নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

সেলিম আনোয়ার

[email protected] Facebook-selim anwar বেঁচে থাকা দারুন একটা ব্যাপার ।কিন্তু কয়জন বেঁচে থাকে। আমি বেঁচে থাকার চেষ্টা করি।সময় মূল্যবান ।জীবন তার চেয়েও অনেক বেশী মূল্যবান।আর সম্ভাবনাময়।সুন্দর।ঢাকাবিশ্বদ্যিালয়ের পাঠ চুকিয়ে নিরস চাকুরীজীবন।সামনে আরও নিরস ভবিষ্যৎ। নিরস জীবন সরসভাবে কাটানোর প্রচেষ্টায় আমি সেলিম আনোয়ার।

সেলিম আনোয়ার › বিস্তারিত পোস্টঃ

মনে পড়ে— একটি গোলাপ ফুল!!!!

২৬ শে জুন, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:৩৪




অনেক যতনে বেড়ে ওঠা
আমার একটি গোলাপ গাছে,
একটি লাল গোলাপ ফুল ফোঁটেছিল
অনেক দিন আগে।

লাল রঙের বড় একটি গোলাপ ফুল
সবার চোখে লাগে।
তারে আমি রাখিতাম চোখে চোখে
যেন অক্ষত থাকে।

দেখলে তারে মন জুড়িয়ে যেতো;
সুবাস যেন তার— মন কেড়ে নিতো।

একদিন রাতে গভীর ঘুমে স্বপ্ন দেখি
আমার সাধের রক্ত গোলাপ হায় কে নিয়ে যায় ?
স্বপ্ন দেখে অনেক ভোরে, ঘুম ভেঙে যায়
অবাক চোখে দেখি ,
গোলাপ সমেত ফুলের টব নাই !
তখন আমি স্কুলে পড়ি—
সেদিন ছিল একুশে ফেব্রুয়ারি
সেই হারানোর ব্যথা আমি— আজও ভুলিনি।

আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো .. শোক
গোলাপ হারিয়ে আমার দ্বিগুন বেড়ে যায়।
সেই গোলাপ হারার শোকে
এতদিন আর গোলাপ কিনিনি...

এবার কিনিলাম,
আবারো আমার গাছে ফোঁটেছে
একটি গোলাপ ফুল, অনেক দিন পর
গোলাপের সুবাসে রোজ আসে এক ভ্রমর।

এতদিন পর, সেই লাল গোলাপ—
ক্ষণে ক্ষণে মনে পড়ে যায়।

সেই হারানোর স্মৃতি, পুড়া মনে দুঃখ দিয়ে যায়।

মন্তব্য ২৮ টি রেটিং +১/-০

মন্তব্য (২৮) মন্তব্য লিখুন

১| ২৬ শে জুন, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:৪৫

রাজীব নুর বলেছেন: একটি গোলাপ আসলে একটি স্বপ্ন। ফুলের সাথে মানূষের অনেক মিল আছে।

২৬ শে জুন, ২০২০ রাত ৮:২৫

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: কমেন্টে এবং পাঠে অনেক ধন্যবাদ বিজ্ঞ ব্লগার রাজীব নূর । নিরন্তর শুভকামনা আপনার জন্য ।

২| ২৬ শে জুন, ২০২০ রাত ৮:১৩

শেরজা তপন বলেছেন: ---এর অন্তর্নিহিত তাৎপর্যটা যদি বুঝতে পারতাম? অপেক্ষা করছি- মাথা চুলকাচ্ছি; কিন্তু এই গদ্য লেখকের কবিতার মর্ম উদ্ধার করা অসম্ভব মনে হচ্ছে :(

