নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

আমার নাম- রাজীব নূর খান। ভাবছি ব্যবসা করবো। ভালো লাগে পড়তে- লিখতে আর বুদ্ধিমান লোকদের সাথে আড্ডা দিতে। কোনো কুসংস্কারে আমার বিশ্বাস নেই। নিজের দেশটাকে অত্যাধিক ভালোবাসি। সৎ ও পরিশ্রমী মানুষদের শ্রদ্ধা করি।

রাজীব নুর

আমি একজন ভাল মানুষ বলেই নিজেকে দাবী করি। কারো দ্বিমত থাকলে সেটা তার সমস্যা।

রাজীব নুর › বিস্তারিত পোস্টঃ

আজ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ২৯তম মৃত্যু বার্ষিকী

৩০ শে মে, ২০২০ বিকাল ৫:৫৬



আমি জিয়াকে পছন্দ করি।
কারন উনি একজন সৎ লোক ছিলেন। ক্ষমতায় থাকাকালীন সময়ে উনি কোনো দূর্নীতি করেন নি। কিন্তু অনেক ভুল কাজ করেছেন। রাজাকার গোলাম আযমকে দেশে ফিরিয়ে এনেছেন। বড় পদে বসিয়েছেন। বঙ্গবন্ধু তাকে ‘বীর উত্তম’ খেতাব দিয়েছিলেন। এবং সেনা বাহিনির প্রধান করেছিলেন। উনি 'বীর উত্তম' এর মযার্দা রাখতে পারেন নি। অথচ জিয়াউর রহমান দেশকে ভালোবাসতেন। এবং বলা যায়- দেশের জন্যেই প্রান দিয়েছেন। মাঝে মাঝে আমার মনে হয় জিয়ার মধ্যে বদমাশ, ক্ষমতালোভী খন্দকার মোশতাকের ছায়া পড়েছিলো।

১৯৮১ সালে সরকারি সফরে জিয়া চিটাগাং যান।
সেখানেই একদল সেনা সদস্য তাকে হত্যা করে। এবং রাউজান এলাকায় কবর দিয়ে দেয়। অবশ্য তিন দিন পর লাশ উঠিয়ে ঢাকায় এনে কবর দেওয়া হয়। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নিহত হওয়ার ১০ দিন পর জিয়া বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর প্রধান নিযুক্ত হন। ১৯৭৮ সালের ডিসেম্বরে তিনি বাংলাদেশ সেনাবাহিনী থেকে অবসরগ্রহণ করেন। জিয়াউর রহমান অনুভব করেছিলেন যে একটি দেশকে ভালোভাবে শাসন করতে হলে দল গঠন অপরিহার্য। ১৯৭৭ সালে জিয়া বিএনপি দল গঠন করে। বর্তমানে তার দলের অবস্থা একেবারে খারাপ। এরকম চললে হয়তো তার দল চিরতরে মুছে যাবে।

জিয়াউর রহমান বাংলাদেশের সপ্তম রাষ্ট্রপতি ছিলেন।
জিয়াউর রহমান হত্যাকাণ্ডের সময় সেনাবাহিনীর প্রধান ছিলেন হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ। জিয়াউর রহমান রাজনীতিতে আসেন ১৯৭৫ সালের ৭ নভেম্বরের সিপাহি-জনতা বিপ্লবের মাধ্যমে। জিয়াউর রহমান প্রথমে সেক্টর কমান্ডার এবং পরে জেড ফোর্সের কমান্ডার হিসেবে স্বাধীনতাযুদ্ধ করেন। জিয়াউর রহমান বলতেন, I will make politics difficult for the politicians. রাষ্ট্র পরিচালনাকালীন জিয়াউর রহমানের বিরুদ্ধে অনেক উচ্চপদস্থ সামরিক কর্মকর্তা ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হন।

সৌদি বাদশা ফাহাদ জিয়াকে আমন্ত্রন জানান।
জিয়াউর রহমান বাদশার জন্য উপহার হিসাবে নিয়ে গেলেন পাঁচ শ' নিম গাছের চারা। এরকম অদ্ভুত উপহার পেয়ে বাদশা ভীষন খুশি। সৌদিতে এই নিম গাছকে বলা হয় 'জিয়া গাছ'। মুজিব হত্যার পর এলোমেলো বাংলাদেশ সঠিক দিকনির্দেশনা দিয়েছিলেন জিয়া। যাই হোক, জিয়া ক্ষমতায় থাকাকালীন অনেক ভুল করেছেন। এগারো হাজার রাজাকারকে মুক্তি দিয়েছেন। ১৯৭৭ এর হ্যা ভোট করেছিলেন। ইতিহাস কখনো মিথ্যা হয়ে যায় না। অনেকে হয়তো বিকৃত করার চেষ্টা করে বাট সত্য চিরকালই সত্য থাকে। জানার আগ্রহ থাকলে জানা যায়।

