নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

চলে যাব- তবু যতক্ষণ দেহে আছে প্রাণ, প্রাণপণে পৃথিবীর সরাব জঞ্জাল।

হাবিব

বিশ্বজোড়া পাঠশালা মোর, সবার আমি ছাত্র।

হাবিব › বিস্তারিত পোস্টঃ

আমার সংসার আমার সুখ

০১ লা সেপ্টেম্বর, ২০২১ সকাল ১১:২০



ছানাটা এখনো কথা বলতে পারেনা ঠিক করে। সবে মাত্র মা ডাক দিতে শিখেছে। ওর মায়ের কাছে গিয়েও মা বলে, আবার আমার কাছে এসেও মা বলে। ছড়াগান শুনে নাচের ভঙ্গিতে হাত পা নাড়ে। ওর চোখ মুখ দেখলে বুঝতে পারে কখন কি লাগবে, কখন কি অসুবিধা হলো। ছোটখাটো ব্যাথায় খুব একটা কান্না করে না। দুই ঠোট বাঁকিয়ে ওহ ওহ করে শুধু। ছানাটা চোখের সামনে বেড়ে উঠছে একটু একটু করে। মুচকি হাসি, খিলখিল করে হাসি..... নানান ভঙ্গিমায় সাড়া দেয় সব কিছুতেই। ছানাটাকে ঘিরে স্বপ্নের হাজারো জাল বুনি। মেতে থাকি আনন্দ আর সুখের আবেশে।

কোথাও যাবার জন্য তৈরি হচ্ছি দেখলে ছানাটা আর পিছু ছাড়ানে। দুই হাত উপরে তুলে কোলে উঠার জন্য ব্যস্ত হয়ে পড়ে। কোলে না উঠানো পর্যন্ত ছানাটা থামে না। এই সময়টাতে ও আর কারো কাছে যেতে চায় না। ওর মায়ের কাছেও না। আমি যেখানেই যাই ও সাথে যাবেই। ওর চোখ মুখে আবদারের চাহনি। মায়া মায়া দৃষ্টি নিয়ে মুখের দিকে তাকিয়ে থাকে। যেন বলতে চায়, "বাবা, আমাকে রেখে যেও না কিন্তু। আমিও তোমার সাথে যাবো"। মুখ দিয়ে শব্দ উচ্চারণ করতে না পারলে কি হবে, ওর চোখের দিকে তাকিয়ে আমি সব পড়ে ফেলি। ছানাটা সব বুঝিয়ে দেয় ওর দৃষ্টি আর হাসি মাখা চাহনি দিয়ে।

একা একা সন্তান দেখাশোনা করা কম কথা নয়। হাড়ভাঙা খাটুনি থেকেও বেশি কষ্টের। ছানাটার মা সারাদিন ছানাটাকে একাই সামলে রাখে। শত দুষ্টুমিতেও ওর প্রতি বিরক্ত হয় না। কখনো বিরক্ত হলেও আমার উপর এসে পড়ে তার প্রভাব। আমি রাগ করিনা সেই বিরক্তি প্রকাশের কথাগুলোতে। আমি বুঝি, ওর স্থানে আমি থাকলেও হয়তো এর থেকে বেশি প্রতিক্রিয়া জানাতাম। মায়েরা একা একা সন্তানদের রাখতে পারে ঠিকই কিন্তু বাবাদের জন্য এইটা অনেক বেশি কঠিন। এর চলা বলা ভালো, প্রায় অসম্ভব।

কাজে বেরুনোর আগ মূহুর্তে এক প্রকার লুকিয়েই বাসা থেকে বের হই। আমাকে বের হতে দেখলে কিছুতেই সামলানো যায় না ওকে। একবার কোলে উঠতে পারলে তো সুপারগ্লোর মতো লেগে থাকে। আমার গলাটাতে শক্ত করে ধরে। ওর মা খুব কষ্টে আমার থেকে ছানাটাকে ছাড়িয়ে নেয়। শরীর থেকে অঙ্গ আলাদা করলে যেমন লাগে সে সময়টাতে আমার তেমনই কষ্ট হয়। আমার ইচ্ছে হয় ২৪/৭ সময়টাই ছানাটার সাথে থাকি। কিন্তু কাজে তো যেতেই হবে! কাজ থেকে ফিরে এলে কখনো কখনো অভিমানের নয়নে তাকায়। বুঝাতে চায় যাবার সময় আমাকে নাওনি। এখন তুমি যাও, তোমার সাথে আড়ি। কিন্তু পরক্ষণেই আবার আমার কাছে আসে মুচকি একটা হাসি দিয়ে। অভিমানের হাজারো কথা তখনো জমা থাকে ছানাটার চোখে-মুখে। সেসব পড়তে পড়তে বেলা গড়িয়ে সন্ধ্যে নামে। ছেলে আর বাবার খুনসুটি চলে অবিরত।

