নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

সবাই যখন নীরব, আমি একা চীৎকার করি \n--আমি অন্ধের দেশে চশমা বিক্রি করি।\n

গিয়াস উদ্দিন লিটন

গিয়াস উদ্দিন লিটন › বিস্তারিত পোস্টঃ

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের নোবেল চুরি,সন্দেহের তীরে বাংলাদেশের স্বর্ণ ব্যবসায়ী মুহাম্মদ হোসেন শিপলু

০১ লা নভেম্বর, ২০১৭ দুপুর ১:৩০




২৬শে মার্চ ২০০৪, বৃহস্পতিবার শান্তিনিকেতনের বিশ্বভারতী জাদুঘর খুলতেই কর্মচারীদের চক্ষু চড়কগাছ!!
চুরি হয়ে গেছে বিশ্ব কবির নোবেল।শুরু হয় হৈচৈ। গোটা রবীন্দ্র ভবন ঘিরে ফেলে পুলিশ। মঙ্গলবার বিশ্বভারতী বন্ধ হয়ে যাওয়ার আগেই চোরেরা ভেতরে ঢুকে অবস্থান নেয়। সারা রাত ধরে মালপত্র সরাতে থাকে। রবীন্দ্র ভবনের পেছনের জানালা ভেঙে ফেলে এই জানালা দিয়ে মালপত্র সরিয়ে নেয় চোর দল।তাতক্ষনিক অনুসন্ধানে পাওয়া গেছে ২৮ জোড়া পায়ের ছাপ। তার মধ্যে আবার দু জনের পায়ে চটি ছিল। তাই দেখে সিআইডি আইজি ভুপেন্দর সিং বলেন চোর একজন না একাধিক, আর চটি প্রমান করে এরা স্থানীয়।



মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের কাছে খবর পৌছানোর সাথে সাথে তদন্তের নির্দশ দেন সিআইডিকে। হতাশা প্রকাশ করেন বিশ্বভারতীর আচার্য ও প্রধানমন্ত্রী অটল বিহারী বাজপেয়ী। ফোনে কথা বলেন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের সাথে, আশ্বাস দেন সর্ব্বোচ্চ সহযোগিতার।
চুরির ঘটনায় রাষ্ট্রপতি আব্দুল কালাম আজাদ গভির উদ্বেগ প্রকাশ করেন।সাথে যথাযথ কতৃপক্ষকে তড়িৎ ব্যবস্থা গ্রহনের নির্দেশ দেন।

নোবেল চুরির খবর ছড়িয়ে পড়ার পর সারা ভারত জুড়ে উঠে ক্ষোভ। বিশ্বভারতীর আচার্য ও প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগ দাবী করে। তৃনমূল কর্মীরা বৃহস্পতিবার অনশনে বসে। SFI মিছিল বের করে। প্রধান বিচারপতির আদালতে তিনটি আলাদা মামলা হয়। অমর্ত্য সেন, মহাশ্বতা দেবী, শঙ্খঘোষ সবাই ক্ষোভ আর অবিলম্বে নোবেল উদ্ধারের দাবী জানান।

তৃনমুল নেত্রী মমতা ব্যানার্জী এই চুরির দায়িত্ব বামফ্রন্টের উপর চাপিয়ে দেন আর ওদিকে কেন্দ্রীয় মানব সম্পদ মন্ত্রী ডঃ মুরালী বলেন তৃনমূল আর কমিউনিষ্টদের অশ্রদ্ধাই এই চুরির জন্য দায়ী। মুরালীর এই বক্তব্যর আবার তীব্র সমালোচনা করে সি পি আই (এম) এর রাজ্য সম্পাদক অনিল বিশ্বাস।
নোবেল চুরির ঘটনায় বিস্ময় প্রকাশ করেছেন সুইডেনের নোবেল কমিটি ।নোবেল কমিটির মুখপাত্র মাইকেল শ্যোলম্যান বলেন আমরা তো আর আসল নোবেল দিতে পারব না বড় জোর একটা ব্রোঞ্জ প্রতিরূপ দিতে পারি আর মানপত্রের তো প্রতিরূপ দেয়ার বিধান নেই।

নোবেল যাতে গলিয়ে ফেলতে না পারে সেজন্য রাজ্য জুড়ে সকল স্বর্নকারদের অনুরোধ জানানো হয়। বিশ্বভারতীর উপাচার্য সুজিত কুমার বসু চোরদের কাছে আবেদন জানান ‘’ওরা ওই সব মূল্যাবান বস্তু আমাদের কাছি ফিরিয়ে দিক ওদের ক্ষমা করে দেয়া হবে। ওদের পরিচয় গোপন রাখা হবে, এটা জাতীয় লজ্জা।‘’

