নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

pramanik99

আমার স্কুল জীবনের স্মৃতিগুলো বার বার মনে পড়ে। ফিরে যেতে ইচ্ছে করে সেই দিনগুলোতে।

প্রামানিক

শহীদুল ইসলাম প্রামানিক

প্রামানিক › বিস্তারিত পোস্টঃ

বাদর ছেলের মা

২৯ শে মার্চ, ২০১৯ রাত ১০:০০


শহীদুল ইসলাম প্রামানিক

হোক না ছেলে তার শ্রেষ্ঠ বাদর
তারপরেও কমে না মায়ের আদর
ছেলের কারণে মা যত থাক দুখে
অভিশাপ নাই তার কখনও মুখে।

অসুখ বিসুখ হলে কত সারারাত
জেগে থাকে সারাক্ষণ যায় না তফাৎ
ছোট বলে ছেলের হাতে, কত খায় মার
তারপরেও কাছে কাছে থাকে ছেলেটার।

নিজে কত না খেয়ে ছেলেটির মুখে
খাবার খাইয়ে দেয় কত যে সুখে
ক্ষুধার কারণে মায়ের মুখে নাই হাসি
তারপরেও বুকে চেপে, বলে ভালবাসি।

সেই আদর বুঝেনাকো বড় হয়ে ছেলে
ভুলে যায় খেলাধুলার কোন সাথি পেলে
মা কিন্তু ভুলে না ছেলেটার সুখ
ছেলের সুখে মায়ের ভরে যায় বুক।

কখনও ছেলে তার গেলে দূরে সরে
পথ পানে চেয়ে থাকে সারাদিন ধরে
এলে পরে খুশি মনে খেতে দেয় ভাত
ছেলে হারা মায়ের যেন হয় না প্রভাত।

ছবি ঃ ইন্টারনেট

মন্তব্য ২৬ টি রেটিং +৫/-০

মন্তব্য (২৬) মন্তব্য লিখুন

১| ২৯ শে মার্চ, ২০১৯ রাত ১০:১৩

মাহমুদুর রহমান বলেছেন: ভালো কবিতা।

৩০ শে মার্চ, ২০১৯ রাত ২:১৭

প্রামানিক বলেছেন: ধন্যবাদ ভাই, শুভেচ্ছা রইল।

২| ২৯ শে মার্চ, ২০১৯ রাত ১০:১৪

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন:
পড়ে বিমোহিত হলাম।

৩০ শে মার্চ, ২০১৯ রাত ২:১৭

প্রামানিক বলেছেন: ধন্যবাদ ভাই, অনেক অনেক শুভেচ্ছা রইল।

৩| ২৯ শে মার্চ, ২০১৯ রাত ১০:৩৮

সুমন কর বলেছেন: মা তো মা'ই। কিন্তু ৭ নম্বর লাইনে মার খায়, শব্দটি পরিবর্তন করলে ভালো হয়।

৩০ শে মার্চ, ২০১৯ রাত ২:২০

প্রামানিক বলেছেন: মার খাওয়া অর্থ হলো প্রহৃত হওয়া। অনেক সময় মায়ে ছেলেদের রক্ষা করতে গিয়ে বাবার হাতে বা পাড়া পরশিদের হাতে প্রহৃতও হয়, নিজে মার খায় কিন্তু ছেলেকে মার খেতে দেয় না, সেই অর্থে এখানে বলা হয়েছে।

৪| ২৯ শে মার্চ, ২০১৯ রাত ১০:৪৩

করুণাধারা বলেছেন: এর নাম আপত‍্য স্নেহ! তবে সুমন কর এর মত আমারও মনে হয়েছে, সপ্তম নম্বর লাইনে 'মার খায়' শব্দটি পরিবর্তন করলে ভাল হয়।

৩০ শে মার্চ, ২০১৯ রাত ২:২৩

প্রামানিক বলেছেন: অভিধানে শব্দটি ঠিক আছে, ‘খায় মার’ কথাটি না হলেও “মার খাওয়া” কথাটি আছে। পদ্যে ছন্দ মিলানোর সময় শব্দের উল্টাপাল্টা হলেও অর্থ পরিবর্তন হয় না। ধন্যবাদ বিষয়টি জানানোর জন্য।

৫| ২৯ শে মার্চ, ২০১৯ রাত ১০:৫৫

ওমেরা বলেছেন: বাঁদর ছেলের জন্য মাদের দরদ আরো বেশী থাকে ভালো ছেলের চেয়ে, এটা আমি আমাদের কাছের মানুষদের ভিতরই দেখেছি।

