নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

সম্পদহীনদের জন্য শিক্ষাই সম্পদ

চাঁদগাজী

শিক্ষা, টেকনোলোজী, সামাজিক অর্থনীতি ও রাজনীতি জাতিকে এগিয়ে নেবে।

চাঁদগাজী › বিস্তারিত পোস্টঃ

তসলিমা নাসরিণকে দেশে আনা শেখ হাসিনার উচিত

২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৮:১৯



তসলিমা নাসরিণকে নিয়ে আমার সকল ধারণাই থিওরিটিক্যাল, আমি উনাকে জেনেছি ব্লগ ও মিডিয়া থেকে; আমি উনার কোন বই পড়িনি, মিডিয়ায় উনার উপর লেখা, অনেক ম্যাঁওপ্যাঁও বক্তব্য শুনেছি, উনার বইয়ের উপর আলোচনা, সমালোচনা পড়েছি, উনার ব্যক্তিগত জীবনের উপর লেখা আলোচনা ও খবর পড়েছি, বিদেশে থাকার কষ্ট নিয়ে উনার নিজের লেখা খবর টবর পড়েছি। আমার চোখে উনি একজন জন্মসুত্রে বাংগালী, বাংলাদেশের নাগরিক; ব্লগে লিখলে বুঝতে পারতাম উনি কেমন লেখক: ডোডো জাতীয়, নাকি ম্যাঁওপ্যাঁও, নাকি নুরু সাহেবের মতো!

উনাকে দেশ ছাড়তে হয়েছে মোল্লাদের ভয়ে, এটা ভয়ংকর ব্যাপার; ২ পয়সার মোল্লরা উনার মাথার উপর লাখ টাকার ঘোষণা দিয়েছিলো নাকি! যাক, এই দেশ মোল্লাদের দেশ নয়। ব্লগে শতশত ব্লগারকে উনার বিপক্ষে লিখতে দেখেছি, এটা উনাদের ব্যক্তিগত মতামত। ব্লগে আমি সামান্য পরিমাণ ব্লগারকে দেখেছি, যারা উনার দেশে ফেরার বিপক্ষে; এগুলো ভালো ব্লগার নন, ডোডো ব্লগার। উনি যদি কোন ধরণের অপরাধ করে থাকেন, এসব ব্লগারেরা উনার বিচার চাইতে পারেন; কিন্তু একজন জন্মসুত্রে নাগরিকের দেশে ফেরার বিপক্ষে মতামত দেয়া একজন ব্লগারের উচিত নয়: মোল্লা, জামাত-শিবির, ইত্যাদিরা এগুলো বলে আসছে, বলতে পারে; ওদের ভাবনাশক্তি সীমিত ও কথার কোন মুল্য নেই।

ব্লগে, অনেক ব্লগারদের পোস্টে একটা বিয়য় বরাবরই থাকতো যে, "তাসমিমা নাসরিণ কোরান শরীফকে অবমাননা করেছেন"; কোরান শরীফকে অবমাননা করলে, তার বিচার কে করবে, মোল্লারা, জামাত-শিবির ও বিএনপি দলের নাগরিকেরা? দেশে কি আইন আছে, কেহ কোরান শরীফ অবমাননা করলে, অন্য নাগরিক তার বিচার করতে পারবে? ব্লাসফেমী নামে যা আছে, উহাও কোর্টের অধীনে বিচার।

কেহ যদি মনে করেন যে, তাসলিমা নাসরিণ কোরান শরীফ অবমাননা করেছেন, তাদেরকে আদালতে যেতে হবে; দেশের আইনে তসলিমার বিচার হোক; কিন্তু উনার দেশে ফেরার বিপক্ষে কথা বলা অন্যায়।

যারা তসলিমার 'দেশে ফেরার বিপক্ষে' কথা বলে, তাদেরকে ঠেকোনোর দায়িত্ব হচ্ছে শেখ হাসিনার, উনি বড় লাঠির মালিক। আমরা ব্লগার হিসেবে (যারা উনার দেশে ফেরা সমর্থন করে থাকি) শুধু তসলিমা নাসরিণের পক্ষে কথা বলতে পারি; কিন্তু সিদ্ধান্ত নিতে হবে শেখ হাসিনাকে।

শেখ হাসিনা যদি তসলিমাকে দেশে আনেন, এতে শেখ হাসিনা মোল্লা, জামাত-শিবির ও বিএনপি'র লোকদের শক্তি মাপারও একটা সুযোগ পাবেন।

মন্তব্য ১০৮ টি রেটিং +৪/-০

মন্তব্য (১০৮) মন্তব্য লিখুন

১| ২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৮:২১

নজসু বলেছেন:





আমার মনে হয় তসলিমা নাসরিন ইন্ডিয়ায় থাকতে বেশি পছন্দ করবেন। :(

২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৮:২৭

চাঁদগাজী বলেছেন:


মিডিয়ায় উনার অনেক লেখায় আমি দেখেছি, উনি দেশে ফিরতে চান।

২| ২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৮:৩০

রাজীব নুর বলেছেন: আপনার কাছ থেকে এই পোষ্ট পেয়ে আমি অনেক খুশি।
মনটা খুশিতে ভরে গেল।
স্যলুট দিলাম।

২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৮:৩৪

চাঁদগাজী বলেছেন:


বেশীর ভাগ ব্লগারেরা নাগরিক অধিকার সম্পর্কে জ্ঞাত থাকার কথা।

৩| ২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৮:৩৫

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: চাঁদগাজী ভাই, আপনার জ্ঞাতার্থে জানাচ্ছি তসলিমা নাসরিন নিয়মিত সামহোয়্যারইন ব্লগ পড়েন। আপনার লেখাটি তার নজরে আসবে বলে মনে করছি।

তসলিমা নাসরিন পেশা জীবনে লেখিকা ও ডাক্তার হিসেবে একজন অসফল মানুষ, তিনি তার সমগ্র জীবনে কোনো ভালো কবিতা প্রবন্ধ গল্প উপন্যাস লিখতে পারেননি। তার লেখা খুবই নিম্নামানের যা পড়ার যোগ্য না - ডাস্টবিনে ছুড়ে ফেলে দেওয়ার যোগ্য। ধর্ম সম্পর্কিত উস্কানী মুলক লেখার কারণে তার পাঠক ছিলো মাদ্রাসার ছাত্র শিক্ষক ও যারা ডেসপারেট মেয়ে তৈরির কারখানা নিয়ে ভাবেন তাদের জন্য তসলিমা নাসরিন মোটিভেটেড বই লিখেছেন - কিভাবে এ্কটি নারীকে বিপথে নিতে হয়!!! কিভাবে একটি নারীকে ব্যাবহার করা যায়। - তসলিমা নাসরিনের জীবনের একটি চাওয়া তার মতো নারী তৈরি হোক শত সহস্র! তসলিমা নাসরিন এইক্ষেত্রে নিঃসন্দেহে সফল!!! বাংলা ভাষায় ও বাংলাদেশে তার মতো নারী তৈরি হয়েছে কয়েক কোটি!!!

তসলিমা নাসরিন উস্কানী মুলক লেখা না লিখে যদি ভালো কিছু লেখার চেষ্টা করতেন তার বই বাজারে বিক্রি হতো না। প্রকাশক তাকে গলাধাক্কা দিয়ে প্রেস থেকে বার করে দিতো, তার বই প্রকাশ করতে হতো নিজের পয়শা দিয়ে যার পরিনাম হতো পলাশীর রদ্দি কাগজের আড়তে।

তিনি আজেবাজে লেখা লিখে কুখ্যাত হতে পেরেছেন। আর কিছু মগজহীন মানুষ তাকে লেখিকা হিসেবেও নাম দিয়েছে।





২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৮:৪৪

চাঁদগাজী বলেছেন:



আমার চোখের সমস্যার কারণে রবী ঠাকুরের বইও পড়া হয় না, যা পড়ি, সেটা সামু ব্লগের পোষ্ট। বইলেমায় শতকরা ৯০ ভাগ লেখকের বই গার্বেজ হিসেবে ধরা হয়েছে; ফলে, তসলিমাও সেই দলে পড়লে আমি হতভাক হবো না।

লেখার জন্য কাউকে দেশে আসতে কেহ বাধা দেয়ার কথা নয়; কিন্তু দেখা যাচ্ছে যে, উনি ভয়ে আসছেন না; যেহেতু আসতে ভয় পাচ্ছেন, উনার দরকার বড় লাঠির মালিকের ছত্রছায়ায় প্রবেশ।

৪| ২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৮:৩৯

ইসিয়াক বলেছেন: সবাই তার নিজ দেশে স্বাধীনভাবে বিচরণ করুক এটাই কাম্য।কে ভালো কে মন্দ সেটা মুখ্য বিষয় নয়। যদি সেটাই না হবে তা হলে কিসের স্বাধীনতা আর কিসের গনতন্ত্র ।

২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৮:৪৯

চাঁদগাজী বলেছেন:


বাংলাদেশের মানুষের বিচারবুদ্ধি নীচু মানের, সেজন্য বিচার বিচাগও নীচু মানের; মোল্লারা ও জামাতীরা আরেকটু নীচু মানের: ফলে, তসলিমার নাগরিক অধিকার রক্ষায় শেখ হাসিনাকে দৃশ্যে আসতে হবে

৫| ২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৮:৪২

আরোগ্য বলেছেন: এই ধরনের ম্যাওপ্যাও পোস্ট দেয়ার মানে কি?

কোরআন না পড়ে ছ'ফুট আলমারির উপর রেখে দেয়া কি অবমাননা নয়?

এক তো দেশে অশান্তি তার উপর আবার এরে দেশে আনার আহ্বান কতটা যৌক্তিক? এমনিতেই বেহায়াপনার শেষ নেই।

২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ১১:০০

চাঁদগাজী বলেছেন:



আপনি ব্লগার নন।

৬| ২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৮:৪৪

রাজীব নুর বলেছেন: হুমায়ূন আহমেদ পর্যন্ত বলেছেন, দেশের মেয়ে দেশে কেন আসতে পারবে না??
এই দেশ দুনিয়ার বদমাশ থাকে, বড় বড় অপরাধ করে। একজন লেখক কেন থাকতে পারবেন না??

২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৮:৫২

চাঁদগাজী বলেছেন:



রাজাকার, আল-বদর আছে দেশে, তসলিমা কেন দেশের বাহিরে থাকবে?

