নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

rm -rf /

আর্কিওপটেরিক্স

Cyber security

আর্কিওপটেরিক্স › বিস্তারিত পোস্টঃ

উইন্ডোজ ইমারজেন্সী আপডেট - মারাত্মক নিরাপত্তা ত্রুটি থেকে বাঁচতে তাড়াতাড়ি উইন্ডোজ আপডেট করুন !

২৪ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:০৭


মারাত্মক নিরাপত্তা ত্রুটির কারনে মাইক্রোসফট কর্পোরেশন উইন্ডোজের জরুরী আপডেট দিয়েছে। ত্রুটিগুলো হলো Internet Explorer এর একটি জিরো ডে ভালনারিবিলিটি এবং উইন্ডোজ ডিফেন্ডারের একটি ডিওস ফ্ল। এর মধ্যে Internet Explorer এর ত্রুটি ব্যবহার করে হ্যাকাররা পুরো কম্পিউটার নিয়ন্ত্রণ করতে পারে।

সাধারণত প্যাচ টুয়েসডের মাধ্যমে উইন্ডোজের আপডেট আসে। তবে এটা ইমারজেন্সী আপডেট। ইতোমধ্যেই হ্যাকাররা ত্রুটিগুলোর ব্যবহার করতে শুরু করে দিয়েছে। তাই যথাশীঘ্র উইন্ডোজ আপডেট করুন।

https://portal.msrc.microsoft.com/en-US/security-guidance/advisory/CVE-2019-1255

https://portal.msrc.microsoft.com/en-US/security-guidance/advisory/CVE-2019-1367

মন্তব্য ২৫ টি রেটিং +১/-০

মন্তব্য (২৫) মন্তব্য লিখুন

১| ২৪ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:০৯

বিজন রয় বলেছেন: আমি তো কখনোই আপডেট করি না।
আমি তাহলে অনিরাপদ!!

২৪ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:১২

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: আপডেট না করলে অনিরাপদ থাকবেন। যখন তখন কম্পিউটার হ্যাক হতে পারে। তাই প্রতিনিয়ত আপডেট করুন। অটো আপডেট অফ থাকলে চালু করুন। এতে আপনার তথ্যের নিরাপত্তা থাকবে।

২| ২৪ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:৪৫

চাঁদগাজী বলেছেন:


কিছু একটা আমার "স-ড্রাইভের" স্পেস দখলে নিয়ে যাচ্ছে; দরকারী সফটওয়ার মুছেও স্পেস দিয়ে সেরে উঠছি না; আপনি কইছু জানেন নাকি?

২৫ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সকাল ৮:৪০

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: C drive সেটা বুঝেছি।

প্রথমত, আপনার সমস্যা সমাধানের সাথে কম্পিউটারের ইনফরমেশন দেওয়াটা অদরকারী। শুধু ওস বললেই হবে। যেহেতু এখন সবাই Windows ১০ ব্যবহার করে তাই ধরে নিলাম আপানারও উইন্ডোজ ১০।

দ্বিতীয়ত, যখন কেউ আপনার কম্পিউটারের ইনফরমেশন চায়, তখন অজান্তেই আপনার নামটা এক্সপোজ হয়ে যেতে পারে। ধরুন, আপনি তাকে কম্পিউটারের স্ক্রিনশট দিলেন। সেখানে আপনার ইউজার নেমটা থাকবে। তাই এক্ষেত্রে সচেতন থাকবেন। কেননা, ইউজার নেম, সাইবার সিকিউরিটি স্পেশালিষ্টরাও হাইড করে রাখেন। কম্পিউটারের উইন্ডোজ এক্সপ্লোরারের এড্রেস বারে অনেক সময় ইউজার ডিরেক্টরি থাকতে পারে। যেটা অনেক সময় সাইবার সিকিউরিটি স্পেশালিষ্টরাও ভুলে যান। আবার আপনার ডেস্কটপেও ইউজার ফোল্ডারটা থাকে। My computer এ তো থাকেই।

২৫ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সকাল ৯:১১

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: এবার উইন্ডোজ ধরে নেওয়ার কারনটা বলি।
সাধারণত ম্যাকে ড্রাইভ লেটার দিয়ে ওস থাকে না। ওস থাকে / বা /Home বা Macintosh HD তে।

কাউকে নিজের কম্পিউটারের start up menu এর ইনফরমেশন দেওয়ার অর্থ হলো, আপনি কোন Brand এর পিসি বা ল্যাপটপ চলান সেটা লিক করা। সাধারণ স্টার্টআপে অনেক Manufacturer এর প্রোগ্রামগুলো থাকে। তাই এটা প্রদান করাও আননেসেসারি প্লাস বোকামি।

২৫ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:২৫

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: আপনার সমস্যা কি ঠিক হয়েছে ?

