নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

সময়ের ব্যবধানে বেজে বেজে চলে, সূর্য চাঁদ সবচেয়ে- দূরতম শব্দের মাস্তল, যেন কোন অজ্ঞাত নিবাস থেকে ছুটে আসি।পরিচিত শ্টেশন এলেই তুৃমি দেখাও নিশান- আমি উঠে পড়ি...

কিরমানী লিটন

কিরমানী লিটন › বিস্তারিত পোস্টঃ

অসমাপ্ত আর্তনাদ ...

১২ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ দুপুর ২:০১



কার্তিকের রাত
সবুজ ঘাসেরা বড় উস্মুখ হয়েছিল
আকাশে মিটি মিটি তারাদের গল্প বলা আলোতে
সাদা চাদরের মত সুখের কুয়াশা
আলতো করে বলে গেল
শেষ দুপুরের খোলা কীর্তণ।

একটিবার তাকে দেখার বড় ইচ্ছে ছিল,
সন্ধ্যাময়ী আলোতে
বিরুদ্ধ বাতাসে কেঁপে ওঠা জোছনায়-
একটিবার ছুঁয়ে দিয়ে চলে গেল সে,
বুকের হীম ঘরে পুষে রাখা
সীমানাহীন ভালবাসা
কি য্যানো চায় সে
তুমি কী দেবে কার্তিকের রাত ??

দরকার ছিল শুধু কার্তিকের জলে স্নান করবার ?
পৌষের রোদে গা শুকিয়ে গেলে তুমি নীল চাদরের নিচে
সেখানে কি স্বপ্ন রেখেছিলে তুমি ?
নাকি ছিল কদম ফুলের মিষ্টি আমেজ ?
নাকি শুধু মৌমাছির হুল ফোটানো ?
মধু লোভে এই সকালে কেন গেলে সজনে তলায় ?

যে পথ শুধু পাখ পাখলির আনাগোনা
যে পথ শুধু আগুন জ্বলা এই শ্রাবণের মধ্য দুপুর
যে পথ শুধুই কষ্ট চেনে...
পানকৌড়ির শামুক খোঁজা সন্ধ্যাবেলা
এমন কি দরকার ছিল-
এমন করে শেষ বিকেলের গল্প বলা
সখের বাগান ছাই করবার...?

এখন আর কাউকেই বোঝা যায় না-
কিছুই বুঝিনা কোথাও...।
বিল ঝিল নদ নদী ঝিমঝিম জল
পাহাড় পর্বত, শহর কিংবা গ্রাম
ঝোপ ঝাড়, ধুলোর রাস্তা
তুলতুলে শ্রাবণ সকাল
দুপুরের পরে লম্বা পিরাণ গায়ে অচেনা মানুষ
এলেবেলে চলে গেলে বড্ড গোমর লাগতো মনে।
এখন আর মনও পোড়েনা
হয়ত পোড়ার মতন আগুন নেই আর
এখন আর পুড়তে পারেনা শরীর---।

তোমার হাতের উপরে যেদিন হলুদ বাষ্প দিয়ে খেলাঘর বানালুম
সেদিন কি ঈশ্বর হেসেছিল খুব ?
তা না হলে কেন এমন বিষক্রিয়ায় গুমরে মরা সারাক্ষণ ?
কেনই বা রাত্রিগুলো একা একা কুয়াশায় ভেজে এমন অন্ধকারে ?
ঈশ্বরের চাওয়ার বাইরে নাকি কিচ্ছুটি হয়না।
এ বিশ্ব ব্রম্ভ্রান্ডের চাকা তো তাঁর বিনা ইচ্ছেই একচুলও নড়েনা
তাহলে, এই যে রাতের এমন একাকি ঘুরে বেড়ানো,
গাছেদের সাথে রাতের গোপন বিচ্ছেদ,
নদীর সাথে ঘাসের তৃষ্ণাময় গোধূলীলগ্ন-
সব-ই তো তার জন্যেই ঘুর-পাক খায়....।

