নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

আমার নাম- রাজীব নূর খান। ভাবছি ব্যবসা করবো। ভালো লাগে পড়তে- লিখতে আর বুদ্ধিমান লোকদের সাথে আড্ডা দিতে। কোনো কুসংস্কারে আমার বিশ্বাস নেই। নিজের দেশটাকে অত্যাধিক ভালোবাসি। সৎ ও পরিশ্রমী মানুষদের শ্রদ্ধা করি।

রাজীব নুর

আমি একজন ভাল মানুষ বলেই নিজেকে দাবী করি। কারো দ্বিমত থাকলে সেটা তার সমস্যা।

রাজীব নুর › বিস্তারিত পোস্টঃ

কোলকাতার পথে পথে - ১ (ছবি ব্লগ)

১৬ ই নভেম্বর, ২০১৯ সকাল ১১:৩৯



পাঁচ দিন কোলকাতায় থাকলাম।
বহু অলি-গলি ঘুরে বেড়িয়েছি প্রয়োজনে অপ্রয়োজনে। বেশ কিছু ছবি তুলেছি। ঢাকায় থাকলেও এমনটাই করি। কোলকাতার ছবি গুলো আপনাদের জন্য তুলে এনেছি। ওদের সাথে আমাদের ঢাকার পুরোপুরি মিল। মনে হবে আপনি বাংলাদেশেই আছেন। রাস্তাঘাট, মানুষজন, চলনে বললে কোনো পার্থক্য নেই। নিউ মার্কেটের আশে পাশের এলাকা গুলো পুরো আমাদের পুরান ঢাকার মতোন। এই সমস্ত রাস্তা দিয়ে চলাফেরা করার সময় মনে হলো- আমি আমাদের পুরান ঢাকার রাস্তায় আছি। চিপাচিপা গলি। ফুটপাতে দোকানপাট। প্রচুর লোকজন। খুব ব্যস্ত রাস্তা। গাড়ি বাসের বিকট হর্ন। এমন কোনো দোকান নেই যা ফুটপাতে নেই। চায়ের দোকান, গেন্ডারি রসের দোকান, ফলের দোকান, চশমার দোকান, সো-পিছের দোকান, পত্রিকার দোকান ইত্যাদি। আমি ঘুরে ঘুরে যতটা পারি দেখেছি। পরের পোষ্টে বিস্তারিত লিখব। এখানে শুধু ছবি গুলো দিলাম।

১।
টানা রিকশায় উঠেছি। হেঁটে গেলে দশ মিনিট লাগে নিউ মার্কেট। টানা রিকশায় ৫০ টাকা ভাড়া দিতে হয়েছে।

২।
যুগ যুগ ধরে টানা রিকশা আছে কোলকাতার রাস্তায়।

৩।
এই ছোট্র হোটেলে একদিন সন্ধ্যায় নাস্তা করলাম। কাবাব বিশ টাকা প্লেট। পরোটা ৮ টাকা।

৪।
এরকম বহু পুরোনো বিল্ডিং আছে।

৫।
খাদ্য ভবন।

৬।
পেট্রাপোল বর্ডার থেকে কোলকাতা আসার পথে বাস এইখানে নাস্তা খাওয়ার জন্য কুড়ি মিনিট বাস থামে।

৭।
২৪ পরগনা, বনগাঁ।

৮।
নিউ মার্কেটের কাছে ফুটপাতে একটি ভাজাপোড়া খাবারের দোকান।

৯।
এক বুড়ো লোক মিষ্টি আলু পোড়া বিক্রি করছে।

১০।
হলুদ টেক্সিতে করে ঘুরে-বেরিয়েছি। সাদা ক্যাবে ভাড়া বেশি।

১১।
নিউ মার্কেটের ফুটপাতে পুতুল গুলো বিক্রি করছে।

১২।
ফুটপাতে বহু দোকান।

১৩।
নিউ মার্কেটের সমস্ত ফুটপাতে অজস্র দোকান।

১৪।
পেট্রাপোল বর্ডার। এক পাশে ভারত, একপাশে বাংলাদেশ।

১৫।
বস্তা গুলোতে খালি মদের বোতল।

১৬।
মসজিদ।

১৭।
মেয়েদের জিনিসপত্র দিয়ে ভরা।

১৮।
আমি যে হোটেলে উঠেছি। তার ছাদ থেকে কোলকাতার রাস্তা।

১৯।
একটি মার্কেটের ভেতরে কুকুর গুলো শুয়ে আছে। কেন?

