নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

সম্পদহীনদের জন্য শিক্ষাই সম্পদ

চাঁদগাজী

শিক্ষা, টেকনোলোজী, সামাজিক অর্থনীতি ও রাজনীতি জাতিকে এগিয়ে নেবে।

চাঁদগাজী › বিস্তারিত পোস্টঃ

ভারত যদি ঈদ বন্ধ করে, আপনার বক্তব্য কি হবে?

২২ শে জুলাই, ২০২০ রাত ৯:০৫



করোনা নিয়ে ভারতের মানুষের মেজাজ ভয়ংকর খারাপ; আমেরিকা, ব্রাজিল ও ভারত এখন করোনার স্হায়ী ঠিকানা; আমেরিাকানদের ধৈর্য আছে, সহজে নিজের দোষ অন্যের উপর চাপায় না, ব্রাজিলের মানুষদেরও কিছুটা চরিত্র আছে; কিন্তু ভারতের সাধারণ মানুষজন বাংলাদেশের মানুষদের মতো, ওরা সহজেই বিনা ভাবনায় অন্যের উপর দোষ চাপাতে ওস্তাদ, নিজের মেজাজ খারাপ হলে, অন্যের বিপদ।

করোনার শুরুতে ভারতের বিবিধ এলাকায়, মসজিদে তাবলীগ, মাবলীগ করে মুসলমানেরা নিজেদের মাঝে কিছুটা করোনা ছড়ায়েছে; ইহা নিয়ে বেশ চীৎকার হয়েছিলো, ধরাধরি হয়েছিলো। গত ঈদে ভারত সরকার মানুষকে বাড়ীতে ঈদের নামাজ পড়তে বলেছিলো, উহা বিনা সমস্যায় সম্পন্ন হয়েছে।

কোরবানীর ঈদেও মসজিদ ও ঈদগাহে সমাবেশ করতে না দিলে ও পশু কোরবানী নিষিদ্ধ করলে, আপনার বক্তব্য কি হবে? করোনার মাঝে পশু কোরবানী করলে, দাংগাবাজরা একটা ইস্যু পাবে হাতে। মানুষের মেজাজ ভালো নেই; ফলে, সাধারণ মানুষ হয়তো দাংগাবাজদের বিপক্ষে কিছু বলবে না। কোনভাবে, কোন এলাকায় দাংগা হওয়ার সম্ভাবনা থাকলে সরকার পশু কোরবানী বন্ধ রাখতে আদেশ দিতে পারে।

ভারতের দরিদ্ররা বেকার হয়ে গেছে, ভারতে সাহায্য পাওয়া মোটামুটি অসম্ভব, মানুষ অসহায়। অবশ্য, মুসলমানদের অর্থনীতি সবার চেয়ে খারাপ। এই অবস্হায়, মুসলমানদের উচিত সমস্যায় না যাওয়া। কারণ, দাংগা বাধে সব সময় দরিদ্র এলাকায়। ভারত সরকার ভাবছে, কোরবানী বন্ধের কথা; কারণ, করোনা নিয়ে সরকার বিপাকে, এর মাঝে যদি দাংগা হয়, সরকার সমস্যায় পড়বে।

মন্তব্য ৫২ টি রেটিং +১/-০

মন্তব্য (৫২) মন্তব্য লিখুন

১| ২২ শে জুলাই, ২০২০ রাত ৯:২০

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন:
বাংলাদেেশে এবার গতবারের চেয়েও বেশী পশু জবাই করা হবে।
টাকার অঙ্কও হবে বেশী।
অনেক মানুষের হাতেই ক্যাশ টাকা আছে।
সেটা হতে পারে ব্ল্যাক মানি।
সেটা খরচ করতে আরো বেশী আরাম।

২২ শে জুলাই, ২০২০ রাত ৯:২৯

চাঁদগাজী বলেছেন:


মনে হয়, আপনার হিসেব ভুল; এখন মানুষ অলস, কালো টাকার মালিকদের কাজকর্ম চোখে পড়বে; রাজনীতিবিদরাও চোখে পড়তে চাইবে না; কোরবানী কম হবে। আগের সমান কোরবানী হলে, চামড়া নষ্ট হবে।

২| ২২ শে জুলাই, ২০২০ রাত ৯:২০

একাল-সেকাল বলেছেন:
আমাদের রাষ্ট্রীয় বিষয় বাংলাদেশের বিরুদ্ধে মিয়ানমারকে সামরিক সাহায্য দিচ্ছে ভারত! নিয়েই বলিনা, তাদের অভ্যন্তরীণ বিষয় নিয়ে কি বলব?