৭| ২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৮:৫২

MirroredDoll বলেছেন: ইউ নো আমি ঘুমিয়েই গিয়েছিলাম অলমোস্ট । লেইট অলরেডি । এ লেখাটা দেখে না এসে পারলাম না ।
লেখিকা হিসেবে সে ভালো না মন্দ সেই প্রসঙ্গে নাই বলি ।
একজন মানুষ লিখবে এটা তার স্বাধীনতা ।
একজন পাঠক পড়বে । কতটুকু গ্রহণ করবে আর কতটুকু বর্জন করবে সেটা পাঠকের স্বাধীনতা ।
কিন্তু একজন মানুষকে তার নিজ দেশ থেকে জোর করে বের করে দেয়া আর ফিরতে না দেয়া এটা অবশ্যই শুধু অন্যায় না বড় ধরণের অন্যায় ।
মানুষ ভুল করবে, অপরাধ করবে, সেটা প্রমাণ হলে তার শাস্তি হবে কিন্তু দেশ থেকে বের করে দিবে এটা কখনই ঠিক না ।

২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৯:০০

চাঁদগাজী বলেছেন:


এটাই হলো নাগরিক অধিকার।

নাগরিক যদি অপরাধ করে পালিয়ে যায়, তাকে দেশ ফেরত আনতে চায়; কিন্তু তসলিমাকে ধরে আনে না, আসতেও দেয় না; মানে দেশের সরকারই হয়তো অপরাধী।

৮| ২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৮:৫২

রাজীব নুর বলেছেন: তসলিমা নাসরিনের আজকের একটি ছবি-

২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৯:০১

চাঁদগাজী বলেছেন:


আমি ঢাকা এলে, আপনি আর আমি গিয়ে তসলিমাকে নিয়ে আসবো, দেখবো, কে কি বলে!

৯| ২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৯:০৪

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: চাঁদগাজী ভাই, তসলিমা নাসরিন দেশে আসতে পারছেনা সে এক বিশাল ইতিহাস। তার জন্য আলাদা পোষ্ট প্রয়োজন, অল্পতে বলি সে দেশে আসতে পারছেনা তাই তার বই এখন বিক্রি বাট্টা হচ্ছে তার একটি নতুন নাম ও হয়েছে “নির্বাসিতা লেখিকা” তিনি দেশে চলে আসলে এই নির্বাসিতা লেখিকা নামটি তার পরিত্যাগ করতে হবে। দেশের মানুষ ঘরে আছে নিবাসিতা হবে কেনো? - কি বুঝলেন? বই বিক্রি করার জন্য তার নানা ধরনের ধান্ধা করতে হয় যার সাথে বাংলাদেশের র ক্লাস প্রকাশকও জড়িত।

একটি ছোট্ট উদাহরণ দিচ্ছি: - আপনি চাঁদগাজী একটি বই লিখুন, আমরা সামহোয়্যারইন ব্লগে যার প্রবল বিরোধিতা করে দিনের পর দিন পোষ্ট দিবো, কোর্টে পাঁচ দশটি মামলাও করবো। পত্রিকা ম্যাগাজিন টিভিতে আপনার নামে আলোচনা অটোমেটিক শুরু হবে - এখন বলুন আপনার বই কেমন চলবে কেমন বিক্রি হবে? আমিতো জানি প্রকাশক বই ছেপে কুল পাবে না। রহস্য সন্ধানে বেকুব ভাংগালী ঝাপিয়ে পড়বে আপনার বই কিনতে!!! আপনি দেশে আসার প্রয়োজন কি যেখানে প্রবাসে থেকে দেশের টাকা পাচ্ছেন !!!

তসলিমা নাসরিন ও প্রকাশক সহযোগে নিজেরা নিজেরা তসলিমা নাসরিন নিয়ে বিতর্ক তৈরি করে বই বাজারে বেকুব পাবলিককে গলধঃকরণ করিয়েছে।

তসলিমা নাসরিন নিজে দেশে আসতে চান না। এখানে প্রধান মন্ত্রীকে জড়ানো আরেকটি টাল বাহানা মাত্র। তসলিমা নাসরিন বাংলাদেশের বধু না যে দেশের মন্ত্রী পরিষদ তাকে ফুল চন্দন হাতে বরণ করার জন্য বেনাপোল বর্ডারে দাড়িয়ে থাকবে।


দ্রষ্টব্য: - স্বপ্রনোদিত নির্বাসিতা তসলিমা নাসরিন, আপনি এই পোষ্টটির কমেন্ট গুলো পড়ুন।



২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৯:০৭

চাঁদগাজী বলেছেন:


আমি উনাকে ঘনিষ্টভাবে জানি না; তবে, বহুবার উনার দেশে আসার ইচ্ছা নিয়ে লেখা পড়েছি; উনার মাথার উপর পুরস্কার ঘোষণা করার পর, উনি নিশ্চয় সরকারী প্রটেকশন ছাড়া দেশে ফিরতে পারবেন না।

১০| ২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৯:১০

MirroredDoll বলেছেন: আমাদের দেশেই এসব সম্ভব । যে দেশে আইন শুধু নামেই আছে । নো ইমপ্লিমেনটেশান এট অল । কত বড় বড় অন্যায় হয়ে যাচ্ছে কোন বিচার নেই । আর এটা নিয়ে কত কাহিনী !

২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৯:২৩

চাঁদগাজী বলেছেন:



আইনকে কার্যকরী করার জন্য শক্তিশালী বিচার বিভাগ ও পুলিশ বাহিনী দরকার; আমাদের এই দু'টোই পংগু

১১| ২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৯:২৩

রাজীব নুর বলেছেন: লেখক বলেছেন:
আমি ঢাকা এলে, আপনি আর আমি গিয়ে তসলিমাকে নিয়ে আসবো, দেখবো, কে কি বলে!


অপেক্ষা করুন, আমাদের প্রধয়ানমন্ত্রীই তাকে দেশে ফিরিয়ে আণবেন।

২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৯:২৫

চাঁদগাজী বলেছেন:


একজন নারী নাগরিকের দেশে থাকার অধিকার প্রতিষ্ঠা করা অবশ্যই শেখ হাসিনার উচিত; বিচারে যা হওয়ার তাই হবে।

১২| ২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৯:২৬

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: চাঁদগাজী ভাই, আপনি আমার ৯ নম্বর কমেন্ট আরেকবার পড়ুন প্লিজ। তসলিমা নাসরিন দেশে আসতে পারছেন না বলে যা তিনি লিখে যাচ্ছেন তা হচ্ছে তার বই মার্কেটিং করার নিম্নমানের একটি কৌশল।

১। তসলিমা নাসরিনের বই প্রকাশকগন সরকারের কাছে আইনী সহয়ায়তা ও নিরাপত্তা না চেয়ে দিনের পর দিন তসলিমা নাসরিনের কাছে তার রয়ালটির টাকা কিভাবে পাঠাচ্ছেন? এখন তো তসলিমা নাসরিনের বই প্রকাশকদের নামে ও তসলিমা নাসরিনের নামে টাকা হোন্ডি করার মামলা করা উচিত?

***২। তসলিমা নাসরিন দেশে আসতে চান কিন্তু তিনি দেশে আসেন না। - এটি একটি সাজানো নিম্নমানের নাটক। প্রকাশকগণ আগামী কাল হাইকোর্টে তসলিমা নাসরিনের জন্য আবেদন করুক, আবেদন মনজুর হবে তাকে যে কোনো ধরনের আইনী সহায়তা ও নিরাপত্তা দেওয়া হবে।

৩। তসলিমা নাসরিন শুধু পত্রিকা ম্যাগাজিনে আর আর তাই বইয়ে লিখে যাচ্ছেন তাকে দেশে আসতে দেওয়া হচ্ছে না। তার দেশে ফেরায় হুমকী থাকলে তার জন্য আইনী সহায়তা ও নিরাপত্তা চেয়ে কে আবেদন করবে “আপনি চাঁদগাজী ভাই, রাজীব নুর ভাই নাকি তার বই প্রকাশ করে যারা লাভবান হয়েছে তথাকথিত র ক্লাস প্রকাশকগণ তারা? কারা কাজটি করবেন?



২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ১০:১৮

চাঁদগাজী বলেছেন:


তসলিমার বই কমেন বিক্রয় হয়?

টাকা নিশ্চয় হুন্ডির মাধ্যমে দেয়া হয়। হুন্ডির মাধ্যমে টাকা আনা নেয়া অন্যায়; তবে, ৫ বিলিয়নের মতো রেমিটেন্স হুন্ডিতে হয়।
যেহেতু, মোল্লারা ও জামত-শিবিরেরা জল্লাদ, সরকারের প্রটেকশন ব্যতিত তসলিমা ফেরত আসতে পারবেন না। মিডিয়ায় উনার বক্তব্য থেকে উনাকে দেশে আসার ব্যাপারে অসৎ প্রচারণা চালাচ্ছে বলে মনে হয়নি।

১৩| ২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৯:৪১

জুনায়েদ বি রাহমান বলেছেন: তাসলিমা নাসরিনের কিছু কবিতা আমার ভালো লেগেছে। এবং কয়েকটা আমার প্রিয় কবিতার তালিকায়ও আছে।
তবে উপন্যাসগুলো ভালো লাগেনি।
ঠাকুর মাহমুদ ভাইর সাথে সহমত। বিতর্কিত হওয়ার কারণে উনার বই বেশি পড়া হয়েছে। প্রকাশকদের ব্যবসাও হয়েছে।

তবে উনি দেশে ফিরতে চাইলে, ফিরতে দেওয়া উচিত। সরকারের উচিত সাহায্য করা। মোল্লা বা ধার্মিকদের কল্লার উপর পুরস্কার ঘোষণা করার অধিকার নেই। যারা পুরস্কার ঘোষণা করেছিলো, তাদের আইনের আওতায় নিয়ে আসা দরকার ছিলো।

২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ১০:১৯

চাঁদগাজী বলেছেন:


দেশের পাকীরা দেশের নাগরিকের মাথার উপর পুরস্কার ঘোষণা দিয়েছে, শেখ হাসিনা বড় লাঠি নিয়ে চুপচাপ বসে আছেন।

১৪| ২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৯:৪১

রূপক বিধৌত সাধু বলেছেন: শেখ হাসিনা বোধহয় বাড়তি ঝামেলা এড়াতে চাচ্ছেন। এমনিতেই এই কয়েকবছরে উনার ওপর বেশ ধকল গেছে।

