নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

আমার নাম- রাজীব নূর খান। ভাবছি ব্যবসা করবো। ভালো লাগে পড়তে- লিখতে আর বুদ্ধিমান লোকদের সাথে আড্ডা দিতে। কোনো কুসংস্কারে আমার বিশ্বাস নেই। নিজের দেশটাকে অত্যাধিক ভালোবাসি। সৎ ও পরিশ্রমী মানুষদের শ্রদ্ধা করি।

রাজীব নুর

আমি একজন ভাল মানুষ বলেই নিজেকে দাবী করি। কারো দ্বিমত থাকলে সেটা তার সমস্যা।

রাজীব নুর › বিস্তারিত পোস্টঃ

বন্ধুর খোঁজে

১৩ ই আগস্ট, ২০১৯ রাত ৯:১৪



জীবনে প্রথম বাঘ দেখার আশায় সুন্দরবন গেলাম।
কিন্তু বাঘের দেখা পেলাম না। বইতে কত বাঘের কথা পড়েছি। দুবলার চর এলাকায় তিন দিন দুই রাত থাকলাম। তন্নতন্ন করে খুজেও বাঘের দেখা পেলাম না। তবে, খুব উপভোগ করলাম প্রকৃতি। মুগ্ধ হলাম। হরিণ আর বানর খুব বেশি বিরক্ত করেছে। সাগরের পাড়ে শুয়ে আছে কুমিড়। বানর আর হরিন আমাদের আশপাশ দিয়েই খুব দৌড়াদৌড়ি করেছে। বঙ্গোপসাগরে যখন সূর্য ডুবে যায়, তা এক দেখার মতো ব্যাপার। এত সুন্দর, এত সুন্দর যে মরে যেতে ইচ্ছা করে।

বাঘ আমাকে দেখতেই হবে।
পরের বছর আবারও সুন্দরবন গেলাম। এবার গেলাম হিরণ পয়েন্ট। যে জাহাজে করে গিয়েছি তার নাম এম ভি মাছরাঙ্গা। বিশাল জাহাজ। চার তলা। এবারও মন খারাপ করে ফিরে এলাম, বাঘের দেখা পেলাম না। কিন্তু বাঘের পায়ের ছাপ দেখতে পেলাম। যে এলাকায় বাঘ দেখতে পাওয়া যায়, সেসব এলাকায় বন কর্মকর্তারা একটা লাল পতাকা লাগিয়ে রাখে। হাতির পিঠে চড়লাম। প্রকৃতি খুব উপভোগ করলাম। অদ্ভুত সুন্দর। মুগ্ধ! আমি মুগ্ধ! বাসার জন্য খাটি মধু নিলাম এক বোতল।

তৃতীয় বার গেলাম কটকা।
এবং অবিশ্বাস্য ভাবে বাঘের দেখা পেয়ে গেলাম। সেই গল্প'ই এখন বলব।
আমরা প্রায় একশো জনের একটা দল স্টিভ অস্টিন নামে একটা জাহাজে করে সুন্দরবন গিয়েছি। খুব সুন্দর ব্যবস্থা। থাকা, খাওয়া-দাওয়ার কোনো সমস্যা নেই। কেবিন গুলো চমৎকার। জানালা দিয়ে অনেক দূর দেখা যায়! যাই হোক, আমি সবার চোখ ফাঁকি দিয়ে একা উলটো দিকে হাঁটা শুরু করলাম। প্রায় দেড় ঘন্টা হেঁটে বনের অনেক গভীরে চলে গেলাম। চারদিকে এত গাছপালা যে দুপুর বেলায় হঠাৎ যেন বনে অন্ধকার নেমে আসে। হেঁটে হেঁটে আমি অনেক ক্লান্ত। ঠিক এমন সময়- অপ্রত্যাশিতভাবে দশ গজ দূরে এক বিশাল বাঘ দেখতে পেলাম।
রয়েল বেঙ্গল টাইগার! আবেগে আনন্দে আমি হতবাক, একটা স্বপ্ন সত্যি হয়ে গেল, এই খুশিতে চোখে পানি চলে আসছে। পায়ের তলায় সদ্য শিকার করা হরিণ। তখনও হরিণটা পুরোপুরি মরে যায়নি। তবে খুব ছটফট করছিল। এক আকাশ অবহেলা নিয়ে বাঘটি যেন হরিণটিকে ধরে রেখেছে। তাচ্ছিল্যের ভঙ্গিতে আমার দিকে একবার তাকালো বাঘটি। আমি একটুও ভয় পেলাম না। বরং এক আকাশ মুগ্ধতা নিয়ে তাকিয়ে থাকলাম। বাঘ দেখে পালানো বা লুকানোর কথা কিছুই মনে আসলো না আমার। আমার কাঁধে ক্যামেরা অথচ ছবি তোলার কথাও ভুলে গেলাম। এক পৃথিবী বিস্ময় নিয়ে স্বাধীন এক নবাবজাদাকে দেখছি।

