নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

সম্পাদক, শিল্প ও সাহিত্য বিষয়ক ত্রৈমাসিক \'মেঘফুল\'। প্রতিষ্ঠাতা স্বেচ্ছাসেবী মানবিক সংগঠন \'এক রঙ্গা এক ঘুড়ি\'।

নীলসাধু

আমি খুব সহজ এবং তার চেয়েও বেশী সাধারন একজন মানুষ । আইটি প্রফেশনাল হিসেবে কাজ করছি। টুকটাক ছাইপাশ কিছু লেখালেখির অভ্যাস আছে। মানুষকে ভালবাসি। বই সঙ্গে থাকলে আমার আর কিছু না হলেও হয়। ভালো লাগে ঘুরে বেড়াতে। ভালবাসি প্রকৃতি; অবারিত সবুজ প্রান্তর। বর্ষায় থৈ থৈ পানিতে দুকুল উপচেপরা নদী আমাকে টানে খুব। ব্যাক্তিগতভাবে বাউল, সাধক, সাধুদের প্রতি আমার দুর্বলতা আছে। তাই নামের শেষে সাধু। এই নামেই আমি লেখালেখি করি। আমার ব্লগে আসার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ। শুভকামনা রইলো। ভালো থাকুন সবসময়। শুভ ব্লগিং। ই-মেইলঃ [email protected]

নীলসাধু › বিস্তারিত পোস্টঃ

সামাজিক দায়বদ্ধতা

২১ শে মার্চ, ২০২০ রাত ১০:০৪



আমরা একটি গভীর সংকটময় পরিস্থিতির মধ্যে পড়েছি। পুরো পৃথিবী থমকে গেছে। বিষাদের কালো চাদরে ঢেকে যাচ্ছে একটির পর একটি নগর, শহর, বন্দর, দেশ! শুধু আমি বা আপনি নন, বা বাংলাদেশ নয়; করোনা ভাইরাসের সংক্রমণে মহামারির কবলে পৃথিবীর নানান দেশ। আমরা যেন সকলেই অনিশ্চিত এক যাত্রায় সহযাত্রী- প্রতিদিনই দীর্ঘ থেকে দীর্ঘতর হচ্ছে মৃত্যুর মিছিল!

মানুষের বিপদে স্বেচ্ছাসেবীরা ঘরে বসে থাকে না, তারা মানুষের কল্যাণে নিবেদিত হতে চায়। আমরাও চাইছি দুর্যোগে মানুষের পাশে থাকতে। তারই অংশ হিসেবে সমমনা বেশ কয়েকটি সংগঠনের সম্মিলিত উদ্যোগে যোগ দিয়েছে 'এক রঙ্গা এক ঘুড়ি'। ঘুড়ির বন্ধু শুভাকাঙ্ক্ষী সহ সকলের প্রতি এই কার্যক্রমে যুক্ত হবার অনুরোধ রইলো।

ঢাকায় নিম্নবিত্ত মানুষের বসবাস ২১.৮% যাদের বেশি ভাগ প্রতি দিনের উপার্জন দিয়েই নিজেদের ভরণপোষণ করে থাকে। করোনা ভাইরাস ইস্যুতে প্রতিদিনের অবস্থার অবনতির সঙ্গে সঙ্গে তাদের আয়েরও চিত্রটিও নিচের দিকে। একটা সময়ে যা হয়ত শূন্যের কাছাকাছি চলে যেতে পারে। তারা ভাইরাসে সংক্রমণের পাশাপাশি খাদ্য সঙ্কটে ভুগবে। তাই এখনি সময় তাদের জন্য এগিয়ে আসা এবং পর্যাপ্ত সাহায্য তাদের হাতে পৌঁছে দেয়া। সেই লক্ষ্যে ‘গিফট ফর গুড’ ইমার্জেন্সী ফান্ড সংগ্রহ করছে। আমাদের লক্ষ্য ঢাকা এবং তার আশেপাশের দিন মজুর, রিকশাচালক সহ খেটে খাওয়া বিভিন্ন পেশাজীবীর মানুষকে সহায়তা করা। মহামারি মোকাবেলায় আপনারা যে যার জায়গা হতে সাধ্যমতো এগিয়ে আসুন। অন্তত একটি পরিবারকেও প্রয়োজনীয় সাহায্য দিয়ে ওদের পাশে দাঁড়াতে পারেন।