ছানাটার বয়স ১৫ মাস চলে। গুটি গুটি পায়ে হেঁটে চলে সামনের দিকে। আধো আধো বুলে বুঝিয়ে দেয় চাওয়া পাওয়া। সকলের নিকট দোয়া প্রার্থী ছানাটার জন্য, ছানাটার মায়ের জন্য, যেন সবকিছু দক্ষ হাতে সামলাতে পারে, আমার জন্যও দোয়ার দরখাস্ত আপনাদের কাছে, যেন ভালবাসার ডানা দিয়ে আগলে রাখতে পারি মা পাখি আর ছানাটাকে।

হাবিবুর রহমান
০১/০৯/২০২১ খ্রি:,
ময়মনসিংহ।

ছবিটি আমাদের গ্রামের বাড়ির পাশ থেকে তোলা।

মন্তব্য ৩০ টি রেটিং +৮/-০

মন্তব্য (৩০) মন্তব্য লিখুন

১| ০১ লা সেপ্টেম্বর, ২০২১ সকাল ১১:৩০

শেরজা তপন বলেছেন: বাঃ বাবা আর ছানায় জমেছে বেশ :)

ভাল থাকুন সবাই মিলে।

০১ লা সেপ্টেম্বর, ২০২১ সকাল ১১:৩১

হাবিব বলেছেন: প্রথম মন্তব্যের জন্য অশেষ ধন্যবাদ তপন ভাই। আপনার প্রার্থনা কবুল হোক। আপনিও ভালো থাকবেন সবসময়।

২| ০১ লা সেপ্টেম্বর, ২০২১ সকাল ১১:৪২

সাড়ে চুয়াত্তর বলেছেন: আপনার ছানার জন্য শুভ কামনা। জীবনে এবং জীবনের ওপাড়ে সে সফল হউক এই কামনা করছি।

আমাদের ছানাগুলি বড় হয়ে গেছে। তাদের ছোটবেলার ছবিগুলি আমাদের একটা অনেক পুরনো পিসিতে ছিল। পিসিটা বহু বছর ধরে নষ্ট। আমার স্ত্রী শুধু ঐ ছবি আর ভিডিওগুলি দেখার জন্য এই মান্ধাতার আমলের পিসিটা বেশ টাকা খরচ করে ঠিক করেছে। এখন সে ছবিগুলি দেখে আর ডেকে ডেকে আমাকে দেখায়, বাচ্চাদেরও দেখায়। আপনাদের জীবনেও এই রকম দিন আসবে আশা করি যখন আপনারা ছানার কথা ভেবে নস্টালজিক হবেন।

মেয়েদের ধৈর্য আর সহ্য শক্তি ছেলেদের চেয়ে সাধারণভাবে বেশী থাকে।

০১ লা সেপ্টেম্বর, ২০২১ দুপুর ১:২৯

হাবিব বলেছেন:








প্রথমেই মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ জানাচ্ছি সাচু ভাই। আপনার প্রার্থনা মঞ্জুর হোক।

একদম ঠিক বলেছেন। ছানাটার প্রথম দিককার ছবি দেখলে এখনই কেমন নস্টালজিক হই, আর এতো বছর পরে তো কথাই নেই।

মেয়েদের ব্যাপারে অনেক বাজে মন্তব্য দেখি আশেপাশে, যা আমাকে আহত করে। মায়েরা তো বাবাদের থেকে বেশি কষ্ট সহ্য করেন

৩| ০১ লা সেপ্টেম্বর, ২০২১ দুপুর ১২:০৫

মরুভূমির জলদস্যু বলেছেন: ঝরঝরে লেখা।
অনেকদিন পরে লিখলেন।
আপনার লেখার সাথে রাজী সাহেবের লেখার কিছু মিল পাই।

