নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

আমি লেখক নই, মাঝে মাঝে নিজের মনের ভাবনাগুলো লিখতে ভাল লাগে। যা মনে আসে তাই লিখি,নিজের ভাললাগার জন্য লিখি। বর্তমানের এই ভাবনাগুলোর সাথে ভবিষ্যতের আমাকে মেলানোর জন্যই এই টুকটাক লেখালেখি।

তারেক_মাহমুদ

পৃথিবীর সব ভাল টিকে থাকুক শেষ দিন পর্যন্ত

তারেক_মাহমুদ › বিস্তারিত পোস্টঃ

বিষণ্ণতার এই শহরে

০১ লা নভেম্বর, ২০১৮ সকাল ১১:১৫

'ইট পাথরের বাড়ি সেথা ইট পাথরের ঘর
কেউ আসে না কারো কাছে সবাই যেন পর'

ছেলেবেলায় এমনি একটা কবিতা পড়েছিলাম। সেদিন এই দুটো লাইনের মর্মার্থ না বুঝলেও আজ হাড়ে হাড়ে বুঝতে পারছি। ইদানীং দম বন্ধ হয়ে আসছে এই ইট পাথরের শহরে। এত ব্যস্ত শহরের সাথে তাল মেলানো সত্যি কঠিন। যদিও গাড়িগুলো চাইলেও আগের সেই গতিতে ছুটতে পারে না, কিন্তু মানুষের ব্যস্ততা দিন যত যাচ্ছে ততই বাড়ছে। সবই নিজেকে নিয়ে ব্যস্ত অন্যকে নিয়ে ভাবার সময় কোথায়? কেউ রাস্তায় মরে পড়ে থাকলেও তাকে হসপিটালে নেওয়ার মত একটা লোক খুঁজে পাবেন না।এই শহরে প্রতিদিনই আসছে নতুন নতুন মানুষ সবারই একটাই লক্ষ্য টিকে থাকতে হবে, অন্যদের নিয়ে ভাবার সময় কই?

এই শহরের মানুষের ঘুম ভাঙ্গে কাকের কর্কশ কা কা ডাকে।কোথায় জাতীয় পাখি দোয়েল, ফিঙ্গে,বুলবুলি,বউ কথা কও? ওরা সবাই বিষাক্ত শহর ছেড়ে গ্রামে পালিয়ে বেচেছে। শুধু শহুরে নোংরা ঘেটে চলেছে প্রকৃতির ঝাড়ুদার কাক। একটুখানি ভাল থাকার আশায় কত বেকার যুবক ক্ষয় করে চলেছে জুতার তলা। ফেরিওয়ালা কারওয়ান বাজার থেকে সবজী কিনে বিক্রি করছে শহরের অলিতে গলিতে। গ্রামের অশিক্ষিত হালিমা গারর্মেন্সের ভারি সেলাই মেশিন চালচ্ছে আনায়াসে। নদী ভাঙনে সর্বস্ব হারানো আবুল মিয়া শক্ত হাতে ধরেছে রিকশার হ্যান্ডেল। অল্প শিক্ষিত বেকার যুবকটি গলির মোড়ে ফেক্সিলোডের দোকান দিয়ে বসে আছে, সবইতো একটু ভাল থাকার আশায়।

এই শহরে ফুল ফোটে না, পাখি গান গায় না,মানুষের মুখের নির্মল হাসি আজ উধাও যা আছে সেটা কর্পোরেট অফিসের রিসিপশনিষ্টের  লিপিস্টিক মাখা ঠোঁটের মেকি হাসি। শহুরে দেওয়ালের ইটের ফাকে এখন আর বটের চারা জন্মায় না।  বিকট ভেঁপু বাজিয়ে শব্দ দুষণ করে চলছে ফিটনেস বিহীন গাড়িগুলো। বিশটাকা কেজির আলুকে পোড়া তেলে ভাজলেই তৈরি হচ্ছে দামী ফেন্সফ্রাই। মোবাইল জেনারেশনের কারো সাথে কথা বলার সময় নেই, দুরের মানুষগুলো এখন কাছের মানুষ আর কাছের মানুষরা দূরে যাচ্ছে। পাড়ার টি স্টলে এখন কেউ চায়ের কাপে ঝড় তোলেন না,সেখানে লেখা আছে রাজনৈতিক আলোচনা নিষেধ।

