নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

চার হাত থেকে আধ হাত কম..

সৈয়দ তাজুল ইসলাম

নিভৃত গ্রহচারী

সৈয়দ তাজুল ইসলাম › বিস্তারিত পোস্টঃ

স্বামী (!) অনুকাব্য -১

০৭ ই মার্চ, ২০১৯ ভোর ৪:৪৭

এই তাহাজ্জুদ ওয়াক্তের শপথ,
তোদের বুকে লাথিরে, যারা তোদের স্ত্রীদের সাথে সদ্ব্যবহার করতে জানিস না।
সত্যি, আমি এই ব্যস্ত শহরের নিকম্মা তোদের কলিজা বরাবর প্রকাণ্ড লাথি দিতে ভয় পাই না; যেমনটা ভয় পায় তোর পাজরের হাড়।



তাহাজ্জুদ ওয়াক্ত
০৭ই মার্চ, ঢাকা

মন্তব্য ১৬ টি রেটিং +০/-০

মন্তব্য (১৬) মন্তব্য লিখুন

১| ০৭ ই মার্চ, ২০১৯ সকাল ৭:৩৭

রাজীব নুর বলেছেন: আচ্ছা।

০৭ ই মার্চ, ২০১৯ সকাল ৮:৪০

সৈয়দ তাজুল ইসলাম বলেছেন: আচ্ছা রাজীব ভাই ;)

২| ০৭ ই মার্চ, ২০১৯ সকাল ১১:০২

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: হা হা এভাবে লাতি মারতে যাইয়েন না, হিতে বিপরীত হতে পারে।

০১ লা জুন, ২০১৯ রাত ১০:০১

সৈয়দ তাজুল ইসলাম বলেছেন: তারেক ভাই, সময়ের খুব অভাব আজকাল। সময়বকরে আসতে পারি না। আসলেও অন্যের লেখায় ডুবে থাকি। যাই হোক, আপনি তো ভাই ভয় পাইয়ে দিলেন ;)

দু'আ থাকলো আপনার ফুলের যত্নকারীনীর জন্য।

৩| ০৭ ই মার্চ, ২০১৯ সকাল ১১:০৫

নীল আকাশ বলেছেন: দাম্পত্য প্রেম তো দেখি উথলে উথলে উঠছে? কি হে বাহে, আজকাল বেশ রঙচঙা সময় কাটছে দেখি?

আপনার লেখার সমর্থনে একটা সনদ সহ হাদিস দিলাম। আরও পড়তে চাইলে আমার ব্লগে যেয়ে "তোমার স্ত্রী, তোমার অনুপমা সঙ্গী!" পড়তে বলুন!
হযরত আবদুল্লাহ ইবনে উমর (রাঃ) বর্ণনা করেন: মহানবী (সঃ) বলেছেন, ‘ আলা কুল্লুকুম রায়েন ওয়া কল্লুকুম মাস্উলুন আন রায়িআতিহী, ফাল ইমামুল্লাজি আলান্ নাসে রায়েন ওয়া হুয়া মাস্উলুন আন রায়িআতিহী, ওর্য়া রাজুলু রায়েন আলা আহলি বাইতিহী ওয়া হুয়া মাস্উলুন আন রায়িআতিহী, ওয়াল র্মায়াতু রাইয়াআতুন আলা আহলি বাইতি ঝাওজিহা ওয় ওয়ালাদিহী ওয়া হিয়া মাস্উলাতুন আনহুম। -শুনে রেখো, তোমরা প্রত্যেকেই রাখাল বা প্রহরী। আর প্রত্যেককেই তার অধিনস্তদের সম্পর্কে জিজ্ঞেস করা হবে। ইমাম বা নেতা যিনি শাসন করেন সাধারণ মানুষকে তাকেও তার অধিনস্তদের সম্পর্কে জিজ্ঞেস করা হবে। একজন পুরুষ তার বাড়ির লোকদের রাখাল বা প্রহরী। তাকে তার অধিনস্ত লোকদের সম্পর্কে জিজ্ঞেস করা হবে। নারী তার স্বামীর ঘরের লোকদের এবং সন্তানদের রাখাল বা প্রহরী। তাকে তার অধিনস্ত লোকদের সম্পর্কে জিজ্ঞেস করা হবে। (বোখারী, কিতাবুল আহকাম)
হাদিসের রাবী হযরত আবদুল্লাহ ইবনে উমর (রাঃ)। পার্থিবতার প্রতি তাঁর কোন আকর্ষণ ছিল না। পদের প্রতিও তাঁর কোন লোভ ছিল না। তাঁর বর্ণিত হাদিসের সংখ্যা ১৬৩০ টি। তিনি অনেক সাহাবীদের থেকেও হাদিস বর্ণনা করেছেন। আর তাঁর থেকে রেওয়ায়েত করেছেন তাবেয়ীগণ।

ধন্যবাদ এবং শুভ কামনা রইল!

