নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

ব্লগের স্বত্বাধিকারী সামিয়া

সামিয়া

সৎ, সাদাসিধা মানুষ। একটু স্বাধীন টাইপ। পড়তে ভাললাগে, লিখতে ভাললাগে, ছবি তুলতে ভাললাগে, মানুষের মুখে হাসি দেখতে ভাললাগে।

সামিয়া › বিস্তারিত পোস্টঃ

জাপানি শিল্পীর আঁকা বর্তমান জীবন চিত্র

০২ রা ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ৯:৪৯



জীবন নিয়ে আমাদের নানানরকম ভাবনা, মতবাদ, দর্শন, কখনো মনেহয় ঘুরে ফিরে সবাই একি কথা বলছে,বিশেষ করে যখন মানুষ দুঃখবোধ থেকে কিছু বলে; একইরকম লাগে, যখন প্রেম ভালোবাসা নিয়ে কিছু বলে তা ও একইরকম লাগে, আবার আনন্দ আবেগ নিয়ে বলা কথাগুলোও প্রায় সবার একইরকম হয়, যদিও প্রায় প্রত্যেকেই ভাবে তারা ডিফারেন্ট কিছু বলছেন, এবং তার নিজস্ব ভাবনা নিজস্ব চিন্তাধারা অন্যদের মতন না, অথবা তার মতন এমন ভালো চিন্তা জ্ঞান চিন্তা করতে পারেন কে?

এই সকল নানান মতাদর্শ থাকা সত্ত্বেও আমি বলবো জীবন হল সারভাইভ করার, এই পৃথিবীর সকল মানুষ কোন না কোনভাবে সারভাইভ করছেন, এখানে কেউ পরিপূর্ণ সুখী হতে পারে না, কোন ভাবেই সেটা সম্ভব ও না।
বর্তমান মানুষের জীবনযাপন হাল হাকিকত বিষয়ক কিছু চিত্র জাপানি এক শিল্পী এঁকে প্রচুর সুনাম অর্জন করেছেন। সেই জাপানি শিল্পীর আঁকা চিত্রগুলো আমার কাছে যথেষ্ট ইন্টারেস্টিং লেগেছে তাই কিছু শেয়ার করলাম।



সুখ নেই; স্বপ্ন নেই; আশা নেই; কিচ্ছু করার নেই, অর্ধ মৃত আর আঘাতে জর্জরিত বন্দী জীবন আর অনর্থক অপেক্ষা।



কারো পানে চাহিবার নাই যে সময় নাই নাই--------



মৃত্যুর পর অনন্ত যাত্রার প্রতিচ্ছবি।



এখন তো সময়টা এমনই, সবাই কষ্টের মুখচ্ছবি এই ভাবে একটি আনন্দিত মুখোশ দিয়ে প্রাণপণ ঢেকে রাখে।



প্রতিদিনের নানান আঘাত কষ্ট যন্ত্রনা গুলো এভাবেই নিজেকে টেনে তুলে ফেলে দিতে হয়।



জীবন একটা মেশিন যেন। মেশিন যেমন এক সময় নষ্ট হয়ে বাতিল হয়ে যায় তেমন মানুষের জীবন ও।



শপিং মলের সেলসগার্ল গুলা, এইভাবেই ফুল সেজে ফুটে থাকে রোজ।



মোবাইলের ব্যাটারির মতন এইভাবে যদি চার্জ দেয়া যেত নিজেকে, মাঝে মাঝে এটা খুব প্রয়োজন হয়ে পড়ে।



মানুষ সেলফির হাতে বন্দী এখন।



কেউ তো সাহায্য করবেই না বরং পেছন থেকে আঘাত করে জর্জরিত করে দিবে। কেউ কারো কষ্ট দুর্দশা ও বুঝবেনা, নিজের ব্যাথা শুধু নিজের, নিজেকেই সেই সব আঘাত থেকে বেরিয়ে আসতে হবে, রক্ষা করতে হবে।

প্রয়োজনীয় লিঙ্কঃ

アボガド6

アボガド6

মন্তব্য ৩২ টি রেটিং +১৫/-০

মন্তব্য (৩২) মন্তব্য লিখুন

১| ০২ রা ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ৯:৫৩

নজসু বলেছেন:




বুকিং :D

০২ রা ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ৯:৫৪

সামিয়া বলেছেন: :)

২| ০২ রা ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ১০:০৬

রাজীব নুর বলেছেন: খুব ভালো লাগলো।

০২ রা ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ১১:০৬

সামিয়া বলেছেন: ধন্যবাদ রইলো

৩| ০২ রা ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ১০:১০

নজসু বলেছেন:



হাসির ইমো দিয়ে ভুলই হয়েছে।
মন নাড়িয়ে দেয়া ছবি।

০২ রা ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ১১:০৬

সামিয়া বলেছেন: ধন্যবাদ

৪| ০২ রা ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ১০:১৮

জুন বলেছেন: মেশিনের মত জাপানীদের জীবন। সেই ছাপ ফুটে উঠেছে প্রতিটি ছবিতে সামিয়া ।
অনেক ভালোলাগা রইলো ।
+

০২ রা ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ১১:০৭

সামিয়া বলেছেন: ধন্যবাদ আপুনি---

৫| ০২ রা ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ১০:৩৯

আহমেদ জী এস বলেছেন: সামিয়া,




মেশিনের মতো যদি জীবনটাকেও চার্জ দেয়া যেত তবে সেলস গার্লদের মতো ফুল হয়ে ফুটে থাকা যেতো জীবনের পথের ধারে ধারে!

চমৎকার শেয়ার।

০২ রা ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ১১:০৭

সামিয়া বলেছেন: ভালো বলেছেন ভাইয়া-----

ধন্যবাদ।।

৬| ০২ রা ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ১১:০১

কাওসার চৌধুরী বলেছেন:



জাপানীরা খুব কর্মঠ। এরা এভারেজে প্রতিদিন পৃথিবীর সবচেয়ে বেশি ঘন্টা কাজ করে! তবুও কুলাতে পারে না। এখন রোবট দিয়ে মানুষের শুণ্য স্থান পূরণ করতে চাচ্ছে। এরা বিদেশি শ্রমিক নেয় না, এজন্য ইমিগ্র্যান্টদের উৎপাত নেই বললেই চলে। অতিরিক্ত কাজের চাপে এরা সংসারী হতে চায় না, বাচ্চা নিতে চায় না। এগুলো আধুনিক শিল্প বিপ্লবের সবচেয়ে বড় কুফল। আপনার প্রতিটি ছবিই জাপানীদের প্রতিদিনকার জীবনযাত্রার ছবি তুলে ধরেছে।

চমৎকার এ ছবিগুলো শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ, সামিয়াআপু।

০২ রা ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ১১:০৯

সামিয়া বলেছেন: ধন্যবাদ ভাইয়া,

বেশ গুছিয়ে বলেছেন, শিল্পী পৃথিবীর সকল মানুষের বাস্তব চিত্র ফুটিয়ে তুলতে চেষ্টা করেছেন।।

৭| ০২ রা ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ১১:৪০

জ্ঞান পাগল বলেছেন: সময় উপযোগী চিত্র

০২ রা ডিসেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৪:১০

সামিয়া বলেছেন: ধন্যবাদ।

৮| ০২ রা ডিসেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৩:০৯

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: বর্তমানের প্রতিচ্ছবি.....

০২ রা ডিসেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৪:১০

সামিয়া বলেছেন: ধন্যবাদ।

৯| ০২ রা ডিসেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৪:০৬

জাহিদ হাসান বলেছেন: গভীর চিন্তার বিষয়

০২ রা ডিসেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৪:১০

সামিয়া বলেছেন: ধন্যবাদ।

১০| ০২ রা ডিসেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৪:৪৫

জাহিদ অনিক বলেছেন: সবগুলোই সুন্দর ও অর্থবহ।
চমৎকার কিছু ছবি শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ সামিয়া আপু

০৪ ঠা ডিসেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১২:০১

সামিয়া বলেছেন: ধন্যবাদ কবি ভাই, শুভকামনা---------

১১| ০২ রা ডিসেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৪:৪৯

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: অত্যন্ত যুগোপযোগী সুন্দর ছবি ব্লগ। ++

