নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

হাড্ডি খিজিরের মত ঠোঁটকাটা হইতে চাই শেষমেশ ওসমান অরফে রঞ্জু হয়াই দিন কাটে। রোগা শালিকের বিবর্ণ ইচ্ছা কী আছিলো সেইটা অনুভব করার খুব শখ আছিলো, জীবনদা তো আর নাই। তার কথা মনে হইলেই শোভনার ব্যর্থ প্রেমিক, লাবণ্যের ব্যার্থ স্বামী মনে হয়। আমাদের হৃদয় জাগানো কবির

রেজাউল করিম সাগর

একজন লক্ষ্যহীন পথিক, পথে নেমেই পথকে চিনি - লক্ষ্যকেও।

রেজাউল করিম সাগর › বিস্তারিত পোস্টঃ

কবিতাঃ একটি বিশুদ্ধ শিল্প ও খানিকটা আত্মবিশ্লেষণ -১

২৪ শে জুলাই, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:২৩




-------------------------------------

(১)
আমি কলেজ থেকেই একটু আধটু কবিতা লিখি। লিখি না বলে হয়তো লেখার চেষ্টা করি বলাই ভালো। কারণ যা লিখেছি সেগুলো পরে নিজের কাছেই আর তেমন ভালো লাগেনা। তাই মনে মনে নিজেকে 'কবি' দাবী করলেও প্রকাশ্যে অন্য কারো কাছে সে দাবী কখনোই করিনা। একে অন্তর্মুখিতা বলতে পারেন অথবা অযোগ্যতা, কেউ কেউ সহানুভূতির দৃষ্টিতে দেখলে একে বিনয় বলেও ভাবতে পারেন। এই যে নিজেকে 'কবি' দাবী করতে না চাওয়া তার পেছনে একটা শঙ্কা কাজ করে। যে দেশে মাইকেল, রবি ঠাকুর, নজরুল, জীবনানন্দ সহ পঞ্চ পান্ডব, ত্রিশ, চল্লিশ, পঞ্চাশ, ষাট, সত্তরের দশকের অনেক খ্যাতনামা কবি বাংলা কবিতার ঝান্ডাবাহী সেখানে নিজেকে কবি বললে মনে হয় আমি তাঁদের সমকক্ষ হবার দৃষ্টতা দেখাচ্ছি। কিংবা সেরকম যোগ্যতা, পরিশ্রম না থাকা স্বত্বেও এমন ভাব করছি যেন তাঁদের কাছাকাছি চলে গেছি। নিজেকে কবি বলতে এই দ্বিধা থাকলেও নিজের লেখাগুলোকে আড়াল করে রাখিনা কখনো। চাই যেন সবাই এই অধমের লেখা পড়ে। প্রশংসা করলে খুশি হই, কিন্তু অনেক বেশি খুশি হই কেউ সমালোচনা করলে। ( গালি না, গালি আর সমালোচনার পার্থক্য বাঙালি বোঝেনা, একজন বাঙালি হিসেবে আমিও বুঝিনা অনেক সময়)। ভালো , যুক্তিযুক্ত সমালোচনা এবং নিয়ন্ত্রিত প্রশংসা একজন নতুন লেখকের জন্য পদস্খলন থেকে বাঁচার উপায়।

(২)
'কবি' বলে নিজেকে দাবী করিনা এর মানে কি এই যে আমার লেখা একদমই ভালো হয় না? যদিও আমার খুব বেশি ভালো হয় সে দাবী আমি করবোনা, কিন্তু একেবারে খারাপ হয় এই দাবী কেউ করলে আমি সরাসরি অগ্রাহ্য করবো। মাঝে মাঝে এমন সব থিম, শব্দ, পঙক্তি লিখে ফেলি যে পরবর্তীতে পড়ে মনেই হয়না সেগুলো আমি লিখেছি! একেই বুঝি রবি ঠাকুর জীবনদেবতা বলেছেন, মাইকেলের দেবী কূললক্ষ্মী ।


“I don’t worry about the status of poetry as an art form. Good poems find their way in the world and they stand the test of time.” — Wendy Cope ( a british poet )