২৬ শে জুন, ২০২০ রাত ৮:৫৪

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: আমি তখন ক্লাস ফোর এ পড়ি আমাকে এক প্রতিবেশি একটা টবসমেত একটি গোলাপ গাছ উপহার দিলেন। একটি মাত্র কলি ছিল। নিয়মিত পরিচর্যার পর গাছে ফুল ফুটল। সবসময় ফুলের কথা মনে পুলকিত মন এত সুন্দর গোলাপ লাল টকটকে অনেক বড়। ২১ ফেব্রুয়ারি রাতে স্বপ্নে দেখি কে আমার ফুল গাছ নিয়ে যাচেছ । ঘুমি চিৎকার দিয়ে ওঠি আমার ফুল গাছে নিয়ে গেল সত্যি ঘর থেকে বের হয়ে দেখি গাছটি নেই। চুরি হয়ে গেছে। এত সুন্দর গোলাপ গাছ হারিয়ে আমি দারুন কষ্ট পাই। করোনার দিনে গোলাপ গাছ নিয়ে আসছি গাছটিতে ফুল ধরেছে সাদা রঙের গোলাপ । গোলাপটি আমার অতীতের হারানো গোলাপ মনে করিয়ে দেয় ।

৩| ২৬ শে জুন, ২০২০ রাত ৮:৪১

সাইন বোর্ড বলেছেন: স্মৃতি, বেদনা এবং অনুভব সব মিলিয়ে ভাল লাগল ।

২৬ শে জুন, ২০২০ রাত ৮:৫৬

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: কমেন্টে এবং পাঠে অনেক ধন্যবাদ নিরন্তর শুভকামনা ।

৪| ২৬ শে জুন, ২০২০ রাত ৮:৪৬

নেওয়াজ আলি বলেছেন: অনিন্দ্য সুন্দর লেখনী ।

২৬ শে জুন, ২০২০ রাত ১০:১৬

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: কমেন্টে এবং পাঠে অনেক ধন্যবাদ নিরন্তর শুভকামনা ।

৫| ২৬ শে জুন, ২০২০ রাত ৮:৫২

পারভীন শীলা বলেছেন: রাতে গভীর ভাবে না ঘুমালে স্বপ্নটা দেখা হতো না আর সাধের গোলাপ টব সমেত হারাতো না । ভালো লাগলো ।

২৬ শে জুন, ২০২০ রাত ১০:২৩

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: তখন আমি স্কুল বালক । গভীর ঘুম বাধ্যতা মূলক ।

৬| ২৬ শে জুন, ২০২০ রাত ৯:৪৪

রাজীব নুর বলেছেন: আমার মন্তব্যের উত্তর দেওয়ার জন্য আপনাকে অনেক ধন্যবাদ।

২৬ শে জুন, ২০২০ রাত ১০:২৫

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: কমেন্টে এবং পাঠে অনেক ধন্যবাদ নিরন্তর শুভকামনা ।

৭| ২৬ শে জুন, ২০২০ রাত ১০:৪১

চাঁদগাজী বলেছেন:



লাল গোলাপ হৃদয়ে মাঝে ফুটে থাকুক, টবের গোলাপ সময়ের সাথে বিদায় নিলেও হৃদয়ে থেকে যাবে ১টি লাল গোলাপ

২৬ শে জুন, ২০২০ রাত ১০:৪৪

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: চাঁদগাজী অভিনন্দন আপনাকে। আপনি আমার ব্লগবাড়িতে আসাতে মনটা ভাল হয়ে গেল ।

৮| ২৬ শে জুন, ২০২০ রাত ১০:৪৮

মাহমুদ রহমান (মাহমুদ) বলেছেন: চাঁদগাজী সুন্দর মন্তব্য করেছেন।
নষ্টালজিক
শুভেচ্ছা সেলিম ভাই।

২৬ শে জুন, ২০২০ রাত ১০:৫৬

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: মাহমুদ রহমান কমেন্ট এবং পাঠে অনেক ধন্যবাদ ।

৯| ২৭ শে জুন, ২০২০ ভোর ৫:৪৩

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন:
সারা পৃথিবীটা গোলাপবাগান হয়ে যাক।
ফুটে উঠুক মিলিয়ন বিলিয়ন গোলাপ।
সুবাসিত হোক ধরাধাম।

২৭ শে জুন, ২০২০ রাত ৯:০৩

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন,

কমেন্টে এবং পাঠে অনেক ধন্যবাদ নিরন্তর শুভকামনা ।

১০| ২৭ শে জুন, ২০২০ ভোর ৫:৫৪

ইসিয়াক বলেছেন:


চমৎকার স্মৃতিকথা থেকে চমৎকার কবিতা।
শুভসকাল

২৭ শে জুন, ২০২০ রাত ৯:০৩

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: ইসিয়াক

কমেন্টে এবং পাঠে অনেক ধন্যবাদ নিরন্তর শুভকামনা ।

১১| ২৭ শে জুন, ২০২০ বিকাল ৪:২১

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: কবিতা সুন্দর হয়েছে। ঢাকার পিলখানার ভিতর আগে বহু রকমের গোলাপের বাগান ছিল। এখন আছে কি না জানি না।

২৭ শে জুন, ২০২০ রাত ৯:০৪

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: সাড়ে চুয়াত্তর

কমেন্টে এবং পাঠে অনেক ধন্যবাদ নিরন্তর শুভকামনা । আপনার এমন হওয়ার প্রেক্ষপট কি?? :)

১২| ২৭ শে জুন, ২০২০ বিকাল ৫:১০

শেরজা তপন বলেছেন: ও এইবার বুঝলাম- আমি ভেবেছিলাম অন্য কোন গোলাপের কথা বলছেন! :)

২৭ শে জুন, ২০২০ রাত ৯:০৬

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: সেই গোলাপ আমারই আছে । কমেন্টে অনেক ধন্যবাদ ।নিরন্তর শুভকামনা ।

১৩| ২৭ শে জুন, ২০২০ রাত ৯:১৯

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: আমি ছোট কালে ওখানে এক বছর ছিলাম বাবা মার সাথে। পিলখানা ছিল ঢাকা শহরের ভিতর একটা সুন্দর বাগান। এখন অবস্থা আসলে জানি না। শেষ গিয়েছিলাম ২০০৭ সালে বাবা যখন মারা যায়।

২৭ শে জুন, ২০২০ রাত ৯:৩৩

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: আপনার বাবার জন্য শুভকামনা । পিলখানা শুনলেই কেমন পিলে চমকে যায় আমি যেদিন ব্যাংক জবে জয়েন করার জন্য রওয়ানা দেই সেদিন পিলখানা হত্যাকান্ড ঘটে। আমি ব্যাংকে জয়েন করি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দুজন সম্মাানিত শিক্ষকের সঙ্গে মাইক্রোতে। সুব্রত স্যার জিল্লুর স্যার তখন সিডিএমপির দায়িত্বে তখন শ্রদ্ধেয় মাকসুদ কামাল স্যার। আমি তাদের সঙ্গে সুযোগ পাই কারণ তাদের ভ্রমনের উদ্দেশ্য ছিল ফ্লাশ ফ্লাডের আর্লি ওয়ার্নিং ডিভাইস ইন্স্টল করা সুরমা নদীর তিনটি পয়েন্টে। পয়েন্টগুলো আমি নির্ধারন করি। মনে আছে একটি লস প্রজেক্ট শুধু আমার পরিশ্রম আর বুয়েটের একজন প্রকৌশলীর ডিভাই স আবিষ্কারের মধ্য দিয়ে সফলতা লাভ করে।

১৪| ২৭ শে জুন, ২০২০ রাত ৯:৩৮

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: আপনাকে লস প্রজেক্ট রক্ষার জন্য আর্থিক পুরুষকার দেয়া উচিত ছিল। আমি পিলখানাতে ১৯৮৪ সালে ছিলাম।

২৭ শে জুন, ২০২০ রাত ৯:৪৪

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: আর্থিক পুরস্কার মুখ্য বিষয় নয়। বিষয় হলো কাজে সফলতা । ফরেন এক্সেঞ্জ কর্পোরেট শাখা জনতা ব্যাংক একবারই লাভ করে তখন কাজের স্বীকৃতি হিসেবে পুরষ্কার পেয়েছিলাম একটি সনদ। সে ব্লাঞ্চ পরে আর কোন দিন লাভ করেছে কিনা আমার জানা নাই ।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.