২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ১০:২৪

চাঁদগাজী বলেছেন:


পাকীদের সমর্থকেরা তসলিমায় মাথার উপর পুরস্কার ঘোষণা করে ইহাকে বড় ইস্যু বানায়েছে, ইহার সমাধান দরকার আছে।

১৫| ২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৯:৫০

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: তসলিমা নাসরিন জন্ম সূত্রে বাংলাদেশের এক জন নাগরিক । রাষ্ট্র ও তার নাগরিকত্ব বাতিল করতে পারে না । গোলাম আযমের নাগরিকত্ব মামলায় আমরা এটা দেখেছি। সুতরাং তারু পূর্ণ অধিকার রয়েছে বাংলাদেশে স্বাধীন ভাবে বসবাস করার। কারো ক্ষমতা নেই সেই অধিকারে হস্তক্ষেপ করার। তারূ মতামতে কেউ যদি অসন্তুষ্ট বা বিরক্ত হয়ে থাকেন তাহলে তারা সেটা বিচারের জন্য আদালতের দ্বারস্থ হতে পারেন। সে জন্য আদালত রয়েছে । কোন ব্যক্তি বা গোষ্ঠীর ক্ষমতা নেই তাঁর বিচার করার।


আমি তাকে দেশে ফিরে আসার এবং দেশে ফিরিয়ে আনার জন্য জোর দাবি জানাচ্ছি।

২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ১০:২৬

চাঁদগাজী বলেছেন:



মোল্লা ও জামাত-শিবিরের ভয় যেন না থাকে, সেটা প্রমাণ করা শেখ হাসিনার উচিত।

১৬| ২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৯:৫২

MirroredDoll বলেছেন: “তসলিমা নাসরিন মোটিভেটেড বই লিখেছেন - কিভাবে এ্কটি নারীকে বিপথে নিতে হয়!!!”

ঠাকুরমাহমুদ ভাই, with all respect to you my dear, do you really believe it?
তসলিমার লেখা পড়লেই বিপথে চলে যাবে?
Is her writing that powerful to convince others?
I don’t think so.
Yes it is only for those gals who doesn’t have control on themselves.
আর যাদের কন্ট্রোল নেই, তারা তসলিমার লেখা না পড়েও বিপথে যাচ্ছে ।


১৭| ২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৯:৫৫

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: MirroredDoll আপনার প্রশ্নের উত্তর কিন্তু আপনি নিজেই দিয়েছেন। আপনাকে ধন্যবাদ। ব্লগের লেখা সবাই বোঝেন না। আপনি বুঝতে পেরেছেন। আবারো ধন্যবাদ।

১৮| ২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৯:৫৭

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: এক জন বড় লেখক এর অসংখ্য ভক্ত পাঠক থাকবেন , বিরোধিতাকারী সমালোচক ও থাকবেন এটাই স্বাভাবিক । সবাই তাঁর লেখা পছন্দ করবে তারও কোনো মানে নেই। আমি উনার অসংখ্য লেখা পড়েছি। অনেক গুলো বই পড়েছি । তুলনামূলকভাবে ওনার লেখাকে ছুড়ে ফেলে দেওয়ার মতো বলা যাবে না।।

আমার নিজের ধারণা, বেগম রোকেয়ার পরে উনি এক মাত্র লেখক যিনি বাংলাদেশের নারীদের অধিকার নিয়ে বেশি কথা বলেছেন। তবে আশ্চর্যের বিষয় এই যে, নারীদের অধিকাংশই ওনার লেখা পড়ে থাকে উনাকে বকাঝকা করেন।

আমার নিজের আরো ধারণা, বর্তমান বাংলাদেশের নারী সমাজের চেয়ে পঞ্চাশের কিংবা সত্তরের দশকের নারীরা অধিক প্রগতিশীল ছিলেন। এখনকার নারীদের উপর মোল্লাদের প্রভাব ব্যাপক। এটা সেই আমলে ছিল না।

২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ১০:২৯

চাঁদগাজী বলেছেন:


এখানকার নারীরা হাঁটার সময় মনে হয়, সারের বস্তা হাঁটছে। অনেক বাংগালী মেয়ের বস্তার ভেতর ঢুকে সেলফোনে মাল্টি পুরুষের সাথে যোগাযোগ করে চলেছেন

১৯| ২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ১০:০০

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুল মতিন চৌধুরীর আমলে তাঁকে দেশ ছাড়তে হয়েছিল। তখনকার পরিস্থিতি আমরা দেখেছি। মোল্লারা প্রচন্ড ক্ষেপে গিয়েছিল। শাইখুল হাদিস উপাধিধারী এক মুল্লা তাকে বিবাহ করার জন্য প্রস্তাব দিয়েছিল। সেই মোল্লা বলেছিল তার বিবি হলে তিনি সবকিছু ঠিক করে দেবেন।

২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ১০:৩০

চাঁদগাজী বলেছেন:


স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুল মতিন চৌধুরী আধা-মানব ছিলো

২০| ২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ১০:০৮

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন:




তসলিমা নাসরিন দেশে ফেরার জন্য বাংলাদেশ সরকার ও বাংলাদেশ আইনে কোনো বাধা নেই। তসলিমা নাসরিন শুধু শুধু পানি ঘোলা করছেন। ***তসলিমা নাসরিন এমন কেউ নন তাকে দেশে আসার জন্য মন্ত্রী প্রধানমন্ত্রী আহবান করবেন***। তারপরও তিনি যদি নিরপত্তাহীনতায় কথা ভাবেন তাহলে তার বই প্রকাশকগণ তার জন্য হাইকোর্টে আইনী সহায়তা ও নিরপাত্তার জন্য আবেদন করতে পারেন। অথবা চাঁদগাজী ভাই ও রাজীব নুর ভাই ও হাইকোর্টে তসলিমা নাসরিনের আইনী সহায়তায় ও নিরপাত্তার জন্য আবেদন করতে পারেন।

এজন্য ডঃ কামাল হোসেন ও সুলতানা কামাল সহায়তা করলে করতেও পারেন - আমার জানা নেই। চাঁদগাজী ভাই ও রাজীব নুর ভাই অনুগ্রহ করে বাংলাদেশের প্রথম শ্রেণীর আইনজীবি ও নারীবাদীদের সাথে কথা বলে দেখতে পারেন - আমার কথা কতোটা সত্য বা মিথ্যা।

২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ১০:৩২

চাঁদগাজী বলেছেন:


আমি খবর নেবো, উনি দেশে আসতে চাইলে ব্যবস্হা নেবো।

২১| ২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ১০:২০

MirroredDoll বলেছেন: আমি বলবো তার সব লেখাই গারবেইজ না ।
আমি কিছু পড়েছি । সব লেখা আমার খারাপ লাগেনি । Am I derailed? Of course not. পড়া মানেই অনুসরণ করা না ।
I absolutely agree she crossed the boundary about religion whatever she wrote.
But the thing is she is a non-believer. What else we can expect from her. Who cares what she wrote.
আমি সেই লেখা পড়েছি বলে কি আমার ধর্ম বিশ্বাস বদলে গেছে । নো ওয়ে ।
It depends কে কিভাবে নিচ্ছে ।
At the end I’d say, if she is not coming on purpose what you said, that’s a completely different story which I donno but if she is not allowed to come back, this absolutely injustice.

২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ১০:৩৫

চাঁদগাজী বলেছেন:


তসলিমাকে ভয় লাগিয়ে বের করা হয়েছিলো; উনি নিজে একা আসার সাহস করবেন বলে মনে হয় না; উনার সরকারী প্রটেকশন চাওয়া দরকার।

২২| ২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ১০:৫৯

সুপারডুপার বলেছেন: মোল্লাতন্ত্র ও এলিটদের মুখোশ খুলে দেওয়ার জন্য তসলিমাকে দেশে ফিরে গিলে পানি একটু ঘোলাটে হবে।ঘোলাটে দেশে একটু পানি ঘোলা হলে তেমন কিছু হয় না। কিন্তু শেখ হাসিনা মোল্লাদের মুখোশ খুলতে চাইলেও এলিটদের মুখোশ খুলতে চাইবে না।

“নির্বাসিতা লেখিকা” হিসাবে হয়তোবা ওনার বই ভালোই বিক্রি হচ্ছে , আমরা হয়তো জানি না , উনি ও হয়তো খুশি। উনি যেখানে আছে সেখানেই থাকুক না কেন ! বন্যেরা বনে সুন্দর, শিশুরা মাতৃক্রোড়ে ।

তসলিমারা চায়, নিজের চিন্তা ভাবনা নিজ ভাষার দেশে ছড়িয়ে দিতে ও অনেক শক্ত মুরিদ বানাইয়া রেখে যেতে। এই হিসাবে দেশে নিয়মিত যেতে না পেরে, উনি হয়তো দুঃখিত।

তসলিমা যদি দেশে তার অধিকার আশা করে, অধিকারও দিয়ে দেওয়া হোক; তেমনি বাংলাদেশকে বিশ্বের দরবারে সন্ত্রাসীদের দেশ হিসাবে পরিচিত করানোর জন্য শাস্তিও দেওয়া হোক, তসলিমার বইয়ের লিংক Bangladesh A Country of Terrorism: : । অথবা প্রচলিত ঘুষ প্রথায় সব মাফ করে দেওয়া হোক।

২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ১১:০৭

চাঁদগাজী বলেছেন:


তসলিমা বিবিধ সময়ে দেশে ফেরা নিয়ে কথা বলেছেন, ভয়ের কথা বলেছেন; তবে, তিনি বাংলাদেশ এম্বসীতে গিয়ে কোন সাহায্য চেয়েছেন কিনা, আমার জানা নেই।

সরকার নিজ দায়িত্ব তসলিমাকে আনতে চাইলে, মোল্লারা ও জামাত কি করে, সেটা জানার দরকার আছে।

২৩| ২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ১১:০১

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: এখন ভারতীয় সময় রাত ১০:২০ মিঃ আমার ধারণা যদি সঠিক হয় তাহলে তসলিমা নাসরিন এখন সামহোয়্যারইন ব্লগেই আছেন।

তসলিমা নাসরিন, আপনার জ্ঞাতার্থে জানচ্ছি আপনি বাংলাদেশে ফেরার জন্য বাংলাদেশ সরকার ও বাংলাদেশ আইনে কোনো বাধা নেই। আপনি যদি নিরপত্তাহীনতার কথা ভাবেন তাহলে আপনার বই প্রকাশকগণ আপনার জন্য হাইকোর্টে আইনী সহায়তা ও নিরপাত্তার জন্য আবেদন করতে পারেন। বাংলাদেশ কোর্ট এমনকি আপনার ইষ্টার্ন এপার্টমেন্টের এলাকাভুক্ত - পল্টন থানাও আপনার সম্পর্কে লিখিতভাবে আপনার নিরপত্তাবিষয়ক সমস্যা বা হুমকি সম্পর্কে কিছুই জানেন না। আপনি টিভি মিডিয়া পত্রিকা ম্যাগাজিন অনলাইনে যা বলেন “তা লিখিত কোনো আবেদন নয়” - আশা করি এটি আপনি ভালোভাবেই জানেন এবং আপনার বই প্রকাশকগনও জানেন !!!

