নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

চার হাত থেকে আধ হাত কম..

সৈয়দ তাজুল ইসলাম

জীবনের পুত্র

সৈয়দ তাজুল ইসলাম › বিস্তারিত পোস্টঃ

আপনার কি মনে হয়, মামুনুলের পূর্বপুরুষ জমিদার ছিলেন? (ভিডিও ক্লিপ সহ)

০৪ ঠা মে, ২০২১ রাত ৯:০৫


মামুনুলের জিবের তাজল্লী সর্ব মহলে মারাত্মক প্রভাব ফেলেছে। যেই প্রভাবের কারণে, তার ভক্তকুলেরা ছাড়াও সাধারণ ধর্মালম্বীরা পর্যন্ত তার আকামকে সুকাম বলে মেনে নিয়েছে। মাঝেমধ্যে মনে হয়, মামুনুলের যা গলা তাতে সে ব্যান্ড গ্রুপ চালু করলে জগদ্বিখ্যাত ব্যান্ডশিল্পীদের হারিয়ে বসতো নিশ্চিত। তার কন্ঠের মিষ্টান্নতা মানুষকে যেমন মোহনিদ্রায় ফেলে দিত, তেমনি বিরোধী শক্তিকে করতো অসম্ভব রকমের গায়েল। সে কারণে ভৌগলিক অবস্থা বিবেচনায় ৯৮% মুসলমানের দেশে সে ধর্মের বাণী উৎরানোকেই প্রোফাইল সমৃদ্ধের পথ ধরে নিয়েছে। সফলও হয়েছে বলা যায়।

সম্প্রতি হাজতবাসের পর একাউন্টের যে হিসাবটা জনসম্মুখে আসলো। তার শুদ্ধতা নিশ্চিত করনে তিনি দাবী করেন তার পূর্বপুরুষ জমিদার ছিল। অথচ তার মরহুম পিতার কথা মতে তাদের তেমন অর্থসম্পদ ছিলো না। এই বিপরীতমুখি দু'টি দাবীর মধ্যে কোন সত্যটি মানুষ গ্রহণ করবে? পিতার নাকি পূত্রের? (ভিডিও ক্লিপে পিতা পুত্রের বিপরীতমুখি দাবী দেখতে পাবেন!)


ভিডিওটি দেখা না গেলে এখানে ক্লিক করুন


এই নিয়ে আলোচনা করতে গেলে তুলে ধরতে হয় যে বিষয়টি তা হচ্ছে, পাকিস্তানি আমলে বাংলাদেশের কোটিপতির সংখ্যা ছিল হাতেগোনা দু-চারজন। বর্তমানে তা এসে দাঁড়িয়েছে হাজারে হাজার। যুদ্ধপরবর্তী সময়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এই ধ্বংসপ্রাপ্ত দেশকে পুনর্গঠনের জন্য যখন নিজ নির্ভরযোগ্য বিশ্বাসীদের হাতে দায়িত্ব দিলেন। তখন থেকেই শুরু হয় কোটিপতি তৈরির শিল্প। অতপর মেজর জিয়ার নিভৃতে চলা স্বৈরাচার, এরশাদের একনায়কতন্ত্র এবং গণতন্ত্রের নামে খালেদা ও হাসিনা সরকারের দুর্নীতির হাত ধরে দরিদ্রতম এদেশে তৈরি হয় হাজার হাজার কোটিপতি। সেই কোটিপতিদের মধ্যে মামুনল ফোকাসে আসা এক সংখ্যা মাত্র।