২২ শে জুলাই, ২০২০ রাত ৯:৩১

চাঁদগাজী বলেছেন:


মিয়ানমার কোনদিন বাংলাদেশ সীমান্তে গন্ডগোল করবে না। ভারতের মৌলবাদীদের নিয়ে বাংগালীরা অস্হির।

৩| ২২ শে জুলাই, ২০২০ রাত ৯:৩৮

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: শত্রু যদি অনেক বেশি শক্তিশালী হয় সে ক্ষেত্রে ধৈর্য ধারন করা ইসলামের শিক্ষা। ভারত তার আভ্যন্তরিন নিরাপত্তা নিশ্চিতের স্বার্থে যে কোন পদক্ষেপ নিতে পারে। এ নিয়ে আমার কোন মাথাব্যাথা নাই। তবে আমাদের ফেসবুক মুফতিদের জন্য এটা বিরাট একটা ইস্যু হবে।

২২ শে জুলাই, ২০২০ রাত ৯:৫৮

চাঁদগাজী বলেছেন:



মোদী করোনা নিয়ে ভুজং ভাজং করেছিলো, পাগলামীর সীমা আছে; এখন গরীব মানুষরা বেকার, ভারতের দরিদ্র পকেটগুলো দাংগার জন্মভুমি।

৪| ২২ শে জুলাই, ২০২০ রাত ৯:৪১

জিকরুল বারী তমাল বলেছেন: আগের স্টাইলে কুরবানী হলে করোনা ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়বে। রোজার ঈদে বাংলাদেশে মানুষদের মাঝে বেশ সতর্কতা দেখা গিয়েছিল। এখন সেই সতর্কতার সামান্যও দেখছি না। পরিস্থিতি আরও খারাপ হবে বলে মনে হয়। ওইদিকে ট্রাম্প স্বীকার করে নিয়েছে যে আমেরিকার পরিস্থিতিও আরো খারাপ হতে যাচ্ছে।

২২ শে জুলাই, ২০২০ রাত ১০:০০

চাঁদগাজী বলেছেন:


ট্রাম্পের মানসিক অবস্হা নিয়ে মানউষ এখন শংকিত; আলসািমার টেষ্ট পাশ করে লাফাচ্ছে ট্রাম্প, মানুষ বিপদে।

৫| ২২ শে জুলাই, ২০২০ রাত ৯:৪৭

স্বপ্নের শঙ্খচিল বলেছেন: ঈদ উদযাপন বিশ্বের সকল স্হানে করা যায়,
যদি স্বাস্হ্যবিধি মেনে আচরন কারা হয় ।

............................................................
আমার বিশ্বাস, ভারতের কিছু কিছু স্হানে ঈদ
বিনা সমস্যায় হবে, তবে চেন্নাই ,গুজরাটে হবেনা ।

২২ শে জুলাই, ২০২০ রাত ১০:০১

চাঁদগাজী বলেছেন:


গুজরাটের মুসলমানেরা এখন অনেক হুশিয়ার, ওরা মুখ খোলে না।

৬| ২২ শে জুলাই, ২০২০ রাত ১০:০৫

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন:
এই বছরটা একটু ব্যতিক্রম।সমগ্র বিশ্বে মৃত্যু মিছিল অব্যাহত।তাই বলে উৎসব-অনুষ্ঠান পার পার্বণ তো থেমে থাকার নয়...
বক্তিগত ভাবে এবার ঈদে পশু কুরবানী করার অবস্থা দেশে কোথাও নেই।মন্দির- সর্কার খুলে দিয়েছেন।তাই বলে জনগণ সেখানে প্রার্থনা অংশ নিচ্ছেন যে জীবনকে বাজি রেখে-সে কথা বলাই যায়। এরমধ্যে চারিদিকে বিজয় মৃত্যু অব্যাহত । আমার জানামতে মরছে উভয় কমিউনিটির লোকজন।