নিজে যা লিখি তা নিজের ভালোলাগা থেকেই, নিজের জন্যই। কখনো তা ভালোবাসার প্রকাশ, কখনো তা প্রতিশোধ গ্রহণের হিরন্ময় হাতিয়ার। তারপরও যারা পড়েন, প্রশংসা ও সমালোচনা করেন তাঁদের জন্যই আমার নিতান্ত বাচ্চামো ধরণের অপরিপক্ক লেখাগুলো কিছুটা পরিনত হয়েছে, যদিও জানি এই যাত্রার শেষ নেই কোন। এই সামগ্রিক পথচলায় কিছু প্রশ্নের সম্মুখীন হয়েছি, ভেবেছি, উত্তর খুঁজেছি। কবিতার সঙ্গে আমার জীবনযাপন নিয়ে নিজেই নিজের ভেতর মূল্যায়ন করেছি। কখনো হতাশ, কখনোবা ভীষণ ভালোলাগায় জড়ানো আমার কবিতারা। এখানে আমি কিছু প্রশ্নের উত্তর দিবো, কিছু তির্যক মন্তব্য এবং আমি মুখোমুখি হয়েছি এমন কিছু ভুল ধারণা নিয়ে কিছু কথা বলবো। হয়তো অনেকগুলো কথাই ছোট মুখে বড় কথা হয়ে যাবে, তা যাক। তাতে কিছু আসে যায় না। কবিতা যে লেখে সে-ই কবিতা নিয়ে আলাপের মুখ্য দাবিদার, বাকি অনেকেই আছেন কিন্তু দ্বিতীয় কিংবা তৃতীয় সাড়িতে।




(৩)
প্রথমত, এখনকার যারা কবিতা লেখেন তাঁদের কাছে অনেকেরই অভিযোগ তাঁরা কেন ছন্দে লেখেন না। ছন্দ ছাড়া কবিতা হয় নাকি! অন্য যারা লেখেন তাঁদের কথা জানিনা। নিজের কথা বলতে পারি, ছন্দ পারিনা, শেখার আগ্রহ আছে পরিশ্রমের ভয়ে পারিনা শিখতে। তাই সব লেখা গদ্যেই লিখি। কিন্তু এমন অনেকেই আছেন যারা অন্ত্যমিলকেই ছন্দ ভেবে বসে থাকেন, তারা অনেকের বিরুদ্ধেই ছন্দহীনতার অভিযোগ আরোপ করেন।
আচ্ছা, গদ্যে লেখাও তো একরকম ছন্দ্যে লেখা? তাই না? নাহলে 'গদ্য ছন্দ' কেউ বলতোনা নিশ্চই! রবীন্দ্রনাথের শেষের দিকের একটা কাব্যগ্রন্থ (সম্ভবত - ঐকতান) গদ্যে লেখা হয়েছিলো। এটা সম্ভবত রবীন্দ্রনাথের উপর তিরিশের দশকের কবিদের একটা প্রভাব হিসেবেই দেখা হয়। তাহলে রবীন্দ্রনাথকেও আপনাদের অজ্ঞতার ছুড়িতে ফালাফালা করুন? না, তা তো আর পারবেন না। বিশ্বকবি বলে যাকে দিনরাত পূজা করেন তাকে নিয়ে তো চাইলেই কিছু বলা যায়না! আর বললে সবাই মনে করবে আপনি পাকামো করছেন।