মন্তব্য ৩৮ টি রেটিং +৩/-০

মন্তব্য (৩৮) মন্তব্য লিখুন

১| ৩০ শে মে, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:০১

চাঁদগাজী বলেছেন:




আপনি জিয়াকে পছন্দ করেন, ভালো; উনি ৩০০ জন মুক্তিযোদ্ধা সৈনিককে ফাঁসী দিয়েছে, আপনি কমপক্ষে ৩ জন মুক্তিযোদ্ধা সৈনিকের কবরের উপর প্রস্রাব করে দেন।

৩০ শে মে, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:১৩

রাজীব নুর বলেছেন: পছন্দ করি মানে। উনার সততাকে।
উনার অন্য বাজে কাজ গুলোকে খুবই অপছন্দ করি।

২| ৩০ শে মে, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:০২

ইসিয়াক বলেছেন: ওকে

৩০ শে মে, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:১৩

রাজীব নুর বলেছেন: হুম।

৩| ৩০ শে মে, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:০৩

বিজয় নিশান ৯০ বলেছেন: ৩৯ তম মৃত্যুবার্ষিকী । জিয়া কাকুলে প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত। আইয়ুব খান তার আদর্শ । দেশের এক নম্বর মুক্তিযোদ্ধা এক নম্বর রাজাকারকে বাংলাদেশে বসবাসের সুযোগ দিয়েছিলেন । রাজাকার শাহ আজিজকে প্রধানমন্ত্রী বানিয়েছেন । আগাগোড়া সামরিক শাসক ।

৩০ শে মে, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:১৬

রাজীব নুর বলেছেন: যা বলেছেন উহা সত্য বলিয়াছেন।

৪| ৩০ শে মে, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:০৩

সামছুল মালয়েশিয়া প্রবাসী বলেছেন: সমালোচনা ও নিন্দামন্দের পরও জিয়াউর রহমান ও তার দল বিএনপির প্রতি বড় একটি অংশের সমর্থন আছে। এর কারণ কি? এই প্রশ্নের অনেকগুলো উত্তর হতে পারে। এর মধ্যে একটি হচ্ছে দেশের অর্থনীতির ভিত গড়ে দিয়েছিলেন জিয়াউর রহমান। যে পোশাক শিল্প ও রেমিট্যান্সের ওপর দেশের অর্থনীতি দাঁড়িয়ে আছে, তার শুরু হয়েছিল জিয়াউর রহমানের আমলেই। ইতিহাসের আতশি কাচের নীচে ফেলে যদি জিয়াউর রহমানকে বিশ্লেষণ করা হয় তবে নেতিবাচক কাজের পাশাপাশি তাঁর অর্থনৈতিক সংস্কারের বিষয়গুলোও বেরিয়ে আসবে। 

৩০ শে মে, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:১৭

রাজীব নুর বলেছেন: তবে উনার মন্দ কাজ ক্ষমার অযোগ্য।

৫| ৩০ শে মে, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:০৬

বিদ্রোহী ভৃগু বলেছেন: অনেক অনেক ধন্যবাদ সহজ সরল লেখনিতে।

কথা সেটাই অন্ধত্ব আর ঘৃনায় সত্য কখনো মিথ্যা হয়না।
ইতিহাস আপন পথেই চলে।


৩০ শে মে, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:১৮

রাজীব নুর বলেছেন: জিয়াউর রহমান বেঁচে থাকলে তার অবশ্যই বিচার হতো।

৬| ৩০ শে মে, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:১১

বিজয় নিশান ৯০ বলেছেন:
সামছুল প্রথম আলো থেকে কপি পেস্ট করলেন

৩০ শে মে, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:২১

রাজীব নুর বলেছেন: হুম।

৭| ৩০ শে মে, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:২৩

বিজয় নিশান ৯০ বলেছেন: চাদ্গাজি আপনি কি রাজাকার পরিবারের সন্তান । আপনি কিভাবে মুক্তিযোদ্ধা সৈনিকের কবরের উপর প্রস্রাব করার জন্য বলতে পারেন ।