এই চুরির আলামতের সাথে জীবন বাগদি নামে এক বিক্ষাত চোরের হাতের ছাপের মিল খুজে পায় সিআইডি।তাকে গ্রেফতার করা হয়। কিছুদিন পর জামিনে বেরিয়ে আসেন জীবন বাগদি।জামিনের কয়েকদিন পরেই রহস্যজনক ভাবে খুন হয় জীবন। অন্যদিকে কোলকাতার বরাহ নগর বারই পাড়া লেনের একটি বাড়িতে হানা দিয়ে উদ্ধার হয় ‘রবীন্দ্র ১৯৩৮’ লেখা ছবিসহ বেশ কিছু মুল্যবান সামগ্রী। পরে প্রমানিত হয় ওগুলো রবীন্দ্র ভারতী থেকে চুরি যাওয়া পন্য নয়, এসব অনেক আগে শান্তিপুর রাজবাড়ী থেকে চুরি যাওয়া মাল।

ভারতের গোয়েন্দা সংস্থা সিবিআই তদন্ত শুরু করে ১ লা এপ্রিল ওই দিন রাতেই তদন্ত কারী দল উদ্ধার করে চুরি যাওয়া একটি হাতির দাতের শিল্পকর্ম যা মিউজিয়ামের এক কোনে একটি কাপড়ের পুটুলিতে রাখা ছিল। এই উদ্ধারের পর সি বি আই নিশ্চিত এর সাথে রবীন্দ্র ভারতীর কেউ জড়িত।
কিন্তু কে জড়িত তা সনাক্ত করতে তারা ব্যর্থ হয়।


এর প্রায় ১২ বছর পর এই নোবেল চুরির বিষয়ে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতির কথা জানিয়েছিল সিবিআই, সিআইডি এবং রাজ্য পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগের গঠিত সমন্বিত সেল।
২০১৬ সালের ১১ই আগস্ট রবীন্দ্রনাথের নোবেল চুরির বিষয়ে সমন্বিত সেলের তথ্যের বরাত দিয়ে এ সংক্রান্ত একটি খবর প্রকাশ করে টাইমস অব ইন্ডিয়া। এরপর সংবাদ প্রতিদিন নামে কলকাতার একটি ওয়েবসাইটেও এই মামলার অগ্রগতির বিষয়ে বিস্তারিত প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়। পত্রিকাটি সিআইডি সূত্রের বরাতে জানায়, নোবেল পাচারের ‘নাটের গুরু’ ছিলেন বাংলাদেশের স্বর্ণ ব্যবসায়ী মুহাম্মদ হোসেন শিপলু এবং ভারতীয় ব্যবসায়ী জীবন সিং। এ ছাড়া ওই দুজনের সঙ্গে এক ইউরোপীয় পাচারকারীরও প্রত্যক্ষ যোগাযোগ ছিল বলে জানান ওই সিআইডি কর্মকর্তা।

এ ছাড়া টেলিফোন রেকর্ড এবং অন্যান্য সূত্রে গোয়েন্দারা নিশ্চিত হয়েছে শান্তিনিকেতনে বসে চুরির ছক কষে ওই ‘নাটের গুরু’ চোরাচালান চক্রের অন্যদের জানায়। বাংলাদেশ ও ইউরোপের বিভিন্ন জায়গার বাসিন্দা ওই চোরাচালান চক্রের ষড়যন্ত্রের সঙ্গে ফোনে আলোচনা করেই ওই ব্যক্তি নোবেল চুরির ছক কষে। এ ছাড়া ঘটনার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট এক বিদেশি ব্যক্তির সম্পৃক্ততাও জানতে পেরেছেন গোয়েন্দারা। প্রাথমিকভাবে ওই ব্যক্তি জার্মানি বা ইউরোপের অন্য কোনো দেশের নাগরিক বলে সন্দেহ গোয়েন্দাদের।

ওই কর্মকর্তা আরো জানান, ওই আন্তর্জাতিক পাচারকারী দলের লক্ষ্য ছিল, চোরাপথে নোবেল এবং অন্য প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শনগুলো পাচার করে প্রথমে বাংলাদেশে নিয়ে যাওয়া। সেখান থেকে নোবেল চোরাপথে ইতালি বা জার্মানির মতো ইউরোপের কোনো দেশে পাচার হয়েছে, এমন সম্ভাবনা উড়িয়ে দিচ্ছেন না ভারতের গোয়েন্দারা।