তাই মিডিয়া নয়, থানায় ও কোর্টে লিখিত আবেদন করুন। আপনার মঙ্গল গ্রহের মেধা মাদ্রাসার তালেবুল আলেমদের পেছনে ব্যায় না করে, লক্ষ কোটি বিষয় আছে তা নিয়ে লিখার চেষ্টা করুন - দেখুন আপনার বই পাঠক জনপ্রিয়তা কতোটা পায়?

আর ভয় পাবেন না। আপনি এখন আর তেতুল নন তাই তেতুল হুজুর আপনার প্রতি নজর দেবেন না, তাছাড়া তেতুল হুজুরকে ডান্ডা মেরে ঠান্ডা করা হয়েছে। অতএব স্বগর্বে দেশে আসুন নির্বাসিতা নামটি ঝেড়ে ফেলে নিজের মেধা ব্যায় করে কিছু লেখার চেষ্টা করুন।

২৪| ২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ১১:১৫

প্রজ্জলিত মেশকাত বলেছেন: রাষ্ট্রপ্রধানের কাছে অনেকবার আবেদন করেছেন তাসলিমা নাসরিন দেশে ফেরার জন্য। অসুস্থ মাকে দেখার জন্য। কিন্তু অনুমতি দেওয়া হয়নি। কওমি জননীর পক্ষে এটা কখনোই সম্ভব না। গাজী সাহেব সেটা খুব ভালভাবেই বুঝতে পারেন।

২৬ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ১:৪৪

চাঁদগাজী বলেছেন:


হ্যাঁ, এসব কথা শুনেছিলাম। শেখ হাসিনা আসলেই এটা করা উচিত হচ্ছে না, মোল্লাদের কথা টিকে থাকছে।

২৫| ২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ১১:১৭

নাসির ইয়ামান বলেছেন: প্রথমতঃআপনি ওর/তার বই পড়েননি,ওর/তার লেখা সম্পর্কে আপনার ধারণাও নাই।তাহলে কী মনে করে আপনি ওকে/তাকে দেশে আনার কথা বলছেন: যেখানে আপনি নিজেই দেশের বাইরে।
এছাড়াও কারো সার্থ থাকলে সে তাকে দেশে আনার জন্য চেষ্টা করবে।অথচ কোনো আদর্শের সাথে ওর/তার মিল নেই।ভালো বা মন্দ,পক্ষে বা বিপক্ষে কোনো আদর্শই ওর/তার সাথে যায়না।এইযে আপনি ওকে/তাকে দেশে ফেরা নিয়ে চিন্তিত; সময়ে সে আপনারো বিরোধিতা করবে।এককথায় সে যেকোনোরূপ আদর্শবিবর্জিত।

২৬ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ১:৪৩

চাঁদগাজী বলেছেন:


আমি দেশ্বের বাইরে যাই চাকুরী করতে, তসলিমা গেছে প্রাণ বাঁচাতে, পার্থক্য নিশ্চয় আছে। উনি যাদের ভয়ে দেশ ছেড়েছেন, তারা এই দেশ-বিরোধী।

২৬| ২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ১১:৩২

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: প্রজ্জলিত মেশকাত আপনি বিড়াট তথ্য বিভ্রাটে আছেন, ভুলে যাবেন না ব্লগে পোষ্ট যদিও প্রবাসী ব্লগার চাঁদগাজী সাহেব দিয়েছেন কিন্তু পোষ্টে দেশবাসী আছেন। তসলিমা নাসরিন এখন পর্যন্ত কোনো লিখিত আবেদন কোনো হাই অথরিটির কাছে করেননি। কোনো লিখিত আবেদন করে থাকলে তসলিমা নাসরিন সেই লিখিত আবেদনের আবেদনকারীর কপি দিয়ে বই ছেপে তার রয়ালটি খেতেন। সাপ্তাহিক যায় যায় দিনে তসলিমা নাসরিন আমাদের সাথেই লিখতেন। তসলিমা নাসরিনকে আমরা চিনি। তিনি তার বইয়ে ও তার নানা লেখায় এইসব গাঁজার নৌকা লেখে গেছেন। সরকারী দপ্তরে জমা দেওয়া তার কোনো প্রকার নথি আবেদন থাকলে তা তার বইয়ে অবস্যই ছেপে দিতেন বিন্দু মাত্র চিন্তা করার আগে।

২৭| ২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ১১:৫৯

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন:





।।ব্লগার চাঁদগাজী ভাইয়ের প্রতি অনুরোধ।।
এই পোষ্টে তসলিমা নাসরিন নিয়ে যথেষ্ট আলোচনা হয়েছে, সম্ভবনা আছে পোষ্টে ভিনগ্রহের এ্যালিয়েন আজেবাজে মন্তব্য করে মধ্যরাতে হামলা করতে পারে!!! দয়াকরে পোষ্ট মুছে দেবেন না। বাজে মন্তব্যকারীদের বিরুদ্ধে মডারেটর ব্যাবস্থা নেবেন। কিন্তু এই পোষ্ট মুছে দেবেন না, বা ড্রাফটেও নেবেন না।

ধন্যবাদ।

২৬ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ১:৪৬

চাঁদগাজী বলেছেন:


না, পোষ্ট মুছা হবে না।

২৮| ২৬ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ১২:৩৯

নূর আলম হিরণ বলেছেন:

২৬ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ১:৪৫

চাঁদগাজী বলেছেন:


এর মাঝে আপনি আবার নিজের ছবি দিচ্ছেন কেন?

২৬ শে আগস্ট, ২০১৯ সকাল ৭:৫২

চাঁদগাজী বলেছেন:


ব্রাজিলের মানুষের মগজ মোটামুটি বানরের সমান।

২৯| ২৬ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ২:১৬

হাসান কালবৈশাখী বলেছেন:
মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন আমার কথা বলেদিয়েছেন:

এক জন বড় লেখক এর অসংখ্য ভক্ত পাঠক থাকবেন , বিরোধিতাকারী সমালোচক ও থাকবেন এটাই স্বাভাবিক । সবাই তাঁর লেখা পছন্দ করবে তারও কোনো মানে নেই। আমি উনার অসংখ্য লেখা পড়েছি। অনেক গুলো বই পড়েছি । তুলনামূলকভাবে ওনার লেখাকে ছুড়ে ফেলে দেওয়ার মতো বলা যাবে না।।

আমার নিজের ধারণা, বেগম রোকেয়ার পরে উনি এক মাত্র লেখক যিনি বাংলাদেশের নারীদের অধিকার নিয়ে বেশি কথা বলেছেন। তবে আশ্চর্যের বিষয় এই যে, নারীদের অধিকাংশই ওনার লেখা পড়ে থাকে উনাকে বকাঝকা করেন।
বর্তমান বাংলাদেশের নারী সমাজের চেয়ে পঞ্চাশের কিংবা সত্তরের দশকের নারীরা অধিক প্রগতিশীল ছিলেন। এখনকার নারীদের উপর মোল্লাদের প্রভাব ব্যাপক। এটা সেই আমলে ছিল না।

তসলিমা নাসরিন জন্ম সূত্রে বাংলাদেশের এক জন নাগরিক । রাষ্ট্র ও তার নাগরিকত্ব বাতিল করতে পারে না । কারো ক্ষমতা নেই সেই অধিকারে হস্তক্ষেপ করার। তারূ মতামতে কেউ যদি অসন্তুষ্ট বা বিরক্ত হয়ে থাকেন তাহলে তারা সেটা বিচারের জন্য আদালতের দ্বারস্থ হতে পারেন। সে জন্য আদালত রয়েছে । কোন ব্যক্তি বা গোষ্ঠীর ক্ষমতা নেই তাঁর বিচার করার।
আমি তাকে দেশে ফিরে আসার এবং দেশে ফিরিয়ে আনার জন্য জোর দাবি জানাচ্ছি।

২৬ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ২:৩৪

চাঁদগাজী বলেছেন:



উনি যদি দেশে আসতে চান, শেখ হাসিনার উচিত উনাকে আনা; না হয়, মোল্লারা আরো বাড়বে।

৩০| ২৬ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ২:৪৮

জাহিদ অনিক বলেছেন: বেশীর ভাগ ব্লগারেরা নাগরিক অধিকার সম্পর্কে জ্ঞাত থাকার কথা। আছে হয়ত। যেসকল ব্লগার উনাকে দেশে আসতে দেয়ার পক্ষে বলছেন না, তারা না বুঝেশুনে বলছেন। জ্ঞাত থাকা এক জিনিস, আর সেটার বোধ নিজের মধ্যে ধারণ করা এক জিনিস।

২৬ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৩:৪১

চাঁদগাজী বলেছেন:


ব্লগারেরা অন্যদের থেকে বেশী জানার, ভাবার সুযোগ পাচ্ছেন।

৩১| ২৬ শে আগস্ট, ২০১৯ সকাল ৭:৩৮

রাজীব নুর বলেছেন: বেগম রোকেয়া শতবর্ষ আগেই খুব দৃঢ়তার সাথে নারীর দাসত্ব শৃঙ্খল থেকে মুক্তির কথা বলে গিয়েছেন। ধর্মের নামে নারীকে নীপিড়নের বিষয়ে বেগম রোকেয়ার চেয়ে জোড়ালো বক্তব্য খুব কম লেখকেরই কলম থেকে বেরিয়েছে। ধর্মগ্রন্থগুলো যে “পুরুষের সৃষ্টি”- এই বক্তব্য দিয়ে নারী হিসেবে ধর্মের প্রতি বেগম রোকেয়ার দৃষ্টিভঙ্গি ফুটে উঠে।