৩০ শে মে, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:১৫

রাজীব নুর বলেছেন: উনি তীব্র ঘ্রিনা থেকে এই কথা বলেছেন।

আর আপনি হয়তো জানেন না উনি একজন মুক্তিযোদ্ধা।

৮| ৩০ শে মে, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:৩৮

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন:
আমি খারাপ মানুষ পছন্দ করি না ।
ভালো মানুষ পছন্দ করি ।
যারা হিংসা-বিদ্বেষ খুনাখুনী করে আমি তাদেরকে পছন্দ করি না।

৩০ শে মে, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:১৫

রাজীব নুর বলেছেন:

৯| ৩০ শে মে, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:৫১

প্রকৌশলী মোঃ সাদ্দাম হোসেন বলেছেন: ঐ সময় আমার জন্মও হয়নি, তবে পড়ে যতটুকৃ বোঝাযায় সে সময় সামরিক বাহিনী দেশ কন্ট্রোলে রাখলেও ভিতর ভিতর রাজনৈতিক অস্থিরতা ছিলো চরমে। বঙ্গবন্ধু হত্যার পর দেশ চালোনর মতো কোন নেতাই ছিলো না।

৩০ শে মে, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:১৯

রাজীব নুর বলেছেন: শূণ্যস্থান অতি সহজেই পূরন হয়ে যায়।

১০| ৩০ শে মে, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:১৮

চাঁদগাজী বলেছেন:



@সামছুল মালয়েশিয়া প্রবাসী,
আপনি বলেছেন: সমালোচনা ও নিন্দামন্দের পরও জিয়াউর রহমান ও তার দল বিএনপির প্রতি বড় একটি অংশের সমর্থন আছে। এর কারণ কি? এই প্রশ্নের অনেকগুলো উত্তর হতে পারে। এর মধ্যে একটি হচ্ছে দেশের অর্থনীতির ভিত গড়ে দিয়েছিলেন জিয়াউর রহমান। যে পোশাক শিল্প ও রেমিট্যান্সের ওপর দেশের অর্থনীতি দাঁড়িয়ে আছে, তার শুরু হয়েছিল জিয়াউর রহমানের আমলেই। "

-উহা সেই আমলে শুরু হয়েছিলো, আপনি কয়টা গার্মেন্টস'এর মালিক? নাকি মালয়েশিয়ার মানুষের উপকার করছেন?

১১| ৩০ শে মে, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:১৮

নূর মোহাম্মদ নূরু বলেছেন:
খানসাব এটা বড়দের বিষয় বাচ্চাদের জানার কথা নয়। মেজর জিযা ছিলেন একজন অতি উচ্চাভিলাশী ক্ষমতা লিপ্সু
ঘোড়েল টাইপের জেনারেল যা তাকে শৈরাচারে রুপান্তর ঘটায়। ১৯৭৫ সালের ৭ নভেম্বর সকাল ১১টায় দ্বিতীয় ফিল্ড আর্টিলারি রেজিমেন্টে উপস্থিত মুক্ত জিয়াউর রহমানের ইঙ্গিতেই দুজন অফিসার মেজর আসাদ ও জলিল দশম বেঙ্গল রেজিমেন্টে খালেদ, হুদা ও হায়দারকে হত্যা করেন। শুধু তাই নয়, এরা এই তিন জনের লাশ একটি ট্রাকে উঠিয়ে জিয়াউর রহমানের সামনে নিয়ে আসেন যাতে তিনি স্বচক্ষে তা দেখতে পারেন। কর্নেল তাহেরকেও জিয়া বাঁচিয়ে রাখেননি। গোপন বিচারের প্রহসন করে ফাঁসি দেওয়ার নামে ঠাণ্ডা মাথায় আপন জীবনদাতাকে হত্যা করেছেন।

৩০ শে মে, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:২১

রাজীব নুর বলেছেন: জিয়া এখন বেঁচে থাকলে তার বিচার হতো। বিচারে তার অবশ্যই ফাসি হতো।

১২| ৩০ শে মে, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:২৬

নূর মোহাম্মদ নূরু বলেছেন:

লেখক বলেছেন: জিয়া এখন বেঁচে থাকলে তার বিচার হতো। বিচারে তার অবশ্যই ফাসি হতো।

দাগ থেকে যদি ভালো কিছু হয় , তা হলে দাগই ভালো। তাকে ফাঁসির কাঠে ঝুলতে হলোনা!! ভালোইতো, ভালোনা !!