তবুও- প্রতি রাতে কে যেন আসে, এসে ফিরে যায়...
আমার বারান্দার সবুজ পাতাগুলোও কার যেনো নি:শ্বাস খোঁজে;
আমি ওদের ভেতরের ব্যকুলতা টের পাই।
আমার হাতের উপরে যে ওদের নি:শ্বাসের ওজনদার বাতাসগুলো ঝরে পড়ে।
তুমি কি জানো, সন্ধ্যার হঠাৎ কলোরব
কি যেনো বলছিল বাতাসের সাথে,
সে-ই তুমি, আমি তার নাম জানি- ভালবাসা
অথবা- অসমাপ্ত আর্তনাদ... !!!

মন্তব্য ১৮ টি রেটিং +৩/-০

মন্তব্য (১৮) মন্তব্য লিখুন

১| ১২ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ দুপুর ২:৩৩

বলেছেন: ভালোবাসা অথবা অসমাপ্ত আর্তনাদ +++
খুবই সুন্দর ভাবনার প্রকাশ।



একরাশ মুগ্ধতা।

১২ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৩:১৫

কিরমানী লিটন বলেছেন: প্রিয় ল- প্রীতি ও শুভেচ্ছা জানবেন। অনেক মুগ্ধতায় মন ভরে গেলো কানায় কানায়- আপনার আন্তরিক মতামত জেনে। ভালোবাসা জানবেন অনেক শুভকামনায়...

২| ১২ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ দুপুর ২:৪৭

মোস্তফা সোহেল বলেছেন: বাহ!খুব সুন্দর লিখেছেন।
ভালবাসলে বুকে তীরের আঘাত খেতেও প্রস্তুত থাকতে হয় সব সময়।

১২ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৩:১৯

কিরমানী লিটন বলেছেন: হোঁচট খেয়ে জীবন শিখে
পড়ে পড়ে হাঁটা,
সুবাশ পেতে সহ্য করে
ফুলের সাথে কাঁটা ...

ঠিক বলেছেন প্রিয় মোস্তফা সোহেল ভাই। কাঁটার আঘাত সয়েই ভালবাসার সুঘ্রাণ পেতে হয়। ভালোবাসা আর কৃতজ্ঞ শুভাশিস জানবেন...।

৩| ১২ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৩:২১

চাঁদগাজী বলেছেন:


কথা জমা হয়ে গেছে অনেকটুকু।

১২ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৩:৩১

কিরমানী লিটন বলেছেন: " যে কথা মনের কথা, কতবার থেমে গেছি- বলিতে বলিতে ... "

ঠিক ধরেছেন প্রিয় চাঁদগাজী ভাই, অনেক কথার মরন হলেও হৃদয় কথা বললোনা। তাই শুধু জমতেই থাকে হৃদয়ের কথা।
ভালোবাসা আর শুভাশিস জানবেন- নিরন্তর শুভকামনায়....।

৪| ১২ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:২৩

অপ্‌সরা বলেছেন: কবিতায় বাহ বাহ ভাইয়া.....


তবে ছবিতাটা কার আঁকা ভাইয়া.....

কোনো চাইনিজ শিল্পীর সিগনেচার মনে হচ্ছে .....

১৩ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ দুপুর ২:১০

কিরমানী লিটন বলেছেন: সুপ্রিয় শ্রদ্ধাভাজন অপ্‌সরা আপু, আমার অগোছালো অলেখার বিচ্ছিন্ন ভাবনার অনুবাদের প্রতিটি শব্দ আপনাকে খুঁজে সব সময়- কোথায় থাকেন আপনি? আমার অকবিতা কি আপনাকে হারিয়ে ফেললো ? যাক- এই কবিতায় অন্তত আপনাকে ফিরে পাওয়া খুব- খু ব ই বড় প্রাপ্তি। আমার জন্য- কবিতায় উজ্জিবনি ফিরে পাওয়ার জন্য। ভালো থাকবেন- প্রিয় আপু'নি, অনেক শুভকামনা জানবেন।

ছবিতাটা নেট থেকে সংগৃহীত- আপনার আঁকা কি?

