নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

নিজের পোস্টের উত্তর দিতে দেরী হয় সেজন্যও সরি।

কাজী ফাতেমা ছবি

সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। লেখকের অনুমতি ব্যতীত যে কোন কবিতা, গল্প, ছড়া, রম্য ইত্যাদি সাহিত্যকর্ম যে কোন গনমাধ্যমে যেমনঃ-ম্যাগাজিন, ফেসবুক, ব্যক্তিগত ব্লগ, সামাজিক মাধ্যম, পত্রিকা ও ওয়েবসাইটে প্রকাশ নিষিদ্ধ। বাংলাদেশ কপিরাইট আইন, ২০০০ লংঘন একটি শাস্তিযোগ্য ও দণ্ডনীয় অপরাধ। কপি পেস্ট-ভ্রমরের ডানা”

কাজী ফাতেমা ছবি › বিস্তারিত পোস্টঃ

ফ্রেমবন্দির গল্প-২

১৯ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ১২:১০

©কাজী ফাতেমা ছবি
=ফ্রেমবন্দির গল্প=
গত এপ্রিল মাসে আম্মাকে নিয়ে গিয়েছিলাম ইসলামিয়া ইস্পাহানী চক্ষু হাসপাতাল চোখ দেখাতে। সেখানে চোখ দেখাতে অনেক ঘুরাঘুরি করতে হয়। ফাইল কাগজপত্র এখান থেকে সেখানে, সেখান থেকে ওখানে এমন ঘুরতেই থাকে যার কারণে পুরো একটা দিন মাটি হয়। যাই হোক হাসপাতালটা আসলেই খুব সুন্দর। আমার খুব ভালো লেগেছে। সেখানে কেবল গাছ আর গাছ। রাতেও বেশ ভালো লাগে। সুন্দর লাইটিং সিস্টেম পরিবেশ বদলে দেয়। মনোরম পরিবেশে দু'দন্ড বসলেও শান্তি।

আম্মাকে সিরিয়ারে দেখাতে গিয়ে অপেক্ষায় বসে থাকতে হয়েছে অনেকক্ষণ। ফাঁকে উঠে একটু ঘুরলাম হাসপাতালের পিছন দিকটায়। কী সুন্দর গাছগাছালি আর কত রঙ বেরঙের ফুল ফুটে আছে মাশাআল্লাহ। আমি মুগ্ধ হতে ভালোবাসি আর প্রকৃতি হচ্ছে আমার সত্য ভালোবাসা। সব কিছু ভুলে যাই এতটুকুন স্পর্শ পেলে প্রকৃতির।

আমি হলাম ছবি পাগলা, একখান মোবাইল থাকলেই হলো। হাজার হাজার ক্লিক পড়ে যায় এটা সেটাতে । সেদিনও তেমন করে অনেক ছবি উঠিয়েছি। তার মাঝে এই হলুদ কসমস ফুল। আরেকটা ব্যাপার হলো আমার ছবি তোলার ভাগ্যটা কেমন যেনো, সেই দুপুরের রোদ বেলা হয় আমার ছবি উঠানোর মুহুর্ত, যার ফলে ছবির রঙ অনেক উজ্জ্বল হয়ে যায়। এগুলো এডিট করা যায় না, সে আরেক ঝামেলা। হাঁটতে হাঁটতে এই কসমস বাগানে অনেকক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকি। হাওয়ার দোলনায় ওরা দুলছে আহা কী মনোলোভা দৃশ্য, না দেখলে বুঝা যাবে না । ফটো তুলতেছি এমন সময় হাজির এই ভোলতা আমরা হবিগঞ্জে বলি বলা, কামড় দিলে খবর আছে হাহাহা।

আমার সাথে যারা ছিলো তারা ভয়ে দূরে সরে গেলো কিন্তু আমি নাছোরবান্দা ফটোও তুলবো আবার ভিডিও-ও করবো। ছবি তোলার ব্যাপারটা হলো একলা থাকার । কিন্তু যখনই ছবি তুলবো হাজার বাঁধা এসে পড়ে সামনে। এই আয় আয় সময় নাই আর ছবি তুলতে হবে না। তাড়াতাড়ি আয়। কত ছবি তুলছি -এই যা ছবি তোলার বারোটা বাজিয়ে ছাড়ে কাছের মানুষরা হাহাহা। তবুও ফাঁকফোঁকরে অনেক উঠায় ফেলি।