আপনি শুকনো খাবার অথবা সেনিটাইজার মাস্ক দিয়েও সাহায্য করতে চাইলে যে কোনো দিন সকাল ১১টা থেকে সন্ধ্যা ৭ টার মধ্যে ধানমণ্ডিতে অবস্থিত প্রধান কার্যালয়ে আপনার সাহায্য পাঠাতে পারবেন। অফিসের ঠিকানা: বাসা ৩৩, ফ্লোর ০২, রোড ০৪, ধানমন্ডি আবাসিক এলাকা, ঢাকা।

প্রতিটি পরিবারের জন্য বরাদ্দকৃত ত্রাণ বক্সে যা যা থাকছে:
চাল– ৪ কেজি, ডাল– ১ কেজি, তেল– ৫০০ মি:লি:, লবণ– ১ কেজি, সাবান– ১ টি, স্যানিটাইজার– ১ টি, মাস্ক– ১ টি ও মুড়ি– ১ কেজি।

আপনি আর্থিকভাবে যে কোন সাহায্য করতে চাইলে অফিশিয়াল বিকাশ নম্বরে পাঠাতে পারবেন।
Bkash: 01974733377, 01722335599 (Personal)
Rocket: 018420770552 (Personal)
অথবা, ব্যাংক একাউন্ট:
Account Name- Alokito Shishu Trust
Account Number - 400311100013793
Shahjalal Islami Bank
Dhanmondi Mirpur Road Branch , Dhaka

জরুরী যোগাযোগ:
+8801722335599, 01783482838, 01740419051.
Facebook: https://www.facebook.com/giftforgoodofficial

চাইলে আপনি অথবা আপনার সংগঠন/সংস্থা যোগ দিতে পারেন আমাদের সাথে।

প্রতিদিনের সহায়তার টাকার হিসেব, কাজের অগ্রগতি পেইজে প্রকাশ করা হবে। আপনিও আপনার সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে আমাদের সাথে অংশ নিতে পারেন। আমাদের ইভেন্ট লিঙ্ক:
https://www.facebook.com/events/639148250234964/

মন্তব্য ৯ টি রেটিং +২/-০

মন্তব্য (৯) মন্তব্য লিখুন

১| ২১ শে মার্চ, ২০২০ রাত ১০:১৯

সত্যপথিক শাইয়্যান বলেছেন: আমি ডাক্তারদের মাঝে কিছু পারসোনাল প্রটেক্টিভ ইকুইপেন্ট বিতরণ করতে চাই। আপনার এই ভালো উদ্যোগে এইভাবে যুক্ত হতে পারি কি?

ধন্যবাদ।

২১ শে মার্চ, ২০২০ রাত ১০:২৮

নীলসাধু বলেছেন: জ্বি আছে। আপনি দয়া করে কথা বলুন +8801722335599, 01783482838, 01740419051

কৃতজ্ঞতা অশেষ।

২| ২১ শে মার্চ, ২০২০ রাত ১০:৩৩

নীলসাধু বলেছেন: বিনামূল্যেই বিতরণের সিদ্ধান্ত হয়েছে PPE সেটের, কোনরূপ বিক্রয় হবে না। অনেকে চড়া দামে হাজার PPE কিনতে চেয়েছেন, মাফ করবেন চাহিদা মেটাতে না পারার জন্য।

আমরা ইতিমধ্যে এক হাজারের গাউন সেলানোর কাজ শুরু করছি। এক বহুজাতিক কোম্পানি তিন হাজারের বেশি গাউন তৈরির জন্য উৎসাহ দেখিয়েছি, সেটা হলে আমরা সব মিলিয়ে পাঁচ হাজার গাউন বিতরণে সক্ষম হবো বলে মনে করছি।

আমরা Airproof Mesh Fabrics কাপড়ে তৈরি করছি। বাজারে এই পণ্য তিন থেকে পাঁচ হাজার টাকায় বিক্রি হলেও আমরা অনেক কমেই ম্যানেজ করতে পেরেছি। আমরা শুধুমাত্র গাউন, মাস্ক (সাধারণ ব্যবহারের জন্য, এন-৯৫ এর বিকল্প নয়) এবং সু কভার দিবো। চশমা অপ্রতুল হওয়ায় ম্যানেজ করতে পারছি না।

পুরো প্রজেক্টটিতে অনেক অনিশ্চয়তা রয়েছে, যেমন অনেক জায়গায় কুরিয়ার নিচ্ছে না, প্রস্তুতকালিন সময় (যদিও কাজটি দ্রুত করতে আমরা থার্ড পার্টির সাহায্য নিচ্ছি), কাঁচামালের জোগান। তাই বিনীতভাবে অনুরোধ থাকবে যদি আপনারা ব্যক্তিগতভাবে ম্যানেজ করতে পারেন তবে আমাদের থেকে না নেয়ার অনুরোধ রইলো।

