নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

আমার নাম- রাজীব নূর খান। ভাবছি ব্যবসা করবো। ভালো লাগে পড়তে- লিখতে আর বুদ্ধিমান লোকদের সাথে আড্ডা দিতে। কোনো কুসংস্কারে আমার বিশ্বাস নেই। নিজের দেশটাকে অত্যাধিক ভালোবাসি। সৎ ও পরিশ্রমী মানুষদের শ্রদ্ধা করি।

রাজীব নুর

আমি একজন ভাল মানুষ বলেই নিজেকে দাবী করি। কারো দ্বিমত থাকলে সেটা তার সমস্যা।

রাজীব নুর › বিস্তারিত পোস্টঃ

১৬ই ডিসেম্বরের গল্প

১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ দুপুর ২:৩৫



দুর্গম গিরি, কান্তার মরূ, দুস্তর পারাবার
লংঘিতে হবে রাত্রি নিশিথে যাত্রীরা হুশিয়ার


আজ ছোটবেলার কথা খুব মনে পড়ছে।
তখন আমরা বিশেষ দিন গুলোতে খুব আনন্দ করতাম। যেমন ১৬ ডিসেম্বর আমাদের জন্য একটা বিশেষ দিন ছিল। আমাদের এলাকার সমস্ত ছেলেরা এই দিনইটি খুব উপভোগ করতাম। তারা আজ কোথায় হারিয়ে গেছে কে জানে! ১৬ ডিসেম্বর আসার আগেই আমরা বেশ কয়েকবার মিটিং করতাম- দিনটা কিভাবে সফল ভাবে পালন করা যায়। একেকজন একেক রকম বুদ্ধি পরামর্শ দিত। মিটিং শেষে সবাই মিলে সিদ্ধান্ত নিতাম। এলাকার সব বাড়ি-বাড়ি থেকে টাকা সংগ্রহ করতাম। কেউ টাকা না দিলে তার কাছ থেকে নিতাম চাল, ডাল বা আলু, তেল। এলাকার সবাই দিনটি সফল করতে এগিয়ে আসতো।



তিন চার দিনে অনেক টাকা জমে যেত।
সেই টাকা দিয়ে পতাকা কিনতাম। কাগজের ছোট পতাকা। চিকন রসি কিনতাম। আটা কিনে আঠা বানাতাম। সারারাত জেগে আমাদের পুরো এলাকায় পতাকা টাঙ্গাতাম। কাজ শেষ হতে হতে ভোর হয়ে যেত। আমি জানি না শ্রদ্ধেয় ব্লগার চাঁদগাজী এমনটা কখনও করেছেন কিনা! আমার মনে আছে সেই রসি দিয়ে টানানো পতাকা অনেকদিন পর্যন্ত থাকতো। একসময় রোদে, বৃষ্টিতে পতাকা গুলো নষ্ট হয়ে যেত। কিন্তু রসিটা আরো বেশি দিন পর্যন্ত থাকতো। কেউ যেন আমাদের টানানো পতাকা ছিড়ে ফেলতে না পারে সেদিকেও আমাদের খেয়াল ছিল। সেই দিন গুলো আমি খুব মিস করি।



পতাকা, রসি ইত্যাদি কেনার পরও অনেক টাকা বেঁচে যেত।
সেই টাকা দিয়ে পরের দিন (১৬ ডিসেম্বর) দুপুরে খিচুরী রান্না করা হতো। পুরো এলাকার মানুষ আগ্রহ নিয়ে সেই খিচুরী খেত। যারা আসতো পারতো না তাদের বাসায় গিয়ে খিচুরী দিয়ে আসতাম। খিচুরী খুব মজা হতো। বেশ একটা পিকনিক হয়ে যেত। বড় আনন্দের দিন ছিল। এযুগে ছেলেদের এরকম করতে দেখি না। এখন কেউ মহল্লায় পতাকা টানায় না। খিচুরী রান্না করে না। এখনকার ছেলেরা মেয়েরা এই আনন্দ থেকে বঞ্চিত। শুধু ১৬ ডিসেম্বর না, আমরা ২১ শে ফেব্রুয়ারীতে খিচুরীর আয়োজন করতাম। মাটি দিয়ে শহীদ মিনার বানাতাম। সেই বানানো শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানাতাম।