। আমার মুগ্ধতাদের আপানারও দেখুন ভালো লাগবে। রাতের ছবিগুলোর গল্প না হয় আরেকটি আরেকটা পোস্টে দেয়া যাবে। রাতের ছবিগুলোও বেশ সুন্দর আসছে মাশাআল্লাহ।
১।
হলুদ আলোর প্রহর দিলাম, বন্ধু নেবে তুমি?
দখল দেবে আমায় তুমি, তোমার বুকের ভুমি?
কসমস ফুলের রঙও দেবো, মুগ্ধ করবে আঁখি?
বুক পকেটে রাখবে তোমার, সুবাস নেবে মাখি?
আমার দেয়া হলুদ আলো, চোখে দেবে ছুঁয়ে?
প্রেম দেখবে কী চোখের আয়নায়, একটুখানি নুয়ে।
সোনার আলোর প্রহর দিলাম, নাও না বুকে তুলে
বন্ধু তুমি যেয়ো না আর, এই আমাকে ভুলে।
দিনদুপুরে দেবে হানা, আমার মনের ঘরে
কসমস ফুল দেবে তুলে, আমার আঁচল ভরে?
মুগ্ধতার চোখ নেবে তুমি, চুপ তাকিয়ে চোখে
একটু তাকাও দেবো তোমায়, অলীক মন্ত্র ফুঁকে।



২।
ভ্রমর এসে ফুল ছুঁয়ে যায়, ছুঁও না চোখের পাতা
ছন্দ ছাড়া থাকে খালি, আমার কাব্যের খাতা;
কেমন তুমি ছুঁও না তো মন, দাও না আলোর প্রহর
পাথর ভরা মনের শহর, সেথা নেই প্রেম লহর।
তুমি যদি ফুল হও বন্ধু, আমি হবো ভ্রমর
মন ভরা কী তোমার বাপু, সাগর সম গুমর?
উড়ে এসে বসবো বুকে, ভ্রমর হবো আমি
তোমার আমার সময়গুলো, হীরার চেয়ে দামী।
সোনার আলোর প্রহর আমার, মন ভ্রমরার গুঞ্জন
তুমি হয়ো শালিক পাখি, হবো আমি খঞ্জন।
(স্যামসাং এস নাইন প্লাস)




১।


২।


৩।


৪।


৫।


৬।


৭।


৮।


৯।


১০।


১১।


১২।

মন্তব্য ৩৬ টি রেটিং +৭/-০

মন্তব্য (৩৬) মন্তব্য লিখুন

১| ১৯ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ১২:২৮

রাজীব নুর বলেছেন: সব তো একই রকম ছবি হয়ে গেল প্রায়।

এই হাসপাতালটি বেশ ভালো। তবে প্রচুর রোগী আসে।

১৯ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ১২:৩০

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: বিভিন্ন ভঙ্গিমায় বসা ভোলতা

ধন্যবাদ ভাইয়া ভালো থাকুন

২| ১৯ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ১২:৩৪

চাঁদগাজী বলেছেন:


হাসপাতালটা সুন্দর হলে, উহা দেখার জন্য চোখ খারাপ হওয়ার আগেই ওখানে যাওয়ার দরকার।

১৯ শে জুলাই, ২০১৯ সকাল ১১:৫০

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: একদম ঠিক কথা, আগেই দেখতে হবে।

ধন্যবাদ মুরুব্বি, ভালো থাকুন সুস্থ থাকুন

৩| ১৯ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ১:০৯

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: সুন্দর।+

১৯ শে জুলাই, ২০১৯ সকাল ১১:৫০

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: জাজাকাল্লাহ খাইরান ভাইয়া ভালো থাকুন সুস্থ থাকুন সব সময়

৪| ১৯ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ২:০৯

মুক্তা নীল বলেছেন:
ছবি আপা ,
মুগ্ধতার চোখ নেবে তুমি, চুপ তাকিয়ে চোখে
একটু তাকাও দেবো তোমায়, অলীক মন্ত্র ফুঁকে ---
সত্যি ভীষণ মুগ্ধতা রেখে গেলাম । গানের ভিডিও দুটি
ভালো লেগেছে +++
শুভকামনা সবসময় ।

১৯ শে জুলাই, ২০১৯ সকাল ১১:৫১

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: সুন্দর মন্তব্যে অনুপ্রাণিত আপি। একটি পোস্ট সফল এখানেই। জাজাকিল্লাহ খাইরান আপি ভালো থাকুন সুস্থ থাকুন সুস্থ থাকুন সব সময়

৫| ১৯ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ৩:১২

আপেক্ষিক মানুষ বলেছেন: এই মেঘ এই রোদ্দুর কি আপনার ইউটিউব চ্যানেল? মাত্রই সাবস্ক্রাইব করে এলাম B-)

ছবি গুলো এক কথায় অসাধারণ!