তসলিমা নাসরিন...
আপনার জন্মদিন শুভ হোক। শুভ হোক আপনার ভবিষ্যৎ জীবনের প্রতিটি দিন।

২৬ শে আগস্ট, ২০১৯ সকাল ৭:৫০

চাঁদগাজী বলেছেন:


বেগম রোকেয়ার সময়ে বাংগালী মেয়েদের সামাজিক ভুমিকা আজাকের চেয়ে পজেটিভ ছিলো।

৩২| ২৬ শে আগস্ট, ২০১৯ সকাল ৮:১৭

আবুহেনা মোঃ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন: কিছুদিন আগে একজন ভারতীয় সাংবাদিকের সাথে দীর্ঘ সাক্ষাতকারে তসলিমা নাসরিন দেশে ফেরার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। পুরো সাক্ষাতকারটি আমি দেখেছি। সেখানে তিনি বলেছেন, দেশে ফেরার আগ্রহ থাকলেও মোল্লাদের হুমকির কারণে তিনি ফিরতে পারছেন না। বাংলাদেশ সরকারও তাকে দেশে ফিরতে সহযোগিতা করছে না। সহযোগিতা বলতে তিনি তার নিরাপত্তার কথা বুঝিয়েছেন নিশ্চয়।

২৬ শে আগস্ট, ২০১৯ সকাল ৯:২৯

চাঁদগাজী বলেছেন:



শেখ হাসিনার ভুলের জন্য দুষ্টরা নিজেদের ক্ষমতা দেখাতে পারছে।

৩৩| ২৬ শে আগস্ট, ২০১৯ সকাল ৮:৩১

আহমেদ জী এস বলেছেন: চাঁদগাজী,





৭ নং মন্তব্যে MirroredDoll এবং ২৯নং মন্তব্যে হাসান কালবৈশাখী, এদের সাথে সহমত।

২৬ শে আগস্ট, ২০১৯ সকাল ৯:২৮

চাঁদগাজী বলেছেন:


ব্লগারেরা বেশীরভাগ ইস্যুতে একমত হয়ে থাকেন।

৩৪| ২৬ শে আগস্ট, ২০১৯ সকাল ৯:৪০

গ্রীনলাভার বলেছেন: যারা বাংলায় ক্লাসিক পর্নোগ্রাফি লেখায় উস্তাদ, উনি অন্যতম একজন। ডাক্তার হয়েও তিনি চটি লেখালেখিতে ভাল করেছেন।

আমাদের দেশে চড় থাপ্পর দি্যে লোকজনের বিচার আচার হ্য়। ইউরোপে এসব চড় থাপ্পরের বালাই নেই। কিন্তু ওরা আরও ভয়ংকর মানসিক টর্চার করে থাকে। তসলিমা নাসরিনের মায়ের সব দাত উপড়ে ফেলেছিল।

২৬ শে আগস্ট, ২০১৯ বিকাল ৪:২১

চাঁদগাজী বলেছেন:


তসলিমা চটি লেখক হিসেবে পরিচিত নন, আপনি মিথ্যা কথা বলছেন।

৩৫| ২৬ শে আগস্ট, ২০১৯ সকাল ১০:৫৯

স্বামী বিশুদ্ধানন্দ বলেছেন: এমনই অভাগা জাতি আমরা ! যে দেশে রিজিয়া রহমান, দিলারা হাশেম, সেলিনা হোসেনের মতো শক্তিমান লেখিকা সকলের অগোচরে অন্তরালে থেকে যান - আর তসলিমার মতো অতীব নিম্নমানের চটি লেখিকার শুধুমাত্র ধর্ম বিরোধী স্ট্যান্টবাজি কারণে তাকে কিছু সংখ্যক চরমপন্থী আস্তিক ও চরমপন্থী নাস্তিকরা বিশাল সেলিব্রেটি বানিয়ে ফেলেন !!!

২৬ শে আগস্ট, ২০১৯ বিকাল ৪:২৫

চাঁদগাজী বলেছেন:



উনার কোন লেখা আমি পড়িনি, উনার ব্যাপারটা আমার কাছে, রাষ্ট্র বনাম মোল্লাশক্তির ইস্যু; কে বড় রাষ্ট্র, নাকি মোল্লারা?

৩৬| ২৬ শে আগস্ট, ২০১৯ দুপুর ১২:১০

বিচার মানি তালগাছ আমার বলেছেন: সালমান রুশদী ইন্ডিয়াতে কেন যায় না বা ঢুকতে পারছে না আমি জানি না। যতদূর জানি, সালমান রুশদীকে ভারত সরকার আসতে দেয় না। বাংলাদেশেও একই কারণে তসলিমা নাসরিনকে আসতে দেয়া হচ্ছে না বা ভিসা দেয়া হচ্ছে না...

২৬ শে আগস্ট, ২০১৯ বিকাল ৪:২৮

চাঁদগাজী বলেছেন:



সালমান রুশদী যদি ইংল্যান্ডে থাকে, উনি নিজকে কিছুটা নিরাপদ ভাবেন; উনি ভারত বা অন্য দেশে নিজ পরিচয়ে ভ্রমণ করেন না, মনে হয়, উনার অন্য পরিচয়ও আছে।

৩৭| ২৬ শে আগস্ট, ২০১৯ দুপুর ১:৫১

মাহমুদুর রহমান সুজন বলেছেন: সবি পলিটিক্স না হয় দলবাজী। কেউ তাকে ভাল বাসেন কেউ হয়তো না। তাতে কি। একজন ভাল মানুষকেও কতেক ভার বাসেন কতেক না। সে লেখিকা হিসেবে যে একজন তুখোর লেখিকা অস্বীকার করার মতো না। ধর্ম অবমাননা করে হয়তো ধর্মপ্রানদের থেকে বিচ্চুতি হয়েছে। এই জন্য একটি রাষ্ট্র তাকে নির্বাসনে বাধ্য করতে পারে না। কিন্তু কি আর করার আমাদের রাষ্ট্র যন্ত্রটি কতটুকু কেজু?

২৬ শে আগস্ট, ২০১৯ বিকাল ৪:২৩

চাঁদগাজী বলেছেন:


সে সরকারের ভয়ে, মামলার ভয়ে পালিয়ে যায়নি, পালায়েছে মোল্লাদের ভয়ে; এটা একটা ইস্যু

৩৮| ২৬ শে আগস্ট, ২০১৯ বিকাল ৪:১২

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: বিচার মানি তালগাছ আমার তসলিমা নাসরিন বাংলাদেশী নাগরিক, আমার জানামতে তিনি এখনো বাংলাদেশী পাসপোর্ট বহন করছেন, বাংলাদেশে ফিরতে তার ভিসার প্রয়োজন নেই, তিনি অযথা তার দাদাবাবুর দেশে থেকে জল ঘোলা করছেন। তিনি চাইলে কালকে দেশে আসতে পারেন, তার নামে কোনো মামলা থাকলে তিনি কোর্ট হাজিরা দেবেন, তার নামে কোনো খুণের মামলা নেই, তাই তার নামে যদি সাধারণ অতিসাধারণ কোনো মামলা থেকেও থাকে তা অবস্যই জামিনযোগ্য মামলা।

আর মোল্লা হুজিরা শুধু আন্দোলোন করেছে। তারা তার নামে কোনো মামলা দেয় নাই, তিনি ভয়ে হু-লু-লু-লু-লু করে দেশ ছেড়ে পালিয়েছেন। এই দেশের মানুষের সব সময় একটি চিন্তা কাজ করে এসাইলাম ভিসাতে শক্তিশালী কোনো দেশে থাকা যায় কিনা? তিনি হয়তো কম চেষ্টা করেন নি! ব্যার্থ হয়ে ভারতে আছেন সেখানেও আমার জানামতে অপমানের জিন্দেগী যাপন করছেন, তার বিলাপ করার কোনো কারণ নেই “মোল্লাদের ঠান্ডা করা হয়েছে অনেক আগে” তিনি নিশ্চিন্তে দেশে ফিরতে পারতেন বা এখনো পারেন - কেনো এই তামাশা তা সয়ং তসলিমা নাসরিন আর তার প্রকাশকগণ ভালো জানেন।

সর্বশেষে বলতে চাই “দেশের মানুষ দেশে ফিরে আসুক নির্বাসিতা নাম ঝেড়ে ফেলে দেশে লেখালেখি করুক”। দেশে মহিলা ডাক্তারেরও যথেষ্ট অভাব তাছাড়া দেশ এখনো ডেঙ্গু প্রভাব থেকে মুক্ত নয়, তিনি নতুন কোনো আবিস্কার নিয়ে আসলেও আসতে পারেন।

২৬ শে আগস্ট, ২০১৯ বিকাল ৪:১৯

চাঁদগাজী বলেছেন:


১৬ জন ব্লগার প্রাণ হারায়েছেন এই দেশে, সেটা তসলিমা জানেন।

৩৯| ২৬ শে আগস্ট, ২০১৯ বিকাল ৪:৪৯

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: এই কথা আমি আমার ৩ নম্বর কমেন্টে লিখে দিয়েছি। তসলিমা নাসরিন উস্কানী মুলক লেখা না লিখে যদি ভালো কিছু লেখার চেষ্টা করতেন তার বই বাজারে বিক্রি হতো না। প্রকাশক তাকে গলাধাক্কা দিয়ে প্রেস থেকে বার করে দিতো, তার বই প্রকাশ করতে হতো নিজের পয়শা দিয়ে যার পরিনাম হতো পলাশীর রদ্দি কাগজের আড়তে। তিনি আজেবাজে লেখা লিখে কুখ্যাত হতে পেরেছেন। আর কিছু মগজহীন মানুষ তাকে লেখিকা হিসেবেও নাম দিয়েছে।

- কুক্ষ্যাত হওয়ার জন্য তিনি তার প্রাণ বাজী ধরেছেন এটার জন্য তিনি নিজে দায়ী, দেশ বা সরকার দায়ী হবে কেনো? সরকার কেনো তাকে তোয়াজ করে দেশে আনবেন? তার দেশে আসার ইচ্ছে হলে সে নিজে আদালতের স্বরানাপন্ন হবেন। আদালত সবার জন্য খোলা আছে।