মামুনুলের কুকর্মও তেমনি ঢেকে যেত যেমন ঢেকে গেছে আনভীরের কুকীর্তি। এখানে মামুনুল নিজ জিবের রসের দ্বারা যে ভক্তকুল তৈরি করেছিল তা আমাদের বর্তমান সরকার ব্যবস্থার জন্য না হলেও যৎসামান্য ঝুঁকি ছিল। সরকার যেমন অতীতে কোন ঝুঁকি নিতে চায় নি, ভবিষ্যতেও নিতে চাইবে না। সে কারণে নামে মাত্র এই গণতান্ত্রিক দেশটাকে স্বৈরাচারের মাধ্যমে নিয়ন্ত্রণ করছে। মামুনুল নিজ অর্থের ব্যাপারে তার ভক্তকুলকে যদিও বিশ্বাস করাতে পেরেছেন যে, তার পূর্বপুরুষ জমিদার থাকায় তার একাউন্টে এই কোটি টাকার সমাহার। কিন্তু যতদূর মনে হয়, সরকার তার চৌদ্দপুরুষের ইতিহাসের সত্যতা যাচাইয়ে তাকে বারবার রিমান্ডে পাঠাবে। এখানে তার ভক্তকুলের অবচেতনতা কোন কাজে আসবে না। আমরা বাস্তবতা খোঁজতে গেলে দেখি, এই সব মামুনুলের মত কোটিপতিরা কিন্তু সরকারের সহযোগিতায় গড়ে উঠা এক-একটা সমাজ ধ্বংসকারী কীট। যা সময়ে-সময়ে তৈরি হয় সরকারি আমলাদের দূর্নীতির হাত ধরে।



ছবি+ভিডিও: ইন্টারনেট।

মন্তব্য ১৭ টি রেটিং +২/-০

মন্তব্য (১৭) মন্তব্য লিখুন

১| ০৪ ঠা মে, ২০২১ রাত ৯:২৫

কামাল১৮ বলেছেন: মামুনুল হকের চরিত্র দেখে বোঝা যায় শুধু জমিদার ছিল না,ধর্মীয় জমিদার ছিল।মিয়ার বেটা মিয়া

০৪ ঠা মে, ২০২১ রাত ১০:০৮

সৈয়দ তাজুল ইসলাম বলেছেন: খুব রেগে আছেন মনে হয়!

মানুষের আবেগ নিয়ে খেলা করা যে কত্ত মজা সেটা আপনি-আমি কম বুঝবো!

২| ০৪ ঠা মে, ২০২১ রাত ৯:২৮

সোহানী বলেছেন: ব্যাংকে দুই নাম্বারী টাকা ব্যাংকে থাকলে সবার বাবাই জমিদার হয়ে যায়!!!

০৪ ঠা মে, ২০২১ রাত ১০:০৯

সৈয়দ তাজুল ইসলাম বলেছেন: সোহানী বলেছেন: দুই নাম্বারী টাকা ব্যাংকে থাকলে সবার বাবাই জমিদার হয়ে যায়!!!

কথা কিন্তু এটাই। কিন্তু দুঃখের বিষয় হচ্ছে, এটা কে কায়েজ করার মাধ্যমে সমাজের অবশিষ্ট সত্যটুকুর মৃত্যু ঘটাচ্ছে এই মহল!

৩| ০৪ ঠা মে, ২০২১ রাত ৯:৫৯

রাজীব নুর বলেছেন: মামুনুল এর বাপ ছিলো রাজাকার। মামুনুলের বাপ তসলিমা নাসরিককে দেশ ছাড়া করেছে।

০৪ ঠা মে, ২০২১ রাত ১০:২৭

সৈয়দ তাজুল ইসলাম বলেছেন: আমাদের সীমাবদ্ধতা কাটিয়ে উঠিতে হবে।

৪| ০৪ ঠা মে, ২০২১ রাত ১০:১২

চাঁদগাজী বলেছেন:



আপনি বলেছেন যে, শেখ সাহেবের আমল থেকে "কোটীপতি"র শুরু হয়েছে! শেখ সাহবের আমলে হওয়া একটা কোটীপতি'র নাম বলেন। আন্দাজী অনেক কথাই বলেন?

০৪ ঠা মে, ২০২১ রাত ১০:২৭

সৈয়দ তাজুল ইসলাম বলেছেন: আপনি এই নিবন্ধটি ভালোভাবে পড়ুন। দেখুন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সকলেরই শ্রদ্ধাভাজন ব্যক্তিত্ব। আপনি যদি কখনো ভেবে থাকেন, পিতার সর্বকাজই শুদ্ধ আর সেই সব কাজকে শুদ্ধতার শীল লাগিয়ে লোক দেখো ভালো কর্ম তবে তা কিন্তু ভূল। বঙ্গবন্ধু বাঙালি জাতির পিতা সেটা কেউ অস্বীকার করে না। যদি করে তবে সে রাজাকার। আর জাতির পিতার যে পুজা করে সে....

