নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

নানা দেশ কত কথা

কিছু দেশ দেখার সুযোগ হয়েছে এই জীবনে।ভ্রমণ আমার ভাল লাগে্‌ তাই সবার মাঝে তা জানাতে চাই।সবার উপরে ভালোবাসি বাংলাদেশ । ধন্যবাদ

শোভন শামস

আমার দেখা নানা দেশের কথা সবার জন্য - পাঠকের ভাল লাগাতেই আনন্দ

শোভন শামস › বিস্তারিত পোস্টঃ

রিপাবলিক অব ইয়েমেন - পর্ব ১

৩১ শে মে, ২০২০ রাত ৮:৪৫




সারা বিশ্বে এখন অস্থিরতা বিরাজ করছে। একদিকে করোনার প্রকোপ, অন্য দিকে অর্থনৈতিক দুরবস্থা। এর পাশাপাশি কিছু কিছু দেশে চলছে যুদ্ধের ধকল। ইয়েমেন তেমন একটি দেশ যারা যুদ্ধের ফলে চরম ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছে। ইয়েমেন নিয়ে কিছু লিখা শুরু করছি।

দুই ইয়েমেনের মানচিত্র

১৯৮৮ সালে ইয়েমেন দুই ভাগে বিভক্ত ছিল। দক্ষিণে পিপলস ডেমোক্রেটিক ইয়েমেন এবং এর রাজধানী ছিল এডেন। এটা ছিল মধ্য প্রাচ্যের একমাত্র কম্যুনিস্ট দেশ এবং এখানে একদলীয় শাসন ছিল। কম্যুনিস্ট দেশ হওয়াতে তৎকালীন ইউ এস এস আর এই দেশকে সাহায্য ও সমর্থন করত। এর জনসংখ্যা ছিল ২.৫ মিলিয়ন। এর উত্তরে ছিল আরব রিপাবলিক অব ইয়েমেন, এবং এর রাজধানী সানা। ৭ মিলিয়ন জনসংখ্যা অধ্যুষিত এই দেশটা বেশ উন্নত ছিল। ১৯৯০ সালে স্নায়ু যুদ্ধের অবসানের পর ইউ এস এস আর ভেঙ্গে যায় তখন পিপলস ডেমোক্রেটিক ইয়েমেন কে সমর্থন করার আর কেউ থাকে না। ১৯৯০ সালে দুই ইয়েমেন এক হওয়ার জন্য অনুকুল পরিবেশ সৃষ্টি হয়।

দুই ইয়েমেন এক হয়ে গেলে তৎকালীন উত্তর ইয়েমেনের প্রেসিডেন্ট আলী আব্দুল্লাহ সালেহ একীভূত ইয়েমেনের প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব গ্রহন করেন, দক্ষিণ ইয়েমেনের প্রেসিডেন্ট আলী সালেম আল বিদ ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব লাভ করেন। প্রেসিডেন্ট আলী আব্দুল্লাহ সালেহ একীভূত ইয়েমেনের প্রেসিডেন্ট হওয়ার আগে উত্তর ইয়েমেনের প্রেসিডেন্ট হিসেবে এগারো বছর ধরে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন। সানা তখন রাজধানীর মর্যাদা লাভ করে।ইয়েমেন একটা মুসলিম অধ্যুষিত দেশ, যার শতকরা ৬৫ ভাগ সুন্নি মুসলিম এবং ৩৫ ভাগ জাইদি শিয়া মুসলিম।

১৯৯০ সালে ইরাক যুদ্ধে জড়িয়ে পড়ে, ঠিক তখনি দুই ইয়েমেন এক হয়, এক হওয়ার পরেই ইয়েমেন ইরাককে সমর্থন করে, এর ফলে পশ্চিমা বিশ্ব এবং আরব দেশগুলো ইয়েমেন থেকে তাঁদের সমর্থন ও সাহায্য প্রত্যাহার করে নেয়। সেই সময় অনেক ইয়েমেনি সৌদি আরবে কর্মরত ছিল, তারা সেখানে নানা ধরনের হয়রানির শিকার হয়, অনেকে দেশে ফিরে আসতে বাধ্য হয়। এর ফলে দেশের অর্থনীতি ক্রমশ দুর্বল হয়ে পড়ে। দেশের ভেতরকার দুর্নীতি এবং দুর্বল অর্থনৈতিক অবস্থা দেশের পরিবেশ অস্থিতিশীল করে তোলে। দুই ইয়েমেনের এক হওয়ার ফলে যে উন্নতি আশা করা গিয়েছিল তা ক্রমশ জনগনকে হতাশার মাঝে ঠেলে দেয়। উন্নতির কোন আশা না দেখতে পেয়ে ভাইস প্রেসিডেন্ট আলী সালেম আল বিদ পুনরায় দক্ষিণ ইয়েমেন কে আলাদা করার চেষ্টা চালায়, এর ফলে গৃহযুদ্ধ শুরু হয়, কিছু সময় ধরে চলা এই গৃহযুদ্ধে উত্তর ইয়েমেন জিতে যায় এবং ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে তৎকালীন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী মনসুর হাদি দায়িত্ব গ্রহন করেন।