আজ ১৬ ডিসেম্বর।
আমি সকাল থেকেই বাংলাদেশের পতাকাওয়ালা একটা গেঞ্জি পড়ে বসে আছি। সকালে বাইরে গিয়ে দেখি কোনো ছেলেরা আমাদের সময়কার মতো করে পতাকা টাঙ্গায় নাই। আমি মনে মনে আশা করি সমস্ত কিশোর ছেলেরা মিলে আমার কাছে আসুক। এসে বলুক পতাকা টাঙ্গাবো, খিচুরী রান্না করা হবে- সবাই মিলে খাবো। আমি তাদের সাথে সাথে কিছু টাকা দিবো। তাদের উৎসাহ দিবো। প্রয়োজনে তাদের সাথে থাকবো। কিন্তু কেউ আসে না। অথচ এই সমস্ত ছেলেদের দেখি গলির মোড়ে আড্ডা দেয়। কেমন বিছছিরি করে চুল কাটে, চিপা প্যান্ট পড়ে আর সারাক্ষণ মোবাইল টিপাটিপিতে ব্যস্ত।



লাল সবুজের দেশ যেন থাকে বেশ, সারা বছর লেগে থাকুক বিজয়ের রেশ।
মহান বিজয় দিবসে সমস্ত ব্লগারকে জানাচ্ছি বিজয়ের আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন। ত্রিশ লক্ষ মানুষকে যদি একের উপর এক শোয়ানো হয় তবে তার উচ্চতা হবে ৭২০ কিলোমিটার, যা মাউন্ট এভারেস্টের উচ্চতার ৮০ গুণ! ত্রিশ লক্ষ মানুষ যদি হাতে হাত ধরে দাঁড়ায় তবে তার দৈর্ঘ্য হবে ১১০০ কিলোমিটার, যা টেকনাফ হতে তেঁতুলিয়ার দূরত্বের চেয়েও বেশি! ত্রিশ লক্ষ মানুষের শরীরে মোট রক্তের পরিমাণ ১.৫ কোটিলিটার, যা শুকনো মৌসুমে পদ্মা নদীতে প্রতি সেকেন্ডে প্রবাহিত পানির সমান!

আজ আমরা স্বাধীনতার ৪৯ বছরে পদার্পণ করলাম। স্বাধীনতার সত্যিকার সুখ যেন অনুবভ করতে পারে সর্বস্তরের সকল জনগণ। ৩০ লক্ষ শহীদরা যেন মর্মহত না হয় আমাদের কোনো কারণে।

মন্তব্য ৫৪ টি রেটিং +১৩/-০

মন্তব্য (৫৪) মন্তব্য লিখুন

১| ১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ দুপুর ২:৩৯

ঠাকুরমাহমুদ বলেছেন: আজকের বেষ্ট পোষ্ট।

১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ দুপুর ২:৪৫

রাজীব নুর বলেছেন: কি যে বলেন!!!

ভালো থাকুন।
বিজয়ের শুভেচ্ছা।

২| ১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ দুপুর ২:৫৩

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন:
অসাধারণ একটি পোস্ট ব্রাদার।

১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:০০

রাজীব নুর বলেছেন: শুকরিয়া জনাব।

৩| ১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:০৩

নূর মোহাম্মদ নূরু বলেছেন:
চমৎকার স্মৃতিচারণ।
আপনাকে আর পরীকে
বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা।

অপ টাপিকঃ গাঁজীসাব তখন যুদ্ধে ছিলেন।
পতাকা টানানোর বয়সের উর্ধ্বে বিরাজ করতেন।

১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৫:০৫

রাজীব নুর বলেছেন: ও তাও তো ঠিক।
তবে যুদ্ধের পরে? অবশ্য তখন উনি অনেক বড়।

৪| ১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:৩১

ইসিয়াক বলেছেন: অসাধারণ পোষ্ট । অবশ্যই আজকের বেষ্ট পোষ্ট।

১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৫:০৫

রাজীব নুর বলেছেন: কি যে বলেন বন্ধু!!

৫| ১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:৩৩

ইসিয়াক বলেছেন: লাল সবুজের দেশ যেন থাকে বেশ,
সারা বছর লেগে থাকুক বিজয়ের রেশ।

লিখেছেন রাজীব নূর।
বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা রইলো বন্ধু।

১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৫:০৬

রাজীব নুর বলেছেন: শুকরিয়া।

৬| ১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:৪৭

রায়হানুল এফ রাজ বলেছেন: অসাধারণ।

১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৫:০৬

রাজীব নুর বলেছেন: ধন্যবাদ।

৭| ১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:৫৪

রূপম রিজওয়ান বলেছেন: দারুণ,ভাইয়া!
বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা!