(৪)
দ্বিতীয় যে অভিযোগ সেটা হল দুর্বোধ্যতা। সবারই এক কথা 'কবিতা লিখছো, পড়ে ভালোই লেগেছে কিন্তু কিচ্ছু তো বুঝিনি! '
সকলেই কবিতা বুঝতে চায়, তা ভালো লাগুল কি না লাগুক। অবশ্য এই যুগে ভালো না লাগলে কেউ জিজ্ঞেস করেননা এসব। ভালো যাদের লাগে তারাই বলেন। এটা হয়তো আমাদের দেশে কবিতা পড়ানোর ব্যাবস্থার দোষ। (*সে দোষ নিয়ে বললে বিস্তর বলা লাগবে, সেসব অন্য কোথাও বলবো।)
যারা এই শিক্ষাব্যবস্থার অসুবিধার জন্য কবিতা/শিল্পের প্রতি ভয়, অবহেলা নিয়ে বড় হন তাদের সমস্যাটা বুঝি। সেটা আমার আলাপের বিষয়ওনা। অনেকেই তো আছেন যারা পড়েন, শোনেন, দেখেন এবং বোঝেন। ভাবে শিল্পবোদ্ধা, কিংবা ভাব না নিলেও আসলেই আর্ট বোঝেন এবস্ট্রাক্ট (*) আর্টে রঙের অর্থহীন খেলা দেখে আনন্দ বোধ করেন তাদেরই বা না বোঝার কী কারণ থাকতে পারে?
এরকম কয়েকজন আর্টবোদ্ধা লোকজনরেও এসব কবিতা নিয়ে দুর্বোধ্যতার অভিযোগ করতে দেখেছি। আমি হয়তো তেমন ভালো লিখিনা কিংবা লেখা সেরকম শিল্পমানের হয়ে ওঠেনা কখনো, তাই তাদের দুর্বোধ্য লাগে। কিন্তু আমার প্রশ্ন হচ্ছে তারা আর্ট এক্সিবিশনে গিয়েও কি আর্টিস্টকে তার আর্টের অর্থ নিয়ে প্রশ্ন করেন?
" এইযে আর্টিস্ট সাহেব, এইযে সাদার পাশে কালো গোল্লা দিয়ে আপনি কি বোঝালেন? রেসিজম? "
কিংবা "এইসব কী হিজিবিজি রঙের আঁকিবুঁকি! বুঝিনাতো কিচ্ছুই!"
এসব বলেন? অবশ্যই না! কারণ এই চিত্রকর্ম দেখে তাদের ভালো লাগা নিয়ে নিজেরাই নিজের মত করে বোঝে নেন। প্রশ্ন করলেই গোল বাধবে।
তাহলে আর্টবোদ্ধা হয়ে তারা কি একজন কবিকে দুর্বোধ্যতার জন্য অভিযুক্ত করতে পারেন? পারেননা। শিল্প বুঝলে তিনি কবিতাও বুঝবেন, আধুনিক দুর্বোধ্য সিলওয়ালা কবিতাও। শিল্পীকে তার আর্টের অর্থ, দুর্বোধ্যতা নিয়ে কটুক্তি করা, প্রশ্ন করা যেমন অনুচিত তেমনি কবিকেও তাঁর কবিতার দুর্বোধ্যতা নিয়ে অযাচিত প্রশ্ন করা অনুচিত।
(চলবে)


মন্তব্য ১০ টি রেটিং +৩/-০

মন্তব্য (১০) মন্তব্য লিখুন

১| ২৪ শে জুলাই, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:২৭

সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই বলেছেন: কবিতা, ছন্দ, দুর্বোধ্যতা নিয়ে আপনার কনসেপ্ট ঠিক আছে। নিজের মতো লিখে যান। লেখালেখির ক্ষেত্রে বিনয় জিনিসটা আমার ভালো লাগে; তবে হীনমন্যতা এড়িয়ে চলতে হবে। নিজের লেখা কেমন হয়েছে পাঠকের উপর ছেড়ে দিন। আপনার নিজের বিচারে আপনার খুব সাধারণ মানের একটা লেখাকে কেউ 'অসাধারণ, অতুলনীয়' বলবেন, আবার আপনি যেটাকে নিজের একটা সেরা কবিতা ভাবছেন, ওটাকে একজন এসে বলবেন 'কিছু হয় নাই।' যে কোনো লেখার জন্য যে-কোনো কমেন্ট শুনতেই প্রস্তুত থাকতে হবে। কারো কমেন্টে ক্ষেপে গেলে ক্ষতি আপনার হবে।

যিনি সহজ করে ভাবতে পারেন, তিনি সহজ করে বলতে পারেন। কবিতা তখন বোঝা যায়। অনেক বক্তা আছেন, তিনি কী বলছেন নিজেই বোঝেন না, কথা জড়িয়ে যায়। অনেক কবির কবিতা এরকম। তবে, কবিতা হোক, কিংবা গদ্য, লেখকের নিজস্ব মেধা ও দক্ষতা অনুযায়ী জটিল ও সহজবোধ্য তো হবেই। তাছাড়া, কবিতা হলো নানান অলঙ্কারে মোড়ানো কথার ব্যঞ্জনা, তাতে কিছু জটিলতা এমনিতেই থাকবে। পরিস্থিতি ও প্রেক্ষাপটও অনেক কবিতা কারো কাছে বেশি দুর্বোধ্য করে তোলে।