২০১৬ সালের নভেম্বরে কলকাতার পত্রিকাগুলোয় ‘অবশেষে রবীন্দ্রনাথের ‘নোবেল চোর’ গ্রেপ্তার’ শিরোনামে একটি খবর বেরোয়।
খবরে প্রকাশ- ২০০৪ সালে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের নোবেল পুরস্কার চুরির ঘটনায় অভিযুক্ত প্রদীপ বাউরি নামে এক বাউল শিল্পীকে অবশেষে গ্রেপ্তার করেছে ভারতের পুলিশ। গতকাল শুক্রবার তাকে শিয়ালদহের ব্যাঙ্কশাল আদালতে তুলে নিজেদের হেফাজতে রেখেছে সিআইডি।
সূত্রের খবর, প্রায় ১০ দিন আগে রূপপুর পঞ্চায়েতের মোলডাঙা গ্রাম থেকে ভোর তিনটের সময়ে বাড়ি থেকে ওই বাউল শিল্পীকে গ্রেপ্তার করে সিআইডি-এর ৬ সদস্যের স্পেশাল ইনভেস্টিগেশন টিম।
বিশেষ তদন্তকারী শাখার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, তারা প্রায় নিশ্চিত যে ২০০৪ সালের ২৫ মার্চ নোবেল-চুরির ঘটনার সঙ্গে প্রদীপ বাউল ওৎপ্রোতভাবে জড়িত। শুধু তাই নয়, ওই ঘটনায় বাকি অভিযুক্তদের নিজের বাড়িতে আশ্রয় দিয়েছিলেন প্রদীপ। চোরেদের পালানোর সুযোগও তিনিই করে দিয়েছিলেন।
সূত্রের খবর, রবীন্দ্রনাথের নোবেল পদক চুরির মামলায় তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। তার কথা থেকে জানা গেছে যে, মহম্মদ হোসেন শিপুল নামে এক বাংলাদেশের নাগরিক এই চুরির মাস্টারমাইন্ড। দুই ইউরোপীয় ব্যক্তিও এই ঘটনায় জড়িত বলে জানা গেছে।
উল্লেখ্য, ১৯৯৮ থেকে ২০০৩ সাল পর্যন্ত শান্তিনিকেতন থানার রূপপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান ছিলেন প্রদীপ বাউরি। সিআইডি অফিসারের পক্ষ থেকে জানানো হয় যে, নার্কো অ্যানালিসিস টেস্টের জন্য গুজরাটে নিয়ে যাওয়া হবে প্রদীপকে।
নোবেল পদকের সাথে আরো যে সব পন্য চুরি হয় সেগুলি হচ্ছে- ১। রৌপ্য পদক ২। ওঁ লেখা সোনার আংটি ৩। জামার সোনার বোতাম ৪। কাফ লিঙ্ক ৫। মৃনালিনীদেবীর শাড়ি ৬। সোনা-বাধানো নোয়া ৭। রূপোর রেকাবী ৮। রূপোর কফি কাপ ৯। সামুরাই তরবারী ১০। কফি কাপ রাখার তেপায়া ১১।চৈনিক চামুচ ১২। কোবে শহর থেকে পাওয়া হাতির দাতের ঝাপিসহ আরো ৩৭টি জিনিস।

গত ২৩শে অক্টোবর ২০১৭ কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের নোবেল পদক চুরির তদন্তে ভারতের সর্বোচ্চ গোয়েন্দা সংস্থা সিবিআই কেন আজও কিছু করতে পারল না, তার লিখিত জবাব চেয়েছেন কলকাতা হাইকোর্ট।নোবেল চুরি কাণ্ডে সিবিআই তদন্তের গতিপ্রকৃতি নিয়ে অগ্নিশর্মা কলকাতা হাইকোর্ট। কেন্দ্রীয় সরকারি সংস্থা সিবিআই-কে তুলোধনা করে কলকাতা হাইকোর্টের ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি রাকেশ কুমার তিওয়ারি ও বিচারপতি হরিশ ট্যান্ডনের ডিভিশন বেঞ্চ স্পষ্ট জানিয়ে দেয়, না পারলে বলে দিন আপনারা অকর্মণ্য।
রবীন্দ্রনাথের নোবেল চুরির তদন্তভার সিআইডি-কে দেওয়ার আর্জিতে হাইকোর্টে দায়ের হওয়া একটি জনস্বার্থ মামলায় এদিন সিবিআইকে রীতিমতো ভর্ত্সনা করে হাইকোর্ট। প্রশ্নে প্রশ্নে জেরবার অবস্থার সম্মুখীন হন কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থার আইনজীবী। আদালত এদিন জানতে চায় দু'বার ফাইনাল রিপোর্ট জমা দেওয়ার পরও কেন অভিযুক্তের হদিশ নেই? তদন্তের রিপোর্ট দিতে এত গড়িমসির কারণ কী? এমনকি, আদলত এদিন এও প্রশ্ন করে, সিআইডি তদন্ত করলে সিবিআই-এর আপত্তি কোথায়?
এরপরই আদালত বলে, আপনারা ব্যর্থ বলেই সিআইডি তদন্তভার নিতে চাইছে। এদিন এক সপ্তাহের মধ্যে হলফনামা দেওয়ার নির্দেশও দেওয়া হয় আদালতের পক্ষে।
একই সঙ্গে জানতে চেয়েছেন ১৩ বছর ধরে যে তদন্তের কিনারা করতে পারেনি, সেই তদন্তভার পশ্চিমবঙ্গের সিআইডির হাতে তুলে দিতে বাধা কোথায়?