এবার আসি পোস্ট প্রসঙ্গে, ব্যক্তিগতভাবে সাধ‍্যমত দান সেই লকডাউনের শুরু থেকে নগদ টাকায় দান করেছি।এমন কিছু মানুষ আমার সামনে এসেছিল যাদের বেশভূষা দেখে অবাক হয়েছিলাম যে এমন লোকেরাও অন‍্যের কাছে হাত পাততে পারে।সম্পূর্ণ অপরিচিত সেই মানুষদের যদিও পরে আর কখন দেখিনি।
রোজার ঈদ ভারতে অনেকের বাড়ির ছাদে চারপাঁচ জন মিলে আদায় করেছে। এই মুহূর্তে ভারতে কিছু স্থানে গোষ্ঠী সংক্রমণ শুরু হয়েছে।কাজেই যে দলের সরকার হোক, ধর্মীয় আবেগকে সরিয়ে রেখে বাস্তবতাকে মেনে নিতেই​ হবে। এমতাবস্থায় ইদুল আজহার নামাজও যদি নিয়ম রক্ষার হয়ে থাকে তবে সেটা বৃহত্তর স্বার্থে মঙ্গলজনক বৈকি।

ঈদুল আজহার অগ্রিম শুভেচ্ছা নিয়েন শ্রদ্ধেয় মান‍্যেবরেষু।

২২ শে জুলাই, ২০২০ রাত ১০:১২

চাঁদগাজী বলেছেন:



আপনার জন্যও শুভেচ্ছা রলো।
করোনায় ভারত সরকার মানুষকে সাহায্য করছে কিনা, বাহির থেকে বুঝার উপায় নেই; দরিদ্রদেরকে অন্যদের উপর নির্ভর করতে হবে।

এবার ভারতে মুসলমানদের নিজের থেকেই পশু কোরবানী না দিলে ভালো হবে।

৭| ২২ শে জুলাই, ২০২০ রাত ১০:০৫

পগলা জগাই বলেছেন: ওরা ওদের নিয়ে ভাবুক, আমাদের অবস্থা কি হবে সেটাই কথা।

২২ শে জুলাই, ২০২০ রাত ১০:১৩

চাঁদগাজী বলেছেন:


কিছু কিছু বাংগালী সঠিকভাবে চিন্তা করছেন: ওদেরটা ওরাই দেখুক।

৮| ২২ শে জুলাই, ২০২০ রাত ১০:১৯

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: ভারতের কথাই বলছেন কেন?
শেরজা তপন এর এক মন্তব্য থেকে জানতে পারলাম- ঢাকার কিছু বাড়িওয়ালারা, বিভিন্ন এলাকার কমিটি, ডি ও এইচ এস অলরেডি ডিক্লেয়ার দিয়ে দিয়েছে, তাদের ওখানে কোরবানি দেয়া যাবেনা?

২২ শে জুলাই, ২০২০ রাত ১০:২৪

চাঁদগাজী বলেছেন:



তাই? এবার কোবরানী কম হবে; রাজনৈতিক কর্মী ও অসৎ ধনীরা লো-প্রোফাইলে থাকবে।

৯| ২২ শে জুলাই, ২০২০ রাত ১০:৩০

নুরুলইসলা০৬০৪ বলেছেন: ভারতে একটা সরকার আছে এবং সরকারী আইন মেনেই চলতে হবে।আইন না মানলে মুসলমানরা আরো বিপদে পড়বে।আমার মনে হয়না নিষিদ্ধ করবে,কিছু বিধি বিধান দিতে পারে,যেটা আগেও ছিল হয়তো কিছুটা কঠিন করবে।

২২ শে জুলাই, ২০২০ রাত ১১:৫২

চাঁদগাজী বলেছেন:


কিছু একটা করবে ভারত সরকার, ওদের অবস্হা বেশ সংটাপন্ন।

১০| ২২ শে জুলাই, ২০২০ রাত ১০:৫৭

হাবিব ইমরান বলেছেন:

এই সংকটকালীন সময়ে এবছর ইদ না-ই করলো, এক বছর সীমিত আকারে ইদ করলে ধর্ম বিলুপ্ত হয়ে যাবেনা এটা সবাইকে মেনে নিতে হবে। জনগণকে একটু সহনশীল পর্যায়ের সচেতন হতে হবে। ইদের জন্য মহামারীর প্রকোপ বাড়ানোর কোন মানে হয় না।

তবে মানসিকতার দিক থেকে বাংলাদেশ, ভারত এবং পাকিস্তান সমান পর্যায়ের। খুবই নিম্ন পর্যায়ের মানসিকতা এদের। এদের মধ্যে অর্ধেকেরই বেশি সুযোগ খোঁজে ভুজুংভাজুং করার। মোদিকে দেখলে তাই মনে হয়। মোদিকে ভুজুংভাজুং করা পাবলিকই ভোট দিয়ে ক্ষমতায় এনেছে। মোদির মধ্যে নিরপেক্ষতার অভাব রয়েছে। রাষ্ট্রের সকল নাগরিক, সকল ধর্মের মানুষকে সমানভাবে দেখার ব্যাপারে মোদি খুবই নিম্ন পর্যায়ের প্রাণী।

দেখা যাক ইদের ব্যাপারে মোদির ভূমিকা কি হয়!!!


২২ শে জুলাই, ২০২০ রাত ১১:৫৩

চাঁদগাজী বলেছেন:


ভারাতের ঈদ নিয়ে বাংগালীরা হয়রাণ না হলেই হলো; সময় ভালো নয়।

১১| ২২ শে জুলাই, ২০২০ রাত ১১:১৮

নূর মোহাম্মদ নূরু বলেছেন:
কেমন কতা কইলেন মিয়া বাই
ভারত ক্যাডা যে ঈদ বন্ধ করবো!!
হেতাইনের ধুতির গোছা খু্ইল্লা যাইবো
ঈদ বন্ধ করার যদি চিন্তাও করে!!
আমেরিকা তার উপর চেইত্যা আছে
চা আলার খবর আছে !!

২৩ শে জুলাই, ২০২০ রাত ১২:১৯

চাঁদগাজী বলেছেন:



চা-ওয়ালার খবর নেই, সে ভারতকে অন্ধকার যুগে নিয়ে গেছে।

১২| ২৩ শে জুলাই, ২০২০ রাত ১২:০১

রাজীব নুর বলেছেন: ভারতের আসলেই মন মেজাজ প্রচন্ড বিক্ষিপ্ত।
গত পরশু তিন বাংলাদেশেকে পিটীয়ে মেরে ফেলেছে। তাদের ধারনা তিন বাংলাদেশে ওদের গরু চুরী করতে গেছে।

২৩ শে জুলাই, ২০২০ রাত ১২:২১

চাঁদগাজী বলেছেন:



আসামীরা নিজ এলাকায় বস্তিতে থাকে; ওগুলো ১০০ ভাগ অমানুষ।

১৩| ২৩ শে জুলাই, ২০২০ রাত ১২:২৮

শূন্য সারমর্ম বলেছেন: সংখ্যালঘুরা সবখানে অল্পসল্প ঝামেলায় পড়েই।ভারতে অন্য মাত্রা যোগ হবে করোনার জন্য।সরকারের আইন কি হয় দেখা যাক।

২৩ শে জুলাই, ২০২০ রাত ১২:৩৬

চাঁদগাজী বলেছেন:



এগুলো আইন নয়, অবস্হার পরিপ্রেক্ষিতে পদক্ষেপ; এই ধরণের আইন ভারতে কখনো হবে না।

১৪| ২৩ শে জুলাই, ২০২০ রাত ১২:৫৭

শূন্য সারমর্ম বলেছেন: হয়তো ঈদ মুসলমানদের করতে হবে চোখ, কান খোলা রেখে অতি সতর্ক হয়ে।