২০।
কোলকাতা যাদু ঘরের সামনের ফুটপাতের রেলিং এ এক বাচ্চা মেয়ে বসে আছে। কলা খাচ্ছে।

মন্তব্য ৫৩ টি রেটিং +৪/-০

মন্তব্য (৫৩) মন্তব্য লিখুন

১| ১৬ ই নভেম্বর, ২০১৯ সকাল ১১:৪৯

নূর মোহাম্মদ নূরু বলেছেন:
রাজীব ভাই কলকাতায় ৫ দিনের ভ্রমনে যদি
৫ কিলো পেঁয়াজ আনতে পারতেন তা হলে আপনার
কলকাতা ভ্রমণ সার্থক হতো।

১৬ ই নভেম্বর, ২০১৯ দুপুর ১২:১৭

রাজীব নুর বলেছেন: কোলকাতাতেও দাম বেড়েছে। ১০০ টাকা কেজি।

২| ১৬ ই নভেম্বর, ২০১৯ সকাল ১১:৪৯

আখ্যাত বলেছেন:
খুব ভাল লাগলো

১৬ ই নভেম্বর, ২০১৯ দুপুর ১২:১৭

রাজীব নুর বলেছেন: ধন্যবাদ।

৩| ১৬ ই নভেম্বর, ২০১৯ সকাল ১১:৫৩

জুন বলেছেন: আপনার চোখে বহুবার দেখা কলকাতা দেখে নিলাম রাজীব নুর। বিস্তারিত লেখার অপেক্ষায়।

১৬ ই নভেম্বর, ২০১৯ দুপুর ১২:১৮

রাজীব নুর বলেছেন: ধন্যবাদ। ভালো থাকুন।

৪| ১৬ ই নভেম্বর, ২০১৯ দুপুর ১২:০৮

সাইন বোর্ড বলেছেন: খুব সাধারন কিছু ছবি, তবু ভাল লাগল ।

১৬ ই নভেম্বর, ২০১৯ দুপুর ১২:১৮

রাজীব নুর বলেছেন: শুকরিয়া।

৫| ১৬ ই নভেম্বর, ২০১৯ দুপুর ১২:২৯

প্রকৌশলী মোঃ সাদ্দাম হোসেন বলেছেন: হায়রে রাজনীতি হায়রে ধর্ম ভেধাভেধ! একটা জাতীকে কাঁটাতারে দু-ভাগ করে দিল!

১৬ ই নভেম্বর, ২০১৯ দুপুর ১:৫৫

রাজীব নুর বলেছেন: দেশভাগ মানূষকে ভাগ করে দিলো।

৬| ১৬ ই নভেম্বর, ২০১৯ দুপুর ১২:৩০

স্বপ্নবাজ সৌরভ বলেছেন: চোখের জল কিংবা পানি, সেতো নোনতাই থেকে যায়।

১৬ ই নভেম্বর, ২০১৯ দুপুর ১:৫৮

রাজীব নুর বলেছেন: নোনতা স্বাদটা মন্দ নয়।

৭| ১৬ ই নভেম্বর, ২০১৯ দুপুর ১২:৫৬

ঢাবিয়ান বলেছেন: যাওয়া হয়নি কখনও।পুরানো ঢাকার মতই লাগছে। টানা রিকশা ব্যবস্থাটা খুব অমানবিক বলে মনে হয়।