৫| ১২ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ১০:৩০

রাজীব নুর বলেছেন: Love as a relation between men and women was ruined by the desire to make sure of the legitimacy of children.

১৩ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ দুপুর ২:১৪

কিরমানী লিটন বলেছেন: আমার কাছে ভালোবাসা স্মৃতি বিমূর্ত তৃষ্ণা ...। অনেক কথার মরার পর হৃদয়ের কথা বলা।

আন্তরিক মতামতে মননের মন্তব্যে অনেক ভালোলাগা প্রিয় রাজীব নুর ভাই- সশ্রদ্ধ ভালোবাসায়..।

৬| ১৩ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:০৬

অপ্‌সরা বলেছেন: হা হা এই ছবিতা নিয়ে কত কিতা হয়ে গেলো .... ব্লগে ফেসবুকে ......

তোমাকেও দেখেছিলাম অবশ্য ফেসবুকে সেসবে কিছু কমেন্টে !!!!!! :)

যাই হোক এই ছবি আমার আঁকা না তবে এই একই ছবি অনেকেই এঁকে এসেছেন এই পৃথিবীতে বহু যুগ আগে থেকেই ........

তা ইন্টারনেটের ভূবনে ছড়িয়ে আছে নানা নামে নানা পরিচয়ে তবে ছবিটা কান্না ছবি আঁকতে শেখার এক দারুন উপযোগী ছবি।

:) :) :)

https://www.somewhereinblog.net/blog/saimahq/30180062

১৩ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:২৩

কিরমানী লিটন বলেছেন: লিঙ্ক ধরে ঘুরে এলাম। এতো মহা লঙ্কাকাণ্ড। আমিও মন্তব্যে ছিলাম হয়তো ফেবুকে। বেমালুম ভুলে বসে আছি। তার জন্য লজ্জাও হচ্ছে। কম বয়েসে বউ মরে গেলে- যা হয় ...। সে যাক, পোষ্টে এ কারনেই হয়তবা আপনার মনোযোগ পেয়েছি- সেজন্য এই ছবিতার কাছে কৃতজ্ঞতা। আপনি ভালো থাকবেন প্রিয় শায়মা'পু। আমাদের মতো নাদান অকবিদের দিকে মাঝে মাঝে নজর দিলে খুশি হবো- ভী ষ ন ...

আবারও শুভাশিস জানাচ্ছি- আপনাকে।

৭| ১৩ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:২৯

অপ্‌সরা বলেছেন: হ্যাঁ আমরা অনেক সময়ই এমন জেনে না জেনে বুঝে না বুঝে নিজেদের অজান্তেই সমস্যায় পড়ে যাই। আমি অবশ্য বেশ খেয়াল রাখি ... আর সবকিছুই বেশ মনেও রাখি .... :)

১৩ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:৩৭

কিরমানী লিটন বলেছেন: আপনার শাণিত খেয়ালের আলোয় পথ খুঁজে নিক- বেখেয়ালি পথভুলো মানুষ। ভালো থাকবেন- সপরিবার। শুভকামনা আবারও প্রিয় অপ্‌সরা- আপু'নি ...।

৮| ১৪ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ৮:২৫

গিয়াস উদ্দিন লিটন বলেছেন: চমৎকার কাব্য লিখেছেন মিতা !!

১৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১২:১৯

কিরমানী লিটন বলেছেন: ভালোবাসা জনবেন প্রিয় মিতা সতত শুভকামনা জাননেন....

৯| ১১ ই জানুয়ারি, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:২৯

জুনায়েদ বি রাহমান বলেছেন: কবিতাটা খুব সুন্দর। ভালো লেগেছে।

১১ ই জানুয়ারি, ২০১৯ রাত ১১:২৬

কিরমানী লিটন বলেছেন: কবিতায় আপনার পছ্ন্দের সীমা ছুঁতে পারার আনন্দ মুগ্ধতা ছড়ালো অলিন্দের অতলে। ভালোবাসায় অনেক কৃতজ্ঞতা সুপ্রিয় জুনায়েদ বি রহমান ভাই। অনেক ধন্যবাদ আর শুভকামনা জানবেন।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.