তিনি দেশে ধর্ম নিয়ে আজেবাজে কথা বলেছেন সেই জন্য তিনি চাইলে “ক্ষমা চাইতে পারেন - এটা তার একান্ত ব্যাক্তিগত ব্যাপার তিনি ক্ষমা চাইতে পারেন ইচ্ছা না হলে না চাইবেন”। তবে এই দেশের মানুুুুুুুুষ ক্ষমা করতে জানে তা লিখতে হলে চাঁদগাজী ভাই থিসিস লিখতে হবে। দেশের মানুষ তাকে ক্ষমা করে দেবেন এটা সত্য - এখানে কোনো দ্বিমত নেই।

১৬ জন ব্লগার প্রাণ হারিয়েছেন, খুনের জন্য শক্ত মোটিভ প্রয়োজন পরে, যিনি খুন করেছেন তিনি খুনি, আর যিনি খুন হয়েছেন তিনি এমন কাজ করেছেন যে তার খুন হতে হয়েছে। এটি যদি না হতো তাহলে পুলিশ ১-৩ বছর তদন্ত করতো না (মিনিমাম সময়) আদালত খুনিকে ২৯৯, ৩০০, ৩০২, ৩০৪, ৩০৪ (খ) ৩০৭ ও ৩০৮ ধারায় দন্ড দিয়ে দিতো।

অবাধ ইন্টারনেট পেয়ে ব্লগার’রা বাংলাদেশে কি করেছে তা আপনি জানেন আমিও জানি। বাংলাদেশ ধর্ম ভিরু ও ধর্মান্ধ দেশ - এখানে রেভ্যুলেশন করতে চাইলে ১৬ জন ব্লগারের প্রাণ কিছুই না।


২৬ শে আগস্ট, ২০১৯ বিকাল ৫:৪১

চাঁদগাজী বলেছেন:


তসলিমার ইস্যুটা আপনি একভাবে দেখছেন, আমি অন্যভাবে দেখছি: তসলিমা কি লিখেছে, সেটা হলো পাঠক ও সরকারের বিষয়, তসলিমা যদি সামজ-বিরোধী লিখে, ধর্ম-বিরোধী লিখে, মানুষ তার বিচার চাইতে পারে; কিন্তু ওকে হত্যার জন্য পুরস্কার ঘোষণা করতে পারে না; কিন্তু এই দেশের মোল্লারা তা করেছে

৪০| ২৬ শে আগস্ট, ২০১৯ বিকাল ৪:৫৯

সেলিম আনোয়ার বলেছেন: তসলিমা নাছরিন আসতে চাইলে ভেবে দেখার মত বিষয়। তিনি আলোচনায় কাজ দিয়ে না থেকে উল্টাপাল্টা মন্তব্য করে থাকতে চাইলেই লাগে বিপত্তি। অবশ্য তার চেয়ে অনেক বড় ঝামেলা দেশে বিদ্যমান। যেমন রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফেরত পাঠানো।

২৬ শে আগস্ট, ২০১৯ বিকাল ৫:৩৭

চাঁদগাজী বলেছেন:


তসলিমার সমস্যাটা একটা ইস্যু: এই দেশে মোল্লাদের ভয়ে কেন একজন নাগরিক দেশ-ছাড়া!

৪১| ২৬ শে আগস্ট, ২০১৯ বিকাল ৫:৫০

ভবিষ্যত বলেছেন: চাদগাজী ভাই - দেশে আইন থাকলে তার কোন প্রয়োগ নাই...মানুষের আইনের প্রতি কোন আস্থা নাই... ২০১৯ সালের ভাইরাল জনগন ডাইরেক্ট অ্যাকশনে বিশ্বাসি.... তসলিমা নাসরিন আসতে চায়বে বলে মনে হয় না.....

বাংলাদেশ মোল্লাদের দেশ..
বাংলাদেশ সব-সম্ভবের দেশ..
বাংলাদেশ হাজার কোটি লোপাট করবেন মাগার কিছু হবে না'র দেশ

সো-- আজাইরা প‌্যাচাল পাইরা লাভ নাই...

২৬ শে আগস্ট, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:২৩

চাঁদগাজী বলেছেন:


আপনি যা বলেছেন, এগুলোর সাথে আমরা পরিচিত। বর্তমানে মোল্লারা শেখ হাসিনার লাঠি দেখে চুপ আছে, এরা সব সময় চুপ থাকবে না; এদের শক্তি বুঝার জন্য তসলিমাকে আনার দরকার

৪২| ২৬ শে আগস্ট, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:১৪

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: তসলিমার ইস্যুটা আপনি একভাবে দেখছেন, আমি অন্যভাবে দেখছি: তসলিমা কি লিখেছে, সেটা হলো পাঠক ও সরকারের বিষয়, তসলিমা যদি সামজ-বিরোধী লিখে, ধর্ম-বিরোধী লিখে, মানুষ তার বিচার চাইতে পারে; কিন্তু ওকে হত্যার জন্য পুরস্কার ঘোষণা করতে পারে না; কিন্তু এই দেশের মোল্লারা তা করেছে
- মোল্লারা তো কাশ্মীর নিয়ে, ভারত নিয়ে, চীন নিয়ে কতো কিছু বলছে তাতে কি আসে যায়???

দয়াকরে আমার ০৩ টি প্রশ্নের উত্তর দেবেন: -

১। তসলিমা হত্যার জন্য সরকার ঘোষণা করেছে?
২। তারেক জিয়া বাংলাদেশে আসতে কোনো বাধা আছে? (তারেক জিয়া দেশে আসলে কারাগারে যাবে/ আইনের মুখোমুখি হবে/জেল হবে/ফাসি হবে সেসব কথা শুনতে চাচ্ছি না)
৩। তসলিমা নাসরিন দেশে আসতে সরকারী কেনো বাধা নেই আমি বলছি, ব্লগে সবাই তার দেশে আসার কষ্টে কষ্টিত!!! তার দেশে আসার বাধা কোথায়? দেশের প্রধানমন্ত্রী তাকে দাওয়াত দিয়ে লাল গালিচা সংবর্ধনা দিয়ে আনতে হবে? তসলিমা নাসরিন কোন দেশের ডেলিগেট?



২৬ শে আগস্ট, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:২৭

চাঁদগাজী বলেছেন:


১) তসলিমাকে হত্যার করার ঘোষনা দিয়েছিলো মোল্লারা
২) তারেক জিয়ার আসতে মানা নেই
৩) তসলিমাকে লাল গালিচা দিতে হবে না, প্রটেকশান দিতে হবে, যেভাবে দেয়া হয়েছে ড: জাফর ইকবালকে

২৬ শে আগস্ট, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:৩০

চাঁদগাজী বলেছেন:


কোন বিষয়, ইস্যুর উপর নিজের মতামত প্রকাশ করতে গিয়ে ব্লগে এসব নিয়ে আলোচনা হয়

৪৩| ২৬ শে আগস্ট, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:৩৩

নতুন বলেছেন: লেখার মান ভালো না, ব্লগিং করলেও আপনি বলতেন মেও প‌্যাও লেখা ডোডো পাখির ব্রেন নিয়ে লেখা।

কিন্তু কথা বলার জন্য তার কল্ল্যা চাই এটা ঠিক না। মোল্যারা বাড়াবাড়ী করেছে।

কিন্তু লাইম লাইটে আসার জন্য ধম` নিয়ে কথা বলাও উচিত না। কারুর মনে আঘাত দিয়ে বলাটা বুদ্ধিমানের কাজ না।

আর অধিকার আছে দেশের মেয়ে দেশে থাকার....

২৬ শে আগস্ট, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:৫৭

চাঁদগাজী বলেছেন:


উনার লেখার উপর আলোচানা, মালোচনা শোনার পর, উনার লেখা সম্পর্কে আমার কোন আগ্রহ নেই।

উনি মোল্লাদের ভয়ে দেশ ছাড়ার পর, মোল্লারা এটাকে সাফল্য হিসেবে নিয়েছে।

৪৪| ২৬ শে আগস্ট, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:০২

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: দেশ সঠিক পথে চলছে না।

২৬ শে আগস্ট, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:১৭

চাঁদগাজী বলেছেন:


দেশ ১৯৭২ সাল থেকেই ভুল পথে এগুচ্ছিল; ১৯৭৫ সালে, ইহাকে ইষ্ট ইন্ডিয়া কোম্পানীর দেশে পরিণত করা হয়েছে

৪৫| ২৬ শে আগস্ট, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:০৭

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: ২) তারেক জিয়ার আসতে মানা নেই - তসলিমারও দেশে আসার কোনো বাধা নেই। নিরাপত্তার জন্য তসলিমা নাসরিন ও তার বই প্রকাশকগণ আদালতে/ সরকারের কাছে আবেদন করুক।

৩. ২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৮:৩৫ ৩
ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: চাঁদগাজী ভাই, আপনার জ্ঞাতার্থে জানাচ্ছি তসলিমা নাসরিন নিয়মিত সামহোয়্যারইন ব্লগ পড়েন। আপনার লেখাটি তার নজরে আসবে বলে মনে করছি।

২৩. ২৫ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ১১:০১ ১
ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: এখন ভারতীয় সময় রাত ১০:২০ মিঃ আমার ধারণা যদি সঠিক হয় তাহলে তসলিমা নাসরিন এখন সামহোয়্যারইন ব্লগেই আছেন।

আপনার পোষ্টটি কতোটা গুরুত্বপূর্ণ তা আপনার ব্লগে ব্লগারগণ বোঝননি। এমনকি নির্বাসিতা তসলিমা নাসরিনের ভাই রাজীব নুর ও গুরুত্ব বোঝেন নি। তাকে আর কোনো কমেন্টে পাওয়া যায় নি। ব্লগারগণ তসলিমা বিষয়ক সমস্যা তুলে ধরেছেন “তিনি দেশে ফিরতে পারছেননা” মুল কথা তিনি দেশে ফিরতে কোনো বাধা নেই, আর নিরাপত্তার জন্য তিনি আইনের সাহায্যে চাইতে পারেন। জাফর ইকবাল আইনের সাহায্যে চেয়েছেন এবং পেয়েছেন।

আইনী সহযোগিতা ও নিরাপত্তার জন্য সরকারী প্রসিডিউর আছে, বিদেশে থেকে পত্রিকা ম্যাগাজিনে ও প্রবন্ধে “ম্যাও ম্যাও খোলা চিঠি “ আদালত পড়ে না। সরকারও পড়ে না। - আশা করি এই বিষয়ে সহমত হবেন।


২৬ শে আগস্ট, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:২১

চাঁদগাজী বলেছেন:


তসলিমা সম্পর্কে আমি যা জানি, পুরোটা মিডিয়া থেকে; উনার বই পড়া হয়নি, উনার ব্যক্তিত্ব সম্পর্কে পুরো ধারণা আমার নেই। উনি মিডিয়ায় বহুবার উল্লেখ করেছেন যে, সরকার উনার ফেরার ও ফেরার পর নিরপত্তার অংগীকার করেনি; আমি খোঁজ নেবো, উনি সঠিক প্রক্রিয়া অনুসারে সরকারকে অনুরোধ করেছিলেন কিনা!