০১ লা সেপ্টেম্বর, ২০২১ দুপুর ১:৩৩

হাবিব বলেছেন:



ম_জ ভাইয়া, লেখার প্রশংসার জন্য অশেষ কৃতজ্ঞতা রইলো। আরো কয়েকদিন লিখতে চেয়ে চেয়ে আবার কেটে দিয়েছি। লিখতে ইচ্ছে করে অনেক কিছুই। আবার কেন যেন ব্যাক স্পেস সব কিছু গ্রাস করে নেয়। আমি না লিখলেও আপনাদের লেখা পড়ছি নিয়মিতই।

একদম ঠিক ধরেরছেন। ব্লগার রাজিব নুরের সাথে আমার লেখার অনেক মিল পাবেন। পাঠ এবং মন্তব্যের জন্য আবারো ধন্যবাদ জানাচ্ছি

৪| ০১ লা সেপ্টেম্বর, ২০২১ দুপুর ১:২৬

ভুয়া মফিজ বলেছেন: ছানা, ছানার বাবা আর মায়ের জন্য রইলো অনেক অনেক দোয়া আর শুভ কামনা। আমরা একটা সময়ে যেসবের মধ্যে দিয়ে গিয়েছি, আপনারা এখন সেসবের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছেন। অনেক সুখের এই সময়গুলো। তবে শেষ পর্যন্ত অনেকের জন্যেই সুখের থাকে না; এটাই বাস্তবতা। ছেলেকে আস্তে আস্তে বাস্তব অবস্থা শেখাবেন, যুগের উপযোগী করে গড়ে তুলবেন। এখনই শ্রেষ্ঠ সময় ওকে গড়ে তোলার। খুব সহজ না বিষয়টা।

আপনাদের সফলকামের জন্য সৃষ্টিকর্তার কাছে প্রার্থনা করি।

০১ লা সেপ্টেম্বর, ২০২১ দুপুর ১:৩৭

হাবিব বলেছেন:



ভুম ভাইয়ূ, মন্তব্যের জন্যে অশেষ ধন্যবাদ জানাচ্ছি। আপনার আন্তরিক মন্তব্য এবং শুভকামনা ও দোয়াগুলো মঞ্জুর হোক। আপনার জন্যও আশির্বাদ রইলো।

সবে মাত্র বাবা হয়েছি তো তাই আবেগ একটু বেশিই। আপনার সুন্দর পরামর্শ মেনে চলবো ইনশাআল্লাহ। সাথেই থাকবেন। সময় সময় আপনার/আপনাদের কাছ থেকে আরো পরামর্শ পাবো আশা করি।

সুস্থ ও সুন্দর থাকুন সবসময়।

৫| ০১ লা সেপ্টেম্বর, ২০২১ দুপুর ১:৩৬

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: ছানাকে নিয়েই আপনাদের জীবনের মধুর সময়গুলো অতিবাহিত হোক। পরিবারের সকল সদস্যদেরকে অনেক শুভেচ্ছা রইলো।

০১ লা সেপ্টেম্বর, ২০২১ দুপুর ১:৩৯

হাবিব বলেছেন:




পদাতিক ভাইয়া, আপনার আন্তরিক মন্তব্যের জন্য অশেষ কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। আপনার প্রার্থনা মঞ্জুর হোক। আপনাদের জন্যও দোয়া রইলো।

সব সময় সুস্থ ও সুন্দর থাকুন, এই কামনা করি।

৬| ০১ লা সেপ্টেম্বর, ২০২১ দুপুর ১:৪৩

জুন বলেছেন: আপনার ছোট্ট ছানাটির জন্য রইলো অনেক অনেক ভালোবাসা আর শুভকামনা ।
ভালো থাকুন সব্বাইকে নিয়ে।

০১ লা সেপ্টেম্বর, ২০২১ দুপুর ১:৪৭

হাবিব বলেছেন: জুন আপু, আপনার আন্তরিক মন্তব্য ও শুভকামনার জন্য কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। আপনার প্রার্থনা মঞ্জুর হোক।

আপনিও ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন। দোয়া ও ভালোবাসা রইলো।