১৬ ই নভেম্বর, ২০১৯ দুপুর ২:০০

রাজীব নুর বলেছেন: খুব অমানবিক হয়।
এটা তারা ইচ্ছা করেই ধরে রেখেছে। ঐতিজ্য বলতে পারেন। ইচ্ছা করলে তারা অন্য কাজ করতে পারে। কিন্তু করবে না। টানা রিকশা তাদের বিশেষ পছন্দ।

৮| ১৬ ই নভেম্বর, ২০১৯ দুপুর ১:০৩

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: ভাইয়ের ছবিগুলো একটু হ্যাপাজাটলি হয়ে গেছে। তবুও ভালো ছবি ব্লগ।
বিস্তারিত পোস্টের অপেক্ষায় রইলাম।

১৬ ই নভেম্বর, ২০১৯ দুপুর ১:৫৭

রাজীব নুর বলেছেন: দাদা, ঠিক বলছেন।
তবে বুঝতে পারলেই হলো।

৯| ১৬ ই নভেম্বর, ২০১৯ দুপুর ১:৫৭

রূপম রিজওয়ান বলেছেন: মিষ্টির কোন দোকানে ঢু মারেন নি?কোলকাতার রসগোল্লায় পূর্ণতা পেত।ভালো লাগল।

১৬ ই নভেম্বর, ২০১৯ দুপুর ২:০১

রাজীব নুর বলেছেন: হুম, মিষ্টির দোকানে গিয়েছি। বেশ স্বাদ। দামও কম।

১০| ১৬ ই নভেম্বর, ২০১৯ দুপুর ১:৫৮

রূপম রিজওয়ান বলেছেন: মিষ্টির কোন দোকানে ঢু মারেন নি?কোলকাতার রসগোল্লায় পূর্ণতা পেত।ভালো লাগল।

১১| ১৬ ই নভেম্বর, ২০১৯ দুপুর ২:০৮

জগতারন বলেছেন:
কোলকাতা যাদু ঘরের সামনের ফুটপাতের রেলিং এ এক বাচ্চা মেয়ে বসে আছে। কলা খাচ্ছে।

এই ছোট্ট মেয়েটির ছবি-ই আমার সবচেয়ে ভালো লাগিয়াছে।
এত অল্প বয়স; অথচ খুউব আয়েসি ও স্বাধীন স্বকিয়তায় ভরা অঙ্গভঙ্গি। আমি অবিভূত।



১৬ ই নভেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:৪১

রাজীব নুর বলেছেন: দরিদ্র বাচ্চা।
বাবা মা নেই। দূর সম্পর্কের খালার কাছে থাকে।

১২| ১৬ ই নভেম্বর, ২০১৯ দুপুর ২:৪১

মা.হাসান বলেছেন: জুন আপার মতো আমিও বড় লেখার অপেক্ষায় থাকলাম।
মেয়েদের জিনিস পত্রের ছবি দিলেন, ছেলেদের জিনিস পত্রের ছবি নাই? B-))

১৬ ই নভেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:৪২

রাজীব নুর বলেছেন: ছবি ব্লগ আরো তিনটা দিবো।
সেখানে থাকবে।

বড় লেখা আজই পোষ্ট দিবো।

১৩| ১৬ ই নভেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:২০

বিচার মানি তালগাছ আমার বলেছেন: সবই তো বুঝলাম। তা বেকার মানুষ কলকাতায় কীভাবে গেলেন তাও একটু জানান আমাদের...