২৩ শে জুলাই, ২০২০ রাত ১:১৩

চাঁদগাজী বলেছেন:



ঈদ বন্ধ করবে না, জামাত ও কোরবানী বন্ধ করতে পারে।

১৫| ২৩ শে জুলাই, ২০২০ রাত ১:১৭

নূর মোহাম্মদ নূরু বলেছেন:

লেখক বলেছেন: ঈদ বন্ধ করবে না, জামাত ও কোরবানী বন্ধ করতে পারে।

এইবার লাইনে আইছেন !! মাঝে মাঝে কিযে উল্টা পাল্টা বলেন
মনে হয় চোখের সাথে মাথাটাও গেছে!!

২৩ শে জুলাই, ২০২০ রাত ১:৪৪

চাঁদগাজী বলেছেন:


ওরা হিন্দুদের অমরনাথ তীর্থে যাওয়া বন্ধ করেছে; আমি সেইদিক থেকে ভাবছিলাম; এখন দেখা যাচ্ছে, ওরা হয়তো জামাত ও পশু কোরবানীর কথা ভাবছে।

১৬| ২৩ শে জুলাই, ২০২০ রাত ১:৫২

ডঃ এম এ আলী বলেছেন:





কঠীন ধর্মীয় বিষয় ,ইসলামী পন্ডিতগন এ বিষয়ে কথা বললে ভাল হয়। এ প্রসঙ্গে পবিত্র কোরানের দুটি আয়াত প্রনিধান যোগ্য
"কোরবানির মাংস বা রক্ত আল্লাহর কাছে পৌঁছায় না, আল্লাহর কাছে পৌঁছায় শুধু তোমাদের নিষ্ঠাপূর্ণ আল্লাহ-সচেতনতা। এই লক্ষ্যেই কোরবানির পশু গুলোকে তোমাদের অধীন করে দেয়া হয়েছে। অতএব আল্লাহ তোমাদের সৎপথ প্রদর্শনের মাধ্যমে যে কল্যাণ দিয়েছেন, সেজন্যে তোমরা আল্লাহর মহিমা ঘোষণা করো। হে নবী! আপনি সৎকর্মশীলদের সুসংবাদ দিন যে, আল্লাহ বিশ্বাসীদের রক্ষা করবেন। নিশ্চয়ই আল্লাহ কোন বিশ্বাসঘাতক, অকৃতজ্ঞকে পছন্দ করেন না। (সূরা হজ, আয়াত ৩৭-৩৮)" সেখানকার মুসলমনগন নির্ধারণ করুন এই মহুর্তে কিসে তাদের বেশী কল্যান নিহীত।

২৩ শে জুলাই, ২০২০ রাত ২:২৭

চাঁদগাজী বলেছেন:


বিশ্বে মহামারী, এখন ভারত নিশ্চয় তার মুসলিম নাগরিকদের কোন বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে দিবে না, সেখানে সরকারই সিদ্ধান্ত নেবে; হিন্দুদের অমরনাথ তীর্থ ভ্রমণ বন্ধ করেছে সরকার।

১৭| ২৩ শে জুলাই, ২০২০ সকাল ৯:০৬

মোঃ ইকবাল ২৭ বলেছেন: ভারতে হয়তো নিষিদ্ধ করবে তাই কুরবানি দিবে না। বাংলাদেশে নিষিদ্ধ না হওয়া সত্বেও কুরবানি দিতে পারবেন না। আর আজকাল যেটিকে এদেশে কুরবানি বলা হয় উহা সঠিক কুরবানি কিনা কে জানে। কুরবানির নিয়ম কয়জনে মানে। মাংস খাওয়ার কুরবানি। আত্নীয়দের দেয় না, গরীবদের দেয় না, প্রতিবেশীদের দেয় না। নিজে খাওয়া ফ্রিজের রাখার জন্য কুরবানির নাম দিয়ে অত জামেলায় যাওয়ার দরকারটা কি ? যারা নিয়ম মেনে সঠিক কুরবানি দিবে তাদের কথা আলাদা, তবে এ জাতীয় লোক চোখে পড়ে না।