১৯ শে জুলাই, ২০১৯ সকাল ১১:৫২

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: জি ভাইয়া। জাজাকাল্লাহ খাইরান ভাইয়া ভালো থাকুন সুস্থ থাকুন সব সময়

৬| ১৯ শে জুলাই, ২০১৯ ভোর ৬:২৫

সৈয়দ তাজুল ইসলাম বলেছেন: আপু,
ছবিগুলো বরাবরের মত মনোমুগ্ধকর। আর কবিতাও ভাল হয়েছে। আচ্ছা, একটা ছবির ব্যাকগ্রাউন্ড সবুজ না হয়ে অন্য রকম হলো কেন?



সবশেষে মা শা আল্লাহ বলার মতই।

১৯ শে জুলাই, ২০১৯ সকাল ১১:৫৩

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: কত নম্বর ছবিটা ভাইয়া? মনে হয় অটো কারেক্ট দিয়েছিলাম। সুন্দর মন্তব্যে অনুপ্রাণিত। জাজাকাল্লাহ খাইরান ভাইয়া ভালো থাকুন সুস্থ থাকুন সব সময়

৭| ১৯ শে জুলাই, ২০১৯ সকাল ৯:১৮

নীল আকাশ বলেছেন: আজকের কবিতগুলি আমাকে ছবির চাইতেও মুগ্ধ করেছে। ২টা কবিরাই মন ছুয়ে গেল। বেশ কয়েকবার পড়লাম।
এই হাস্পাতাল বেশ পুরানো এভং খুব রিলায়বল।
অফ টপিকঃ এত এত ছবি আপনি রাখেন কোথায়?
ধন্যবাদ এবং শুভ কামনা রইল!

১৯ শে জুলাই, ২০১৯ সকাল ১১:৫৪

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: লেখা এবং কষ্ট করে পোস্ট দেয়া এখানেই স্বার্থক হয় ভাইয়া। মোবাওল থেকে পোস্ট দিয়েছিলাম। গুগল ড্রাইভে আপাতত। জাজাকাল্লাহ খাইরান ভাইয়া ভালো থাকুন সুস্থ থাকুন সব সময়

৮| ১৯ শে জুলাই, ২০১৯ দুপুর ১:০৩

ভুয়া মফিজ বলেছেন: ''বোলতা আর ফুল'' যেন একেবারে ''তামাক আর ফিল্টার''..........দু'জনে দুজনার! B-)

১৯ শে জুলাই, ২০১৯ বিকাল ৩:০৩

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: বোলতা বানান ভুল করছি মন লয় হা হা হা

কীয়ের সাথে কী তুলনা মানি না মানি না

৯| ১৯ শে জুলাই, ২০১৯ বিকাল ৪:০৮

নীলপরি বলেছেন: ছবিগুলো ভালো তুলেছেন । সেইসাথে কবিতাগুলোও ভালো লিখেছেন ।

++

শুভকামনা

১৯ শে জুলাই, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:২৮

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: অনেকদিন পর আপনাকে দেখলাম। কেমন আছেন আপুন?৷ জাজাকিল্লাহ খাইরান আপি ভালো থাকুন অনেক ধন্যবাদ

১০| ১৯ শে জুলাই, ২০১৯ বিকাল ৪:৫৮

ডঃ এম এ আলী বলেছেন: ফুলের সুন্দর ছবি ব্লগ সাথে কবিতা , যেন মেঘ না চাইতেই বৃস্টি , আবার বন্যা না হয়ে গেলে হয় । ইসলামিয়াতে গিয়ে সিরিয়ালে বসে থাকার আনন্দটাই বুজি আলাদা । ভাগ্যিস ফুলে থাকা ভুলতা যে হুল ফুটাইনি !!
কি সুন্দর লিকলিকে সবুজ কসমস ফুলের গাছ । লাগানোর কিছুদিন যেতে না যেতেই বিভিন্ন রঙের ফুল ফুটে যায় সেগুলোতে। আগে শুধু হলুদ বা কমলা রঙের কসমস দেখা গেলেও ইদানিং এগুলোর পাশাপাশি বিভিন্ন রকমের হালকা-গাঢ় গোলাপি এবং সাদা কসমস দেখতে পাওয়া যায়।

কসমস একটা গ্রিক শব্দ যার মানে হলো ঐকতান অথবা সামঞ্জস্যপূর্ণ পৃথিবী। ভিক্টোরিয়ান সময়ে শ্লীলতার প্রতীক ছিল কসমস। কামনা করি এই ফুলটি যেন অআমাদের এই যুগে সর্বত্রই স্লিলতার প্রতিক হয়ে উঠুক , গুচে যাক সমাজ হতে যত প্রকার নগ্নতা ।