১৬ ই নভেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:৪২

রাজীব নুর বলেছেন: হা হা হা---
বিকেলে পোষ্ট দিব। সেখানে বিস্তারিত থাকবে।

১৪| ১৬ ই নভেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৪:৩৮

হাবিব স্যার বলেছেন: আপনার কলকাতা যাবার রহস্য জানতে চাই

১৬ ই নভেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৪:৪৭

রাজীব নুর বলেছেন: কিছুক্ষন পর একটা পোষ্ট দিবো। সেটা পড়লেই সব কিছু দিনের আলোর মতোন পরিস্কার হবে।

১৫| ১৬ ই নভেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৫:৩১

ইসিয়াক বলেছেন: আমি চুপচাপ এতক্ষণ ধরে দেখলাম , কে কি মন্তব্য করে।
ঠিক আছে চলুক ।

১৬ ই নভেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৫:৪৭

রাজীব নুর বলেছেন: ওকে।

১৬| ১৬ ই নভেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৪৩

ধূসর সপ্ন বলেছেন: আপনার চোখে কলকাতা দেখলাম।

১৬ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১০:১১

রাজীব নুর বলেছেন: এই খানেই শেষ না। আরো দেখাবো।

১৭| ১৬ ই নভেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৪৬

ইসিয়াক বলেছেন: ভাবছি ব্যবসা করবো ......

১৬ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১০:১২

রাজীব নুর বলেছেন: আমাকেও সাথে নিয়েন।

১৮| ১৬ ই নভেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:৫৩

নুরহোসেন নুর বলেছেন: ২০১৬ সালের পর আর কোলকাতা যাওয়া হয়নি,
আপনি কৃষ্ণকলিকে দেখেছেন?
তারা ২০১৭ সালে বাংলাদেশের সব বিক্রি করে ভারতে চলে গেছে।
কোলকাতার স্মৃতি মনে করিয়ে দিলেন,
ভাল লাগলো পরিচিত কিছু ছবির স্হান দেখে।

১৬ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১০:১৩

রাজীব নুর বলেছেন: পথে ঘাটে কৃষ্ণকলির অভাব নেই।

১৯| ১৬ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ৯:১২

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: 2010 সালে একবার গিয়েছিলাম। ওদের কথাগুলো খুব ভালো লাগে। মনে হয় যেন বইয়ের ভাষা শুনছি। ওখানে অবলীলায় যে কাউকেই তুমি করে বলা যায়। এই জিনিসটি বাংলাদেশের সম্ভব হয় না।

১৬ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১০:১৫

রাজীব নুর বলেছেন: ওদের দেশ কি আমাদের দেশের চেয়ে ভালো।

২০| ১৬ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ৯:১৪

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: আমাদের দাদা পদাতিক চৌধুরীর সাথে দেখা করে আসলে ভালো করতেন।

১৬ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১০:১৫

রাজীব নুর বলেছেন: দেখা করেছি।
সে বিষয়ে আগামীকাল একটা পোষ্ট দিব।

২১| ১৬ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ৯:১৮

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: আজকের পত্রিকায় দেখলাম, পররাষ্ট্র মন্ত্রী মহোদয় বলেছেন, বিদেশে চাকরি করার সুযোগ নারীদের অধিকার । এই অধিকার থেকে তাদেরকে বঞ্চিত করা যাবে না। তবে দেশে চাকরি পাওয়ার সুযোগ নারীদের অধিকার কিনা সে ব্যাপারে মন্ত্রী কোন মন্তব্য করেননি। এই বিষয়ে আপনার সুচিন্তিত মতামত প্রত্যাশা করছি।

১৬ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১০:১৬

রাজীব নুর বলেছেন: আমি অতি তুচ্ছ মানুষ।
কোথাও আমার মতামতের কোনো দাম নাই।

২২| ১৬ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১০:২২

মেহের নেগার বলেছেন: ছবিগুলো খুব ভালো ।

১৬ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ১০:৩৬

রাজীব নুর বলেছেন: শুকরিয়া।

২৩| ১৭ ই নভেম্বর, ২০১৯ রাত ২:৫২

অনল চৌধুরী বলেছেন: কলকাতার রড় রাস্তা বাংলাদেশের চেয়ে পরিস্কার আর সেখানে যানজট কম থাকলও মারর্কুইস-সদর ষ্ট্রিট অত্যন্ত নোংরা।
মানুষজন ড্রেনের উপরই বসে খাচ্ছে ,যা চরম রুচিহীনও।
নিউমার্কেটের ভিতরেও অনেক কুকর। পাশেই মাংসের দোকানের গন্ধে টেকা মুশকিল।
ওখানে চাইলেই ট্যাক্সি পাওয়া যায়,যা ভালো দিক।
বাসগুলি এখনো পুরনো মডেলের।
তাও প্রতিদিন ৫০ হাজারের বেশী বাংলাদেশী বাস-ট্রেন আর বিমানে কোলকাতা যায়।
বেশীরভাগই চিকিৎসার জন্য।