৪৬| ২৬ শে আগস্ট, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৫৬

রাজীব নুর বলেছেন: এই দেশে গত এগারো বছরে বহু চাটুকার আর ধান্দাবাজ বেড়েছে। যোগ্য মানুষ বাড়ে নাই।

২৬ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৮:০৩

চাঁদগাজী বলেছেন:


যোগ্য মানুষ কমেছে; কারণ, আওয়ামী লীগের অযোগ্যরা হজে সব যায়গায় ঢুকে যাচ্ছে, কিন্তু অনেক যোগ্যরা বেকার।

৪৭| ২৭ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ১২:৪৮

Rezuan বলেছেন: ব্লগার ঠাকুর মাহমুদ ,আপনি কে হে মরকট! তসলিমা কি আপনার পাকা ধানে মই দিয়েছিলো?? ইত্রামি ছেড়ে দিন!


-চাঁদ্গাজী সাহেব,আপনি একটা ভালো বিষয়ের অবতারনা করেছেন!তসলিমা হয়তো কোন বিশ্বমানের সাহিত্যক নন কিন্তু উনার লেখা বাংলাদেশের জন্য ভীষন দরকারী।
কোন এক সময় যদি বাংলাদেশ সভ্য দেশ হয় তখন হয়তো তসলিমা চত্বর,আসিফ মহিউদ্দিন সড়ক ইত্যাদি আমরা দেখতে পাব।

তসলিমা কে দেশে ফিরিয়ে এনে তার নির্বাসিত,কস্টের জিবন থেকে মুক্তি দেয়া হোক!

২৭ শে আগস্ট, ২০১৯ ভোর ৬:৪৫

চাঁদগাজী বলেছেন:


তসলিমাাকে সরকার নিজেরন থেকে আনা উচিত; না'হয়, মোল্লাদের অপরাধ বিনা চ্যালেন্জে টিকে যাচ্ছে

৪৮| ২৭ শে আগস্ট, ২০১৯ সকাল ৭:০৫

ডার্ক ম্যান বলেছেন: দাউদ হায়দারকেও দেশে ফিরিয়ে আনা উচিত

২৭ শে আগস্ট, ২০১৯ বিকাল ৫:৫৭

চাঁদগাজী বলেছেন:


দাউদ হায়দার দেশে আসার ব্যাপারে কি আগ্রহ জানায়েছেন?

৪৯| ২৭ শে আগস্ট, ২০১৯ সকাল ৮:২৩

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: Rezuan আপনি শিশুর মতো কথা বলছেন, আমি তসলিমার দেশে ফেরার পক্ষে কথা বলছি। আপনার দেওয়া উল্লেখিত গালাগাল গুলো আপনার জন্য প্রযোজ্য। - ব্যাবহার বংশের পরিচয়।

আপনি তসলিমা নাসরিনের সকল বই মুখস্ত করেছেন হয়তোবা। আর তসলিমা নাসরিন ব্যাক্তিগত ভাবে আমাকে চেনে। আমি তসলিমা নাসরিনকে নতুন করে চেনার প্রয়োজন নাই। তিনি আমাদের সাথে ১৯৯০ সন থেকে সাপ্তাহিক যায় যায় দিনে লিখতেন। তখন আপনি পৃথিবীর আলো বাতাসও দেখেন নি।

৫০| ২৭ শে আগস্ট, ২০১৯ বিকাল ৪:১৭

Rezuan বলেছেন: ব্লগার ঠাকুর মাহমুদ,তসলিমা সম্পর্কে আপনার মন্তব্যগুলো নিস্ঠুর উপহাস মাত্র।শুধুমাত্র ইতরশ্রেনীর মৌলবাদীরাই এ ধরনের ফাইজলামি টা করে থাকে।আপনি বলেছেন-

"তসলিমা নাসরিন দেশে ফেরার জন্য বাংলাদেশ সরকার ও বাংলাদেশ আইনে কোনো বাধা নেই। তসলিমা নাসরিন শুধু শুধু পানি ঘোলা করছেন। ***তসলিমা নাসরিন এমন কেউ নন তাকে দেশে আসার জন্য মন্ত্রী প্রধানমন্ত্রী আহবান করবেন***। তারপরও তিনি যদি নিরপত্তাহীনতায় কথা ভাবেন তাহলে তার বই প্রকাশকগণ তার জন্য হাইকোর্টে আইনী সহায়তা ও নিরপাত্তার জন্য আবেদন করতে পারেন। অথবা চাঁদগাজী ভাই ও রাজীব নুর ভাই ও হাইকোর্টে তসলিমা নাসরিনের আইনী সহায়তায় ও নিরপাত্তার জন্য আবেদন করতে পারেন।"

আপনি আরো বলেছেন,উনি বই বিক্রির জন্য বিদেশে বসে নির্বাসিত লেখিকার ভান করছেন!
এটা কোন অ্যালিবাই হলো?? এসব উদ্ভট কথা কিভাবে বলেন বুঝিনা !
উনার ফাসি চেয়ে সারাদেশের মানুষকে ক্ষেপিয়ে তুলেছিলো তখনকার মোল্লারা!জামিন অযোগ্য পরোয়ানা জারি করে মৌলবাদের কাছে পরাজিত রাষ্ট্র,শেষমেশ তাকে গলা ধাক্কা দিয়ে দেশ থেকে বের করে দেয়া হয়,সেইসাথে তার বই,কলাম প্রকাশনাও বন্ধ করা হয়।তসলিমা নাসরিন কে হত্যা করে বেহেশতে যাওয়ার স্বপ্ন এখনো কওমির ছাত্রদের নিয়মিতই দেখানো হয়।১৯৯৮ এ বাবার মৃত্যুর সময় একবার দেশে আসার অনুমতি পান কিন্তু তিন মাস যেতে না যেতেই মোল্লারা আবার হাউকাঊ শুরু করে, ফলাফল তাকে আবার বের করে দেয়া হয়।২০১১ সালের পর থেকে ১৬ জন ব্লগারকে হত্যা করেছে জংগি মোল্লারা।একটারও বিচার হয়নি।এর মধ্যেও উনি দেশে আসতে চান। কিন্তু মৌলবাদীদের পা চাটা সরকার ভোটের জন্য তাকে ফিরিয়ে আনার বেপারে কোন রেস্পন্স দেখাচ্ছে না।

আপনি হয়তো বেকুব নাহয় ব্যক্তিগত কোন ক্ষোভ থেকে তসলিমা নাসরিনের পেছনে লেগেছেন!

৫১| ২৭ শে আগস্ট, ২০১৯ বিকাল ৪:৪৪

Rezuan বলেছেন: সুইডেনের নাগরিকত্ব উনি ২০ বছর আগেই পেয়ে গেছেন।এসাইলামের জন্য এসব করলে তো তিনি সুইডেনেই থাকতেন।জীবনের ঝুকি নিয়ে ইন্ডিয়া থাকতেন না-আপ্নার ৩৮ নং কমেন্ট দেখে আমার মনে হয়েছে আপনি নিশ্চই তসলিমা নাসরিন কে প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে প্রত্যাখ্যত হয়েছিলেন-

""আর মোল্লা হুজিরা শুধু আন্দোলোন করেছে। তারা তার নামে কোনো মামলা দেয় নাই, তিনি ভয়ে হু-লু-লু-লু-লু করে দেশ ছেড়ে পালিয়েছেন। এই দেশের মানুষের সব সময় একটি চিন্তা কাজ করে এসাইলাম ভিসাতে শক্তিশালী কোনো দেশে থাকা যায় কিনা? তিনি হয়তো কম চেষ্টা করেন নি! ব্যার্থ হয়ে ভারতে আছেন সেখানেও আমার জানামতে অপমানের জিন্দেগী যাপন করছেন, তার বিলাপ করার কোনো কারণ নেই “মোল্লাদের ঠান্ডা করা হয়েছে অনেক আগে” তিনি নিশ্চিন্তে দেশে ফিরতে পারতেন বা এখনো পারেন - কেনো এই তামাশা তা সয়ং তসলিমা নাসরিন আর তার প্রকাশকগণ ভালো জানেন। ""

৫২| ২৭ শে আগস্ট, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:১৮

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: Rezuan ৫২. ২৭ শে আগস্ট, ২০১৯ বিকাল ৪:১৭ কমেন্টে যেসব বাজে অশালীন মন্তব্য করেছেন তা আপনার পারিবারিক শিক্ষা, আপনি বারবার নোংরা গালাগাল করে কথা বলছেন যা আপনার দৃষ্টিভঙ্গি ও শিক্ষার দিকে প্রশ্ন করতে বাধ্য করছে, আপনার শিক্ষা কতোটা খারাপ হলে লেখার ভাষায় লিখে যচ্ছেন নিজের মৌলবাদ তত্ব। আপনার নিজের লেখা লিখুন সবাই দেখুক আপনার পরিচয়, আমার লেখার কপি পেষ্ট করার প্রয়োজন নাই। আমার মন্তব্য ও উক্ত পোষ্ট মুছা হবে না তা ব্লগে অনেক আগে বলা হয়েছে, এটি ব্লগে আছে প্রমাণস্বরুপ।

১। তসলিমা নাসরিন সুইডেনে ছিলেন, তসলিমা নাসরিন সুইডেনের নাগরিক এমন তথ্য তিনি নিজে কোন “বই প্রবন্ধ পত্রিকা উপন্যাসে” লিখেছেন জানাবেন। রেফরেন্স হিসেবে বইয়ের নাম পৃষ্টা নম্বর দিতে ভুলবেন না।

৩। তসলিমা নাসরিনের বিরুদ্ধে দেশের মোল্লাদের কোনো মামলা থাকলে তিনি বা তার বই প্রকাশকগন তার আইনী সহযোগিতা নিতে পারতেন, তা কেনো করছেন না? তিনিতো নিয়মিত বাংলাদেশ থেকে প্রকাশিত বইয়ের রয়ালটি পাচ্ছেন, নাকি পাচ্ছেন না, সেই টাকা কোলকাতা কিভাবে ট্রান্সফার হচ্ছে জানাবেন?

