নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

একান্ত ব্যক্তিগত কারণে ব্লগে আর পোস্ট দেওয়া হবে না। আপাতত শুধু ব্লগ পড়বো। বিশেষ করে পুরানো পোস্টগুলো। কোন পোস্টে মন্তব্য করবো না বলে ঠিক করেছি। আমি সামহোয়্যারইন ব্লগে আছি এবং থাকবো। ভালো আছি। ভালো থাকুন সকলে।

ইসিয়াক

আমি অযত্ন অবহেলার আপনি ফোটা এক ফুল।

ইসিয়াক › বিস্তারিত পোস্টঃ

সাময়িক পত্রঃ সুতো কাটা ঘুড়ি

২৪ শে ডিসেম্বর, ২০২২ সকাল ৭:৩০

প্রথম পর্ব

সেই এক চিল চিৎকারে সাত সকালে কান ঝালাপালা হয়ে গেল !!
-ওঠো, ওঠো।কখন সকাল হয়েছে এখনো হেঁদিয়ে মড়ার মত পড়ে পড়ে ঘুমাচ্ছো।এত ঘুমালে সংসার ঠেলবে কে? আমি একা আর কত দিক সামলাবো?

ডিসেম্বর মাস ঠান্ডাটা বেশ জাঁকিয়ে পড়েছে। মনে হচ্ছে লেপটা আমায় নতুন বউয়ের মত জড়িয়ে ধরছে বারবার।এমতাবস্থায় বেরসিক বউটা সাত সকালে কোথেকে এসে শ্যাওড়া গাছের পেত্নীর মত ঘ্যানঘ্যান করে ডেকে চলেছে।উত্তর না করলে তিষ্ঠানো দায় হয়ে যাবে।একটু আহ্লাদী গলায় বললাম।
-উঠছি তো!
আবারও আরেক ঝাটকা!
-উঠছি তো বললে হবে না।একদম ফাঁকি দেওয়ার চেষ্টা করবে না।ছুটির দিনের নাম করে লেপ কম্বল দখল নিয়ে আরাম খাওয়া। একদম চলবে না।
কোথাও কোন শান্তি নেই। সকাল সকাল বড্ড অভিমান হলো। মনে হলো,আমার সব থেকেও কিছু নেই। আমি নিঃস্ব,রিক্ত,দুস্থ,অসহায়।মানুষ হিসাবে আমার কোন স্বাধীনতা নেই। এ মারছে টান তো ও ধরছে কান।কখনও হেঁচকা কখনও হালকা।যার যেমন খুশি।
আমার চারপাশটুকু অসীম শূন্যতায় ঘেরা
এমতাবস্থায় আমার মন বলল," নে চল অনেক হয়েছে। এবার বেড়িয়ে পড়।"
জানালা দিয়ে স্ফটিক স্বচ্ছ আকাশের দিকে তাকাতে সে বলল, "আয় বুকে আয়"
রোদ আকুল হয়ে আমায় টানলো,ভ্রু নাচিয়ে বলল,"বড্ড বোকা তুই "
দুর দিগন্তের সবুজ বনানী হাতছানি দিল,বলল
"এসো এসো আমার বুকে এসো।অনেক হয়েছে এই বেলা প্রাণটা জুড়িয়ে নাও দিকিনি "
ওদিকে ফুলের সুবাস আমায় মাতাল করে তুলল।

আমার মন আপ্লুত হলো। অমন মায়াময় হাতছানি আমার মনকে বোঝালো এখনই তোমার বেড়িয়ে পড়া উচিত।এই তো সুযোগ। এমন সুযোগ বারবার আসবে না।
হ্যাঁ-আমি শূন্যে ভাসতে চাই।
আমি ভার মুক্ত হতে চাই।
আমি দ্বায়িত্বহীন জীবন চাই।
আমি প্রকৃতির মাঝে ডুব দিয়ে স্থির নিশ্চল ক্লেদ মুক্ত জীবন চাই।আমার সুখ শান্তি ফেরত চাই।
যে জীবনে কোন তাড়া নেই। যে জীবনে তথাকথিত সফলতার মাপকাঠি নেই। যে জীবনে কেউ চোখরাঙানির কেউ নেই। না বস, না বউ।এমন একটা জীবন চাই।

যেই ভাবা সেই কাজ,সংসারের সব বাধা ছিন্ন করে
সুতো কাটা ঘুড়ির মত এই ভেসে চললুম!