সানা শহরের দৃশ্য এখন হয়ত এই অবস্থা নেই
১৯৯৭ সালে আল কায়েদা ইন ইয়েমেন সে দেশে জিহাদি আন্দোলন শুরু করে, তারা ইয়েমেনের সরকারী বাহিনী এবং আমেরিকার সাথে যুদ্ধ ঘোষণা করে। আল কায়েদা মুলত সুন্নি মতবালম্বি তাঁদের ক্রমাগত শক্তি বৃদ্ধিতে ২০০৪ সালের দিকে উত্তরের জায়েদি শিয়ারা বিপন্ন বোধ করে এবং তারা আন্দোলন শুরু করে। এরা তাঁদের নেতার নামে নিজেদেরকে হুতি বলে দাবী করে সংগ্রাম শুরু করে। এই দলটি ইহুদি এবং আমেরিকা বিরোধী হিসেবে নিজেদেরকে প্রচার করে।

এডেন বন্দরের দৃশ্য
ছবি নেট থেকে, চলবে .........

মন্তব্য ১২ টি রেটিং +০/-০

মন্তব্য (১২) মন্তব্য লিখুন

১| ৩১ শে মে, ২০২০ রাত ৮:৫৬

কল্পদ্রুম বলেছেন: সানা শহরের ছবিটা সুন্দর।একীভূত হওয়ার পর ইরাককে সমর্থন দেওয়া ভুল ছিলো।

৩১ শে মে, ২০২০ রাত ৯:০৫

শোভন শামস বলেছেন: শুরুতেই তারা ভুল করেছিল, ফলশ্রুতিতে সেই ভুলের মাসুল দিচ্ছে সাধারণ মানুষ, এক অমানবিক পরিস্থিতি এখন বিরাজ করছে সেদেশে, সাথে থাকবেন, ধন্যবাদ।

২| ৩১ শে মে, ২০২০ রাত ১০:০৩

রাজীব নুর বলেছেন: এই বিশ্ব কখনও শান্তিময় হবে না।

৩১ শে মে, ২০২০ রাত ১১:৪০

শোভন শামস বলেছেন: আমাদেরকে এই পৃথিবীতেই বেঁচে থাকতে হবে, একটু শান্তি খুবই দরকার, সাথে থাকবেন, ধন্যবাদ।

৩| ৩১ শে মে, ২০২০ রাত ১০:০৭

চাঁদগাজী বলেছেন:



ইয়েমেনী শিয়ারা থাকে ইয়েমেনে, খায় বালি ও পাথর; কিন্তু নিজদের পরিচয় দেয়, তারা ইহুদী ও আমেরিকা বিরোধী

৩১ শে মে, ২০২০ রাত ১১:৪২

শোভন শামস বলেছেন: পাল্লা দিয়ে তাই সেখানে অশান্তি চলছে।

৪| ০১ লা জুন, ২০২০ রাত ১২:০৭

নুরুলইসলা০৬০৪ বলেছেন: হুদিরা ইহুদি না,তারা শিয়া মুসলমান আর আইএস সুন্নি মুসলমান না তারা ওহবী মুসলমান।মুসলমান হাজার ভাগে বিভক্ত।

০১ লা জুন, ২০২০ সকাল ৭:০৪

শোভন শামস বলেছেন: সঠিক অনেক ভাগ আছে, ধন্যবাদ, হুতিরা শিয়া মুসলমান।

৫| ০১ লা জুন, ২০২০ রাত ১২:১২

নুরুলইসলা০৬০৪ বলেছেন: হুদিরা ইহুদি না।এটুকু ভুল(দুঃখিত)

০১ লা জুন, ২০২০ সকাল ৭:০৪

শোভন শামস বলেছেন: সঠিক অনেক ভাগ আছে, ধন্যবাদ, হুতিরা শিয়া মুসলমান।

৬| ০১ লা জুন, ২০২০ রাত ২:১২

রুদ্র নাহিদ বলেছেন: পরের পর্বের জন্য অপেক্ষায়। ইয়েমেনে খনিজ সম্পদ কেমন আছে?

০১ লা জুন, ২০২০ সকাল ৭:০৬

শোভন শামস বলেছেন: ইয়েমেনে অনেক খনিজ সম্পদ আছে, তেল ও আছে, তবে দেশের মানুষ এখন ও গরীব। ধন্যবাদ, সাথে থাকবেন

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.