কর্মজীবনের শেষ দিনে কলকাতা হাইকোর্টের অস্থায়ী প্রধান বিচারপতি রাকেশ তেওয়ারি বলেছেন, সিবিআই না পারলে ছেড়ে দিক। পাশাপাশি, এই দীর্ঘসূত্রতাকে এক কথায় ব্যর্থতা বলেই তিনি মন্তব্য করেন। ভর্ত্সনা করেন সিবিআইকে। ডিভিশন বেঞ্চের অপর বিচারপতি হরিশ ট্যান্ডন বলেন, সিবিআই ইতোমধ্যে দু’বার চুরির তদন্তে কূলকিনারা পাওয়া যাচ্ছে না বলে তদন্ত বন্ধের আবেদন জানিয়েছে। পশ্চিমবঙ্গ সরকারের তরফে আদালতে জানানো হয়, রাজ্য পুলিশের কাছে যথেষ্ট পরিমাণ তথ্যসূত্র আছে, যা দিয়ে এ তদন্তের কিনারা করা যাবে।

সম্প্রতি রাজ্যের বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি জোরের সঙ্গে বলেছিলেন, তদন্তের দায়িত্ব সিআইডিকে দেয়া হোক। তারা নোবেল উদ্ধার করে দেখিয়ে দেবে।
আশ্চর্য হলেও এটা ঠিক যে,, সিবিআই, সিআইডি এবং রাজ্য পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগ সহ ভারত সরকারের প্রায় সব গোয়েন্দা সংস্থা মাঠে নেমে তদন্ত করলেও গত ১৩ বছরেও এই চুরির কোন কিনারা করতে পারেনি তারা।
উদ্ধার করতে পারেনি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের চুরি যাওয়া নোবেল।

তথ্যসুত্র-
http://www.ntvbd.com/world
http://www.somewhereinblog.net/blog/shovan13/29828350
http://www.bd-pratidin.com/various/2013/06/21/2034
http://enews71.com/news
http://www.ittefaq.com.bd/world-news/2017/10/25/132883.html
http://zeenews.india.com


মন্তব্য ৬৯ টি রেটিং +১৫/-০

মন্তব্য (৬৯) মন্তব্য লিখুন

১| ০১ লা নভেম্বর, ২০১৭ দুপুর ২:২৭

করুণাধারা বলেছেন: এই ঘটনাটার কথা ভুলেই গিয়েছিলাম- নিজের জীবনেই কত কিছু ঘটল। কিন্তু চোর এত দিনেও ধরা পড়েনি জেনে অবাক হলাম। বাংলাদেশি ব্যবসায়ীর সংশ্লিষ্টতা কি সত্যিই আছে! এমন হলে তো বন্ধু রাষ্ট্রর অনুরোধে শিপলু নামের সমস্ত বাংলাদেশিকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করার কথা।

নোবেলের ছবিসহ পোস্ট ভাল লেগেছে।

০১ লা নভেম্বর, ২০১৭ বিকাল ৫:০৪

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: বিষয়টা তদন্ত করছে ভারতের গোয়েন্দা সংস্থা সিবিআই । কয়েকদিন আগেও মমতা ব্যানার্জী জোরের সঙ্গে বলেছিলেন, তদন্তের দায়িত্ব সিআইডিকে দেয়া হোক। তারা নোবেল উদ্ধার করে দেখিয়ে দেবে।সিআইডির কাছে নাকি যথেষ্ট তথ্য প্রমান রয়েছে। কিন্তু সিবিআই এই তদন্ত সিআইডিকে দিতে নারাজ।

২| ০১ লা নভেম্বর, ২০১৭ দুপুর ২:২৭

টারজান০০০০৭ বলেছেন: সত্যি হইলে স্বর্ণ ব্যবসায়ী মুহাম্মদ হোসেন শিপলু তো বাংলার টং ক্রুজ !

০১ লা নভেম্বর, ২০১৭ বিকাল ৫:০৫

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: হাহাহাহ সুন্দর বলেছেন টারজান।

৩| ০১ লা নভেম্বর, ২০১৭ বিকাল ৩:১১

দিশেহারা রাজপুত্র বলেছেন: এই অসমর্থতা হতবাক করে। এই দায়টা সকল বাঙলা ভাষাভাষীর।

০১ লা নভেম্বর, ২০১৭ বিকাল ৫:১০

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আমরা লজ্জিত!!

৪| ০১ লা নভেম্বর, ২০১৭ বিকাল ৩:৪৮

বানেসা পরী বলেছেন: নোবেল চুরির সাথে বাংলাদেশি কেউ জড়িত সেটা ভাবতে খারাপ লাগছে। আর ইউরোপিয়ান যারা জড়িত তাদের নাম প্রকাশে রাখঢাক কেন?
অপরাধীরা শাস্তি পাক এটা অবশ্যই চাই।

০১ লা নভেম্বর, ২০১৭ বিকাল ৫:১৪

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: বাংলাদেশি কারো নাম যত সহজে বলে দেয়া যায় , যথেষ্ট তথ্য প্রমান ছাড়া ইউরোপিয় কারো নাম ধাম বলা যায়না ।
অপরাধীরা শাস্তি পাক এটা অবশ্যই চাই। এত বছর পরে সেই সম্ভাবনা ক্ষীণ । ৫০/১০০ বছর পরে হয়তো শুনবো ইউরোপের কোন দেশে রবি ঠাকুরের নোবেল নিলামে উঠেছে ।

৫| ০১ লা নভেম্বর, ২০১৭ বিকাল ৩:৫২

জেন রসি বলেছেন: মনে হচ্ছে এ রহস্য সলভ করতে হলে হোমস বা ফেলুদাকে দরকার। ;) খুব সেয়ানা চোর সন্দেহ নেই।