১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৫:০৬

রাজীব নুর বলেছেন: আপনাকেও।

৮| ১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৪:৫৪

নুরহোসেন নুর বলেছেন: বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা নিবেন।

১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৫:০৭

রাজীব নুর বলেছেন: আপনিও।

৯| ১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:০৪

ইসিয়াক বলেছেন: মহাব্যস্ততায় লাইক দিতে ভুলে গেছি স্যরি । লাইক দিলাম এবং আবার পড়লাম।
সত্যি আজকের পোষ্টটা অনবদ্য ।

১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৮:১১

রাজীব নুর বলেছেন: আপনিই আমাকে মহান বানাবেন।

১০| ১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৮:০৮

চাঁদগাজী বলেছেন:


আমি আপনার মতো এতটুকু উপভোগ করতে পারিনি। ১৯৭১ সালের ২২ শে মার্চ, আমাদের বাড়ির সামনে বাংলাদেশেরততকালীন পতাকা উত্তোলন করেছিলাম। এপ্রিলের মাঝামাঝি, আমাদের বাড়ী থেকে ১ মাইলের ভেতরে যুদ্ধ হয় পাকী ও মেজর রফিকের কোম্পানীর সাথে; সেই কোম্পানীর জন্য খাবার তৈরি, ট্রেন্চ ও বাংকার খুঁড়েছি, যুদ্ধের দিন সকালেও গোলাগুলি বহন করেছি, বেলা ১১টা দিকে আমরা পরাজিত হয়ে, পতাকাটি নামায়ে পালিয়ে গেছি, সেটা ছিলো শুরু।

১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৮:১৪

রাজীব নুর বলেছেন: ধন্যবাদ টুকরো একটা ঘটনা বলার জন্য।
এরকম নিশ্চয়ই বহু ঘটনা আছে আপনার থলিতে।
সেগুলো জানতে চাই। জানতে ইচ্ছা হয়।

১১| ১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৮:০৯

স্বপ্নের শঙ্খচিল বলেছেন: স্বাধীনতার সত্যিকার সুখ যেন অনুবভ করতে পারে সর্বস্তরের সকল জনগণ।
৩০ লক্ষ শহীদরা যেন মর্মহত না হয় আমাদের কোনো কারণে।

...................................................................................................
এই প্রত্যাশা আমাদে র সকলের,
দেশ হোক আমাদের সকলের আনন্দভূমি ।

১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৮:১৬

রাজীব নুর বলেছেন: রাজনীতিক পরিস্থিতি শান্ত থাকলেই দেশে অরাজকতা হয় না।

১২| ১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৮:১৫

সাইয়িদ রফিকুল হক বলেছেন: বিজয়ের দিনে আনন্দ করা ভালো।
এতে রাজাকারদের মনে অশান্তি হয়।
;)

১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৮:১৮

রাজীব নুর বলেছেন: হা হা হা---

১৩| ১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৮:২২

শাইয়্যানের টিউশন (Shaiyan\'s Tuition) বলেছেন: ভালো লিখেছেন।

১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৮:৩৪

রাজীব নুর বলেছেন: ধন্যবাদ ভাইজান।

১৪| ১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৮:৫০

রূপক বিধৌত সাধু বলেছেন: আমার দিনটা ভালো যায় নি। সকালে পাঞ্জাবি পরে স্কুলের উদ্দেশ্যে বের হয়েছিলাম। গিয়ে দেখি কোন অনুষ্ঠান নেই। তারপর সারাদিন বাসা খুঁজলাম। সামনের মাসে নতুন বাসায় উঠব।

১৭ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ৯:০৮

রাজীব নুর বলেছেন: একটা ফ্লাট কিনে ফেলুন। লোন নিন।

১৫| ১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৯:২৩

জুল ভার্ন বলেছেন: অসাধারণ স্মৃতিচারণ!!!