৩| ২৪ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ রাত ৮:৪৩

রাজীব নুর বলেছেন: আমি এখনও পড়ে আছি পুরানা আমলে।

২৫ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৩১

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: Windows ৭?

৪| ২৪ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ রাত ৮:৫৫

চাঁদগাজী বলেছেন:

*"সি-ড্রাইভের"

২৫ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সকাল ৯:০৭

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: এবার আসি, আপনার সমস্যার সমাধানে। এটার জন্য Windirstat সফটওয়্যারটা নামান। এরপর ওপেন করে Individual Draives সিলেক্ট করেC drive সিলেক্ট করে ওকে দিন। কিছুক্ষণ সময় লাগবে স্ক্যান হতে। স্ক্যানিং প্রগ্রেস নিচে সবুজ বারের মাধ্যমে বুঝতে পারবেন। তারপর স্ক্যান শেষ হলে কোন ফোল্ডার কতটুকু জায়গা নিচ্ছে সেটা দেখতে পাবেন। সাথে কি টাইপের ফাইল বেশি সেটা ডানপাশে দেখতে পারবেন। (.dll,.sys,.exe,.msi,.cab এগুলো সফটওয়্যারের বিভিন্ন ফাইল নির্দেশ করে)। বামপাশে Program Files আর Program Files (x86) তে আপনার ইনস্টলেশন করা সফটওয়্যারগুলো থাকবে। Percentage দ্বারা বুঝবেন কতটুকু স্পেস ঔ ফোল্ডারগুলো নিচ্ছে। এরপর Program Files এর কোনার প্লাস চিহ্নে ক্লিক করলেই কোন সফটওয়্যার কতটুকু জায়গা খায় বুঝতে পারবেন। তারপর Windirstat থেকে বের হয়ে ঐ বেশি স্পেস নেওয়া এপটা রিমুভ করুন।

এছাড়াও আপনি, আপনার ডাউনলোড ফোল্ডারের সকল ফাইল অন্য ড্রাইভে মুভ করতে পারেন। এতে কোনো সমস্যা হবে না।

এছাড়া, C cleaner ব্যবহার করতে পারেন। এটা শুধু টেম্পোরারি ফাইল, ফোল্ডার এবং কেশ মুছতেই ব্যবহার করা ভালো।

২৫ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সকাল ১১:১৫

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: * টাইপোঃ Individual drives হবে।

৫| ২৫ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ রাত ১২:০৬

বিপ্লব০০৭ বলেছেন: @চাঁদগাজী, আপনার কম্পুটারের অপারেটিং সিস্টেম কি উইন্ডোজ? উইন্ডোজ হলে কোন ভার্সান? ভিসতা, সেভেন, এইট না টেন? সি ড্রাইভের স্পেস দখলে নেওয়া---এইটা খুব কমন প্রবলেম। বাট সলভ দিতে হলে ডিটেইলস কিছু কাজ করা লাগবে পিসিতে।

৬| ২৫ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ রাত ১২:২৪

বিপ্লব০০৭ বলেছেন: আপনার আপত্তি না থাকলে আপনার কম্পিউটারের কিছু ইনফর্মেশন দিতে হবে যাতে সমস্যাটা সলভ করা যায়।

১# আপনার সি ড্রাইভে স্পেইস কতটুকু, ২# আপনার কম্পিউটারে ব্যাকগ্রাউন্ডে কি কি প্রোগ্রাম চলছে এইটা জানতে হবে আমাকে (টাস্ক ম্যানেজার ওপেন করে এইটা জানা যায়, ৩# আপনার স্টার্ট-আপ মেনুতে প্রতিবার কম্পুটার চালু হবার সময় কি কি প্রোগ্রাম চালু হবে তার একটা লিস্ট থাকে- এই তথ্যগুলোও জানতে হবে আমাকে। এই ধরনের আরো কিছু তথ্য জানা থাকলে আপনাকে বলে দিতে পারবো কি কারণে সমস্যাটা হচ্ছে।