৩০ শে মার্চ, ২০১৯ রাত ২:২৫

প্রামানিক বলেছেন: বাঁদর ছেলেদের জন্যে মায়েরা টেনশনে থাকলেও তাদের বাঁদরামি অনেক সময় ভালোও লাগে। ধন্যবাদ মন্তব্য করার জন্য।

৬| ২৯ শে মার্চ, ২০১৯ রাত ১১:৪০

আরোগ্য বলেছেন: আল্লাহর বিশেষ নেয়ামত হল মা।

কবিতায় বরাবরের মত ভালোলাগা।

৩০ শে মার্চ, ২০১৯ রাত ২:২৫

প্রামানিক বলেছেন: ধন্যবাদ ভাই, অনেক অনেক শুভেচ্ছা রইল।

৭| ৩০ শে মার্চ, ২০১৯ রাত ১২:৩১

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: আহা! খাসা হয়েছে অপত্য স্নেহ ।

কু সন্তান যদি বা কু মাতা কক্ষনো না।

৩০ শে মার্চ, ২০১৯ রাত ২:২৬

প্রামানিক বলেছেন: কু সন্তান হয় বড় হলে, ছোট থাকতে হয় বাঁদর। ধন্যবাদ পদাতিক দা।

৮| ৩০ শে মার্চ, ২০১৯ রাত ১:২৯

নাঈম জাহাঙ্গীর নয়ন বলেছেন: সুন্দর প্রকাশ মায়ের ভালোবাসার। ভালো লাগলো কবিতার কথামালা





'মা' বড়ই আদরের স্থান
যার মমতা অতুলনীয়,
মা- আল্লাহ'র শ্রেষ্ঠ দান
এর অভাব অপূরণীয়।

৩০ শে মার্চ, ২০১৯ রাত ২:২৭

প্রামানিক বলেছেন: ধন্যবাদ ভাই নাঈম জাহা্ঙ্গীর নয়ন, মূল্যবান মন্তব্য করার জন্য অনেক অনেক শুভেচ্ছা রইল।

৯| ৩০ শে মার্চ, ২০১৯ বিকাল ৫:৫৭

চাঁদগাজী বলেছেন:


ছেলের বাঁদরামীতে মায়েরা হতাশ হন না?

৩১ শে মার্চ, ২০১৯ দুপুর ১:১২

প্রামানিক বলেছেন: ঠিকই বলেছেন, ধন্যবাদ চাঁদগাজী ভাই।

১০| ৩০ শে মার্চ, ২০১৯ রাত ৮:৪৮

বিদ্রোহী ভৃগু বলেছেন: হুম।
মায়ের বড়ই মায়ের মতোন :)
অপত্য স্নেহ আর প্রতিদানহীন ভালবাসা শুধু মাই বাসতে জানে।

+++++

৩১ শে মার্চ, ২০১৯ দুপুর ১:১৩

প্রামানিক বলেছেন: ঠিকই বলেছেন, অনেক অনেক শুভেচ্ছা রইল।

১১| ৩০ শে মার্চ, ২০১৯ রাত ৮:৫০

হাবিব স্যার বলেছেন: ছেলের বেশি বাঁদরামীতে অনেক মা বদ দোয়া করেন রেগে গিয়ে আমি দেখেছি।

৩১ শে মার্চ, ২০১৯ দুপুর ১:১১

প্রামানিক বলেছেন: বদ দোয়া করলেও মুখে মুখে করে অন্তর দিয়া করে না, আর যদি কখনও অন্তর দিয়া করে সেটা বিয়ের পরে বউয়ের কারণে যদি কখনও মাকে ছেলে কষ্ট দেয় তখন মায়ে অসহ্য হয়ে বদ দোয়া করে। ধন্যবাদ আপনাকে।

১২| ৩০ শে মার্চ, ২০১৯ রাত ১১:৫৬

নতুন নকিব বলেছেন:



মায়ের মতন আপন কেহ নেই।

ছড়ায় +++

৩১ শে মার্চ, ২০১৯ দুপুর ১:০৯

প্রামানিক বলেছেন: ঠিকই বলেছেন, মায়ের মত আপন কেহই নাই। ধন্যবাদ

১৩| ২২ শে অক্টোবর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:১৩

খায়রুল আহসান বলেছেন: ছেলে যতই বাঁদর হোক, মায়ের অপত্য স্নেহ তাকে সব সময় ঘিরে রাখে। মা নিজে হেনস্থা হন, কিন্তু ছেলে (বা মেয়ের) গায়ে আঁচরটি পর্যন্ত লাগতে দেন না।

১৪| ২৪ শে অক্টোবর, ২০১৯ রাত ১২:৪২

প্রামানিক বলেছেন: ধন্যবাদ খায়রুল ভাই।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.