বাঘ নিয়ে আমি কিছুটা পড়াশোনা করেছি। তাই আমি জানি, বেশির ভাগ বাঘ'ই মানুষ খেকো নয়। বাঘ যে ক'জন মানুষ মেরেছে তার চেয়ে নব্বই গুন বেশি মানুষ বাঘ হত্যা করেছে। আমি আরও কয়েক পা এগিয়ে গেলাম। আমার সাথে কোনো অস্ত্র নেই। বাঘটি একবার পেছনের দিকে চেয়ে, পর মুহূর্তেই আবার আমার দিকে তাকালো। তখনও তার পায়ের নিচে শিকার ধরা। হরিনটি তখনও পুরোপুরি মরে যায় নি। কিন্তু বাঘের থাবা থেকে পালানোর মতো অবস্থা তার নেই।

বাঘের দিকে তাকিয়ে আমি বললাম, অবশেষে তোমার দেখা পেলাম। বাঘটা হাই তুলল।
আমি আবার বললাম, আমি তোমাকে বিরক্ত করবও না। একটুও বিরক্ত করবও না। বাঘটা অসহায়ভাবে শুধু আমার দিকে চেয়ে থাকল।
আমি বললাম, আমাকে ভয় নেই, আমি তোমার বন্ধু।
বাঘটি আমাকে পাত্তা না দিয়ে, শিকার নিয়ে অন্য কোথাও চলে গেল।

মন্তব্য ৩৪ টি রেটিং +৩/-০

মন্তব্য (৩৪) মন্তব্য লিখুন

১| ১৩ ই আগস্ট, ২০১৯ রাত ৯:১৮

ইসিয়াক বলেছেন: ওয়াও.।হালুম

১৩ ই আগস্ট, ২০১৯ রাত ৯:৩২

রাজীব নুর বলেছেন: বাঘ একটি চমৎকার প্রানী।

২| ১৩ ই আগস্ট, ২০১৯ রাত ৯:২০

ইসিয়াক বলেছেন: প্লিজ মরে যাবেন না। যত খুশি সৌন্দর্য উপভোগ করুণ আর আমাদের ভ্রমণ বৃত্তান্ত শোনান । খুব ভলো লেগেছে।

১৩ ই আগস্ট, ২০১৯ রাত ৯:৩৩

রাজীব নুর বলেছেন: ধন্যবাদ।
কিন্তু একদিন না একদিন মরতে তো হবেই।

৩| ১৩ ই আগস্ট, ২০১৯ রাত ৯:২৪

ইসিয়াক বলেছেন: বাঘের ছবি তোলেন নি ? চতুর্থ লাইনে কুমিড় < কুমির হবে ।
চ্যাড়া পোলা আপনার ভূল ধরেছে ......।হি হি ।
শুভ সন্ধ্যা

১৩ ই আগস্ট, ২০১৯ রাত ৯:৩৪

রাজীব নুর বলেছেন: বানান আমি খুব বেশি ভুল করি।
মাঝে মাঝে অতি সামান্য বানানও সঠিক টা মনে করতে পারি না।

৪| ১৩ ই আগস্ট, ২০১৯ রাত ৯:২৮

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: আমি এক সময় বরগুনার পাথরঘাটায় চাকরি করতাম । ওখান থেকে নদী পার হলেই সুন্দরবন কটকা । রাতের আঁধারে অনেকেই হরিণ শিকার করে নিয়ে আসতো। কিন্তু একবারও যেতে পারিনি । আফসোস।

১৩ ই আগস্ট, ২০১৯ রাত ৯:৩৪

রাজীব নুর বলেছেন: এবার আপনি দেশে এলে। আমরা দু'জন মিলে সুন্দরবন যাবো।

৫| ১৩ ই আগস্ট, ২০১৯ রাত ৯:২৯

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: একবার গভীর রাতে এক লোক হরিণের মাংস নিয়ে এসেছিল। জীবনের সেই প্রথম এই নিরীহ প্রাণীর মাংস ভক্ষণ করেছিলাম।

