নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

জীবন কেবলই ফুরিয়ে যায়।

মোঃ মাইদুল সরকার

একদিন জীবন শেষ হয়ে যাবে তবুও অনেক কিছু করার সাধ জাগে..............

মোঃ মাইদুল সরকার › বিস্তারিত পোস্টঃ

বই পর্যালোচনা (বেন-হার)

১৮ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:১৬



উপন্যাসের নাম-বেন-হার
লেখক-লিউ ওয়ালেস
রূপান্তর-মুনতাসীর মামুন
সময় প্রকাশী
প্রচ্ছদ-ধ্রুব এষ
মূল্য-৫০/-

জেরুজালেম শহরের হুর বংশের হহুদি রাজপুত্র বেন-হারের কবুতরের বকবকুম বকবকুম আওয়াজে ঘুম ভাঙ্গা দিয়ে উপন্যাসের শুরু।
কাজের বুয়া -আমরাহ্ ও বোন তিরজাহকে নিয়ে নাস্তা খাওয়ার পর শিঙার শব্দে রোমান সেনাদের মার্চ করে এগিয়ে আসার দৃশ্য দেখার জন্য সে ছাদে উঠে।

ধীর পদক্ষেপে কুচকাওয়াজ করে এগিয়ে যাচ্ছে রোমান সেনারা। রোদে ঝলসে উঠছে তাদের বল্লম, ‍ঢাল, বুকে বাধাঁ বর্ম। সত্যি একটা জাঁকালো দৃশ্য বটে।
নতুন রোমান গভর্নর ভ্যালেরিয়াস গ্রাতুস । জেরুজালেমের সবাই প্রায় সন্ত্রস্থভাবে অপেক্ষা করছিলো তার আগমনে । গ্রাতুস হুরদের প্রাসাদের কোনে এসে পড়লো । বেন-হার তাকে আরো ভালোভাবে দেখার জন্যে টালির রেলিংয়ে ভর দিয়ে দাড়ালো। আর অমনি একটা টালি আলগা হয়ে গরিয়ে নিচে পড়তে লাগলো । তারাতারি আর একটু ঝুকে ধরতে গেলো টালিটাকে বেন হার। পারলো না । আতঙ্কে চিৎকার করে উঠলো সে। রোমান সেনারা পর্যন্ত চোখ তুলে তাকালো ছাদের দিকে । আর ঠিক তখনই টালিটা গিয়ে পড়লো গ্রাতুসের মাথার উপর। ঘোড়া থেকে নিচে পড়ে গেলেন গ্রাতুস। শুয়ে রইলেন মাটিতে নিঃসাড় হয়ে। থেমে গেলো কুচকাওয়াজ।

তারপর হামলাকারীকে ধরতে হুরদের প্রাসাদে সেনাদের অভিযান বেন-হার ও তার মা এবং বোনকে বন্দি করা হয়। যতই বোঝানো হলো এটা একটা দুর্ঘটনা কিন্তু কিছুতেই কাজ হলো না। টেনেহিচড়ে তাদেরকে নিয়ে যাওয়া হলো সেনাদের সদর দপ্তরে টাওয়ার অফ এনটোনিয়ায়। কাজের মহিলা-আমরাহ্ বেশি বয়ঙ্ক হওয়ার বেঁচে গেল বন্দি হওয়ার হাত থেকে। বেন-হারদের প্রাসাদে ঝুলিয়ে দেওয়া হলো নোটিশ- এই সম্পত্তি সম্রাটের।

তারপর কিভাবে কৃতদাশ থেকে মু্ক্তি মিলল বেন-হারের এবং মৃত্যুর হাত থেকে বেঁচে কেমন করে সে হয়ে উঠল রোমান সাম্রাজ্যের অংশ আর প্রতিশোধ নিলেন অন্যায় অত্যাচারের। মা ও বোনকে মাটির নীচে গোপন কোঠরিতে রাখার পর কুষ্ঠরোগে আক্রান্ত দুর্বিসহ জীবন থেকে ফিরিয়ে আনলেন এবং তার প্রেম ভালবাসাকে কিভাবে সার্থক করলেন তা জানতে হলে পড়তে হবে বিশ্বসাহিত্যর অন্যতম অনবদ্য বয়ানের আখ্যান।

মন্তব্য ১২ টি রেটিং +৪/-০

মন্তব্য (১২) মন্তব্য লিখুন

১| ১৮ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৫:৩৫

রাজীব নুর বলেছেন: শিরোণামটা মনে হয় ভুল হয়েছে।

১৯ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সকাল ৯:৩৮

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন:
হুম। ঠিক করে দিচ্ছি।

ধন্যবাদ।

২| ১৮ ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৪৯

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন:

ধন্যবাদ মুল্যবান তথ্যর জন্য। বইটি অবস্যই পড়বো।

১৯ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সকাল ৯:৩৯

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন:
ধন্যবাদ আপনাকেও।

বইটি পড়লে অবশ্যই ভাললাগবে।

৩| ১৯ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ রাত ১:০৫

আরোগ্য বলেছেন: মাইদুল ভাই আমি বেনহার মুভিটা দেখেছি। আমার দেখা অন্যতম সেরা মুভি। বেনহার পড়লে অথবা দেখলে অনেকেরই ভুল ধারনা ভেঙ্গে যাবে, যারা মনে করে ইসলাম দাসপ্রথার উদ্যোক্তা।

পোস্টে +++++

১৯ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সকাল ৯:৩৭

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন:
ধন্যবাদ।

আসলেই বইটি পড়লে বা মুভি দেখলে অনেক ভুল ধারণা ভেঙ্গে যাবে।

ধন্যবাদ।

৪| ১৯ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সকাল ৭:১৮

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: বেনহার আমার দেখা সেরা পাঁচটি মুভির একটি।

১৯ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সকাল ৯:৩৬

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন:
উপন্যাসটা যেমন সুন্দর ছবিটিও তেমন সুন্দর।

ধন্যবাদ।

৫| ২০ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:৫৪

নীল আকাশ বলেছেন: অরিজিনাল বেনহার মুভি যদি না দেখে থাকেন তাহলে সেটা আগে দেখুন। আমার দেখা সেরা ছবিগুলির মধ্যে একটা।
এই বই ছোটবেলায় বেশ কয়েকবার পড়েছি। মুভি না থীম বুঝবেন না।

২৯ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সকাল ১০:০২

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন:
ধন্যবাদ।

সেরকম একটি বই।

৬| ২৯ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৫:২৯

নজসু বলেছেন:



আস সালামু আলাইকুম।
কেমন আছেন?
বইটার পিডিএফ পেলে পড়বো।

৩০ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ দুপুর ১:০৯

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন: ভাল। আপনি ?

সার্চ দিয়ে দেখতে হবে পিডিএফ পাওয়া যায় কিনা
ধন্যবাদ।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.