আহ শান্তি! পূর্ণ স্বাধীনতা!
প্রদীপের মত আগলে চলা জীবন থেকে মুক্তি সংসারের মোহমায়া, ঝুট ঝামেলা, বাজার করা
বাচ্চাদের স্কুলে পৌঁছানো,ন'টা - পাঁচটা অফিস করা,টার্গেট ফিল-আপ করা,এটা নেই,ওটা নেই
ঘ্যানঘ্যান খ্যানখ্যান,বাচ্চাদের আবদার, গিন্নির মুখ ঝামটা,চিল চিৎকার।সব দায় থেকে মুক্তি।
সুখ বলতে তো ওই অতটুকু পায়রার ডিমের মত!
রাত দুপুরে খাপখোলা ভালোবাসার চর্চা,যোষিৎ সংসর্গ টুকুই।সেও থোড় বড়ি খাড়া খাড়া বড়ি থোড়।কোথাও কোন বৈচিত্র্য নেই।

এবার তবে মুক্তি!অনেকটা পথ হেঁটে - বসেছিলুম রোদ পিঠ করে।হাঁটাহাঁটির ফলে পেটে টান ধরেছে। কেমন যেন খামচা খামচি চলছে উদর গহ্বরে।আমার এই এক দোষ বেশিক্ষণ অভুক্ত থাকতে পারি না।অভিমান টান এক নিমেষেই কোথায় যেন হাওয়া হয়ে গেল। বড্ড গাল ফুলেছিল সেসব বেলুনের মত ফেটে গেল নিমেষেই । নাহ ফিরতে হবে।
যাবো কি যাবো না দ্বিধা এলো একটু নাহ মনটা সত্যি সত্যি খচখচ করে উঠলো, তাইতো গিন্নির পায়ের ব্যাথাটা বেড়েছে বলেছিল। আজ ডাক্তারের কাছে যাবার কথা,সিরিয়াল লেখাতে হবে।শীত পড়ে গেছে ছোট্ট মেয়েটার সোয়েটার কিনতে হবে।বছর শেষ এই বেলা ছেলেদের স্কুল ড্রেসের অর্ডার কনফার্ম না করলে হবে না।বন্ধের দিন সাপ্তাহিক বাজারটা আমিই করি। গিন্নি বাজারে গেলে আমারই খবর আছে। হাতখরচার টাকায় টান পড়বে।দায়িত্ব! দায়িত্ব!! দায়িত্ব!!! কোন মুক্তি নেই।
নাহ ফিরতে হবে দেখছি কোন উপায় নেই। নাহলে সব ল্যাটা ফ্যাটা পেকে যাবে। এ মাকড়সার জালে যে জড়িয়েছে তার মুক্ত হবার উপায় নেই।
বাড়ি ফিরলুম ভয়ে ভয়ে । গিন্নিকে না বলে বেরিয়েছি যে! দরজার মুখে গিন্নিও আমায় দেখে হাতে যেন চাঁদ পেলো গদগদ হয়ে বলল
- কোথায় ছিলে বল তো! খুঁজছি তোমাকে। ওদিকে নাস্তা ঠান্ডা হতে চলল যে। মর্নিং ওয়াকে গিয়েছিলে বুঝি?
আমি দাঁত কেলিয়ে মাথা ঝাঁকালাম।
- তা বেশ। তাড়াতাড়ি খেয়ে দেয়ে বাজারে ছোট দিকিনি ওদিকে তোমার বড় সমুন্দি তার বউ ছেলে মেয়ে নিয়ে আসছে। বাচ্চাদের বার্ষিক পরীক্ষার পর বন্ধের ছুটিটা এখানেই কাটাবে বলেছি। কি বলো ঠিক করি নি?
আমি মাথাটা একবার ওপর নিচ করতে করতে গোগ্রাসে গিলতে লাগলাম।
© রফিকুল ইসলাম ইসিয়াক।

মন্তব্য ১২ টি রেটিং +৩/-০

মন্তব্য (১২) মন্তব্য লিখুন

১| ২৪ শে ডিসেম্বর, ২০২২ দুপুর ১২:৩৮

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: আপাতত বৌয়ের তাড়া খেয়ে উঠেপড়া দেখলাম। নুতন বৌ অথচ পেশাদারি বৌ বলে মনে হয়েছে। অপেক্ষায় রইলাম পরের পর্বের...