০১ লা নভেম্বর, ২০১৭ বিকাল ৫:১৯

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: বিশ্বভারতী সার্বক্ষনিক পুলিশ পাহারায় থাকে এমতাবস্থায় চুরি? অবশ্যই সেয়ানা চোরের কাজ। ফেলুদার দেশে চুরি, তাই এক্ষেত্রে ফেলুদার সফল হবার সম্ভাবনা ছিল ।

৬| ০১ লা নভেম্বর, ২০১৭ বিকাল ৫:০৫

ডঃ এম এ আলী বলেছেন: এ জগন্য কাজে জড়িতরা কঠীন শাস্তি পাক , এটা সকলেরই কাম্য । বানেসা পরীর কথাটা ভাবাচ্ছে বটে, ইউরোপিয়ান যারা জড়িত তাদের নাম প্রকাশে রাখঢাক কেন? জেন রসির সাথে সহমত ।

০১ লা নভেম্বর, ২০১৭ বিকাল ৫:২০

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: বাংলা ভাষা ভাষী হিসাবে আমরা সকলেই চাই নোবেল উদ্ধার হোক।

৭| ০১ লা নভেম্বর, ২০১৭ বিকাল ৫:২৩

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: নোবেল পদকের ইন্সুরেন্স করা ছিল ন্যাশনাল ইন্সুরেন্স কোম্পানিতে, দুখের বিষয় তারা এর কোন দায়ভার নেয়নি।
কারণ -

০১ লা নভেম্বর, ২০১৭ বিকাল ৫:২৭

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: পুনঃ পুনঃ বিষয়টি নজরে আনার পর ১৯৯৪ সালে কোম্পানি ফাইনালি জানিয়ে দেয়, নোবেল সুরক্ষায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা যথেষ্ট নাজুক। এমতাবস্থায় কোন দুর্ঘটনা ঘটলে এর দায় তারা নিবে না।

৮| ০১ লা নভেম্বর, ২০১৭ বিকাল ৫:৪৮

আরণ্যক রাখাল বলেছেন: ব্যাপারটা যাই বলুন না কেন মজার।
অনেক ভালো লিখেছেন বরাবরের মত

০১ লা নভেম্বর, ২০১৭ বিকাল ৫:৫২

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: অনেক অনেক ধন্যবাদ আরণ্যক রাখাল ।

৯| ০১ লা নভেম্বর, ২০১৭ সন্ধ্যা ৭:১৭

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: তথ্যবহুল ও শ্রমসাধ্য পোস্ট। ২০০৫ সালে শান্তিনিকেতনে গিয়ে বিশ্বভারতী জাদুঘরে প্রবেশের অনুমতি পাইনি। নোবেল পদক চুরির ঘটনায় দীর্ঘদিন জাদুঘরটি বন্ধ ছিল। অগত্যা ঘুরে ফিরে শান্তিনিকেতনের অন্যান্য জিনিষ দেখে ফিরে এসেছিলাম।

আপনার এই লেখাটি আমার জানামতে রবীন্দ্রনাথের নোবেল পদক চুরির ব্যাপারে বাংলা ভাষায় লেখা সবচেয়ে সমৃদ্ধ নিবন্ধ। এত ডিটেইলে এই বিষয়ে আর কোন প্রবন্ধ প্রিন্ট বা অনলাইন মিডিয়ায় পড়েছি বলে মনে করতে পারছি না। আমি অনেক পড়াশুনা করি। তাই দৃঢ়তার সাথেই বলছি, আপনি একটি অসাধারণ কাজ করেছেন। পোস্টটি প্রিয়তে নিলাম।

ধন্যবাদ ভাই গিয়াস উদ্দিন লিটন।

০১ লা নভেম্বর, ২০১৭ রাত ৮:২৯

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: পনার মত একজন গুণী লিখকের এহেন মন্তব্যে আমি আপ্লুত!!!
অনেক ধন্যবাদ জানবেন শ্রদ্ধেয়।

১০| ০১ লা নভেম্বর, ২০১৭ রাত ৮:১৫

শাহরিয়ার কবীর বলেছেন:

কবিগুরুর নোবেল চোরকে,একটা নোবেল দিলে কেমন হয়। :) সেই সাথে সামু ব্লগের লেখা চোরদেরও। :)



তথ্য সমৃদ্ধ পোষ্টে জন্য ধন্যবাদ জানবেন,ভাই।

০১ লা নভেম্বর, ২০১৭ রাত ৮:৩২

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: শুধু চোরদের দিলে হবেনা, নোবেলের দাবীদার আরো আছে শাহরিয়ার কবীর ভাই

১১| ০১ লা নভেম্বর, ২০১৭ রাত ৮:১৬

সোহানী বলেছেন: এ ধরনের প্রত্নতত্ব বা যার আক্ষরিক মূল্য অনেক তা চুরির জন্য বিশাল ইর্ন্টান্যাশানাল বাহিনী আছে। আামাদের দেশের প্রত্নতত্ব এর কি অবস্থা তা যদি খোঁজে নন তাহলেতো মাথায় হাত দিয়ে বসে পড়বেন। তাই তাদের ধরা অতো সহজ নয়ম বলির পাঠা হয় চুনোপুটিরা.......