০১ লা জুন, ২০১৯ রাত ১০:০৭

সৈয়দ তাজুল ইসলাম বলেছেন: প্রিয় ভাইজান ;),
দাওয়াত পেলে সিলেট আসতে হবে ;) হেইডা স্মরণ রাইখেন। কিন্তু এখন থেকেই খাবারদাবার বন্ধ কইরেন না ;)

ইবনে উমর (রা) সম্পর্কে আপনার জ্ঞান দেখে মা শা আল্লাহ আমি সত্যি অভিভূত হচ্ছি। আল্লাহ আপনার জ্ঞানকে প্রবাহমান রাখুন। আমীন।

হু হাদিসটা অবশ্যি তাঁঁকে দেখাতে হবে ;)
স্কিন শর্ট দিয়ে পাঠিয়ে দিচ্ছি; যতজন আছে প্রিয়তমা সবাইকে ♥...




আপনাকে আই ল্যাভু ;)

৪| ০৭ ই মার্চ, ২০১৯ সকাল ১১:০৯

নীল আকাশ বলেছেন: দাম্পত্য প্রেম তো দেখি উথলে উথলে উঠছে? কি হে বাহে, আজকাল বেশ রঙচঙা সময় কাটছে দেখি?

আপনার লেখার সমর্থনে একটা সনদ সহ হাদিস দিলাম। আরও পড়তে চাইলে আমার ব্লগে যেয়ে "তোমার স্ত্রী, তোমার অনুপমা সঙ্গী!" পড়তে বলুন!
হযরত আবদুল্লাহ ইবনে উমর (রাঃ) বর্ণনা করেন: মহানবী (সঃ) বলেছেন, ‘ আলা কুল্লুকুম রায়েন ওয়া কল্লুকুম মাস্উলুন আন রায়িআতিহী, ফাল ইমামুল্লাজি আলান্ নাসে রায়েন ওয়া হুয়া মাস্উলুন আন রায়িআতিহী, ওর্য়া রাজুলু রায়েন আলা আহলি বাইতিহী ওয়া হুয়া মাস্উলুন আন রায়িআতিহী, ওয়াল র্মায়াতু রাইয়াআতুন আলা আহলি বাইতি ঝাওজিহা ওয় ওয়ালাদিহী ওয়া হিয়া মাস্উলাতুন আনহুম। -শুনে রেখো, তোমরা প্রত্যেকেই রাখাল বা প্রহরী। আর প্রত্যেককেই তার অধিনস্তদের সম্পর্কে জিজ্ঞেস করা হবে। ইমাম বা নেতা যিনি শাসন করেন সাধারণ মানুষকে তাকেও তার অধিনস্তদের সম্পর্কে জিজ্ঞেস করা হবে। একজন পুরুষ তার বাড়ির লোকদের রাখাল বা প্রহরী। তাকে তার অধিনস্ত লোকদের সম্পর্কে জিজ্ঞেস করা হবে। নারী তার স্বামীর ঘরের লোকদের এবং সন্তানদের রাখাল বা প্রহরী। তাকে তার অধিনস্ত লোকদের সম্পর্কে জিজ্ঞেস করা হবে। (বোখারী, কিতাবুল আহকাম)
হাদিসের রাবী হযরত আবদুল্লাহ ইবনে উমর (রাঃ)। পার্থিবতার প্রতি তাঁর কোন আকর্ষণ ছিল না। পদের প্রতিও তাঁর কোন লোভ ছিল না। তাঁর বর্ণিত হাদিসের সংখ্যা ১৬৩০ টি। তিনি অনেক সাহাবীদের থেকেও হাদিস বর্ণনা করেছেন। আর তাঁর থেকে রেওয়ায়েত করেছেন তাবেয়ীগণ।

ধন্যবাদ এবং শুভ কামনা রইল!