২৪ শে ডিসেম্বর, ২০২২ বিকাল ৫:১০

ইসিয়াক বলেছেন: নতুন বউ কোথায়? এতো পুরানো বউ :D খেয়াল করে দেখেন বাচ্চা কাচ্চাও আছে :P

২| ২৪ শে ডিসেম্বর, ২০২২ বিকাল ৩:৪৯

রাজীব নুর বলেছেন: দুর্বল রচনা।

২৪ শে ডিসেম্বর, ২০২২ বিকাল ৫:১২

ইসিয়াক বলেছেন: আপনার কমেন্টের পর পোস্টটা আবার পড়লাম। লেখাটা আরও ভালো হতে পারতো স্বীকার করছি।
রাজীব নূর আপনাকে ধন্যবাদ গঠনমূলক মন্তব্য করার জন্য।
শুভেচ্ছা রইলো।

৩| ২৪ শে ডিসেম্বর, ২০২২ রাত ৮:৪৩

মুক্তা নীল বলেছেন:
গল্পের নায়ক দায়িত্বহীন জীবনের স্বপ্নে বিভোর কিন্তু তিনি নিজেই সুতো কাটা ঘুড়ি হয়ে বউয়ের আকাশে উড়ছেন …
সুন্দর গল্প পড়লাম ইসিয়াক ভাই ।

২৪ শে ডিসেম্বর, ২০২২ রাত ৮:৪৬

ইসিয়াক বলেছেন:



অনেক অনেক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা রইলো আপু। আপনার মন্তব্য আমাকে ভীষণ অনুপ্রাণিত করলো।
ভালো থাকুন। সুস্থ থাকুন।
শুভকামনা রইলো।

৪| ২৪ শে ডিসেম্বর, ২০২২ রাত ৮:৪৬

গেঁয়ো ভূত বলেছেন: গল্পের সাথে আমার অল্প অল্প মিল খোঁজে পাচ্ছি।

২৪ শে ডিসেম্বর, ২০২২ রাত ৮:৪৮

ইসিয়াক বলেছেন: হা হা হা তাই না-কি!
আমারও কিছুটা মিল আছে।

ভালো থাকুন।
শুভেচ্ছা রইলো।

৫| ২৪ শে ডিসেম্বর, ২০২২ রাত ৯:০৯

কামাল১৮ বলেছেন: আপনি আমার পাশের থানার লোক।পাশের থানার লোক হলে কি দেশী হয়।সেই হিসাবে একটি মন্তব্য পাওনা।কিন্তু আমি গল্প কবিতা কম পড়ি বলে মন্তব্য করা হয় না।ঐ দিকটায় দেখলাম বনগাঁ থানায় একজন বাংলদেশিকে খুব সম্ভব নির্যাতন করে মেরে ফেলছে।সাবধানে থাকবেন।

২৫ শে ডিসেম্বর, ২০২২ রাত ১০:০৬

ইসিয়াক বলেছেন: না সেরম কোন সমস্যা নেই আমাদের এখানে আর আগের মত বর্ডার ক্রস করা অত সহজও নয়।অনেক কড়াকড়ি ।বুদ্ধিমান লোকজন ওভাবে আর রিস্ক নেয় না আগের মত। পাসপোর্ট ভিসা এবেলএবেল পাওয়া যায়।যাতায়াতে সমস্যা নেই।

৬| ২৪ শে ডিসেম্বর, ২০২২ রাত ১০:০৮

নেওয়াজ আলি বলেছেন: সুন্দর লিখেছেন। হেঁদিয়ে মড়ার মত পড়ে মুয়াচ্ছো?

২৫ শে ডিসেম্বর, ২০২২ রাত ১০:০৭

ইসিয়াক বলেছেন: ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা রইলো প্রিয় মহী ভাই।
শুভকামনা সতত।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.