নির্বাচিত পোস্ট | লগইন | রেজিস্ট্রেশন করুন | রিফ্রেস

সবাই ভালো থাকুন

এ আর ১৫

এ আর ১৫ › বিস্তারিত পোস্টঃ

আল কুরআনের যে একটিমাত্র আয়াত পাল্টে দেয় ড. মরিস বুকাইলির জীবন ? তিনি কি আসলে ফেরাউন রামসি ২ ?

২০ শে মার্চ, ২০১৯ সকাল ১১:৪৪

নতুন নকিব সাহেব এই শিরনামে একটি লেখা পোষ্ট করেছেন - আল কুরআনের যে একটিমাত্র আয়াত পাল্টে দেয় ড. মরিস বুকাইলির জীবন

তার পোস্টে গিয়ে আমি নিজের মতামতটি পোস্ট করতে গিয়ে দেখলাম, তিনি আমাকে ব্লক করে রেখেছেন , তাই বাধ্য হয়ে একটা পোস্ট আকারে দিলাম । আমি আমার কমেন্ট লিখতে দেরি করে ছিলাম কারন আমার কাছে একটা শক্তিশালী রেফারেন্স ছিল, যেটা আমি এখন খুজে পাচ্ছি না, তাই দেওয়া হয় নি । সেখানে যেটা বলা হয়েছে --- মরিস বুকাভিল যে ফেরাউনের মমিটিকে ফেরাউন রামসি ২ মনে করছেন , তিনি আসলে সেটা নন । তার মৃর্তু পানিতে ডুবে হয় নি , তার মৃর্তুর কারন বাত রোগ সেটা তার মমি পরিক্ষা করে বাহির করা হয়েছে । এর পরে আমি অন্য সোর্স গুলো ঘেটে দুটো লিংক পেলাম সেটা এখানে উল্লেখ কোরলাম ।

The study in Paris showed that Ramses stood five feet seven inches tall and had red hair. They found battle wounds, arthritis, and a tooth abscess. After his procedure, he was promptly returned to Egypt without any legal trouble.
Click here please

Arthritis
He suffered from dental problems, severe arthritis, and hardening of the arteries and, most likely, died from old age or heart failure. He was known to later Egyptians as the 'Great Ancestor' and many pharaohs would do him the honor of taking his name as their own.
Ramesses II - Ancient History Encyclopedia
Please click here

উপরে যে দুটো লিংক দিলাম , সেখানে কোথাও উল্লেখ করা হয় নি ফেরাউন রামসী ২ ( যাকে রামসী ২ মনে করা হয়েছে ) এর মৃর্তু পানিতে ডুবে হয়েছে । ঐ মমিটির মৃর্তুর কারন যেহেতু পানিতে ডুবে নহে , তাই মরিস বুকাইল সাহেব যাকে ফেরাউন রামসী ২ মনে করেছিলেন, তিনি আসলে রামসী ২ নহেন । নতুন নকিব সাহেব তার লিখাতে ফেরাউন লিখেছেন কিন্তু কোন ফেরাউন সেটা উল্লেখ করেন । সেই সময়ে মিশরের রাজার উপাধী ছিল ফেরাউন এবং ফেরাউনরা কয়েক হাজার বৎসর থেকে ঐ দেশ শাসন করে এসেছে । মিশরের পিরামিডে আরো যে সমস্ত মমি পাওয়া যায় , সেগুলো আগের বিভিন্ন আমলের রাজত্ব করে যাওয়া ফেরাউনদের । ফেরাউন বলতে শুধু হযরত মুশা (আ: ) আমলের রাজাকে বুঝায় না । মোগল সম্রাট বললে শুধু একজন কে বুঝায় না --- বাবর, হুমায়ুন, আকবর, জাহাঙ্গির, শাহজাহান, আওরঙ্গজেব সহ সর্ব শেষ সম্রাট বাহাদুর শাহ জাফরকে বোঝায় । ঠিক এই ভাবে ফেরাউন বললে কয়েক শত জনের নাম আসবে । ধন্যবাদ

মন্তব্য ৯ টি রেটিং +১/-০

মন্তব্য (৯) মন্তব্য লিখুন

১| ২০ শে মার্চ, ২০১৯ দুপুর ১২:৫৫

চাঁদগাজী বলেছেন:


ফেরাউনদের নিয়ে কাহিনী লোকমুখে মক্কা নগরীতে এসেছিলো মদীনার ইহুদীদের কাছ থেকে; মক্কার লোকেরা অশিক্ষিত হওয়ায়, তারা মিশরের সঠিক ইতিহাস জানতো না; তখন থেকে হয়তো চালু হয়েছিলো যে, "ফেরাউন" নামে এক অত্যাচারী রাজা ছিলো, যা বাংলাদেশের অশিক্ষিতদের মাঝে আজো চালু আছে।