এটা দেখতে পারেন - বাংলা কবিতার ছন্দ

২৫ শে জুলাই, ২০২০ সকাল ১১:৫৩

রেজাউল করিম সাগর বলেছেন: আপনার মন্তব্যে আরো ভরসা পেলাম।অনেক সুন্দর করে বলেছেন কথাগুলো। অনেক ক্ষেত্রেই কবিতা অযথাই কঠিন হয়ে যায় সেসব স্বীকার করি, কিন্তু আপাত সহজবোধ্য লেখাও নাকি বোঝেন না অনেকেই। আর লেখা ত প্রথমত নিজের জন্যই।
ছন্দের যে লিঙ্কটা দিলেন সেটা খুবই তথ্যবহুল এবং বিস্তারিত করে বলা আছে। আমার কাজে লাগবে। ধন্যবাদ জানানোর ভাষা নেই। নীরেন্দ্রনাথ চক্রবর্তীর কবিতার ক্লাস পড়েছিলাম, ছন্দের ধারণা হয়েছে কিন্তু কবিতায় ব্যবহার উপযোগী হয়ে ওঠেনি আমার ছন্দ জ্ঞান। এবার চেষ্টা করে দেখবো।

২| ২৪ শে জুলাই, ২০২০ রাত ৮:৪০

আহমেদ জী এস বলেছেন: রেজাউল করিম সাগর,




কবিতা লেখা সম্পর্কে আপনার ভয় অমূলক নয়।
উপরে সহব্লগার সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই সুন্দর মন্তব্যের পাশাপাশি কবিতার ছন্দ নিয়ে একটি লেখার লিংক দিয়েছেন।
আর সাথে আমার নিজের কথা যোগ করি --
সাহিত্যের ( কবিতাও একটা সাহিত্য ) কোনও ব্যাকরণ নেই । জীবনের ধুলোময় পথে পথে যে অফুরান কাদামাখা শব্দ আর কথারা ছড়িয়ে আছে তাকে সাফসুঁতেরো করে দু'হাতের অঞ্জলীতে তুলে নৈবেদ্য সাজানোই সাহিত্য ।
আপনি ছন্দ-মাত্রা সাজিয়ে বা গদ্য আকারে যা-ই লিখুন না কেন কবিতাকে হতে হবে স্প্রীংয়ের খাটের মতো , বসলেই দোলা দিয়ে যাবে ।
আসলে কবিতা হলো, ব্যাখ্যাতীত এক সন্ধ্যেয় অব্যক্ত কথাগুলোর শ্রুতিময় রূপ।

২৫ শে জুলাই, ২০২০ সকাল ১১:৫৭

রেজাউল করিম সাগর বলেছেন: "কবিতাকে হতে হবে স্প্রীংয়ের খাটের মতো , বসলেই দোলা দিয়ে যাবে ।
আসলে কবিতা হলো, ব্যাখ্যাতীত এক সন্ধ্যেয় অব্যক্ত কথাগুলোর শ্রুতিময় রূপ।"
কবিতার এত সুন্দর এবং বাস্তব তুলনাটা ভালো লেগেছে। আসলেই তো, নিয়ম তো বানান সমালচকেরা, কবিতা আগে তারপরে ছন্দ। কবিতা ছাড়া ছন্দ অর্থহীন, ছন্দ ছাড়া কবিতার কিছুই যায় আসেনা। অনেক ধন্যবাদ আপনাকে