অসাধারন লিখেছেন... সব কিছু জানতে পারলাম এক সাথে। আমি ও হেনা ভাইয়ের মতো খুব জানতে চেয়েছিলাম ঘটনাটা।

আর হেনা ভাইয়ের মতোই বলতে চাই "দৃঢ়তার সাথেই বলছি, আপনি একটি অসাধারণ কাজ করেছেন।"

০১ লা নভেম্বর, ২০১৭ রাত ৯:০১

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: সম্ভবত ২০০৭ সালে আমাদের জাতীয় জাদুঘর থেকে শতাধিক প্রত্নসম্পদ প্রদর্শনির জন্য ফ্রান্সে প্রেরন করা হয়। বিভিন্ন মহল থেকে তিব্র প্রতিবাদ আর আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে সরকার এ কাজটি করে।
আমি বিষয়টার প্রতি আগ্রহি ছিলাম, কিন্তু পরবর্তিতে এসব ঠিকমত ফিরে এসেছে কিনা তা জানতে পারিনি।
আপনি ঠিক বলেছেন , প্রত্ন সম্পদ চুরির জন্য রয়েছে শক্তিশালী সিন্ডিকেট।
মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ জানবেন সোহানী।

১২| ০১ লা নভেম্বর, ২০১৭ রাত ৮:৩২

ফয়েজ উল্লাহ রবি বলেছেন: অবাক! হওয়ার কিছুই নেই এই সাধারণ ব্যাপার
যদিও চুরিটা আবেগে আঘাত ।
হতো চোর ধরা পরবে বা নাও ধরা পরতে পারে
কিন্তু যে অপমান বাঙ্গালী পেল এর ধায় ভার থেকে কি আধো মুক্তি পাবে ?

০১ লা নভেম্বর, ২০১৭ রাত ৯:০২

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: সুন্দর বলেছেন কবি। এ লজ্জা সকল বাংলাভাষীর ।

১৩| ০১ লা নভেম্বর, ২০১৭ রাত ৯:২১

ধ্রুবক আলো বলেছেন: আমরা ব্লগে বসে কবিতা, গল্প চুরির জন্য টেনশন করি। এদিকে ১৩ বছর যাবৎ কবিগুরুর নোবেল চুরি হয়ে গেলো। নোবেল একটু খানি জিনিস।
আসলে এরপর কি বলবো ভেবে পাচ্ছি না।

০১ লা নভেম্বর, ২০১৭ রাত ৯:২৭

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: মজার কথা বলেছেন ধ্রুবক, কবিতায় এদের পোশাবেনা তাই তারা কবির নোবেলটাই চুরি করে নিয়ে গেছে।

১৪| ০১ লা নভেম্বর, ২০১৭ রাত ৯:৪৭

আহমেদ জী এস বলেছেন: গিয়াস উদ্দিন লিটন ,



" আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম" এর সাথে গলা মিলিয়ে বলি ---- একটি অসাধারণ কাজ হয়েছে ।

তয় শিপলু মিয়া কামের একটা কাম কইররা হালাইছে । কিসের কবিতা , কিসের সাহিত্য চুরি ? খোদ সাহিত্যের পুরষ্কার নোবেল এর মেডালটাই চুরি । যেই সেই কাম না ! বাপের বেডা :(

০১ লা নভেম্বর, ২০১৭ রাত ১০:০১

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আহমেদ জী এস ভাই নোবেল চোরের পক্ষে সাফাই? সিবিআই আপনারে খুজছে =p~

১৫| ০১ লা নভেম্বর, ২০১৭ রাত ৯:৪৭

সুমন কর বলেছেন: তথ্যবহুল পোস্ট। অনেক কিছু জানতে পারলাম। শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ।

০১ লা নভেম্বর, ২০১৭ রাত ১০:০১

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আপনাকেও ধন্যবাদ কবি।

১৬| ০১ লা নভেম্বর, ২০১৭ রাত ১০:২২

নীলপরি বলেছেন: ঘটনাটা খুবই হতাশাজনক ।

০২ রা নভেম্বর, ২০১৭ সকাল ১০:৩৯

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: লজ্জা জনকও বটে!

১৭| ০১ লা নভেম্বর, ২০১৭ রাত ১১:৪৫

বিচার মানি তালগাছ আমার বলেছেন: বাংলাদেশের চোরেরা 'নোবেল' চুরি করে ৫০ বছর পরে নিলামে বিক্রি করে দেয়ার মত চিন্তার লেভেলের না। আমার মনে হয় ভারতেরই কেউ বিভ্রান্ত করতে বাংলাদেশী নাম জুড়ে দিয়েছে। স্বর্ন ব্যবসায়ী হলে তাকে বাংলাদেশের পুলিশ ধরছে না কেন?

