নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

আমার লেখা কারো ভালো লাগলে ০১৮১৫৩৩৮৩৭৫ নাম্বারে বিকাশ কিংবা লোড নতুবা ডাক বিভাগের সেবা নগদে মজুরি পাঠালে আমি গর্ববোধ করবো ৷ আমার জীবনের বেশীরভাগ সময় আমি লিখে কাটাতে চাই, আমার ফেসবুকের ঠিকানা, www.facebook.com/abdur.sharif

আবদুর রব শরীফ

আমার লেখা কারো ভালো লাগলে ০১৮১৫৩৩৮৩৭৫ নাম্বারে বিকাশ কিংবা লোড নতুবা ডাক বিভাগের সেবা নগদে মজুরি পাঠালে আমি গর্ববোধ করবো ৷ আমার জীবনের বেশীরভাগ সময় আমি লিখে কাটাতে চাই, আমার ফেসবুকের ঠিকানা, www.facebook.com/abdur.sharif অথবা Abdur Rob Sharif

আবদুর রব শরীফ › বিস্তারিত পোস্টঃ

ফিলিং হট্

২৬ শে মার্চ, ২০২০ বিকাল ৩:০৫

করোনায় প্রায় সব দেশ আক্রান্ত হয়েছে আমি যা চেষ্টা করেছি তা হলো কমপক্ষে ১০০ জনের উপরে মারা গিয়েছে সেসব দেশের মার্চ মাসের আবহাওয়া সম্বন্ধে একটু ধারণা নেওয়ার চেষ্টা!
.
ইতালীর উত্তরে মার্চ মাসের সর্বনিম্ন এবং সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ২ থেকে ১৩, মধ্যমে ৭ থেকে ১৬ আর দক্ষিণে ১০ থেকে ১৬ ডিগ্রী সেলসিয়াস এবং করোনায় মোট মৃত্যুর সংখ্যা ৭৫০৩ জন,
.
স্পেনে উত্তরে মার্চ মাসের সর্বনিম্ন এবং সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ১৪ থেকে ২০ আর দক্ষিণে ৯ থেকে ২০ ডিগ্রী সেলসিয়াস এবং করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা ৩৬৪৭ জন,
.
চায়না'তে উত্তরে মার্চ মাসের সর্বনিম্ন এবং সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ১ থেকে ১২ আর দক্ষিণে ১০ থেকে ১৭ ডিগ্রী সেলসিয়াস এবং করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা ৩২৮৭ জন,
.
ইরানে মার্চ মাসের সর্বনিম্ন এবং সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৮ থেকে ১৭.২ ডিগ্রী সেলসিয়াস এবং করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা ২০৭৭ জন,
.
ফ্রান্সে মার্চ মাসের সর্বনিম্ন এবং সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৮ থেকে ১২ ডিগ্রী সেলসিয়াস এবং করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা ১৩৩১ জন,
.
আমেরিকায় মার্চ মাসের সর্বনিম্ন এবং সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৬.৮ থেকে ১৬.৬ ডিগ্রী সেলসিয়াস করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা ১০৩২ জন,
.
যুক্তরাজ্যে মার্চ মাসের সর্বনিম্ন এবং সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩ থেকে ১০ ডিগ্রী সেলসিয়াস এবরং করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা ৪৬৫ জন,
.
নেদারল্যান্ডে মার্চ মাসের সর্বনিম্ন এবং সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩ থেকে ১১ ডিগ্রী সেলসিয়াস করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা ৩৫৬ জন,
.
জার্মানিতে মার্চ মাসের সর্বনিম্ন এবং সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ১ থেকে ৮ ডিগ্রী সেলসিয়াস করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা ২০৬ জন,
.
বেলজিয়ামে মার্চ মাসের সর্বনিম্ন এবং সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩ থেকে ১০ ডিগ্রী সেলসিয়াসকরোনায় মৃত্যুর সংখ্যা ১৭৮ জন,
.
সুইজারল্যান্ডে মার্চ মাসের সর্বনিম্ন এবং সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ১ থেকে ১১ ডিগ্রী সেলসিয়াস এবং করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা ১৫৩ জন,
.
সাউথ কোরিয়ায় মার্চ মাসের সর্বনিম্ন এবং সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ২ থেকে ৯ ডিগ্রী সেলসিয়াস এবং করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা ১৩১ জন,
.
একটা জিনিস খেয়াল করলে দেখবেন সর্বোচ্চ মৃত্যুহারের প্রায় সব দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রাও কিন্তু ২০ ডিগ্রী সেলসিয়াসের নিচে,
.
বাংলাদেশে সাধারণত মার্চ থেকে মে মাস হলো গ্রীষ্ম কাল এবং এই সময়গুলোতে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২১ থেকে ৩৮ ডিগ্রা সেলসিয়াসের মধ্যে থাকে,
.
আমাদের দেশে করোনাতে ৫ জনের মৃত্যু হয়েছে যদিও আমরা অনেকে তা বিশ্বাস করিনা কারণ অাক্রান্ত নির্ভর করে সনাক্তের উপর ভিত্তি করে, মৃত্যু হারও তেমনি!
.
তবুও আমরা সবাই খুবি ভয়ের মধ্যে আছি কারণ আমাদের শেষ আশ্রয়স্থল ডাক্তারদেরও পর্যাপ্ত পিপিই কিংবা চিকিৎসা, সচেতনতা নেই, করোনা রুগী মনে হলে এখন হাসপাতালগুলোতে চাচা আপন প্রাণ বাঁচা ৷
.
আমাদের একমাত্র প্রতিরোধ ব্যবস্থা হলো সচেতনতা, বাসায় থাকা আর শেষ ভরসা আবহাওয়া,
.
আল্লাহর রহমতে তাপমাত্রা আমাদের পক্ষে আছে, অশেষ শুকরিয়া নাহলে মনে হচ্ছে বাসায় রাস্তায় রেস্তোরায় কেবলি লাশের পাহাড় পরে থাকতো....!
.
এখনো ভয়ে আছি....., বাসায় আছি, ইনশাল্লাহ কাজ ছাড়া বের হবো না, চবির শোভাকলোণীতে আমার বাসার কয়েক বাসা পর বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিনে আছে একটি প্রবাসীর পরিবার....!
.
এলাকাবাসী প্রশাসন প্রক্টর যথেষ্ট সচেতন, বেপারটা আশার আলো! আমি আপাতত ফ্যান বন্ধ করে ঘামছি...! হট্ লাগছে!

