নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

সাহাদাত উদরাজী\'র আমন্ত্রণ! নানান বিষয়ে লিখি, নানান ব্লগে! নিজকে একজন প্রকৃত ব্লগার মনে করি! তবে রান্না ভালবাসি এবং প্রবাসে থাকার কারনে জীবনের অনেক বেশী অভিজ্ঞতা হয়েছে, যা প্রকাশ করেই ফেলি - \'গল্প ও রান্না\' সাইটে! https://udrajirannaghor.wordpress.com/

সাহাদাত উদরাজী

[email protected] ০১৯১১৩৮০৭২৮গল্প ও রান্না udrajirannaghor.wordpress.comপ্লে স্টোরে ‘গল্প ও রান্না’ এন্ড্রয়েড এপ্লিকেশন! আনন্দ সংবাদ! বাংলা রেসিপি নিয়ে এই প্রথম প্লে স্টোরে এন্ড্রয়েড এপ্লিকেশন! ‘গল্প ও রান্না’ এখন Play Store এ Apps হিসাবে আপনার হাতের কাছে। নেট কানেশন বা WiFi জোনে থেকে Play Store এ যেয়ে golpo o ranna বা “Golpo O Ranna” বা “com.udraji.rannaghor” লিখে সার্চ করলেই পেয়ে যাবেন। খুব সহজেই আপনি আপনার এন্ড্রয়েড মোবাইলে ‘গল্প ও রান্না’র আইকন ইন্সটল করে নিতে পারেন। ফলে আপনাকে আর মোবাইলে আমাদের সাইট দেখতে লিঙ্ক বা কোন ব্রাউজার ব্যবহার করতে হবে না। নেট কানেশন বা ওয়াইফাই জোনে থাকলেই আপনি ওয়ান ক্লিকেই গল্প ও রান্না দেখতে পাবেন।

সাহাদাত উদরাজী › বিস্তারিত পোস্টঃ

সব দোষ গনমানুষের নয়, তেল্বাজ মানুষের চরিত্র গনমানুষ বুঝে, সমস্যা এখানেই!

০৮ ই জুন, ২০২০ সকাল ১১:২৬

ঘটনা ১ঃ- ডা ফোরদৌস সাহেব কে প্রবেশ বাঁধা বা প্রবেশ করতে না দেয়ার দোষটা কেন জনগণের উপর চাপানো হবে? ডা ফোরদৌসের অনেক গুলো ভিডিও সহ নানান কার্য্যক্রমে তো দেখলাম তিনি সরকারের মহত্ত্ব বার বার তুলে ধরেছেন সেই আমেরিকা বসেই! তিনি দেশে ফিরে আসলে তো সরকার তাকে কোলে তুলে নেয়া দরকার ছিলো। কিন্তু সরকার এমন করলো কেন? সরকার কেন বাঁধা বা ফিরিয়ে দিতে চাইবে? যাই হোক, আমি ডা ফোরদৌসের অনেক বিষয়ে (মতামত) একমত নই, তবে তার এই ফিরে আশা এবং দেশের মানুষের চিকিৎসা দেয়ার ইচ্ছাকে সাধুবাদ জানাই।, বাঘহীন বনে তিনি বাঘের অভিনয় করতেই পারেন, আমাদের এমন কিছু বাঘের দরকার আছে! মুলত আমাদের মনে রাখা উচিত কান্নি খাওয়া চরিত্র, তোষামেদকারী চরিত্র যার জন্য কাজ করবে, সেও একদিন তাকে লাত্থি মারবে, এটাই দুনিয়ার রীতি!




ঘটনা ২ঃ- মিঃ সুলেমান সুখন সাহেব সরকারের ডাক বিভাগের 'নগদ' সার্ভিসের হেড অফ মার্কেটি, যা শুধু বড় পোষ্ট নয়, নীতি নিধারনের মত জায়গাও। এই নগদ সার্ভিস পুরাই বিকাশের নকল বা হবহু এমনি! কিন্তু এটা সরকারের হয়েও বা ফ্রীতে (রবি সবাইকে ফ্রীতেই একাউন্ট করে দিয়েছে) একাউন্ট পেয়েও (কিছু সুবিধা প্লাস লটারী) কেহ এই নগদে মানি টান্সজেকশন করতে চায় না, গ্রামের সহজ সরল মানুষ গুলোও এই একাউন্ট চালাতে চায় না। এত এত ব্যবস্থা নিয়েও সেই লাভজনক প্রতিষ্টানে আসছে না, মিঃ মাশ্রাফী মডেল হয়েও এই প্রতিষ্ঠান তুলে ধরতে পারছেন না! আমি মনে করি, এর অনেক কারনের মধ্যে এই মিঃ সুলেমান সাহেবরাও একটা কারন! মানুষ মুলত বিশ্বাস করতে চায় না এদের! বিকাশ টাকা বেশি নিচ্ছে, তবুও বিকাশে টাকা ট্যান্সফার করছে, বিকাশ বিশ্বাস করছে!