১৭ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ৯:০৯

রাজীব নুর বলেছেন: ধন্যবাদ। ভালো থাকুন।

১৬| ১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৯:২৫

এলে বেলে বলেছেন: বিজয় দিবসের শুভেচ্ছ।

১৭ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ৯:১০

রাজীব নুর বলেছেন: ধন্যবাদ।

১৭| ১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৯:৩২

রুমী ইয়াসমীন বলেছেন: বিজয় দিবস নিয়ে সুন্দর স্মৃতিকথা লিখেছেন ভাইয়া। এমনটা আমাদের এলাকায়ও হতো। আপনার মতন আমার বড় ভাইয়া ও ভাইয়ার বন্ধুরা মিলে এমন আয়োজন করত যা সত্যিই অনেক আনন্দ উৎসবের ছিল সেইসব বিজয় দিবসের বছর গুলো বিশেষ করে সেই নব্বই দশকটাই ছিল যেন এক স্বর্নালী যুগ। ভাইয়া আপনার লিখাটা পড়ে আমারও শৈশবের সেই দিনগুলোর কথা খুব করে মনে পড়ে গেল।
লিখাটা অসম্ভব ভালো লেগেছে ও ভালো লিখেছেন।
আপনার বিজয় দিবসের ছবিগুলো অনেক সুন্দর হয়েছে ভাইয়া আর আপনার পরীটাকে ভীষণ সুন্দর ও আদর লাগছে।
আপনাদের দু'জনকেই জানাই মহান বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা।

১৭ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ৯:১১

রাজীব নুর বলেছেন: ধন্যবাদ। সুন্দর মন্তব্য করার জন্য।
ভালো থাকুন।

১৮| ১৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ১০:৫৮

ওমেরা বলেছেন: বিজয় দিবসের শুভেচ্ছ আপনি সহ আপনার পরিবারের সবাইকে।

১৭ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ৯:১১

রাজীব নুর বলেছেন: অশেষ শুকরিয়া।

১৯| ১৭ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ১২:৫১

এমজেডএফ বলেছেন: বিজয় দিবসে আপনাকে লাল রংয়ের ভালোবাসা এবং সবুজ রংয়ের শুভেচ্ছা।

নতুন প্রজন্মকে আমাদের স্বাধীনতা যুদ্ধের ইতিহাস জানাতে হবে, দেশ সম্পর্কে ইতিবাচক ধারণা দিতে হবে। দেশের প্রতি ভালোবাসা না জন্মালে পতাকা বানিয়ে ওদের হাতে তুলে দিলেও ওরা টানাবে না।

১৭ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ৯:১২

রাজীব নুর বলেছেন: সুন্দর কথা বলেছেন।

২০| ১৭ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ১:৫৫

ডঃ এম এ আলী বলেছেন:



বিজয়ের এই দিনে মনের আকুতী সব ঝরে পরেছে লেখাটির পরতে পরতে।
বিজয়ের আর কোনো রঙের ছোঁয়া থাকুক বা না থাকুক এই লাল সবুজ রঙ ছাড়া বিজয় দিবসের
ফ্যাশন একেবারেই বেমানান। বিজয় দিবসের সকালে পরনের সব কিছুতেই থাকতে পারে লাল-সবুজের ছোঁয়া।
বিজয়ের মাসে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে অঙ্গে ধারণের পাশাপাশি সংরক্ষণ করতে হবে আমাদের মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস।

ধন্যবাদ সুন্দর এই পোষ্টটির জন্য।

১৭ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ৯:১৩

রাজীব নুর বলেছেন: শুভ সকাল। সালাম নিবেন।
আপনার মন্তব্য আমাকে অনুপ্রানিত করে।

২১| ১৭ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ২:০২

শের শায়রী বলেছেন: চমৎকার আবেগী লেখা। ভালো লাগা।

১৭ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ৯:১৪

রাজীব নুর বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ। ভালো থাকবেন।

২২| ১৭ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ২:৫৭

আকতার আর হোসাইন বলেছেন: ভাইরে এইটা কি গল্প শোনালেন আমারে।।। আমার তো ইচ্ছা করছে আপনার সেকালে ফিরে যাই।।।।। ইশ! এমন যদি করতে পারতাম। এক বছর আগেও চাল, টাকা তুলে, নিজেরাও দিয়ে আমাদের এলাকার ছেলেরা খিচুরি রান্না করে খেয়েছি। ঘরে ঘরে দিয়েছিও। ওফ, কিন্তু এভাবে যদি ১৬ ডিসেম্বরে করা হত, লাল সবুজের পতাকায় ছেয়ে দেয়া যেত পুরো গ্রামটা! ওফ, এ এক ইচ্ছা জাগল আপনার পোস্ট। অপূর্ণই থেকে যাবে মনে হয়।।।



""ত্রিশ লক্ষ মানুষকে যদি একের উপর এক শোয়ানো হয় তবে তার উচ্চতা হবে ৭২০ কিলোমিটার, যা মাউন্ট এভারেস্টের উচ্চতার ৮০ গুণ! ত্রিশ লক্ষ মানুষ যদি হাতে হাত ধরে দাঁড়ায় তবে তার দৈর্ঘ্য হবে ১১০০ কিলোমিটার, যা টেকনাফ হতে তেঁতুলিয়ার দূরত্বের চেয়েও বেশি! ত্রিশ লক্ষ মানুষের শরীরে মোট রক্তের পরিমাণ ১.৫ কোটিলিটার, যা শুকনো মৌসুমে পদ্মা নদীতে প্রতি সেকেন্ডে প্রবাহিত পানির সমান! 

