নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

আমার লেখা কারো ভালো লাগলে ০১৮১৫৩৩৮৩৭৫ নাম্বারে বিকাশ কিংবা লোড নতুবা ডাক বিভাগের সেবা নগদে মজুরি পাঠালে আমি গর্ববোধ করবো ৷ আমার জীবনের বেশীরভাগ সময় আমি লিখে কাটাতে চাই, আমার ফেসবুকের ঠিকানা, www.facebook.com/abdur.sharif

আবদুর রব শরীফ

আমার লেখা কারো ভালো লাগলে ০১৮১৫৩৩৮৩৭৫ নাম্বারে বিকাশ কিংবা লোড নতুবা ডাক বিভাগের সেবা নগদে মজুরি পাঠালে আমি গর্ববোধ করবো ৷ আমার জীবনের বেশীরভাগ সময় আমি লিখে কাটাতে চাই, আমার ফেসবুকের ঠিকানা, www.facebook.com/abdur.sharif অথবা Abdur Rob Sharif

আবদুর রব শরীফ › বিস্তারিত পোস্টঃ

রম্য, ত্রাণ কেড়ে নেওয়ার কারণ

০৮ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ৯:১৬

কেনো এমপির দেওয়ার ত্রাণ ছিনিয়ে নিয়েছে স্থানীয় নেতা?
.
করোনার ক্রান্তিকালে এমপির দেওয়া ত্রাণ গরীব মানুষরা কষ্ট করে রান্না করতে হবে ভেবে মানবতার খাতিরে রেঁধে দেওয়ার জন্য হয়তো ছিনিয়ে নিলেন স্থানীয় নেতারা ৷
.
হয়তো এমপির দেওয়া ত্রাণ স্থানীয় নেতা ছিনিয়ে নিয়ে তার গরীবের ঘরে রোজ দুই বেলা দুই মুঠো খাওয়াবেন ভাবছিলেন!
.
আরো হতে পারে, একসাথে নিরাপদ দূরত্বে কাঙ্গালী ভোজের আয়োজন করবেন যাতে বাদ যাবে না একটি গরীব শিশু ও,
.
এমনও হতে পারে চাল ডাল নুন তেল দিয়ে তো বিরানী হয় না, আরো কিছু লাগে তার চেয়ে বরং ত্রাণ ছিনিয়ে নিয়ে বিরিয়ানি করে খাওয়াবেন!
.
তারা তো জন দরদী, অনেকটা খালি পেটে গরীবরা এতো কষ্ট করে সেগুলো মাথায় বহন করে নিয়ে যাচ্ছিলেন ভেবে নেতার বুক কেঁপে উঠেছিলো আর ভাবলেন ছিনিয়ে নিয়ে কষ্ট লাগব করবেন,
.
মানবতা এখনো মরে নাই...
.
চারদিকে সব খারাপ খবর, এর মধ্য থেকে ভালো খবরের খোঁজ করতে হবে মশার বাচ্চার কৌতুকের মতো,
.
মশার বাচ্চা নতুন উড়তে শিখেছে তা দেখে তার বাবা বললো, বৎস তুমি তো ভালোই উড়তে শিখেছো!
.
মশার বাচ্চা উত্তর করলো, 'শুধু তা না, মানুষগুলো আমাকে উড়তে দেখে খুশিতে হাত তালি ও দিচ্ছিলো'
.
দুঃখের দিনে ত্রাণ কেড়ে নেওয়া নেতাকে দেখে এখন হাত তালি দিতে ইচ্ছে হচ্ছে,
.
ত্রাণের বস্তাতে কিছু মাছ গোস্ত ভরে দিয়ে পুনরায় সেগুলো তাদের ঘরে পৌঁছে দেওয়ার মানসিকতাও থাকতে পারে, কতদিন আর ডাল ভাত ভালো লাগে!
.
একখানা বেপার এমনও হতে পারে, সবাই সমান সংখ্যাক ত্রাণ পেয়েছেন কি না সেগুলো মেপে দেখার জন্য তাকে নিতে হয়েছে ছিনিয়ে নেওয়ার এমন অভিনব কায়দা ৷
.
আরেকখানা বেপার এমন হতে পারে, তিনি লক্ষ্য করেছেন খাওয়ার সময় নিরাপদ দূরত্ব বজায় রাখছে না এলাকার লোক তাই এমন কোন ব্যবস্থা করবেন যাতে পেটও ভরবে, করোনাও মোকাবেলা হবে ৷
.
নেতাজী চেয়েছিলেন নিজেই ত্রাণ বিতরণ করতে কারণ এমপি সাহেব না ও চিনতে পারে কে মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের লোক আর কে বিপক্ষের,
.
কথায় আছে , চায়নাতে এতো মানুষ তারা কাঠি দিয়ে না খেয়ে যদি আমাদের মতো হাত দিয়ে খেতো তাহলে পৃথিবীতে নাকি দুর্ভিক্ষ লেগে যেতো!
.
আমাদের গরীবরাও নাকি বেশী খায় যদি সব ত্রাণ কয়েকদিনে শেষ করে ফেলে তাহলে দেশে খাদ্যের অভাব দেখা দিতে পারে তাই জনৈক নেতা ছিনিয়ে নিয়ে অল্প অল্প করে বিতরণ করবে ভাবছিলেন!

মন্তব্য ৩ টি রেটিং +০/-০

মন্তব্য (৩) মন্তব্য লিখুন

১| ০৮ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ৯:৩৯

রাজীব নুর বলেছেন: গোল আলু নাম হলেও তা কি রকম গোল সে তো দেখছেনই।

২| ০৯ ই এপ্রিল, ২০২০ রাত ১:২৩

নেওয়াজ আলি বলেছেন: চমৎকার

৩| ০৯ ই এপ্রিল, ২০২০ দুপুর ১২:৫০

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: আমাদের সব সময় positive thinking এ বিশ্বাস করতে হবে।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.