(সাধারন মানুষের সেবা করতে চাইলে আগে নিজকে প্রমান করতে হবে তিনি তেল্বাজ বা তেলাক্ত মানুষ নন! ওভার এন্ড আউট! ছবি নেট থেকে নেয়া)

মন্তব্য ১৪ টি রেটিং +২/-০

মন্তব্য (১৪) মন্তব্য লিখুন

১| ০৮ ই জুন, ২০২০ দুপুর ১২:০৮

রাজীব নুর বলেছেন: সমস্যা মানুষ নিরপেক্ষ হতে পারে না।
এ যুগের মানুষ স্বার্থ ছাড়া এক পা-ও নড়ে না।

০৮ ই জুন, ২০২০ দুপুর ১২:৩৩

সাহাদাত উদরাজী বলেছেন: ব্যাক্তি হিসাবে একজন মানুষের পছন্দ আপছন্দ থাক্তেই পারে! তবে তিনি এমন চরিত্রের নন, এটাই আগে প্রকাশ করতে হবে যে, খুব তেল দিয়ে কথা বা মিথ্যাকে পক্ষের শক্তির বানানো। এই কাজ গুলো জগন্য ব্যাপার, এই চরিত্র গ্রহ্নীয় নন।

২| ০৮ ই জুন, ২০২০ দুপুর ১২:১১

মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন: ঠিক।

০৮ ই জুন, ২০২০ দুপুর ১২:৩৩

সাহাদাত উদরাজী বলেছেন: ধন্যবাদ আপনাকে।

৩| ০৮ ই জুন, ২০২০ দুপুর ১২:২৪

ফেনা বলেছেন: সুন্দর পোষ্ট।

পোষ্টের বক্তব্য নিয়ে আর কিছুই বলার নাই। সঠিকের উপর ত আর কিছু বলার থেকে না।

০৮ ই জুন, ২০২০ দুপুর ১২:৩৪

সাহাদাত উদরাজী বলেছেন: নিজকেই বুঝতে হবে, নিজে কি করলাম, এই আর কি! যার জন্য তেল হাতে ঘুরবেন সেই একদিন সেই তেল ফেলে দিবে!

৪| ০৮ ই জুন, ২০২০ দুপুর ১২:৩৫

কল্পদ্রুম বলেছেন: পাবলিক নিয়ে যাদের তাদের পাবলিক ইমেজ ঠিক রাখা জরুরি।

৫| ০৮ ই জুন, ২০২০ দুপুর ১২:৪৪

পদ্ম পুকুর বলেছেন: নগদ শতভাগ বেসরকারি ভেঞ্চার। তারা শুধুমাত্র ডাকবিভাগের সহায়তা নিচ্ছে বিনিময়ে তাদেরকে পে করছে।

বক্তব্যে সহমত।

৬| ০৮ ই জুন, ২০২০ দুপুর ১:৩৭

ভুয়া মফিজ বলেছেন: এইমাত্র ব্লগার ঢাবিয়ানের পোষ্টে মন্তব্য করে এলাম, আশা করতে ভালোই লাগে। কিন্তু সেটা করতেও আজকাল ভয় হয়।
আপনার পোষ্ট পড়ে আবার চিন্তায় পড়ে গেলাম! :(

৭| ০৮ ই জুন, ২০২০ দুপুর ২:০৫

হাসান কালবৈশাখী বলেছেন:
ড.ফেরদৌস খন্দকার এম ডি। নিউইয়র্কের ম্যানহাটনে প্রাচীনতম মাউন্ট সিনাই হাসপাতালের একজন মেডিসিন বিশেষজ্ঞ।
নিউইয়র্কের মতো মৃত্যুপুরীতে নিজের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ১৮ ঘণ্টা হাসপাতালে কাজ করেও আবার ঘরে ঘরে গিয়ে করোনা আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসা করেছেন ডা. ফেরদৌস। অবৈধ, তথা গ্রীনকার্ড বিহীন চিকিৎসাবঞ্চিত বাংগালী ও এশিয়ান করোনা আক্রান্ত রোগীরা তাই এই সম্মুখ যোদ্ধার নাম দিয়েছেন ‘ডক্টর অব হিউম্যানিটি’বা মানবতার চিকিৎসক।

সুলাইমান সুখন করে আজহারি-মাহাজারিদের মত মোটিভেশন ব্যাবসা।

৮| ০৮ ই জুন, ২০২০ দুপুর ২:১২

নেওয়াজ আলি বলেছেন: সুন্দর লিখেছেন ।

৯| ০৮ ই জুন, ২০২০ বিকাল ৩:১২

ঢাবিয়ান বলেছেন: ডাক্তার ফেরদৌসের দ্বারা দেশ উপকৃত হতে পারার প্রভুত সম্ভাবনা আছে। সুলায়মান সুখন জাতির কি উপকার করেছে , জানা নাই।

১০| ০৮ ই জুন, ২০২০ বিকাল ৫:০৮

বিচার মানি তালগাছ আমার বলেছেন: আমি বুঝলাম না, উনি আলাদা করে 'করোনা' নিয়ে নতুন কি সহায়তা দিবেন। উনার তো যৌন সমস্যা বিষয়ে কিছু ভিডিও আছে। তাছাড়া বাংলাদেশের চেয়ে উনাকে বেশী দরকার ছিল আমেরিকাতে। বাংলাদেশে রাজধানী, ইপিজেড, বাজার প্রায় স্বাভাবিক। নামকাওয়াস্তে লকডাউন/শাটডাউন। সাধ্যের মধ্যে চিকিৎসা সেবা চলছে। তিনি আসলে যার কোন উন্নতি হবে না। আমাদের বর্তমান ফেসবুক আর জঘন্য মিডিয়া তিলকে তাল করতে উস্তাদ তা আরেকবার প্রমাণ হল...

১১| ০৮ ই জুন, ২০২০ বিকাল ৫:১৬

চাঁদগাজী বলেছেন:


ডা: ফেরদৌস কি বাংলাদেশে গিয়েছিলেন?
আপনার পোষ্ট পড়ে বুঝা যাচ্ছে না, উনি কি দেশে গিয়ে কোন সমস্যায় পড়েছেন!

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.