৩০ শে মে, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:৩৬

রাজীব নুর বলেছেন: তবে বিচার হলে ভালো হতো। অনেকের কলিজা ঠান্ডা হতো।

১৩| ৩০ শে মে, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:৩৬

নূর মোহাম্মদ নূরু বলেছেন:

@খানসাব আজ জিয়াউর রহমানের ৩৯ মৃত্যুবার্ষিকী ২৯ নয়!!

@বিজয় নিশান ৯০ বলেছেন: চাদ্গাজি আপনি কি রাজাকার পরিবারের সন্তান । আপনি কিভাবে মুক্তিযোদ্ধা সৈনিকের কবরের উপর প্রস্রাব করার জন্য বলতে পারেন ।

আপনি গাজীসাবের কথা বুঝতে পারেন নি। তাই গোস্যা করেছেন। কোন প্রেক্ষিতে তার এমন প্রতিক্রিয়া তা আবার পড়ুন তখন বুঝে আসবে। ৩০০ মুক্তিযোদ্ধা হত্যা করে যদি তিনি ভালো হতে পারেন তা হলে অন্তত তিনজন মুক্তিযোদ্ধাকে হত্যা করতে না পারেন অন্তত তিনজন মৃত মুক্তিযোদ্ধার কবরে প্রসাব করলেও লেখক মহান হতে পারবে। থিমট এমন। এটা ক্ষোভের বিহঃপ্রকাশ!

৩০ শে মে, ২০২০ রাত ১০:০০

রাজীব নুর বলেছেন: আমি তো ২৯ ই লিখেছি।

১৪| ৩০ শে মে, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:৫৯

চাঁদগাজী বলেছেন:



@বিজয় নিশান ৯০ বলেছেন, " চাদ্গাজি আপনি কি রাজাকার পরিবারের সন্তান । আপনি কিভাবে মুক্তিযোদ্ধা সৈনিকের কবরের উপর প্রস্রাব করার জন্য বলতে পারেন । "

-বাংলা বাক্যের সিমানটিকও মাথায় ঢুকে না? ওখানে কি গার্বেজ?

১৫| ৩০ শে মে, ২০২০ রাত ৮:১০

নুরুলইসলা০৬০৪ বলেছেন: যে ভাবে এসে ছিল সে ভাবেই চলে গেছে।মাঝখান থেকে বাংগালির জীবনকে এলোমেলো করে দিয়ে গেছে। স্বাধীনতা বিরোধীরা কোন দিন মাথাতুলে দাড়াতে পারতো না। জিয়া মরা দেয়ে প্রান দিয়ে গেছে।তারমতো বাংগালির ক্ষতি আর কেউ করেনি।
দুঃখ হয় বর্তমান সরকারের সমর্থকদের দেখে।তারা সচেতন সমর্থকও তৈরি করতে পারে নাই।তৈরি করেছে কিছু অন্ধ সমর্থক।যারা জিয়ার ছেড়া গেন্জির গল্পকেও বিশ্বাস করে,জিয়াকে বলে সৎ।

৩০ শে মে, ২০২০ রাত ১০:০১

রাজীব নুর বলেছেন: আমার আরো জানতে হবে।

১৬| ৩০ শে মে, ২০২০ রাত ৮:৪২

গুরুভাঈ বলেছেন: এতো ছোটো লেখায় জিয়া কি এবং কেনো তা বুঝানো যাবেনা। সে সুযোগ সন্ধানি এবং ধরি মাছ না ছুই পানি টাইপ। মুক্তিযোদ্ধা অনেক সেনা অফিসারকে হত্যায় যুক্ত।

৩০ শে মে, ২০২০ রাত ১০:০২

রাজীব নুর বলেছেন: ইয়েস।

১৭| ৩০ শে মে, ২০২০ রাত ৯:১৮

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন:
আমি সামরিক শাসন ও সামরিক শাসকদের পছন্দ করিনা। উহারা রাষ্ট্রের রাক্ষস।