যে সকল দায়িত্বরত ডাক্তার নার্সদের এই PPE লাগবে তাঁদেরকে নিচের বিষয়গুলো পড়ে https://forms.gle/gmqYenDxG5gPcNqF8 ফর্ম পূরণ করতে অনুরোধ করবো।

১/ একজনে শুধু একটা সেট নিতে পারবেন, তাঁকে অবশ্যই সরকারী হাসপাতালের ডাক্তার, নার্স, কিংবা হাসপাতালের সাথে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা কর্মচারী হতে হবে।
২/ নিজের ফর্ম নিজে পূরণ করতে হবে, অন্য কারো দিয়ে পূরণ করলে হবে না।
৩/ কর্মস্থলের ঠিকানা দিতে হবে কুরিয়ারের জন্য, বাসা কিংবা অন্য ঠিকানা দিলে হবে না।
৪/ আমরা পরশু থেকে কুরিয়ার করা শুরু করবো। শেষ ব্যাচ পেতে পেতে এক ৭ দিনও লেগে যেতে পারে।
৫/ শুদ্ধ ফর্মগুলো থেকে লটারি করেই বিতরণ হবে। "আগে আসলে আগে পাবেন" ভিত্তিতে নয়।
৬/ প্রচুর কল আসে বিধায়, সবাইকে কল করা থেকে বিরত থাকতে অনুরোধ করছি। আমরা নিজেরাই কুরিয়ারের আগে কল দিবো আপনাকে

যারা করোনা ভাইরাস প্রতিরোধের মিশনে অনুদান দিতে চাচ্ছেন, তাঁদেরকে নিচের একাউণ্ট ব্যবহার করতে অনুরোধ করা যাচ্ছে। উল্লেখ্য এক্সটার্নাল অডিটের জন্য আমরা লোক মারফৎ কিংবা রাস্তায় রাস্তায় অনুদান সংগ্রহ করি না।

১/ পেপল একাউন্ট - [email protected]
২/ ডাচ বাংলা ব্যাংক
একাউণ্টের নাম - Bidyanondo Foundation
একাউণ্ট নাম্বার- 10612012479
Narayangonj Branch, Routing No: 090671186.
--------------------------------------------
৩/ সোশ্যাল ইসলামী ব্যাংক
একাউণ্টের নাম - Bidyanondo Foundation,
একাউণ্ট নাম্বার- 0221330016199
Nawabpur Branch, Swift: SOIVBDDH, Routing No: 195274754
৪/ বিকাশ মার্চেন্ট একাউন্ট: 01878116230 (counter no: 1)
৫/ বিকাশ ব্যক্তিগত একাউন্ট: 01614174755, 01614174756, 01614174757, 01614174758
৬/ রকেট একাউন্ট: 017141180737
৭/ নগদ মার্চেন্ট একাউন্টঃ 01878116231 (counter no: 1)



৩| ২১ শে মার্চ, ২০২০ রাত ১১:০৮

রাজীব নুর বলেছেন: ভালো উদ্যোগ।
ত্রান আমাকেও দিতে পারেন।
আমার ঘরে এ মাসে বাজার নেই।

২১ শে মার্চ, ২০২০ রাত ১১:৪৮

নীলসাধু বলেছেন: প্রয়োজনে দেয়া হবে।
রিকশাওয়ালা চা দোকানদার দিনমজুর তাদের পাশে দাড়াবার পাশাপাশি আপনি চাইলে আপনাকে দেয়া হবে না কেন? প্রয়োজন সবারই হতে পারে।

ধন্যবাদ।

৪| ২১ শে মার্চ, ২০২০ রাত ১১:১২

নেওয়াজ আলি বলেছেন: আমাদের আল্লাহ ছাড়া কেউ নাই।

৫| ২১ শে মার্চ, ২০২০ রাত ১১:৫৩

নীলসাধু বলেছেন: মার্ক্স অ্যাণ্ড স্পেন্সার। বিশ্ববিখ্যাত পোশাক প্রতিষ্ঠান। বাংলাদেশের গার্মেন্টস শিল্পের বড় ও পুরনো বায়ার। সেই প্রতিষ্ঠানের বাংলাদেশের কান্ট্রি ম্যানেজার বর্তমানে বাংলাদেশেরই Shwapna Bhowmick।

স্বপ্নার উদ্যোগে আজ করোনা মোকাবেলায় ডাক্তার ও নার্স, রোগী, অন্যান্য জরুরী সেবার সদস্যদের জন্য চার লাখ পিপিই (পারসোনাল প্রোটেক্টিভ ইকুইপমেন্ট) তৈরীর কাজ শুরু করেছে মার্ক্স অ্যাণ্ড স্পেন্সার।