৭| ০১ লা সেপ্টেম্বর, ২০২১ বিকাল ৫:২৮

চাঁদগাজী বলেছেন:



সন্তানের প্রতি ভালোবাসা মানব মনের বিশাল অনুভবতা; আশাকরি, আপনারা সুখী হবেন।

০২ রা সেপ্টেম্বর, ২০২১ বিকাল ৩:২৩

হাবিব বলেছেন:
মন্তব্যের জন্য অশেষ ধন্যবাদ আপনাকে।

পৃথিবীর সকল সন্তানেরা সুখে থাকুক ঈশ্বর পাটনীর প্রার্থনার মতো।

৮| ০১ লা সেপ্টেম্বর, ২০২১ রাত ১০:৫৮

রাজীব নুর বলেছেন: সন্তানের প্রতি পিতার ভালোবাসা কতটুকু তা আমি জানি। বুঝি।

০২ রা সেপ্টেম্বর, ২০২১ বিকাল ৩:৪৭

হাবিব বলেছেন: আপনি আপনার সন্তানদের অনেক ভালোবাসেন

৯| ০২ রা সেপ্টেম্বর, ২০২১ রাত ১২:০১

কামাল১৮ বলেছেন: সন্তানের প্রতি ভালবাসা একটা স্বাভাবিক বিষয় কিন্তু মানুষের চেয়ে পশুপাখি তার সন্তানকে বেশি ভালোবাসে।অনেক বাবা মা বিরক্ত হয়ে সন্তানকে বকা ঝকা করে যেটা পশুপাখি করে না।মানব শিশুকে বকা ঝকা করতে হাজারটা দেখেছি কিন্তু পশু পাখিকে একটাও দেখি নাই।
আশা করি আপনি আপনার বাচ্চাকে বকা ঝকা করবেন না তবেই বাচ্চার বিকাশ স্বাভাবিক হবে।বাচ্চাকে মাদ্রাসায় পাঠাবেন না।

০২ রা সেপ্টেম্বর, ২০২১ বিকাল ৩:৪৯

হাবিব বলেছেন: পশুপাখিরা তাদের ভাষায় তাদের সন্তানদের বড় করে। মানুষেরা তাদের সন্তানদেরকে আদর শাসন উভয়টি দিয়েই লালন পালন করে থাকেন। শাসন তো করতেই হবে। তবে উভয়টির ব্যালান্স দরকার।

১০| ০২ রা সেপ্টেম্বর, ২০২১ রাত ১:৪৪

নেওয়াজ আলি বলেছেন: প্রতিটি ছানাই মা-বাবার বুকে থাকুক। প্রতিটি মা-বাবাই ছানার বুকে মরণ হয়। সুন্দর ছবি।

০২ রা সেপ্টেম্বর, ২০২১ বিকাল ৩:৫১

হাবিব বলেছেন: সুন্দর মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ আপনাকে

১১| ০২ রা সেপ্টেম্বর, ২০২১ সকাল ১০:৪৬

ইসিয়াক বলেছেন:






এই দিন গুলিই স্মৃতির পাতাতে রয়ে যাবে চির অম্লান হয়ে। ভালো থাকুন প্রিয় হাবিব ভাই। ছেলের জন্য অনেক অনেক দোয়া রইলো।

শুভকামনা সতত।

০২ রা সেপ্টেম্বর, ২০২১ বিকাল ৩:৫২

হাবিব বলেছেন: অশেষ ধন্যবাদ ভাইয়া আপনার আন্তরিক মন্তব্যের জন্য। ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন।

১২| ০২ রা সেপ্টেম্বর, ২০২১ বিকাল ৪:২৪

মোহাম্মাদ আব্দুলহাক বলেছেন: পরে পড়ে মন্তব্য করব। এখন দৌড়ের উপারে আছি। আমার পোস্টে আপনার মন্তব্যের জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ।

০২ রা সেপ্টেম্বর, ২০২১ বিকাল ৪:৩৬

হাবিব বলেছেন: আপনার মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ। ঠিক আছে, আগে ফ্রি হন, তারপর না হয় পড়ে নিবেন। অবশ্য আহামরি কিছু লিখি নি, না পড়লেও ক্ষতি নেই।