০২ রা নভেম্বর, ২০১৭ সকাল ১০:৫০

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: পুরো বিষয়টার সাথে কোন রাঘব বোয়াল জড়িত থাকতে পারে। সিবিআই কিছু করতে পারছেনা আবার তারা মামলাটি সিআইডিকে হস্তান্তর করতেও রাজি নয়।
মাঝখানে সিবিআই 'কুল কিনারা হচ্ছেনা' বলে দুই বার আদালতে মামলাটি বন্ধ করে দিতে বলেছে।

১৮| ০২ রা নভেম্বর, ২০১৭ রাত ৩:৪১

চাঁদগাজী বলেছেন:


তৃতীয় বিশ্বে, এই ধরণের মামলা পেছনে সারিতে চলে যায়; কারণ, গোয়েন্দা, পুলিশ অফিসার, জর্জেরা বদলী হওয়ার পর, আগের কাজের দায়িত্ব তারা পেছনে ফেলে নতুন কিছু নিয়ে ব্যস্ত হয়ে যায়।

০২ রা নভেম্বর, ২০১৭ সকাল ১১:০৪

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: গতানুগতিকতার বাইরে এই মামলাটিকে ভারত সরকারের স্পেসালি দেখার দরকার ছিল গাজী ভাই।

১৯| ০৩ রা নভেম্বর, ২০১৭ রাত ২:২৫

ডঃ এম এ আলী বলেছেন: বিষয়টার হাল নাগাদ অবস্থা জানার জন্য ইন্টার নেট ঘেটে আপনার পোষ্টের উপসংহারের কথাগুলির মত বিষয়ই এখন পর্যন্ত ( ২৪ অক্টোবর ২০১৭) দেখতে পেলাম ।
A division bench comprising Acting Chief Justice Rakesh Tiwari and Justice Harish Tandon directed the central investigating agency to submit its reasons for being unwilling to hand over the probe to a state government agency in the form of an affidavit within a week.
আগামী সপ্তাহে পরবর্তী হিয়ারিং হতে পারে বলে দেখা গেল । সম্ভব হলে কলিকাতা হাই কোর্টে চলা এই কেইসটার অাপডেট যথাসময়ে দিলে খুশী হব । অন লাইনে যদি আসে তাহলে আমরা সেখান হতেও দেখে নিতে পারব । তবে জানিনা অনলাইনে তা আসবে কিনা।
ধন্যবাদ

০৩ রা নভেম্বর, ২০১৭ সকাল ১০:০৮

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আপনার পরামর্শ ভাল লেগেছে, আমি আপডেট দেয়ার চেস্টা করবো । ধন্যবাদ জানবেন ডঃ এম এ আলী ভাই।

২০| ০৩ রা নভেম্বর, ২০১৭ সকাল ৯:৩৫

সামিউল ইসলাম বাবু বলেছেন: শাহরিয়ার কবিরের সাথে সহমত

০৩ রা নভেম্বর, ২০১৭ সকাল ১০:১১

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: তবে যে অনেকগুলি নোবেলের দরকার বাবু ভাই। সামুতে চোরের তো আর অভাব নেই!

২১| ০৪ ঠা নভেম্বর, ২০১৭ দুপুর ১:২২

বিলিয়ার রহমান বলেছেন: চোর, চুরি!!!


আমরা সত্যিই এই শিল্প সাহিত্যের চোরদের নিয়ে বড় বেশি ক্লান্ত!!!


ওদের জ্ঞাণ দাও প্রভু! ওদের ক্ষমা করো!

০৫ ই নভেম্বর, ২০১৭ সকাল ১০:০৬

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: চোরদের অনেক জ্ঞান বিলি ভাই, নইলে সংরক্ষিত এলাকা থেকে নোবেল চুরি?

২২| ০৪ ঠা নভেম্বর, ২০১৭ সন্ধ্যা ৭:৩৪

জাহিদ অনিক বলেছেন:

নোবেল চোরের কথা জানতাম।
একটা মুভিও দেখেছিলাম নোবেল চোর নামে, সেখানে অবশ্য চোর বেশ ভাল ছিল।

০৫ ই নভেম্বর, ২০১৭ সকাল ১০:০৭

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: ঠিক বলেছেন অনিক, রবিন্দ্র নাথের নোবেল চুরি নিয়ে নোবেল চোর নামে একটা মুভি হয়েছে।

২৩| ০৪ ঠা নভেম্বর, ২০১৭ সন্ধ্যা ৭:৩৬

মানিজার বলেছেন: গুপন কিছু জানতে পারলাম ।

০৫ ই নভেম্বর, ২০১৭ সকাল ১০:০৮

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ মানিজার।

২৪| ০৪ ঠা নভেম্বর, ২০১৭ রাত ৯:৩৭

সামিয়া বলেছেন: অনেক না জানা তথ্য জানতে পারলাম আপনার লেখাটি পড়ে। চমৎকার ভিন্ন ধর্মী এবং গুরুত্বপূর্ণ এই টপিক টা নিয়ে লেখার জন্য সাধুবাদ জানাই। সত্যিই আপনি জিনিয়াস ভাইয়া।।

০৫ ই নভেম্বর, ২০১৭ সকাল ১০:১১

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: পাঠোত্তর মন্তব্যে আনন্দিত! অনেক ধন্যবাদ জানবেন ইতি সামিয়া।

২৫| ০৫ ই নভেম্বর, ২০১৭ সকাল ১০:৫৫

চাঁদগাজী বলেছেন:


যেই বাংলাদেশীর নাম এসেছে উনার কি অবস্হা এখন? কোন সংবাদ আছে?