২৩ শে জুলাই, ২০২০ সকাল ১০:১৯

চাঁদগাজী বলেছেন:



করোনার ফলে নিম্ম মধ্যবিত্তরা ভয়ংকর অর্থনৈতিক সমস্যায় আছে।

১৮| ২৩ শে জুলাই, ২০২০ সকাল ১০:৪৪

মোঃ খুরশীদ আলম বলেছেন: মগজে পঁচন ধরেছে মনে হয়। কুরবানির বেলায় এতো সমস্যা কেন? মোদির বাবার টাকায় মুসলমানেরা কুরবানি দিবে কি? স্বাস্থ্য বিধি মেনে কুরবানি করতে সমস্যা কোথায়? নাকি মোদি সরকার গরুর গোশত খাওয়া শুরু করে দিবে? হাট-বাজার-নীতি-রাজনীতি সবই তো চলছে সমান তালে। সেগুলো কেন বন্ধ হয় না। ফালতু বিষয়ে না লিখে ভাল কিছু তো লেখা যায়।

২৩ শে জুলাই, ২০২০ দুপুর ২:৩৭

চাঁদগাজী বলেছেন:


মোদী দেশ চালায়, আপনি ব্লগে লেখেন।

১৯| ২৩ শে জুলাই, ২০২০ দুপুর ১২:৩৯

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন:
বর্তমান পরিস্থিতি বিবেচনা করে ভারতসহ পৃথিবীর সব দেশেই পশু কুরবানী করা হবে, স্বাস্থ্যবিধি মেনে তবে কোথাও বেশি কোথাও কম হবে। নিষিদ্ধ করাটা বোকামী।

২৩ শে জুলাই, ২০২০ দুপুর ২:৩৮

চাঁদগাজী বলেছেন:


মোদী অমরনাথ তীর্থে যাওয়া বন্ধ করেছে।

২০| ২৩ শে জুলাই, ২০২০ দুপুর ২:৫৮

রাজীব নুর বলেছেন: ভারতকে আমরা বন্ধু বন্ধু বলি অথচ ওদের কর্ম কান্ড বন্ধুর মতো না।
গত বছর ইন্ডিয়া গিয়ে বিষয়টা অনুভব করি।

২৩ শে জুলাই, ২০২০ বিকাল ৩:৪৯

চাঁদগাজী বলেছেন:



ভারতের মানুষজন নিজেদের মাঝেও খুব একটা বন্ধুভাবাপন্ন নয়; তবে, বাংগালীদের চেয়ে বেশী শিক্ষিত ও আইন মেনে চলে।

২১| ২৩ শে জুলাই, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:০৩

তারেক ফাহিম বলেছেন: নিষিদ্ধ হলে বোকামিই হবে, তবে কিছু কিছু যায়গায় বন্ধ করতে পারে।

ইদ পালন হবে, জামাত কিংবা কোরবানী বন্ধ থাকতে পারে কিছু কিছু যায়গায়।

২৩ শে জুলাই, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:০৮

চাঁদগাজী বলেছেন:


ওরা অমরনাথ বন্ধ করেছে; ফলে, জামাত বন্ধ করবে; হয়তো, কোরবানীও বন্ধ করবে।

২২| ২৩ শে জুলাই, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:৩৪

ডার্ক ম্যান বলেছেন: ফেসবুক বিপ্লবীরা ভারতীয়দের হয়ে ফেসবুকে কোরবানি দিয়ে দিবে

২৩ শে জুলাই, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:০৭

চাঁদগাজী বলেছেন:


ভারতে ঈদ বন্ধ হলে, বাংলাদেশে বিপ্লব হবে।

২৩| ২৩ শে জুলাই, ২০২০ রাত ৮:২৭

মুজিব রহমান বলেছেন: মোদী একটা দাঙ্গা লাগাতে চাইবে। সেই দাঙ্গাতেই হিন্দুত্ববাদের ্‌ারো জাগরণ ঘটতে পারে সেই আশা করবে। সেটাই তার ব্যর্থতা ঢাকার উপায়। তার ফাঁদে পা দেয়া হবে মুসলিমদের ভুল।