মন্তব্য ৪ টি রেটিং +০/-০

মন্তব্য (৪) মন্তব্য লিখুন

১| ২৬ শে মার্চ, ২০২০ বিকাল ৩:১৩

নেওয়াজ আলি বলেছেন: নিজে সচেতন হই। অন্যকে সচেতন করি।

২| ২৬ শে মার্চ, ২০২০ বিকাল ৪:৩৩

নতুন বলেছেন: তাপমাত্রা আমাদের অনুকুলে, কারন ভাইরাস বা ব্যক্টেরিয়া বেশি তাপে বেশি কায`কর থাকেনা এবং ছড়ায়ও কম।

তাই আমাদের দেশে কমিউনিটি স্প্রেডিং টা তেমন হবেনা। যেটা হবে সেটা ঘরের ভেতরে নিজের পরিবারের মানুষের কাছ থেক।

তাই যারা দেশের বাইরে থেকে এসেছে সেখান থাকে আক্রান্ত হয়ে দেশে পরিবারের মুরুব্বিদের আক্রান্ত করার ঝুকি বাড়াবে।

যাদের বাড়ী মুরু্‌ব্বি আছে তাদের জন্য বিশেষ নজর দেওয়া উচিত।

আর সরাসরি বা কাছা কাছি না থাকলে এতে আক্রান্ত হবার ঝুকি তেমন নাই। কারন এটা বাতাসে উড়ে বেরাচ্ছেনা।

আশা করি দেশে এই লক্ডডাউনের করোনা বিস্তার রোধ হবে।

৩| ২৬ শে মার্চ, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:৫৫

চাঁদগাজী বলেছেন:


তাপমাত্রা সাহায্য করছে, ভাইরাসের বিবর্তন ঘটছে, বাংলাদেশের কেহ যদি ভাইরাসটির ষ্ট্রাকচার দেখার চেষ্টা করতো, একটা বড় ধরণের কাজ হতো।

৪| ২৬ শে মার্চ, ২০২০ রাত ৯:১০

রাজীব নুর বলেছেন:

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.