শুভকামনা জানবেন।

০৪ ঠা ডিসেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১২:০১

সামিয়া বলেছেন: অনেক অনেক ধন্যবাদ, ভালো থাকুন।

১২| ০৩ রা ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ১১:৪৩

খায়রুল আহসান বলেছেন: শিরোনামের ছবিটা একটা চমৎকার কাব্য! + +
শিরোনামের ছবিটাকে যদি ১ নম্বর ধরি, তবে ৬ নং ছবিটাতে এসে আঁৎকে উঠলাম! আমার কোন কথা, অভিব্যক্তি কিংবা আচরণ কারো বুকে, পিঠে, মাথা্‌য়, মননে এমন করে পেরেক গেঁথে দেয়নি তো???
কি সুন্দর কিছু ভাবনাকে কেন্দ্র করে এত হৃদয়গ্রাহী একটা পোস্ট রেখে গেলেন, খুব ভাল লেগেছে।
পোস্টে দশম ভাল লাগা + +

০৪ ঠা ডিসেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১২:০৩

সামিয়া বলেছেন: আপনি অত্যন্ত বড় মনের মানুষ বলেই আপনি নিজে কাউকে নিজের অজান্তে আঘাত করেছেন কি না প্রথমেই এই ব্যাপারটা নিয়ে চিন্তিত হয়েছেন। আপনি আমাদের মতন সাধারণ মানুষের জীবনে প্রেরণা।
অশেষ শুভকামনা।। ধন্যবাদ।

১৩| ০৩ রা ডিসেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১:০২

নয়া পাঠক বলেছেন: চীন, জাপান ও কোরিয়ান এ তিন দেশের মানুষেরা প্রায় রোবট! অনেকটা ইচ্ছাকৃত, অনেকটা প্রয়োজনের তাগিদে, কিন্তু মাঝে মাঝে দেখি তাদের এ রোবটিক লাইফেও হাহাকার আছে! মানুষ মানুষই, রোবট নয়, ইচ্ছে হলে মানুষ সব কিছু করতে পারে, তবে অবশ্যই একটা নির্দিষ্ট সময় পর্যন্তই। একসময় না একসময় মানুষকে থেমে যেতেই হয়। বিরতি দিতেই হয় তার রোবটিক কাজে, তাহলে আবার কাজের স্পিরিট বেড়ে যায় ও মান ভাল হয়, সঙ্গে মাইন্ডও রিফ্রেশ হয়ে যায়।

০৪ ঠা ডিসেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১২:০৪

সামিয়া বলেছেন: এখন সমগ্র পৃথিবীই যান্ত্রিক হয়ে যাচ্ছে, কারো দিকে মুখ তুলে ফিরে দেখবার সময় এখন আর কারো নেই।

অনেক অনেক ধন্যবাদ , শুভকামনা।

১৪| ০৪ ঠা ডিসেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১২:১২

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: আপি কিছু পোস্ট দিছি একটু দেখবা :)

০৪ ঠা ডিসেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১২:১৩

সামিয়া বলেছেন: দেখি-----------

১৫| ০৪ ঠা ডিসেম্বর, ২০১৮ দুপুর ২:৩৯

শিখা রহমান বলেছেন: ছবিগুলো আর সাথের লেখাটা মন ছুঁয়ে গেলো।

খুঁজে খুঁজে এমন সব দারুণ ছবি আর শিল্পীদের আমাদের সাথে পরিচিত করিয়ে দেবার জন্য অনেক ভালোবাসা আর আদর।

ভালো থেকো ভালোবাসায় প্রিয় ইতিমিতিমনি।

০৪ ঠা ডিসেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৩:৫৯

সামিয়া বলেছেন: অনেক অনেক ধন্যবাদ আপুনি, লাভ ইউ-----------

১৬| ০৪ ঠা ডিসেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৩:০২

ভুয়া মফিজ বলেছেন: ছবি আর ব্যাখ্যা, দু'টোই চমৎকার!

জাপান আর যন্ত্র যে হাত ধরাধরি করে চলে.....তা বেশিরভাগ ছবিতে চমৎকারভাবে ফুটে উঠেছে।
দারুন লাগলো, সেইসাথে কিছু সময়ের জন্য দার্শনিক হয়ে গেলাম। :)

০৪ ঠা ডিসেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৩:৫৯

সামিয়া বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ ভাইয়া, ভালো থাকুন, শুভকামনা--------

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.