২৪ শে জুলাই, ২০২০ সকাল ১০:০৩

চাঁদগাজী বলেছেন:


মোদী সেই চেষ্টা করতে পারে, ওর লোকেরা ইস্যু খুঁজতে পারে।

২৪| ২৩ শে জুলাই, ২০২০ রাত ১১:২৯

কানিজ রিনা বলেছেন: সাস্থবিধি মেনে কুরবানী দিবে এতে সমস্যা
হওয়ার কথা নয়। বাজার ঘাট থেমে নেই মানুষ
কিনছে মাছ গোস্ত মুরগী সাস্থবিধি মেনে।
যাহারা সাস্থবিধি মানেনা তাদের কথা আলাদা।
মনে রাখতে হবে একজন গরীব কৃষক অনেক
কষ্টে একটি দুটি গরু ছাগল পালে সারা বছরে
একবার কিছু টাকার আসায়, তাদের গরু ছাগল
বিক্রি নাহলে কেমন হবে মানুষ যদি কুরবানী
না করে। এখন সারাধন মানুষ খুব আর্থিক
কষ্টে আছে। উচ্চ মধ্যবিত্ত ও বড়লোকেরা
কুরবানী করে নিম্নবিত্তরা সারা বছরে একবার
হলে কুরবানীর গোস খায়। আমাদের এলাকায়
কুরবানী হবে, যার যার গোস বাড়ি বাড়ি পৌছে
দেবে ঘোষনা করা হয়েছে।
ভারতে কি হবে তা নিয়ে মাথা ব্যাথা নাই,
ভারতের মুসলিমরা তো গরু কাটবেনা তারা
বড় জোর ছাগল কাটবে সেইহেতু সাস্থবিধি
মানলে সমস্যা থাকার কথা না।
ভারতের লোকেরা অনেক সচেতন আমাদের
বাংলাদেশের মানুষের থেকে।
ইদানীং দেখছি রাস্তায় অর্ধেক মানুষ মাস্ক
পড়েনা। মানুষ করোনায় অসয্য হয়ে গেছে।

২৪ শে জুলাই, ২০২০ সকাল ১০:০৫

চাঁদগাজী বলেছেন:



ভারতের মুসলমানদের বড় অংশ থাকে বস্তিতে; যারা ভালো আছে, তারা বাকীদের খোঁজ রাখে না।

২৫| ২৪ শে জুলাই, ২০২০ সকাল ৯:৩৫

স্বামী বিশুদ্ধানন্দ বলেছেন: কুকুরের কাজ কুকুর করেছে
কামড় দিয়েছে পায়,
তা বলে কুকুরে কামড়ানো কিরে
মানুষের শোভা পায়?

মোদী ও তার উগ্রবাদী সমর্থকরা অনেক কিছুই করতে পারে - ক্ষমতা ও সেই রকম গণসমর্থন তাদের আছে। কিন্তু তাই বলে তার অন্যায় কর্মকান্ডে মাথা গরম না করে মুসলমানদের অবস্থা বুজে যে কোনো পদক্ষেপ নেয়াই বুদ্ধিমানের কাজ হবে।

২৪ শে জুলাই, ২০২০ সকাল ১০:০৬

চাঁদগাজী বলেছেন:


ভারতের মুসলমানেরা দারিদ্রতার কাছে হেরে যাচ্ছে ক্রমেই; দরিদ্রদের বুদ্ধিকমে যায়।

২৬| ২৪ শে জুলাই, ২০২০ বিকাল ৫:৩৭

সপ্তম৮৪ বলেছেন: সারা দুনিয়াতে ইদ হয় একদিনে কিন্তু ভারতীয় উপমহাদেশে হয় পরের দিনে। এটার সঠিক কারন কি , এখানেও কি পলিটিক্স আছে নাকি ?

২৫ শে জুলাই, ২০২০ রাত ২:৫৬

চাঁদগাজী বলেছেন:



চাঁদ দেখে যদি ঈদ হয়, বিশ্বে ঈদ একই দিন হবে না। বিশ্বের অনেকেই সোদীদের অনুসরণ করে।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.