আজ আমরা স্বাধীনতার ৪৯ বছরে পদার্পণ করলাম। স্বাধীনতার সত্যিকার সুখ যেন অনুবভ করতে পারে সর্বস্তরের সকল জনগণ। ৩০ লক্ষ শহীদরা যেন মর্মহত না হয় আমাদের কোনো কারণে। ""


আসলেই এভাবে ভাবিনি কখনো ভাই। সেরা একটা লেখা পড়লাম ভাই। শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানবেন।

১৭ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ৯:১৫

রাজীব নুর বলেছেন: ধন্যবাদ সুন্দর মন্তব্য করার জন্য।

২৩| ১৭ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ রাত ৩:৩৭

অন্তরন্তর বলেছেন: খুব আবেগ দিয়ে লিখেছেন যা মন স্পর্শ করল।

১৭ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ৯:১৫

রাজীব নুর বলেছেন: ভালো থাকুন।

২৪| ১৭ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ৭:২৮

মলাসইলমুইনা বলেছেন: রাজীব নূর,
বিজয় দিবস পালনের সেই স্বতঃস্ফূর্ত আনন্দের সময়গুলো আর ফিরে আসবে না কখনো মনে হয় ---এখন দেশে আমরা সবাই বিজয় দিবস উদযাপনের কসমেটিক ডিসপ্লে দেখাতেই বেশি আগ্রহী ।সরকারি বেসরকারি সবারই একই অবস্থা মনে হয়।আপনার লেখায় অনেক ভালো লাগা।

১৭ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ৯:১৬

রাজীব নুর বলেছেন: এই রকম বিশেষ দিন গুলো খুব বড় করে জাকজমক ভাবেই পালন করা উচিত।

২৫| ১৭ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সকাল ১০:২৬

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: বিজয় দিবসের চমৎকার স্মৃতিচারণ, অনেক ভাললাগা।

১৭ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ দুপুর ২:৩১

রাজীব নুর বলেছেন: ধন্যবাদ তারেক ভাই।

২৬| ১৭ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ দুপুর ১২:৩০

রানার ব্লগ বলেছেন: দেখুন আপনি যখনকার কথা বলছেন তখনকার মানুষের আবেগ আর এখনকার মানুষের আবেগ অনেক পার্থক্য আছে। ত্রিশ লক্ষ মানুষের আত্মত্যাগ ও মা বোনদের ইজ্জতের বিনিময় পাওায়া স্বাধীনতা নিয়ে কার দ্বিমত ছিল না, এখন আছে, বিশ্বাস করুন আছে। ৩০ লক্ষ্যকে ৩ লাখ বা তিন হাজার বা তিন জন বানাতেও এরা কসুর করে না। মনে রাখবেন জামাতিদের একটা কথা আছে একটা মিথ্যা বা অপবাদ বারবার বললে তা সত্য বলে ধরা হয় কোন এক সময়। এই ৩০ লাখ নিয়ে এটাই করছে এরা, আর আমাদের নতুন প্রজন্মকে আমরা ধরে রাখতে পারছি না এটা আমাদের ব্যারথতা।

গাজি সাহেব কে আমিও বলেছিলাম তার সৃতি গুল লিপিবদ্ধ করতে, নিজে যদি কষ্ট হয় কাউকে দিয়ে যদি বই আঁকারে তুলে ধরা যেত ভালো হত। আমরাও জানতে পারতাম।

১৭ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ দুপুর ২:৩৯

রাজীব নুর বলেছেন: দেশ আসলে নষ্টদের দখলে। সেই স্বাধীনতার পর থেকেই যোগ্য লোক আমরা পেলাম না। সব চোর। দূর্নীতিবাজ।

২৭| ১৭ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৩:১২

তারেক ফাহিম বলেছেন: চমৎকার পোষ্ট হল।

আজকের পোষ্টর বিষয়বস্তু শিরোনামের সাথে মিল আছে।
ছবিতো অসাধারন।

শেষের ছবিটি সম্ভবত বাবা-মেয়ে।

অনেক চমৎকার যুগল ছবি হল।

১৭ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৪:২৯

রাজীব নুর বলেছেন: ধন্যবাদ। ফাহিম ভাই। ভালো থাকুন।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.