৪। তিসি দেশ ছেড়ে প্রবাসে এসাইলাম ভিসাতে আশ্রয়ে ছিলেন-আছেন, তিনি কি বিজনেস / ডিপ্লোম্যাট ভিসাতে আছেন?

৫। তসলিমা নাসরিনকে প্রেমের প্রস্তাব বিয়ের প্রস্তাব আপনি ও আপনার জঙ্গি সহোদর দিতেন বলে জানি, যেই কারণে এখনো সেই ঘা আপনার মনে লেগে আছে যদিও আপনার লেখা ও আপনার ব্লগ জীবনের পোষ্ট দেখে বোঝা যায় আপনার “শিশুসুলভ আচড়নের কাঁচা হাতের লেখা”, লেখালেখিতে আপনি ফ্রেসার / নতুন মানুষ। লেখালেখি করুন লেখার জন্য সময় প্রয়োজন বয়ষ প্রয়োজন।

আর হ্যা Rezuan আপনার বিখ্যাত পারিবারিক ব্যাবহারটি ব্লগে প্রকাশ না করলেও পারতেন। ব্যাবহার বংশের পরিচয় - এই বাক্যটি আপনি হয়তো নতুন শুনে থাকবেন।





৫৩| ২৭ শে আগস্ট, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:৩৭

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: তসলিমা নাসরিন দেশে আসুক, দেশে আসার অধিকার তার আছে, তার আইনী কোনো সমস্যা থাকলে তিনি আইনী সহযোগিতার জন্য দেশের সর্বোচ্চ আদালতে যেতে পারেন। নিরাপত্তার জন্য আদালতে আবেদন করতে পারেন তিনি দুরে থেকে কি করছেন তা Rezuan এর মন্তব্য দেখে বোঝা যাচ্ছে।

Rezuan উক্ত চাঁদগাজী সাহেবের পোষ্টে ৪৭. ২৭ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ১২:৪৮ কমেন্ট করার জন্য লগইন করে যার প্রমাণ ব্লগে রয়ে গছে। এর আগে ৮. ২৪ শে জানুয়ারি, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৩১ চাঁগাজী সাহেবের পোষ্ট লব্ধজ্ঞান কঠিন, ধর্মীয়জ্ঞান সহজ কমেন্ট করতে দেখা যায়। মূলত Rezuan তার ব্লগ রেজিস্টার জীবন চাঁদগাজী সাহেবের পোষ্টে কমেন্ট করার জন্যই বেছে নিয়েছেন অথবা তিনি এমনও হতে পারেন যে চাঁদগাজী সাহেবের পোষ্টে কমেন্ট করর জন্যই তার সামহোয়্যারইন ব্লগে আগমন।

২৭ শে আগস্ট, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:২৪

চাঁদগাজী বলেছেন:


শেখ হাসিনার সময় তসলিমা না আসলে, আর আসতে পারবেন না।

৫৪| ২৭ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ১১:৪৬

Rezuan বলেছেন: আপনার কথার স্টাইল অনেকটা ড হাসান মাহমুদ, হাসানুল হক ইনুদের মত।মনে হয় ভাজা মাছটাও উলটে খেতে পারেন না।

যাইহোক,আমি যেটা বলতে চেয়েছি সেটা হলোঃ

১।তসলিমা নিজে ইচ্ছা করে দেশত্যাগ করেন নি,উনাকে অন্যায় ভাবে দেশ থেকে বের করে দেয়া হয়েছে।যেহেতু রাস্ট্র তার অধিকার হরন করেছে তাই এখন রাস্ট্রের ই দায়িত্ব তাকে তার অধিকার ফিরিয়ে দেয়া।রাস্ট্রের তরফ থেকে আমরা এখনো তেমন কোন মনোভাব দেখতে পাচ্ছিনা।

-চাইলেই উনি জার্মানি,ফ্রান্স,সুইডেন ইত্যাদি দেশে সহজেই এসাইলাম নিয়ে থাকতে পারেন।কেন পারেন সেই আলোচনায় যাওয়ার রুচি হচ্ছেনা।কারন ইনারা কাজের জন্য মুল্যায়িত হন সারা বিশ্বে,এসাইলামের জন্য কাজ করেন না!

আপনার কাংখিত লিংকঃ
‘Though I Am a Swedish Citizen, India Is My Only Home’: Taslima Nasreen

Bangladeshi writer Taslima Nasreen's residence permit extended for one year

৫৫| ২৮ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ১:১১

সুপারডুপার বলেছেন: তসলিমা নাসরিন যে দেশে ফিরতে নিজের ভিতর থেকে চায় না , তার কয়েকটি যুক্তি বলি :

১) তসলিমা নাসরিন বাংলাদেশকে সন্ত্রাসবাদের দেশ হিসাবে পরিচিত করেছে। যে বাংলাদেশকে ভালোবাসবে, যার মন বাংলাদেশে আসতে ব্যাকুল হবে, সে কি বাংলাদেশকে সন্ত্রাসবাদের দেশ হিসাবে বিশ্বে পরিচিত করবে ?

২) মানুষ ছাড়া মসজিদ, মন্দির , গির্জা , সিনাগগ কোনোটির -ই কোনো মূল্য নাই। একই ভাবে , বাংলাদেশের মানুষ ছাড়া বাংলাদেশ বলে কিছু নাই। তাই বাংলাদেশকে ভালোবাসতে হলে প্রথমে বাংলাদেশের মানুষকে ভালোবাসতে হবে। তসলিমা নাসরিনের ভিতরে বাংলাদেশের মানুষের প্রতি কোনো ভালোবাসা নাই। তসলিমা কি ভাবে তাহলে বাংলাদেশকে ভালোবাসে?

৩)নাস্তিক হলেও , যে সত্যিকারে মানুষকে ভালোবাসবে , মানুষই তার নিরাপত্তার জন্য এগিয়ে আসবে। এইসব মানুষের শত্রুও আছে , এটা সত্যি। কিন্তু যারা সত্যিকারে মানুষকে ভালোবাসে , তারা তাদের শত্রুকেও ভয় পায় না। তারা শত বাধার মধ্যেও মানুষকে ভালোবাসতে , বার বার এগিয়ে আসে। তসলিমার কি এই গুন আছে ?
------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------

একজন তসলিমার জন্য ব্যাক্তিগত আক্রমণ করা , বোকামি ছাড়া কিছু না।

নাস্তিক হোক বা ইসলাম বিরোধী হোক, তসলিমারাও মানুষ। তাই আমি তাদের ভালোই চাই। তারা ভালো থাকুক ও মানুষকে ভালোবেসে আস্তিক-নাস্তিক মিলে এই সুন্দর পৃথিবীর জন্য অবদান রেখে যাক। আমরা সবাই জানি , সত্যিকারের নাস্তিকদের অনেকেই মানুষের জন্য অনেক অবদানই রেখে গেছেন।

আস্তিকতা বা নাস্তিকতা তো আমাদের কারোই সমস্যা না। এটা যেহেতু সৃষ্টিকর্তা কেন্দ্রিক। তাই এটা সৃষ্টিকর্তার সমস্যা হতে পারে। সৃষ্টিকর্তার সমস্যা , সৃষ্টিকর্তায় সমস্যা দেখছেন না, কিন্তু আমরা দেখছি ! আজব !!!

২৮ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ১:১৮

চাঁদগাজী বলেছেন:


দেশের সরকার আছে; তসলিমা সরকারের ভয়ে পালিয়ে যাননি, পালায়েছিলেন কিছু মানুষের ভয়ে; তখন সরকার উনার প্রটেকশনের দায়িত্ব নেয়াটা উচিত ছিলো।

৫৬| ২৮ শে আগস্ট, ২০১৯ ভোর ৪:৫৯

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন:




Rezuan তসলিমা নাসরিন সুইডেনেরে নাগরিক!!! আহারে হতাভাগা সুইডিশ!!! তিনি সুইডেনে না থেকে ভারতে কি করছেন? তার ভারতে কি কাজ? ভারত সরকার কি এই দায়ভার নেবেন???

সমগ্র জীবনে মাত্র দুইটি পোষ্ট দিয়ে এতো লম্বা আলোচনায় যাওয়া ঠিক না, ব্লগে পোষ্ট দিন নিজেকে প্রমাণ করুন।

Rezuan ব্লগে যে ধরনের ভাষা প্রয়োগ করেছেন আপনি, তাতে আপনার রুচি আর আপনার পারিবারিক পরিচয় প্রতিফলিত হচ্ছে। “আপনার উগ্র ব্যাবহারের কারণে হয়তো তসলিমা নাসরিনের ভারত ত্যাগ করতে হতে পারে - হতেও পারে!!! পৃথিবী বড়ই অদ্ভুৎ জায়গা, এখানে অনেক কিছুই হয়!!!

---------------------------------------------- তসলিমা নাসরিন পর্ব সমাপ্ত---------------------------------------


৫৭| ২৯ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ১২:১৮

সুপারডুপার বলেছেন: @ চাঁদগাজী সাহেব,

বর্তমান সরকার তার-ই প্রটেকশনের দায়িত্ব নেয়, যে বর্তমান সরকারের জন্য অ্যাসেট। অন্যপাশে দেশ তার-ই প্রটেকশনের দায়িত্ব নেয়, যে দেশের মানুষের জন্য অ্যাসেট।

তসলিমা নাসরিন বর্তমান সরকারের / শেখ হাসিনার কিংবা দেশের মানুষের কোন একটির অ্যাসেট?

২৯ শে আগস্ট, ২০১৯ ভোর ৬:৫০

চাঁদগাজী বলেছেন:



তসলিমা কারো জন্য অ্যাসেট নন; তসলিমার নাগরিক অধিকারকে খর্ব করেছে মোল্লারা; সেটাকে প্রতিষ্ঠিত করা সরকারের দায়িত্ব

৫৮| ২৯ শে আগস্ট, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:৪৪

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: Click This Link

২৯ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ৮:০৩

চাঁদগাজী বলেছেন:



পড়েছি, হাইকোর্টে ভালো মানুষ আছেন।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.