কসমসের উৎপত্তিস্থল হিসেবে ধরা হয় মেক্সিকোকে এখন এটা অআমাদের দেশের অআনাচে কানাচে পাওয়া যায় ।
কসমস গাছ লাগানোর জন্য খুব একটা উর্বর মাটি দরকার হয় না। বেশ উর্বর মাটিতে জন্মালে এরা হয়ে ওঠে লম্বা এবং লিকলিকে, আর এক্ষেত্রে ফুলের সংখ্যা কমে যায়।
হালকা ছায়াতে জন্মালেও একেবারে পূর্ণ রৌদ্রোজ্জ্বল অবস্থায় এটা বেশী ভালো হয়।তাই শিত গৃষ্ম বর্ষা চাষ হোক এটা সমান তালে । ফুল শুকিয়ে যেতে শুরু করলে তাকে ছিঁড়ে ফেলাই বুদ্ধিমানের কাজ কারণ এর ফলে নতুন আরও ফুল ফোটার সুযোগ পায়।কসমস শুকনো পরিবেশেও টিকে থাকতে পারে। বেশী ঘন ঘন পানি দিলে ফুল ধরা বন্ধ হয়ে যাবে।

সবচেয়ে বড় কথা হলো কসমস ফাতেমাপু’র সামনে পড়লে ক্যামেরা বন্দী হয়ে যায় সাথে এর গায়ে বসা ভুলতাগুলিও :)
কাকে যে এগুলি হুল ফুটাবে তা কে জানে । শুনেছি ভুলতা একবার বিছু নিলে ১৪ হাত পানির নীচে গিয়ে হলেও হুল ফুটায়ে ছাড়ে, এর হাত হতে নিস্তার নাই । তাই সাবধান থাকতে হবে !!

হলুদ কসমসের শুভেচ্ছা রইল ।

১৯ শে জুলাই, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:৩২

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: আপনার মন্তব্য মানেই জানার কিছু আছে। কসসেমর অর্থটা বেশ পছন্দ হইছে। ঐক্তান। আর ভুলতা বা যেকো পশু পাখির সাথে না লাগলে এরা সহজে কামড় দেয় না। আমি এদের বন্ধু ত আমাকে কামড় দেবে না ইনশা আল্লাহ।

সুন্দর ম্নতব্যের জন্য ধন্যবাদ ভাইয়া ভালো থাকুন অনেক ধন্যবাদ আপনাকে

১১| ১৯ শে জুলাই, ২০১৯ বিকাল ৫:১৮

মা.হাসান বলেছেন: আপনি ছবি পাগলা , না কবিতা পাগলা আমার সন্দেহ আছে। এত সুন্দর পোস্ট টা কবিতা দিয়ে নষ্ট না করলে কি হত না? এবারের মতো কবিতা বাদ দিয়ে পড়লাম। পরেরবার কবিতা থাকলে ১০হাত দূর দিয়ে চলে যাব।
সুযোগ পেলে কিছু ভালো খানা খাদ্যর ছবি পোস্ট করার অনুরোধ থাকলো। কিনে খাওয়া তো সম্ভব না, ছবি দেখেই চোখ জুড়াবো।

১৯ শে জুলাই, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:৩৫

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: হা হা হা, আমি দুটোর পাগলা। আপনার ভয়ে এইসব পোস্টে কবিতা দেই না, কিন্তু মুক্তাপি কবিতা পছন্দ করেন, আঁি অন কিত্তন, কিতা করতাম কই যাইতাম কন। আচ্ছা আগামিতে আপনি পোস্ট দেখার পর পরে পোস্ট এডিট করে কবিতা ছাপামু হা হা হা।

হাসান ভাওয়া কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি পোস্ট পড়ার জন্য। ইনশা,আল্লাহ খানা খাদ্যের পোস্ট দেব। অনেক জমা পড়ে আছে।

১২| ১৯ শে জুলাই, ২০১৯ বিকাল ৫:২১

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: প্রিয় আপু,

আপনি গুণী মানুষ। হসপিটালে মায়ের চিকিৎসার মধ্যেও আপনি আমাদেরকে পৌঁছে দিলেন প্রকৃতির দোরগোড়ায়। মোবাইলে হলেও ছবিগুলো অত্যন্ত সুন্দর ,মুগ্ধকর।
ভিডিওটি সুন্দর হয়েছে। প্রথম গানটি আমারো অন্যতম প্রিয় একটি গান। পরের গানটি 'রবীন্দ্রসঙ্গীত' হবে কিনা একটু চেক করতে বলবো।