তবুও বিষণ্ণতার এই শহরে মানুষ আসতেই থাকবে বাড়তে থাকবে যানজট। শহুরে বাতাসে উড়ছে টাকা সেই টাকা ধরতেই প্রতিদিন পঙ্গপালের মত ছুটে আসছে হাজার হাজার মানুষ।

মন্তব্য ৩৬ টি রেটিং +৮/-০

মন্তব্য (৩৬) মন্তব্য লিখুন

১| ০১ লা নভেম্বর, ২০১৮ সকাল ১১:২৪

কাওসার চৌধুরী বলেছেন:



নাগরিক জীবনের চমৎকার একটি চিত্রনাট্য। ভাল লাগলো, তারেক ভাই।

০১ লা নভেম্বর, ২০১৮ সকাল ১১:২৭

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: অনেক ধন্যবাদ সুপ্রিয় কাওসার ভাই ,

ব্যস্ত নগর জীবন সত্যি দিন দিন ক্লান্তিকর হয়ে পড়ছে।

২| ০১ লা নভেম্বর, ২০১৮ সকাল ১১:৪০

সৈয়দ তাজুল ইসলাম বলেছেন: তারেক ভাই, কেমন আছেন ভাই?

০১ লা নভেম্বর, ২০১৮ সকাল ১১:৪৪

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: ভাল আছি তাজুল ভাই, আপনারা কেমন আছেন ?

৩| ০১ লা নভেম্বর, ২০১৮ সকাল ১১:৪৮

সৈয়দ তাজুল ইসলাম বলেছেন: আলহামদুলিল্লাহ ভাই ভাল আছি। আগামী ৫ তারিখ গ্রামের বাড়ি যামু, মা ও ফ্যামিলিকে দেখতে, দু'আ করবেন।

০১ লা নভেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১২:০৭

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: প্রিয়জনদের সাথে দেখা হওয়া অনেক আনন্দের বিষয়, আপনার পরিবারের জন্য অনেক শুভ কামনা। আপনার নিরাপদ ভ্রমনের প্রত্যাশা রইলো। অনেক ধন্যবাদ তাজুল ভাই।

৪| ০১ লা নভেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১২:০০

পল্লব কুমার বলেছেন: বিষন্নতার এই শহরে পেটের ক্ষুধা মেটাতে পঙ্গপালের মত ছুটতেই হয়। কিছু করার নেই বড় ভাই।

০১ লা নভেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১২:১১

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: শহরমুখী মানুষের মানুষের এই চাপ বন্দ করা খুবই জরুরি, ভারসাম্য বলে একটা শব্দ আছে সেটাই নষ্ট হতে চলেছে। মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ সুপ্রিয় পল্লব ভাই।

৫| ০১ লা নভেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১২:০৩

হাবিব স্যার বলেছেন: শহুরে জীবনের চমৎকার ছবি

০১ লা নভেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১২:১৭

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: ধন্যবাদ হাবীব স্যার, অনেক শুভ কামনা আপনার জন্য।

৬| ০১ লা নভেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১২:৪৩

শিখা রহমান বলেছেন: নাগরিক জীবনের কঠিন বাস্তবতা তুলে ধরেছো।

ভালো লেগেছে, তবে একটু বিষণ্ণ লেগেছে। শহরটাকে ভালোবাসি যে!!

শুভকামনা তারেক। ভালো থেকো আমার প্রিয়তম শহরে।

০১ লা নভেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৩:৫৯

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: আমরা সবাই এ শহরকে ভালবাসি কিন্তু শহরের সমস্যাগুলো আমাদেরকে বিষণ্ণ করে দেয়। সুন্দর মন্তব্যের অনেক ধন্যবাদ আপু।

৭| ০১ লা নভেম্বর, ২০১৮ দুপুর ২:২০

মোঃ মাইদুল সরকার বলেছেন:
শহুরে জীবন যেন অভিপাশ না হয়।

০১ লা নভেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৫:৪১

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: আমার কাছে অভিশাপই মনে হয় বিশেষ করে ঢাকার জীবন। অনেক ধন্যবাদ মাইদুল ভাই।

৮| ০১ লা নভেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৩:২২

মহসিন ৩১ বলেছেন: সত্যিই বলেছেন। অনেক বড় বড় শহরেরই প্রান নাই, প্রাণমাতানোর জন্য কিছু উদ্যোগ থাকলেও তাতে জল ঢেলে দিয়ে পরে মৃত্যু পুরী বানানোর লোকেরাই 'এখন' এসব শহরে আপনার আমার আশপাশে বিরাজমান।

আমাদের শহরে এখন নিজেরা নিজেরা ঝগড়া ঝাটি চলতেই থাকে। এখানে কেউই যেন পাশের 'কারু সাথে বন্ধুর' মত বান্ধবীর মত কথা বলতে চায় না-- এমনই এখানের দারিদ্রতা 'বিষয়ক মুখরতা'। এসবের ভবিষ্যৎ শিক্ষা কিভাবে হবে ?