০১ লা জুন, ২০১৯ রাত ১০:০৮

সৈয়দ তাজুল ইসলাম বলেছেন:
ধন্যবাদ ;)

৫| ০৭ ই মার্চ, ২০১৯ দুপুর ১:২৫

জুনায়েদ বি রাহমান বলেছেন: সময়ের সাথে সাতগে অশান্ত, লোভী মানুষের সংখ্যা খুব খুব বাড়ছে। মনুষ্যত্বহীন, নীতিনৈতিকতাহীন এইসব মানুষদের লাথিগুথা দুয়েও ঠিক করা যাবে বলে হয় না।

০১ লা জুন, ২০১৯ রাত ১০:১২

সৈয়দ তাজুল ইসলাম বলেছেন: মানুষ শব্দের সজ্ঞায় ভাববাদী দার্শনিকরা যে ব্যখ্যা দিয়েছেন, সেখানে এই সকল কুলাঙ্গারদের জায়গা নাই।


এরা যতদিন না মানুষের কাতারে আসছে, ততদিন আমাদের সমাজ ব্যবস্থার ভেতরের প্রাণ এভাবেই মৃত থাকবে।

ধন্যবাদ সুন্দর মন্তব্যের জন্য।

৬| ০৭ ই মার্চ, ২০১৯ দুপুর ২:৩৬

মাহমুদুর রহমান বলেছেন: নীল আকাশ বলেছেন: দাম্পত্য প্রেম তো দেখি উথলে উথলে উঠছে? কি হে বাহে, আজকাল বেশ রঙচঙা সময় কাটছে দেখি?
হা হা হা।আমারও তাই মনে হচ্ছে।দাম্পত্য প্রেম উথলে পড়াটা দাম্পত্য সম্পর্কগুলোকে আরও জোরালো করতে সহায়তা করে।তবে লিমিটেশনের মধ্যে থেকে।অতিরিক্ত হলে আবার সমস্যা।

লেখকের জন্য শুভকামনা রইলো।

০১ লা জুন, ২০১৯ রাত ১০:১৫

সৈয়দ তাজুল ইসলাম বলেছেন: উরি আল্লারে!
আন্নে তাবিজ কবজের পানি না ছিটিয়ে কয়ে দিলেন সব! আপনার খানকাহ কোথায়, টিহানা কন মিয়া, বাচ্চা সমেত আসুমনে ;) ;)



সুন্দর মন্তব্যের জন্য ভালবাসা

৭| ০৭ ই মার্চ, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৩৯

বলেছেন: নীল আকাশ বলেছেন: দাম্পত্য প্রেম তো দেখি উথলে উথলে উঠছে?

০১ লা জুন, ২০১৯ রাত ১০:২০

সৈয়দ তাজুল ইসলাম বলেছেন: আর আফনে কিতা খইন!
দেখি, ডিসেম্বর নাগাদ কেউরেনি ফটাইতে ফারি! আপনি আইয়্যা আখত ফরাইলা ;) ;)

৮| ২২ শে মার্চ, ২০১৯ রাত ১১:০২

আহমেদ জী এস বলেছেন: সৈয়দ তাজুল ইসলাম,



নীল আকাশ এর মতো আমারও মনে হয়েছে, কিছু একটা ঘটেছে তাজুলের! :P
নইলে "লাথি" টাকে "লাতি" বানিয়ে ফেলতো না। :|
এই পোস্টের শপথ- সৈয়দ বংশের এই ছেলেটার পাঁজরের হাড় দিয়ে একটা স্ত্রী বানিয়ে দাও হে পরওয়ারদেগার............ :(

০১ লা জুন, ২০১৯ রাত ১০:২৪

সৈয়দ তাজুল ইসলাম বলেছেন: আমিন আমিন আমিন।


ভাই, শুধরে নিলাম। যদি দয়ালের একটু দয়া হয়, তবে যেন আমার হারিয়ে পাজরের দ্রুত মিলাইয়্যা দেন, খোঁজে পাচ্ছি না ভাই। খোঁজতে খোঁজতে পেরেশান ;) ;)


দু'আ থাকলো, দু'আ করবেন।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.