সামগ্রিক পোস্টে ভালোলাগা।
সপ্তম লাইক।

শুভকামনা জানবেন।

১৯ শে জুলাই, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:৩৭

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: রাতের দৃশ্য আরও সুন্দর ছিলো, সেগুলো অন্য আরেকদিন দেব ইইনশা,আল্লাহ। আপনাদের ভালো লাগে বলেই ছবি তোলা বা লেখার অনুপ্রেরণা পাই। জাজাকাল্লাহ খাইরান ভাইয়া ভালো থাকুন অনেক সময়

১৩| ১৯ শে জুলাই, ২০১৯ বিকাল ৫:২২

মা.হাসান বলেছেন: ইস্পাহানি খুবই ভালো মানের হাসপাতাল। দৌড়াদৌড়ি ইত্যাদিতে সময় নষ্ট না করতে চাইলে ওখানে প্রাইভেটে দেখানোর ব্যবস্থাও আছে। খরচ কিছু বেশি, সম্ভবত ৯০০ টাকার মতে। তবে আমি ৫০ টাকার কাস্টমার।

১৯ শে জুলাই, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:৩৯

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: হুম সেটা জানি, প্রথম দিকে অসুবিধা হইছিলো, পরে প্রাইভেটেই ছানি অপারেশন করিয়েছি। ভালই হাসপাতালটা

ধন্যবাদ আপনাকে ভালো থাকুন অনেক সময়

১৪| ১৯ শে জুলাই, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:৫০

ইসিয়াক বলেছেন: অনেক ভালো লেগেছে।ধন্যবাদ

২০ শে জুলাই, ২০১৯ সকাল ৯:৪৩

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: জাজাকাল্লাহ খাইরান ভাইয়া ভালো থাকুন সুস্থ থাকুন সব সময়

১৫| ১৯ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ৯:১৮

আহমেদ জী এস বলেছেন: কাজী ফাতেমা ছবি,




এ যেন অনেকটা---
ফুলে ফুলে ঢলে ঢলে
বহে কি বা মৃদু বায়...

তবে বাতাস নয়, ফুলে ফুলে ঢলে ঢলে নেচে গেছে মধূলোভী কোনও এক ভ্রমর.............

ডঃ এম এ আলীর মন্তব্যও পাঠকদের জ্ঞানলোভী করে তুলবে নিঃসন্দেহে।

২০ শে জুলাই, ২০১৯ সকাল ৯:৪৪

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: জাজাকাল্লাহ খাইরান ভাইয়া ভীষণ ভালো থাকুন সুস্থ থাকুন সব সময়।
সুন্দর এ অনুপ্রাণিত

১৬| ২০ শে জুলাই, ২০১৯ দুপুর ২:২৫

মাহমুদুর রহমান সুজন বলেছেন: এই হসপিটালটাতে যাইনি কখনো। আপনার ফ্রেমে মাশাল্লাহ প্রকৃতি সবসময় ফোটে উঠে ফুলের সৌন্দর্য একা নয় সবাইকে নিয়ে ভোগকরার এই মানষিকতা যে উন্নত না বললে নাই হয়। কবিতাও চমৎকার। গান সেতো সুরের উদাসদের এক মন্ত্র মাত্র। ভাল থাকবেন সবসময়।

২০ শে জুলাই, ২০১৯ রাত ৮:৫৫

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: মাশা আল্লাহ অনেক সুন্দর ম্নতব্য। জাজাকাল্লাহ খাইরান ভাইয়া ভালো থাকুন অনেক ধন্যবাদ

১৭| ২১ শে জুলাই, ২০১৯ সকাল ১০:৫২

সৈয়দ তাজুল ইসলাম বলেছেন:
একেবারে ঠিক ১১নাম্বারটা।

আপনাকেও জাযাকাল্লাহ।

২১ শে জুলাই, ২০১৯ বিকাল ৩:১৪

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: ১১ নাম্বার ফটো টা অটোই উঠেছে এটাতে হাত দেইনি এডিটের জন্য

ধন্যবাদ ভাইয়া

১৮| ২২ শে জুলাই, ২০১৯ বিকাল ৩:৫১

দৃষ্টিসীমানা বলেছেন: ভাল লাগা রইল ।

২৩ শে জুলাই, ২০১৯ দুপুর ২:৫২

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: অসংখ্য ধন্যবাদ দৃষ্টি
ভালো থাকুন

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.