৭| ২৫ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ভোর ৬:৪৪

চাঁদগাজী বলেছেন:



@বিপ্লব,

ধন্যবাদ বিপ্লব, আমি আমার কম্প্যউটারের সমস্যা আপনাকে জানাবো।

৮| ২৫ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সকাল ১০:৩১

কথার ফুলঝুরি! বলেছেন:
পড়লাম, বুঝলাম, কিছুটা :||

ধন্যবাদ ।

শুভ সকাল পটেরিক্স ভাইয়া 8-|

২৫ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৩২

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: শুভ সকাল, দুপুর, বিকাল, সন্ধ্যা, রাত্রি B-))

কিছুটা বুঝলেই হবে। পুরোটা বোঝার দরকার নেই !

ধন্যবাদ স্কয়ারড :)

৯| ২৫ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ দুপুর ১:৪৪

জাহিদ অনিক বলেছেন:

sudo apt-get update ;)

২৫ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৪:১৬

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: pacman -Syy ;)
softwareupdate -l B-))

১০| ২৫ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:৩৯

কথার ফুলঝুরি! বলেছেন: আচ্ছা! বেঁছে বেঁছে মন্তব্য এর প্রতিউত্তর দেওয়া হচ্ছে বুঝি |-) :||

২৫ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:৫৫

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: সমস্যা বা টেকনিক্যাল বিষয়ে করা কমেন্টগুলোর উত্তর দিচ্ছি আপাতত।

সময়মতো উত্তর পাবে :)

১১| ২৫ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:৫৪

বিপ্লব০০৭ বলেছেন: @আর্কি, এইটা একটা সমস্যা যে পিসিতে ভাইরাস যদি এন্ট্রি হয়ে পড়ে তাহলে ইউজারের কাছ থেকে কোন ইনফর্মেশন না নিয়ে সেটা কিভাবে সলভ করা যায়। ওয়ার্ম, ভাইরাস, ট্রোজান, ম্যালওয়্যার-- এগুলা নিয়ে আমি অনেক ঘাঁটাঘাঁটি করেছি, তাই ভাইরাসগুলোর কর্মপদ্ধতি সম্পর্কে আমার একটা ধারণা গড়ে উঠেছে। ওই ধারণা বা অভিজ্ঞতা থেকে কোন ধরনের থার্ড পার্টি টুলস ছাড়াই শুধু পিসির কিছু ইনফো নিয়ে আমি ভাইরাস সমস্যার সমাধান করতে পারি। সি ড্রাইভের স্পেইস দখল করে এরকম একটা ভাইরাসের সাথে বহু আগে মোকাবেলা করেছিলাম, এখন চাঁদগাজী যদি থার্ড পার্টি সফটওয়্যার ইনস্টলের ঝামেলায় না যেতে চান, তাহলে কিছু ইনফর্মেশন তাকে দিতেই হবে। আমি একবার এমন একটা ভাইরাস পেয়েছিলাম যেটা এক্সপ্লোরার ইএক্সই -কে রিপ্লেস করে কার্যক্রম চালায়। এক্ষেত্রে আপনার থার্ড পা্র্টি টুলস গুলা কি এইটাকে ডিটেক্ট করে সমস্যা সমাধান দিতে পারবে? সুতরাং পিসিতে ভাইরাস/ম্যালওয়্যার আছে কি নেই, এটা আগে এনশিউর করতেই হবে। মিনিমাম তিনি কোন ওএস চালান এবং অ্যান্ট-ভাইরাস সফটওয়্যার হিসেবে ডিফেন্ডার অ্যাকটিভ রেখেছেন কিনা এগুলো দরকারী তথ্য।