০৫ ই নভেম্বর, ২০১৭ রাত ৮:৫২

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: গুগল সার্চ করেও উনার কোন তথ্য পাইনি।

২৬| ০৫ ই নভেম্বর, ২০১৭ রাত ৯:৫০

জুলিয়ান সিদ্দিকী বলেছেন: সব দেশের পুলিসই বড় বড় চোরদের ধরতে পারে না।

০৬ ই নভেম্বর, ২০১৭ সকাল ১০:৩৮

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: তবে কি বড় বড় চোরদের ক্ষমতা চোরদের চেয়ে বেশি?

২৭| ০৭ ই নভেম্বর, ২০১৭ ভোর ৬:২৬

:):):)(:(:(:হাসু মামা বলেছেন: বুঝতে হবে :)

০৭ ই নভেম্বর, ২০১৭ রাত ৮:০৪

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: ঠিকাছে!! :)

২৮| ০৯ ই নভেম্বর, ২০১৭ সন্ধ্যা ৭:২০

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: স্টিকি পোস্টের ৯৭ নম্বর মন্তব্যের প্রতি আপনার দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

০৯ ই নভেম্বর, ২০১৭ রাত ৮:২৩

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আমি আগ্রহের কথা জানিয়ে মেইল করেছি। আপনাকে ধন্যবাদ।

২৯| ১০ ই নভেম্বর, ২০১৭ রাত ৯:১৪

কথাকথিকেথিকথন বলেছেন:






এতো সংস্থা কাজ করেছে অথচ এতো বছর কিছুই করতে পারলো না । আশ্চর্য্য এবং হতাশাজনক । ওদের জড়িত থাকার সন্দেহ এড়ানো যায় না আই মিন অর্থের লেনদেন !

অনেক তথ্য দিয়ে সাজিয়েছেন । বেশ রোমাঞ্চ অনুভব করেছি ! অনেক ধন্যবাদ ।

১০ ই নভেম্বর, ২০১৭ রাত ১০:২১

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: পাঠোত্তর সুন্দর মন্তব্যের জন্য আপনাকেও ধন্যবাদ কথন।

৩০| ১০ ই নভেম্বর, ২০১৭ রাত ১০:৪৯

আখেনাটেন বলেছেন: শার্লক হোমস ও অ্যান্ডারসনকে দরকার এখন। ফেলুদা হলেও মন্দ না।

২১ শে নভেম্বর, ২০১৭ রাত ৯:৫৪

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: ভাল বলেছেন আখেনাটেন ।

৩১| ১৪ ই নভেম্বর, ২০১৭ দুপুর ১:৩১

প্রামানিক বলেছেন: রবীন্দ্রনাথের নোবেল যদি চুরি হয় তাহলে আমার কবিতা তো কিছু না। নোবেল উদ্ধার না হওয়ায় চিন্তায় পড়ে গেলাম।

২১ শে নভেম্বর, ২০১৭ রাত ৯:৫৫

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: হাহাহা মজার মন্তব্য করেছেন প্রামানিক ভাই ।

৩২| ২০ শে নভেম্বর, ২০১৭ সন্ধ্যা ৬:৩৯

সালু সরকার বলেছেন: এটা আমার জানা ছিল না। মিঠুন এর নোবেল চোর যে সত্যিকার নোবেল চোর নিয়ে তাও জানতে পারলাম । বাংলাদেশ , ইন্ডিয়া মানুষের একে ওপারকে দোষ দেয়া স্বভাব ।

২৩ শে নভেম্বর, ২০১৭ রাত ১০:০১

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: সালু সরকার , যেহেতু শিপলুর বিশয়টি প্রমানিত নয় সেহেতু এটাকে দোষারোপ বলাই যায় ।

৩৩| ২১ শে নভেম্বর, ২০১৭ রাত ৯:৫৭

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: সালু সরকার , যেহেতু শিপলুর বিশয়টি প্রমানিত নয় সেহেতু এটাকে দোষারোপ বলাই যায় ।

৩৪| ২২ শে নভেম্বর, ২০১৭ দুপুর ১২:২৪

খায়রুল আহসান বলেছেন: অতি চমৎকার একটি তথ্যসমৃদ্ধ পোস্ট উপস্থাপন করার জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ। পোস্টে ভাল লাগা + +
কবিগুরুর নোবেল চোরকে,একটা নোবেল দিলে কেমন হয়। :) সেই সাথে সামু ব্লগের লেখা চোরদেরও - এমন বিচক্ষণ প্রস্তাবনার জন্য শাহরিয়ার কবীরও কিছু পুরস্কার পেতে পারেন বৈকি!

২৩ শে নভেম্বর, ২০১৭ রাত ১০:০৩

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: আপনাকেও ধন্যবাদ জনাব খায়রুল আহসান ভাই।

৩৫| ০৭ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ২:২৮

আমি তনুর ভাই বলেছেন: Really very happy to say,your post is very interesting to read.I never stop myself to say something about it.You’re doing a great job.Keep it up

০৮ ই ডিসেম্বর, ২০১৭ রাত ৮:২১

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ জানবেন জনাব।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.