১৩ ই আগস্ট, ২০১৯ রাত ৯:৩১

রাজীব নুর বলেছেন: বন্ধু বাশার গ্রামের বাড়ি গিয়েছিলাম। বাগেরহাট। একদম সুন্দরবনের কাছে গ্রাম। বন্ধু হরিনের মাংস দিয়েছিল। আমি খাই নি। সাথে অতিথি পাখীও ছিল। খাইনি।

৬| ১৩ ই আগস্ট, ২০১৯ রাত ৯:৩৫

ইসিয়াক বলেছেন: লেখক বলেছেন: বানান আমি খুব বেশি ভুল করি।
মাঝে মাঝে অতি সামান্য বানানও সঠিক টা মনে করতে পারি না।
আমার ও একই সমস্যা।
শুভসন্ধ্যা

১৪ ই আগস্ট, ২০১৯ দুপুর ২:১৮

রাজীব নুর বলেছেন: বাহ, মিল আছে!!

৭| ১৩ ই আগস্ট, ২০১৯ রাত ১০:০০

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: আমার এক বন্ধুর সুন্দরবন এ ইকো-ট্যুরিজম কেন্দ্র আছে । ওখানে নাকি প্রাকৃতিক ভাবে অবসর কাটানো যায়। আমাকে অনেকবার যেতে বলেছে। কিন্তু অতগুলো টাকা জোগাড় করতে পারি নাই।

১৪ ই আগস্ট, ২০১৯ দুপুর ২:২১

রাজীব নুর বলেছেন: এত এত বছর ধরে চাকরী করছেন, তবু এই কথা বলেন?? তাহলে আমি কি বলব??

৮| ১৩ ই আগস্ট, ২০১৯ রাত ১০:০০

চাঁদগাজী বলেছেন:



পর্যযটন বিভাগ কোন ছাত্রকে বাঘের চামড়া পরায়ে "বাঘের অভিনয়" করে পর্যটকদের বিস্মিত করার কৌশল করেনি তো?

১৪ ই আগস্ট, ২০১৯ দুপুর ২:২৩

রাজীব নুর বলেছেন: জানি না। তবে সম্ভবনা আছে।

৯| ১৩ ই আগস্ট, ২০১৯ রাত ১০:১০

মাহমুদুর রহমান জাওয়াদ বলেছেন: ভাগ্যিস এটা কল্পজগতের বাঘ ছিলো।
হা হা হা।

১৪ ই আগস্ট, ২০১৯ দুপুর ২:২৩

রাজীব নুর বলেছেন: আরে মিয়া সত্য কাহিনি।

১০| ১৩ ই আগস্ট, ২০১৯ রাত ১০:৪৩

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: যাক অবশেষে তৃতীয়বারের বার ভাইয়ের বাঘ দর্শন হলো এতে আমরা আনন্দ পেলাম।
তবে প্রসঙ্গ একটি কবিতা মনে পড়ছে,


কর্মখালি
-দেবব্রত দত্ত

পাড়ার মদন পাশ করেছে ইতিহাসে এম এ,
চাকরি পাওয়ার চেষ্টা করে যায় না তবু থেমে।
মদন পেল গোপন খবর আলিপুরের জু-তে,
বনমানুষের চাকরি আছে, জানতে গেল ছুটে।
বনমানুষের মুখোশ পরে থাকতে হবে খাঁচায়,
মাইনে পাবে সাতশো টাকা, খাবার পাবে যা-চায়।
বেকার মদন অনিচ্ছাতেও চাকরির খানা নিলো,
দর্শকরাও বেজায় খুশি, দারুন মজা পেলো।
একদিন তো লম্ফ দিয়ে পড়লো পাশের খাঁচায়,
পাশেই ছিল নেকড়ে বাঘ, কেই বা তাকে বাঁচায়!
হালুম করে বাঘবাবাজি যেই তুলেছে থাবা,
বনমানুষ চ্যাঁচায় বিষম, মরে গেলুম বাবা!
দাঁতটা তখন বলল কানে, উঠছো কেন ঘেমে?
আমিও ভাই তোমার মতন, ইতিহাসে এম এ।


ভাইয়ের সঙ্গে আজ একটু রসিকতা করলেন।
তবে ভাইয়ের বর্ণনায় বাঘটি দ্য রয়েল বেঙ্গল টাইগার ভিন্ন অন্য কিছু নয়। হাহাহা..