১৩| ০২ রা সেপ্টেম্বর, ২০২১ বিকাল ৪:৪৫

আরোগ্য বলেছেন: স্যার এই যুগে বাচ্চা লালন পালন অনেক বড় পরীক্ষা। আর পাঁচজন যেমন করে গড়ে তোলে তাদের অনুকরণ করতে গেলে বিপদ হবে। চেষ্টা করবেন সবার আগে ইসলামি শিক্ষা দিতে, কোরআনের জ্ঞান সর্বাগ্রে নয়তো স্রোতের সাথে গা ভাসিয়ে দেয়ার সুযোগ অনেক বেশি। পিলার যদি মজবুত থাকে ইনশাআল্লাহ হাজারো ঝড়ঝাপ্টা সয়ে যাবে। আল্লাহ আরিশের জন্য উত্তম পরিচর্যার ব্যবস্থা করুক।

ব্লগের এমন মরাধরা অবস্থা কেন?

০২ রা সেপ্টেম্বর, ২০২১ বিকাল ৫:০৩

হাবিব বলেছেন:


খুবই সুন্দর করে পরামর্শ দিয়ে গেলেন, কৃতজ্ঞতা জানবেন। ইনশাআল্লাহ সাধ্য অনুযায়ী চেষ্টা করবো। বাকিটা আল্লাহ তায়ালার ইচ্ছা। আপনার প্রার্থনা মঞ্জুর হোক।

সাবাই অনেক ব্যস্ত কাজ নিয়ে। যদিও ব্লগে আসেন মন্তব্য করেন না লগিনের ডরে। সবাই সহজ কিছু খুঁজেন। এক ক্লিকেই ফেসবুকে যাওয়া যাচ্ছে, টুইটার, লিংকডইন, ইউটিউব, টিকটক আরো সব সোস্যাল (!) অ্যাপও সহজে ব্যবহার যোগ্য, দৌড়ের উপর ব্যবহার করা যায়। সেখানে ব্লগিং করতে হয় সময় নিয়ে, যা অনেকের পক্ষেই আর সম্ভব হচ্ছে না। যার দরুণ ব্লগের এমন মরাধরা অবস্থা। অবশ্য আরো কারণ আছে, এই যেমন আপনি, নজসু, ল, রাকু ভাই সহ আরো অনেকে এখন আর নিয়মিত লিখেন না, যাদেরকে ব্লগে এসে পেয়েছিলাম। আপনারা যে কারনে ব্লগ বিমুখ ঠিক একই কারণে অনেকেই ব্লগে নেই। সময় পেলে এ নিয়ে একদিন পোস্ট করবো।

ভালো থাকুন, এই দোয়া করি সবসময়।

১৪| ০২ রা সেপ্টেম্বর, ২০২১ বিকাল ৪:৪৮

কাজী ফাতেমা ছবি বলেছেন: ছানাটাকে আল্লাহ নেক হায়াত দান করুন

০২ রা সেপ্টেম্বর, ২০২১ বিকাল ৫:০৪

হাবিব বলেছেন: আমিন, ছুম্মা আমিন। আন্তরিক মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ ফাতেমা বুবু

১৫| ০২ রা সেপ্টেম্বর, ২০২১ বিকাল ৫:১৫

আরোগ্য বলেছেন: আসলে পড়ালেখা নিয়ে একটু ব্যস্ত আছি তাই ব্লগে লেখা হয়না। জানেন তো পোস্ট করতে গেলে যথেষ্ট সময় দিতে হয় সেই সুযোগটা পাচ্ছি না, তবে আসবো ইনশাআল্লাহ। যারা ব্লগিং করে তারা ব্লগ ছাড়তে পারে না। পুরনো দিনগুলো বেশ মনে পড়ে। আল্লাহ আপনাকে ও পরিবারকে সকল কুদৃষ্টি থেকে হেফাজত করুক।

০২ রা সেপ্টেম্বর, ২০২১ সন্ধ্যা ৬:০১

হাবিব বলেছেন: পড়ালেখা আগে, চালিয়ে যান আপনার পড়ালেখা। আবার ফিরে আসুন নতুন ভাবে। পুন:রায় আগমনের জন্য আবারো কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। ভালো থাকবেন সবসময়। আপনার প্রার্থনা মঞ্জুর হোক।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.