১৮| ৩০ শে মে, ২০২০ রাত ৯:৪৫

নেওয়াজ আলি বলেছেন: শ্রদ্ধা এবং ভালোবাসা ।

১৯| ৩০ শে মে, ২০২০ রাত ৯:৫৯

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: দোষত্রুটি সব মানুষের মধ্যে থাকে, কাজেই ওনার মধে্ও ছিল।ক্ষমতার যথেচ্ছাচার যদি করেই থাকেন তাহলে অপরাধের গুরুত্ব বিচার করে পরে যথাযথ শাস্তির বিধান করা যেতেই পারতো। তাই বলে এভাবে ছিন্নভিন্ন করে হত্যা করা বর্বরতার সামিল।

২০| ৩০ শে মে, ২০২০ রাত ১০:১৪

ঢাবিয়ান বলেছেন: রাজনীতি বুঝি না । কাজেই রাজনীতি দিয়ে আমি প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানকে বিচার করতে চাই না । আমি তাঁকে বিচার করতে চাই দেশ ও জনগণের স্বার্থ দিয়ে ।
Ziaur Rahman served the President of Bangladesh during 1977–1981. As President in 1978, Rahman founded the Bangladesh Nationalist Party (popularly known by its abbreviation BNP). He reinstated multi-party politics, freedom of the press, free speech and free markets and accountability. He initiated mass irrigation and food production programmes, including social programmes to uplift the lives of the people. He initiated and founded the first Asian regional group known as SAARC. He improved Bangladesh's relations with the West and China, and departed from Sheikh Mujibur Rahman's close alignment with India and the Soviet Union.( From Wikipedia)

ক্ষমতায় থেকে একজন প্রেসিডেন্ট দেশ ও তার জনগনের জন্য কি করেছে সেটাই জনগনের জন্য মূখ্য ।বাদ বাকি রাজনীতি রাজনীতিবিদদের সমস্যা , জনগনের সমস্যা নয়।

২১| ৩১ শে মে, ২০২০ রাত ১২:৪০

নূর মোহাম্মদ নূরু বলেছেন:


লেখক বলেছেন: আমি তো ২৯ ই লিখেছি।

কেন লিখবেন? আজ কি তার ২৯তম মৃত্যুবার্ষিকী?
আপনার গুরু ঠিকই বলে প্রশ্নফাঁস জেনারেশন !!
২০২০-১৯৮১ = কত ?

৩১ শে মে, ২০২০ রাত ১২:৪৬

রাজীব নুর বলেছেন: হে হে---

২২| ৩১ শে মে, ২০২০ রাত ২:৫৮

উদাসী স্বপ্ন বলেছেন: একজন কোল্ড ব্লাডেড খুনী, রাজাকার পুনর্বাসনের জন্য ঘৃনা করি এই লোকটাকে। তার ওপর সামরিক উর্দি পড়া স্বৈরশাসক। একজন স্বৈরশাসক কখনোই একটা দেশের জন্য মঙ্গল হতে পারেন না।

তবে তার অর্থনৈতিক সংস্কার, পররাষ্ট্রনীতির দক্ষতা এবং প্রশাসনিক সিদ্ধান্ত এখনও বিস্মিত করে এই জন্য যে তার পূর্ববর্তী ও পরবর্তী সরকার গুলো ক্ষমতা গ্রহনের পর কয়েকবছর লেগে যায় ক্ষমতার মোহ কাটাতে এবং দেশের জন্য কোনটা ভালো সেটা বুঝে উঠতে। আমার মনে হয় ঠিক এ কারনেই পূর্ববর্তী সরকারের চেয়ে অপেক্ষাকৃত একটিভ ও জনমানুষের মনে জাতীয়তাবাদী বোধ সঞ্চারের কারনে তিনি জায়গা করে নিয়েছেন এখনো। তবে এটাও সত্য সামরিক স্বৈরশাসক বলেই সেটা স্থায়ীত্ব লাভ করবে না, তাই তার অর্থনৈতিক পুনর্বাসনও শেষ দিকে অকার্যকর ও ব্যার্থ হয়েছিলো যেহেতু রক্ত নদী সাতরে তাকে ক্ষমতায় টিকে থাকতে হয়েছে, সেই রক্ত দিয়েই এর মুল্য চুকাতে হয়েছে

হোয়াট গোস এরাউন্ড কামস এরাউন্ড।

পাপের ফল তিনি হাতে নাতে পেয়েছেন।

২৩| ৩১ শে মে, ২০২০ বিকাল ৪:২০

নীল আকাশ বলেছেন: হাতি ঘোড়া গেল তল, পিপড়া বলে কত আর জল!

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.