০১ লা নভেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৫:৪৫

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: শহরমুখী মানুষের স্রোত কমানো এখন সময়ের দাবী, নাহলে এ শহরকে বাচানো মুশকিল হবে।

৯| ০১ লা নভেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৩:২৩

মহসিন ৩১ বলেছেন: সত্যিই বলেছেন। অনেক বড় বড় শহরেরই প্রান নাই, প্রাণমাতানোর জন্য কিছু উদ্যোগ থাকলেও তাতে জল ঢেলে দিয়ে পরে 'যেন' মৃত্যু পুরী বানানোর লোকেরাই 'এখন' এসব শহরে আপনার আমার আশপাশে বিরাজমান। ঢাকা সব কাহিনী।

আমাদের শহরে এখন নিজেরা নিজেরা ঝগড়া ঝাটি চলতেই থাকে। এখানে কেউই যেন পাশের 'কারু সাথে বন্ধুর' মত বান্ধবীর মত কথা বলতে চায় না-- এমনই এখানের দারিদ্রতা 'বিষয়ক মুখরতা'। এসবের ভবিষ্যৎ শিক্ষা কিভাবে হবে ?

০১ লা নভেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৫:৪৬

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: ধন্যবাদ মহসিন ভাই।

১০| ০১ লা নভেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৩:৩৭

রাজীব নুর বলেছেন: তারেক ভাই চলেন গ্রামে চলে যাই। চাষবাস করি।
এই শহর আমাদের জন্য না।
আমাদের গ্রামেই যেতেই হবে। ইউরোপ তো আর যেতে পারবো না।

০১ লা নভেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:০০

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: আইডিয়া মন্দ না, তবে বেশিদিন গ্রামে থাকলেও ভাল লাগবে না, আসলে উভয় সংকট।

১১| ০১ লা নভেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৩:৩৭

রাজীব নুর বলেছেন: তারেক ভাই চলেন গ্রামে চলে যাই। চাষবাস করি।
এই শহর আমাদের জন্য না।
আমাদের গ্রামেই যেতেই হবে। ইউরোপ তো আর যেতে পারবো না।

০১ লা নভেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:০০

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: ধন্যবাদ রাজীব ভাই।

১২| ০১ লা নভেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৩:৫০

মিথী_মারজান বলেছেন: চমৎকার করে লিখেছেন ভাইয়া।
কেমন যেন মন উদাস করা।
শহরটার কিন্তু দোষ নেই।
একে যান্ত্রিকতার যাঁতাকলে আমরাই বন্দী করেছি।

০১ লা নভেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:০৪

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: একে যান্ত্রিকতার যাঁতাকলে আমরাই বন্দী করেছি। আসলেই আপু এই শহর আমাদের সংগ্রাম করতে শিখিয়েছে, আবার আমাদেরকে যান্ত্রিক করেছে তবুও ভালবাসি এই শহরকে। অনেক ধন্যবাদ মিথি আপু।

১৩| ০১ লা নভেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৪:১৩

পদাতিক চৌধুরি বলেছেন: প্রিয় তারেক ভাই ,

খুব সুন্দর অনুভূতি ব্যক্ত করেছেন। কিন্তু কি আর করা যাবে । সময় পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে এগুলো যে মেনে নিতেই হবে। সেখানে বরং আপনি যদি পুরানো কে আগলে রাখেন তাহলে মানসিক কষ্ট বাড়বে বইকি কমবে না । যদিও আমরা সবাই মনে প্রাণে চাই যান্ত্রিকতা অবসান ঘটুক । কিন্তু সবকিছু যে এখন আর আমাদের হাতে নেই ।

শুভকামনা ও ভালোবাসা জানবেন ।

০১ লা নভেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:১০

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: সবকিছু যে এখন আর আমাদের হাতে নেই । যান্ত্রিকতা বিষন্নতা বাড়ায়, আমাদের সবাইকে কাজ করে খেতে হবে তবে আবেগ বিবর্জিত ভাবে নয়, মন্তব্যের জন্য অনেক ধন্যবাদ।

১৪| ০১ লা নভেম্বর, ২০১৮ রাত ৮:১৩

সুমন কর বলেছেন: মাঝে মাঝে মনে হয়, আমরা তো রাস্তাতেই থাকি !! কিচ্ছুই করার নেই.....