১৭ ই নভেম্বর, ২০১৯ সকাল ৯:২০

রাজীব নুর বলেছেন: একদম ঠিক বলেছেন।

২৪| ১৭ ই নভেম্বর, ২০১৯ সকাল ৭:০১

ইমরান আশফাক বলেছেন: একদম টাটকা সৃতি, সদ্যই কলকাতা থেকে ফিরলাম। দেখি, সেখানকার কিছু সৃতি নিয়ে একটা পোস্ট দেয়া যায় কিনা। বিশেষ করে ভ্রমন কাহিনীনির্ভর।

১৭ ই নভেম্বর, ২০১৯ সকাল ৯:২১

রাজীব নুর বলেছেন: অবশ্যই পোষ্ট দিবেন।

২৫| ১৭ ই নভেম্বর, ২০১৯ সকাল ১০:৪৬

নীল আকাশ বলেছেন: আমি চারবার কলিকাতায় গিয়েছি। এরমধ্যে একবার বৌকে নিয়ে ইচ্ছে মতো ঘুরে বেড়িয়েছি।
মারর্কুইস ষ্ট্রিট এবং এর আশপাশ আমার খুব পরিচিত। নিউমার্কেট খুব কাছে এখান থেকে। প্রায় হেঁটেই চলে যাওয়া যায়।
নিউমার্কেট এর সামনেই অনেক ভালো ভালো খাবার দোকান পাওয়া যায়। তবে সবচেয়ে ভালো লাগে তাজা ফলের জুস খাবার
দোকান। আমি মনে হয় ২০ বা ৩০ টাকা দিয়ে একগ্লাস জুস খেতাম। বাংলাদেশি টাকা যেকোন জায়গাতেই ভাংগানো যায়।
আবার যাবার ইচ্ছে আছে সেখানে, সদলবলে।

১৭ ই নভেম্বর, ২০১৯ সকাল ১০:৫৫

রাজীব নুর বলেছেন: জুস এখন চল্লিশ টাকা করে।

২৬| ১৭ ই নভেম্বর, ২০১৯ সকাল ১১:৩৯

পদ্ম পুকুর বলেছেন: এতকিছুর মধ্যেও ওদের ট্রাফিক সিস্টেম দিনকে দিন ডেভেলপ করছে। নিয়ম মানার ক্ষেত্রে ওরা এগিয়ে যাচ্ছে।

ছবি ব্লগ ভালো লাগলো। আমিও ছ' সাতবার গেছি বিভিন্ন কাজে। গেলে খুব একটা ভালো লাগে না, কিন্তু আপনার ছবিগুলো দেখে খুব আপন আর পরিচিত লাগছে।

দেখে কি ফিরেছেন না কি কলকাতাতেই এখনও?

১৭ ই নভেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৪:১৩

রাজীব নুর বলেছেন: কোলকাতা নিয়ে আপনার পোষ্ট আমি পড়েছি।
গত শুক্রবার ঢাকা ফিরেছি।

২৭| ১৭ ই নভেম্বর, ২০১৯ দুপুর ১২:৩৮

ঘুটুরি বলেছেন: দারুন, আপনাকে ধন্যবাদ। আপনার ছবির সাথে সাথে আমিও খানিকটা ঘুড়ে ফেললাম কলকাতা

১৭ ই নভেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৪:১৩

রাজীব নুর বলেছেন: হে হে---

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.