মনে হয়, এক্সোডাস ঘটেনি, এটা ইহুদীদের রচিত একটা রূপকথা। মুসা (আ: ) যখন মিশরে গিয়েছিলেন, তখন ফেরাউন ছিলেন টুটমোসে-২

২০ শে মার্চ, ২০১৯ দুপুর ১:২২

এ আর ১৫ বলেছেন: The identity of Pharaoh in the Moses story has been much debated, but many scholars are inclined to accept that Exodus has King Ramses II in mind. The Bible confirms that the Israelites were to build “supply cities, Pithom and Ramses, for Pharaoh.” Egyptian records confirm that the kings of the 19th dynasty (ca 1293–1185 B.C.E.) launched a major mili­tary program in the Levant. As part of this effort, King Seti I (ca 1290–1279 B.C.E.) built a new garri­son city, which his successor, Ramses II (ca 1279– 1213 B.C.E.), later called Pi-Ramesses. Ramses II also built a second city dedicated to his personal patron, Atum, called Per Atum. These two cities are quite possibly the biblical Ramses and Pithom.
Please click in the link

২| ২০ শে মার্চ, ২০১৯ দুপুর ১:২৪

রাজীব নুর বলেছেন: আল্লা আপনার মঙ্গল করুক।

২০ শে মার্চ, ২০১৯ দুপুর ১:৩০

এ আর ১৫ বলেছেন: আমিন

৩| ২০ শে মার্চ, ২০১৯ দুপুর ১:৩০

ইনাম আহমদ বলেছেন: হুজুরদের একটাই সমস্যা, যুক্তিতে না পারলে হয় পলায়ন করবেন বা সদলবলে গালাগালিসমেত আক্রমণ করবেন। ব্লগের বর্তমান পরিস্থিতিতে অবশ্য গালমন্দ করার সুযোগ কম, তাই তাঁরা ব্লকিং নামক অব্যর্থ অস্ত্র ব্যবহার শুরু করেছেন।
ফেরাউন বা ফ্যারো বলতে একটি প্রাচীণ মিসরীয় রাজবংশকে বোঝানো হয়। সেই লাইনটা শেষ হয় রাণী সপ্তম ক্লিওপেট্রার মাধ্যমে। এখন প্রমাণিত ইতিহাসের বিপরীতে একজন কাল্পনিক ফেরাউন, যিনি টানা চারশো বছর রাজত্ব করেছেন, মুখের বাণী দিয়ে নীলনদের পানিপ্রবাহ নিয়ন্ত্রণ করেছেন, আরও কত কি হাবিজাবি, সেসব অন্ধভাবে বিশ্বাস করা যদি ইসলামের মূল বিশ্বাসের অংশ হয়, উম্মাহর কপালে দুঃখ আছে নিশ্চিত।

২১ শে মার্চ, ২০১৯ দুপুর ১:০১

এ আর ১৫ বলেছেন: বিষয়ের সমস্যা অনেক গভিরে । এর থেকে পরিত্রান পাওয়া সহজ নহে । ধন্যবাদ

৪| ২০ শে মার্চ, ২০১৯ দুপুর ১:৩৬

গড়ল বলেছেন: কোন ধর্মিয় পোষ্টে জ্ঞান দিতে যাওয়াটাও একটা বোকামি :) :D

২১ শে মার্চ, ২০১৯ দুপুর ১:০৪

এ আর ১৫ বলেছেন: ঠিক কথাই বলেছেন --- আমি ঐ ব্লগে পোষ্ট দিতে ব্যর্থ হয়ে, এই ভাবে আলাদা ভাবে পোস্ট দিতে হোল । এই পোস্ট দেওয়ার পর ঐ ভদ্রলোকের কোন মনভোব এখন জানা যায় নি ।

৫| ২০ শে মার্চ, ২০১৯ রাত ১০:১৬

হাসান কালবৈশাখী বলেছেন:
চাঁদগাজী বলেছেন:


ফেরাউনদের নিয়ে কাহিনী লোকমুখে মক্কা নগরীতে এসেছিলো মদীনার ইহুদীদের কাছ থেকে;
মদিনা (ইয়াসরিব) এর ইহুদীরা মক্কায় আসতো বাজার করতে
মক্কার লোকেরা অশিক্ষিত হওয়ায়, তারা বেতলেহেম বা মিশরের সঠিক ইতিহাস জানতো না; তখন থেকে হয়তো চালু হয়েছিলো যে, "ফেরাউন" নামে এক অত্যাচারী রাজা ছিলো,

আপনার মন্তব্য লিখুনঃ

মন্তব্য করতে লগ ইন করুন

আলোচিত ব্লগ


full version

©somewhere in net ltd.