০১ লা নভেম্বর, ২০১৮ রাত ৯:২৩

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: আসলেই আমাদের কিচ্ছু করার নেই, অনেক ধন্যবাদ সুমন ভাই।

১৫| ০১ লা নভেম্বর, ২০১৮ রাত ৮:৩৩

মনিরা সুলতানা বলেছেন: বিষণ্ণ শহরে বিস্তস্র লেখা।
ভালোবাসার শহর আজ বিষণ্ণতা বিলায়।

০১ লা নভেম্বর, ২০১৮ রাত ৯:২৯

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: ভালোবাসার শহর আজ বিষণ্ণতা বিলায়৷ সহমত, অনেক ধন্যবাদ মনিরা আপু।

১৬| ০২ রা নভেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১:১১

মহসিন ৩১ বলেছেন: হাঁ, অনেক কিছুই করার আছে, কাজ যে করছে এখানেই তার কর্মস্থল; তাকে তো মেনে নিতেই হবে যে কাদের জন্য এখানে একটু বেশী পাওয়া দরকার। মানা দরকার; যে , আমার কাজের মধ্যে তো দরিদ্র লোকেরা কোন শক্তি প্রয়োগ বাধা দিচ্ছে না। বরং আমিই এখানে আমার দুর্বলতার জন্য বা অন্য কারনে তাদের জীবনে একটি অহেতুক উপস্থিতি। 'ইকনোমিক এন্টিটি'। এভাবে শহরের যান্ত্রিকতায় কোন মুক্তি পাওয়া যায় না। যান্ত্রিকতাকে 'তাই' মানব-বান্ধব করতেই হবে। মানুষে মানুষে পার্থক্য ধীরে ধীরে কমে যাবে।আর শব্দ দূষণ সহনীয় মাত্রায় বাঁধাই থাকবে তখন।

আমাদের অবসর সময় গুলোকে যদি নির্দিষ্ট গন্তব্য মুখী করতে অভ্যস্ত হতে পারি আমরা তবেই কেবল অবস্থার উন্নয়ন ঘটবে প্রত্যাশিত ভাবে---- । গরীব লোকেরা আমাদের শত্রু বা পরিবেশের জন্য হুমকি হতেই পারে না , আসলে তারা যাবেই বা কোথায়??

মানুষ হচ্ছে রাসায়নিক ক্রিয়াকর্মের নিয়ামক, আমরা একটু ইচ্ছে করলেই সব প্রতিবন্ধকতাকে ছুরে ফেলে এক একজন 'নিয়ন্ত্রক' হয়ে আমাদের রাসায়নিক লেভেলকে আনন্দ ও উপভোগের মাত্রায় এনে রাখতে পারি। মানি ফ্লও বারবে।

০৪ ঠা নভেম্বর, ২০১৮ সকাল ৭:৫০

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: সুন্দর মন্তব্যের জন্য আবারও ধন্যবাদ মহসীন ভাই।

১৭| ০৮ ই নভেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১:২৫

মাহমুদুর রহমান বলেছেন: এই শহরের মানুষগুলোর মধ্যে আন্তরিকতা,পারস্পরিক শ্রদ্ধাবোধ মরে গেছে।

০৮ ই নভেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১:২৭

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: আসলেই তাই, এর কুফল আমরা পেতে শুরু করেছি।

১৮| ১০ ই নভেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:১৫

MirroredDoll বলেছেন: কথায় বলে 'সবকিছুর একটা শেষ আছে' । কিন্তু এই কথাটা ঢাকার ক্ষেত্রে প্রযোজ্য না । ঢাকা শহরের ট্রাফিক জ্যাম, পরিবেশ দূষণ, শব্দ দূষণ এই বিষণ্ণতার শেষ নেই । চলছে চলবে ।

১১ ই নভেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৫:৪৭

তারেক_মাহমুদ বলেছেন: আসলেই আপনি ঠিকই বলেছেন সবকিছুরই শেষ আছে কিন্তু ট্রাফিক জ্যামের কোন শেষ নেই। অনেকদিন পর আপনাকে পেয়ে ভাল লাগলো ভাই mirroredDoll.

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.