৩| ২৪ শে জুলাই, ২০২০ রাত ৯:২২

নেওয়াজ আলি বলেছেন: সুন্দর ও যুক্তিসংগত লেখা ।

২৫ শে জুলাই, ২০২০ সকাল ১১:৫৮

রেজাউল করিম সাগর বলেছেন: ধন্যবাদ

৪| ২৪ শে জুলাই, ২০২০ রাত ৯:৪১

খায়রুল আহসান বলেছেন: "কবিতাঃ একটি বিশুদ্ধ শিল্প" শিরোনামের এ অংশটুকু মনে ধরেছে।
২০১৬ সালের 'অমর একুশে গ্রন্থমেলা'য় আমার প্রথম কবিতার বই "গোধূলির স্বপ্নছায়া" প্রকাশিত হয়েছিল। মেলার শেষের দিকে একদিন আমি আমার প্রকাশকের স্টলের সামনে দাঁড়িয়ে কয়েকজন ক্রেতার সাথে গল্প করছিলাম। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক তরুণ ছাত্র পাশে দাঁড়িয়ে আমাদের গল্প শুনছিলেন। তিনি যখন জানতে পারলেন যে আমার প্রথম কবিতার বই প্রকাশিত হয়েছে, তিনি স্বেচ্ছায় একটা কপি কিনে নিলেন। মেলায় দাঁড়িয়ে তার বয়সী ক্রেতাদেরকে হুমায়ুন আহমেদের উপন্যাস থেকে শুরু করে বহু ধরণের বই কেনার প্রতি আগ্রহী হতে দেখেছি, শুধু কবিতার বই ছাড়া। তাই আমি তাকে জিজ্ঞাসা করেছিলাম, 'আপনি কবিতা ভালবাসেন'? হ্যাঁসূচক জবাব দিয়ে তিনি জানালেন, 'আমি যখন জানতে পারি কোন কবির প্রথম কবিতার বই প্রকাশিত হয়েছে, আমার পকেটে টাকা থাকলে আমি সেটা কিনে ফেলি। কারণ, কবিতা মানব মনের শুদ্ধতম অনুভূতি। প্রথম প্রকাশিত বইটি বিক্রীত না হলে এসব অনুভূতি বিকশিত হবেনা'।
এই যে তিনি বললেন, "কবিতা মানব মনের শুদ্ধতম অনুভূতি" - তার এ কথাটার সাথে আপনার শিরোনামের উদ্ধৃতাংশের মিল রয়েছে। কথাটা মনে পড়ে গেল বিধায় এখানে বিবৃত করলাম।
আপনি যা মনে আসে যেভাবে, লিখে যান। মাঝে মাঝে নিজের লেখাকে পুনঃপঠন করুন, সম্পাদনা করুন, এভাবেই লেখার মান পরিশীলিত হবে। আর যেহেতু সমালোচনার প্রতি আপনার মনোভাব ইতিবাচক, সমালোচকদের কথাকে আমলে নিবেন, এটাও কাজে দিবে।
উপরে দু'জন বিদগ্ধ ব্লগার চমৎকার মন্তব্য রেখে গেছেন। তাদের মন্তব্যসমূহে 'লাইক' দিয়ে আপনাকে অনুরোধ জানাচ্ছি, পাঠকের মন্তব্যের জবাব দিন, যাতে অন্য পাঠকেরাও পোস্টের লেখক-পাঠকের মিথষ্ক্রিয়ায় অংশগ্রহণ করে আলোচনাকে সমৃদ্ধ করতে পারে।

২৫ শে জুলাই, ২০২০ দুপুর ১২:০৪

রেজাউল করিম সাগর বলেছেন: প্রথম বই প্রকাশের অনুভুতি অন্যরকম! আপনার গল্পটা আমাদের সাথে শেয়ার করার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ। এরকম অনেকেই আছেন বই প্রকাশের পিছনের সংগ্রামটা বোঝেন। কিন্তু এদের সংখ্যা নিতান্তই অল্প। এমন পাঠক আরো বেশি করে থাকলে হয়তো ভালো হত। সমালোচনা সব সময়ই প্রার্থনীয়, আমি চাই পাঠক, অগ্রজ, অনুজ লেখক আমার সমালোচনা করুক। আমি রাতে ব্লগে ছিলাম না তাই উত্তর দেয়া হয়নি যার জন্য আন্তরিকভাবে দুঃখিত।
আপনার সুন্দর মন্তব্যের জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ।

৫| ২৪ শে জুলাই, ২০২০ রাত ১০:৪৩

রাজীব নুর বলেছেন: কবিতা আসলে বিলাসিতা। এটা জীবনের জন্য মৌলিক কিছু না।

২৫ শে জুলাই, ২০২০ দুপুর ১২:০৪

রেজাউল করিম সাগর বলেছেন: পাঠকের জন্য হয়তো না, লেখকের জন্য মৌলিক।

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.