেরেছেন। এখন ওনার উচিত, বয়সটাকে মেনে নিয়ে নির্মল আনন্দের মাঝে জীবনের বাকিটা সময় কাটানো।

১৮ ই জুন, ২০২০ বিকাল ৫:২৪

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: উনার সহযোগীরা বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই উনার সাথে সহযোগিতামূলক আচরণ করেননি । শেষ বয়সে এসে একই রকম আচরণ পেয়েছেন তিনি।

১০| ১৮ ই জুন, ২০২০ সকাল ১০:১২

মাঈনউদ্দিন মইনুল বলেছেন:



জনাব খায়রুল আহসানের মন্তব্যে ডিটো দিচ্ছি সজোরে।
একটি সময় আমাদেরকে কাজ ছেড়ে দিতে হয় নতুন প্রজন্মের জন্য, না হয় মৃত্যু অথবা বহিঃষ্কার এসে সেটি করে দেয়।
তখন সেটি সুন্দর তো হয়ই না, নতুনদেরকে ভালোমতো হ্যান্ডওভারও করা যায় না।

পুরান নেতাদের একটি সার্বজনীন দোষ, সেটি হলো: নতুনেরা তার মতো পারবে না।
আহারে, আপনার মতো হয়তো পারবে না, কিন্তু তাদের মতো তো পারবে?
সময় কি বদলায় না, সেই সাথে চাহিদা? কিন্তু পুরান নেতারা মনে করেন, সময় ও চাহিদা তাদেরই মতো আছে।

আমাদের দেশেও একই সমস্যা না থাকলে, ডক্টর এমকে নিয়ে এতো কথা বলতাম না।
তিনি সত্যিই ভিশনারি, এই সম্মান থেকে তাকে কেউ বঞ্চিত করতে পারবে না।

১৮ ই জুন, ২০২০ বিকাল ৫:২৬

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: আপনি খুব সুন্দর একটা কথা বলেছেন।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.