সারাদিন চলেছে ফ্যাব্রিকের সন্ধান, বুয়েট এলামনি সহায়তায় হয়েছে নকশা। সন্ধ্যাতেই পাওয়া গেছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন।

পিপিইগুলো বিনামূল্যে বিতরণ করা হবে। প্রাউড অফ ইউ, বোনটা আমার।

এগুলো বানানো হচ্ছে মার্ক্স অ্যাণ্ড স্পেন্সারের সাথে নিয়মিত কাজ করা গার্মেন্টস ফ্যাক্টরীগুলোতে। ১০-১২ দিনের মধ্যেই চার লাখ তৈরী হয়ে যাবে বলে প্রত্যাশা মার্ক্স অ্যাণ্ড স্পেন্সারের।

স্বপ্নার মা সাধনা ভৌমিক ইহলোক ছেড়ে চলে গেছেন মাত্র ২১ দিন আগে। আজকের এই বিশাল কাজের খবরটি ফেসবুকে ছোট্ট করে জানানোর সময় স্বপ্না মাসীমাকে স্মরণ করেছেন।

চলুন আমরা সবাই মিলে রত্নগর্ভা প্রয়াত সাধনা ভৌমিকের চিরশান্তির জন্য সৃষ্টিকর্তার কাছে প্রার্থনা করি।

"যার যা আছে, তা-ই নিয়ে ঝাপিয়ে পড়ো"মার্ক্স অ্যাণ্ড স্পেন্সার। বিশ্ববিখ্যাত পোশাক প্রতিষ্ঠান। বাংলাদেশের গার্মেন্টস শিল্পের বড় ও পুরনো বায়ার। সেই প্রতিষ্ঠানের বাংলাদেশের কান্ট্রি ম্যানেজার বর্তমানে বাংলাদেশেরই Shwapna Bhowmick।

স্বপ্নার উদ্যোগে আজ করোনা মোকাবেলায় ডাক্তার ও নার্স, রোগী, অন্যান্য জরুরী সেবার সদস্যদের জন্য চার লাখ পিপিই (পারসোনাল প্রোটেক্টিভ ইকুইপমেন্ট) তৈরীর কাজ শুরু করেছে মার্ক্স অ্যাণ্ড স্পেন্সার।

সারাদিন চলেছে ফ্যাব্রিকের সন্ধান, বুয়েট এলামনি সহায়তায় হয়েছে নকশা। সন্ধ্যাতেই পাওয়া গেছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন।

পিপিইগুলো বিনামূল্যে বিতরণ করা হবে। প্রাউড অফ ইউ, বোনটা আমার।

এগুলো বানানো হচ্ছে মার্ক্স অ্যাণ্ড স্পেন্সারের সাথে নিয়মিত কাজ করা গার্মেন্টস ফ্যাক্টরীগুলোতে। ১০-১২ দিনের মধ্যেই চার লাখ তৈরী হয়ে যাবে বলে প্রত্যাশা মার্ক্স অ্যাণ্ড স্পেন্সারের।

স্বপ্নার মা সাধনা ভৌমিক ইহলোক ছেড়ে চলে গেছেন মাত্র ২১ দিন আগে। আজকের এই বিশাল কাজের খবরটি ফেসবুকে ছোট্ট করে জানানোর সময় স্বপ্না মাসীমাকে স্মরণ করেছেন।

চলুন আমরা সবাই মিলে রত্নগর্ভা প্রয়াত সাধনা ভৌমিকের চিরশান্তির জন্য সৃষ্টিকর্তার কাছে প্রার্থনা করি।

"যার যা আছে, তা-ই নিয়ে ঝাপিয়ে পড়ো"

৬| ২২ শে মার্চ, ২০২০ বিকাল ৩:৩৩

নীলসাধু বলেছেন: Gift For Good

এই মাত্র জেবা রহমান ম্যামের কাছ থেকে ১৭,০০০ টাকা সংগ্রহ করলো আমাদের ভলেন্টিয়ারর!
ধন্যবাদ ম্যাম।
আমাদের সর্বমোট সংগ্রহঃ ১,৮৩,৭১১ টাকা!

৭| ২২ শে মার্চ, ২০২০ রাত ৯:৫৭

নীলসাধু বলেছেন: সর্বশেষ আপডেটঃ
এখন পর্যন্ত আমাদের সর্বমোট সংগ্রহঃ ২,০৭,৯৬১ টাকা!

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.