১৪ ই আগস্ট, ২০১৯ দুপুর ২:২৫

রাজীব নুর বলেছেন: ভাগ্যিস রসিকতা করেছেন। আমি আবার সিরিয়াস বিষয় মানি না।

১১| ১৩ ই আগস্ট, ২০১৯ রাত ১১:২৩

জাহিদ অনিক বলেছেন:
এইটা আগেও পড়েছিলাম ! :``>>

১৪ ই আগস্ট, ২০১৯ দুপুর ২:২৬

রাজীব নুর বলেছেন: তাই নাকি!!!!!

১২| ১৩ ই আগস্ট, ২০১৯ রাত ১১:৫৭

কথার ফুলঝুরি! বলেছেন: ঘটনা কি সত্যি নাকি ভাইয়া :| তবে ভাগ্য ভালো ছিল যে বাঘটি মাত্র খাওয়া শেষ করেছিলো বলে ক্ষুধার্ত ছিলনা তা না হলে বাঘের খাবার হয়ে যাবার ৯৯% সম্ভাবনা ছিল ।

১৪ ই আগস্ট, ২০১৯ দুপুর ২:২৭

রাজীব নুর বলেছেন: আরে না--
এত সহজ নাকি??
আমি কি বাঘকে ছেড়ে দিতাম??

১৩| ১৪ ই আগস্ট, ২০১৯ রাত ১২:৫৭

সুপারডুপার বলেছেন: আপনি বাঘকে ভয় পেলেন না , কিন্তু রাতকে ভয় পেলেন !!?? :-* #:-S :||

১৪ ই আগস্ট, ২০১৯ দুপুর ২:২৭

রাজীব নুর বলেছেন: বাঘের কাহিনি অনেক আগের। তখন ভয় ডর কম ছিল।

১৪| ১৪ ই আগস্ট, ২০১৯ সকাল ৮:৩১

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: স্বপ্ন পূরণ হওয়ার।

১৪ ই আগস্ট, ২০১৯ দুপুর ২:২৯

রাজীব নুর বলেছেন: !

১৫| ১৪ ই আগস্ট, ২০১৯ সকাল ৯:৫৯

মা.হাসান বলেছেন: আমি সুন্দর বনে যেবার প্রথম যাই ড্রাগনের পিঠে উঠেছিলাম। দ্বিতীয়বার গন্ডারের পিঠে। শেষবার বাঘের পিঠে ওঠার চেষ্টা করেছিলাম। কিন্তু বাঘটা লাগাম পরাতেই দিল না। রেগে যেয়ে বাঘটার লেজ কেটে স্যুপ বানিয়ে খেয়েছিলাম। কোনো লেজকাটা বাঘ দেখলে বুঝবেন সেটা সেই বাঘ। তবে সুন্দরবনের হাতি গুলো খুব শান্ত। আমার সঙ্গে ওয়াটার পোলো খেলেছিল।

১৪ ই আগস্ট, ২০১৯ বিকাল ৩:২৭

রাজীব নুর বলেছেন: হা হা হা----

১৬| ১৪ ই আগস্ট, ২০১৯ সকাল ১১:০৮

ভুয়া মফিজ বলেছেন: আপনার এক আকাশ চাপাবাজিতে আমি মুগ্ধ! =p~

১৪ ই আগস্ট, ২০১৯ বিকাল ৩:২৭

রাজীব নুর বলেছেন: আপনাকে মুগ্ধ করতে পেরে আমি খুশি।

১৭| ১৪ ই আগস্ট, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৫৮

মাহের ইসলাম বলেছেন: এটা কিন্তু বাঘের বড় অন্যায় হয়ে গেছে।
আপনাকে পাত্তা দেয়া উচিৎ ছিল।

আর, আপনি হয়ত ফিরিয়ে দিতেন। তারপরেও তার উচিৎ ছিল, আপনাকে সদ্য শিকার করা হরিণটা অফার করা।

স্বীকৃতি হিসেবে, আপনি তার সাথে একতা সেলফি তুলতেন। এমন সুযোগ তো সব বাঘেরা পায় না।
কি বলেন ?

১৪ ই আগস্ট, ২০১৯ রাত ৮:২৮

রাজীব নুর বলেছেন: স্বীকৃতি কিন্তু পেয়েছি।
সেবার সুন্দরবন থেকে ফেরার পর বন্ধুবান্ধবরা আমাকে টাইগার উপাধি দিয়েছিল।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.