০৪ ঠা মে, ২০২১ রাত ১০:৩১

সৈয়দ তাজুল ইসলাম বলেছেন: আশাকরি নিবন্ধের এই অংশটুকু আপনি ভালোভাবে পড়বেন,
'বাংলাদেশ ব্যাংকের হিসাব অনুযায়ী কোটিপতির সংখ্যা ৪৭ (১৯৭২ সালে) ২৩ হাজার ২১২ (২০১২ সালে), প্রায় ৫০ হাজার (২০১৪ সালে), ৭৫ হাজার ৫৬৯ (২০১৮ সালে) এবং ৮৩ হাজার ৮৩৯ (২০১৯ সালে) এক বছরের ব্যবধান (২০১৮ থেকে ২০১৯ সালে কোটিপতির সংখ্যা বেড়েছে ৮ হাজার ২৭৬।'


এখন আমাকে বলুন, বাংলাদেশে কী এমন খনি আছে যা আমাদেরকে এতো এতো কোটিপতি তৈরিতে সহায়তা করছে?

৫| ০৪ ঠা মে, ২০২১ রাত ১০:৩৩

নেওয়াজ আলি বলেছেন: হে বেড়া জমিদার হলেও আমার কী ফকির হলেও আমার কী । একটা ভিডিও ভাইরাল হলো দেখলাম ইসলামধর্মীয় লেবাসধারি এক লোক অকথ্য ভাষায় রিক্সা চালাককে গালি দিচ্ছে এবং মারছেও।

০৫ ই মে, ২০২১ ভোর ৪:৪৯

সৈয়দ তাজুল ইসলাম বলেছেন: হ্যা, এরকম অনেককেই দেখি আমরা রাস্তা ঘাটে। খেটে খাওয়া মানুষদের উপর নির্যাতন করতে। এরা দৃশ্যমান মানুষ হলেও প্রকৃতার্থে এরা মানুষরূপী কুকুর। সেটা তার লেবাসের দায় নয়।

৬| ০৪ ঠা মে, ২০২১ রাত ১০:৫৭

চাঁদগাজী বলেছেন:




প্রশ্নটা সহজ, আমি আবার করছি:
-শেখ সাহবের আমলে হওয়া একটা কোটীপতি'র নাম বলেন। আন্দাজী অনেক কথাই বলেন?

০৫ ই মে, ২০২১ ভোর ৪:৫১

সৈয়দ তাজুল ইসলাম বলেছেন: আপনি তো যুদ্ধ করেছিলেন। এমন অনেককেই চিনবেন যারা যুদ্ধ পরবর্তীতে বঙ্গবন্ধুর বন্ধুত্বের নাম করে বিশ্বাস ঘাতকতা করেছে। এরকম সবার নাম বলবেন? আমাকে একটু হেল্প করবেন ঐ সময়ে পুনর্ঘটনে দায়িত্ব দেওয়া নেতাদের নাম বলে?

৭| ০৫ ই মে, ২০২১ ভোর ৪:৪৬

দ্যা প্রেসিডেন্ট বলেছেন: আপনার পোস্টে শেখ সাহেবকে না আনলে চাঁদগাজী ছাড় দিতেন হয়তো। কিন্তু আপনি এখানে লেখাটি আরেকটু লম্বা করিতে পারতেন!

০৫ ই মে, ২০২১ ভোর ৪:৫৩

সৈয়দ তাজুল ইসলাম বলেছেন: অনেকেই খুব দীর্ঘ লেখা পড়েন না। এড়িয়ে চলেন। তাদের জন্য চেষ্টা করি ছোট আকারে আসল কথাগুলো বলে দেওয়ার! একই সাথে য্বন সবার সামনে আসল বিষয়টি উঠে আসে।

ধন্যবাদ মাননীয়।

৮| ০৫ ই মে, ২০২১ সন্ধ্যা ৬:৩২

চাঁদগাজী বলেছেন:




ঐ সময়ের নেতা ছিলেন: শেখ সাহেব ও তাজউদ্দিন সাহেব।

আপনি কি প্রশ্নফাঁস? কোন প্রশ্নের উত্তর জানেন বলে তো মনে হয় না।

৯| ০৫ ই মে, ২০২১ রাত ১০:১১

রানার ব্লগ বলেছেন: জ্বি আমরা সবাই জমিদার !!!

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.