২৫ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:১৮

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: দুইদিন আগে আমার একটি কম্পিউটারে SSD এর C drive ক্লিন করলাম। কই ভাইরাস তো পাই নি !
ড্রাইভ সবসময় ভাইরাসে ভরবে এমন কোনো কথা নেই। আমি নিজে ভাইরাসের উপর নানান রিসার্চ করি এবং এই কারনেই ঐ পিসিতেও ভাইরাসে ভরা ছিলো ( নিজের কাজের জন্য) । আমার পিসিতে যে সমস্যা ছিলো তা হলো, ডাউনলোড ডিরেক্টরি বিশাল বড় সাইজের ছিলো। টোটাল ১ টিবির মধ্যে C drive ২৫৬ জিবি। এর ৯৮% ভরা ছিলো। ডাউনলোডগুলো মুভ করেই ৫০ জিবি মতো ফাঁকা হয়ে গিয়েছিল। বাকিটা ছিলো অ্যাপস এবং টেম্পোরারি ফাইলস।

কারো পিসি সরাসরি ভাইরাস দ্বারা আক্রান্ত হয়েছে এটা আপনি বলতে পারেন না। আগেই ভাইরাসের কথা আসলে, আমার ব্যাপারটায় কি বলবেন? শুরুতে সিম্পল স্টেপে যাই। তারপর না জটিল। এজন্যই জাস্ট ফাইল মুভ এবং আনইন্সটলের কথা বলেছি। কাজ না হলে অন্য ব্যবস্থা।

আমি যে সফটওয়্যারের কথা বলেছি, সেটা জাস্ট কোন ফোল্ডার বা ড্রাইভ কতটুকু স্পেস খায় সেটা জানায়। আমি তো তাকে Windows Explorer এ যেয়ে size: লিখে সার্চ করতেও বলতে পারতাম। এতে ইম্পর্ট্যান্ট ফাইল ডিলিট হয়ে যাওয়ার ভয় থাকতো।

এবার আসি, উইন্ডোজ সিকিউরিটি নিয়ে। ধরলাম তিনি আমার এই পোস্টটা পড়েছেন। তাহলে কি আপডেট করবেন না?। যদি ডিফেন্ডার অফ রাখেন, সেটা উনার বিষয়। না হলে ডিফেন্ডারও আপডেট হয়ে যাবে। তাই ভাইরাস থাকলে ধরার কথা।

২৫ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:২৩

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: আরেকটি কথা, আমার দেখানো প্রথম পদ্ধতিতে কাজ না হলে ভাইরাসের ব্যাপারটাই বলতাম। তখন জাস্ট টাস্ক মেনেজারের Disk দেখলেই বোঝা যেত কোন exe কতটুকু রিড রাইট করছে।

আপনি যে ভাইরাসের কথা বলেছেন, সেটা যদি থার্ডপার্টি অ্যাপস দ্বারা রিমুভ না করি তাহলে CMD এবং রেজিস্ট্রি এডিট করে মুছতে হতো। যাতে সবাই অভ্যস্ত নন। ধরলাম, স্টার্ট আপ বন্ধ করার কথা বললেন, তাহলেও রিমুভ করতে অন্য সফটওয়্যার লাগবেই।

১২| ২৫ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ রাত ১০:৫২

বিপ্লব০০৭ বলেছেন: @আর্কি, ধরুন পেন-ড্রাইভে অটোরান ফাইল আছে যেটা দিয়ে ভাইরাসগুলো পেন-ড্রাইভ থেকে কম্পিউটারে এন্ট্রি করে যদি উইন্ডোজের অটোরান ফিচারটি অন থাকে। বাট অটোরান ফিচার যদি অফ থাকে, এরপরও কি কোনভাবে Autorun.inf দিয়ে কোন প্রোগ্রাম এক্সিকিউট করতে পারে যখন পেন-ড্রাইভটি আমি ইউএসবি পোর্টে ঢোকাই?

২৫ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ রাত ১১:২০

আর্কিওপটেরিক্স বলেছেন: পারে। আপনি ড্রাইভের লোগোতে এরকম করতে পারেন। অনেক সময় ছবির মধ্যে কোড রেখে এক্সিকিউট করা সম্ভব। এছাড়াও নেটওয়ার্ক ডিভাইসে কোড রান করা সম্ভব। NoDriveTypeAutoRun এর অনেকগুলো ভ্যালু দেওয়া যায়।

আমার মশাই অত সময় নাই। USB killer ই যথেষ্ট B-))

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.